সন্ত্রাস-দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে ছাত্র ইউনিয়নের পদযাত্রা
১৭অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম জেলা সংসদ আয়োজিত সন্ত্রাস ও দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে পদযাত্রা গতকাল বিকালে অনুষ্ঠিত হয়। পদযাত্রাটি নগরীর নিউমার্কেট থেকে শুরু হয়ে প্রেস ক্লাবে গিয়ে শেষ হয়। এর আগে সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি এ্যানি সেনের সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত পথসভায় বক্তব্য রাখেন জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান চৌধুরী, কোতোয়ালি থানার সাধারণ সম্পাদক টিকলু দে, ডবলমুরিং সংসদের সভাপতি শাহরিয়ার রাফি, হালিশহরের আহ্;বায়ক নিশান রায়, মহসিন কলেজের শিক্ষার্থী আকিব আব্দুল্লাহ, বিজিসি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাইফুর রহমান খান প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন জেলা সাধারণ সম্পাদক শোভন দাশ। বক্তারা বলেন, আবরার, জোবায়ের, আবু বকর, হাফিজুর, বিশ্বজিৎ, সাদ, তাপস, দিয়াজ, আফসানা এ রকম অসংখ্য প্রাণ আমাদের মাঝখান থেকে হারিয়ে গিয়েছে। স্বাধীনতার পর থেকেই শিক্ষাঙ্গন থেকে প্রায় দুইশত শিক্ষার্থীর জীবন ঝড়ে গিয়েছে। গত এক দশকেই ক্যাম্পাসে হয়েছে অন্তত দুই ডজন খুন। প্রায় প্রতিটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে এক বা একাধিক খুনের ঘটনা। বিগত সময়ে ছাত্রদল-শিবির ক্যাম্পাসগুলোতে সন্ত্রাস, নির্যাতনের যে ধারা শুরু করেছে, এই সময়ে এসে ছাত্রলীগও সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে হলে রয়েছে টর্চার সেল। টর্চার সেলগুলোতে শিক্ষার্থীদের নির্যাতন ও ভয় দেখিয়ে ভিন্নমত দমনের এক দখলদারি সংস্কৃতি চালু করেছে বিভিন্ন সময়ের সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনসমূহ। ভিন্নমত দমনে খুনের পথ ধরতেও দ্বিধা করেনি তারা। ক্যাম্পাসগুলোতে নির্বাচিত ছাত্র সংসদ না থাকা এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতি চালু হওয়ায় পরিস্থিতি আরো ভয়াবহরূপ ধারণ করছে। বক্তারা বলেন,অবিলম্বে সকল ছাত্র হত্যার বিচার ও দখলদারিত্ব মুক্ত শিক্ষাঙ্গন নিশ্চিত করতে হবে। নয়তো গণ প্রতিরোধের মাধ্যমে এর জবাব দেয়া হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চাই বৃত্তের বাইরে উদ্ভাবনী চিন্তা
১৭অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: অনেকের কাছে আকাশ ছোট হলেও স্বপ্ন কিন্তু অনেক বিশাল। তাই সাফল্য পেতে হলে চাই বেশি-বেশি স্বপ্ন দেখা। ভয়কে পেছনে ফেলে বৃত্তের বাইরে গিয়ে বাড়াতে হবে চিন্তা। নিজের ইচ্ছাশক্তিই পারে নিজেকে বদলে দিতে। চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটিতে (সিআইইউতে) অনুষ্ঠিত কর্পোরেট টক অনুষ্ঠানে এমনই সব কথা বলেছেন গ্রীণ ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা চৌধুরী। গতকাল বুধবার সকালে নগরের জামালখান ক্যাম্পাসের অডিটোরিয়ামে সিআইইউ বিজনেস স্কুল ভয়েস অব অ্যান ইন্সুরার শীর্ষক এই কর্পোরেট টক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, বিভিন্ন স্কুলের ডিন, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ফারজানা চৌধুরী ইন্সুরেন্স সেক্টরে তার প্রতিষ্ঠানের সফল হওয়ার গল্প, তরুণ-তরুণীদের উদ্যোক্তা হতে করণীয়, সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ, আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি, ইতিবাচক চিন্তা, লক্ষ্য ও মনোভাব নির্ধারণ, প্রযুক্তিকে ভালো কাজে ব্যবহার করার কৌশল, মেয়েদের পেশা বাছাইয়ে ভিন্ন চিন্তা করাসহ নানান বিষয়গুলো চমৎকারভাবে হলভর্তি দর্শকদের কাছে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, তরুণদের উদ্ভাবনী শক্তি বাড়াতে হবে। পড়ালেখা কিংবা কর্মক্ষেত্র- সবখানেই গবেষণায় ডুবে থাকা চাই। একা একা কখনই কিছু করা যায় না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সভাপতির বক্তব্যে সিআইইউর উপাচার্য ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী বলেন, আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় কর্মমুখী শিক্ষার গুরুত্ব বাড়াতে হবে। পাঠ্যসূচির সঙ্গে বাইরের জগতের পড়ার সমন্বয় হলে ছেলে মেয়েদের দক্ষতা বাড়বে। অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে সিআইইউর বিজনেস স্কুলের সহযোগী অধ্যাপক ও কর্পোরেট টক অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ড. সৈয়দ মনজুর কাদের বলেন, এই ধরনের কর্পোরট টক অনুষ্ঠান থেকে শিক্ষার্থীরা একজন সফল ব্যক্তির গল্পগুলো শুনে অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পায়। আগামিতে বড়পরিসরে সহশিক্ষা কার্যক্রম, মেধা বৃত্তি ও গবেষণা বৃদ্ধিতে সিআইইউর সঙ্গে তিনি যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
প্রত্যেক শিশুর পিতামাতা হল আসল বন্ধু
১৬অক্টোবর,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)র ইন্সপেক্টর আবু জাফর মুহাম্মদ ওমর ফারুক বলেন, আজকের শিশু আনবে আলো, বিশ্বটাকে রাখবে ভালে এই প্রতিপাদ্য বিষয়টা সবাই যদি মনে প্রাণে ও অন্তরে বিশ্বাস করে তবেই সমাজের সকল শিশু তার মৌলিক অধিকার ফিরে পাবে। পিতামাতা ছাড়া অন্যকাউকে প্রিয় বন্ধু করা যাবে না। প্রত্যেক শিশুর পিতামাতা হল আসল বন্ধু। একান্ত যদি কাউকে বন্ধু ভাবতে হয় তাহলে শিক্ষকদেরকে বন্ধু ভাবতে হবে। শিশুদের সামাজিক উন্নয়নে সমাজের ধনার্ঢ্য ব্যক্তিরা এগিয়ে আসলে, পথ শিশুসহ সুবিধা বঞ্চিত সকল শিশু তাদের সমাজিক উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে। শিশুদেরকে মাদক সহ সামাজিক অনৈতিক কর্মকা- হতে বিরত রাখতে সমাজের সকল স্তরের সচেতনতা প্রয়োজন। বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০১৯ পালন উপলক্ষে সামাজিক সংগঠন অক্ষয় আমরা আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আশাবাদ ব্যক্তি করেন। সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি রাকিব চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নারী নেত্রী সমাজ সেবিকা ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নাদিরা সুলতানা হেলেন। ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রান সমাজ কল্যাণ সম্পাদক ও ঝাউতলা ডিজেল কলোনী সমাজ কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাফর উল্লাহ মজুমদার, ঝাউতলা বাজার কমিটির উপদেষ্টা আব্দুল মতিন, পরিচালক হাজী মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন, ওব্যাট হেল্পারস চট্টগ্রামের প্রজেক্ট অফিসার মোঃ মোস্তাক, ওব্যাট প্রাইমারী স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ইসরাত পারভীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অক্ষয় আমরা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা অন্তর মাহমুদ রুবেল। এতে আরও বক্তব্য রাখেন মানবাধিকার কর্মী ও সংগঠনের উপদেষ্টা মোঃ মাঈনুদ্দীন, স্বপ্ন যাত্রী ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ কামাল হোসেন, অনুষ্ঠানে সমাজের প্রতিবন্ধী সুবিধা বঞ্চিত পথ শিশুসহ বিভিন্ন স্কুলের ৪০০ শিশুর অংশগ্রহণে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবন্ধি শিশুদের বিশেষ পুরস্কার প্রদান সহ প্রতিযোগিতায় ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অর্জনকারী বিজয়ীদের মাঝে অতিথিবৃন্দ পুরস্কার বিতরণ করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাংস্কৃতিক সংগঠক আশিক আরেফিন।
সি-ব্লক সমাজ উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে ২ দিনব্যাপী ফ্যামিলি ট্যুর
১৬অক্টোবর,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:সমাজে গুটি কয়েক অপরাধীদের কাছে পুরো সমাজ জিম্মি হয়ে থাকবে তা আর বরদাশ্ত করা হবে না। যারা সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে নাগরিক জীবনের শান্তি বিনিষ্ট করে তাদের পরিচয়কে উর্দ্ধে রেখে আইনের আওতায় আনা হবে। আর যারা সমাজ উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে তাদের গুণী ব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মাননা দিয়ে সম্মানিত করা হবে। এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীকে সামাজিক ভাবে চিহিৃত করে মাদক নির্মূলে এলাকাবাসীকে সচেতন হতে হবে। যারা পর্দার আড়ালে থেকে সমাজে কু-কর্মকে সমর্থন করবে ও পৃষ্ঠপোষকতা করবে তাদেরকেও সামাজিক ভাবে বয়কট করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সি-ব্লক সমাজ উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে দুইদিন ব্যাপী ফ্যামিলি ট্যুর পর্যটন নগরী কক্সবাজারে হোটেল দি ওসানিয়া ও হোটেল সায়মন সম্মুখে কলাতলী বীচে অনুষ্ঠিত হয়। ২দিন ব্যাপী পারিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে বীচ ফুটবল টুর্নামেন্টে অভিবাহিত দল বিবাহিত দলকে ২-০ গোলে পরাজিত করে। মহিলাদের অংশগ্রহণে পিলু পার্সিং, সংগাতানুষ্ঠান, র‌্যাফেল ড্র ও পুরুষ্কার বিতরণ করা হয়। সংগঠনের সভাপতি হাজী মো: এমরান হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ সুমনের নেতৃত্বে বিভিন্ন কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে দায়িত্ব পালন করেন সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা: ফারুক আহমেদ শরীফ, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ যাচমা বেগম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: ফরিদ উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: হুমায়ুন কবির, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো: দিদারুল আলম মিয়াজী, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মো: লিয়াকত আলী, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো: কামাল পাশা, কার্যকরী সদস্য মো: সায়েম ভুঁইয়া। পুরুস্কার বিতরণের স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি শাহ আলম সুমন। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন সংগীত শিল্পী সুলতানা আমির নীলা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলের মাঝে আকর্ষণীয় র‌্যাফেল ড্র’র ১৪টি পুরুস্কার বিতরণ করা হয়।
ফটিকছড়ির বিবিরহাটে মেডিসিনের দোকানে অভিযান
১৬অক্টোবর,বুধবার,সজল চক্রবর্তী, ফটিকছড়ি,নিউজ একাত্তর ডট কম:১৬ অক্টোবর বিকাল ঘটিকা হতে সন্ধ্যা পর্যন্ত ফটিকছড়ি বিবিরহাট বাজারের বিভিন্ন ঔষধের ফার্মেসী/দোকানে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে ড্রাগ আইন ১৯৪০ এর ১৮ ধারায় সংঘটিত বিভিন্ন অপরাধের জন্য একই আইনের ২৭ ধারার বিধানমতে ০৯টি ঔষধের ফার্মেসী/দোকানে মোট ৬৭০০০(সাতষট্টি হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া রাজেশ্বরী হোমিও ফার্মেসীর কর্ণধার উজ্জ্বল দত্ত চট্টপাধ্যায় কে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। অপরাধগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ, ফিজিশিয়ান স্যাম্পল, অনুমোদনহীন কোম্পানির দেশী ও বিদেশি ঔষধ বিক্রি, অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে ঔষধ সংরক্ষণ, কিছু নির্দিষ্ট স্যাম্পল নির্ধারিত তাপমাত্রায় সংরক্ষণ না করা, মূল্য ট্যাম্পারিং, ভেজাল ঔষধ বিক্রি, ড্রাগ লাইসেন্স না থাকা, ফার্মাসিস্ট না থাকা ইত্যাদি। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জনাব মোঃ সায়েদুল আরেফিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম, এবং জনাব মোঃ জানে আলম, সিনিয়র সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম। আইনি সহায়তা প্রদান করেন ফটিকছড়ি থানার এস আই জনাব জালাল ও তার দল, ড্রাগ সুপার চট্টগ্রাম প্রমুখ। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিবিরহাট বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতিসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ। ভেজাল ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিং এবং মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।
পটিয়া বাইপাস সড়কের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১৬অক্টোবর,বুধবার,মো:ইরফান চৌধুরী,চট্টগ্রাম: ইন্দ্রপুল থেকে চক্রশালা থেকে চক্রশালা পর্যন্ত বাঁক সরলিকরণ তথা পটিয়া বাইপাস সড়কের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ বুধবার সকালে রাজধানীর গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রকল্পটির উদ্বোধন করা হয়৷ ৮৭.৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫.২০ কিলোমিটার দীর্ঘ নতুন বাইপাস সড়কটি নির্মানের ফলে দক্ষিন চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার ও পার্বত্য জেলা বান্দরবান জাতীয় মহাসড়কে দুর্ঘটনা হ্রাস পাওয়ার পাশাপাশি ও যানজট নিরসন হবে৷ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা আমুল পরিবর্তন সাধিত করতে কাজ করছে সরকার৷ তবে সড়ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে সকলে সচেতন না হলে নিরাপদ সড়ক সম্ভব নয়৷ স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের ট্রাফিক আইন সম্পর্কে শিক্ষা দেয়ার বিষয়ে গুরুত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী৷ উদ্বোধনী পর্বে ভিডিও কনফারেন্সে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে যুক্ত হলে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান৷ পরে প্রধানমন্ত্রীর পছন্দে চট্টগ্রাম থেকে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহাবুদ্দিনকে বক্তব্য দেয়ার আহবান জানানো হলে তিনি সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে নিজ অনুভূতি ব্যক্ত করেন৷পটিয়া বাইপাস সড়কটি উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ভিভিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের কার্যালয়কে যুক্ত করে উদ্বোধনি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়৷ এসময় পটিয়া আসনের সংসদ সদস্য, প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন৷
রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবেই মানবাধিকার পরিস্থিতির অবনতি
১৬অক্টোবর,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে অধিকারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বক্তারা বলেছেন, মানুষের রাজনৈতিক ও নাগরিক অধিকার নিয়ে করে আসছে মানবাধিকার সংগঠন অধিকার। অধিকার ১৯৯৪ সালে ১০ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির উপর অধিকার সংগঠন প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে বিগত ২৫ ধরে কাজ করে আসছে। রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গুম-ক্রসফায়ার টর্চার সহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কাজ করতে গিয়ে সরকারের রোষানলে পড়ে। অধিকার শীর্ষ কর্মকর্তারা বিভিন্ন ভাবে জেল-জুলুম হয়রানির শিকার হয়ে আসছে। সংগঠনটি তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে অধিকার কর্মীরা বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছে। অধিকারের ২৫ বছর উদযাপনের সভা বক্তারা বলেছেন, অধিকারের মতো মানবাধিকার সংগঠনগুলোকে প্রতিপক্ষ মনে না করে জনাধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। তাতে সমাজ রাষ্ট্র আরো একধাপ এগিয়ে যাবে, মানবতার উন্নয়নে মানবাধিকার সংগঠনদেরকে বাঁধা দিলে কখনো মানবাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে না। সাংবিধানিকভাবে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় যেসব ধারা উলেখ আছে, বিগত সরকার গুলো এসব ধারাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে মানবাধিকার লংঘন করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সংবিধানের ১১ অনুচ্ছেদে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের কথা বলা হয়েছে দেশে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের চরম সংকটের মধ্য দিয়ে চলছে। রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবে আজ গণতন্ত্র মানবাধিকার চরম লংঘন হচ্ছে। সহনশীল সংসদীয় গণতন্ত্রের কথা বলা হলেও নব্বইয়ের পর থেকে সঠিকভাবে সংসদীয় কোন চর্চা হয়নি। অধিকার-এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভা চট্টগ্রাম নগরীর চেরাগী পাহাড়স্থ সুপ্রভাত স্টুডিও হলে অনুষ্ঠিত হয়। অধিকারে ডিফেন্ডার আব্দুল;াহ মজুমদারের সভাপতিত্বে ওচমান জাহাঙ্গীরের সঞ্চালনায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি মাহমুদুল হাসান নিজামী, আনন্দবোধি ভিক্ষু, কাজী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, ডাঃ জামাল উদ্দীন, সাংবাদিক রোকন উদ্দিন, কমল বড়ুয়া প্রমূখ।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ কেনো সেরা?
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,মো:ইরফান চৌধুরী,চট্টগ্রাম: দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাটি কেনো সেরা পত্রিকা জানেন? আসুন জেনে নেই। বর্তমান সময়ে গনমাধ্যম জগতে প্রিন্ট মিডিয়ার যে ক্রান্তিকাল চলছে তাতে সামান্য সময়ের মধ্যে পাঠকদের আস্থা অর্জন করে দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাটি এগিয়ে গেছে অনেক দূর। পত্রিকাটি প্রকাশনা শুরুর সাথে সাথে ৮ম ওয়েজ বোর্ড অতিক্রম করে সাংবাদিকদের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি পত্রিকাটি পাঠক সমাজেও চাহিদা মেটাতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলায় রয়েছে উক্ত পত্রিকার অসংখ্য প্রতিনিধি,তারা নিরলসভাবে কাজ করে পাঠকদের চাহিদা অনুযায়ী সংবাদ পরিবেশন করে আসছে। আট পাতার পত্রিকাটির মূল্য ৫ টাকা হলেও পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ গুলো যুগপোযোগী এবং বাস্তব সম্মত। বিনোদন ও খেলাধুলার পাতা চার রঙ্গে রঙ্গিন হয়ে পাঠকদের দৃষ্টি আকর্ষন করে অনবরত ১৩ অক্টোবর পত্রিকাটির ৩য় বর্ষ পূর্তি পালন করা হয় এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। দেশের গুনী জনদের সাথে উক্ত পত্রিকার প্রতিনিধিগন উপস্থিত থেকে পত্রিকার বর্ষপুর্তি অনুষ্ঠানকে আরো আনন্দময় করে তুলেন। পত্রিকাটির প্রিন্ট এর পাশাপাশি রয়েছে অনলাইন ভার্সনও। তথ্য প্রযুক্তির যুগে স্যোশাল মিডিয়াতে উক্ত পত্রিকা এগিয়ে রয়েছেন অনেকাংশে। বর্তমানে প্রিন্ট ও স্যোশাল মিডিয়াতে যত পত্রিকা রয়েছে তার মধ্যে আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাই সেরা।
চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধন
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশরত্ন জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে দেশে শুদ্ধি অভিযান চলছে। অভিযানের নির্দেশনা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত ও ঢাকার পর চট্টগ্রামে অভিযান জোরদার করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরাম ও বাংলাদেশ টেন্ডার-চাঁদাবাজ দুর্নীতি ও মাদক প্রতিরোধ কমিটিসহ একাধিক সংগঠনের উদ্যোগে ১২ অক্টোবর বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সম্মুখে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, সারা বিশ্বের নির্যাতিত নিষ্পেষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন অন্যায়, অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করে গেছেন। তিনি কখনোও অন্যায়ের কাছে মাথানত করেননি। আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দেশের দায়িত্ব নিয়ে অসীম সাহসের সাথে মেধা মনন দিয়ে দেশের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। মানববন্ধনে প্রতিনিধিত্ব করে চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরাম। সংহতি প্রকাশ করেন, বঙ্গবন্ধু মানবকল্যাণ পরিষদ, বাংলাদেশ জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগ, চট্টগ্রাম গ্যাস বিদ্যুৎ পানি গ্রাহক কল্যাণ পরিষদ। বাংলাদেশ টেন্ডার-চাঁদাবাজ দুর্নীতি ও মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি রাজনীতিবীদ মো: আজাদ দোভাষের সভাপতিত্তে মানববন্ধন সভায় সংগঠনের মহাসচিব সাংবাদিক মো. কামাল উদ্দিন এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম আবাহনী ক্লাবের উদ্যোক্তা ও সাধারণ সম্পাদক চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম চৌধুরী, ন্যাফ এর কেন্দ্রীয় নেতা মৃদুল দাশগুপ্ত, নিজাম উদ্দিন আশ্রাফি। সর্বশ্রেনীর ব্যক্তিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএডাব্লিউটিএর সভাপতি মো: আবদুছ ছবুর খান, বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদ সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন, সংগীত শিল্পী অচিন্ত্য কুমার দাশ, শ্রমিকলীগ নেতা হাবিবুর রহমান, মোস্তফা তালুকদার, মো: শওকত হোসেন, মো: মহসীন, ডিজি বিপ্লব, মোর্শেদ কাদেরী, সমীরন পাল, জান্নাতুল ফেরদৌস, মো: নাদিম, নার্গিস আক্তার নিরা, মোহাং আয়াজ মিয়া, মো: সোহেল, মো: সফি উদ্দিন, মো: আসগর প্রমুখ।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর