শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০
চট্টগ্রামের সাবেক এমপি চেমন আরা তৈয়বের দুই মাসের মধ্যে পদোন্নতি
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান পদে চট্টগ্রাম থেকে এই প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন নারী নেত্রী চেমন আরা তৈয়ব। মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে ও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জাতীয় মহিলা সংস্থার নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ পেয়েছেন সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য চেমন আরা তৈয়ব। তাকে দুই বছরের জন্য এই নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি জাতীয় মহিলা সংস্থার চট্টগ্রামের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। চেয়ারম্যান চেমন আরা তৈয়বের স্বামী ডা. মোহাম্মদ আবু তৈয়ব চট্টগ্রামের সাবেক সিভিল সার্জন। জাতীয় মহিলা সংস্থা আইন, ১৯৯১ অনুসারে তাকে এই নিয়োগ দিয়ে মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম গত ১৬ মে মারা যান। নিয়োগ অবৈতনিক উল্লেখ করে আদেশে বলা হয়, মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে সরকার ইচ্ছা করলে যেকোনো সময়ে এ মনোনয়ন বাতিল করতে পারবে। তিনিও নিজে পদত্যাগ করতে পারবে বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। চেমন আরা তৈয়ব ২০০৮ সালে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন।
বদর পুকুর সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করার তাগিদ দিলেন চসিক প্রশাসক
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহান অলীদের স্মৃতিধন্য বদর পুকুর। এটি একটি প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহাসিক স্থান। এটিকে রক্ষা করা সকলেরই দায়িত্ব। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ প্রকল্পের কাজ এখন শেষ পর্যায়ে। অবশিষ্ট কাজ সম্পন্ন হলে বদর পুকুর শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও একটি আধ্যাত্মিক পর্যটন স্থান হিসেবে সার্বজনীনতা পাবে। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর ) বিকেল ৩টায় আন্দরকিল্লাস্থ পুরাতন নগর ভবনের আবদুস সাত্তার মিলনায়তনে এক সভায় চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন এসব কথা বলেন। এসময় পুকুরের একাংশে ভূমি নিয়ে রিরোধ মিটিয়ে শেষ করার বিষয়ে একাত্মতা প্রকাশ করেন সবাই। এসময় তিনি এলাকাবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে বাকী কাজটুকু শেষ করার তাগিদ দেন। সভায় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ার ফরহাদুল আলম, ভূমি কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম, প্রশাসক মহোদয়ের একান্ত সচিব আবুল হাশেম। বদরপাতি এলাকাবাসীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সহ সভাপতি হারুন জামান, ৩২নং আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও চট্টগ্রাম সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস সাবেক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ নোমান লিটন, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগনেতা মহিউদ্দিন শাহ্, বদর পুকুর পাড়স্থ যুবকণ্ঠের সভাপতি নুরুল হুদা, বদর আউলিয়া মাজার শরীফের মোতোয়ালি সৈয়দ আবুল হাশেম, আখতার আজিম খান, দিদার আজিম খান, মাহমুদ উল্যাহ্, হাবিব উল্যাহ্, জসিমউদ্দিন, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল বশর, নগর স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা জানে আলম, যুবকণ্ঠের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস জ্যাকী, সুমন, মোরশেদ প্রমুখ। সভায় উপস্থিত এলাকাবাসী বদর পুকুর সংস্কার প্রকল্পের অবশিষ্ট কাজ দ্রুত শেষ করার বিষয়ে একাত্মতা প্রকাশ করে সিটি কর্পোরেশনকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এসময় বক্তারা চলমান প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে এজন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করেন এবং প্রকল্পের কাজে অনিয়মের ব্যাপারে তদন্তের আশ্বাস দেন। তিনি এসময় আবারো প্রকল্পের অসমাপ্ত কাজ সকলের সহযোগিতা নিয়ে দ্রুত শেষ করার ব্যাপারে দৃঢ সংকল্প ব্যক্ত করেন। উল্লেখ্য,২০১৮ সালে বদর শাহ পুকুর সংস্কার ও আধুনিকায়নের উদ্যোগ নিয়েছিলেন তৎকালীন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। ২ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। যা ২০১৮ সালের ১৫ জুলাই থেকে এ পুকুরের সংস্কার ও আধুনিকায়নের কাজ শুরু হয় ।
শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ইয়াবাসহ দুই জনকে আটক করেছে- Rab
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ৬৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে Rapid Action Battalion (Rab)। এ সময় ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) Rabর পক্ষ থেকে ইয়াবাসহ দুইজনকে আটকের বিষয়টি জানানো হয়। আটক দুইজন হলো- মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং থানাধীন বালিগাঁও এলাকার আকরাম আলী খানের ছেলে মো. হাবিবুর রহমান (৬৩) ও কক্সবাজার জেলার রামু থানাধীন করলিয়ামুরা এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে আরিফ উল্লাহ (১৯)। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন নিউজ একাত্তরকে বলেন, কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ৬৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। আটক দুইজনকে কর্ণফুলী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। Rab-7 এর সহকারী পুলিশ সুপার মো. মাশকুর রহমান নিউজ একাত্তরকে বলেন, কক্সবাজার থেকে ট্রাকে করে ইয়াবা নিয়ে মুন্সিগঞ্জ যাচ্ছিল তারা। দীর্ঘদিন ধরে তারা ইয়াবার ব্যবসা করে আসছে। আটক হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের একটি মাদক মামলা রয়েছে।
মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তির দাবি জানিয়েছে আস্তানায়ে জহির ভান্ডার
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করার অভিযোগে হয়রানিমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রখ্যাত ইসলামি গবেষক ও চিন্তাবিদ মুফতি আল্লামা হযরত আলাউদ্দিন জিহাদী (ম.জি.আ.) গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও মুক্তির দাবি জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া আস্তানায়ে জহির ভান্ডারের সাজ্জাদানশীন, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা'আত বাংলাদেশ এর কার্যনির্বাহী সদস্য ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) নির্বাহী সদস্য পীরজাদা মুহাম্মদ মহরম হোসাইন মাইজভান্ডারি। ২৩ সেপ্টেম্বর বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে পীরজাদা সাংবাদিক মুহাম্মদ মহরম হোসাইন মাইজভান্ডারি বলেন, মুফতি আল্লামা হযরত আলাউদ্দিন জিহাদী (ম.জি.আ.) ফেইজবুক পেইজ থেকে এডমিন কর্তৃক ভুলবশতঃ আল্লামা শাহ আহমদ শফি হুজুরকে নিয়ে একটি কুটুক্তিমূলক স্ট্যাটাস দেওয়া হয়। যা আলাউদ্দীন জিহাদী জানতেন না। উক্ত পোষ্টটি মুফতি সাহেবের দৃষ্টিগুচর হওয়ার সাথে সাথে এই কুরুচিপূর্ন স্ট্যাটাস ডিলেট করেন ও অত্যন্ত মার্জিত ভাবে মুফতি সাহেব দুঃখ প্রকাশ করে পুনঃরায় একটি স্ট্যাটাস দেন এবং সেই সাথে আগামিতে এমন কোন কিছু না হওয়ার দায়িত্ব নিয়ে একটি ভিডিও বার্তাও প্রকাশ করেন। মুফতি সাহেব স্বেচ্ছায় ফতুল্লা থানা পুলিশকে এ বিষয়ে অবহিতও করে। কিন্তু মুফতি আলাউদ্দিন নিজে লজ্জিত ও দুঃখ প্রকাশ করার পরও কোন অদৃশ্য শক্তির কারণে পুলিশ কোনপ্রকার গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়া মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেন তা আমার বোধগম্য নয়? এ ঘটনা জাতির জন্য, মানবতার জন্য, শান্তিপ্রিয় মানুষের জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক ও বেদনাদায়ক। যা আমি নিজেও একজন সুন্নী, রাসূলপ্রেমিক এবং স্বাধীনতার চেতনাই বিশ্বাসী নাগরিক হিসেবে মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। এছাড়াও বাংলাদেশের সকল সুন্নী জনতা ও বিভিন্ন দরবারের সাজ্জাদানশীন পীর, বুজুর্গ, ওলামা-মশায়েখগণ জিহাদীর এ গ্রেফতারে ব্যতিত ও মর্মাহত। যা বুঝানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। মাওলানা জিহাদীর মুক্তির জন্য আমাদের একটাই পথ আছে তাহলো আন্দোলন ও রাজপথে দাঁড়ানো। কিন্তু আমরা সুন্নীজনতা স্বাধীনচেতা ও শান্তিপ্রিয়। আমরা এটা করতে চাই না। তাই আমি মাওলানা আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তির জন্য সত্য ও ন্যায়ের বলিষ্ঠ কন্ঠ, আমাদের শেষ আশ্রয়স্থল এবং ঠিকানা, মানবতার মা বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। সেই সাথে মহান আল্লাহর দরবারে আস্তানায়ে জহির ভান্ডারের পক্ষ থেকে প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘজীবন কামনা করছি। আমিন উল্লেখ্য, আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করে স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে গত ২০ সেপ্টেম্বর রোববার নারায়ণগঞ্জ মহানগর ওলামা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মুফতি হারুনুর রশিদ ফতুল্লা মডেল থানায় ৪ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন।
মাদক সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ নির্মুলে Rab অতন্দ্র প্রহরীর ভুমিকা পালন করছেঃ সুজন
২২সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সমাজে মাদক,সন্ত্রাস ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় Rab আন্তরিকতা ও দক্ষতার সাথে কাজ করছে বলে উল্লেখ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক আলহাজ্ব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন। তিনি বলেন, বিগত সময়ে দেশের মাদক সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের করাল থাবায় দেশে যখন একের পর অঘটন ঘটছিলো তখন Rab অতন্দ্র প্রহরী হয়ে কাজ করেছে। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় Rab-7 এর সদর দপ্তরে Rab এর অধিনায়ক লে.কর্ণেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল. পিএসসির সাথে সৌজন্য বৈঠকে প্রশাসক এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, Rab এর কার্যকর পদক্ষেপের সুফল মাঠ পর্যায়ে প্রভাব ফেলছে। আগামীতেও Rab এর এই ফলদায়ক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এসময় প্রশাসক চসিকের গৃহিত সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী কার্যক্রম তুলে ধরে বলেন, ইতোমধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে চসিক প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে মাদক বিরোধী কমিটি গঠন,লিফলেট বিতরণ ও সভা সমাবেশ করেছে। তিনি বলেন, আমি দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই নগরে শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন সেবা সংস্থা ও আইন শৃংখলা বাহিনীর সাথে দফায় দফায় বৈঠক করে করনীয় ও কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। তাই যে কোন বিষয়ে আমার শতভাগ দিয়ে আইন শৃংখলা বাহিনীকে সহায়তা করবো। আইন শৃংখলা রক্ষা ও সমাজিক অবক্ষয় রোধে চসিকের উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানিয়ে Rab এর অধিনায়ক বলেন আমাদের পক্ষ থেকেও চসিকের সকল কার্যক্রমে সর্বাত্মক সহায়তা প্রদান করা হবে। বৈঠকে Rab এর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
সীতাকুণ্ডে জিপিএইচ ইস্পাত কারখানায় ৭ শ্রমিক দগ্ধ
২২সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুণ্ডের ছোট কুমিরা এলাকায় অবস্থিত জিপিএইচ ইস্পাত কারখানায় কাজ করার সময় গলানো উত্তাপ্ত লোহার সিলকা গায়ে পড়ে ভারতীয় নাগরিকসহ ৭ জন শ্রমিক দগ্ধ হয়েছে। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪ টার সময় এ ঘটনা ঘটে। দগ্ধ শ্রমিকরা হলো নুরুজ্জামান (৪০), শাহিন আলম(২৮),আমির হোসেন(২৭),কে ওয়াল সিং (৪৬) এবং টিপু সুলতান(৩৩),রাবিন্দ্র(২৫), শহিদুল ইসলাম(২৭)। তারা বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩৬নং বান এন্ড প্লাস্টিক সার্জারী ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন। চমেক পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জনিয়েছেন, জিপিএইচ ইস্পাত কারখানায় লোহা গলানোর ফার্ণেস থেকে হঠাৎ ছুটে আসা উত্তপ্ত সিলকা এসে গায়ে পড়লে ৭ কর্মচারীর শরীরের বিভিন্ন কিছু অংশ পুড়ে যায়। পরবর্তীতে তাদেরকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার তাদেরকে ৩৬নং বান এন্ড প্লাস্টিক সার্জারী ওয়ার্ডে ভর্তি দেন। আহত শ্রমিকদের শরীরের ১১-১৫ শতাংশ দগ্ধ হলেও তারা বর্তমানে আশংকামুক্ত আছেন বলে জানান তিনি। এব্যাপারে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বনিক বলেন, চমেক হাসপাতাল থেকে শুনেছি জিপিএইচ কারখানায় কয়েকজন শ্রমিক দগ্ধ হয়েছে। তবে এটি তেমন বেশি নয়।
জীবন রক্ষার বদলে মারাত্মক মৃত্যুর ঝুঁকি
২২সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে করোনার সংক্রমণ শুরুর পর মাস্ক, গ্লাভস কিংবা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের যেমন চাহিদা বেড়েছে, তেমনি চাহিদা বেড়েছে পাল্স অক্সিমিটারসহ ব্লাড প্রেসার কিংবা জ্বর মাপার ইমপ্যাক্ট থার্মোমিটারের। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সাথে লড়তে কমবেশি প্রতিটি ঘরেই মজুদ রয়েছে এসব মেডিকেল ইকুইপমেন্টের। কিন্তু চাহিদা বাড়ার এমন সুযোগে নকল, নিম্মমানের এবং মানহীন মেডিকেল ইকুইপমেন্ট ছড়িয়ে দিয়েছে একটি চক্র। যা পুরোদমে ছড়িয়ে পড়েছে চট্টগ্রামে ছোট বড় প্রতিটি দোকান কিংবা ফার্মেসিতেই। বাদ পড়েনি বাসা-বাড়ি কিংবা হাসপাতালও। আর এতে জীবন রক্ষার বদলে মারাত্মক মৃত্যুর ঝুঁকিতে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। তেমনি এ চক্রটি হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকাও। গতকাল সোমবার নগরীর তিন প্রতিষ্ঠানে অভিযানের পর এমন ভয়াবহ তথ্য ওঠে আসে। যাতে প্রাথমিক পর্যায়ে চট্টগ্রাম নগরীতে তিনটি প্রতিষ্ঠানের খোঁজও পেয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থা। এ তিনটির বাইরেও এমন সামগ্রী বিক্রি ও তৈরিতে জড়িত আরও একাধিক প্রতিষ্ঠানকে নজরেও রেখেছে ওষুধ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অতিরিক্ত লাভের আশায় এসব সামগ্রী সরবরাহ করছে। মূলত কম দামে নামিদামি কোম্পানির সমমান ও চীন থেকে নিম্মমানের যন্ত্রাংশ নিয়ে এসে ছড়িয়ে দিচ্ছেন চক্রটি। যার বেশিরভাগই সাধারণ মানুষদের গছিয়ে দিচ্ছেন তারা। সাধারণ মানুষও আসল-নকল যাচাই করতে না পেরে ক্রয় করে পড়ছেন মৃত্যুর ঝুঁকিতে। তবে এসব নিম্ম ও মানহীন সামগ্রী বিক্রি এবং তৈরি ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ওষুধ প্রশাসন কর্তৃপক্ষ জানায়, রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণ মাপতে প্রয়োজন হয় অক্সিমিটারের। করোনাকালে মাস্ক-গ্লাভসের মতো এ মেশিনটির ব্যপকহাড়ে চাহিদা বাড়তে থাকে। সুযোগকে নিম্ম ও মানহীন এমন যন্ত্র ছড়িয়ে পড়েছে নগরীসহ চট্টগ্রামে। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ভুল তথ্যই দিয়ে থাকে। এসব যন্ত্রপাতি বিদেশ থেকে আমদানি করা হলেও বেশিরভাগই নিম্মমানের। যার কারণে গুরুত্বপূর্ণ এসব যন্ত্রপাতির ভুল রিপোর্টে বিভ্রান্ত হচ্ছেন রোগীরা। যাতে মৃত্যুর ঝুঁকিও বাড়ছে বলে অভিমত তাদের। এরমধ্যে গতকাল সোমবার অভিযানে পাওয়া এমন মানহীন অক্সিমিটারে একই ব্যক্তির শরীরের ভিন্ন ভিন্ন তথ্য পাওয়া গেছে। যা দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেন স্বয়ং ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসানের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও। এ প্রসঙ্গে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের সহকারী পরিচালক হোসাইন মোহাম্মদ ইমরান বলেন, নিম্মমানের এসব মানহীন গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রগুলো ছড়িয়ে পড়ার তথ্য ছিল। যার প্রেক্ষিতে অভিযানও পরিচালনা করা হয়। অভিযানে রীতিমতো চমকে ওঠার মতো গোঁজামিলের চিত্র উঠে আসে। যেখানে একই যন্ত্র দিয়ে একই ব্যক্তির শরীরে ভিন্ন ভিন্ন রিডিং আসতে থাকে। এতে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে এই যন্ত্রগুলো ভুয়া। শুধু অক্সিমিটারই নয়, মানুষের ব্লাড প্রেসার মাপার যে যন্ত্র আছে, তাও মানহীন পাওয়া গেছে। এমন আরও কিছু প্রতিষ্ঠানের খোঁজ রয়েছে। যাতে শীঘ্রই অভিযান চালানো হবে। এদিকে ওষুধ প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, নগরীর হাজারী গলিসহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আশপাশে এমন সামগ্রী সরবরাহ করা অন্তত শতাধিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যাদের বেশিরভাগই এমন কাজের সাথে জড়িত। যাদের বিরুদ্ধে আগ থেকেই একই অভিযোগ ছিল। কিন্তু করোনাকালে এসেও তারা এমন অসাধু কাজে জড়িয়ে পড়ছে। তবে প্রতিষ্ঠানগুলো চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক। তিনি বলেন, করোনা মহামারীতেও কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্যে মানুষের জীবন নিয়ে খেলা করছে। তবে এসব প্রতিষ্ঠান ও ব্যবসায়ীদের নজরে রাখা হয়েছে। যারা স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ও মানহীন মেডিকেল ডিভাইস বিক্রয় করে মানুষের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে। তবে এসব ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে চিহ্নিত করে যাদের বিরুদ্ধে প্রমাণ পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
প্রগতিশীল লেখক ফোরাম: ইনামুল হক দানু ছিলেন গণতন্ত্র ও অসম্প্রদায়িক চেতনার সিংহ পুরুষ
২২সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রগতিশীল সংবাদপত্র পাঠক লেখক ফোরামের স্মরণ সভায় বক্তারা বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইনামুল হক দানু ছিলেন, রাজপথের লড়াকু সৈনিক এবং গণতন্ত্র ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার সিংহ পুরুষ। প্রগতিশীল সংবাদপত্র পাঠক লেখক ফোরাম, কেন্দ্রিয় কমিটির উদ্যোগে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও অত্র সংগঠনের প্রয়াত প্রধান পৃষ্ঠপোষক, ১৯৭১ সালের রণাঙ্গণের বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইনামুল হক দানুর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণ সভায় বক্তারা এ কথা বলেন। সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. এনামুল হক লিটনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাহেনা আক্তারের সঞ্চালনায় গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর অক্সিজেন সংলগ্ন সংগঠন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে সংগঠনের উপদেষ্টা ও প্রবীণ শ্রমিক লীগ নেতা মো. নুরুল হক জেহাদী, আওয়ামী লীগ নেতা মো. নুরুল আলম, সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক অলিউল্লাহ অলি, দপ্তর সম্পাদক মো. মাসুদ রানা, প্রচার সম্পাদক ইমদাদুল হক ইমন, যুবলীগ নেতা নুরুল কবির স্বপন, কবি হামিদুল ইসলাম দূর্জয়, আমিনুল হক জুয়েল, সামশুল হক সুমন, ইয়াছিন আরাফাত রকি মো. কাজলসহ আরো অনেকে বক্তব্য রাখেন। সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে মো. এনামুল হক লিটন বলেন, ষাটের দশকের শেষ পর্যায়ে বাঙালির অধিকারের অগ্নিঝরা সংগ্রামের অত্রসৈনিক, ১৯৭১ সালের রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধকালীন বিএলএফের গ্রুপ কমান্ডার ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক কাজী ইনামুল হক দানু মৃত্যুর আগ মুহুত্ব পর্যন্ত বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় এবং মানব কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তাঁর অবদান অপরিসীম উল্লেখ করে তিনি এর স্বীকৃতি স্বরুপ চকবাজার অলিখাঁ মসজিদ মোড়কে কাজী ইনামুল হক দানুর নামে সড়কের নাম করণের দাবী জানান। সভায় শুরুতে বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইনামুল হক দানুর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে ০১ মিনিট নিরবতা পালন ও আত্নার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর