চট্টগ্রামে ২৬২ কার্টন সিগারেট জব্দ
১৮জানুয়ারী,শনিবার,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক যাত্রীর কাছ থেকে ২৬২ কার্টন সিগারেট জব্দ করা হয়েছে। এরপর সিগারেটগুলো জব্দ করে বিমানবন্দর কাস্টমসকে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য হস্তান্তর করা হয়। শুক্রবার রাত পৌনে ১০টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিমানবন্দর কাস্টমস, কাস্টমস ইন্টেলিজেন্সের সহায়তায় চালানটি জব্দ করে এনএসআই টিম। বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, শারজাহ থেকে এয়ার এরাবিয়ার জি৯-৫২৩ ফ্লাইটে হাটহাজারীর বাসিন্দা আমিনুল হক চট্টগ্রাম আসেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার ব্যাগেজ তল্লাশি করে ২৬২ কার্টন ইজি লাইট ব্রান্ডের সিগারেট পাওয়া যায়।
অদ্বৈতানন্দ গুরুগৃহে শ্রীশ্রী শিব-রাস উৎসব পালন
১৭জানুয়ারী,শুক্রবার,কমল চক্রবর্তী, বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া থানাধীন উত্তর বেতাগী গ্রামে অবস্থিত শ্রীশ্রী অদ্বৈতানন্দ গুরুগৃহে শ্রীমৎ স্বামী পূর্ণানন্দ পুরী মহারাজের ১৮ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে শ্রীশ্রী শিব-রাস উৎসব পালিত হচ্ছে। ১৭ই জানুয়ারী থেকে ১৯শে জানুয়ারী পর্যন্ত তিন দিন ব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠান মালার মধ্যে রয়েছে শ্রীশ্রী চণ্ডীযজ্ঞ, শ্রীমদ্ভগবত পাঠ, মহতী ধর্মসভা, ঋষি সন্মেলন ও অষ্ট প্রহর ব্যাপী নামযজ্ঞ। আজ শুক্রুবার ১৭ই জানুয়ারী মঙ্গল আরতি ও ঊষাকীর্তনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় দিনের অনুষ্ঠান মালা। সন্ধ্যায় শ্রীশ্রী শিব-রাস উৎসব ও মহানামযজ্ঞের শুভঅধিবাস।এতে পুরোহিত্ব করেন শ্রী শ্রী অদ্বৈতানন্দ গুরুগৃহের প্রতিষ্ঠাতা শ্রীমৎ স্বামী জীবনানন্দ পুরী মাহারাজ। উক্ত অনুষ্ঠানে ঋষি মঞ্চে আশীর্বাদক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ঋষিধাম বাঁশখালীর মোহান্ত মহারাজ শ্রীমৎ স্বামী সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ, প্রধান অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বোয়ালখালীর মেধস আশ্রম এর অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী বুলবুলানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ। মহান অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, বাঙ্গালহালিয়ার সনাতন ঋষি আশ্রমের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী সনাতন ঋষি মহারাজ, বাঙ্গালহালিয়ার জ্যোতিশ্বর বেদান্ত মঠ ও মিশন এর অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী অভেদানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ, চন্দ্রঘোনার জ্যোতিশ্বরানন্দ রক্ষাকালী মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা শ্রীমৎ স্বামী গুরুকৃপানন্দ ব্রহ্মচারী। প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক শ্রী স্বদেশ চক্রবর্তী । সন্মানিত আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চুয়েটের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ডঃ শ্রী রণজিৎ কুমার সুত্রধর ও চুয়েটের সেকশন অফিসার শ্রী কিরন শীল (শ্রী কৃষ্ণকৃপালব্ধ)। বিশেষ অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ৭নং বেতাগী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুতুবুল আলম, এশিয়াটিক ইভেন্টস মার্কেটিং লিঃ এর এসোসিয়েট এক্সজিকিউটিভ ডিরেক্টর শ্রী মানস পাল, বাংলাদেশ রেলওয়ে টি, টি,ই ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির প্রাক্তন সভাপতি শ্রী পীযূষ কান্তি দত্ত প্রমুখ। অনুষ্ঠানের আয়োজক শ্রীমৎ স্বামী শিবানন্দ পুরী ব্রহ্মচারী জানান, এই শিব-রাস উৎসব বাংলাদেশে প্রথম হচ্ছে। উক্ত অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে আছে নানা দেব দেবীর প্রতিমা প্রদর্শন। দূর দুরান্ত থেকে বহু ভক্তের সমাগম ঘটেছে। ১৮ই জানুয়ারী অষ্ট প্রহরব্যাপী মহানাম যজ্ঞ চলবে এবং ১৯শে জানুয়ারী শ্রীশ্রী শিব-রাস উৎসব ও মহানামযজ্ঞের পূর্ণাহুতির মধ্য দিয়ে শেষ হবে তিন দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালার।
১১ মামলার আসামী মাদক সম্রাজ্ঞী সহযোগীসহ RAB এর হাতে আটক
১৭জানুয়ারী,শুক্রবার,কমল চক্রবর্তী, বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুন্ড থানাধীন কুমিরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৯৬৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ১১৫০ কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ ১১ মামলার আসামী মাদক সম্রাজ্ঞী মিনুয়ারা আকতার মিনু ও তার সহযোগী মোঃ জামাল হোসেন (৫০)কে গ্রেফতার করেছে RAB-7। শুক্রবার ১৭ই জানুয়ারি সকাল ৭ টার সময় RAB এর একটি টহল দল সীতাকুন্ড থানাধীন কুমিরা উত্তর সোনাইছড়ি, সোনারপাড়া মিনু আকতারের বাড়ি্তে অভিযান চালিয়ে ৯৬৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ১১৫০ কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ ১১ মামলার আসামী মাদক সম্রাজ্ঞী মিনুয়ারা আকতার মিনু ও তার সহযোগী মোঃ জামাল হোসেন (৫০)কে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান RAB-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মো. মাহমুদুল হাসান মামুন। গ্রেফতারকৃতরা হল মিনুয়ারা আকতার মিনু (৫২) সীতাকুন্ড থানার সোনার পাড়া,উত্তর সোনাইছড়ি গ্রামের ফজলুল হক এর স্ত্রী এবং মোঃ জামাল হোসেন (৫০) সীতাকুন্ড থানার রহমত পুর গ্রামের মৃত মোঃ আমিন এর ছেলে। RAB-7 এর সহকারী পরিচালক এএসপি কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ জানান, এক গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারি যে, চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড থানাধীন কুমিরা উত্তর সোনাইছড়ি, সোনারপাড়া মিনু আকতারের বাড়ির ভিতর কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদক দ্রব্য ক্রয় বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে RAB এর একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। এসময় আসামীদের দেহ তল্লাশি করে তাদের হাতে থাকা শপিং ব্যাগের ভিতরে সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ৯৬৭ পিস ট্যাবলেট এবং সহযোগী মোঃ জামাল হোসেন এর হাতে থাকা প্লাস্টিকের শপিং ব্যাগের ভিতরে কাগজে মোড়ানো বস্থায় ১১৫০ কেজি (৫০০ পুরিয়া) গাঁজা উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান,আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবীদের কাছে মাদকদ্রব্য ক্রয় বিক্রয় করে আসছে। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৪ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা বলেও জানান। গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের সীতাকুন্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, মাদক সম্রাজ্ঞী মিনুয়ারা আকতার মিনুর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড থানায় এর আগে ১১ টি মামলা রয়েছে।
পটিয়ার শান্তিরহাটে দুটি বাসের সংঘর্ষে নিহত ২
১৭জানুয়ারী,শুক্রবার,পটিয়া প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের শান্তিরহাট এলাকায় একটি লোকাল বাস ও শ্যামলী বাসের সাথে সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরো অন্তত ৬ জন আহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন পটিয়া হাইওয়ে থানার ইনচার্জ বিমল চন্দ্র ভৌমিক। বিমল চন্দ্র ভৌমিক নিউজ একাত্তরকে বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। আহত পাঁচ থেকে ছয়জনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল হক ভুইঁয়া নিউজ একাত্তরকে জানান, শান্তিরহাট এলাকায় দুটি বাসের দুর্ঘটনায় দু্ইজন নিহত হয়েছেন। আহত অবস্থায় আহত কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাদের মধ্যে দুইজনকে মৃত ঘোষণা করেন।
নগরীতে ১৫ কোটি টাকা মূল্যের কোকেইনসহ ১ জন আটক
১৬জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালী থানাধীন টাইগারপাস এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৫ কোটি টাকা মূল্যের ৮২০ গ্রাম কোকেইনসহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে Rab-7। বৃহস্পতিবার ১৬ই জানুয়ারি দিবাগত রাত ১:৩০ মিনিটের সময় Rab এর একটি টহল দল নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন টাইগারপাস এলাকায় পলোগ্রাউন্ড বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশে টাইগারপাস হতে নিউমার্কেট গামী পাকা রাস্তার পাশে ফুটপাতের উপর অভিযান পরিচালনা করে ৮২০ গ্রাম কোকেইনসহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মো. মাহমুদুল হাসান মামুন। গ্রেফতারকৃত মোঃ বখতেয়ার হোসেন (৩২) রাউজান থানার ঝুইপাড়া (সফি মেম্বারের বাড়ি)এলাকার জাফর আহম্মেদ এর ছেলে। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক এএসপি কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ জানান, এক গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারি যে, নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন টাইগারপাস এলাকায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদক দ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় এর উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে Rab এর একটি টহল দল নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন টাইগারপাস এলাকায় পলোগ্রাউন্ড বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশে টাইগারপাস হতে নিউমার্কেট গামী পাকা রাস্তার পাশে ফুটপাতের উপর অভিযান চালিয়ে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে । এসময় আসামীর দেহ তল্লাশী করে তার ডান হাতে থাকা ১ টি লাল রংয়ের শপিং ব্যাগের ভিতর সাদা পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ৮২০ গ্রাম কোকেইন উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, সে দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন পাইকারী মাদক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে কম মূল্যে কোকেইন সহ বিভিন্ন অবৈধ মাদকদ্রব্য ক্রয় করে পরবর্তীতে চট্টগ্রাম সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অধিক মূল্যে বিক্রয় করে আসছে। উদ্ধারকৃত কোকেইন এর আনুমানিক মূল্য ১৫ কোটি টাকা। গ্রেফতারকৃত আসামীকে কোতয়ালী থানায় হস্তান্তর করা হবে। Rab-7 এর অপারেশন অফিসার এএসপি মো. মাশকুর রহমান জানান, নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন টাইগারপাস এলাকায় Rab এর একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। এসময় আসামীর দেহ তল্লাশী করে তার ডান হাতে থাকা ১ টি লাল রংয়ের শপিং ব্যাগের ভিতর সাদা পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ৮২০ গ্রাম কোকেইন উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা শেষে কোতয়ালী থানায় হস্তান্তর করা হবে।
বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বেই আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি
১৬জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ইতিহাসের রাখাল রাজা হিসেবে অভিহিত করে আন্তর্জাতিক সমাজ বিজ্ঞাণী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন দর্শনকে আত্মস্থ করাই হবে তাঁকে স্মরণের শ্রেষ্ঠ দিক। তিনি বলেন, এ জনপদের ৩ হাজার বছরের ইতিহাসে বাঙালি বার বার ভিনদেশি শাসক ও শোষকগোষ্ঠীর হাতে শোষণের শিকার হয়েছে। এ কালো অধ্যায়ের অবসান ঘটিয়ে বঙ্গবন্ধুই বাঙালিকে প্রথম স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের আগে বাঙালি কখনো স্বাধীন ছিল না। নবাব সিরাজুদ্দৌলাকে বাংলার শেষ নবাব বলা হলেও তিনি বাঙালি ছিলেন না। তার মাতৃভাষা ছিল পশ্চাত। পাল, সেন, গুপ্ত বংশের রাজারাও বাঙালি ছিলেন না। তারা বাঙালিকে নানাভাবে অবদমিত করেছেন। বঙ্গবন্ধুই প্রথম বাঙালি, তার নেতৃত্বেই আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি। স্বাধীনতা অর্জন করেছি। গত মঙ্গলবার নগরীর আগ্রাবাদস্থ বিদ্যুৎভবনে বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উদযাপন পরিষদ,চট্টগ্রাম আয়োজিত বছরব্যাপী মুজিববর্ষ পালন উপলক্ষে অনুষ্ঠানসুচির প্রস্তুতি সভায় সভাপতির ভাষনে তিনি এসব কথা বলেন। ড. ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী আরো বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে অস্বীকার করে তারা মানব সভ্যতার ইতিহাসকেই অস্বীকার করে। আজ প্রমাণিত হয়েছে যারা বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে দিতে চেয়েছিল, তাদের নামই ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। প্রস্তুতি সভায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ চট্টগ্রাম মহানগরের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালিকে শুধু একটি স্বাধীন রাষ্ট্রই উপহার দেননি, তিনি সাম্রাজ্যবাদ, ঔপনিবেশবাদ ও আগ্রাসনের বিরুদ্ধে মানবিক সত্তাকে জাগ্রত করার প্রণোদনা দিয়ে গেছেন। তাই তিনি মানব থেকে মহামানবে পরিণত হয়ে হিমালয় সম উচ্চতায় পৌঁছে গেছেন। এই উচ্চতা থেকেই তিনি মানবসমাজের কল্যাণ, মুক্তি ও প্রগতির আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন। স্বাগত বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু শততম জন্মবার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব ও বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের সহ সভাপতি প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জোর দিয়েছেন চরিত্র পরিবর্তনের উপর । কী অবাক করা বচন ! প্রথাগত রাজনীতিবিদ বা দেশ শাসক যেমন গান মুখর থাকতে পছন্দ করেন তেমন দেশ শাসক নন বঙ্গবন্ধু, তিনি দেশ নায়ক। যে দেশন ায়ক বাঙালিকে স্বপ্ন দেখান, পথ দেখান। তবে তিনি শুধু দেশনায়কও নন, বাঙালির শিক্ষকও বটেন, আজকাল রজনীতিবিদদের মুখে মানব-চরিত্র কথাটি শোই যায় না। বঙ্গবন্ধু শিক্ষকের মতো জোর দে চরিত্র গড়ার ওপর। বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক মো. খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় বঙ্গবন্ধু শততম জন্মবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উদযান পরিষদের প্রস্তুতি সভায় আরে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সংষদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সাঈদ সর্দার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফেরদৌস হাফিজ খান রুম (সিএনসি স্পেশাল), নগর আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য শেখ মাহমুদ ইসহাক, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মাহমুদুল হক, চসিক কাউন্সিলর আলহাজ্ব এইচ এম সোহেল, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, আওয়ামী মহিলা যুবলীগ চট্টগ্রাম মহানগরের আহবায়ক সায়রা বানু রশ্নি, সংগঠক শওত আলী সেলিম, প্রকৌশলী মুকবুল হোসেন, প্রকৌশলী শামসুল আলম, প্রকৌশলী খোরশেদ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত
১৫জানুয়ারী,বুধবার,ষ্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: দামপাড়া পুলিশ লাইন্সস্থ সিএমপির কনফারেন্স হলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুবর রহমান, বিপিএম, পিপিএম এর সভাপতিত্বে নভেম্বর ও ডিসেম্বর-২০১৯ মাসের মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম, বিপিএম-সেবা, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) জনাব এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান বিপিএম, পিপিএম (বার), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ, সকল উপ-পুলিশ কমিশনার, অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার, সহকারী পুলিশ কমিশনার, সকল থানার অফিসার ইনচার্জ সহ বিভিন্ন স্তরের পুলিশ সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় নভেম্বর-২০১৯ মাসে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, মামলার রহস্য উদঘাটন, আসামী গ্রেফতার ও ভাল কাজের জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন স্তরের ৪৫ (পয়ঁতাল্লিশ) জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফ দেরকে নগদ ১ লক্ষ ৯৪ হাজার টাকা ও সম্মাননা সনদ প্রদান করা হয়। নভেম্বর-২০১৯ মাসে শ্রেষ্ঠ বিভাগ, শ্রেষ্ঠ অতিঃ উপ- পুলিশ কমিশনার, শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার, শ্রেষ্ঠ পরিদর্শক, শ্রেষ্ঠ উপ-পরিদর্শক এর সম্মাননা সনদ প্রাপ্ত হয়েছেন যথাক্রমে উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক, বিপিএম, পিপিএম (বার), অতিঃ উপ- পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মোঃ আব্দুর রউফ, সহকারী পুলিশ কমিশনার (বায়েজিদ জোন) পরিত্রান তালুকদার, সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি-উত্তর) মোঃ জাহেদুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি-পশ্চিম) কাজল কান্তি চৌধুরী, পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন, পিপিএম, অফিসার ইনচার্জ, বাকলিয়া থানা, এসআই/রাজিব কান্দি দে, ডবলমুরিং থানা। ডিসেম্বর-২০১৯ মাসে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, মামলার রহস্য উদঘাটন, আসামী গ্রেফতার ও ভাল কাজের জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন স্তরের ৪৭ (সাতচাল্লিশ) জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফদেরকে নগদ ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা ও সম্মাননা সনদ প্রদান করা হয়। ডিসেম্বর-২০১৯ মাসে শ্রেষ্ঠ বিভাগ, শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার, শ্রেষ্ঠ পরিদর্শক, শ্রেষ্ঠ উপ-পরিদর্শক, শ্রেষ্ঠ সহকারী উপ-পরিদর্শক এর সম্মাননা সনদ প্রাপ্ত হয়েছেন যথাক্রমে উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক, বিপিএম, পিপিএম (বার), সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি-দক্ষিণ) পিযুষ চন্দ্র দাস, পুলিশ পরিদর্শক প্রিটন সরকার, অফিসার ইনচার্জ, বায়েজিদ বোস্তামি থানা, পুলিশ পরিদর্শক বিশ^জিৎ বর্মন, মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগ,এসআই/মোঃ আলমগীর হোসেন, কর্ণফুলী থানা, এএসআই/জয়নাল আবেদীন, কোতোয়ালী থানা। পুলিশ কমিশনার মহোদয় তাহার বক্তব্যে নগরীর আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকায় সিএমপির পুলিশ সদস্যদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এই প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার জন্য সকল থানা ও ডিবি কে যৌথভাবে কাজ করার নির্দেশনা প্রদান করেন। পুলিশ কমিশনার মহোদয় সকল বিভাগের ডিসিদের স্ব স্ব বিভাগে মাদক ও ছিনতাই প্রতিরোধে অধিকতর তৎপর হতে বলেন। সংশ্লিষ্ট ডিসিগণ কে এই বিষয়টি তদারকি করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। রুজুকৃত মামলা ও অভিযোগ সমূহের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে পুলিশি সেবা নিশ্চিত করতে হবে। সভা শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা করা হয়। এছাড়া অপরাধ সভায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ মাহাবুবর রহমান, বিপিএম, পিপিএম মহোদয় পুলিশ সপ্তাহ ২০২০ অনুষ্ঠানে পুরস্কার প্রাপ্তদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।
পটিয়াবাসীর দিনবদলের রাজকুমার সাইফুল আলম মাসুদ
১৫জানুয়ারী,বুধবার,মো:ইরফান চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: অব্যাহত শিল্পায়নের পথ ধরে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ, ধীরে ধীরে স্থান করে নিচ্ছে বিশ্বের শিল্পোন্নত দেশের কাতারে। এই শিল্পায়ন প্রক্রিয়ায় যে সকল বেসরকারি উদ্যোক্তা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন তাঁদেরই একজন সাইফুল আলম মাসুদ। এদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়য়ে যে সকল শিল্পোদ্যোক্তা নিজেদের শ্রম, মেধা ও দূরদর্শিতা দিয়ে জাতিকে এগিয়ে নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন এস আলম গ্রুপ এর চেয়ারম্যান অ্যান্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোঃ সাইফুল আলম মাসুদ তাঁদেরই একজন। ছোটবেলা থেকে জীবন নিয়ে সংগ্রাম করে যিনি শুধু নিজের ভাগ্য বদলাননি, বদলে দিয়েছেন পটিয়াসহ সারাদেশের মানুষের অর্থনৈতিক ভাগ্যের চিত্র। সাধারন ব্যবসায়ী থেকে হয়ে উঠেন উদ্যোক্তর । এ যেন এক জনপদে জন্মেছিলেন এক বরপুত্র| মানুষের হৃদয়ে তিনি এতটাই মিশে গেছেন যে, পটিয়ার ঘরে ঘরে এখন মিলাদ পড়িয়ে তাঁর সুস্ততা ও দীর্ঘায়ুর জন্য দোয়া করা হয়। তিনি এলাকায় আসবেন শুনলে এক নজর দেখতে ভিড় করেন শতশত মানুষ। যেন আগুনে পুড়ে খাঁটি হওয়া এক সোনার গল্প। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়েই মোঃ সাইফুল আলম মাসুদ নিজেকে ব্যবসা-বাণিজ্য অঙ্গনের সফল পর্যায়ে উঠিয়ে এনেছেন। এটি ঘটেছে তাঁর আন্তরিকতা এবং একনিষ্ঠতার ফলে। তিনি যখন যে ব্যবসার দিকে ঝুঁকেছেন সেখানে মেধা ও নিবিড় শ্রমের সমন্বয় ঘটিয়ে আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেছেন। ২৭ বছরেরও অধিক সময় ধরে এস আলম গ্রুপ শুধু নিজেদের জন্যেই নয়, সমাজ এবং সর্বোপরি দেশের মানুষের জন্যে উন্নতমানের সেবা প্রদান করে চলেছেন। সাইফুল আলম মাসুদের জন্ম চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া পৌরসদরে । দেশের অর্থনীতিতে বিশাল অবদান রাখার পাশাপাশি এস আলম গ্রুপের মাধ্যমে হাজার হাজার পরিবার এখন স্বাবলম্বী। বর্তমানে শুধু পটিয়া নয়, দক্ষিণ জেলার বিভিন্ন উপজেলার শিক্ষিত যুবকদের কর্মসংস্থানেও তিনি ভূমিকা রাখছেন। একজন মানুষই বদলে দিলেন পুরো জনপদের দু:খ। চাকরি দিয়ে ঘুচালেন বেকারত্ব। হাসি ফুটালেন হাজার হাজার পরিবারের মুখে। একসময় নারীদের পরিবারে বোঝা মনে করতো সবাই। সাইফুল আলম মাসুদের কল্যাণে ব্যাংকে চাকরি পেয়েছেন পটিয়াও দক্ষিণ চট্টগ্রামের শতশত নারী। সবার পক্ষে-বিপক্ষে মত থাকে। কিন্তু এলাকাবাসীর কাছে এস আলম এখন অবিসংবাদিত। দিনবদলের রাজকুমার।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর