পেশাগত দক্ষতা অর্জনে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিট
০৫জানুয়ারী,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: পেশাগত দক্ষতা অর্জনে প্রায়োগিত ও ব্যবহারিক জ্ঞানের সমন্বিত প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। চট্টগ্রামে এ শূন্যতা পূরণে ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মরতদের জন্য নিয়মিত বিশেষায়িত প্রোগ্রাম আয়োজন করছে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর প্রফেশনাল ডেভলপমেন্ট এন্ড চেইঞ্জ (সিপিডিসি)। এরই অংশ হিসেব দক্ষ মানবসম্পদ কর্মকর্তা গড়ে তোলার লক্ষ্যে এই সেন্টারের অধীনে পরিচালিত হচ্ছে অ্যাডভান্সড সার্টিফিকেট ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট (এসিএইচআরএম) কোর্স। ইডিইউর সিপিডিসি ও মানবসম্পদ পেশাজীবীদের সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি ফর হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্টের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে এ কোর্সটি। গতকাল ৪ জানুয়ারি কোর্সের অংশগ্রহণকারীরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিটে যায় ফৌজদারহাটস্থ বিএসআরএম এর কারখানা ও কার্যালয়ে। ইডিইউ সেন্টার ফর প্রফেশনাল ডেভলপমেন্ট এন্ড চেইঞ্জ বিভিন্ন ক্ষেত্রের পেশাদারদের দক্ষতা উন্নয়নের জন্য নানান ধরনের শর্ট কোর্স, প্রশিক্ষণ, কর্মশালার আয়োজন করে থাকে। ইডিইউর প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, কর্পোরেট বিশ্বে মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা একটি গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর। এই সেক্টরে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে ব্যবহারিক দক্ষতা তথা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অ্যাডভান্সড সার্টিফিকেট ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট কোর্সটির লক্ষ্য হলো মানবসম্পদ পেশাজীবীদের দক্ষতা উন্নয়ন, কোর্সটির কারিকুলাম এই লক্ষ্যকে মাথায় রেখেই করা হয়েছে। ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির সহকারী রেজিস্ট্রার হাসানুল বান্নার নেতৃত্বে এই ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিটটি পরিচালিত হয়। তিনি বলেন, প্রফেশনাল কোর্সের গুরুত্বপূর্ণ একটি লক্ষ্য হলো হাতে-কলমে শিক্ষা। ব্যবহারিক শিক্ষার অংশ হিসেবে বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ারের জন্য সহায়ক ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিটের ব্যবস্থা করে আসছে ইডিইউ। একটি প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ কর্মকৌশল ও কার্যক্রম সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বা জ্ঞানকে পরিপূর্ণতা দিতে কোর্স কারিকুলামের অংশ হিসেবে আয়োজন করা হয় এই ভিজিটের। বিএসআরএম এর শ্রমশক্তি, কর্মচারীদের সুবিধাদি, ট্রেড ইউনিয়ন, মানবসম্পদ এবং ব্যবসায়িক কৌশল সম্পর্কে অংশগ্রহণকারীদের সাথে মতবিনিময় করেন প্রতিষ্ঠানটির ট্যালেন্ট একুইজিশনের প্রধান মো. মামুনুর রহমান, প্ল্যান্টের সাপোর্ট ফাংশনের প্রধান মো. মাহবুবুল আলম চৌধুরী, মানবসম্পদ বিভাগের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মো. মোর্শেল আনোয়ার। কোম্পানির সামগ্রিক ব্যবসা, এইচআর এবং সিএসআর কার্যক্রমসহ কর্মচারী প্রশিক্ষণ, কর্মচারীদের প্রদেয় সুবিধাদি, অনুপ্রেরণামূলক কর্মকাণ্ড এবং কর্মী টার্নআউট ইত্যাদি বিষয়ের উপর আলোকপাত করা হয়। পরে উৎপাদন ইউনিটসহ বিএসআরএম এর বিভিন্ন বিভাগ ঘুরিয়ে দেখানো হয় অংশগ্রহণকারীদের।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম এলিট ক্লাবের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু
০৪জানুয়ারী,শনিবার,মো:ইরফান চৌধুরী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নববর্ষের প্রথম দিনে সূচিত হলো চট্টগ্রাম এলিট ক্লাব লিমিটেড (সিইসিএল) এর আনুষ্ঠানিক পথচলা। এ উপলক্ষে ১ জানুয়ারি চট্টগ্রাম নগরীর রেডিসন ব্লু চট্টগ্রাম বে ভিউ এর মেজবান হলে আয়োজিত হয় বর্ণিল উৎসব। বর্ণিল ফ্যাশন শো, কথামালা, আকর্ষণীয় ড্র ও খ্যাতনামা শিল্পীদের সঙ্গীতের মূর্চ্ছনায় সাজানো হয় অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের কথামালা পর্বে চট্টগ্রাম এলিট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট আমানুল্লাহ আল সগির ছুট্টু ক্লাবের ভবিষ্যৎ পথযাত্রায় সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। ক্লাবের উদ্দেশ্য-আদর্শ এবং কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরে বক্তৃতা করেন জেনারেল সেক্রেটারি নওশাদ চৌধুরী মিটু। ক্লাব প্রতিষ্ঠার পটভূমি উত্থাপন করেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাছুম আহমেদ এবং ধন্যবাদসূচক বক্তব্য রাখেন নির্বাহী সদস্য সাহেলা আবেদীন। এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চিটাগং ক্লাবের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সিনিয়রস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ডা. সেলিম আকতার এবং চিটাগং ক্লাবের সাবেক চেয়ারম্যান এ কিউ আই চৌধুরী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শুভেচ্ছা জানান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সংসদ সদস্য আব্দুল লতিফ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. সেকান্দর চৌধুরী, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তরফদার মো. রুহুল আমিন, স্থপতি আশিক ইমরান, চসিক এর প্রধান নির্বাহী মো. সামসুদ্দোহা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাসান মাহমুদ চৌধুরী, সিএমপি (উত্তর) এর উপ কমিশনার বিজয় বসাক, চমেক ভাইস প্রিন্সিপাল ডা. নাসির মাহমুদ প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার স্মারক প্রদান করা হয় সাইফ পাওয়ার গ্রূপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার মো. রুহুল আমিন এবং ফোর এইচ গ্রূপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাওহার সিরাজ জামিলকে।
হাটহাজারীতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী সহযোগীসহ আটক
০২জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানাধীন সন্দ্বীপ কলোনি এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায়ী মোঃ সুমন (৩৬) ও তার তিন সহযোগীসহ ৪ জন অস্ত্রধারী চিহ্নিত সন্ত্রাসীকে ১টি বিদেশী পিস্তল, ৫টি ওয়ানশুটার গান, ১৪ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে RAB-7। বৃহস্পতিবার ২রা জানুয়ারি দুপুর ১২:৩০ মিনিটের সময় হাটহাজারী থানাধীন সন্দ্বীপ কলোনি এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ এক সন্ত্রাসীকে তার ৩ সহযোগীসহ আটক করা হয় বলে জানিয়েছে RAB-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন। আটককৃতরা হল মোঃ সুমন (৩৬) হাটহাজারী থানার ফতেহাবাদ গ্রামের সন্দ্বীপ কলোনি(আমতলী) এলাকার মৃত মজিবুল হকের ছেলে, মোঃ আসাদুল্লা (২৬) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ নোওয়া মিয়ার ছেলে, মোঃ ফারুক ওরফে জাহেদ (২০) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ রফিকের ছেলে এবং মোঃ আরিফ (২০) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ আব্দুল মান্নার ছেলে।মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অপরাধের দায়ে ৩৫ টির অধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়। RAB-7 এর সহকারী পরিচালক(অপারেশন) এএসপি মাশকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা জানতে পা্রি যে, হাটহাজারী থানার ত্রাশ, ভূমি দস্যু, চাঁদাবাজ, দখলবাজ, দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায়ী মোঃ সুমন (৩৬) তার দলবলসহ এলাকায় সন্ত্রাসী কাজের জন্য তার নিজ বসত বাড়ির সামনে একত্রিত হয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে RAB-7 এর একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে মোঃ সুমন (৩৬) কে তার তিন সহযোগীসহ আটক করে। পরে সুমন এর দেয়া তথ্যমতে তার বসত ঘর তল্লাশী করে ১ টি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, ৫ টি ওয়ানশুটার গান, ১৪ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম জেলার হাটজাহারীসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকার মানুষকে অবৈধ অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে যোগসাজশে অস্ত্র ব্যবসা করে আসছে। তাছাড়াও মোঃ সুমন তার বসত ঘরে বিভিন্ন অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে নানা প্রকারের দেশীয় অস্ত্র তৈরি করে। আটককৃত আসামীদের আইনগত প্রক্রিয়া শেষে হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হবে।
হাটহাজারীতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী সহযোগীসহ আটক
০২জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানাধীন সন্দ্বীপ কলোনি এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায়ী মোঃ সুমন (৩৬) ও তার তিন সহযোগীসহ ৪ জন অস্ত্রধারী চিহ্নিত সন্ত্রাসীকে ১টি বিদেশী পিস্তল, ৫টি ওয়ানশুটার গান, ১৪ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে RAB-7। বৃহস্পতিবার ২রা জানুয়ারি দুপুর ১২:৩০ মিনিটের সময় হাটহাজারী থানাধীন সন্দ্বীপ কলোনি এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ এক সন্ত্রাসীকে তার ৩ সহযোগীসহ আটক করা হয় বলে জানিয়েছে RAB-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন। আটককৃতরা হল মোঃ সুমন (৩৬) হাটহাজারী থানার ফতেহাবাদ গ্রামের সন্দ্বীপ কলোনি(আমতলী) এলাকার মৃত মজিবুল হকের ছেলে, মোঃ আসাদুল্লা (২৬) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ নোওয়া মিয়ার ছেলে, মোঃ ফারুক ওরফে জাহেদ (২০) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ রফিকের ছেলে এবং মোঃ আরিফ (২০) পশ্চিম মিজাপুর গ্রামের মোঃ আব্দুল মান্নার ছেলে।মোঃ সুমনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অপরাধের দায়ে ৩৫ টির অধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়। RAB-7 এর সহকারী পরিচালক(অপারেশন) এএসপি মাশকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা জানতে পা্রি যে, হাটহাজারী থানার ত্রাশ, ভূমি দস্যু, চাঁদাবাজ, দখলবাজ, দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায়ী মোঃ সুমন (৩৬) তার দলবলসহ এলাকায় সন্ত্রাসী কাজের জন্য তার নিজ বসত বাড়ির সামনে একত্রিত হয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে RAB-7 এর একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে মোঃ সুমন (৩৬) কে তার তিন সহযোগীসহ আটক করে। পরে সুমন এর দেয়া তথ্যমতে তার বসত ঘর তল্লাশী করে ১ টি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, ৫ টি ওয়ানশুটার গান, ১৪ রাউন্ড গুলি এবং বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রাম জেলার হাটজাহারীসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকার মানুষকে অবৈধ অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে যোগসাজশে অস্ত্র ব্যবসা করে আসছে। তাছাড়াও মোঃ সুমন তার বসত ঘরে বিভিন্ন অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে নানা প্রকারের দেশীয় অস্ত্র তৈরি করে। আটককৃত আসামীদের আইনগত প্রক্রিয়া শেষে হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হবে।
মুজিববর্ষ: জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত পতেঙ্গার সাগরপাড়
০২জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,ষ্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাগর পাড়ে আছড়ে পড়া ঢেউয়ের মতো উত্তাল হয়ে উঠেছিল কয়েক হাজার নারীর কণ্ঠ। জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠেছিল পতেঙ্গার সাগর পাড়ের বিস্তৃত এলাকা। নীলাম্বরীতে সুসজ্জিত কয়েক হাজার নারী জানান দিচ্ছিল দিনকাল পাল্টে গেছে। নারীরা আর ঘরে আটকে থাকতে নয়, সমাজ বদলে দেয়ার মিশন শুরু করেছে। বন্দর পতেঙ্গা আসনের সাংসদ এম এ লতিফের হাতে গড়া ৩৬ হাজার নারীর সংগঠন স্বাধীনতা নারী শক্তির সদস্যরা গতকাল এভাবে জানান দিচ্ছিল এক নীরব বিপ্লবের কথা। বন্দর পতেঙ্গা এলাকার নারীরা নিজেদের এমন এক উচ্চতায় নিয়ে গেছে যে, তারাও পুরুষের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নিজের সংসারের ও সমাজের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করছে। আর নারীদের নিজের পায়ে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখার পথ দেখিয়েছেন এমএ লতিফ এমপি। গতকাল মুজিববর্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে তারা নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে। তারা এমএ লতিফকে ৩৬ হাজার নারীর অভিভাবক হিসেবেও ঘোষণা দিয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মুজিববর্ষ ২০২০ সালকে স্বাগত জানাতে চট্টগ্রাম-১১ আসনের সাংসদ এমএ লতিফের উদ্যোগে বছরব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে স্বাধীনতা নারী শক্তি গতকাল সকালে পতেঙ্গার নেভাল স্পটে নারী সমাবেশ ও আনন্দ Raillyর আয়োজন করে। সমাবেশে হাজার দশেক নারী জড়ো হয়। সমাজের উচ্চবিত্ত থেকে শুরু করে নিম্নবিত্তের গার্মেন্টস শ্রমিক পর্যন্ত একই কাতারে বসে জানান দেয় নিজেদের উপস্থিতি। পুরো রাস্তা জুড়ে এক হাজার ফুট দীর্ঘ সামিয়ানা টানানো হয়। সবার পরনে ছিল নীল শাড়ি। হাতে বঙ্গবন্ধুর প্ল্যাকার্ড। লাল জমিনে বঙ্গবন্ধুর সাদা কালো ছবি। হাজার হাজার নারী কখনো হাত তালি দিয়ে আবার কখনো জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত করে তোলে পুরো এলাকা। অত্যন্ত সুশৃঙ্খল ভাবে এই নারীরা সমাবেশ ও Railly করেছে। সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে নারীশক্তির প্রতিষ্ঠাতা এমএ লতিফ বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নের মাধ্যমে দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে কাজ করছেন। নারীদের জনশক্তিতে রূপান্তরে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে স্বাধীনতা নারীশক্তি সংগঠনটি গড়ে তুলেছি। এখন সদস্য সংখ্যা ৩৬ হাজার। তাদের গাড়ি চালানো, কম্পিউটার কোর্স, বিদেশি ভাষা শিক্ষা, উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। আমি মনে করি, তারা স্বাবলম্বী হলে বাংলাদেশ স্বনির্ভর হবে। তিনি বলেন, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে বছরব্যাপী কল্যাণমূলক কাজ করবে স্বাধীনতা নারীশক্তি। পতেঙ্গা থেকে রেল স্টেশন পর্যন্ত আমার সংসদীয় এলাকা। এত বড় এলাকার প্রতিটি ঘরের সমস্যা নারীশক্তির সদস্যদের মাধ্যমে জানতে পারি। ন্যায্যমূল্যে খাদ্যপণ্য বিক্রি থেকে শুরু করে তারা প্রচুর পরিশ্রম করেন। আমি গরীবদের ভালোবাসি। তাদের সন্তানদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছি, তারা কর্মক্ষেত্রে সফল হবে। যারা পড়ালেখায় ভালো নয়, তাদের কারিগরি শিক্ষা দেবো, খেলোয়াড় হিসেবে গড়ে তুলবে। এম. এ. লতিফ এমপি বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহবান ও নির্দেশনায় দেশের নারী সমাজকে আত্মনির্ভর ও মর্যাদাশীল, সর্বোপরি নারী সমাজের জীবনমান উন্নয়নে আমরা নারী, আমরা সব পারি এবং আমরা নারী, আমরা বল, নারী শক্তি এগিয়ে চল স্লোগানকে ধারণ করে নারীদের কল্যাণে ২০১৭ সালে স্বাধীনতা নারী শক্তি প্রতিষ্ঠা করি। তিনি সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে বলেন-অধিকার কেউ কাউকে দেয় না, অধিকার আদায় করে নিতে হয়। তিনি বলেন-বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন-আপনারা মায়ের জাতি, আপনাদেরকে মর্যাদা দিতে আমি এ সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেছি এবং জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত আমি আপনাদের সহযোগিতা করে যাব, ইনশাল্লাহ। চট্টগ্রাম চেম্বারের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ওমর হাজ্জাজ বলেন, স্বাধীনতা নারী শক্তি শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করবে। সরকারের সব উন্নয়নের খবর ঘরে ঘরে পৌঁছে দেবে। স্বাধীনতা নারীশক্তির পরিচালক বিবি মরিয়ম বলেন, বন্দর-পতেঙ্গা আসনের ৩৬ হাজার নারীর অভিভাবক এমএ লতিফ। তার সব চিন্তা, কার্যক্রম মানুষের কল্যাণের জন্য। নারীশক্তির সহকারী পরিচালক গোলতাজ বেগম শান্তা বলেন, এলাকার কোনো অসুস্থ ব্যক্তি, অসহায় মানুষ এমএ লতিফের ঘর থেকে খালি হাতে পারেনি। পতেঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলমের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নুরুল আলম, ৩৯ নম্বর ওয়াডের্র কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন, সাবেক কাউন্সিলর মো. আসলাম, ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুল বারেক, ৩৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হোসেন মুরাদ, ৪১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল আলম প্রমুখ।
কমিউনিটি পুলিশিং চট্টগ্রাম মহানগর এর উদ্যোগে শীতার্ত মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ
০১জানুয়ারী,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: অদ্য ৩.৩০ ঘটিকায় চট্টগ্রাম নগরীর সিআরবি শিরীষতলায় কমিউনিটি পুলিশিং চট্টগ্রাম মহানগর এর উদ্যোগে শীতার্ত মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুবর রহমান বিপিএম, পিপিএম মহোদয়। এসময় সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম, বিপিএম-সেবা, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান বিপিএম, পিপিএম (বার), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ, মোঃ আব্দুল মালেক, আহ্বায়ক, মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি, চট্টগ্রাম ও সম্পাদক, দৈনিক আজাদী অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, সদস্য সচিব, মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি, চট্টগ্রাম এবং পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এর উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ
০১জানুয়ারী,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এর উদ্যোগে সীতাকুণ্ড থানার ১০টি ইউনিয়নের সকল গ্রাম পুলিশ ও অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। আজ ০১ জানুয়ারি ২০২০ বিকাল ৩ টায় সীতাকুণ্ড মডেল থানা প্রাঙ্গনে এ শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) সভানেত্রী বুসেরা সামি আক্তার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত ডিআইজি) নুরেআলম মিনা, বিপিএম(বার), পিপিএম। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম জেলা পুনাকের নেতৃবৃন্দ, চট্টগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার (প্রশাসন) এ কে এম এমরান ভূঞা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ), আফরুজুল হক টুটুল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সীতাকুণ্ড সার্কেল), শম্পা রানী সাহা পিপিএমসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
মহেশখালীতে বিপুল পরিমান অস্ত্রসহ দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে RAB
০১জানুয়ারী,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজার জেলার মহেশখালী থানাধীন মাতারবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান অস্ত্রসহ ২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে RAB-7।গতকাল মঙ্গলবার ৩১শে ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৯ টার সময় কক্সবাজার জেলার মহেশখালী থানাধীন মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পূর্ব প্রান্তরে লবণ ক্ষেতের মধ্যে টং ঘরের ভিতর অভিজান চালিয়ে দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে বলে জানান RAB-7 এর মিডিয়া অফিসার এএসপি মো: মাহমুদুল হাসান মামুন। এসময় বিপুল পরিমান অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। গেপ্তারকৃত কাইছার ইসলাম (২৯)মাতারবাড়ী এলাকার শামশুল আলমের ছেলে এবং মঈন উদ্দিন ওরফে বদাইয়া (৩১) একই এলাকার মোস্তাক আহম্মেদের ছেলে। RAB-7 এর অপারেশন অফিসার এএসপি মো: মাহমুদুল হাসান মামুন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা জানতে পারি যে, কক্সবাজার জেলার মহেশখালী থানাধীন মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পূর্ব দিকে লবণ ক্ষেতের মধ্যে টং ঘরের ভিতর কতিপয় সন্ত্রাসী নাশকাতার উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে RAB-7 এর একটি দল অভিযান চালায়। পরে RAB এর উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর চেষ্টাকালে দুই সন্ত্রাসীকে আটক করে। এসময় টং ঘরের ভিতর সুকৌশলে লুকানো ০৫ টি এসবিবিএল, ০৩ টি ওয়ানশুটারগান, ০২ টি থ্রি কোয়ার্টার গান এবং ১৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান,গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপের সাথে জড়িত রয়েছে। উল্লেখ্য যে, আসামী কাইছার ইসলাম এর বিরুদ্ধে কক্সবাজার জেলার মহেশখালী থানায় ১১টি এবং মঈন উদ্দিন ওরফে বদাইয়ার বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় ১০টি মামলা রয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মহেশখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান।
ওয়ার্লেস ঝাউতলা কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণ
০১জানুয়ারী,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডস্থ ঐহিত্যবাহী ওয়ার্লেস ঝাউতলা কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ে অদ্য ১ জানুয়ারি ২০২০ইং সকাল ১০টায় বিনামূল্যে বই বিতরণ উৎসব বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ করেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হীরন। এসময় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি বলেন আগামী সোনার বাংলা গঠন করতে বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে অভিভাবক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদেরকে পড়ালেখায় মনোযোগী হতে হবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মহসীনের সভাপতিত্বে ও সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ আমিনুল হকের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, মহানগর আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য মাসুদ রেজা, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অর্থ উপ-কমিটির আহ্বায়ক মোঃ নুরুল মোস্তফা, পরিচালনা পরিষদের সদস্য আব্দুল হক, এয়াকুব আলী, সহকারী প্রধান শিক্ষক বাবু প্রদীপ কানুনগো, কেজি শাখার রেক্টর শিরিন বারী, শিক্ষক প্রতীক ধর, রীনা চক্রবর্তী, সুফিয়া খাতুন, আশরাফ উদ্দিন, রোকেয়া বেগম, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ শরিফুল ইসলাম, সাহেদা মমতাজ, নিশাত জাহান নীলা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শুরুতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে জাতীয় সংগীত গেয়ে বই বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হীরন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর