শিক্ষা জগতে শ্রীদাম চন্দ্র আলোর ফেরিওয়ালা :নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি
২৬ জানুয়ারী,অনলাইন ডেক্স,(নিউজ একাত্তর ডট কম) চট্টগ্রাম: সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষানুরাগী শ্রীদাম চন্দ্র নাথ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৪ বছর কোন সম্মানী ভাতা ছাড়াই শিক্ষকতা করে তিনি অনুকরণীয় আদর্শ হয়েছেন। শিক্ষা জগতে তিনি একজন আলোর ফেরিওয়ালা। বর্তমান অবক্ষয় ও স্বার্থের যুগে শ্রীদামের পরার্থপরতার বিষয়টি অত্যন্ত বিরল। আমরা তাঁকে অনুসরণ করে বড়মাপের মানুষ হতে পারি। তিনি গত ২৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ শ্রীদাম চন্দ্র নাথ স্মরণে ১০ম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। কলাউজান নাথপাড়া ছাত্র-যুব পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগরী আয়োজিত নগরীর সদরঘাটস্থ ডায়মন্ড মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা মিলন কান্তি দেবনাথ। এতে উদ্বোধক ছিলেন বাগীশিক কেন্দ্রীয় প্রধান উপদেষ্টা অ্যাড. তপন কান্তি দাশ। প্রধান বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট নাট্যজন সুদর্শন চক্রবর্তী। সংস্কৃতি কর্মী লাভলী দের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠক অ্যাড. শুভাশীষ শর্মা। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন আশালতা কলেজের অধ্যক্ষ প্রদীপ কুমার চৌধুরী, আগ্রাবাদ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ কৃষ্ণ কান্তি দত্ত, বোয়ালখালী সিরাজুল ইসলাম কলেজের অধ্যক্ষ সমীর কান্তি দাশ, কাটিরহাট মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ কল্যাণ নাথ, কুন্ডেশ্বরী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সজল চৌধুরী, যশোদা-নগেন্দ্র মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সুভাষ চন্দ্র ধর, ডা. ফজলুল হাজেরা কলেজের উপাধ্যক্ষ স্বপন কুমার নাথ। অনুষ্ঠানে কৃতি গীতা প্রশিক্ষক দেবরাজ সিংহ ও কৃতি শিক্ষার্থী সোমা চৌধুরী, পলা সোম ও বর্ষা সেনগুপ্তাকেও সম্মাননা দেয়া হয়। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রয়াতের জ্যেষ্ঠপুত্র সাবেক কলেজ প্রভাষক পলাশ কান্তি নাথ রণী। জীবনী পাঠ করেন বাচিক শিল্পী শান্তনু মিত্র। স্মরণগীতি পরিবেশন করেন শিক্ষক মৌসুমী চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন বাগীশিক কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ডা. অঞ্জন কুমার দাশ, মহানগর সংসদ সভাপতি প্রদ্যুৎ বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী সঞ্জয় চক্রবর্তী মানিক, অধ্যাপক পপি সাহা, পতেঙ্গা থানার ইন্সপেক্টর প্রকাশ প্রণয় দাশ, অ্যাড. প্রকাশ কান্তি নাথ, অ্যাড. উৎপল দাশ, অংকুশ দে, সংগঠক টিটু দাশ, সুব্রত নাথ রুবেল, অ্যাড. রিগ্যান আচার্য, চিত্রশিল্পী নিউটন দত্ত, অধ্যাপক নীলিমা দাশ, প্রকৌশলী শিপন রায় চৌধুরী, নারীনেত্রী পম্পী দাশ, কাননবালা ধর প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
তারুণ্যের উচ্ছ্বাসের আবৃত্তি কর্মশালা ১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু
২৬ জানুয়ারী,অনলাইন ডেক্স,(নিউজ একাত্তর ডট কম) চট্টগ্রাম: দেশসেরা আবৃত্তি ও অভিনয়শিল্পী, কবি, সাংবাদিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দের তত্তবধানে বাচিক শিল্প চর্চা কেন্দ্র তারুণ্যের উচ্ছ্বাসের পরিচালনায় শুদ্ধ উচ্চারণ ও আবৃত্তি কর্মশালার ১৮তম ব্যাচের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি। পাঁচমাসব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য এ কর্মশালার বিষয়ভিত্তিক ক্লাস সমূহের মধ্যে বাকশিল্প ও আবৃত্তি দর্শন বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিবেন আবৃত্তিশিল্পী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় এবং শিমুল মুস্তাফা, মঞ্চ ও টেলিভিশন উপস্থাপনা, সংবাদপাঠ বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিবেন অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা, অভিনতা পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়, এটিএন প্রধান নির্বাহী সম্পাদক সাংবাদিক মুন্নী সাহা, বিটিভির সংবাদপাঠিকা রেখা নাজনীন। শুদ্ধ উচ্চারণ, কন্ঠসাধন, নাট্যতত্ত ও আবৃত্তির কলাকৌশল বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিবেন নাট্যজন প্রদীপ দেওয়ানজী, আবৃত্তি গবেষক মীর রবকত, কবি রাশেদ রউফ, সঙ্গীতশিল্পী নূর নবী মিরন আবৃত্তিশিল্পী ফারুক তাহের ও শ্রাবণী দাশগুপ্তা। কবিতা নির্বাচন ও আবৃত্তির নির্মাণ এবং মাইক্রোফোনের ব্যবহার বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিবেন আবৃত্তিশিল্পী মিলি চৌধুরী, আয়েশা হক শিমু, মুজাহিদুল ইসলাম ও সেজুঁতি দে। কর্মশালার ক্লাস প্রতি শুক্রবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হবে। কর্মশালায় অংশগ্রহণে আগ্রহীদের আবেদন পত্র সংগ্রহ করে জমা দিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। শিশুদের জন্যে আলাদা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। আবেদনপত্র পাওয়া যাচ্ছে চেরাগী পাহাড়স্থ বুকমার্ক বা নন্দন বইঘরে, শিল্পকলার বিপরীতে আলমের দোকানে এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ঝুপড়িতে। আবেদনপত্র জমা দেয়ার একমাত্র স্থান প্রতি শুক্রবার ও শনিবার বিকাল ৩ টা থেকে ৬ টা আন্দরকিল্লা মোড়স্থ শিক্ষক ভবনের ষষ্ঠ তলায় সংগঠনের নিজস্ব কার্যালয়ে। বিস্তারিত ০১৮১৪-৭৮০০৩২ নম্বরে ফোন করে জানা যাবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
উপজেলায় প্রার্থী নির্বাচনে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে স্বাগত :মোছলেম উদ্দিন
২৬ জানুয়ারী,অনলাইন ডেক্স,(নিউজ একাত্তর ডট কম) চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেছেন, কেন্দ্রীয় নির্দেশনার আলোকে মাননীয় ভমি মন্ত্রী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার আওতাভক্ত সাংসদগণ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকদের সাথে পরামর্শ করে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তৃণমূল পর্যায়ে যে ঐক্য প্রতিষ্ঠা হয়েছে তারই ধারাবাহিকতা রক্ষা করে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার ৭টি উপজেলায় আমাদের বিজয় নিশ্চিত করতে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। উপজেলা প্রার্থী নির্বাচনে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে আমরা অবশ্যই সাধুবাদ জানাবো। আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে করণীয় বিষয় নির্ধারনের লক্ষ্যে গত ২৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় আন্দরকিল্লাস্থ দলীয় কার্যালয়ে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সভায় আগামী ২৬ জানুয়ারির মধ্যে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহীদের বায়োডাটা, দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি, এন আই ডি কার্ডের ফটোকপি (কালার) সহ জেলা কমিটি বরাবরে আবেদন করতে বলা হয় ও ২৭ হতে ২৯ জানুয়ারি তৃণমূল সম্মেলনের আয়োজন করার আহবান জানানো হয়। আগামী ২৯ জানুয়ারি বেলা ২টায় চট্টগ্রাম লালদীঘি ময়দানে চট্টগ্রাম উত্তর, দক্ষিণ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত বৃহত্তর চট্টগ্রাম হতে মনোনীত চার মন্ত্রীকে সংবর্ধনা প্রদান, ৩১ জানুয়ারি একই স্থানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক মন্ত্রী, সংসদ সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্মরণে শোক সভা সফল করে তুলতে দক্ষিণ জেলার স্ব স্ব ইউনিট থেকে স্বদলবলে যোগদান করার আহবান জানান। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, সহ-সভাপতি আবুল কালাম চৌধুরী, সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান চেয়ারম্যান, সহ-সভাপতি এড. এ কে এম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, সহ-সভাপতি আবু সাঈদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এড: জহির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোছলেহ উদ্দিন মনসুর, আইন সম্পাদক এড: মির্জা কছির উদ্দিন, সাবেক এম পি চেমন আরা আরা তৈয়ব, শ্রম সম্পাদক খোরশেদ আলম, বন বিষয়ক সম্পাদক এড: মুজিবুল হক, শিক্ষা সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরান, প্রচার সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরী, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: তিমির বরণ চৌধুরী, ক্রীড়া সম্পাদক গোলাম ফারুক ডলার, ধর্ম সম্পাদক আবদুল হান্নান চৌধুরী মঞ্জু, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক আবদুল কাদের সুজন, ত্রাণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ হায়দার শাহীন, কৃষি সম্পাদক এড: আবদুর রশিদ, উপ-প্রচার সম্পাদক মৌলানা নুরুল আবছার, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আ ক ম শামসুজ্জামান, সাধরণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এস এম জহিরুল আলম জাহাঙ্গীর, কর্নফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম এ মালেক, বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এম এ গফুর, সাতকানিয়া আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, চন্দনাইশ উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু আহমদ জুনু, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য নুরুল আলম, দেবব্রত দাশ, মোস্তাক আহমদ আঙ্গুর, চেয়ারম্যান নাছির আহমদ, সৈয়দুল মোস্তফা চৌধুরী রাজু, আনোয়ার কামাল, বিজন চক্রবর্ত্তী, মাহবুবুর রহমান সিবলী, এ কে আজাদ, শাহিদা আক্তার জাহান, সেলিম নবী, চন্দনাইশ পৌর মেয়র মাহবুবুল আলম খোকা, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সভাপতি আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথী চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মোহাম্মদ জোবায়ের, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মো: গালিব, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা কৃষকলীগ সভাপতি আতিকুর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আবু তাহের প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ইনসাব পাহাড়তলী থানা কমিটির পরিচয় পত্র বিতরন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
২৫ শে জাানুয়ারী,সুজন আশ্চ্যার্য,নিউজ একাত্তর ডট কম, চট্টগ্রাম : আজ ২৫ শে জানুয়ারী শুক্রবার ইমারত নির্মাণ শ্রমিকদের সংগঠন (ইনসাব) পাহাড়তলী থানা কমিটির সদস্যদের মধ্যে পরিচয় পত্র বিতরন ও আলোচনা সভা,সভাপতি আব্দুস ছালাম এর সভাপতিত্বে পাহাড়তলী থানাধীন উত্তর সরাইপাড়া এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলখারনা পতিষ্ঠান ও শ্রম অধিদপ্তর চট্টগ্রাাম এর উপ মহা পরিদর্শক মোহাম্মদ আব্দুল হাাই খান,বিশেষ অতিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১১ নং দক্ষিন কাট্টলী ওয়ার্ড এর কাউন্সিলর মোরশেদ আক্তার চৌধুরী(এম.এ) ও প্রথম শ্রম আদালত চট্টগ্রাম এর সদস্য এবং বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র এর সভাপতি তপন দত্ত এবং বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র চট্টগ্রাম এর যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার কামাল খান। উক্ত অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ইনসাব চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি মোহাম্মদ শহিদুর রহমান,জেলার সাধারণ সম্পাাদক আব্দুস ছালাম,পাহাড়তলী থানা কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ বেলাল প্রমূখ। বক্তাগণ বলেন ,নির্মাণ কাজ খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। সারা দেশে এই শিল্পে প্রায় ৪০ লাখ শ্রমিক রয়েছে। বিদেশেও নির্মাণ শ্রমিকদের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে কয়েক লাখ নির্মাণ শ্রমিক বিদেশে গিয়ে লাখ লাখ বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ে আসছে। অথচ শ্রম আইনের আওতায় এই নির্মাণ শ্রমিকদের পূর্ণ অধিকার নিশ্চিত এখনও হয়নি। ইমারত নির্মাণ শিল্পের সঙ্গে লাখ লাখ শ্রমিক জড়িত। এই শিল্পের শ্রমিকেরা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে চলেছে। শ্রম মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের দেখভাল করার কথা থাকলেও দায়িত্ব পালনে অবহেলা করছেন। মালিকদের অতি মুনাফা লোভের কারণে নিরাপত্তা বেষ্টনী ব্যবহার না করে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানোর ফলে প্রতিনিয়ত নির্মাণ শ্রমিকরা আহত ও নিহত হচ্ছেন। এজন্য আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে অর্থ বরাদ্দ করে নির্মাণ শ্রমিকদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার জোর দাবী জানান । আলোচনা সভা শেষে ইনসাব এর পাহাড়তলী থানা কমিটির সদস্যদেরকে সংগঠনের পরিচয় পত্র প্রদান করা হয়।
দুর্নীতি-মাদক ও চোরাচালান রোধে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে: চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার
অনলাইন ডেস্ক :চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও আন্তরিকত সহযোগিতায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করা হয়েছে। নির্বাচনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনের মাধ্যমে আবারও সরকার গঠন করেছে। দেশের সার্বিক উন্নয়নে সততা, আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে ঘোষণা দিয়েছেন তা আমাদেরকে অবশ্যই পালন করতে হবে। সমাজ থেকে দুর্নীতি, মাদক, চোরাচালান, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ রোধে সকলকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। সড়ক, নৌপথ ও সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে মাদকের সাথে অস্ত্রের চালান আসতে পারে। এ ব্যাপারে বিজিবি, কোস্টগার্ড, পুলিশ ও RAB সহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে নজরদারি বৃদ্ধির পাশাপাশি পর্যাপ্ত চেকপোস্ট স্থাপনসহ ভ্রাম্যমান আদালতের কার্যক্রম বৃদ্ধি করতে হবে। একই সাথে সীমান্তবর্তী এলাকার মার্কেটগুলোতে বিদেশি পণ্য বাদ দিয়ে দেশীয় পণ্য বিক্রয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদেরকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। আজ ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ ইং বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম আঞ্চলিক টাস্কফোর্সের সভা, বিভাগীয় উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা, জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে সমন্বয় সভা ও বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার অফিস এই সভাগুলোর আয়োজন করেন। তিনি বলেন, বিভাগের ১১টি জেলার জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রতিমাসে টাস্কফোর্স অভিযানের হার বৃদ্ধিসহ তথ্যাদি যথাসময়ে বিভাগীয় কমিশনার অফিসে প্রেরণ এবং অভিযান পরিচালনায় জেলা প্রশাসকগণকে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। সীমান্তবর্তী জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে চোরাচালান নিরোধ কমিটির অনুষ্ঠিত সভা ফলপ্রসূ হওয়ার ব্যাপারে জেলা প্রশাসকগণেরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সরকার ভুর্তুকি দিয়ে বিদেশ থেকে জ।লানি তেল আমদানি করছে। পেট্রোল পাম্প থেকে ডিজেলসহ অন্যান্য জ।লানি তেল যাতে পাচার না হয় সে বিষয়ে সীমান্তবর্তী জেলা প্রশাসকগণকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। ফিলিং স্টেশনের মালিকদের সাথে এ ব্যাপারে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে হবে। একই সাথে বিদ্যুতের অপব্যবহার, ব্যাটারি চালিত রিক্সা ও ইজিবাইক বন্ধ করনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন তিনি। পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, মাদক রোধে পুলিশের পক্ষ থেকে থাকবে জিরো টলারেন্স। অস্ত্র উদ্ধার, চোরাচালানরোধ, জঙ্গি-সন্ত্রাসী ও চিহ্নিত অপরাধীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এ জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সংশ্লিষ্ট সকলকে সমন্বয়ভাবে কাজ করতে হবে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম)আমেনা বেগম বলেন, চট্টগ্রাম নগরীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি মোটামুটি ভাল। অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারসহ অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশ বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। দুর্ঘটনা রোধ, যানজট নিরসনে ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন চালক ও অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পৃথক সভাগুলোতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) দীপক চক্রবর্তী, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, বিজিবির চট্টগ্রাম রিজিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক কর্নেল আরেফিন, সিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) আমেনা বেগম, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী মো. সামসুদ্দোহা, কুমিল্লার কাস্টমস কমিশনার মো. মাহবুবুজ্জামান, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন (চট্টগ্রাম), তন্ময় দাস (নোয়াখালী), মো. মাজেদুর রহমান খান (চাঁদপুর), আবুল ফজল মীর (কুমিল্লা), মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম (বান্দরবান), অঞ্জন চন্দ্র পাল (লক্ষ্মীপুর), একেএম মামুনুর রশিদ (রাঙামাটি), মো. কামাল হোসেন (কক্সবাজার), মো. শহিদুল ইসলাম (খাগড়াছড়ি), হায়াত উদ-দৌলা খান (ব্রাহ্মণবাড়িয়া), RAB-৭ এর কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান, রেলওয়ে পুলিশ সুপার নওরোজ হাসান তালুকদার, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, চট্টগ্রাম জেলা পিপি এডভোকেট একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, মহানগর পিপি এডভোকেট মো. ফখরুদ্দীন, এডিশনাল পিপি এডভোকেট তারাপদ, বিগত সভার সিদ্ধান্ত ও অগ্রগতি তুলে ধরেন বিভাগীয় কমিশনারের একান্ত সচিব ও সহকারী কমিশনার হাসান বিন মোহাম্মদ আলী এবং সহকারী কমিশনার মো. জাকারিয়া। সভায় বিভাগের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে কর্মরত কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
দক্ষিণ কাট্টলীতে ডাঃ আফছারুল আমীন এমপিকে সংবর্ধনা
চট্টগ্রাম ১০ সংসদীয় আসন হতে তৃতীয়বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় আজ ২৩ জানুয়ারি বিকাল ৫টায় ১১ নং দক্ষিণ কাট্টলীস্থ হাজী আব্দুল আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে কেন্দ্রভিত্তিক নেতাকর্মীদের সাথে নির্বাচন পরবর্তী মতবিনিময় সভায় ১১ নং দক্ষিণ কাট্টলী এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ডাঃ মোঃ আফছারুল আমীন এমপিকে সংবর্ধনা প্রধান করা হয়েছে। ১১ নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যাপক মোঃ ইসমাইলের সভাপতিত্বে ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নোয়াব আলী মিয়ার পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর নুরুল বশর মিয়া, ১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আসলাম হোসেন সওদাগর, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদন সেকান্দর মিয়া, পাহাড়তলী থানা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শেখ আব্দুর মান্নান, ১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক খায়রুল বশর তসলিম, ৫নং ইউনিট আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকির আহমেদ সওদাগর, ওয়ার্ড সদস্য শফিকুল ইসলাম সজল, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা নাসিমা লোকমান, রাধা দেবী টুন্টু মুন প্রমুখ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংবর্ধিত সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী ডাঃ মোঃ আফছারুল আমীন এমপি। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ, আপনারা আমার জন্য অনেক পরিশ্রম করেছেন। আপনাদের এ শ্রম, কষ্টের ফল কেউ যাতে নিজের ব্যক্তি স্বার্থে নষ্ট করতে না পারে তার জন্য সবাই সচেতন থাকবেন। তিনি আরো বলেন বর্তমান সরকার দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কেউ দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কোন অন্যায় করলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। অন্যায়কারী যেই হোক না কেন তাকে আইনের হাতে সোপর্দ করা হবে। এতে তার দলীয় পরিচয় দেখা হবে না। তাই সবাইকে ন্যায় ও সঠিক পথে চলার আহবান জানান।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে:মোহাম্মদ মাহবুব হাসান
মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড চট্টগ্রামর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, জীবনের যে কোন পরীক্ষায় অনৈতিক সুযোগ সুবিধা নিয়ে পাশ করলে জীবনে পদে পদে পরাজয়ের গ্লানি বয়ে বেড়াতে হবে। যে সব অভিভাবক কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার সময় অনৈতিকতার সুযোগ তৈরি করে দেয় সে সকল মা-বাবা সমাজে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে না। তাই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। আজ কাল শিক্ষার্থীরা স্কুলের ক্লাসে পাঠদানে মনযোগি না হয়ে কোচিং সেন্টারের শিক্ষকদের উপরে পাঠদানের ভরসা করে। তাই দিন দিন শিক্ষার মান নি পর্যায়ে পদদলিত হচ্ছে। তাই আগামী প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে স্কুলে নিয়মিত উপস্থিত হয়ে ক্লাসের পড়া ক্লাসে আদায় করে নিতে হবে। বর্তমানে পাঠ্যবুক হতে শিক্ষার্থীরা মুখ ফিরিয়ে সামাজিক যোগাযোগে মাধ্যম ফেইসবুকে আসক্ত হয়ে পড়েছে। ফেইসবুক আসক্তি থেকে শিক্ষার্থীদেরকে রক্ষা করার জন্য অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। শিক্ষার্থীরা যাতে ইন্টারনেটের অপব্যবহার হতে দূরে থাকে সেদিকে অভিভাবকদের লক্ষ্য রাখতে হবে। আর পড়ালেখার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের দৈহিক ও মানসিক বিকাশ সুুস্থ্য রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাঙ্গালি সংস্কৃতি চর্চায় ও ক্রীড়াঙ্গনে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে তবেই শিক্ষার্থীরা দেশপ্রেমে যোগ্য নাগরিক হিসাবে নিজেদেরকে গড়ে তুলতে সক্ষম হবে। অদ্য ২৩ জানুয়ারি সকাল ১১টায় নগরীর ওয়ালের্স ঝাউতলা কলোনী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায়ী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অর্থ উপ-কমিটির আহ্বায়ক মোঃ নুরূল মোস্তফার সভাপতিত্বে ও বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ আমিনুল হকর সঞ্চালনায় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মহসিন। অনুষ্ঠানে পরিচালনা পরিষদ;র পক্ষে মোঃ আব্দুল হক, শিক্ষকদের পক্ষে বাবু প্রতীক ধর, মোঃ খুরশিদ আলম, বিদায়ী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সায়দুল ইসলাম, উম্মে সুমাইয়া, অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে আয়েশা ছিদ্দিক, ফারহান আব্দুল্লাহ। মানপত্র পাঠ করেন, রায়হান মোস্তফা ও লামইয়া ইসলাম। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোয়াত পাঠ করেন বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক মোঃ আবদুল হক। শিক্ষার্থীদের সাফল্য কামনায় বিশেষ মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন ওয়ালের্স কলোনী জামে মসজিদের পেশ ইমাম আলাউদ্দিন সাবেরী। অনুষ্ঠানে বিদায়ী পরীক্ষার্থীদের পক্ষ হতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও বিদ্যালয়ের জন্য শুভেচ্ছা স্মারক উপহার প্রদান করেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সময় ও চাহিদা সামনে নিয়ে ফার্নিচার শিল্প এগিয়ে চলছে :সিটি মেয়র
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সময় ও চাহিদা সামনে নিয়ে ফার্নিচার শিল্প এগিয়ে চলেছে। তিনি অদ্য সকাল ১০টায় নগরীর জিইসি কনভেনশন হলে বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি চট্টগ্রাম বিভাগ আয়োজিত ২২-২৭শে জানুয়ারি ৬ দিনব্যাপী ১০ম চট্টগ্রাম ফার্নিচার মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষের দৈনন্দিন জীবিকা বদলে গেছে, এ দিন বদলের ক্রান্তিলগ্নে বাঙালি সমাজ একটি সুন্দর আগামীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছে। আপামর জনসাধারণের সুন্দর ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে পথ দেখিয়ে যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার। নানা উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশ বিশ্বে উল্লেখযোগ্য স্থান করেছে। রপ্তানি খাতে বেড়েছে আমাদের আয়। খাদ্য, পোশাক ও ঔষধ শিল্পের সাথে তাল মিলিয়ে ফার্নিচার শিল্প ও রপ্তানি খাতে নিজের অবস্থান সুদৃঢ় করেছে। বাংলাদেশের মানুষের উন্নত জীবন-জীবিকা এবং বৈশ্বিক চাহিদাকে সামনে রেখে ফার্নিচার শিল্পে আসছে পরিবর্তন। ডিজাইনে এসেছে নতুনত্ব। এই শিল্পের প্রসারে আমাদেরকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে হবে। বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি চট্টগ্রাম বিভাগের সভাপতি সৈয়দ এ.এস.এম. নুর উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর সভাপতি মাহবুবুল আলম। তিনি বলেন, হাটি হাটি পা পা করে ফার্নিচার শিল্প এগিয়ে চলেছে। এক সময় বিদেশী ফার্নিচার এ শিল্পকে গ্রাস করতে বসেছিল। কিন্তু আমাদের দেশের ফার্নিচার শিল্প উদ্যোক্তাদের ঐক্যবদ্ধতার কারণে এ শিল্প এখন গার্মেন্টস্ শিল্পের মতো প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি কেন্দ্রীয় মহাসচিব ইলিয়াছ সরকার বলেন, গার্মেন্টস্ শিল্পের ন্যায় ফার্নিচার শিল্পও অদূর ভবিষ্যতের আন্তর্জাতিক বাজার করবে। সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ এ.এস.এম. নুর উদ্দিন বলেন, ফার্নিচার শিল্পকে এগিয়ে নিতে হলে সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা জরুরী। এ শিল্পের জন্য আলাদা ফার্নিচার জোন করতে হবে। তবেই ফার্নিচার শিল্পের বিকাশ ঘটবে। মেলা কমিটির আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি চট্টগ্রাম বিভাগের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুর রহমান বলেন, ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ফার্নিচার শিল্পের জন্য আলাদা স্পেস তৈরী করে দিতে হবে। বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি চট্টগ্রাম বিভাগের যুগ্ম আহ্বায়ক এম.এন. আযম খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, মেলা কমিটির সদস্য সচিব সাইফুদ্দিন চৌধুরী দুলাল, চিটাগাং ইভেন্টস্ এর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাহাব উদ্দিন, বাংলাদেশ ফার্নিচার শিল্প মালিক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মোল্লা সদরউদ্দিন পিটু। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের চট্টগ্রাম বিভাগের সহ- সভাপতি এম. নাছের, সৈয়দ আই.এম. ইফতেখার উদ্দিন, বলিরহাট ইউনিট সভাপতি জসিম উদ্দিন, চিটাগাং ইভেন্টস্ এর এমডি আয়েশা বেগম, সিইও মো: মনজুরুল ইসলাম রায়হান, ইভেন্ট এক্সিকিউটিভ মো: রাসেল, মো: ইরফান, মো: মেহেদী ও মো: ফারুক প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই
চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর উদ্যোগে এবং এসএমই ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ৫ দিনব্যাপী কাটিং, সুইং এন্ড প্যাটার্ন মেকিং শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সম্প্রতি চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আবিদা মোস্তফা প্রধান অতিথি ছিলেন। প্রধান অতিথি বলেন, নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। প্রশিক্ষণের সাথে সাথে আমাদেরকে লক্ষ্য ঠিক করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি চট্টগ্রাম অঞ্চলের নারীদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের ধারাবাহিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে আমরা উদ্যোক্তা নারীদের নিয়ে এগিয়ে যাব এবং দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে অবদান রাখতে চেষ্টা করব। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চেম্বার পরিচালক ফেন্সী ইসমাইল, ফেরদৌস ইয়াসমিন খানম ও কোর্সের প্রশিক্ষক দিলরুবা হুসনা। চট্টগ্রামের ৩০ জন নারী উদ্যোক্তা এই প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর