শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
ভালো-মন্দ খুঁজে পেতে বিতর্কের বিকল্প নেই : অনুপম সেন
১১এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন,শিক্ষার্থীদের জীবনে সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য বিতর্ক সঠিক পথ বাছাই করতে সহায়তা করে। ভালো, মন্দ খুঁজে পেতে বিতর্কের বিকল্প নেই। পিইউডিএস ধারাবাহিকভাবে বিতর্কের যে চর্চা করে যাচ্ছে, তা নিঃসন্দেহে সমাজে একটি ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। গতকাল ১০ এপ্রিল নগরীর প্রবর্তক মোড়স্থ প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ভবনে উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেনের সাথে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি-পিইউডিএস-এর বিতার্কিকরা সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হলে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি যুক্তি হোক তীক্ষ্নধার, চেতনা হোক সমতার স্লোগান সামনে রেখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অব ডিবেটের আয়োজনে ২৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২টি দলের অংশগ্রহণে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় পিইউডিএস রানার আপ হওয়ায় এই পিইউডিএস-এর বিতার্কিকরা উপাচার্যের সাথে সাক্ষাত করেন। বিতার্কিকদের মধ্যে ছিলেন পিইউডিএস-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাসনিয়া আল সুলতানা, সভাপতি কাজী নুরুল হক, সহ-সভাপতি রাজর্ষি ধর রাজ, সাধারণ সম্পাদক মার্সেল অনিক হালদার প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন পিইউডিএস-এর মডারেটর সঞ্জয় বিশ্বাস, সাইফুদ্দিন মুন্না এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর (স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার) পঙ্কজ বিশ্বাস প্রমুখ। উল্লেখ্য, উক্ত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় পিইউডিএস-এর সভাপতি কাজী নুরুল হক শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক নির্বাচিত হন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ন্যায়কে অর্জন ও অন্যায়কে বর্জন করাই হজের মূল শিক্ষা : মেয়র
১০এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, হজ এমন একটি এবাদত যা মানুষ সহজে করতে পারে না। শারীরিক ও আর্থিক উভয় শক্তি দিয়ে এই এবাদত পালন করতে হয়। যাদের হজ কবুল হবে তাদের পুরস্কার পরকালীন বেহেস্তই হবে বলে আল্লাহ ঘোষণাও দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, হজ থেকে ফিরে এসে ন্যায়কে অর্জন করতে হবে আর অন্যায়কে বর্জন করতে হবে তাহলেই আমাদের হজ কবুল হয়েছে মর্মে বুঝা যাবে। গত সোমবার রাতেচান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি বি ব্লক মাঠে অনুষ্ঠিত কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র ওমরাহ হজ পালনকারীদের প্রশিক্ষণ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র উপরোক্ত কথা বলেন। সমিতির সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী অধ্যাপক মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্যানেল মেয়র বেগম জোবাইরা নার্গিস খান, চান্দগাঁও ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন খালেদ সাইফু, কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ হাসান মাহমুদ চৌধুরী সিআইপি, বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক ওমর ফারুক, আলহাজ সোলায়ম আলম শেঠ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহম্মদ, সমিতির সহসভাপতি আলহাজ ইউসুফ সিকদার, আহসানুল করীম, আলহাজ নুরুল আমীন, মাওলানা মহিউদ্দিন, মাওলানা সলিমুল্লাহ হাবীবি, মাওলানা অলী উল্লাহ, সালাহ উদ্দিন, আলহাজ ফজলে আহাদ প্রমুখ। হাসান মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পদ-পদবি ও অবস্থানগত পার্থক্য মানুষের মধ্যে যে অদৃশ্য দেয়াল তৈরি করে, হজের মাধ্যমে তা দূর হয়। তাই হজকে মানবতার প্রশিক্ষণ বলা যায়। উল্লেখ্য, আজ ১০ এপ্রিল ও কাল ১১ এপ্রিল কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের সার্বিক ব্যবস্থাপায় চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার ১৬০ জন ওমরা পালনের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ত্যাগ করবেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রাম নগরীতে পহেলা বৈশাখে ৪ স্তরের নিরাপত্তা
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামী ১৪ এপ্রিল উদযাপন হবে বাঙালির প্রাণের মেলা পহেলা বৈশাখ। বৈশাখ ঘিরে প্রতি বছরের মতো এবারো নগরীর ডিসি হিল ও সিআরবিতে পৃথকভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছে। এছাড়া পতেঙ্গাসহ আরও কিছু জায়গায় ছোট পরিসরে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আযোজন করা হয়। নববর্ষ ঘিরে এর মধ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। গতকাল দুপুরে দামপাড়াস্থ সিএমপি কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশ কমিশনার মাহাবুবর রহমান পহেলা বৈশাখ উদযাপনের দিন চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। এ সময় তিনি পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা দেন। এছাড়া নিরাপত্তা সংক্রান্ত ঝামেলাগুলো খুশি মনে মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান পুলিশ কমিশনার। নগর পুলিশের চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কেমন হয়ে থাকে সে ব্যাপারে নগর পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) উপ কমিশনার আব্দুল ওয়ারিশ গতকাল বলেন, কোনো ভেন্যু ঘিরে সাধারণত চারস্তরের নিরাপত্তা সম্পর্কে যা বুঝায়- তারমধ্যে প্রথম স্তরটি হচ্ছে ভেন্যুর অভ্যন্তরের নিরাপত্তা, দ্বিতীয় স্তরটি ভেন্যুর অভ্যন্তরের নিরাপত্তার বহির্বেষ্টনী নিরাপত্তা, তৃতীয় স্তরটি থাকে ভেন্যুর প্রবেশ ও বহির্গমনে রাখা আর্চওয়ে গেটসহ পুলিশের নানা তল্লাশি কার্যক্রম। সর্বশেষ চতুর্থ স্তরটি ওই ভেন্যুর আশপাশ ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাধারণত ভেন্যুর খুব কাছে না আবার দূরেও না এমন জায়গায় দেয়া হয়ে থাকে।আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বলছে, বৈশাখের মঞ্চটির নিরাপত্তার বিষয়টি আগে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক নিশ্চিতের পর মঞ্চটি বুঝিয়ে দেওয়া হবে আয়োজকদের কাছে। অনুষ্ঠানস্থলের ভেতর নজরদারির জন্য ওয়াচ টাওয়ার ও কন্ট্রোল রুমের ব্যবস্থা থাকবে। যা দ্বারা সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখা হবে। অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ ও বহির্গমনের পথে থাকবে আর্চওয়ে। এছাড়া অনুষ্ঠানস্থলের প্রবেশের সময় পুলিশের তল্লাশি কার্যক্রমও থাকবে। সিএমপি কমিশনার সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, পহেলা বৈশাখ বাঙালির প্রাণের উৎসব। বৈশাখের এ আনন্দ যাতে বিষাদে রূপ না নেয় সেজন্য এ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। দর্শনার্থীদের মুখোশ পড়ে অনুষ্ঠানস্থলে না আসার পাশাপাশি ব্যাগ বহন না করার ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি। এছাড়া ভুভুজেলা, বাঁশি বাজনো নিষিদ্ধ বলে জানান পুলিশ কমিশনার। তিনি বলেন, গতবছর পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান পাঁচটা পর্যন্ত ছিল। এবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাখা হয়েছে।
চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে ইঞ্জিনবোট ডুবিতে নিখোঁজ দুইজনের লাশ উদ্ধার
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে ইঞ্জিনবোট ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ দুইজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন- মো. আকবর (৩৫) ও মো. হানিফ (৩৬)। মঙ্গলবার ভোরে ইপিজেড থানাধীন কর্ণফুলীর নেভাল বার্থ-১ এলাকায় ভাসমান অবস্থায় মরদেহ দুটি পাওয়া যায় বলে জানান বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল হুদা। নিহত আকবর জুলধা ইউনিয়নের ডাঙ্গারচর ১ নম্বর ওয়ার্ডের সিরাজ মেম্বারের বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে। আর হানিফ একই গ্রামের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শুক্কুর মেম্বারের বাড়ির আবদুল খালেকের ছেলে। নিহত আকবরের স্ত্রী, দুই কন্যা ও এক ছেলে এবং হানিফের স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। রবিবার রাতে সল্টগোলা ঘাটে থেকে ডাঙ্গারচর যাওয়ার সময় এ নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড ও ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে আসছিল। নৌকাডুবির ঘটনায় সাদিয়া টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেডের ম্যানেজার জুলধা ১০০ মেগাওয়াট পাওয়ার প্লান্টে কর্মরত শেরপুরের হাবিব (৩০) এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।
চট্টগ্রামে গ্রেপ্তারের পর বন্দুকযুদ্ধে হত্যা মামলার আসামি নিহত
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর বাকলিয়া থানার কল্পলোক আবাসিক এলাকায় মঙ্গলবার ভোর ৪টায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক হত্যা মামলার প্রধান আসামির নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ। নিহত মো. সাইফুল (২৮) বাকলিয়া থানার সবুজবাগ আবাসিক এলাকার রফিক আহমদের ছেলে। সে বাকলিয়া এলাকায় সংগঠিত লোকমান হত্যা মামলার প্রধান আসামি। পুলিশ জানায়, স্থানীয় কিশোরদের কাছে বড়ভাই হিসেবে পরিচিত ছিল সাইফুল। গত ৬ এপ্রিল শনিবার নগরীর বাকলিয়া ও গোলপাহাড় এলাকার কিশোরদের দুই পক্ষের মধ্যে প্রেম সংক্রান্ত বিরোধ মেটাতে গিয়ে গভীর রাতে বাকলিয়ার খালপাড় এলাকায় গুলিতে নিহত হন এইচ এম লোকমান হোসেন। বাকলিয়া থানার ওসি প্রনব চৌধুরীর ভাষ্য, সোমবার ফটিকছড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে সম্প্রতি নিহত লোকমান হোসেন জনি হত্যার মামলার প্রধান আসামি সাইফুল ও জিয়া উদ্দিন বাবলুকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে সাইফুলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাতে নগরীর কল্পলোক আবাসিক এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে গেলে তাদের সহযোগীরা পুলিশের ওপর গুলি চালিয়ে আসামি ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ পাল্টা গুলি চালিয়ে সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করে। বন্দুকযুদ্ধে সাইফুল গুলিবিদ্ধ হলে তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন, বলেন তিনি। ওসি বলেন, হত্যাকাণ্ডের শিকার লোকমান গোলপাহাড় এলাকার কিশোরদের কথিত বড় ভাই হিসেবে পরিচিত ছিল। অন্যদিকে বাকলিয়া এলাকার কিশোরদের কাছে বড় ভাই হিসেবে পরিচিত নিহত মো. সাইফুল।-ইউএনবি
অংকুর সোসাইটি গার্লস হাইস্কুলে পুরস্কার বিতরণী
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটিস্থ অংকুর সোসাইটি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গত রোববার সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অংকুর সোসাইটি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক উপ পর্ষদের আহবায়ক সৈয়দ রফিকুল আনোয়ার। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম ও বিএফইউজের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দি চিটাগাং কো. অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লি. এর সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক উপ পর্ষদের সদস্য মো. আলমগীর পারভেজ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমিটির সদস্য সচিব ও প্রধান শিক্ষক লিলি বড়য়া। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন অংকুর সোসাইটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ সভাপতি মো. ইদ্রিস, সদস্য নুরুল ইসলাম মিনু, আলাউদ্দীন আলম, রাশেদুল আমিন, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের অভিভাবক সদস্য সৈয়দ শাহারিয়া পারভেজ, মো. শাহ আলম, শিপ্তী মহাজন, সাবেক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সাবেক পরিচালক মো. সাজ্জাদ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন যথাক্রমে সহকারি শিক্ষক শ্বেতা বড়ূয়া চৌধুরী ও কাজি সুলতানা ইয়াছমিন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে মনোনিবেশ করতে হবে। কারণ মেধা মননের পূর্ণ বিকাশে সহশিক্ষা কার্যক্রমেরও গুরুত্ব রয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
সেবার মনোবৃত্তি নিয়ে লায়ন সদস্যদের কাজ করতে হবে
৮এপ্রিল,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং কর্ণফুলীর ৫৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা গভর্নর লায়ন নাছির উদ্দিন চৌং সেবা কার্যক্রম সকলের কাছে পৌছে দিতে লায়ন সদস্যদের আরও বেশী কাজ করার আহবান জানান।তিনি বলেন ৫৯ বছর ধরে টিকে থাকা লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং কর্ণফুলীর সেবার জগতে সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। যার অংশীদার আমরা সৌভাগ্যবান লায়ন সদস্যরা। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে সদ্য প্রাক্তন জেলা গভর্নর লায়ন মঞ্জুর আলম মঞ্জু এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে নির্বাচিত জেলা গভর্ণর লায়ন কামরুন মালেক ও নির্বাচিত ১ম ভাইস জেলা গভর্ণর লায়ন ডাঃ সুকান্ত ভট্টাচায উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন। বক্তরা কর্ণফুলীর গৌরবোজ্জ্বল অতীতকে ধারন করে ভবিষৎতে সেবার জগৎকে আরও প্রসারিত করার অহবান জনান। অতিথিগণ তাদেঁর বক্ত্যব্যে কর্ণফুলীর ক্লাবের বিভিন্ন সেবামুলক কর্মকান্ডের প্রসংশা করেন। প্রক্তন জেলা গভর্ণরদের মধ্যে থেকে আজাদি সম্পাদক এম.এ মালেক অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন লায়ন্স ক্লব অব চিটাগাং কর্ণফুলি ৫৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকিতে যোগদান করতে পেরে আমরা নিজেকে খুবই সৌভাগ্যবান মনে করছি।ক্লাবের প্্্ক্ষ থেকে স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে পিডিজি লায়ন রূপম কিশোর বডুয়া ও পিডিজি লায়ন এস.এম. শামসুদ্দীন। গত ৫ এপ্রিল শনিবার আন্তর্জাতিক সেবা সংগঠণ লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং কর্ণফুলির ৫৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি চট্টগ্রাম ক্লাব লিঃ এর মিলনায়তনে ক্লাব প্রেসিডেন্ট লায়ন মোঃ আবদুর রহিম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। প্রক্তন জেলা গভর্ণরদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লায়ন সফিউর রহমান, লায়ন শামসুল হক, লায়ন রফিক আহমদ, লায়ন নাজমুল হক চৌং, লায়ন শাহ এম হাসান, কবির উদ্দিন ভূইয়া, ডা. শ্রী প্রকাশ বিশ্বাস, সিরাজুল হক আনসারি, মোহাম্মদ মোস্তাক হোসাইন, শাহ আলম বাবুল, লেডি পিডিজিগণ, কেবিনেট সেক্রেটারি জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী ও কেবিনেট ট্রেজারার মোসলেহ উদ্দিন খান। অনুষ্টান কমিটির চেয়ারম্যন মোসলেহ উদ্দিন আহমদ অপু স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট এর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মোঃ কামরুজ্জামান লিটন, শোক প্রস্তাব উত্তাপণ করেন শওকত হাসান খান এবং ক্লাবের কর্মকান্ডের উপর প্রতিবেদন পেশ করেন ক্লাব সেক্রেটারি মোহাম্মদ মুছা। অনুষ্ঠানে লায়ন্স জেলা ৩১৫ বি৪ এর প্রাক্তন জেলা গভর্নর, কর্ণফুলি ক্লাবের প্রাক্তন প্রেসিডেন্টদের এবং লিও জেলার প্রাক্তন প্রেসিডেন্টদের সম্মাননা জানানো হয়। সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় শিল্পিরা নৃত্য ও হারানো দিনের গান দিয়ে সুরের মুর্ছনায় সবাইকে মুগ্ধ করে রাখেন। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকির কেক কাটার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি উদযাপন করা হয় এবং এউপলক্ষে একটি স্মরনিকা প্রকাশ করা হয়।এই আনন্দঘন মুহূর্তটি উপভোগ করেন ডিজি, আইপিডিজি, ভিডিজি, পিডিজি, লায়ন ও লিও সদস্যগন। সেবা কর্মকান্ডের অংশ হিসাবে লায়ন্স স্কলারশিপ ট্রাস্টে এক লাখ ২০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান, পাচঁটি হুইল চেয়ার বিতরণ ও হিমোফেলিয়া রুগীদের জন্য ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করা হয়। সমগ্র অনুষ্টানটি সঞ্চালনায় ছিলেন লায়ন মনির আহমদ চৌধুরী। আরও উপস্থিত ছিলেন লায়ন আসেদা জালাল, লায়ন জহির উদ্দিন আহমদ, রোকেয়া হক, একরামুল হক ভুইয়া, আলাউদ্দিন আহমদ চৌধুরী, শুভানাজ জিনিয়া, এম.এন. ছাফা, লোকপ্রিয় বড়-য়াসহ প্রমুখ লয়ন এবং লিও সদস্যগণ।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
অটিজম আক্রান্তদের জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ
৪এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রেরণা অটিজম স্কুলের উদ্যেগে ১২ তম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়। গত ২ এপ্রিল বেলা তিনটায় প্রেরণা অটিজম স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের, অভিভাবক অতিথিবৃন্দের, অংশগ্রহণে র;্যলী হালিশহর, বড়পুলসসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিন এর মাধ্যমে প্রোগ্রামের আনুষ্ঠানিক সূচনা হয়। এবারের অটিজম দিবসের প্রতিপাদ্য হলো সহায়ক প্রযুক্তির ব্যবহার, অটিজম বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন ব্যক্তির অধিকার। প্রতিপাদ্যটির তাৎপর্য তুলে ধরে প্রধান অতিথি সাবেক মন্ত্রী গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেন,বর্তমান যুগ প্রযুক্তিনির্ভর হয়ে গেছে। প্রযুক্তিগত উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন সুদৃঢ় অবস্থানে দাঁড়িয়ে গেছে। বর্তমান সরকার অটিজম আক্রান্ত যারা রয়েছে তারাও যে মানুষ তার বাস্তব রুপ দিতে বদ্ধপরিকর। ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমি স্বাধীনতা পুরস্কার পেয়ে যে অর্থ পেয়েছি তার সাথে আরো যুক্ত করে ১০ টি অটিজম স্কুলকে এক লক্ষ টাকা কওে মোট ১০ লক্ষ টাকা অনুদান দেয়ার ঘোষণা দেন। প্রেরণা অটিজম স্কুলের প্রিন্সিপাল মীর মেশকাতুর নুরের উদ্বোধনী বক্তব্যের মাধ্যমে ও শুরুতে কোরআন তেলোওয়াত করেন প্রেরণা অটিজম স্কুলের ছাত্র সৈয়দ এস কে ফাহাদ অর্জন। আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের শিক্ষা বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি নাজমুল হক ডিউক, বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট নারী নেত্রী আল;ামা ফয়জুল;াহ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ও মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মিসেস রিজিয়া রেজা নদভী, বিভাগীয় সমাজসেবা অফিসের উপ- পরিচালক জনাব হাসান মাসুদ, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক আবু ছালেহ, স্ট্যান্ডার্ড হোমস্ এর ডিরেক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন,শামসুল হুদা, প্রেরণা অটিজমের পৃষ্ঠপোষক আবু তাহের ও দেওদীঘি কে এম উচ্চ বিদ্যালয় এক্স স্টুডেন্ট ফোরামের নির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ। আলোচনা সভা শেষে স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সবশেষে প্রেরণা অটিজমের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন প্রোগ্রামে আগত অতিথিবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন। বিজ্ঞপ্তি
উচ্চ শিক্ষায় কাজ করবে দুই সংস্থা
৪এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: উচ্চতর শিক্ষায় যৌথভাবে কাজ করবে ভারতের ডন বসকো স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট ও চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি। সম্প্রতি ভারতের হায়দ্রাবাদে অনুষ্ঠিত এশিয়ান আরব অ্যাওয়ার্ড অ্যান্ড কনফারেন্সে উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আবিদা মোস্তফা ও ডন বসকো স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট ব্যাঙ্গালোরের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পি বি নাথ স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। সমঝোতা স্বারকের আওতায় বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা ফ্যাশন ম্যানেজমেন্টের ওপর এমবিএ কোর্সে ১ম দুই সেমিস্টার ভারতে এবং পরবর্তী দুই সেমিস্টার ইতালির রোমে শিক্ষাগ্রহণের সুযোগ পাবে। এছাড়া পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ম্যানেজমেন্ট ও পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন মাস্টার্স কোর্সে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পাবে। সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট ড. মনোয়ারা হাকিম আলী, ইন্ডিয়ান ইকোনমিক ট্রেড অর্গানাইজেশনের প্রেসিডেন্ট ড. আসিফ ইকবাল, ডন বসকো স্কুল অব ম্যানেজমেন্টের কর্পোরেট রিলেশন ডিরেক্টর নোয়েল মাস্টার্স, ট্রাস্টি ও এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ড. অরুণ মুধল এবং চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বারে সদস্য বেবী হাসান, রোকসানা বেগম, ফাতেমা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর