সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
করোনা-আক্রান্তদের জন্য আইসোলেশন সেন্টার' স্হাপনে তরুণ সংগঠকদের বৈঠক
২৮মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সারাদেশে বিস্তৃত হচ্ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। এরমধ্যে চট্টগ্রামের অবস্হা নাজুক। আক্রান্ত হবে আরও। চারিদিকে লাশ হচ্ছে মানুষ, স্বজনদের চোখে শোক বৃষ্টি। এই অবস্থায় আর বসে থাকার সুযোগ নেই। তাই করোনা-আক্রান্তদের জন্য কিছু একটা করার জন্য কিছু স্বপ্নবাজ তরুণ ও প্রাক্তন ছাত্রনেতাদের আয়োজনে সামাজিক দূরুত্ব মেনে এক বৈঠক নগরির জিইসিস্হ স্পিকার কাউন্সিল অফিসে অনুষ্ঠিত হয়। উদ্দ্যেক্তাদের মধ্যে এইসময় উপস্হিত প্রাক্তন ছাত্রনেতা ও সাংস্কৃতিক সংগঠক মুহাম্মদ সাজ্জাত হোসেন, আ্যাডভোকেট টি আর খান, তৌহিদুল ইসলাম, নারী উদ্দ্যেগক্তা সাবিনা আক্তার, ডায়মন্ড হেভেন লিঃ পরিচালক জাওইদ চৌধুরী, স্পীকার কাউন্সিলর এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইমরান আহমেদ, জাফর আল তানিয়ার, জাহাঙ্গীর আলম, মানবিক সংগঠক মুসাফিরের আহ্বায়ক ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ মহরম হোসাইন প্রমুখ। বৈঠক নগরির একটি কমিউনিটি হলে অন্তত ১০০ জন করোনা রোগীকে আইসোলেটেড করে তাদের পাশে দাঁড়ানোর ব্যবস্হা করার উদ্যেগ নেওয়ার ব্যপারে আলোচনা করা হয় আইসোলেটেড সেন্টারে থাকবে অক্সিজেন সাপোর্ট, স্বাভাবিক চিকিৎসা ও ভালোবাসাময় সেবা। এই ব্যপারে আইসোলেশন সেন্টার স্হাপন উদ্দ্যেক্তাদের মধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ সাজ্জাত হোসেন বলেন, কেউ আক্রান্ত হলে তাকে করোনা-জয়ে সাহস সঞ্চারের পাশাপাশি তার আইসোলেশন নিশ্চিত করতে আমাদের আজকের প্রথম বৈঠক। জানিনা কতটুকু সফল হতে পারবো। তবে বিশ্বাস আছে যেকোন ভালো কাজে আল্লাহতায়ালার সরাসরি সহযোগিতা থাকে। তিনি আরো বলেন, 'চট্টগ্রাম করোনা আইসোলেশন সেন্টার 'শিরোনামের এই প্লাটফর্মে আমরা সবাই একসঙ্গে কাজ করতে চাই।
সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী পরিবহনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা
২৮মে,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে। এদিকে সরকারি নির্দেশনা অমান্যকরে ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী পরিবহণ করছে ভাড়ায়চালিত মাইক্রো, মোটরসাইকেল ও সিএনজি। জেলা প্রশাসনের কঠোর নজরদারির পরও থেমে নেই নানা কৌশলে যাত্রী পরিবহন। এর প্রেক্ষিতে আজ নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটগণ। এসময় সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী বহনের দায়ে বেশ কয়েকটি যানবাহনকে জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। আজ বৃহস্পতিবার ২৮ মে বিকাল ৩ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন জায়গায় জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলী হাসান এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিল্লুর রহমান। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলী হাসান জানান, আজকের অভিযানে কর্ণফুলী নতুন ব্রিজে ভাড়াচালিত মাইক্রো, মোটরসাইকেল এ সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকরণ ও সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা সেটি পর্যবেক্ষণ এর জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয় । এসময় ৪ টি মোটরসাইকেলকে দুরত্ব না মানায় ১২০০ টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে একই স্থানে কক্সবাজারগামী ৩ টি যাত্রীবাহী মাইক্রোতে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী বহনরত অবস্থায় আটক করা হয়।এজন্য মাইক্রো ৩ টিকে ৪,০০০ টাকা জরিমানা করা হয় এবং মাইক্রোগুলো থেকে যাত্রী নামিয়ে দেওয়া হয়৷ এছাড়াও ৩ টি সিনজিকে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অতিরিক্ত যাত্রীবহন করার অপরাধে ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়। অন্যদিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিল্লুর রহমান এর নেতৃত্বে নগরীর আকবর শাহ, পাহাড়তলী, বন্দর, ইপিজেড, পতেঙ্গা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিল্লুর রহমান জানান, আজকে অভিযানকালে পতেঙ্গা সী বিচ এলাকায় অনেক লোকের সমাগম দেখা যায়। সবাইকে সতর্ক করা হয় এবং বাসায় ফিরে যেতে বলা হয় । আকবর শাহ এলাকায় একটি পিকআপে করে ২০ জন যাত্রী বি.বাড়িয়া ও কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রামে আসছিল। পণ্যবাহী যানে যাত্রী পরিবহন না করার নির্দেশনা অমান্য করায় গাড়ির চালককে ৫,০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া বন্দর এলাকায় মিনিবাসে যাত্রী পরিবহন করায় বাস চালককে ১৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব না মেনে যাত্রী পরিহন করায় এক প্রাইভেট কার চালক (উবার) কে ১০০০ টাকা এবং দুই মোটর সাইকেল চালককে ৯৫০ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত।
চট্টগ্রামে করোনায় আরো ৪ জনের মৃত্যু
২৮মে,বৃহস্পতিবার,সৈয়দুল ইসলাম,চট্টগ্রাম,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে গেলো ২৪ ঘন্টায় করোনাক্রান্ত হয়ে আরো ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট মৃত্যু হয়েছে ৬৫ জনের। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) সন্ধ্যায় জেলা সিভিল কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানান জেলা সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি। এদিকে চট্টগ্রামে গেলো ২৪ ঘন্টায় ৬০২টি নমুনা পরীক্ষায় আরো ২১৫জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রাম জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২২০০। এদিন রাত সোয়া ১টায় চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, চট্টগ্রামে মোট ৬০২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে বিআইটিআইডিতে ২০৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৮ জন, সিভাসুতে ১০০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৬ জন, চমেক ল্যাবে ২৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৩৮ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া যায়। এছাড়া কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে ৩৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে চট্টগ্রামের ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। প্রসঙ্গত: এ নিয়ে বাংলাদেশে করোনাক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন মোট ৫৫৯ জন এবং মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪০,৩২১ জন।
সীতাকুণ্ডে বিএসবিএ হাসপাতাল পরিদর্শনে সিটি মেয়র নাছির
২৮মে,বৃহস্পতিবার,শারমিন আকতার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুণ্ড উপজেলার ভাটিয়ারীতে অবস্থিত বাংলাদেশ শিপ ব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএসবিএ) হাসপাতালটি পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। আজ বৃহস্পতিবার (২৮মে) বেলা ১২টার সময় ভাটিয়ারীর ৬ তলার ১০০ শয্যার এ হাসপাতালটি পরিদর্শন করেছেন করোনা হাসপাতাল হিসাবে অধিগ্রহণ করার জন্য পরিদর্শন করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারা হাসপাতালটি ঘুরে দেখেন। পাশাপাশি অবকাঠামোগত কোনও ত্রুটি আছে কিনা সেটিও দেখেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে রোগীর চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামের এই হাসপাতালটিতে ১০০টি বেড প্রস্তুত আছে। কিন্তু হাসপাতালটিতে নেই কোনও ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ)। ফলে করোনা আক্রান্ত কোনও মুমূর্ষু রোগীর আইসিইউ সেবা প্রয়োজন হলেও সেটি দেওয়া সম্ভব হবে না। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার ফজলে রাব্বি, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান, বিএসবিএ বোর্ড মেম্বার নাঈম আহম্মদ শাহ, সীতাকুণ্ড থানার সার্কেল এএসপি শম্পা রানী সাহা, অফিসার ইনচার্জ মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা।
অতিরিক্ত শ্রমিক বহনের দায়ে থিয়ানিস গার্মেন্টস এর দুটি বাস আটক ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
২৮মে,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ নগরীর বিভিন্ন স্থানে জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটগণ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় সিইপিজেড এর এক গার্মেন্টসকে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত শ্রমিক পরিবহন করার দায়ে দুটি বাস আটক করে এবং ৫০০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। আজ ২৮ মে সকাল ১০ ঘটিকা থেকে বিকেল ৩ ঘটিকা পর্যন্ত পরিচালিত এসব অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুশফিকীন নূর ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন। নগরীর বন্দর এলাকায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন কর্তৃক পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে বন্দর ভবনের সামনে থেকে থিয়ানিস গার্মেন্টস এর দুইটি বাস স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত শ্রমিক পরিবহন করার দায়ে আটক করে এবং সিইপিজেড এর সংশ্লিষ্ট গার্মেন্টসকে ৫০০০০ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও অভিযান কালে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলায় আরো ৩ টি পৃথক মামলায় ২৩০০ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। অন্যদিকে নগরীর সদরঘাট, কোতোয়ালি, ডবলমুরিং, হালিশহর এলাকায় সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকরণে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার। এসময় সামাজিক দূরত্ব না মেনে অধিক সংখ্যক যাত্রীসহ বেশ কিছু ভাড়ায় চালিত গাড়ি , মাইক্রোবাস ও সিএনজি অটোরিকশায় চলাচল করতে দেখা যায় বলে জানান তিনি।এসময় ৬ টি পৃথক মামলায় ১৪০০ টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়া খুলশী,পাচলাইশ চান্দগাও, চকবাজার,বায়েজিদ এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুশফিকীন নূর পরিচালিত মোবাইল কোর্ট এর মাধ্যমে করোনার প্রাদুর্ভাব নিরসনের লক্ষ্যে জনগনকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার ব্যাপারে সচেতন করা হয়।চান্দগাও,বায়েজিদ এবং খুলশী এলাকায় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনকারী সিএনজি চালকদের কে কঠোরভাবে সর্তক করে ভ্রাম্যমান আদালত।
চট্টগ্রামে আজ করোনায় আক্রান্ত ৯৮ জন, ২ জনের মৃত্যু
২৭মে,বুধবার,সৈয়দুল ইসলাম,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে আজ ( ২৭ মে ) ৯৮ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরছেন ৯ জন, এ পর্যন্ত মোট ১৯১ জন সুস্থ্য হয়েছেন। আজ ২ জনের মৃত্যুসহ মোট ৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রাম জেলায় আজ পর্যন্ত ১ হাজার ৯ শত ৮৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। চট্টগ্রাম মহানগর এলাকায় ১ হাজার ৫ শত ৫৯ জন এবং ৪২৬ জন বিভিন্ন উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিআইটিআইডি, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, চট্টগ্রাম এ্যানিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় এবং কক্সবাজার মেডিকেল এর নমুনা পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি আজ এ তথ্য জানিয়েছেন। চট্টগ্রাম জেলায় আজ পর্যন্ত ২৩১ জন আইসোলেশনে এবং ৩৫৭ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। সিভিল সর্জনের কার্যালয় থেকে আরো জানানো হয়, এ পর্যন্ত পটিয়া ৬৮ জন, সাতকানিয়া উপজেলায় ৩৯ জন, সীতাকুন্ড ৭২ জন, বোয়ালখালী ২০ জন, হাটহাজারী ৫২ জন, আনোয়ারা ৯ জন, চন্দনাইশ ১৫ জন, ফটিকছড়ি ৬ জন, মিরসরাই ৯ জন, লোহাগারা ৪৬ জন, সন্ধীপ ১৫ জন, রাঙ্গুনিয়া ৩৪ জন, বাশখালী ২৫ জন এবং রাউজান ১৫ জন আক্রান্ত হয়েছে।
জুয়েলারী ব্যবসার আড়ালে মাদক বেচা কেনা ইয়াবাসহ Rab এর হাতে আটক
২৭মে,বুধবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাঁশখালী থানাধীন শীলকুপ নামক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২,৯০০ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যাবসায়ীকে আটক করেছে Rab-7। বুধবার ২৭ মে সকাল ১১ঃ৫ মিনিটের সময় বাঁশখালী থানাধীন শীলকুপ নামক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান Rab-7 এর সহকারী পরিচালক(মিডিয়া) এএসপি মাহ মুদুল হাসান মামুন।। আটককৃত আসামী হল রুবেল কুমার নাথ (৩৬) বাঁশখালী থানাধীন পূর্ব চম্বল গ্রামের মৃত প্রেম হরি নাথের ছেলে। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (অপারেশন) মেজর মুশফিকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাঁশখালী থানাধীন শীলকুপ টইম বাজারস্থ নুরু মার্কেট এলাকার শেফালী জুয়েলারসে অভিযান চালিয়ে একজনকে আটক করা হয়। পরে তার দেখানো ও সনাক্ত মতে দোকান তল্লাশী করে দোকানের ক্যাশ বাক্সে সুকৌশলে লুকানো ২,৯০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানান যায়, সে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যোগসাজশে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে জুয়েলারী ব্যবসার আড়ালে মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে।উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মুল্য ১৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। গ্রেপ্তারকৃত আসামীকে বাঁশখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান।
নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ঘাটে লোক পারাপারঃ জরিমানাসহ ঘাট বন্ধের নির্দেশ দিলো ভ্রাম্যমান আদালত
২৭মে,বুধবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি বিধি নিশেধ উপেক্ষা করে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে ও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে অতিরিক্ত যাত্রী পারাপার ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে ঘাটের নৌকার মালিক কে জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ঘাটে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে ও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে একসাথে ৪০০ থেকে ৫০০ লোক অবস্থান করায় ঘাট বন্ধ করে দেয়া হয়। আজ বুধবার ২৭ মে দুপুর ৩ ঘটিকা হতে রাত ৭ ঘটিকা পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুকের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করা হয়। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক জানান, অভিযানে গিয়্রে দেখা যায় পতেঙ্গার ১৪ নং ঘাটে নিষেধাজ্ঞা থাকা স্বত্বেও নৌকার ইজারাদার আবদুস শুক্কুর সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে একটি নৌকায় ৫০/৬০ জন যাত্রী নিয়ে ১৪নং ঘাট টু মেরিন একাডেমি ঘাট পারাপার করছেন। পাশাপাশি যাত্রীরা অভিযোগ করেছেন এক বার পার হলে জনপ্রতি ৭ টাকা নেয়ার কথা থাকলেও নিচ্ছে ২০ টাকা করে। যার ফলে ঘাটের নৌকার মালিককে ১০,০০০ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। এছাড়া ঘাটে প্রায় ৪০০/ ৫০০ অপেক্ষারত মানুষ সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে ও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে একসাথে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।এর প্রেক্ষিতে মালিককে জরিমানার পাশাপাশি ঘাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। তিনি আরও জানান, অন্যদিকে ইপিজেড এলাকায় অভিযান কালে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখায় এক ভাড়ায় যাত্রী নেয়ায় প্রাইভেট কারের ড্রাইভার কে ১০০০ টাকা ও তিনজন যাত্রীকে ৩০০ টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। এবং গাড়ী ও ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় এক ট্রাক ড্রাইভার কে ২০০০ টাক জরিমানা করা হয়।এবং ইপিজেড ট্রাফিক পুলিশের কাছে গাড়িটা হস্তান্তর করা হয়। ৫ জন নিয়ে পতেঙায় অযথা ঘুরাফেরা করায় ১০০০ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। এছাড়া এইসব এলাকায় সামাজিক সচেতনতার জন্য সবাইকে মাইকিং এর মধ্যমে সতর্ক করা হয়। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক।
সরকারি নির্দেশনা না মানায় নগরীতে পাঠাওসহ ১৫৭টি মোটরসাইকেল আটক
২৭মে,বুধবার,কমল চক্রবর্তী,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা হতে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মোটরসাইকেল চালানোর দায়ে মহানগর এলাকার বিভিন্ন স্থানে চেকপোষ্ট স্থাপন করে ১৫৭ টি মোটরসাইকেল আটক করা হয়। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুবর রহমান বিপিএম, পিপিএম এর নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। ২৬ মে রাত ৮টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত সিএমপির সকল থানার বিভিন্ন টিম কর্তৃক পরিচালিত চেকপোস্ট কার্যক্রমকালে সরকারী নির্দেশনা অমান্য করায় এবং বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর দায়ে পাঠাও রাইড সহ এসব মোটরসাইকেল আটক করা হয়। আটককৃত মোটরসাইকেল গুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্হা গ্রহন করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার প্রতিরোধের লক্ষ্যে সন্ধ্যা ৬ টার পর থেকে যানবাহন চলাচলের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা আছে।এ বিধি নিষেধ এখনো বহাল আছে এবং চেকপোস্টের কার্যক্রম চলমান থাকবে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার প্রতিরোধের লক্ষ্যে সরকার কর্তৃক জারীকৃত নির্দেশনা সমূহ মেনে চলার জন্য সম্মানিত নগরবাসীর প্রতি আবারো অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর