শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১
চট্টগ্রামের ত্রাস মিঠু আটক, বেরিয়ে এলো ছিনতাইয়ের কৌশল
১৪,ডিসেম্বর,সোমবার,সিনিয়র সংবাদদাতা,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ১০ বছরে চট্টগ্রাম নগরে সিএনজি অটোরিকশা দিয়ে কয়েক হাজার ছিনতাই হয়েছে। এসব ছিনতাইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন দলের নেতা মোস্তাকিন হোসন মিঠু। অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে মিঠুসহ দলের অন্য সদস্যরা। এ সময় অস্ত্র-গুলি এবং ছোরাসহ তাদের আটক করেছে পুলিশ। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে ছিনতাইয়ের কৌশল। দলের নেতা মিঠু জানায়, ছিনতাইয়ের পর ধরা পড়লে আবার কারাগারে বসে আবার নতুন গ্রুপ তৈরি করা হয়েছে। এভাবেই নগরীতে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে তাদের অধিপত্য ধরে রাখছিল মিঠু নেতৃত্বাধীন দুর্ধর্ষ ছিনতাইকারী গ্রুপ। সিএমপির কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন জানান, প্রতিদিনই এই গ্রুপের কবলে পড়েন সাধারণ সিএনজি অটোরিকশা আরোহীরা। এমনকি তাদের হাতে হত্যাকাণ্ডের মতো একাধিক ঘটনা ঘটে। সিএমপির (কোতোয়ালি জোন) সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা জানান, ছোট মামলায় জেলে গেলে সেখানেই তাদের ছিনতাইয়ে হাতেখড়ি হয়। এরপর বেরিয়ে এসে সরাসরি ছিনতাইয়ের কাজে নেমে পড়ে তারা। মূলত ছিনতাই করতে গিয়ে আটবারের বেশি আটক হয়ে জেলে যায় দলনেতা মিঠু। আর প্রতিবারই জেল থেকে বের হওয়ার সময় নতুন ছিনতাই গ্রুপ গঠন করে বলে জানান নগর পুলিশের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। পুলিশ জানায়, দলনেতা মিঠুসহ সবার বিরুদ্ধে ৫ থেকে ১০টি মামলা রয়েছে। এবার নতুন করে আরও দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
করোনাভাইরাসে চট্টগ্রামে ২ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৯৩ জন
১৪,ডিসেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১হাজার ২৪৫টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৩ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ২৭ হাজার ৮২৭ জন। এসময়ে করোনায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৭টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৩২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৯ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৪৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ১৪ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৭৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৩৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এতে পজেটিভ আসে ১৩ জনের। এছাড়া ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১২১টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩২ জন ও চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৯ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। তবে শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে এইদিন কোনো নমুনা পরীক্ষা হয়নি। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ১৪ জনের পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের একটি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনাটিতে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১৯৩ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ২৪৫টি। আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১৫৪ জন এবং উপজেলায় ৩৯ জন।
চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৭৮ জন, একজনের মৃত্যু
১৩,ডিসেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭৮ জনের। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৭ হাজার ৬৩৪ জন। এসময়ে মৃত্যু হয়েছে একজনের। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায়, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৫টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৩২৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৬১৫টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে বিআইটিআইডি ল্যাবে ১০ জন, চমেক ল্যাবে ৩১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ১৭৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ২১ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২১টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তবে এইদিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাব, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব এবং বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। অন্যদিকে জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৩টি পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৪২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মেলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ৭৮ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ৭০ জন এবং উপজেলায় ৮ জন।
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত মানেই স্বাধীনতাকে অসম্মান করা: ডিসি
১৩,ডিসেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যে আঘাত করা মানেই বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে অসম্মান করা বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন। তিনি বলেছেন, স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ- তিনটি একই সূত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত হানা, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিকে অসম্মান করা মানে দেশ ও সার্বভৌমত্বকে অসম্মান করা। সংবিধানকে অসম্মান করা। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতিবাদ সমাবেশে ডিসি এসব কথা বলেন। মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, গত ৫ ডিসেম্বর কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার যে ঘটনা ঘটেছে, আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই। আমরা দ্ব্যর্থহীন কন্ঠে বলতে চাই- যতদিন রবে পদ্মা যমুনা গৌরী মেঘনা বহমান, ততদিন রবে কীর্তি তোমার, শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুর সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান। জেলা প্রশাসক বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে আমরা দেশের সব নাগরিককে অনুরোধ জানাচ্ছি। পাশাপাশি যারা হীন স্বার্থে দেশবিরোধী চক্রান্তে জড়িত তাদের বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। দুষ্কৃতিকারী, চক্রান্তকারীদের ঠাঁয় বাংলার মাটিতে হবে না। সমাবেশে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, সিএমপি কমিশনার সালেহ্ মোহাম্মদ তানভীর, চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহারিয়ার কবির, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক, চট্টগ্রাম বন্দর কর্মচারী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. নায়েবুল ইসলাম ফটিকসহ চট্টগ্রাম জেলার সরকারি-আধাসরকারি দফতরের কর্মকর্তারা বক্তব্য দেন।
দেশের নীতি আদর্শকে সম্মান করুন: বিভাগীয় কমিশনার
১২,ডিসেম্বর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: একটি অস্তিত্বের দুইটি নাম বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ। জাতির পিতার ওপর আঘাত মানে বাংলাদেশের অস্তিত্বের ওপর আঘাত, সংবিধানের প্রতি আঘাত। উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে বাংলাদেশের পরাজিত শক্তি পাঁয়তারা করছে। তাদের দুঃসাহস না দেখানোর অনুরোধ করছি। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে শনিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতিবাদ সমাবেশে বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ভাস্কর্যের ওপরে যে আঘাত, সেটি আসলে আঘাত হিসেবে দেখার কোনো সুযোগ নাই। এটি গভীর ষড়যন্ত্রের একটি নমুনা। পাকিস্তানের পরাজিত শক্তি যারা কখনোই পরাজয় মেনে নিতে পারেনি তারাই সময়ে সময়ে সেই আচরণ করছে। সেই আচরণের বহিঃপ্রকাশ হলো জাতির পিতার ভাস্কর্যের প্রতি আঘাত। এর প্রতিবাদ না করলে এই শক্তি আরও বড় ধরনের অপকর্ম করার সুযোগ পাবে। এসময় বিভাগীয় কমিশনার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাস্তায় নামাবেন না। রাস্তায় নামালে আপনাদের অস্তিত্ব থাকবে না। আমরা চাই না, এই ধরনের ইস্যু নিয়ে দ্বিতীয়বার কোনো প্রতিবাদে হাজির হই। আমাদের কাজ সেবা দেওয়া। সেই কাজটি আমরা করতে চাই। যদি আপনারা সেই কাজটি করতে বাধা দেন, অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন করেন তাহলে সরকারি কর্মচারীরা বসে থাকবে না। যদি এই দেশে থাকতে চান তাহলে এই দেশের নীতি আদর্শকে সম্মান করুন। দেশের অনুভূতিতে আঘাত লাগে এমন কোনো আচরণ থেকে আপনারা বিরত থাকুন। সমাবেশে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন বলেন, যারা প্রতিকৃতি ভেঙে ফেলার পাঁয়তারা করছে তাদের সকলের অতীত খুঁজে দেখেন-তাদের কী ভূমিকা ছিল। এই ঘৃণ্য শত্রুদেরকে বাঙালি জাতি বার বার পরাজিত করেছে, আগামীতেও করবে। স্বাধীনতার ৪৯ বছরে যখন বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করছি সেই সময়ে পরাজিত শক্তি আবারও সাহস করছে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আঘাত করার। যারা বাংলাদেশ চায়নি, যারা ১৯৭১ সালে পাক হানাদারদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিল, আজকেও সেই তারাই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ডিআইজি আরও বলেন, অতীতে তারা যে ধরনের ভূমিকা পালন করেছে এখনও সেই একই ধরনের কাজ করছে। তাদের ভূমিকা ও মানসিকতার কোনো পরিবর্তন হয়নি। তাদের পূর্বপুরুষরা যে মানসিকতার ছিল, এখন তাদের ছেলে-নাতিরাও সেই মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি। জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে চট্টগ্রামে বিভিন্ন বিভাগে কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বক্তব্য দেন।
১ কোটি ৯০ লাখ টাকার ইয়াবাসহ ২ মাদক বিক্রেতা আটক
১২,ডিসেম্বর,শনিবার,সিনিয়র সংবাদদাতা,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: কর্ণফুলী থানাধীন শাহ আমানত সেতু এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ৮০ পিস ইয়াবাসহ ২ মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে Rab সদস্যরা। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) তাদের আটকের বিষয়টি জানান Rab- 7এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন। তিনি বলেন, কাভার্ড ভ্যানে ১ কোটি ৯০ লাখ টাকার এসব ইয়াবা নিয়ে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামে আসার পথে শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) রাত পৌনে ৯টার দিকে দুই মাদক বিক্রেতাকে আটক করা হয়। Rab সূত্র জানায়, শাহ আমানত সেতু সংলগ্ন টোলপ্লাজা কার্যালয়ের সামনে চেকপোস্ট বসিয়ে গাড়ি তল্লাশির সময় কাভার্ড ভ্যানটি থামিয়ে চালক মো. রুবেল মিয়া প্রকাশ সুমন (২২) ও হেলপার মো. ইউনূছ (২৭) পালানোর চেষ্টা করে। Rab সদস্যরা তাদের আটক করে কাভার্ড ভ্যানের ভিতরে ট্রাভেল ব্যাগ হতে বিশেষ কায়দায় রাখা এসব ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে কাভার্ড ভ্যানটি (ঢাকামেট্রো-ট-২২-৬৯২৯) জব্দ করা হয়। চালক রুবেল মিয়া ও হেলপার ইউনূছের বাড়ি নোয়াখালীর শরীফপুর। তারা নগরের আকবরশাহ্ থানাধীন কলাবাগান এলাকায় থাকে। Rabর জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজারের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করে আসছে। দুই মাদক বিক্রেতাকে কর্ণফুলী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন।
করোনা: চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় ২ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৪৪ জন
১২,ডিসেম্বর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪৪ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ২৭ হাজার ৫৫৬ জন। এইদিন দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৫টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৭৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৮ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৫৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ২৯ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৩৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪০ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১১৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩১ জন, এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। তবে এইদিন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরি, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১৪৪ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৩৮৯টি। আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১০৯ জন এবং উপজেলায় ৩৫ জন।
জালাল উদ্দিন আল কাদেরির ওফাত বার্ষিকী শনিবার
১১ডিসেম্বর,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের সাবেক খতিব, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার সাবেক প্রিন্সিপাল আল্লামা মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন আল কাদেরি (রাহ.) এর চতুর্থ ওফাত বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ও সুন্নি সম্মেলন কাল শনিবার (১২ ডিসেম্বর) বাদ আছর জমিয়তুল ফালাহ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদ ও আল্লামা জালাল উদ্দিন ফাউন্ডেশন-এর আয়োজনে পর্ষদের চেয়ারম্যান আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি থাকবেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নাওফেল এমপি। বিশেষ অতিথি থাকবেন মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপি, সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভা-ারী এমপি, চসিক প্রশাসক আলহাজ মুহাম্মদ খুরশেদ আলম সুজন, পীরে তরিকত সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমদ আল মাইজভা-ারী, পীরে তরিকত মাওলানা মুহাম্মদ আবদুশ শুক্কুর নকশবন্দী প্রমুখ। এতে বক্তব্য রাখবেন অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ওয়াছিয়র রহমান, জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মাসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ আবু তালিব মুহাম্মদ আলা উদ্দিন, শায়খুল হাদিস মাওলানা কাজী মুহাম্মদ মুঈনুদ্দিন আশরাফি, মওলানা মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ ও মাওলানা আনিসুজ্জামান প্রমুখ। বাদ ইশা মিলাদ-কিয়াম, মুনাজাত ও তাবরুক বিতরণের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হবে। উক্ত অনুষ্ঠানে সবান্ধব অংশগ্রহণ করার জন্য আলহাজ সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান সবাইকে উপস্থিত থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর