চিটাগাং উইম্যান চেম্বারের বেসিক বিউটিফিকেশন প্রশিক্ষণ কোর্স
চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে গতকাল ১৬ জানুয়ারি ৭ দিনব্যাপী বেসিক বিউটিফিকেশন শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠান উইম্যান চেম্বারের সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট আবিদা মোস্তফা প্রধান অতিথি হিসেবে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদ বিতরণ করেন। এছাড়া সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক কাজী তুহিনা আক্তার, নুজহাত নূয়েরী কৃষ্টি, শামিলা রিমা, রোজিনা আক্তার লিপি এবং বেসিক বিউটিফিকেশন প্রশিক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষক শাহিদা মোবিন তানিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে এই ধরনের প্রশিক্ষণ আয়োজনের কথা উল্লেখ করে বলেন, বর্তমান অবস্থার আলোকে দিনে দিনে আমাদেরকে ব্যবসায় এগিয়ে আসতে হবে এবং এই ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে সঠিক প্রশিক্ষণ গ্রহনের বিকল্প নেই । ভবিষ্যতে নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য, ৩০ জন উদ্যোক্তা এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে প্রশাসনের সাথে তথ্যমন্ত্রীর মতবিনিময়
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্মুদ এমপি গত ১৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও তথ্য মন্ত্রণালয়াধীন বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। এ সময় চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান, পুলিশের রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবুর রহমান, জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াছ হোসেন, জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা, বাংলাদেশ বেতার চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক মো. আবুল হোসেন, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জি. এম নিতাই কুমার ভট্টাচায্য, পিআইডি চট্টগ্রামের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. আজিজুল হক নিউটন, জেলা তথ্য অফিসের উপ-পরিচালক মো. সাঈদ হাসান প্রমুখ। মতবিনিময় সভার পূর্বে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানসহ সরকারের পদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। মত বিনিময়ের পূর্বে মন্ত্রী মহোদয়কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। মতবিনিময়কালে চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে সরকারি কর্মকর্তাদের আন্তরিকভাবে কাজ করার তাগিদ দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ করতে অবদান রাখছে :মোছলেম উদ্দিন
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেছেন, প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা রাখতে প্রশংসনীয় অবদান রাখছে। তাদের পাঠানো রেমিটেন্স আমাদের বৈদেশিক মুদ্রা তহবিল শক্তিশালী করার পাশাপাশি প্রবাসে তাদের কর্মদক্ষতা দেশের সম্মান বয়ে আনছে। তিনি ১৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা দুবাই ও উত্তর আমিরাত আওয়ামী লীগ শাখার দেয়া দক্ষিণ চট্টগ্রামে আটটি উপজেলায় সাউন্ড সিস্টেম বিতরণ উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরানের সঞ্চালনায় আন্দরকিল্লাস্থ সংগঠন কার্যালয়ে বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত উপহার সামগ্রী বিতরণী সভায় বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি মোহাম্মদ ইদ্রিস, সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান চেয়ারম্যান, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. জহির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাশ, শ্রম সম্পাদক খোরশেদ আলম, দপ্তর সম্পাদক আবু জাফর, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক গোলাম ফারুক ডলার, ত্রাণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ হায়দার শাহীন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য চেয়ারম্যান নাছির আহমদ, মোস্তাক আহমদ আঙ্গুর, মাহবুবুর রহমান সিবলী, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এস এম জহিরুল আলম জাহাঙ্গীর, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, আবুল কাশেম চেয়ারম্যান, দক্ষিণ জেলা প্রবাসী আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শৈবাল বড়–য়া, সাধারণ সম্পাদক হামিদ আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নবীদুর রহমান মুন্না, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক আবদুল হামিদ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মাহমুদুল হক আবছার, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক শফিকুর রহমান, সিনিয়র সদস্য নুরুল আবছার, আবুল হোসেন, মো. হাসান, মোহাম্মদ নুর, মোহাম্মদ নাসু, দক্ষিণ জেলা কৃষকলীগ সভাপতি আতিকুর রহমান চৌধুরী, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল করিম বাবুল, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আজম শেফু প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্বেগ নিরসনে কাজ করা হবে : তথ্যমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ যেকোনো আইন নিয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্বেগ নিরসনে কাজ করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আজ মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা জানান হাছান মাহমুদ। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বলুন বা অন্যান্য আইন বলুন, যেকোনো আইনের প্রেক্ষিতে সাংবাদিক সমাজের যে উদ্বেগ আছে, সেই উদ্বেগ নিরসন করার লক্ষ্যে আমি কাজ করব। এ ব্যাপারে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। ওয়েজবোর্ডের আওতায় টেলিভিশন অন্তর্ভুক্ত করার কথা জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, বর্তমানে ওয়েজবোর্ডের আওতায় টেলিভিশন নাই। আমি গতকালও বলেছি, টেলিভিশন সাংবাদিকতাও সেখানে আসা দরকার। ইলেকট্রনিক মিডিয়াকেও ওয়েজবোর্ডের আওতায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। পরবর্তীতে এটি নিয়ে আমরা কাজ করব। ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়ন করবে এমন ঘোষণা দিয়ে কেউ তা না করে থাকলে সেটিও তদারক করা হবে বলে জানান তথ্যমন্ত্রী। অনলাইন পত্রিকা ও অনলাইন টেলিভিশন পরিচালনার জন্য রেজিস্ট্রেশন ও নীতিমালা তৈরির কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আইন ও নীতিমালার আওতায় আনা হলে ভুঁইফোড় অনলাইন ও অনলাইন টিভি বন্ধ হয়ে যাবে। এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন প্রমুখ।
আমারও বিচার হবে দুর্নীতি করলে: ভূমিমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন,ভূমি মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মকর্তা ও কর্মচারী যদি দুর্নীতি করে থাকে, তাহলে তাদের বিচার ও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যদি আমিও দুর্নীতি করি, আমারো বিচার হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সাভারের খাগান এলাকায় ব্র্যাক সিডিএমে ইউসিবি ব্যাংকের বার্ষিক ব্যবসায়িক সম্মেলনে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী। এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, আমার মন্ত্রণালয় স্বচ্ছ থাকবে। কেউ দুর্নীতি করতে পারবে না। এমনকি আমিও যদি দুর্নীতি করে থাকি আমারো বিচার হবে। আমি মন্ত্রী হওয়ার পরে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। তাই মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কাছ থেকে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সম্পদের হিসাব চেয়েছি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে ভূমিমন্ত্রী বলেন, এই নির্বাচন সবার কাছে গ্রহণযোগ্য ছিল। নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করেছিল। তারা নির্বাচনে জিততে পারেনি, সেই দায়ভার জাতি নেবে না। বিএনপির যে কয়জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের সংসদে এসে কথা বলা উচিত। তারা তাদের কথা বলুক, সেই ফ্রিডম তো সংসদে আছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে তো কথা বলার আর কিছু নেই। সাভার ও আশুলিয়াসহ সারা দেশে যারা নদী-নালা ও খালবিল দখল করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়ে সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করা হবে বলে জানান ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান। এ ছাড়া ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন তিনি। সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ইউসিবি ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান চৌধুরী, ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শওকত জামিলসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
যুব সমাজকে যুব শক্তিতে পরিণত করতে হবে : নওফেল
যুব সমাজকে যুব শক্তিতে পরিণত করে দেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ করতে হবে। দেশে যে চলমান অর্থনৈতিক জোন হচ্ছে সেগুলো বাস্তবায়ন হলে দেশের বৃহৎ যুব গোষ্ঠীর কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। যুব সমাজ তখন দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। তখনই দেশ নির্দিষ্ট সময়ের আগে আগে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ ১০০ বছরে ডেল্টাপ্ল্যানের স্বপ্ন দেখছে। আগামী তিন প্রজন্মের জন্য নেতৃত্ব বাছাইয়ের কাজ চলছে শুধু সংগঠনের নেতৃত্বে নয় দেশকে এগিয়ে নেবার জন্যও তরুণ ও যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় নির্বাচনে যুবলীগের নেতাকর্মীদের নিরলস পরিশ্রমে নৌকার বিজয় আরো বেগবান হয়েছে। যুবলীগের নেতাকর্মীরা ধন্যাবাদ পেতেই পারে। বিশেষ করে যুবলীগের নেতাকর্মীদের দিয়ে কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি গতকাল চশমা হিলস্থ নিজ বাসভবনে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক মো: মহিউদ্দিন বাচ্চুর সভাপতিত্বে যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, দিদারুল আলম দিদার, মাহবুবুল হক সুমন। উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের সদস্য এড. আনোয়ার হোসেন আজাদ, এড. আরশাদ হোসেন, সাইফুল ইসলাম, একরাম হোসেন, আঞ্জুমান আরা আঞ্জু, মাহাবুব আলম আজাদ, সাখাওয়াত হোসেন স্বপন, মাসুদ রেজা, আবু সাঈদ জন, হেলাল উদ্দিন, হাবিব উল্ল্যাহ নাহিদ, নুরুল আনোয়ার, আব্দুর রাজ্জাক দুলাল, সাবের আহম্মদ, আহসাব রসুল জাহেদ, প্রবীর দাশ তপু, মঈনুল ইসলাম রাজু, খোকন চন্দ্র তাঁতী, আবু বক্কর চৌধুরী, রতন মল্লিক, শেখ নাছির আহাম্মদ, নাজমুল হাসান সাইফুল, সনত বড়ুয়া, আবু বক্কর ছিদ্দিক, দেলোয়ার হোসেন দেলু, আজিজ উদ্দিন চৌধুরী, আলী হোসেন, সাহেদুল ইসলাম সাহেদ, আব্দুল হাই, কাজল প্রিয় বড়ুয়া, আফতাব উদ্দিন রুবেল, আলাউদ্দিন আলো, হোসেন সরোয়ার্দী সরোয়ার, সাখাওয়াত হোসেন সাকু, নঈম উদ্দিন খান, আসিফ মাহমুদ, ওয়ার্ড সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে দেলোয়ার হোসেন বাবুল, তারেক ইমতিয়াজ ইমতু, মানিক বিশ্বাস, মঈনুলি ইসলাম, নজরুল ইসলাম, সালাউদ্দিন, সাজু বিশ্বাস, শওকত আলী প্রমুখ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।
সম্পত্তির হিসাব দিতে হবে ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের
অনলাইন ডেস্ক: ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সম্পত্তির হিসাব দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তা দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। আজ শনিবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন এ কথা বলেন ভূমিমন্ত্রী। ভূমিমন্ত্রী বলেন, সমস্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সম্পত্তির হিসাব ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে দাখিল করতে হবে। এটা আমি এখানে বসে সিদ্ধান্ত নিলাম। মন্ত্রণালয়ে গিয়ে রিটেন দিব। মৌখিক সিদ্ধান্ত এখানে বসে দিলাম। সারাদেশে ভূমি অফিসগুলোতে জনগণকে নানাভাবে হয়রানি করা হয়, জনগণের এমন অভিযোগের কথা তুলে ধরে সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ধাপে ধাপে (ভূমি মন্ত্রণালয়কে) সব রকম ও হয়রানি ও দুর্নীতিমুক্ত মন্ত্রণালয়ে পরিণত করা হবে। ভূমিসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারীকদের আগামী ফেব্রিয়ারি মাসের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে নিজ নিজ সম্পদের হিসাব জমা দিতে হবে। ভূমি মন্ত্রণালয়কে দুর্নীতি মুক্ত করার উদ্দেশে দেশব্যাপী ভূমি অফিসগুলোকে সিসিটিভি ক্যামরার আওতায় আনার পরিকল্পনার কথাও জানান ভূমিমন্ত্রী।
চট্টগ্রামের চার মন্ত্রীর সংবর্ধনা ২৫ জানুয়ারি
অনলাইন ডেস্ক :বৃহত্তর চট্টগ্রামের চার মন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেয়া হবে ২৫ জানুয়ারি। শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।লালদীঘি মাঠে ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে।বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি,নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন,মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. আফছারুল আমীন এমপি অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন। সভাপতিত্ব করেন মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী।সঞ্চালনায় ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক। বর্ধিত সভায় মেয়র বলেন, অনেকে পদ-পদবী নিয়ে বছরের পর বছর বহাল তবিয়তে থেকেও বিনা কারণে, বিনা নোটিশে সভায় আসেন না। এখন থেকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নিয়মিত কার্যকরী কমিটির সভা করতে হবে। বিনা কারণে, বিনা নোটিশে কমিটির কেউ পরপর তিনবার অনুপস্থিত থাকলে তার পরিবর্তে অন্য আরেকজনকে কো-অপ্ট করেন। তাহলে দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে। কেউ আর পদ-পদবী নিয়ে সভায় অনুপস্থিত থাকবে না। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ী শক্তি। এ শক্তির বিনাশ নাই। তবে আমাদের কিছু সাংগঠনিক দুর্বলতা আছে। এগুলো কাটিয়ে উঠতে হবে। নওফেল এমপি বলেন, সমন্বয় এবং ঐক্য দল, দেশ ও জাতির জন্য কল্যাণ বয়ে আনতে পারে। এ সমন্বয় হবে স্থানীয়ভিত্তিক মতামতের ভিত্তিতে। এ মতামত নিয়েই আমি স্থানীয় সমস্যাগুলোর সমাধানে সংসদে কথা বলব। নিউজ একাত্তর ডট কম,চট্টগ্রাম।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর