শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১
সামুদ্রিক মৎস্য আইনকে বাস্তবধর্মী করার বিকল্প নেই
০৮ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,সিনিয়র সংবাদদাতা,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নতুন সামুদ্রিক মৎস্য আইনের বিভিন্ন ধারা, উপধারা, পরস্পর বিরোধী এবং সাংঘর্ষিক বিষয়গুলো সংশোধনের দাবি জানিয়েছে মেরিন হোয়াইট ফিস ট্রলার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন। চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানানো হয়। এ সময় অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ সভাপতি সৈয়দ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মো. তাজউদ্দিন তাজু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নূর নবী, সহ সভাপতি দিদারুল আলম চৌধুরী, সদস্য সাইফুল ইসলাম বুলবুল, জসিম উদ্দিন হায়দার, মাসুদ আকতার চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার মনোয়ার হোসেন, মোবারক, আবদুল মান্নান, মো. কামাল, নাজমুল, আলাউদ্দিন, রাশেদ, নাছির, সাজু, রুবেল, হেলাল আহমেদ চৌধুরী, আবদুল মজিদ, নাছির উদ্দীন, রাসেল রানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বর্তমান সরকার সামুদ্রিক মৎস্য অর্ডিনেন্স ১৯৮৩ বাতিল করে গত ১৬ নভেম্বর জাতীয় সংসদে সামুদ্রিক মৎস্য আইন ২০২০ প্রণয়ন করে। যা গত ২৬ নভেম্বর গেজেট আকারে প্রকাশ করেছে। সময়ের চাহিদার প্রতিফলনে নতুন আইন বাস্তবতা বিবর্জিত, সাংঘর্ষিক ও জনগণের মৌলিক অধিকার পরিপন্থী। এ আইন প্রণয়নের সময় সামুদ্রিক মৎস্যজীবী বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে কোনো আলোচনা কিংবা মতামত নেওয়া হয়নি। যার ফলে অরাজক পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে। নতুন আইনের ধারাগুলো এমনভাবে রাখা হয়েছে যা দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের স্পিড মানি গ্রহণ এবং অসৎ পন্থা অবলম্বনের সুযোগ সৃষ্টির সহায়ক হয়েছে। নতুন আইনে লঘু অপরাধের জন্য গুরুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। অনেক ধারা দেশের প্রচলিত ফৌজদারী আইন কানুনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। অধিকাংশ ধারা, উপধারাগুলো ব্যবসায়ীদের জন্য ব্যবসাবান্ধব নয় বরং বিনিয়োগকারীদের ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশে স্টিল ও কাঠের বডির ২৫৮টি বড় ফিশিং ট্রলার আছে। এককটি ট্রলারে ৩০ জনের বেশি স্কিপার, ইঞ্জিনিয়ার, নাবিক ও কর্মকর্তা আছেন। নতুন আইনের কঠোরতার কারণে সামুদ্রিক মৎস্য ট্রলারে কর্মরত স্কিপার, ইঞ্জিনিয়ার, সেইলর, কর্মকর্তা এবং সব বিনিয়োগকারী স্টেক হোল্ডারসহ সংশ্লিষ্ট সবাই শঙ্কিত হয়ে গত ৫ ডিসেম্বর সমুদ্রে মৎস্য আহরণ বন্ধ করে বন্দরে ফেরত আসেন। ট্রলার মালিকরা একদিকে ট্রলারের চলমান খরচ জোগান দিতে হচ্ছে অপর দিকে বৈশ্বিক করোনা মহামারি ও ব্যাংক লোনের কিস্তি পরিশোধের ঝুঁকি সামাল দিতে হচ্ছে যা মোকাবেলা অত্যন্ত কঠিন হবে। নতুন আইনটি সংশ্লিষ্ট শ্রেণি, পেশা ও সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে বাস্তবধর্মী ও সর্বজনীন করার কোনো বিকল্প নেই।
করোনা: চট্টগ্রাম একদিনেই আক্রান্ত ২১৩
০৮ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৬৬১টি নমুনা পরীক্ষায় ২১৩ জনের করোনা শনাক্তা হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্ত ২৬ হাজার ৮৫৬ জন। এই দিন চট্টগ্রামে করোনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৭ ডিসেম্বর ) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এই দিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৮টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। এতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৫৪টি নমুনা পরীক্ষায় ৫৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৭১৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ২২ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৬০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪৮ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৯৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এতে পজেটিভ আসে ৯ জনের। তা ছাড়া ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১০৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৯ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৭৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৫ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২৮নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ১৭ জনের পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৩টি নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মেলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ২১৩ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এই দিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৬৬১টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১৮০ জন এবং উপজেলায় ৩৩ জন।
ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে চবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের মানববন্ধন
০৭ডিসেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদ। সোমবার (৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চত্বরে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এসময় ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন বক্তারা। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, যে বঙ্গবন্ধু না হলে বাংলাদেশ হতো না; সেই জাতির পিতার ভাস্কর্য ভাঙার ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণ যারা করেছে তারা দেশ-জাতির শত্রু। প্রতিক্রিয়াশীল মৌলবাদী অপশক্তির বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিকে ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। যারা দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি সহ্য করতে পারছে না তারাই আজকে জাতির পিতার ভাস্কর্য ভেঙে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিকও বেঁচে থাকতে তাদের এ অপচেষ্টা সফল হতে দেওয়া হবে না। বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিবুর রহমানের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনজুর উল আলম, যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মো. আলী আজগর চৌধুরী, অতীশ দীপংকর শ্রীজ্ঞান হলের প্রভোস্ট রেজাউল করিম, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ-সভাপতি এ কে এম মাহফুজুল হক খোকন, চবি অফিসার সমিতির সাধারণ সম্পাদক হামিদ হোসাইন নোমানী প্রমুখ।
চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত আরও ২৩৩ জন, ২ জনের মৃত্যু
০৭ডিসেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৩৩ জনের। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৬ হাজার ৮৪৩ জন। এসময়ে করোনায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৬ ডিসেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায়, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৮টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৫৭২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ১৩২টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৪৯৩টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪২২টি, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ৭০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে চবি ল্যাবে ৩৪ জন, বিআইটিআইডি ল্যাবে ১৯ জন, চমেক ল্যাবে ৭৬ জন, সিভাসু ল্যাবে ২৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১১২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৬ জন, শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ২৩৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৫ জন এবং চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫টি পজেটিভ শনাক্ত হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৭৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেনি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ২৩৩ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ২০৭ জন এবং উপজেলায় ২৬ জন। এইদিন চট্টগ্রামে করোনায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে নগরে যুবলীগ-ছাত্রলীগের বিক্ষোভ
০৬ডিসেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুষ্টিয়ায় রাতের অন্ধকারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ ও ছাত্রলীগ। রোববার (৬ ডিসেম্বর) নগরের নিউমার্কেট এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করে সংগঠন দুটি। নগরের পুরাতন রেল স্টেশন চত্বরে নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকার সভাপতিত্বে ও মাহাবুব আলম আজাদের পরিচালনায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তারা বলেন, জীবিত বঙ্গবন্ধুর চেয়ে আজ হৃদয়ের মুজিব অনেক বেশি শক্তিশালী। গভীর রাতে লোকচক্ষুর অন্তরালে যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে হাত দিয়েছে তাদের হাত ভেঙে গুঁডিয়ে দেওয়া হবে।কোটি কোটি ভক্ত-অনুসারীর হৃদয়ে আঘাত করে যে আগুন তারা জ্বালিয়ে দিয়েছেন, সে আগুনে ধর্ম ব্যবসায়ী-মৌলবাদীরা জ্বলে পুডে ছাড়খার হয়ে যাবে। অন্যদিকে পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহাম্মেদ ইমুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীরের সঞ্চালনায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এত বক্তারা বলেন, কুষ্টিয়ায় রাতের অন্ধকারে যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে ভাঙচুর চালিয়েছে তারা চিহ্নিত অপশক্তি এবং ৭১ এর পরাজিত সাম্প্রদায়িক মৌলবাদী গোষ্ঠী। তাদের সাম্প্রতিক কর্মকান্ড সীমা লঙ্গন করেছে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে ভাঙচুর মানে বাংলাদেশের অস্বিত্বে আঘাত।
পটিয়ায় ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ৫
০৬ডিসেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পটিয়া উপজেলার মুজাফররাদ এলাকা থেকে ৬ হাজার ৭শ পিস ইয়াবাসহ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। রবিবার (৬ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার মুজাফরাবাদের নজরুল এন্ড কোম্পানি ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন- মো. আনোয়ার হোসেন (৪৮), মো. ইলিয়াস (৩৫), মো. নজরুল ইসলাম (৪৮), সামিদুল ইসলাম মুবিন (১৯), মো. জুবায়ের হোসেন (৩০)। মাদকদ্রব্যের উপ-পরিচালক হুমায়ুন কবির জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পটিয়া থানার মুজাফরাবাদ এলাকার থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ৬ হাজার ৭শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। তারা কক্সবাজার থেকে ইয়াবাগুলো সংগ্রহ করে ঝালকাঠি ও ঠাকুরগাঁও নিয়ে যাচ্ছিল।
চট্টগ্রামে একদিনেই করোনা আক্রান্ত ১৪৭ জন, ২ জনের মৃত্যু
০৬ডিসেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১হাজার ২৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৪৭ জন। এ নিয়ে মোট করোনা আক্রান্ত ২৬ হাজার ৪১০ জন। এইদিন চট্টগ্রামে করোনায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৫ ডিসেম্বর) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এইদিন কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামে ৪টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৬৩৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ১৭ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৫৮৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। তবে এইদিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব, ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাব এবং শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে করোনা পরীক্ষা হয়নি। এছাড়া চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫ জন এবং জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২০টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৪ জনের করোনা পজেটিভ হয়। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের একটিমাত্র নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনাটি নেগেটিভ আসে। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় ১৪৭ জন নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এইদিন নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ২৫৫টি। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১৩৩ জন এবং উপজেলায় ১৪ জন।
ফেসবুক আইডি হ্যাক করে প্রতারণা, স্বামী-স্ত্রী গ্রেপ্তার
০৫ডিসেম্বর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেসবুক আইডি হ্যাক করে টাকা আদায়ের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগে হবিগঞ্জ থেকে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এসময় তাদের কাছ থেকে দুইটি এন্ড্রয়েড মোবাইল সেট, ৬টি ভুয়া রেজিস্টার্ড সিম কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া তাদের মোবাইলে অর্ধশত ফেসবুক আইডির লগইন এবং হ্যাকিং সংক্রান্ত তথ্য পাওয়া গেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- আসাদুজ্জামান পলাশ (২১) ও তার স্ত্রী সাদিয়া সরকার (২১)। শনিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টায় সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার মো. হামিদুল আলম। তিনি জানান, গত ২৬ নভেম্বর ভিকটিমের ছোট বোন তার হ্যাক হওয়া আইডি পুনরুদ্ধার করার জন্য বিভিন্ন সাইট খোঁজার পর একটি পেইজের সন্ধান পান। পরে ফেসবুক পেইজ ব্যবহারকারী নিজেকে তানজিলা আক্তার তুলি বলে পরিচয় দেয়। তুলি ভিকটিমের ফেসবুক মেসেঞ্জারে ফোন করে আইডি পুনরুদ্ধার করার জন্য টাকা দাবি করে। ভিকটিম একটি বিকাশ নাম্বারে দাবিকৃত টাকাও পাঠান। ২৮ নভেম্বর রাত ৩টায় ওই মহিলা ফেসবুক মেসেঞ্জার থেকে ভিকটিমকে ফোন করে বলে ফেসবুক ৫ মিনিট সময় দিয়েছে আইডি রিকভারি করতে। তবে এজন্য জয়েন্ট একাউন্ট লাগবে জানিয়ে একটি লিংক পাঠানো হয়। ওই লিংকে ভিকটিমের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করার জন্য বলে তানজিলা। ভিকটিম ওই লিংকে ফেসবুক আইডি ও পাসওয়ার্ড দেওয়া মাত্রই ভিকটিমের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি লগ আউট হয়ে তার একাউন্টও হ্যাক হয়ে যায়। এরপর ভিকটিম অন্য একটি ফেসবুক আইডি থেকে তানজিলাকে মেসেঞ্জারে ফোন করলে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি জানায়, ভিকটিমের আইডি সে হ্যাক করেছে। পরে ওই হ্যাকার ভিকটিমকে অশ্লীলভাবে মেসেঞ্জারে ভিডিও কল করার জন্য প্রস্তাব দেয়। হ্যাকারের প্রস্তাবে রাজি না হলে সে মেসেঞ্জারে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে হ্যাক হওয়া ফেসবুক থেকে ভিকটিমের স্বামী ও তার ব্যক্তিগত ছবি সংগ্রহ করে তা ইন্টারনেটে ভাইরাল করার হুমকি দেয়। এমনকি ভিকটিমের নামে পর্ণ ওয়েবসাইট খুলে তা ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে। টাকা না পেয়ে হ্যাকার হ্যাক করা আইডি থেকে ভিকটিমের বন্ধু ও আত্মীয়-স্বজনের কাছে ব্যক্তিগত ছবি এবং ভিডিও অশ্লীলভাবে এডিট করে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় ভিকটিম ৩ ডিসেম্বর হালিশহর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করলে সিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট হবিগঞ্জের মাহমুদাবাদ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে। সাইবার ক্রাইম টিমকে সহায়তা করে হবিগঞ্জ জেলার গোয়েন্দা বিভাগ। কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. হামিদুল আলম বলেন, এই দম্পত্তি বিভিন্ন ফেসবুক আইডি রিকভার করে দেওয়ার নামে, ফেসবুক পেইজ বুস্ট, ফেসবুক আইডি ভেরিফাইড এবং পেইজের ফলোয়ার বাড়ানোর চটকদার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কৌশলে আইডি হ্যাক করে। পরে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য, ছবি, ভিডিও সংরক্ষণ করে পর্ণ সাইটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিষয়টি স্বীকারও করেছে।
বঙ্গবন্ধুর অবমাননা সহ্য করা হবে না: তথ্যমন্ত্রী
০৫ডিসেম্বর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোনো ইস্যুতেই বঙ্গবন্ধুর অবমাননা সহ্য করা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মভিত্তিক বই বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুজিববর্ষের শেষের দিকে এসে নানাভাবে বিতর্ক তৈরি করা হচ্ছে। অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে নানান প্রসঙ্গ টেনে সমাজে অস্থিরতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। যারা সমাজকে পিছিয়ে নিতে চায় এবং তাদেরকে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করছে তাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধু এমন একজন নেতা ছিলেন-যে নেতার আহ্বানে বাঙালি নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে, যেখানে মানুষ নিজের প্রাণটাকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে; সেই প্রাণ বিসর্জন দেওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে পেরেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এমন খুব কম নেতাই আছেন, যারা মানুষকে এভাবে উদ্দীপ্ত করতে পেরেছেন। বঙ্গবন্ধু একদিকে যেমন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, তেমনি বিশ্ব ইতিহাসে সেরা নেতাদের একজন। তিনি বলেন, সাংবাদিকরা দেশের মানুষকে পথ দেখায়। আমাদের স্বাধিকার আদায়ের আন্দোলনে যেমন সাংবাদিকদের ভূমিকা ছিল তেমনি বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীনতার জন্য মানুষের মনন তৈরি করার ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের লেখনী-পত্রিকার সংবাদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। যারা সমাজকে মধ্যযুগে নিয়ে যেতে চায়, যারা মধ্যযুগীয় সমাজব্যবস্থা কায়েম করতে চায় এবং তাদেরকে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করে-এদের বিরুদ্ধেও আজকে কলম নিয়ে সোচ্চার হওয়ার সময় এসেছে। প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক, প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সালাউদ্দিন মোহাম্মদ রেজা, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, প্রেস কাউন্সিলের সদস্য আব্দুল মজিদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর