শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আগামী ২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশে রুপান্তরিত হবে
২৫নভেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে (২৫ নভেম্বর) বৃধবার কেক কেটে জাতির জনকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। এসময় তথ্য মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট সৈয়দ মোক্তার হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন। বঙ্গবন্ধু সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিরের সাবেক সভাপতি আবদুল বাসেত মজুমদার, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী মো. রেজাউর করিম চৌধুরী, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি উফতেখার সাইমুম চৌধুরী বক্তব্য করেন। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম জিয়াউদ্দিন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, চট্টগ্রামের আইনজীবী ভবন তার আবেগের ও অনুভুতির জায়গা। তাঁর বাবা এ্যাডভোকেট নুরুচ্ছফা তালুকাদরও একজন আইনজীবী ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী সারা বছরব্যাপী দেশবাসী পালন করছে। কারণ জাতির জনক বাঙ্গালিকে একটি জাতিসত্তা দিয়েছেন। বহু বাঙ্গালি স্বাধীনতার চেষ্টা করেছেন। কেউ পারেননি। জাতির জনক পেরেছেন। তাই বাংলাদেশেই নয় বিশ্বের অন্যান্য দেশও মুজিববর্ষ পালন করছে। জাতির জনক হাজার বছরের ইতিহাসে হাজার বছরের ঘুমন্ত বাঙ্গালিকে জাগ্রত করেছেন। বাঙ্গালিকে তিঁনি এমনভাবে উদ্দীপ্ত করেছেন যা পৃথিবীতে কোন রাষ্ট্র প্রধান অথবা সরকার প্রধান করতে পারেন নি। এজন্য জাতির জনক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ। নিপিড়িত মানুষের নেতা মুজিব উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাঙ্গালির স্বাধীনতা অর্জণ হয়েছে রক্তের বিনিময়ে। ৭১ সালে বাংলাদেশী ১ কোটি মানুষ ভারতে আশ্রয় নিয়েছেন। বাংলাদেশে ২ কোটি মানুষ গৃহছাড়া হয়েছেন। জাতির জনক তাঁদের আশ্রয় দিয়েছেন। জাতির জনককে হত্যা না করলে সিঙ্গাপুর বা মালয়েসিয়ার আগে বাংলাদেশের উন্নয়ন সমৃদ্ধির গল্প শুনতো বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, যারা বাসন্তিকে দিয়ে ষড়যন্ত্র করেছে তারা বাসন্তিকে কাপড় কিনে দেয়নি। বাসন্তিকে কাপড় কিনে দিয়েছেন তাকে দেখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরো বলেন, জাতির জনকের শাসনামলে ৭.৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ছিল। ৪১ বছর পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সে রেকট ভঙ্গ করতে পেরেছেন। অতীতে কোন সরকার তা করতে পারে নি। মানবিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক সকল সূচকে বাংলাদেশ ভারত পাকিস্তানকে অতিক্রম করেছে কয়েক বছর আগে। দেশের নানা উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ঢাকা বিমান বন্দরে অথবা চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমান বন্দরে কোন বিমান চক্কর দেওয়ার সময়ে নিচের দিকে তাকালে কেউ বলতে পারবে না এটা বাংলাদেশ। তখন ভাবতে পারে যে বিমান ভুল করে হয়তো সিঙ্গাপুর চলে আসছে। কুড়িল ফ্লাইওভার, আক্তারুজ্জামান ফ্লাইওভার বিমান থেকে এমনই মনে হয়ে। এ উন্নয়ন এমনিতেই হয়নি। এটা সম্বব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষতা নেতৃত্বের জন্য। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আগামী ২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশে রুপান্তরিত হবে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী।
চকবাজারে দুই কোচিং সেন্টারকে জরিমানা
২৫নভেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে নগরীর চকবাজার এলাকার কোচিং সেন্টারে অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার (২৫ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ অভিযান পরিচালন করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক। অভিযানে চকবাজার গুলজার মোড়ে বিসিএস হেল্প লাইনকে ৫ হাজার টাকা ও ওরাকল কোচিংকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক বলেন, চট্টগ্রামে হঠাৎ করে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে চকবাজার কোচিং সেন্টারগুলোতে অভিযান চালানো হয়েছে। অভিযানে দুটি কোচিং সেন্টার খোলা পাওয়া গেছে। যারা ছাত্র জড়ো করে বিপদজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি করছে। এ কারণে বিসিএস হেল্প লাইনকে ৫ হাজার টাকা ও ওরাকল কোচিংকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
সাংবাদিক এস এম শোয়েব খান আর নেই
২৫নভেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দৈনিক পূর্বকোণ এর সাবেক সিনিয়র সহ সম্পাদক, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সিনিয়র সদস্য এস এম শোয়েব খান ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন )। বুধবার (২৫ নভেম্বর) সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় নগরের সিএসসিআর হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। মরহুমের নামাজে জানাযা বাদ যোহর চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন সিইউজের সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলাম। তিনি বলেন, গত দুই সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন সাংবাদিক এস এম শোয়েব খান। জানাযা শেষে মরদেহ গ্রামের বাড়ি ফটিকছড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬তম ব্যাচের লোকপ্রশাসন বিভাগের ছাত্র ছিলেন এসএম শোয়েব খান। ১৯৯০ সাল থেকে সাংবাদিকতায় যুক্ত হন। তার বাড়ি ফটিকছড়ির বাবুনগরে। তিনি স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যাসহ অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতারা। এদিকে সাংবাদিক শোয়েব খানের ইন্তেকালে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। এক বিবৃতিতে তিনি প্রয়াতের আত্মার শান্তি কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তথ্যমন্ত্রী শোকবার্তায় মরহুমের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং দৈনিক পূর্বকোণসহ বেতার ও টেলিভিশনে তার কর্মময় জীবনের কথা স্মরণ করেন।
চট্টগ্রামে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, নতুন ১০৬ জন
২৫নভেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শীতের তীব্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। প্রতিদিন গড়ে আক্রান্ত হচ্ছেন শতাধিক। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ১০৬ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৪ হাজার ১৭৫ জন। মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায়, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৭টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ৭০টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ২২১টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ১৮৮টি এবং চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে চবি ল্যাবে ৪০ জন, বিআইটিআইডিতে ৪ জন, চমেক ল্যাবে ৩ জন এবং সিভাসু ল্যাবে ৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৬৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১ জন, শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১২৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৪ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। এইদিন জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) কোনো নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। অন্যদিকে, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৯৬টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১০৬ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৯৪ জন এবং উপজেলায় ১২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ জনের।
ফটিকছড়িতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ উদযাপন
২৪নভেম্বর,মঙ্গলবার,সজল চক্রবর্তী,ফটিকছড়ি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ৪২ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ ২০২০ ফটিকছড়ি উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ফটিকছড়ি বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে গত ২৩ নভেম্বর অনুষ্টিত হয়েছে। জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর তত্তবধানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় সপ্তাহের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হোসাইন মো: আবু তৈযব। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সায়েদুল আরেফিনের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত উক্ত অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন নাহার মুক্তা, ভাইস চেয়ারম্যান এড. ছালামত উল্লাহ চৌধুরী শাহীন। অনুষ্টানে প্রধান অতিথি পুরস্কার বিতরণ করেন । অনুষ্টানে প্রধান অতিথি বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বর্তমান যুগে খুবই গুরুত্ব পূর্ণ। শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান অর্জন করা প্রয়োজন। বর্তমান সরকার শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্টানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে পড়া লেখার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিষ পত্র সরবরাহ করছে। প্রতিটি শিক্ষার্থীর জীবন সুন্দর হবে; যখন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে তাদের জ্ঞান থাকবে।
বিভাগীয় কমিশনার বরাবরে বাকাসস চট্টগ্রাম নেতৃবৃন্দের স্মারকলিপি প্রদান
২৪নভেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাঠ প্রশাসনের তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারীদের পদবী ও গ্রেড পরিবর্তনসহ বিভিন্ন দাবীতে বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতির (বাকাসস) কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত সারাদেশে ১৫ দিন ব্যাপী পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি কর্মসুচী চলমান রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) চট্টগ্রাম জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ দ্বিতীয় সপ্তাহের তৃতীয় দিন ২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি পালন করেছে। কর্মবিরতি চলাকালে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার জনাব এ বি এম আজাদ এনডিসির হাতে স্মারকলিপি প্রদান করেন বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) চট্টগ্রাম জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।টানা কর্মবিরতির ফলে আবারও অচল হয়ে পড়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। কর্মবিরতি চলাকালে জেলা প্রশাসনের সকল শাখা কর্মচারী শূন্য হয়ে পড়ায় সেবা পেতে আসা লোকজনকে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। কর্মচারীদের টানা কর্মবিরতি কারণে এডিএম কোর্ট, রাজস্ব কোর্ট ও রেকর্ড রুমসহ জেলা প্রশাসনের সব শাখার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। স্থবির হয়ে সকল ধরণের কার্যক্রম। জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় কর্তৃক বারবার আশ্বাস প্রদান করার পরও দাবী বাস্তবায়ন না হওয়ায় গত ১৫ নভেম্বর থেকে টানা ১৫ দিনের পূর্ণদিবস কর্মবিরতির কর্মসূচী দিতে বাধ্য হয়েছেন বাকাসস। এ উপলক্ষে এক সভা সংগঠনের সহ-সভাপতি স্বপন কুমার দাশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এসএম আরিফ হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন বাকাসস চট্টগ্রাম আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক উদয়ন কুমার বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন ও নুরুল মুহাম্মদ কাদের, বাকাসস চট্টগ্রাম জেলা কমিটির প্রদীপ কুমার চৌধুরী, ফজলে আকবর চৌধুরী, মোঃ আলাউদ্দিন, আলী আজম খান, আবদুল মান্নান, সোয়েব মোহাম্মদ দুলু, সায়েদুল ইসলাম, রিয়াজ উদ্দীন আহম্মদ, পুতুল দত্ত, মাহবুবুর রহমান, অরুন মল্লিক, বিশ্বজিত দাশ, মোঃ নুরুচ্ছফা, কানু বিকাশ নন্দী, সাদেক উল্লাহ, সৈয়দ মোহাম্মদ এরশাদ আলম, আবদুল মোবিন, ইখতিয়ার উদ্দিন, বিজয় বড়ুয়া, দেবাশীষ রুদ্র, সাইফুর রহমান, শাপলা দাশগুপ্ত, সারাহ্ হোসেন, মোঃ শাহেদ, মিজানুর রহমান চৌধুরী, পরাগ মনি, আবদুল অদুদ, নাজিম উদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, শাহনাজ সুলতানা, সাঈদুল ইসলাম, মোজাফফর হোসেন, শফিউল আলম, নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, কাজলী দেবী, আনোয়ার হোসেন, সাদিয়া নুর, লিটন বিশ্বাস, প্রমূখ। বক্তারা বলেন, কালেক্টরেট সহকারীরা দীর্ঘদিন ধরে ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস দেয়ার পরও অদ্যাবধি কালেক্টরেটে কর্মরত সহকারীদের পদবী ও গ্রেড পরিবর্তনসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হয়নি। সচিবালয়ের একজন কর্মচারী ১৬ গ্রেডে চাকরিতে যোগদান করে ৫ বছর পর ১০ গ্রেডে পদোন্নতি পেয়ে যান। আর সচিবালয়, হাইকোর্ট, সংসদ, নির্বাচন কমিশন, পিএসসি ও মন্ত্রণালয়ের সংযুক্ত বিভাগসমূহে ১৬তম গ্রেডে যোগদান করে অনেকে সহকারী সচিব হয়ে চাকরি থেকে অবসর নিচ্ছেন। শুধুমাত্র বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা ও উপজেলা প্রশাসন এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসে কর্মরত তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারীরা চাকরিতে জীবন শেষেও কোনো পদোন্নতি না পেয়ে একই পদে থেকেই অবসরে যাচ্ছেন। দাবী-দাওয়া মেনে নেয়ার পরপরই কর্মচারীরা আন্দোলন থেকে ফিরে গিয়ে কাজে যোদ দেবেন। বক্তারা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ, এসডিজি বাস্তবায়ন ও রূপকল্প-২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মাঠ প্রশাসনে কর্মরত বিভাগীয় কমিশনার অফিস, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনে কর্মরত সহকারীদের মনোবল সতেজ রেখে কাজের গতিশীলতা অব্যাহত রাখতে তাদের পদোন্নতিসহ পদবী পরিবর্তন করে সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা করার জন্য জোর দাবী জানান।
পাওনা টাকার পরিবর্তে- তক্ষক, ঢাকায় যাওয়ার পথে ধরা
২৪নভেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কর্ণফুলী থানাধীন এলাকা থেকে বিরল প্রজাতির 'তক্ষক'সহ মো. মনিরুল হক (৬৫) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। মনিরুল হক 'তক্ষক'সহ বান্দরবান থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) ভোরে তাকে আটক করা হয়। আটক ব্যক্তি বর্তমানে কর্ণফুলী থানা পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। আটক মো. মনিরুল হক ঢাকার কেরানীগঞ্জ থানাধীন বটতলী এলাকার সিরাজুল হকের ছেলে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (কর্ণফুলী জোন) মো. ইয়াসির আরাফাত বলেন, তক্ষকসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি কর্ণফুলী থানা পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তক্ষক সদৃশ প্রাণিসহ মো. মনিরুল হককে আটক করা হয়। আটক মনিরুল হক জানিয়েছেন- তিনি বান্দরবানে একজনের কাছ থেকে টাকা পেতেন। ওই ব্যক্তি তাকে টাকার পরিবর্তে তক্ষক দিয়েছেন। ওসি দুলাল মাহমুদ বলেন, মনিরুল হক বান্দরবান থেকে তক্ষকটি নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। প্রাণিটি বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হবে। মনিরুল হকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
করোনা: চট্টগ্রামে আক্রান্ত ছাড়ালো ২৪ হাজার, নতুন শনাক্ত ১৮৩
২৪নভেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন শনাক্ত হয়েছেন ১৮৩ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৪ হাজার ৫৩ জন। এই দিন চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হয়েছে দুইজনের। সোমবার (২৩ নভেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এই দিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৭টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১০৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৫৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। শনাক্ত হয় ১৮জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৯২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৮০ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৫২টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এতে পজেটিভ আসে ১১ জনের। তা ছাড়া ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৭৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৩ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তবে এই দিন শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। অন্যদিকে জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হলে সব নমুনাতেই পজেটিভ ফলাফল আসে। আবার, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৯টি নমুনা পরীক্ষা করলেও করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মেলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১৮৩জন নতুন শনাক্ত হয়েছেন। এই দিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৩৩৫টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১৫৫ জন এবং উপজেলায় ২৮ জন।
গ্রাহকের টাকা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ করুন: রেজাউল করিম চৌধুরী
২৩নভেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, আবাসিক গ্যাস সংযোগ ও বর্ধিত চুলার জন্য ২৫ হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা জমা নিয়ে ৬ বছর ধরে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। কোনো ধরনের সংযোগ দেওয়া হচ্ছে না। তিনি বলেছেন, কি কারণে এই সংযোগ দেয়া হচ্ছে না তার কোনো স্পষ্ট বক্তব্য নেই কর্তৃপক্ষের। ২৫ হাজার গ্রাহকের টাকা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা বন্ধ করতে হবে। গ্রাহক হয়রানি করে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার পায়তারা সহ্য করা হবে না। সোমবার (২৩ নভেম্বর) ষোলশহর কেজিডিসিএল অফিস চত্বরে কেজিডিসিএল ঠিকাদার গ্রাহক ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে করোনা সচেতনতায় গণসংযোগ ও মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন। রেজাউল বলেন, এক-একটি বাসা বাড়িতে, আবাসিক ভবনে, কল কারখানায় গ্যাস সংযোগ নেয়া বেশ ব্যয়বহুল। অনেক টাকা সরকারি খাতে জমা দিয়ে তারপর তারা এই সংযোগ পেয়েছে। করোনার এই সময়ে বকেয়ার কারণে গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করে সেইসব গ্রাহক থেকে কিস্তিতে গ্যাস বিল আদায় করতে হবে। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক এখনো আবিষ্কৃত হয়নি। নিজের সচেতনতা, মাস্ক ব্যবহার, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা ও স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণের ফলেই করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব। অলিউল্লাহ হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কেজিডিসিএল ঠিকাদার-গ্রাহক ঐক্য পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলী নাওয়াজ। বক্তব্য দেন হানিফ হাওলাদার, প্রশান্ত বড়ুয়া, আব্দুল মালেক শেখ, ফরমান উল্লাহ অপু, আমজাদ হাসান রবিন, রোকসেদ চৌধুরী, শওকত হাওলাদার, বেলাল হোসেন, আওরঙ্গজেব বাবুল, কেজিডিসিএল সিবিএ সভাপতি মাকসুদুল রহমান হাসনু, সাধারণ সম্পাদক মো. আসলাম, কেজিডিসিএর কর্মচারী ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ সভাপতি জাবের আল খতিব, সাধারণ সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর