শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১
অনলাইনে পরিচয় হওয়া নারীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে অপহরণের শিকার
২৯জুন,সোমবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় হওয়া এ নারীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে অপরহরণের শিকার হয়েছেন এক যুবক। অপহরণের পর ওই যুবককে আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবি করেছিল প্রতারক চক্র। অভিযোগ পেয়ে অভিযান চালিয়ে অপহৃত ওই যুবককে উদ্ধার করেছে Rapid Action Battalion (Rab)। আজ সোমবার অপহরণ চক্রের এক সদস্যকে আটক ও ভিকটিমকে উদ্ধারের বিষয়টি জানায় Rab-7। অপহরণ চক্রের সঙ্গে জড়িত মাকসুদা শেখ (২৪) নামে এক নারীকে আটক করেছে। আটক মাকসুদা শেখ বাগেরহাট জেলার সদর উপজেলার সাইনবোর্ড এলাকার জাফর শেখের মেয়ে। এ সময় অপহরণ চক্রের আরো দুই সদস্য পালিয়ে যায় বলে জানিয়েছে Rab। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন নিউজ একাত্তরকে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় হওয়া এ নারীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে অপহরণের শিকার হয়েছিলেন এক যুবক। তার পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছিল। অভিযোগ পেয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় অপহরণ চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে।
রাইফা খুনের বিচার না হওয়ায় স্বাস্থ্য সেবা খাতের লুটেরারা মরিয়া: রিয়াজ হায়দার চৌধুরী
২৯জুন,সোমবার,শারমিন আকতার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাংবাদিক কন্যা রাইফা খুনের মামলা তদন্তের ধীর গতিতে বিস্ময় প্রকাশ করে মামলাটি তদন্তে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশের সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ জাতীয় সংগঠন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি ও চট্টগ্রাম নাগরিক উদ্যোগের আহ্বায়ক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী। তিনি বেসরকারি পর্যায়ে চিকিৎসা সেবা খাতকে স্বচ্ছতার আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বলেন, রাইফার মৃত্যু তদন্ত করে অভিযুক্ত প্রমাণের দীর্ঘসূত্রিতার কারনেই বেসরকারিখাতে স্বাস্থ্য সেবা প্রক্রিয়ায় লুটেরা শ্রেণী মরিয়া হয়ে উঠেছে। রাইফা খুনের সঠিক তদন্ত ও বিচার হলে এই চলতি করোনা সময়ে ক্লিনিকে-হাসপাতালগুলোতে মানুষের এমন হাহাকার হতো না। এই পেশাজীবী নেতা মানবিক সংগঠন মুসাফির এর উদ্যেগে সাংবাদিক কন্যা রাফিদা খান রাইফার ২য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ-মাহফিল, দোয়া ও এতিম, অসহায় শিশুকিশোর এবং ভাসমান মানুষদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা জানান। সংগঠনটির উদ্যোগে আজ ২৯ জুন (সোমবার) দুপুর ১টায় নগরির আমানত শাহ (রা.) মাজার সংলগ্ন তনজিমুল মোছলেমিন এতিম খানায় আহ্বায়ক ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নিবার্হী সদস্য মুহাম্মদ মহরম হোসাইন এর সভাপতিত্বে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্হিত ছিলেন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী, নির্বাহী সদস্য ও রাইফার পিতা রুবেল খান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক অর্থ সম্পাদক তাপস বড়ুয়া রুমু, এতিম খানাটির তত্বাবধায়ক হাফেজ আমান উল্লাহ, চকবাজার থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ নাজিম উদ্দীন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জিয়া আবেদীন আহসান, মহানগর যুবলীগ নেতা হুমায়ুন কবির মাসুদ, মুসাফিরের যুগ্মআহ্বায়ক ও মইনুল হাদী গাউছে মাইজভান্ডারি কেন্দ্রীয় কমিটির সমন্বয়কারী কামরুল ইসলাম রাশেদ মাইজভান্ডারি, টিভি ক্যামরা জানালিস্ট এসোসিয়েশনের নিবার্হী সদস্য অমিত দাশ, আনসার কমান্ডার (অব.) মো. হারুন, মো লিটন প্রমুখ। মিলাদ-মাহফিল পুর্ব আলোচনা সভায় পেশাজীবী নেতা রিয়াজ হায়দার চৌধুরী মামলাটির তদন্তে ধীরগতিতে বিস্ময় প্রকাশ করে দায়িত্বশীলদের এ ব্যাপারে সচেতনতা তাগাদা দেন। একই সাথে তিনি মামলাটির বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি পুনর্ব্যক্ত করেন। রাইফার মৃত্যুর পরিপ্রেক্ষিত ও মামলা তদন্ত প্রক্রিয়া নিয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন তার পিতা বিএফইউজে নির্বাহী সদস্য রুবেল খান। বক্তারা বলেন, রাইফা হত্যার দুই বছর অতিবাহিত হতে চললো কিন্তু মামলার কোন আগ্রগতি দেখা যাচ্ছে না। দ্রুত বিচার কাজ শেষ করে দোষীদের সাজা প্রদানের জন্য সরকারের নিকট জোরালো দাবী জানান বক্তারা। মিলাদ শেষে রাইফার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করেন হাফেজ আমান উল্লাহ। পরে এতিম অসহায় শিশু-কিশোরদের সঙ্গে একসাথে দুপুরের খাবার খান সংগঠনের উপস্হিত নেতৃবৃন্দ। এতিম শিশুকিশোর ছাড়াও মাজারে উপস্হিত দেড়শতাধিক ভাসমান মানুষদের মাঝেও খাবার বিতরণ করা হয়।
আলোচিত কোকেন চোরাচালান মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র
২৯জুন,সোমবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বন্দরে আটক বহুল আলোচিত ড্রামে ভর্তি করে আমদানী করে আনা ৯ হাজার কোটি টাকা মূল্যের কোকেন চোরাচালান মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দিয়েছে তদন্তকারী সংস্থা Rapid Action Battalion (Rab)। অভিযোগপত্রে খানজাহান আলী লিমিটেডের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪ জন পলাতক, ১ জন জামিনে ও ৫ জন কারাগারে রয়েছে বলে জানা গেছে। সোমবার (২৯ জুন) Rab-7 এর পক্ষে কোকেন চোরাচালান মামলার অভিযোগপত্রটি চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় জমা দেওয়া হয় বলে জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা Rab কর্মরত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী। কোকেন চোরাচালান মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান খানজাহান আলী লিমিটেডের মালিকানাধীন প্রাইম হ্যাচারির ব্যবস্থাপক গোলাম মোস্তফা প্রকাশ সোহেল (৩৯), খানজাহান আলী লিমিটেডের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ (৪৯), আবাসন ব্যবসায়ী মো. মোস্তফা কামাল (৪২), সিকিউরিটিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মো. মেহেদী আলম (৩১), গার্মেন্ট পণ্য রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মণ্ডল গ্রুপের বাণিজ্যিক নির্বাহী মো. আতিকুর রহমান (২৯), কসকো শিপিং লাইনের ম্যানেজার এ কে এম আজাদ (৪৮), সিএন্ডএফ কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম (৩২), খানজাহান আলী গ্রুপের পরিচালক মোস্তাক আহাম্মদ খান (৪৫), লন্ডনে অবস্থানরত ফজলুর রহমান (৩৫) ও মো. বকুল মিয়া (৩১)। তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ সুপার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী নিউজ একাত্তরকে বলেন, ২০১৫ সালের ৭ জুন চট্টগ্রাম বন্দরে ড্রামে ভর্তি করে আমদানী করে আনা ৯ হাজার কোটি টাকা মূল্যের কোকেন আটক করার ঘটনায় দায়ের হওয়া চোরাচালান মামলাটি অধিকতর তদন্ত করে আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে। অভিযোগপত্রে নূর মোহাম্মদসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪ জন পলাতক, ১ জন জামিনে ও ৫ জন কারাগারে রয়েছে। ২০১৫ সালের ৭ জুন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম বন্দরে একটি কনটেইনার আটকের পর সিলগালা করে দেয় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর। বলিভিয়া থেকে মেসার্স খান জাহান আলী লিমিটেডের নামে আমদানি করা সূর্যমুখী তেলবাহী কনটেইনারটি জাহাজে তোলা হয় উরুগুয়ের মন্টেভিডিও বন্দর থেকে। সেখান থেকে সিঙ্গাপুর হয়ে গত ১২ মে পৌঁছায় চট্টগ্রাম বন্দরে। পরে আদালতের নির্দেশে কনটেইনার খুলে ১০৭টি ড্রাম থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরে ঢাকার বিসিএসআইআর ও বাংলাদেশ ড্রাগ টেস্টিং ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষায় এতে তরল কোকেনের অস্তিত্ব ধরা পড়ে। এ ঘটনায় ২০১৫ সালের ২৭ জুন বন্দর থানায় আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান খান জাহান আলী লিমিটেডের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ ও আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান খানজাহান আলী লিমিটেডের মালিকানাধীন প্রাইম হ্যাচারির ব্যবস্থাপক গোলাম মোস্তফা সোহেলকে আসামি করে মাদক আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ। পরে আদালত মামলায় চোরাচালানের ধারা সংযোগের নির্দেশ দেন। এই মামলায় একই বছরের ১১ নভেম্বর এজাহারভুক্ত আসামি নূর মোহাম্মদকে বাদ দিয়ে আটজনের বিরুদ্ধে আদালতে মাদক আইনের অংশের অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের তৎকালীন সহকারী কমিশনার (দক্ষিণ) মো. কামরুজ্জামান। ৭ ডিসেম্বর অভিযোগপত্রের গ্রহণযোগ্যতার ওপর শুনানি হয়। এজাহারভুক্ত প্রধান আসামির নাম না থাকায় অভিযোগপত্রটি গ্রহণ করেননি আদালত। ওইদিন আদালত চাঞ্চল্যকর কোকেন আমদানি মামলার অভিযোগপত্র প্রত্যাখান করে তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার একজন কমকর্তাকে দিয়ে অধিকতর তদন্তের জন্য Rab-7 কে দায়িত্ব দেন। ৯ ডিসেম্বর আদালতের আদেশের কপি Rabর কাছে পৌঁছে। ২০১৭ সালের ২ এপ্রিল মাদক আইনের মামলায় নূর মোহাম্মদকে অভিযুক্ত করে চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করেন Rab কর্মকর্তা তৎকালীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। মামলায় চোরাচালানের দায়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনের ধারার অভিযোগ তদন্ত করে সোমবার (২৯ জুন) আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় অভিযোগপত্র দাখিল করেন পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী। Rab-7 অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল নিউজ একাত্তরকে বলেন, চাঞ্চল্যকর কোকেন মামলাটি আদালত অধিকতর তদন্তের জন্য র‌্যাব-৭ কে নির্দেশ দিয়েছিলেন। আদালত মামলাটি একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তা দিয়ে তদন্তের জন্য নির্দেশনা দিয়েছিলেন। Rab-7 তৎকালীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকীকে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছিল। Rab গুরুত্ব ও পেশাদারিত্ব দিয়ে মামলাটির তদন্তকাজ শেষ করেছে। আদালতের নির্দেশে চলতি চছরের ৫ ফেব্রুয়ারি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ও তৎকালীন Rab মহাপরিচালক ড. বেনজীর আহমদের উপস্থিতিতে পতেঙ্গা Rab-7 কার্যালয়ে ২০১৫ সালে জব্দ করা ৩৭০ লিটার কোকেন ধ্বংস করে Rab। এদিকে আদালত সূত্রে জানা গেছে, অভিযোগপত্রটি আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় জমা দেওয়া হলেও তা আদালতের কাছে উপস্থাপন করা হয়নি। কোকেন মামলার মূল আসামি খান জাহান আলী লিমিটেডের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছেন বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী।
পিসি রোডের কাজে দীর্ঘসূত্রতা, মেয়র নাছিরের অসন্তোষ
২৮,জুন,রবিবার,শারমিন আকতার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরের প্রধানতম পোর্ট কানেকটিং (পিসি) রোডের তাসপিয়া থেকে সাগরিকা পর্যন্ত পরিদর্শনকালে চলমান কাজে দীর্ঘসূত্রতা দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন মেয়র মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। রোববার (২৮ জুন) বিকেলে পরিদর্শনের সময় মেয়র আগামী নভেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও দায়িত্বরত প্রকৌশলীদের নির্দেশনা দেন। পরিদর্শনকালে মেয়র এলাকার যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচলে ব্যাঘাত ঘটায় দুঃখ প্রকাশ করেন এবং কাজের গুণগতমান বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, গুরুত্বপূর্ণ সড়ক নির্মাণ ও সংস্কারকাজে দীর্ঘসূত্রতা জনদুর্ভোগ বাড়াচ্ছে। এটা ঠিকাদারদের চুক্তির বরখেলাপ। কোনো অজুহাতে কাজের দীর্ঘসূত্রতা এবং গুণগতমান রক্ষা করা না হলে কঠোর ব্যবস্থা নিতে দ্বিধা করা হবে না। পরিদর্শনকালে চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু সাদাত মোহাম্মদ তৈয়ব, নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার জাহান, নাসির উদ্দিন, মোহাম্মদ মাহবুব উপস্থিত ছিলেন।
আসামিকে ছেড়ে দেওয়ায় আরএনবির পরিদর্শক বরখাস্ত
২৮,জুন,রবিবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: এক আসামিকে ছেড়ে দেওয়ায় চট্টগ্রামে রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) প্রধান পরিদর্শক ইসরাফিল মৃধাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। রোববার (২৮ জুন) তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। ২৭ জুন রেলওয়ে পাহাড়তলীর সেলডিপুতে সহকারী প্রকৌশলী (স্টোর) মো. ইউনুসের সহয়তায় অবৈধভাবে রেলের গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম পাচারকালে ৪ জনকে আটক করে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। ৪ জন আসামিকে আটক করা হলেও নিজ ক্ষমতাবলে একজন আসামিকে ছেড়ে দেন সেলডিপুতে দায়িত্বরত প্রধান পরিদর্শক ইসরাফিল মৃধা। যেটি আইনবিরোধী হওয়ায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। চট্টগ্রাম রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সহকারী কমান্ড্যান্ট সত্যজিৎ দাশ বলেন, নিজ ক্ষমতাবলে মুচলেকা নিয়ে এক আসামিকে ছেড়ে দেন তিনি। যেটি আইনবিরোধী। 'তাই ইসরাফিল মৃধাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় এবং তার স্থানে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে কারখানা শাখার চিফ ইন্সপেক্টর রেজওয়ানুর রহমানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।
করোনা জয়ী সিএমপি কমিশনারকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নিলেন সহকর্মীরা
২৮,জুন,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসায় ২৮ জুলাই চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুবর রহমান বিপিএম পিপিএম কর্মস্থলে ফিরলে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার( প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম বিপিএম-সেবা তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন। করোনা প্রতিরোধে নগরবাসীর নিরাপত্তা বিধান করতে গিয়ে গত ০৮ জুন,তিনি নিজেই করোনায় আক্রান্ত হন। দীর্ঘ ২১ দিন যাবত হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিয়ে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেন তিনি। করোনাকে জয় করে আবার পূর্নোদ্যমে জনগণের জন্য কাজ করে যাবার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সিএমপি কমিশনার। এসময় সেখানে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান বিপিএম, পিপিএম (বার), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ সহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
করোনা: চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ৬৪
২৮,জুন,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৫৯০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬৪ জনের শরীরে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যুবরণ করছেন ৪ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৫ জন। রোববার (২৮ জুন) সকালে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী- গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ৩৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে পজেটিভ শনাক্ত হয় ৭ জনের। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ২৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে পজেটিভ শনাক্ত হয় ২৩ জনের। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে ৮২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এই ল্যাবে পজেটিভ শনাক্ত হয় ২০ জন। এছাড়া চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ২০০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে পজেটিভ শনাক্ত হয় ১৪ জনের। তবে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল এবং শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরি ল্যাবের কোন তথ্য প্রকাশ করেনি সিভিল সার্জন কার্যালয়। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে নতুন করে ৬৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে নগরে ৪৩ জন এবং উপজেলায় ২১ জন।
মানবতার সেবায় নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম প্রশংসনীয় : এম এ মালেক
২৮,জুন,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনায় মৃতদের গোসল-দাফন-কাফন-জানাযা ও আক্রান্তদের অক্সিজেন, অ্যাম্বুলেন্স ও টেলিমিডিসিন সেবা দিয়ে যাচ্ছে জনকল্যাণমূলক সংগঠন নিষ্ঠা ফাউন্ডেশন। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের সেবা কার্যক্রমও বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেবা কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করার লক্ষ্যে নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনকে চট্টগ্রাম কিডনি ফাউন্ডেশন একটি অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর করে। কিডনি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে অ্যাম্বুলেন্সটি হস্তান্তর করেন কিডনি ফাউন্ডেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক। গতকাল শনিবার সকালে খলিফা পট্টিস্থ এম এ মালেকের বাসভবনের সামনে আয়োজিত এক সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উক্ত হস্তান্তর প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠান এবং দোয়া পরিচালনা করেন নিষ্ঠার ভাইস চেয়ারম্যান ব্যাংকার হাফেজ মুহাম্মদ ছালামাত উল্লাহ। এ সময় এম এ মালেক বলেন, নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের নিরলস সেবা মানবিক কাজের দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের নিবেদিত কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবকদেরও ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। কিডনি ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট ডা. মঈনুল ইসলাম মাহমুদসহ অ্যাম্বুলেন্স প্রদান কাজে সম্পৃক্ত সবাইকে তিনি ধন্যবাদ জানান। নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কামাল উদ্দীন আহমদের হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করা হয়। অধ্যাপক কামাল উদ্দীন আহমদ কিডনি ফাউন্ডেশনের সকল কর্মকর্তা শুভাকাঙ্খীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কিডনি ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. এম এ কাশেম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রিজওয়ান শহিদী, কার্যনির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ শাহজাহান, ওমর আলী ফয়সল, মো: তাজুল ইসলাম, রোটারি ক্লাব অব রিভারাইন হালদার সভাপতি মুজিবুর রহমান, রোটারিয়ান শাদ ইরশাদ প্রমুখ। নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান এবং চলমান প্রকল্পের আহবায়ক ড. মুহাম্মদ নুর হোসাইন, অর্থ সম্পাদক আসিক ইউসুফ চৌধুরী। উল্লেখ্য, নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবক টিম হোটেল সৈকতে অবস্থান নিয়ে গত ৯জুন থেকে জেলাব্যাপী কাফন-দাফন, অক্সিজেন ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা দিয়ে যাচ্ছে। নিষ্ঠা ফাউন্ডেশনের চিকিৎসকরা দিয়ে যাচ্ছেন টেলিমেডিসিন সেবা।
করোনাকালে নাগরিক সুবিধা যেন হারিয়ে না যায় : সুজন
২৮,জুন,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনার প্রাদুর্ভাবে নাগরিক সুবিধা যেন হারিয়ে না যায় সেদিকে দৃষ্টি দেওয়ার জন্য চসিক মেয়রের প্রতি আহবান জানিয়েছেন জনদুর্ভোগ লাঘবে জনতার ঐক্য চাই শীর্ষক নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। তিনি গতকাল শনিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ আহবান জানান। এ সময় সুজন সিটি কর্পোরেশনকে সীমাবদ্ধতার মাঝেও করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবায় এগিয়ে আসার জন্য চসিক মেয়রকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, পোর্ট কানেকটিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। দেশের অর্থনীতির লাইফ লাইন খ্যাত এ সড়কটির সম্প্রসারণ ও সংস্কার কাজ প্রায় চার বছরেও শেষ করতে পারেনি সিটি কর্পোরেশন। এ সড়ক দিয়ে পুরো নগরীর চলাচলের প্রায় অর্ধেক গাড়ি আমদানি রপ্তানি কাজে চট্টগ্রাম বন্দরে প্রবেশ এবং বের হয়। বিশেষ করে বাস, ট্রাক, ট্রেইলর, কাভার্ড ভ্যানের মতো ভারী বাহন ছাড়াও অনেক হালকা বাহনও এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করে। এছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সংযোগ সড়ক হিসেবেও যাত্রীসাধারণ ব্যবহার করে এ সড়কটি। দীর্ঘদিন ধরে এ সড়কটি সংস্কারের নামে বন্ধ থাকায় ভারি যানবাহন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এতে করে ঐ সড়কে চলাচলকারী যানবাহনগুলোর চাপ পড়ছে নগরীর অন্য সড়কগুলোতেও। আর এর প্রভাবে পুরো নগরী যানজটে স্থবির হয়ে থাকছে ঘন্টার পর ঘন্টা। রাস্তাগুলো সহসাই মেরামত না করলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে নগরবাসীকে সীমাহীন ভোগান্তি পোহাতে হবে। তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে করোনা কেন্দ্রিক মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। নগরীর বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তিনি করোনা কেন্দ্রিক মেডিক্যাল বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উপরও নজর দানের জন্য মেয়রের প্রতি আহবান জানান।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর