বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ৯৭ ভাগ বহুতল ভবন আগুনের ঝুঁকিতে
৩১মার্চ,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ৯৩ শতাংশ বহুতল ভবনের কোন রকম অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা নেই। আইন থাকা সত্ত্বেও ৯৭ শতাংশ ভবন ফায়ার সার্ভিসের বসবাসের উপযোগী ছাড়পত্র নেয়নি। আর ৪১টি বিপণী বিতান এবং ১২টি বস্তি রয়েছে চরম অগ্নি-ঝুঁকির মধ্যে। ফায়ার সার্ভিসের এক বছরের জরিপে উঠে এসেছে নগরীর এ ভয়ঙ্কর তথ্য। আর চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) বলছে, প্রশাসনিক জটিলতার কারণে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলোর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না। গত এক বছর ধরে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডকে আটটি জোনে ভাগ করে নানামুখি জরিপ চালিয়ে আসছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। জরিপের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, নগরীতে ২০ হাজারের বেশি বহুতল ভবন থাকলেও তার অধিকাংশের কোনো অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা নেই। বিএমডিসি কোড অনুযায়ী বসবাসের ছাড়পত্র নিয়েছে মাত্র ৩ শতাংশ বহুতল ভবনের মালিক। নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি আশিক ইমরান বলেন, অনেক বড় ভবন এখন চট্টগ্রামে নির্মাণাধীন রয়েছে। এবং ব্যবহারও হচ্ছে। যেগুলোতে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নেই বললে চলে। এদিকে বহুতল ভবনের পাশাপাশি নগরীর ৪১টি বিপনী বিতান এবং ১২টি বস্তিকে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করেছে ফায়ার সার্ভিস। চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন বলে, ৩ শতাংশ লোক অগ্নিনির্বাপণের জন্য ব্যবস্থা নিয়েছে। অন্যদিকে ৯৭ শতাংশ লোক এখনো অগ্নিঝুঁকিতে রয়েছে। সিডিএ বলছে, ঝুঁকিপূর্ণ ভবন শনাক্তে জনবল সংকট ও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, আমরা একটা তালিকা করি, সেটা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে দেই। সিটি কর্পোরেশন তারা চুয়েটকে না বুয়েটকে দিবে। না বিশেষজ্ঞ দল নিয়ে এসে দেখবে এই ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ কি-না। সবশেষ গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে কর্ণফুলী নদীর তীরবর্তী চাক্তাই বস্তিতে আগুনে পুড়ে এক শিশুসহ আটজনের মৃত্যু হয়। আর ২০০৪ সালে কালুরঘাট এলাকায় একটি গার্মেন্টেসে আগুনে অন্তত ৬০ জনের মৃত্যু হয়।
নগরীর পাহাড়তলী এলাকা থেকে প্রতারণার ছয় লক্ষ টাকাসহ দুই প্রতারক আটক
২৮মার্চ,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীতে প্রতারণার ছয় লক্ষ টাকা সহ দুই প্রতারককে আটক করেছে পাহাড়তলী থানা পুলিশ। গতকাল বিকেলে নগরীর পাহাড়তলী এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক দুই প্রতারক হল- গোপালগঞ্জের মকসুদপুর থানার কমলাপুর গ্রামের আলেব শেখের ছেলে সাইফুল (৪৫) ও চাঁদপুরের মতলব থানার বাগানবাড়ি গ্রামের মহর আলীর ছেলে শফিক (৪২)। পাহাড়তলী থানার ওসি মাইনুর রহমান জানান,আটক দুই ব্যক্তি টেক্সটাইল প্রকৌশলী রুবেলের কাছে টেক্সটাইল সামগ্রী বিক্রয়ের কথা বলে ছয় লক্ষ টাকার চুক্তি করে। চুক্তি অনুসারে তাদেরকে টাকাও দেয়া হয়। কিন্তু পণ্য দেখানোর সময় তারা টালবাহানা ও অসঙ্গতিপূর্ণ আচরণ করতে শুরু করলে প্রকৌশলী রুবেলের সন্দেহ হয়। পরে তিনি তাকে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে পাহাড়তলী থানার একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই প্রতারককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা ছয় লক্ষ টাকা প্রকৌশলী রুবেলকে ফেরত দেয়া হয়। আটক দুই প্রতারক পাহাড়তলী থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।
১৭০ মুক্তিযোদ্ধাকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সংবর্ধনা
২৮মার্চ,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে গত ২৬ মার্চ চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্কিট হাউসে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে ও সহকারি কমিশনার (ভূমি-বাকলিয়া) সাবরিনা মুস্তফার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. মোজাফফর আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন। অনুষ্ঠান শেষে জেলা ও মহানগরীর ১৭০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা সংগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের অবিস্মরণীয় অবদানের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত ৮
২৮মার্চ,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: লোহাগাড়ার চুনতি জাঙ্গালিয়া এলাকায় যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৮ জন নিহত হয়েছেন। বুধবার (২৭ মার্চ) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করে চুনতি পু্লিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বলেন, চুনতি জাঙ্গালিয়া এলাকায় ঢাকা থেকে কক্সবাজারমুখী রিলাক্স পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাসের সঙ্গে বিপরীতমুখী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই ৮ জনের মৃত্যু হয়। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স আগ্রাবাদ স্টেশনের উপ-সহকারী পরিচালক জসীম উদ্দিন বলেন, দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে একজন শিশু, দুজন নারী ও পাঁচজন পুরুষ। তবে তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনায় নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।এ ছাড়া দুর্ঘটনায় ১১ জন আহত হয়েছেন। তাদের বিভিন্ন চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে আতাউর রহমান (৩০) নামে একজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আতাউরের চোখে আঘাত লেগেছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার। সাতকানিয়া ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. ইদ্রিস জানান, দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। বাসটি রাস্তার পাশে ধানক্ষেতে পড়ে গেছে। মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে এবং আহত যাত্রীদের বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও মাইক্রোবাস সরিয়ে নেয়ার কাজ চলছে।
মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটস্ এর মহান স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
২৭মার্চ,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটস্ এন্ড জার্নলিস্ট ফাউন্ডেশন (এমজেএফ) চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর কমিটির উদ্দেগে সংগঠনের কার্যালয়ে ২৬ ই মার্চ বিকেলে মহানগর চেয়ারম্যান এম.এ নুরুন্নবী চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মহানগর মহাসচিব মোঃ তছলিম কাদের চৌধুরীর সঞ্চালনায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সংগঠনের উপদেষ্টা ও আকবর শাহ্ থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কাজী আলতাফ হোসেন,বিশেষ অতিথি হিসেবে সংগঠনের জেলার সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শেখ জয়নাল আবেদীন,ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আনোয়ার দুলাল,মহানগর সিঃ ভাইস চেয়ারম্যান ইদ্রিস মোঃ নুরুল হুদা,সাংগঠনিক সচিব মঈনুল ইসলাম তুহিন, মহিলা বিষয়ক সচিব শিরিন আক্তার,সিঃ যুগ্ন মহাসচিব জুয়েল বড়য়া,নুরুল ইসলাম,পাহাড়তলী থানা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি অহীদুল আমিন উপস্থিত ছিলেন। প্রধান বক্তা জেলার মহাসচিব ফজলুল ইসলাম ভূইয়াঁ বলেন-মহান স্বাধীনতা দিবসে আমাদের অঙ্গীকার করতে হবে দলমত নির্বিশেষে সকলে দেশ ও দেশের জনগনের কল্যাণে এক যোগে কাজ করিব। প্রধান অথিতি বলেন-আজ আমরা স্বার্থের কারনে অন্ধ হয়ে দিক বেদিক ছুটাছুটি করছি,কিন্তু জাতির জনক বঙ্গঁবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিনা স্বার্থে দেশ স্বাধীনের জন্য সংগ্রাম করে শেষ পর্যন্ত স্বপরীবারে শহীদ হয়েছেন। যতক্ষন না পর্যন্ত আমরা বঙ্গঁবন্ধুর মত উদার মনোভাব নিয়ে কাজ করবো না তথক্ষন পর্যন্ত আমাদের অর্জিত স্বাধীনতায় গাঠতি থাকবে। উক্ত আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন,সংগঠনের ধর্ম বিষয়ক সচিব-আবুল কাশেম,মোঃ হানিফ,মোঃ হারুন,মাহমুদা বেগম শিলা,নারগীছ আক্তার,শারমিন আক্তার,রেশমা আক্তার,মুরাদ,পারভেজ,উমর ফারুক,মোঃ সোহেল,মোঃ আরাফাত,আবুল কাশেম,মোঃ আবু তাহের প্রমূখ।
শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল কাজে মনোযোগী হতে হবে
২৬মার্চ,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, প্রযুক্তি আমাদেরকে অনেক সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন। ক্লাসে বসে সৃজনশীল কাজে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বেশি বেশি মনোনিবেশ করতে হবে এবং যে কোন বিষয় চমৎকারভাবে উপস্থাপন করতে হবে। এজন্য শিক্ষকদেরকে আন্তরিক হতে হবে এবং তথ্যনির্ভর প্রভাষনের দিকে যেতে হবে। গত ২৪ মার্চ রোববার বিকেল ৪টায় নগরীর জামালখানস্থ ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বিভাগীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা ২০১৯-এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা চট্টগ্রামের আঞ্চলিক উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আজিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী, কলেজ-মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক ড. গাজী গোলাম মওলা ও ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহেদা আক্তার। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। শেষে ক (৬ষ্ঠ-অষ্টম শ্রেণি), খ (নবম-দশম শ্রেণি) ও গ (একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি) গ্রুপে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন বিষয়ে যারা বিভাগীয় পর্যায়ে প্রথম হয়েছে তারা জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিতব্য প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে। এবারের প্রতিযোগিতায় ক গ্রুপে- ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে চট্টগ্রামের ইস্পাহানি আদর্শ হাই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী উদেইশা জায়ান আইয়ুব-প্রথম, দৈনন্দিন বিজ্ঞান বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. রুহুল আমীন-প্রথম, গণিত ও কম্পিউটার বিষয়ে চট্টগ্রাম নগরীর ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাজরিয়ান তাহলিল-প্রথম এবং বাংলাদেশ স্টাডিজ ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ঐশী মজুমদার-প্রথম স্থান অর্জন করেন। খ গ্রুপে- ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে কুমিল্লা আদর্শ সদরের কুমিল্লা জিলা স্কুলের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. ফাইজুল কবির রাব্বি-প্রথম, দৈনন্দিন বিজ্ঞান বিষয়ে কুমিল্লা সদর দক্ষিণে ইবনে তাইমিয়া স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান রাতুল-প্রথম, গণিত ও কম্পিউটার বিষয়ে চাদপুর সদরের হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. শামছুল আরেফিন শান্ত-প্রথম এবং বাংলাদেশ স্টাডিজ ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে ফেনীর দাগনভঁইয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী জুলি আক্তার রিমি-প্রথম স্থান অর্জন করেন। গ গ্রপে- ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী রিফা তাসপিয়া -প্রথম, দৈনন্দিন বিজ্ঞান বিষয়ে চট্টগ্রাম নগরীর সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের একাদশ শ্রেণির অগাস্টো দীফ নিলয়-প্রথম, গণিত ও কম্পিউটার বিষয়ে কক্সবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী তাওহীদুল ইসলাম প্রথম এবং বাংলাদেশ স্টাডিজ ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে চট্টগ্রাম সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী জিনান-প্রথম স্থান অর্জন করেন।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতালে অপটোমেট্রি দিবসের র;্যালি
২৬মার্চ,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বিশ্ব অপটোমেট্রি দিবস-২০১৯ উদ্যাপন করেছে ইনস্টিটিউট অব কমিউনিটি অফথালমোলোজি (আইসিও) চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ক্যাম্পাস। এ উপলক্ষ্যে গত ২৪ মার্চ রোববার সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত র;্যালীর উদ্বোধন করেন আইসিও এর পরিচালক ডা. খুরশীদ আলম। এ সময় তিনি বলেন, একজন চিকিৎসকের সঙ্গে একাধিক অপটোমেট্রি থাকার কথা থাকলেও দেশে এর সংখ্যা একেবারে সীমিত। এদেশে যে পরিমাণ চক্ষু চিকিৎসক রয়েছে সেই তুলনায় অপটোমেট্রি নেই বললেই চলে। চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র্র ট্রাস্টের ম্যানেজিং ট্রাস্টি অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেনের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এই হাসপাতালে অনেক আগ থেকে অপটোমেট্রি গ্রেজুয়েশন ও পিএইচডি কোর্স চালু হয়েছে। তিনি এখান থেকে উন্নত শিক্ষার মাধ্যমে অপটোমেট্রিরা যাতে সারাদেশে এমনকী বহিবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, একাডেমিক কোডিনেটর অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান ওসমানী, আইসিওর শিক্ষক অপটোমেট্টি প্রভাষক ও কোর্স কডিনেটর জুয়েল দাশগুপ্ত, প্রসাশনিক ও হিসাব কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন, জুনিয়র অফিসারমো. সাইফুর রহমানসহ শিক্ষার্থীবৃন্দ। র;্যালী শেষে হাসপাতালের ক্লাস রুমে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশে চক্ষু চিকিৎসা সেবায় অপটোমেট্রিস্টদের ভূমিকা নিয়ে বিশদ আলোচনা হয়। সেমিনারে অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান ওসমানী, শিক্ষার্থীদের পেশাগত উৎকর্ষতা অর্জনের জন্য বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন। এছাড়া একই সাথে তাদের এই কার্যক্রম অন্ধত্ব নিবারণে ব্যাপক অবদান রাখবে বলে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে
২৬মার্চ,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আহ্বানে বাঙালি জাতি স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তারা নিজেদের জীবনবাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। তাদের আত্মত্যাগ আর আমাদের মা-বোনদের ইজ্জতের বিনিময়ে এ দেশের স্বাধীনতা অর্জিত হয়। এ স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে নানা পেশার মানুষ এখন কাজ করে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মনে প্রাণে লালন করে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আমরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও মুক্তিযোদ্ধাদের কাঙিক্ষত উদ্দেশ্য পূরণের লক্ষ্যে, দেশ ও জাতির সার্বিক মুক্তির জন্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। গতকাল ২৫ মার্চ সোমবার চট্টগ্রাম একাডেমির স্বাধীনতা উৎসব ও লেখক-পাঠক সম্মিলনে মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধার হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ তুলে দেন। একাডেমির পরিচালক প্রফেসর রীতা দত্তের সভাপতিত্বে সম্মাননা অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট শফিউল বশরকে সংবর্ধিত করা হয়। আলোচক ছিলেন কবি ও সাংবাদিক ওমর কায়সার, লেখক সেলিম সোলায়মান, প্রাবন্ধিক ও গবেষক সাখাওয়াত হোসেন মজনু, উৎসব আহ্বায়ক ড. আনোয়ারা আলম, মহাসচিব নেছার আহমদ। সূচনা বক্তব্য দেন একাডেমির মহাপরিচালক অরুণ শীল। অনুভূতি ব্যক্ত করেন অ্যাডভোকেট শফিউল বশরের পক্ষে আবু সাইদ সরদার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাচিকশিল্পী আয়েশা হক শিমু ও কবি মর্জিনা আখতার। অনুষ্ঠানে নবীন-প্রবীণ কবি স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন। এ ছাড়া বায়েজিদ মডেল স্কুল, সৃজন ছন্দ সাংস্কৃতিক সংগঠন ও উঠোন সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের দলীয় পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। আজকের অনুষ্ঠান : আজ ২৬ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় শিশু সমাবেশ। এতে চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও সংগীত প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হবে। চট্টগ্রাম লেখিকা সংঘের সম্পাদক জিনাত আজমের সভাপতিত্বে এতে অতিথি থাকবেন লেখক ও সংগঠক প্রকৌশলী পুলক কান্তি বড়ুয়া। আলোচক থাকবেন সংগঠক হাজী মোহাম্মদ সাহাবউদ্দিন, উৎসব সমন্বয়কারী এস এম আবদুল আজিজ, পরিচালক দীপালী ভট্টাচার্য, পরিচালক মেহের আফরোজ হাসিনা, কবি রহমান হাবীব, অধ্যাপক সুপ্রতিম বড়ুয়া ও পরিচালক শারুদ নিজাম। বিকেল ৪টায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর