সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০২০
করোনা মোকাবিলায় রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের ১২০০ স্বেচ্ছাসেবক
২৫মার্চ,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ও সচেতনতায় মাঠে কাজ করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের ১২০০ স্বেচ্ছাসেবক। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ও সিটি ইউনিটের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে যুব স্বেচ্ছাসেবকদের অংশগ্রহণে গতকাল (২৪ মার্চ) মঙ্গলবার থেকে স্বেচ্ছাসেবকরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তাদের কার্যক্রম শুরু করেন। যেখানে মানুষের গণজমায়েত হয়- যেমন বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল, বিআরটিসি বাস টার্মিনাল, নৌ-ঘাট, রেলওয়ে স্টেশন, এ কে খান, জিইসি, নিউ মার্কেট, আগ্রাবাদ, কাস্টমস, হালিশহর, চকবাজার, নতুন ব্রিজ এলাকায় জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ, মাইকিং, জীবাণুনাশক স্প্রে ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়। এছাড়াও উপজেলা পর্যায়ে সাতকানিয়া, পটিয়া, বাঁশখালী ও সীতাকুণ্ড উপজেলার মানুষকে সচেতনতার জন্য লিফলেট বিতরণ করা হয়। বাস টার্মিনালের বিভিন্ন গাড়ির টিকেট কাউন্টারের লোকদের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ও বাসের হাতলে জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো হয়। আগামীতে উপজেলা পর্যায়ে ইউনিয়নভিত্তিক লিফলেট ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ও জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। আজকের কার্যক্রমের সার্বিক পর্যবেক্ষণে ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. শেখ শফিউল আজম, চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান এমএ ছালাম, চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য এইচ এম সালাউদ্দিন, মহসিন উদ্দিন চৌধুরী ফয়সাল, জেলার ইউনিট লেভেল অফিসার আব্দুর রশিদ খান, সিটির ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার, সিনিয়র যুব সদস্য এইচ এম. মহিউদ্দিন, যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মো. ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল, দপ্তর বিভাগীয় প্রধান আবু নাঈম তামজীদ, ক্রীড়া ও প্রচার-প্রকাশনা বিভাগীয় প্রধান কৃষ্ণ দাশ ও কার্যকরী পর্ষদ সদস্যসহ যুব স্বেচ্ছাসেবকরা। আজ থেকে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রাম কার্যালয়কে কন্ট্রোলরুম হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমের হটলাইন নং- ০১৬৭৫-৬২৮৮৪২
নগরীতে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে Rab-7
২৪মার্চ,মঙ্গলবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানাধীন নিমতলী বিশ্ব রোড এলাকার অভিযান চালিয়ে ৬,৭৪০ পিস ইয়াবা সহ (১) মো: বাসেদ মিয়া (২৯) এবং (২) মো: সাফায়েত (২৭) নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে Rab-7।এসময় মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়। আজ মঙ্গলবার ২৪শে মার্চ ভোর ৪:২০ মিনিটের সময় চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানাধীন বন্দর নতুন মার্কেটের সামনে নিমতলা হতে অলংকারগামী রাস্তার উপর অভিযান চালিয়ে ২ মাদক ব্যবসায়ীকে বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এ এস পি মাহমুদুল হাসান মামুন। আটককৃত আসামীরা হলেন মোঃ বাছের (২৭) বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন দাইমুল্ল্যা গ্রামের মোঃ দিলবরের ছেলে এবং মোঃ শাফায়েত (২৮)বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন দাইমুল্ল্যা গ্রামের মৃত শাহজাহান এর ছেলে । Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (অপারেশন) এ এস পি মাশকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা জানতে পারি যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী একটি ট্রাক যোগে পন্য পরিবহণের আড়ালে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়ে নিমতলা বিশ্বরোড হতে অলংকার বাস স্ট্যান্ডের দিকে যাচ্ছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে Rab-7 এর একটি টহল দল চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানাধীন বন্দর নতুন মার্কেটের সামনে নিমতলা হতে অলংকারগামী রাস্তার উপর একটি চেকপোস্ট বসিয়ে করে গাড়ি তল্লাশী শুরু করে। এসময় নিমতলা বিশ্বরোড হতে অলংকারগামী একটি ট্রাকের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে র্যাকব সদস্যরা ট্রাকটিকে থামানোর সংকেত দিলে ট্রাকে থাকা মাদক ব্যবসায়ীরা র্যালবের উপস্থিতি টের পেয়ে গাড়িটিকে রাস্তার পাশে থামিয়ে গাড়ি থেকে নেমে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে র্যাসব সদস্যরা ধাওয়া করে তাদের আটক করে। পরে আটককৃত আসামীদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের দেখানো ও সনাক্ত মতে ট্রাকটি (বগুড়া মেট্টো-ট-১১-২৪১৭) তল্লাশী করে ট্রাকের ড্রাইভিং সিটের নিচে সুকৌশালে লুকানো অবস্থায় ৬,৭৪০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয় এবং মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত ট্রাকটি জব্দ করা হয়। তিনি আরও জানান,গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, তারা পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন এলাকা হতে ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে অভিনব কৌশলে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাচার করে আসছে। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মূল্য ৩৩ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা এবং জব্দকৃত ট্রাকের আনুমানিক মূল্য ৪০ লক্ষ টাকা। গ্রেফতারকৃত আসামীদের চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
করোনায় আতঙ্ক নয় সচেতনতা জরুরি
২৩মার্চ,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: আতঙ্ক নয়, সচেতনতার মাধ্যমে করোনা ভাইরাসকে মোকাবেলা করতে হবে। জনগণের মাঝে যে আতঙ্ক ও ভীতি তৈরি হয়েছে তা প্রচার, সচেতনতার মাধ্যমে মোকাবেলা করতে হবে। এই জন্য সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন সচেতনতার কাজ করে যাচ্ছে। লায়ন্স জেলা ৩১৫-বি৪, আকবরশাহ্ থানা, কনজুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর উদ্যোগে সচেতনতামূলক বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আকবর শাহ্ থানার ওসি মো. মোস্তাফিজুর রহমান, লায়ন জি. কে. লালা, লায়ন আশরাফুল আলম আরজু, লায়ন ডা. মেসবাহ উদ্দিন তুহিন, লিও নুর হোসাইন, লিও মহিউদ্দিন সিরাজ, লিও ইসমাইল বিন আজিজ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে লিফলেট বিতরণ, মাস্ক বিতরণ করা হয় এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার বিষয়ে সচেতন করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
অতিরিক্ত লাভে চাল বিক্রির দায়ে জরিমানা
২২মার্চ,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: এক বস্তা চাল ৫০০ টাকা লাভে বিক্রি করার দায়ে চট্গ্রাম নগরের ২ নম্বর গেইট কাঁচা বাজারের এক দোকানিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার বিকেলে ২ নম্বর গেট কর্ণফুলী কাঁচা বাজারে এই অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় খাজা স্টোরে বস্তা প্রতি ২ হাজার ১০০ টাকায় কেনা মিনিকেট চাল ২ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি এবং বস্তাপ্রতি ২ হাজার ৭০০ টাকায় কেনা কাটারিভোগ চাল ৩ হাজার ১০০ টাকায় বিক্রির প্রমাণ পান ভ্রাম্যমাণ আদালত। আদালত দোকানদারের ক্রয় রশিদ এবং বিক্রয় রশিদ দেখে ওই দোকানিকে জরিমানা করেন। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক জানান, অতিরিক্ত লাভে চাল বিক্রির দায়ে এক স্টোর মালিককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া বেশি দামে পেঁয়াজ-রসুন বিক্রি এবং মূল্যতালিকা না থাকায় এক স্টোর মালিককে ১০ হাজার, অন্য স্টোরের মালিককে ৫ হাজার এবং আরেক স্টোরের মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে স্থানপ্রাপ্ত চারনেতার সংবর্ধনা
২২মার্চ,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দীর্ঘ ২২ বছর পর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ কর্তৃক অনুমোদিত চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে দোহাজারীতে আনন্দ Railly ও মোটর শোভাযাত্রা সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়। এসময় তৃণমূলের ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এস.এম বোরহান ও সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের কে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান। আনন্দ Railly ও মোটর শোভাযাত্রা চন্দনাইশ-সাতকানিয়াস্থ দোহাজারী পৌরসভা, দেওয়ানহাট, সাতবাড়িয়া ও খাগরিয়ার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে চর খাগরিয়া আমিন সেন্টারে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থানপ্রাপ্ত চার নেতাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধিত নেতৃবৃন্দরা যথাক্রমে- নব নির্বাচিত সহ-সভাপতি এম. মঞ্জুর আলম, উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক শাহ মোয়াজ্জেম রুবেল, উপ-আপায়ন বিষয়ক সম্পাদক এম. জে আবেদিন জয়, সহ-সম্পাদক রায়হানুল ইসলাম। সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা এস.এম শাহাদাত এর সভাপতিত্বে ও শরিফুল ইসলাম মিনহাজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন খাগরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ আজগর চৌধুরী সুজা, দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সদস্য হাসান মাহমুদ, চন্দনাইশ উপজেলা যুবলীগ নেতা ও মরহুম আবুল কাশেম লেদু ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবদুল হাকিম, ইউপি সদস্য ইব্রাহীম টিম্বার, কেন্দ্রীয় প্রজন্ম লীগ নেতা মুন্সি আব্দুর রব সৌরভ, যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, কৃষকলীগ নেতা নুর হোসাইন, যুবলীগ নেতা জিকু, ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসাইন রিয়াদ, মোরশেদুল আলম, ইয়াছিন আরাফাত, জাহাঙ্গীর আলম, নাজিম উদ্দিন, রিমন, নুর হোসাইন, জাবেদ, এস.এম রাকিব, সৈয়দ আরিফ সুলতান, আসিফ খান জয় প্রমুখ।
নারীরা আজ আত্মমর্যাদার সাথে সকল পেশায় প্রতিষ্ঠা অর্জন করে চলেছে: ড. ইফতেখার
২১মার্চ,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান গত ১৮ মার্চ বিকেল ৪টায় নগরীর সুপ্রভাত স্টুডিও হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি বাবুল কান্তি দাশ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। এতে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক মহিলা কাউন্সিলর হাসিনা জাফর। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ নুুরুল আবছার, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা জাসদের সভাতি মুক্তিযোদ্ধা ভানুরঞ্জন চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদিকা সেলিনা শফি, কবি আশীষ সেন, নাট্যজন সজল চৌধুরী, ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা লায়ন এমএ বাশার, অধ্যাপক শিব প্রসাদ, সমাজসেবী রেহানা চৌধুরী, শিক্ষক অজিত কুমার শীল, হাসান মুরাদ, বিজয় শংকর চৌধুরী, সংগীতশিল্পী লুপর্ণা মুৎসুদ্দী, ছগির আহমদ, আবৃত্তিশিল্পী সোমা মুৎসুদ্দী, মাসুমা কামাল আখি, কবি স্বপন কুমার বড়য়া, স ম জিয়াউর রহমান, কবি সজল দাশ, হানিফ চৌধুরী, অমর দত্ত, সুকুমার চৌধুরী, সাইফুল আরাফাত বাপ্পা, সুমন চৌধুরী, নিলয় দে প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন নারী আজ সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মাথা উঁচু করে নিজ নিজ পেশায় প্রতিষ্ঠা অর্জন করে চলেছে। বছরের ৩৬৫ দিনের মধ্যে আলাদা করে নারীদের জন্যই শুধু একটা দিন।ভাবতে অবাক লাগলেও এটাই ঠিক। বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশে এই দিনটিকে বিশেষ ভাবে পালন করা হয়। সেই তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশও। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন অঞ্চলের নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা, তাঁদের কাজের প্রশংসা এবং ভালোবাসা প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে নারীদের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক সাফল্য অর্জনের উৎসব হিসেবে পালন করা হয়। আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতিসংঘ ১৯৭৫ সালের ৮ মার্চ দিবসটিকে প্রথম আন্তর্জাতিক নারীদিবস হিসেবে ঘোষনা করে। জাতিসংঘ এ বছর নারী দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারন করেছে- আমি প্রজন্মের সমতা, নারী অধিকারের প্রতি সচেতনতা। আর বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারন করা হয়েছে প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার । প্রতিদিনই নারীর প্রতি নির্যাতন, হয়রানিসহ নানান ধরনের নেতিবাচক খবর আসে। যা মোটেও সুখকর নই। মানুষ হিসেবে আমাদের ব্যর্থতা সেখানেই। বিশ্বজুড়ে নারীর অগ্রগতি ও মর্যাদা অর্জনের লক্ষ্যে অনেক পথ পাড়ি দেওয়া এখনো বাকি। রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ব্যবস্থা নির্ব্বিশেষে মানুষ হিসেবে নারীর মর্য্যাদা প্রতিষ্ঠার দাবী তাই সর্বজনীন। নারীর প্রতি সব ধরনের বৈষম্য ও অন্যায় অবিচারের অবসান ঘটিয়ে সম-অংশীদারত্বের বিশ্ব গড়ার প্রত্যয় নিয়ে নারীর এগিয়ে চলা আরও বেগবান হবে এটাই নারী দিবসের প্রত্যাশা। সকল শক্তির উৎস নারীকে নারী হিসেবে নই, মান-হুঁশ হিসেবে দেখি শ্রদ্ধা, সম্মান আর ভালোবাসায়। তখনই হবে এই বিশ্ব সুখের, আনন্দের আর শান্তির। সভা শেষে নারী উন্নয়ন ও নেতৃত্বে বিশেষ অবদান রাখায় রাজনীতিবিদ হাসিনা জাফরকে বঙ্গমাতা নারী সম্মাননা প্রদান করা হয়।
করোনা: জনসচেতনতায় গণমাধ্যমকর্মীদের প্রচারণা
২১মার্চ,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাস নিয়ে জনগণকে সচেতন করতে ব্যতিক্রমী প্রচারণা চালিয়েছেন চট্টগ্রামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকরা। শনিবার (২১মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে আপনি বাসায় থাকেন, খবর আমরা জানাবো প্ল্যাকার্ড নিয়ে প্রচারণায় অংশ নেন তারা। প্রচারণায় যোগ দেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের অর্থ সম্পাদক দেব দুলাল ভৌমিক ও গ্রন্থাগার সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের টিভি ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ ও ডিবিসি নিউজের ব্যুরো প্রধান মাসুদুল হক, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান অনুপম শীল, যমুনা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার আরিফুর রহমান সবুজ, সময় টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার পার্থ প্রতীম বিশ্বাস, ডিবিসি নিউজের স্টাফ রিপোর্টার শহিদুল সুমন, আজিম অনন প্রমুখ। ডিবিসি নিউজের ব্যুরো প্রধান মাসুদুল হক নিউজ একাত্তরকে বলেন, করোনা মোকাবিলায় সকলকে সচেতন হতে হবে। আমরা আমাদের জায়গা থেকে মানুষকে সচেতন করার চেষ্টা করছি। সাধারণ মানুষ যাতে ঘর থেকে বের না হয়, তার জন্য আমরা তাদের অনুরোধ করছি। তাছাড়া জনসমাগমের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মানুষ ঘর থেকে বেরিয়ে অহেতুক জনসমাগম তৈরি করছে, যা পরিবারসহ সবাইকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে।
বাকলিয়াকে পরিকল্পিত মডেল টাউন হিসেবে গড়ে তুলব: রেজাউল
২১মার্চ,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শুক্রবার বিকেলে নগরীর ১৮ নং পূর্ব বাকলিয়া, ১৯ নং দক্ষিন বাকলিয়া ও ১৭ নং পশ্চিম বাকলিয়ায় অনাড়ম্বর প্রচারনা ও গনসংযোগ করেন আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মো. রেজাউল করিম চৌধুরী । এসময় তিনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর বিশাল অংশ বৃহত্তর বাকলিয়া। নির্বাচন এলে ভোটাধিক্যের কারনে এখানে অনেকে অনেক প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি নিয়ে এখানে আসে। আমি কোন প্রতিশ্রুতির কথা বলব না। আমি জানি এখানে অনেক সমস্যা রয়েছে। অপরিকল্পিত রাস্তাঘাট, ঘন বসতি, ড্রেনেজ ব্যবস্থার অপ্রতুলতা, নিম্মাঞ্চল হওয়ায় অনায়াসে জোয়ারের পানি ঢুকে পড়া, জলাবদ্ধতার সমস্যা ও মশার উৎপাতের কারণে এলাকার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। আওয়ামী লীগ মনোনয়ন বোর্ড ও জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার উপর আস্থা রেখে আমাকে মেয়র পদে মনোনয়ন দিয়েছেন। আপনারাও আমার উপর আস্থা রাখতে পারেন। আপনাদের দোয়া ও ভোটে মেয়র নির্বাচিত হলে আমি এই বৃহত্তর বাকলিয়াকে একটি পরিকল্পিত মডেল টাউন হিসেবে গড়ে তুলব। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, স্যানিটেশন, রাস্তাঘাটের উন্নয়নে বিজ্ঞান ভিত্তিক চিন্তাকে কাজে লাগিয়ে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতাল, মেডিকেল সম্পন্ন একটি স্বয়ং সম্পূর্ণ বাকলিয়া গড়ে তুলতে সমম্বিত উদ্যোগ নেব আমি। বাকলিয়ায় অনেক সম্ভাবনা রয়েছে, আমি তার সদব্যাবহার করতে চাই। রিভার ড্রাইভ সড়ক নির্মানের ফলে বিশাল পরিত্যক্ত অনাবাদী জমি উন্নয়নের আওতায় চলে আসবে। জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদিত বাস্তবায়নাধীন মেগা প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হলে কর্ণফুলি পাড়ের বাঁকের অপরুপ শোভামন্ডিত বাকলিয়া হবে নগরীর অন্যতম আকর্ষনীয় এলাকা। জামাত বিএনপির অপপ্রচার ও বিশ্ব মোড়লদের নানান তালবাহানা সত্বেও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে পদ্মা সেতু নির্মান সহ অভাবনীয় উন্নয়ন কর্মকান্ড থেকে পারেনি। ১৬ কোটি মানুষের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে তিনি সফল হয়েছেন। আমিও আমার চট্টগ্রামের নাগরিকদের শক্তিকে কাজে লাগিয়েই একটি পরিকল্পিত নগরী তৈরী করে দেখাতে চাই। এসময় তিনি সরকারের বিভিন্ন কর্মকান্ডের কথা তুলে ধরে বলেন, নৌকায় ভোট দিলে উন্নয়ন হয়। আর স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে যারা একাট্টা হয়ে চলে তাদেরকে ভোট দিলে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়। তারাও ভোট চাচ্ছে আপনাদের কাছে। এটা তাদের গনতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু ভোটের মালিক আপনারা, আপনাদের ভোট বুঝে শুনে দিবেন। উন্নয়নের প্রতিক নৌকায় ভোট দিন, মাদকমুক্ত-সন্ত্রাসমুক্ত- দুর্নীতিমুক্ত নগরী ও পরিকল্পিত উন্নয়ন বুঝে নিন। কুশলবিনিময়কালে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের শ্রম সম্পাদক আবদুল আহাদ, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কাউন্সিলর প্রার্থী মো. শহিদুল আলম, নির্বাহী সদস্য আহমদ ইলিয়াস, বাকলিয়া থানার আহ্বায়ক হাজ্বী শফিকুল ইসলাম, যুগ্ম আহ্বায়ক হাজ্বী সিদ্দিক আলম, জামশেদুল আলম, মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুবুল হক চৌধুরী এটলী, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের হাজ্বী ইউনুছ কোম্পানী, মো. আলী নেওয়াজ, মোহাম্মদ মুছা, আকবর আলী আকাশ, মো. হারুন উর রশিদ, হাজ্বী নুরুল আজিম নুরু, ইফতেখার আলম জাহেদ, মাসুদ করিম টিটু প্রমুখ।
কাট্টলির চাঞ্চল্যকর তানভীর হত্যাকান্ডের প্রধান আসামি কে আটক করেছে Rab-7
২১মার্চ,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর দক্ষিণ কাট্টলি এলাকার চাঞ্চল্যকর আনোয়ার জাহিদ তানভীর হত্যাকান্ডের প্রধান আসামি নেছার উদ্দীনকে ফেনী জেলার সদর থানাধীন আফতাব বিবিরহাট এলাকা থেকে আটক করেছে Rab-7। শুক্রুবার ২০শে মার্চ সকাল ৬ টার সময় ফেনী জেলার সদর থানাধীন আফতাব বিবিরহাট এলাকা থেকে চট্টগ্রাম মহানগরীর দক্ষিণ কাট্টলি এলাকার চাঞ্চল্যকর আনোয়ার জাহিদ তানভীর হত্যাকান্ডের প্রধান আসামি নেছার উদ্দীনকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এ এস পি মাহমুদুল হাসান মামুন। আটককৃত মোঃ নেছার উদ্দীন (৪০) চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন কাজীরদিঘী (গনি সওদাগরের বাড়ী) গ্রামের মৃত ফয়জুর রহমান এর ছেলে। এ বিষয়ে Rab-7 এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ মশিউর রহমান জুয়েল, (পিএসসি )বলেন, নির্বাচন কেন্দ্রীক সহিংসতা প্রতিরোধে র্যাকব-৭ যথোপযুক্ত কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন করবে এবং দোষী ব্যক্তিকে আইনের আওতায় আনা হবে। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক ফেনী ক্যাম্প কমান্ডার এ এস পি মোঃ নুরুজ্জামান জানান, গত ১৮ই মার্চ রাত আনুমানিক রাত ১০ঃ৩০ মিনিটের সময় চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন দক্ষিণ কাট্টলী এলাকায় সন্ত্রাসীদের ছুরিঘাতে মোঃ আনোয়ার জাহিদ তানভীর (৩৫) নিহত হয়। পরবর্তীতে নিহতের ভাই গত ১৯শে মার্চ নগরীর পাহাড়তলী থানায় ২১ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। এঘটনায় চট্টগ্রাম মহানগরীর পুলিশ মোঃ জনি ও মোঃ সোহেল নামে দুইজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। হত্যাকান্ডের পর থেকেই Rab-7 এই ঘটনার ছায়া তদন্ত এবং পলাতক আসামীদের উপর গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। গোয়েন্দ নজরদারির এক পর্যায়ে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে আমরা জানতে পারি যে, মোঃ আনোয়ার জাহিদ তানভীর এর হত্যা মামলার ২ নং আসামী মোঃ নেছার উদ্দীন (৪০) ফেনী জেলার ফেনী সদর থানাধীন আফতাব বিবিরহাট এলাকায় অবস্থান করছে।এমন তথ্যের ভিত্তিতে Rab-7 এর একটি চৌকস টহল দল অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করে। তিনি আরও জানান, আটক আসামীকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে যে, ঘটনার দিন আসামীর সাথে ভিকটিমের কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে আসামী মোঃ নেছার উদ্দীন ভিকটিম মোঃ আনোয়ার জাহিদ তানভীর কে পেটে দুইবার ছুরিকাঘাত করে এবং এসময় আসামীর সাথে আরো ৫০-৬০ জন লোক ছিল। এরপর আসামী ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে ফেনী জেলার সদর থানাধীন আফতাব বিবিরহাট এলাকায় অবস্থান করে এবং হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছোরাটি রাস্তার পাশে ফেলে যায়। তাকে মহানগরীর পাহাড়তলী থানায় হস্তান্তর প্রক্রিয়াধীন আছে। উল্লেখ্য, আসামী নেছার এর বিরুদ্ধে নগরীর পাহাড়তলী থানায় আরো দুইটি মামলা রয়েছে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর