শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১
চট্টগ্রামে ঋতুরাজ বসন্তবরণ
১৪,ফেব্রুয়ারী,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বোধন আবৃত্তি পরিষদ চট্টগ্রাম- নিবিড় অন্তরতর বসন্ত এলো প্রাণে শিরোনামে চট্টগ্রাম থিয়েটার ইন্সটিটিউটে ও পাহাড়তলী আমবাগান রেলওয়ে জাদুঘর সংলগ্ন শেখ রাসেল পার্কে ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করছে নানান আয়োজনে। এছাড়া সিআরবি শিরীষতলা মুক্তমঞ্চে প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের আয়োজনে চলছে বসন্ত উৎসব। নগরের বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও বসন্ত বন্দনায় মেতে উঠেছে। রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টায় বোধন আবৃত্তি পরিষদ টিআইসিতে বসন্ত আবাহন, আবৃত্তি, সঙ্গীত, যন্ত্রসঙ্গীত, নৃত্য, শোভাযাত্রা, পিঠাপুলির সমারোহে দিনব্যাপী এ উৎসব উদযাপন করছে, যা চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। এ বছর এই উৎসব ১৬ বছরে পদার্পণ করছে। বোধনের সভাপতি আবদুল হালিম দোভাষ জানান, উৎসবে সকালে ভায়োলিনিষ্ট চট্টগ্রামের পরিবেশনায় যন্ত্রসংগীত ও দলীয় সংগীত পরিবেশন করে সদারঙ্গ উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত পরিষদ বাংলাদেশ, অভ্যুদয় সঙ্গীত অঙ্গন, গীতধ্বনি ও উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, দলীয় নৃত্য পরিবেশন করে ওডিসী অ্যান্ড টাগুর ড্যান্স মুভমেন্ট সেন্টার, নৃত্যম একাডেমি, রুমঝুম নৃত্যকলা একাডেমি, স্কুল অব ওরিয়েন্টাল ডান্স, নৃত্য নিকেতন, অদিতি সঙ্গীত নিকেতন, সুরাঙ্গন বিদ্যাপীঠ, সঞ্চারী নৃত্যকলা একাডেমি, নটরাজ নৃত্যাঙ্গন একাডেমি, ঘুঙুর নৃত্যকলা একাডেমি। বিকালে দলীয় আবৃত্তি পরিবেশন করবে বোধন আবৃত্তি পরিষদ চট্টগ্রাম ও বোধন আবৃত্তি স্কুল চট্টগ্রাম। এছাড়া রয়েছে দেশের স্বনামখ্যাত শিল্পীদের পরিবেশনায় একক ও দ্বৈত সংগীত, একক আবৃত্তি, ঢোলবাদন ও বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। এদিকে শেখ রাসেল পার্কে বসন্ত উৎসবের অনুষ্ঠানমালায় একক ও বৃন্দ আবৃত্তির পাশাপাশি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহের শিল্পীদের পরিবেশনায় দলীয় সংগীত ও দলীয় নৃত্য পরিবেশন করা হচ্ছে। এছাড়া রবীন্দ্র, নজরুল, আধুনিক ও লোকগান পরিবেশন করবেন প্রথিতযশা সংগীতশিল্পীরা। বোধন আবৃত্তি পরিষদ চট্টগ্রাম এর আরেক অংশের সভাপতি সোহেল আনোয়ার জানান, বিকেল ৩টায় থাকছে উৎসব অঙ্গন থেকে বর্ণিল সাজে বসন্তবরণ শোভাযাত্রা। বসন্তের আগমনী বার্তায় ছন্দময় আবহ ছড়িয়ে দিতে রয়েছে ঢাক ঢোলকের মুন্সিয়ানা পর্ব। সিআরবির শিরীষতলা মুক্তমঞ্চে প্রমার বসন্ত উৎসব সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে। ঢোলবাদন, আবৃত্তি, সংগীত, নৃত্য, কবিতা পাঠ ও যন্ত্রসংগীতের মধ্য দিয়ে রাত ৯টা পর্যন্ত সংগঠনটি বসন্তকে বরণ করে নেবে ভালোবাসায়।
চট্টগ্রামে তিন পৌরসভা নির্বাচন রোববার
১৩,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চতুর্থ ধাপে চট্টগ্রামের তিন পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি)। পটিয়ায় সবকটি কেন্দ্রে ইভিএমে এবং চন্দনাইশ ও সাতকানিয়া পৌরসভায় ব্যালটের মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। পটিয়া পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ড ও ৩টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড। ১৮টি কেন্দ্রে ১১৬টি বুথে ভোটগ্রহণ হবে। ভোটার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৭৮৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২০ হাজার ৯২৫ জন এবং নারী ভোটার ১৮ হাজার ৮৬২ জন। মেয়র পদে চারজন প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে আইয়ুব বাবুল, ধানের শীষের প্রতীক নিয়ে নুরুল ইসলাম সওদাগর, লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে সামশুল আলম মাস্টার, মোমবাতি প্রতীক নিয়ে আলী হোসাইন নির্বাচন করছেন। চন্দনাইশ পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে ভোটার ২৮ হাজার ৯৯৭ জন। পুরুষ ভোটার ১৫ হাজার ১৯৯ জন ও মহিলা ভোটার ১৩ হাজার ৭৯৮ জন। ১৬টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষ ৮৩টি। নির্বাচনে চারজন মেয়র প্রার্থী, ৪৭ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের ৯ জন নারী কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন। মেয়র পদে প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান মেয়র মাহাবুবুল আলম খোকা, বিএনপি মনোনীত মাহাবুবুল আলম চৌধুরী, এলডিপি মনোনীত এম. আইনুল কবির ও ইসলামী ফ্রন্ট মনোনীত ফারুক বাহাদুর। সাতকানিয়া পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ জোবায়ের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বিএনপির মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের মেয়র প্রার্থী এ জেড এম মঈনুল হক চৌধুরী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ায় মোহাম্মদ জোবায়ের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৮ জন প্রার্থী নির্বাচন করছেন। সাতকানিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ৩৭ হাজার ৫৪০ জন ভোটার। এরমধ্যে ১৯ হাজার ৬২২ জন পুরুষ ও ১৭ হাজার ৯১৮ জন মহিলা ভোটার।
চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৬৩ জন
১২,ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬৩ জনের। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩ হাজার ৭৯০ জন। এসময়ে করোনায় মৃত্যুবরণ করেনি কেউ। শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৮টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৫৭৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৬৫টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৬৮১টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৯১টি, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৪২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে চবি ল্যাবে ৫ জন, বিআইটিআইডি ল্যাবে ১৪ জন, চমেক ল্যাবে ৮ জন এবং সিভাসু ল্যাবে ৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৫৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১ জন, শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ২৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৩ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১২টি নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনাটি পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৭০টি নমুনা পরীক্ষা করে একজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৬৩ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১ হাজার ৫৭৯ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৫৬ জন এবং উপজেলায় ৭ জন।
চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির নির্বাচন: এনামুল সভাপতি, জিয়া উদ্দিন সম্পাদক
১১,ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদের অ্যাডভোকেট এনামুল হক সভাপতি এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ভোরে এ ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ হুমায়ুন আকতার। সভাপতি পদে এনামুল হক পেয়েছেন ১ হাজার ৮৩৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের আবু মোহাম্মদ হাশেম পেয়েছেন ১ হাজার ৫৪৯ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে আবুল হোসেন মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন পেয়েছেন ১ হাজার ৯৪৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমমনা আইনজীবী সংসদের মো. তৌহিদ মুনির চৌধুরী টিপু পেয়েছেন ৭২০ ভোট ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদের মো. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী পেয়েছেন ৭১৮ ভোট। চূড়ান্ত ফলাফলে সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতি, সহ-সাধারণ সম্পাদক, অর্থ সম্পাদক, লাইব্রেরি সম্পাদক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক এবং সাতটি সদস্য পদসহ মোট ১৪টি পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ জয় পেয়েছে। অন্যদিকে সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক ও তিনটি সদস্য পদ মিলে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবী ঐক্য পরিষদ মোট ৫টি পদে জয়লাভ করেছে। নির্বাচিত অন্যরা হলেন: সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, সহ-সভাপতি আলী আশরাফ চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল্লাহ আল মামুন, অর্থ সম্পাদক এসএম অহিদুল্লাহ জয়ী হয়েছেন, লাইব্রেরি সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক মো. মনজুরুল আজম চৌধুরী, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক মাহমুদ উল আলম চৌধুরী মারুফ। সদস্য পদে ফাতেমা নারগিস হেলনা, এসএম আরমান মহিউদ্দিন, আবু নাসের রায়ান, সাহেদা বেগম, কাইরুন্নেসা, জোহরা সুলতানা মুনিয়া, মমিনুর রহমান, মারুফ মো. নাজেবুল আলম, নুর কামাল ও মো. সারোয়ার হোসাইন লাভলু। এর আগে বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম আদালত ভবনের আইনজীবী সমিতির অফিসে সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪টায় শেষ হয়। পরে সন্ধ্যায় ভোট গণনা শুরু হয়ে চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। নির্বাচনে ৪ হাজার ৪০২ জন ভোটারের মধ্যে ৩ হাজার ৪২৩ জন ভোট দিয়েছেন।
চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ৭৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন
১০,ফেব্রুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ৭৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। ২০১৯ সালের ৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এম এ সালাম ও এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। এসময় ভোটের মাধ্যমে সভাপতি পদে এম এ সালাম ও সাধারণ সম্পাদক পদে শেখ আতাউর রহমান নির্বাচিত হন। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত তিন বছর মেয়াদের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। জানা যায়, নতুন কমিটিতে ১১ জনকে সহ-সভাপতি পদে রাখা হয়েছে। তারা হলেন- মাহফুজুর রহমান মিতা এমপি, অধ্যাপক মো. মইন উদ্দিন, অ্যাড. মো. ফখরুদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ, এহসানুল হায়দার চৌধুরী, আবুল কাশেম চিশতী, স্বপন কুমার তালুকদার, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হারুণ, এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, মহিউদ্দিন আহমদ রাশেদ ও জসিম উদ্দিন। এছাড়া যুগ্ম সম্পাদক পদে ৩ জন হলেন- নুরুল আনোয়ার চৌধুরী, দেবাশীষ পালিত ও জসিম উদ্দিন শাহ। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৩ জন- সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি খদিজাতুল আনোয়ার সনি, মো. মহিউদ্দিন বাবলু ও নজরুল ইসলাম তালুকদার। কোষাধ্যক্ষ আফতাব খান অমি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক প্রদীপ চক্রবর্তী, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জেবুন নেছা জেসি, দপ্তর সম্পাদক নুর খান, উপ দপ্তর সম্পাদক ইয়াছিন মাহমুদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. আলী শাহ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার প্রিয়াংকা আহসান প্রিয়া, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক জাফর আহমদ, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক নাজিমুদ্দিন তালুকদার, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আবু তালেব, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মেজবাহ উল আলম লাভলু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আলাউদ্দিন সাবেরী, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. হারুণ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. মো. সেলিম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মহসীন জাহাঙ্গীর, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ইদ্রিস আজগর, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন শাহজাহান সিকদার এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ডা. মো. মোস্তফা। কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্যরা হলেন- এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, মো. গিয়াস উদ্দিন, ইউনুচ গনি চৌধুরী, বেদারুল আলম চৌধুরী, নুরুল আলম চৌধুরী, মো. আবুল বশর, ডা. শেখ শফিউল আজম, শওকত আলম, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, শাহনেওয়াজ চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার মাহবুবুর রহমান রুহেল, কাজী মো. ইকবাল, মো. ইদ্রিস, ইফতেখার হোসেন চৌধুরী বাবুল, দিদারুল আলম বাবুল, মো. আলী খসরু, আফতাব হোসেন খান, ডা. নুরুদ্দিন জাহেদ, রুস্তম আলী, মহিউদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, সরওয়ার হাসান জামিল, মো. সেলিম উদ্দিন, শাহেদ সরওয়ার শামীম, ভূপেশ বড়ুয়া, সরওয়ার্দ্দী সিকদার, গোলাম রব্বানী, ফেরদৌস হোসেন আরিফ, আবদুল হালিম, রাজিবুল হাসান সুমন, বখতিয়ার সাঈদ ইরান, হাসিবুল সোহাদ চৌধুরী শাকিব, আফতাব উদ্দিন মাহমুদ পারভেজ ও মনজুর মোরশেদ ফিরোজ।
চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে
১০,ফেব্রুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: উৎসবমুখর পরিবেশে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে। এতে করে আগামী এক বছরের জন্য নতুন নেতৃত্ব পেতে যাচ্ছে সমিতি। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) আইনজীবী সমিতির অডিটোরিয়ামে সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এ ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ৪ হাজার ৪০০ সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। জানা যায়, এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদ ও বিএনপি সমর্থিত ঐক্য ফোরাম পূর্ণ প্যানেলে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এছাড়া স্বতন্ত্র থেকে সাধারণ সম্পাদক, সহসম্পাদক পদে দুজনসহ মোট ১৯টি পদে ৪০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের এম এ (আবু মোহাম্মদ) হাসেম ও আইনজীবী ঐক্য ফোরামের মো. এনামুল হক। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সমন্বয় পরিষদের অ্যাডভোকেট এ এইচ এম জিয়াউদ্দিন, ঐক্য ফোরামের অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এবং স্বতন্ত্র তৌহিদুল মুনির চৌধুরী টিপু। এছাড়া নির্বাচনে আওয়ামী পন্থী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে মো. সেকান্দার চৌধুরী, সহ-সভাপতি প্রার্থী আলী আশরাফ চৌধুরী, সহ-সম্পাদক পদে মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন, অর্থ সম্পাদক পদে এসএম অহিদুল্লাহ, পাঠাগার সম্পাদক পদে মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়ায় মোহাম্মদ মনজুরুল আজম চৌধুরী এবং তথ্য ও প্রযুক্তি পদে প্রার্থী হয়েছেন হাদী মো. হাম্মাদ উল্লাহ। অন্যদিকে বিএনপি পন্থী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, সহ-সভাপতি পদে মুহাম্মদ আবু তাহের, সহ-সম্পাদক পদে মো. এরশাদুর রহমান রিটু, অর্থ সম্পাদক প্রার্থী ইমতিয়াজ আহাম্মদ জিয়া, পাঠাগার সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে মো. রবিউল হোসেন নয়ন, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে মো. নাজমুল হাসান সিদ্দিকী এবং তথ্য ও প্রযুক্তি পদে প্রার্থী হয়েছেন মাহমুদ উল আলম চৌধুরী (মারুফ)। দুই প্যানেলের বাইরে দল নিরপেক্ষ সমমনা সংসদ থেকে এবার একমাত্র প্রার্থী হিসেবে সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন তৌহিদুল মুনির টিপু। আর সহ-সম্পাদক পদে সাধারণ আইনজীবী কল্যাণ পরিষদের ব্যানারে নির্বাচন করছেন গাজী মো. সাদেকুল আলম। আবার সমন্বয় পরিষদ প্যানেল থেকে নির্বাহী সদস্য পদে ভোটের মাঠে রয়েছেন- আবু নাসের রায়হান, ফাতেমা নার্গিস, গাজী মো. শওকত হোসাইন, কাজী শোয়াইব উর রশিদ সিদ্দিকি, খাইরুন নেছা, মোমেনুর রহমান, রহিম উদ্দিন, সাহেদা বেগম, এস এম আরমান মহিউদ্দিন ও জোহরা সুলতানা মুনিয়া। ঐক্য পরিষদ প্যানেল থেকে নির্বাহী সদস্য পদে প্রার্থীরা হলেন- আবদুল সবুর, গাজী মোহাম্মদ আইয়ুব খাঁন, মারুফ মো. নাজেবুল আলম, মো. আবদুল হালিম, মো. আবদুল্লাহ আল মামুন, মো. আবদুল্লাহ আল নোমান, মো. আকতার হোসাইন, মো. সরোয়ান হোসাইন লাভলু, নুর কামাল ও শামসুদ্দোহা মো. মাহতাব হাসান পাভেল। উল্লেখ্য, গত ২০ জানুয়ারি জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে তফসিল ঘোষণার পর বিভিন্ন প্রক্রিয়া শেষে ২৮ জানুয়ারি চূড়ান্ত প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন।
চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৭৫ জন
১০,ফেব্রুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭৫ জনের। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩ হাজার ৬৬১ জন। এসময়ে করোনায় মৃত্যুবরণ করেনি কেউ। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৮টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬৩১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৭২টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৮১৫টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ১৮৯টি, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৬৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে চবি ল্যাবে ১১ জন, বিআইটিআইডি ল্যাবে ৯ জন, চমেক ল্যাবে ১২ জন এবং সিভাসু ল্যাবে ১০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জন, শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৩৫২টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৭ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২১টি নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২টি নমুনা পরীক্ষা করে ১টি নমুনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৬৬টি নমুনা পরীক্ষা করে একজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৭৫ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১ হাজার ৬৩১টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৬০ জন এবং উপজেলায় ১৫ জন।
দায়িত্বে অবহেলা, পটিয়ার ২ স্টেশন মাস্টারকে শোকজ-বহিষ্কার
৯,ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে চট্টগ্রামের পটিয়া রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টারকে শোকজ ও সহকারী স্টেশন মাস্টারকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা হলেন- পটিয়া রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মাজহারুল ইসলাম ও সহকারী স্টেশন মাস্টার শামসুন নাহার। মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) তাদের বিরুদ্ধে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সূত্র জানায়, পটিয়া স্টেশনে চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে চলাচল করা ডেমু ট্রেনের অনেক যাত্রী সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) টিকিট পাননি। স্টেশন মাস্টার ও সহকারী স্টেশন মাস্টার ওই সময় স্টেশনে ছিলেন না। ফলে যাত্রীরা ভোগান্তির শিকার হন। রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশগুপ্ত বলেন, দায়িত্বে অবহেলা করায় দুইজনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, সহকারী স্টেশন মাস্টারকে সাময়িক বহিষ্কার ও স্টেশন মাস্টারকে শোকজ করা হয়েছে। উপযুক্ত জবাব দিতে না পারলে তাদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সাময়িক বহিষ্কার হওয়া সহকারী স্টেশন মাস্টার শামসুন নাহার বলেন, ওইদিন আমার ডিউটি ছিল না। আগের দিন আমি রাত পর্যন্ত ডিউটি করেছি। সব যাত্রীকে ঠিকমতো টিকিট দিয়েছি। আমার দোষ নাকি স্টেশনের মোবাইল ফোনের সিমটি আমার কাছে ছিল। কিন্তু স্টেশন মাস্টার-তো সিম নিতে চায় না। তাই আমি বাসায় নিয়ে এসেছিলাম।
চট্টগ্রামে নারী উদ্যোক্তাদের পণ্য প্রদর্শনী শুরু বুধবার
৯,ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বসন্ত উৎসব ও ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজন করছে পাঁচ দিনব্যাপী- সিএমএসএমই প্রডাক্টস ফেয়ার। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় হোটেল আগ্রাবাদে পণ্য প্রদর্শনী শুরু হবে। প্রধান অতিথি হিসেবে এ মেলার উদ্বোধন করবেন উইম্যান কো-অপারেটিভ সোসাইটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ মহিলা সমিতির (বাওয়া) সভাপতি কামরুন মালেক। বিশেষ অতিথি থাকবেন প্রজন্ম বাংলাদেশের টিম লিডার আলী সাবেত, পুনাক সিএমপির সহ-সভানেত্রী শিউলি ভৌমিক। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উইম্যান চেম্বারের প্রেসিডেন্ট ইনচার্জ আবিদা মোস্তফা, সিএমএসএমই প্রডাক্টস ফেয়ারের চেয়ারপারসন রেবেকা নাসরিন, উইম্যান চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট রেখা আলম চৌধুরী, নিশাত ইমরান, পরিচালক হোমায়রা মোস্তফা সোহানী, সাবেক পরিচালক কাজী তুহিনা আক্তার প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, করোনা মহামারিতে বাংলাদেশের সিএমএসএমই খাতের নারী উদ্যোক্তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। তারা বেশিরভাগ ছোট ছোট মেলা, উৎসব, পূজা, পার্বণ, প্রদর্শনী নির্ভর। মহামারির কারণে এসব আয়োজন হয়নি। তাই তারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাদের উজ্জীবিত করতে ছোট পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিএমএসএমই প্রডাক্টস ফেয়ারের আয়োজন করা হচ্ছে। এতে ৩০-৩৫পি স্টল থাকবে। নারী উদ্যোক্তাদের এসএমই ব্যাংকগুলোর সেতুবন্ধন তৈরি ও প্রাথমিক ঋণ আবেদনে সহায়তার জন্য ব্র্যাক ব্যাংক ও আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড থাকবে সিএমএসএমই প্রডাক্টস ফেয়ারে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর