চট্টলা আবৃত্তি একাডেমীর আত্মপ্রকাশ
২৪আগস্ট,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ১৮ আগস্ট সন্ধ্যায় চট্টলা আবৃত্তি একাডেমীর আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমীর জয়নুল আর্ট গ্যালারি হলে সংগঠনের পরিচালক সুপ্রিয়া চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন সাবেক অধ্যক্ষ রীতা দত্ত। বাঙালি সত্তায় চট্টলা বৃন্দ আবৃত্তির মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন রাজকল্যাণ দত্ত, সাঁঝবাতি বিশ্বাস, রূপশ্রী দত্ত, অন্বেষা বিশ্বাস, চন্দ্রিমা ঘোষ, কুমার প্রীয়ম দাশ, ঐন্দ্রিলা ঘোষ, প্রিয়ন্তী রায় ও সুজন নীল প্রমুখ। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল বন্ধু সংগঠন ও অতিথিদের শুভেচ্ছা বক্তব্য এবং আবৃত্তি পরিবেশনা। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ষড়যন্ত্র এখনও চলছে, মুজিব সৈনিকদের সতর্ক থাকতে হবে
২৪আগস্ট,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা ও বঙ্গবন্ধু একাডেমি যৌথ উদ্যোগে ২১ আগস্ট রাজধানী ঢাকা বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলা করে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রাণনাশ প্রচেষ্টাকারী এবং গ্রেনেড হামলায় নিমর্মভাবে নিহত কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন নিহত ও চিহিৃত খুনী তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে দ্রুত বিচারের আওতায় আনার দাবিতে ২০ আগস্ট বিকাল ৪ টায় নগরীর চেরাগী পাহাড় চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় উপচার্য ড. অনুপম সেন বলেছেন ২১ আগস্ট যারা গ্রেনেড হামলা করেছে এরা ৭১ ও ৭৫ এর দোসর। তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র এখনও অব্যাহত, মুজিব সৈনিকদের সতর্ক থাকতে হবে। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, বিএনপি-জামাত চক্রের কালো থাবা থেকে সৃষ্টিকর্তা শেখ হাসিনাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন তিনি তাঁর কর্মদক্ষতা দিয়ে বাংলাদেশ যখন উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক এই ৭১ ও ৭৫ এর চিহিৃত খুনীরা গভীর ষড়যন্ত্র করে চলেছে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি চিত্রনায়ক পঙ্কজ বৈদ্য সুজনের সভাপতিত্বে ও বঙ্গবন্ধু একাডেমির সহ-সভাপতি এড. আশুতোষ দত্ত নান্টু ও সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমেদ শাহিনের যৌথ সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি আবুল কালাম চৌধুরী, চসিক প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ শ্রম বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, সাবেক প্যানেল মেয়র অধ্যাপিকা রেখা আলম চৌধুরী, জাসদ নেতা ভানু রঞ্জন চক্রবর্ত্তী, জেলা পরিষদ সদস্য শাহিদা আক্তার জাহান, ১৪ দলীয় জোট নেতা স্বপন সেন, মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা মুন্নি রানী দাস, অধ্যক্ষ শেখ এ রাজ্জাক রাজু, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আনোয়ার আজম, দুবাই বঙ্গবন্ধু পরিষদ সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন আহমেদ, সাংস্কৃতিক সংগঠক প্রণবরাজ বড়ুয়া, বরুন সেন দোয়ন, সৈয়দ দিদার আশরাফী, নাট্যজন সজল চৌধুরী, ছিদ্দিক আহমেদ, রিমন মুহুরী, হারুন উর রশিদ, হাফেজ মাওলানা ইসমাইল, মোহাম্মদ আলী, হোসেন মিন্টু, রোজী চৌধুরী, কাজী মুহাম্মদ আইয়ুব, জামাল উদ্দিন কান্টু, সমীরন পাল, ইউনুচ মিয়া, আসিফ ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নাছির, ছাত্রলীগ নেতা বোরহান উদ্দিন গিফারী, গোলাম মোস্তফা মামুন, শহীদুল ইসলাম কোম্পানী, শেখ মহিউদ্দিন বাবু প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রামে ৪৯২৪০ পিস ইয়াবা জব্দ, গ্রেপ্তার ৩
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর ফিরিঙ্গি বাজার ব্রিজঘাট এলাকা থেকে প্রায় আড়াই কোটি টাকা মূল্যের ৪৯ হাজার ২৪০ পিস ইয়াবা জব্দ করেছে RAB । ইয়াবার এই চালান পাচারে জড়িত তিনজনকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে অভিযান চালিয়ে এসব ইয়াবা জব্দ ও তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান RAB-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাশকুর রহমান। এ সময় ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি কাভার্ডভ্যানও জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তার তিনজন হলো- ভোলা জেলার হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. শিহাব (৩৫), নীফামারি জেলার মো. সাইদুল হকের ছেলে মো. মনা মামুদ (২৬) ও পটুয়াখালী জেলার মৃত ইসমাইল খানের ছেলে মো. হাসান খাঁ (২৬)। ইয়াবার এত বড় চালানটি কক্সবাজার থেকে ভোলা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে জানান তারা। মো. মাশকুর রহমান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর কোতোয়ালি থানার ফিরিঙ্গি বাজারস্থ ব্রিজঘাট বিশেষ চেকপোস্ট বসিয়ে গাড়ি তল্লাশি করছিল RAB সদস্যরা। এ সময় বাইতুর রিদওয়ান জামে মসজিদের সামনে পাকা রাস্তার ওপর একটি কাভার্ডভ্যান থামায় RAB সদস্যরা। থামার সংকেত পেয়ে ড্রাইভারসহ বাকিরা গাড়ি থামিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে RAB সদস্যরা ধাওয়া করে তাদের ধরে ফেলে। পরে কাভার্ডভ্যানে অভিনব কৌশলে লুকানো ৪৯ হাজার ২৪০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, কক্সবাজারের ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুদ উল্যাহর কাছ থেকে সংগ্রহ করা ইয়াবার চালানটি কাভার্ডভ্যানে করে ভোলায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। উদ্ধার করা ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ২ কোটি ৪৬ লাখ ২০ হাজার টাকা। এ ঘটনায় মাদক আইনে নগরীর কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করা হয়েছে বলে জানান RAB এর এ কর্মকর্তা।
লায়ন্স ক্লাব ও লিও ক্লাবের যৌথ উদ্যেগে ২২০টি পরিবারের মাঝে মশারী বিতরণ
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:সেন্ট্রাল লায়ন্স ক্লাব ও লিও ক্লাবের যৌথ উদ্যেগে এবং হিলভিউ ক্লাবের সহযোগিতায় গত মঙ্গলবার হিলভিউ এলাকার কিছু সুবিধাবঞ্চিত এবং দরিদ্রদের ডেঙ্গু সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে এবং ডেঙ্গু আক্রমণ হতে রক্ষার জন্য ২২০টি পরিবারের মাঝে মশারী বিতরণ, গাছের চারা বিতরণ এবং রোপণ করা হয়।এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন্স জেলা গভর্নর লায়ন কামরুন মালেক। তিনি বলেন, ডেঙ্গু সম্পর্কে সচেতন করতে আমরা লায়ন সদস্যরা সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে থাকতে চাই। তিনি এ লক্ষ্যে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। সেন্ট্রাল লায়ন্স ক্লাবের সভাপতি লায়ন মোঃ শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন লায়ন আল সাদাত দোভাষ, প্রাক্তন জেলা গভর্নর লায়ন মোঃ মোহাম্মদ মোস্তাক হোসাইন, লায়ন্স জেলার কেবিনেট সেক্রেটারী লায়ন জি. কে. লালা, কেবিনেট ট্রেজারার লায়ন এস এম আশরাফুল আলম আরজু, জয়েন্ট কেবিনেট সেক্রেটারি লায়ন আরিফ আহমেদ, জয়েন্ট কেবিনেট ট্রেজারার লায়ন মনিরুল কবির, গভর্নর এডভাইজর লায়ন ডাঃ দুলাল দাশ, লায়ন আলহাজ আবদুস সামাদ খান, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন লায়ন এস এম কামাল পাশা, লায়ন এডভোকেট এম নুরুল ইসলাম, জোন চেয়ারপার্সন লায়ন নাজমুল কবির খোকন, লায়ন হাসান মাহমুদ চৌধুরী, ডিস্ট্রিক চেয়ারপার্সন লায়ন বেলাল উদ্দিন চৌধুরী, সেন্ট্রাল লায়ন্স ক্লাবের সহ-সভাপতি লায়ন ফাতেমা ইসমত আরা চৌধুরী, সেক্রেটারী লায়ন মানজারী খোর্শেদ, লিও দীপ্ত দে, লিও জায়েদ হোসেন, লিও ডালিম সাহা, লিও মরিয়ম আক্তার, লিও মাঈন উদ্দিন, লিও মোতালেব, লিও সুজয় এবং হিলভিউ ক্লাবের সভাপতি সাবতান সাদী, সহ-সভাপতি নুরুল কবির রনি, সাইফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আত-তাওয়াকুল ইসলাম প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
এশিয়ান উইম্যান ইউনিভার্সিটির ফ্যাকাল্টি ওরিয়েন্টেশন
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:নতুন স্বপ্ন পূরণের প্রত্যয়ে আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যান (এইউডব্লিউ) এর ফল সেশনের ফ্যাকাল্টি অ্যান্ড স্টাফ ওরিয়েন্টেশান গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যান (এইউডব্লিউ) এর রেজিস্ট্রার ড. ডেভ ডোল্যান্ড ওরিয়েন্টেশনে স্বাগত বক্তব্য দেন। ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন অনুষদের প্রধানগণ এবং ডিন অব স্টুডেন্টস ইউনিভার্সিটির শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও স্টাফদের বিভিন্ন কার্যক্রম সবার সামনে তুলে ধরেন এবং ভবিষ্যৎ স্বপ্ন পূরণের সাথী হওয়ার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান। যার মাধ্যমে ইউনিভার্সিটি তার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে এগিয়ে যাবে। আজ ইউনিভার্সিটির ফল সেশনের নবাগত শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হবে। সকল নবাগত শিক্ষার্থীদের যথাসময়ে ওরিয়েন্টেশনে উপস্থিত হওয়ার জন্য ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
জন্মাষ্টমী কেন্দ্রীয় পরিষদের সংবাদ সম্মেলন
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা ও মৌলিক অধিকার সুরক্ষার স্বার্থে পৃথক মন্ত্রণালয় গঠনের জোর জানানো হয়েছে জন্মাষ্টমী কেন্দ্রীয় পরিষদের সংবাদ সম্মেলনে। বুধবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দে। সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত অন্যান্য দাবিগুলো হলো : মঠ-মন্দির-ঘরবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলাকে মানবতাবিরোধী অপরাধ হিসেবে চিহ্নিত করে বিশেষ ট্রাইব্যুনালে শাস্তির ব্যবস্থা করা, সারাদেশে বেদখল হওয়া মঠ-মন্দির ও দেবোত্তর সম্পত্তি উদ্ধার এবং তা সংরক্ষণে প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়ন করা, শারদীয় দুর্গাপূজায় চারদিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টকে হিন্দু ফাউন্ডেশনে পরিণত করা, হামলায় বিধ্বস্ত মঠ-মন্দির-ঘরবাড়ি সরকারি উদ্যোগে রামুর বৌদ্ধবিহারের ন্যায় পুনঃনির্মাণ করা, অর্পিত সম্পত্তি সংশোধনী আইন বাস্তবায়ন করে জনগণকে হয়রানি থেকে মুক্তি দেয়া, এরশাদ সরকারের আমলে সৃষ্ট বাংলা নববর্ষের তারিখ বিভ্রাটের অবসান, প্রতিটি জেলায় শ্রীকৃষ্ণ মন্দির প্রতিষ্ঠায় সরকারি জায়গা বরাদ্দ দেয়া ও শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী উৎসবে সরকারি ভোগ্যপণ্য বরাদ্দের ব্যবস্থা করা। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পরিষদের কেন্দ্রীয় প্রাক্তন সভাপতি ও রাউজান পৌরসভার মেয়র দেবাশীষ পালিত, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. চন্দন তালুকদার। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, আগামীকাল ২৩ আগস্ট ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী দেশব্যাপী যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় পালন করা হবে। এ উপলক্ষে বিভিন্ন জেলায় শোভাযাত্রা, মহানামসংকীর্ত্তন, ধর্মীয় আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ, রক্তদান, লীলা প্রদর্শনী, মহাপ্রসাদ বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছে। ২৩ আগস্ট সকাল ১০টায় জে.এম সেন হল প্রাঙ্গণ থেকে মহাশোভাযাত্রা উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রামস্থ সহকারি ভারতীয় হাই কমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জী, অতিথি থাকবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান, রাজনীতিবিদ মোসলেম উদ্দিন আহমেদ, মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, মফিজুর রহমান সহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ও দেশ-বিদেশ থেকে আগত মহাত্মামহারাজবৃন্দ। দুপুর ১২টায় মাতৃসম্মেলনের উদ্বোধন করবেন রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী শক্তিনাথানন্দজী মহারাজ, বিকাল ৩টায় ধর্মীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ৫টায় সনাতন ধর্ম মহাসম্মেলন। মঙ্গলপ্রদীপ প্রজলন করবেন ঋষিধাম মোহন্ত শ্রীমৎ স্বামী সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ। উদ্বোধক থাকবেন কৈবল্যধামের মোহন্ত মহারাজ শ্রীমৎ অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায়। অতিথি থাকবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এমপি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ সালাম প্রমুখ। রাতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী পূজা ও ষোড়শপ্রহরব্যাপী মহনাম সংকীর্তনের শুভ অধিবাস, ২৪ আগস্ট ভোর হতে অহোরাত্রি মহানাম সংকীর্তন শুরু এবং ২৬ আগস্ট ব্রাহ্মমুহুর্তে মহানাম সংকীর্তনের সমাপন। প্রতিদিন দুপুর ও রাত্রে মহাপ্রসাদ বিতরণ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. তপন কান্তি দাশ, কার্যকরী সভাপতি ডা. মনোতোষ ধর, সহ-সভাপতি সাধন ধর, সহ-সভাপতি ও মহাশোভাযাত্রা উপ-পরিষদের আহবায়ক অলক দাশ, লায়ন দুলাল চন্দ্র দে, পরেশ চন্দ্র চৌধুরী, মহাশোভাযাত্রা উপ-পরিষদের সদস্য সচিব লায়ন আশীষ কুমার ভট্টাচার্য্য, কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক লায়ন তপন কান্তি দাশ, প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, ডা. বিধান মিত্র, সাধন চৌধুরী, জাতীয় জন্মাষ্টমী উৎসব পরিষদের আহবায়ক বাবুল ঘোষ বাবুন, সদস্য সচিব রতনাকর দাশ টুনু, রতন আচার্য্য, শিবু প্রসাদ দত্ত, এস প্রকাশ পাল, প্রকৌশলী সুভাষ গুহ, রমকী সেনগুপ্ত, ঊষা আচার্য্য প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের জাতীয় শোক দিবস পালিত
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস গত ১৫ আগস্ট নগরীর আম বাগানস্থ কার্যালয়ের হলে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল- বিশেষ প্রার্থনা, শোক রলি ও আলোচনা সভা। হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি রাখাল দাশগুপ্তের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর পূজা পরিষদের প্রাক্তন সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অরবিন্দ পাল অরুন, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নিতাই প্রসাদ ঘোষ, জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, ঐক্য পরিষদ নেতা বিশ্বজিত পালিত। সহকারী প্রকল্প পরিচালক রিংকু কুমার শর্মার পরিচালনায় প্রার্থনা সভায় পৌরহিত্য করেন প্রবর্তক ইসকন মন্দিরের কিশোর শ্যাম দাস ব্রহ্মচারী। সভায় মাস্টার ট্রেইনার, ফিল্ড সুপার ভাইজার, মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় বক্তারা বলেন, ১৫ আগস্ট রাতের অন্ধকারে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে খুনী চক্র এদেশের স্বাধীনতাকে, এদেশকে কলঙ্কিত করেছিল। বাংলাদেশ তথা পৃথিবীর ইতিহাসে ১৫ আগস্ট এক ভয়ংকর দিন। এক নারকীয় রাজনৈতিক হত্যাযজ্ঞ। এটি ছিল একটি সামাজিক ও ধর্মীয় পাপাচার, চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন, শিশু অধিকার, নারী অধিকার লঙ্ঘনসহ মানবতার বিরুদ্ধে ক্ষমার অযোগ্য এক জগণ্য অপরাধ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বঙ্গবন্ধুর জীবন দর্শনের মূল বিষয় ছিল দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো:মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:নতুন প্রজন্মের সন্তানদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবনর্চ্চার আহবান জানিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, সিটি মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন বলেছেন স্বাধীনতার জন্য বঙ্গবন্ধুর মতো এত ত্যাগ স্বীকার বিশ্বের আর কোনো নেতা করেননি। এ কারণেই বিশ্ববাসী বঙ্গবন্ধুকে সাধারণ মানুষের নেতা, শ্রমজীবী মানুষের অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে জানেন। সিটি মেয়র আরো বলেন জীবন ও আন্দোলনের ইতিহাস সকল বয়সের মানুষেরই জানা প্রয়োজন।বঙ্গবন্ধুর জীবন দর্শনের মূল বিষয় ছিল দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, বঞ্চিতদের পাশে দাঁড়ানো ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করা। তিনি গত সোমবার বিকেলে নগরীর শুলকবহন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে একথা বলেন । ষোলশহর রেলষ্টেশন চত্বরের অনুষ্ঠিত সভায় চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। শুলকবহর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শেখ সরওয়ার্দীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দীন চৌধুরী, রাজনীতিক আহমদুর রহমান সিদ্দিকী, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, হাসিনা জাফর,কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম,রাজনীতিক আবদুল মান্নান ফেরদৌস,এস এম হাশেম, শাহজাহান চৌধুরী,মশিউর রহমান দিদার, রেজাউল করিম সিদ্দিকী, আকতার ফারুক,কফিল উদ্দিন খোকন, তৌহিদুল আনোয়ার সেন্টু, প্রিয় লাল গোস্বামী,অহিদ চৌধুরী, হাবিবুর রহমান তারেক,আবুল বশর, এস এম আলম,ওয়াহিদুল আলম শিমুল, এম কে আলম বাসেত,জহির উদ্দিন সুমন,নঈম উদ্দিন মাহমুদ, সাইফুল মান্নান শিমুল, দিদারুল আলম আকাশ, এরফানুল মান্নান কনক, কমল বড়ুয়া, আলহাজ্ব আমিনুর রহমান, মো. মহসিন প্রমূখ।এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ মুছা, আনোয়ার মিয়া, জাহিদুল আলম, এস এম ওয়াজেদ, রাশেদুল আনোয়ার খান, জেসমিন পারভিন, হোসেন আরা বেগম বাদশা, সজিব চৌধুরী, বিমল বড়ুয়া প্রমূখ। সিটি মেয়র বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ রাজনীতির কথা উল্লেখ করে বলেন স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শূন্য হাতে দেশ গড়ার কাজ শুরু করেছিলেন। দেশের খাদ্য গুদামে চাউল ও খাবার ছিল না, ব্যাংকে টাকা ছিল না, যাতায়াত ব্যবস্থা ভালো ছিল না। ভঙ্গুর অর্থনীতির এই অবস্থা থেকে মাত্র সাড়ে তিন বছরে তিনি সব কিছুকেই গড়ে তুলেছেন। এই প্রসঙ্গে মেয়র বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হঠাৎ করে বাঙালির আশা-আকাঙ্খার প্রতীক হয়ে উঠেননি। তাকে দীর্ঘ চব্বিশ বছর কঠোর সংগ্রাম করতে হয়েছে। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বের ফলেই মাত্র নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। সিটি মেয়র বলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা যারা চায় নি , যারা স্বাধীনতার পরও পাকিস্তানের সংগে কনফেডারেশন করার চক্রান্তে লিপ্ত ছিলেন ,তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। যড়যন্ত্রকারী চেয়েছিল ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে দিতে চেয়েছিল, কিন্তু তারা তা পারেনি। আর বঙ্গবন্ধু অমর হয়ে রয়েছেন ,আর যড়যন্ত্রকারীরাই ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে । মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার আমলে দেশের প্রচলিত আইনে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে । তবে এখনো বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার সম্পূর্ণ হয়নি । কারণ পলাতক খুনি ও বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যের কুশীলবদের বিচার এখনও হয়নি। তাদেরও বিচারের আওতায় আনার দাবী মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
খালেদা জিয়ার মুক্তি মানে গণতন্ত্রের মুক্তি:জাফরুল ইসলাম
২২আগস্ট,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:বিএনপি চেয়ারপার্সন, তিনবারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৫তম জন্মদিনে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদল কর্তৃক জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মোঃ শহীদুল আলম শহীদের সভাপতিত্বে দোয়া মাহফিল ও মতবিনিময় সভা সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব জাফরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে আটকিয়ে রেখে সরকার গণতন্ত্র অবরুদ্ধ করেছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি মানে গণতন্ত্রের মুক্তি, এদেশের মানুষের মুক্তি। অভিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দিন। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বাঁশখালী উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক শহীদুল আলম বুলবুল, বাঁশখালী উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ লোকমান, জেলা বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক এডঃ মোঃ কাশেম চৌধুরী, বাঁশখালী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল হক চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, সহ-ক্রীড়া সম্পাদক শওকত ওসমান। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মোঃ ছগির, ওসমান গণি, মোঃ হাসান, মামুনুর রশিদ, ফরহাদুল ইসলাম, রেজাউল হক, এম ওয়াহাব, জালাল উদ্দিন, আজিজুল হক সিকদার, হেলাল উদ্দিন, নুরুল আবসার, আমান উল্লাহ বাবু, শাহেদুল ইসলাম, রেজাউল করিম, এনামুল হক, আনিসুল ইসলাম, ফরহাদ হোসেন আশিফ, গাজী রিফাত, মুনসুর আলম, বাঁশখালী আলাওল সরকারী ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদল নেতা মোরশেদুল ইসলাম, পশ্চিম বাঁশখালী উপকূলীয় ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদল নেতা আরমান, পুকরিয় ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা সাহাবু উদ্দিন, সাধুনপুর ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সেলিম, খানখানাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মোঃ আজিজ, মোঃ তুশার, বাহারছড়া ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মোঃ হেলাল উদ্দিন, মোঃ রুবেল, কালীপুর ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মোঃ সুমন, মাঈনু উদ্দিন জায়েদ, কাথরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা এস এম সুমন, বৈলছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মেহেদী কালাম, মুহিব মাহমুদ, বদি আলম, সরল ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা জসিম উদ্দিন,নেজাম উদ্দিন, চাম্বল ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা আশিক, ছনুয়া ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা আব্দু রহিম, গন্ডমারা ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মোরশেদ, শেখেরখীল ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা জমির এলাহি, মোঃ জিয়া, পুইছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা মোঃ শাহেদ সহ প্রমুখ। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার দীর্ঘায়ু ও রোগমুক্তি কামনায় খতমে কোরআন, দোয়া মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর