বাঁশখালীতে Rab এর সাথে বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত, বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার
২৬জানুয়ারী,রবিবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী থানাধীন বাণীগ্রাম লটমুণি পাহাড় এলাকায় ডাকাতদলের সাথে Rab-7 এর টহলদলের সাথে বন্দুকযুদ্ধে চাঞ্চল্যকর ৩১ জেলেকে পানিতে ফেলে হত্যা মামলা সহ দুই ডজনেরও অধিক মামলার আসামী চাম্বল এলাকার কুখ্যাত ডাকাত ও জলদস্যু মোরশেদ আলম (৩৫) নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে চারটি অস্ত্র, তিনটি রাম দা ও ১৯ রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়। আজ রোববার (২৬ জানুয়ারি) ভোরে বাঁশখালীর বাণীগ্রাম লটমণি পাহাড় এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে জানান Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন। নিহত মোরশেদ আলম বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল এলাকার বাসিন্দা বলে জানিয়েছে Rab। নিহত মোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে বঙ্গোপসাগরের কুতুবদিয়া এলাকায় ৩১ জেলেকে পানিতে ফেলে হত্যা মামলা সহ দুই ডজনের অধিক মামলা রয়েছে বলে জানান এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক এএসপি কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ জানান, আজ ভোরে চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালীর বাণীগ্রাম লটমণি পাহাড় এলাকায় Rab এর টহলদলের সাথে ডাকাত দলের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে মোরশেদ আলম (৩৫) নামে একজনের মরদেহ পাওয়া যায়। মোরশেদ আলম বঙ্গোপসাগর এলাকার কুখ্যাত দস্যু। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি থ্রি কোয়ার্টার গান, দুইটি ওয়ান শ্যুটার গান, ১৯ রাউন্ড গুলি ও ৩টি রাম দা জব্দ করা হয়।
চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মুজিববর্ষের উপহার স্কুল বাসের উদ্বোধন
২৫জানুয়ারী,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মুজিববর্ষের উপহার স্কুল বাসের উদ্বোধন করা হয়েছে। নগরীর বহদ্দারহাট থেকে নিউমার্কেট ও অক্সিজেন থেকে আগ্রাবাদ রোডে চলাচলের জন্য দশটি দোতলা বাস চালূ করা হয়েছে যা শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের জন্য । মুজিববর্ষের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রির দেয়া এ উপহার পেয়ে আনন্দিত শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২৫ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে দশটায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ উদ্বোধন অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষা উপমন্ত্রী ও সাংসদ ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আলমাস শিমুল অংশগ্রহণ করেন। উদ্বোধন করা দশটি বাস নগরীর দুটি রুটে মর্নিং এবং ডে শিফটে স্কুল শুরু এবং ছুটির সময়ে চলাচল করবে। একটি রুটে বাসগুলো নগরীর বহদ্দারহাট থেকে শুরু করে নিউ মার্কেট হয়ে বাদুরতলা, মুরাদপুর, চকবাজার, গণি বেকারি, জামালখান, চেরাগি পাহাড়, অন্দরকিল্লা এবং কোতোওয়ালি এলাকা পর্যন্ত চলাচল করবে। এবং অন্য রুটে বাসগুলো নগরীর অক্সিজেন মোড় থেকে শুরু করে আগ্রাবাদ হয়ে মুরাদপুর, জিইসি মোড়, ওয়াসা মোড় এবং টাইগারপাস এলাকা পর্যন্ত চলাচল করবে। প্রতিটি বাসে ৭৫টি আসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা স্কুলড্রেস পরিহিত অবস্থায় বাসে উঠতে হবে। প্রতিটি বাসে ছয়টি সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে । জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে বাস গুলো পর্যবেক্ষণ করা হবে। শিক্ষার্থীরা যে কোনো দূরত্বে মাত্র পাঁচ টাকায় ভাড়ার বিনিময়ে চলাচল করতে পারবে। এ বাসে কোনো সুপারভাইজার কিংবা কোনো টিকিট কাউন্টার থাকবে না। শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছায় সততার সাথে নির্দিষ্ট কাউন্টারে পাঁচ টাকা ভাড়া দিয়ে দিবে। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি) ডিপো সূত্রে জানা যায়, এসব বাস সরকারি ছুটির দিন ব্যতীত প্রতিদিন সকাল ৬টা ১৫ মিনিট থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত এবং বিকেল ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত দুই শিফটে নগরীর দুটি রুটে চলাচল করবে। জানা যায়, শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে চালু হতে যাওয়া এসব বাস পরিচালনায় ব্যয়ের ঘাটতি পূরণে বিআরটিসির সঙ্গে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের ১ কোটি ২০ লাখ টাকা করে (প্রতি বছর) দুই বছরের জন্য একটি বিজ্ঞাপন প্যাকেজের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয়রা বলেন, এই বাস সার্ভিস চালু হলে শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে ভোগান্তি ও খরচ দুটোই কমবে।
ফৌজদারহাট-বায়েজীদ বাইপাস সড়ক উন্মুক্ত হচ্ছে মার্চে
২৪জানুয়ারী,শুক্রবার,নূর মোহাম্মদ,বিশেষ প্রতিনিধি,সীতাকুণ্ড,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে ফৌজদারহাট-বায়েজীদ বাইপাস সড়কটি যানবাহন চলাচলের জন্য আগামী মার্চ মাসে খুলে দেয়া হবে। সড়কটি চালু হলে নগরীর স্থবির হয়ে যাওয়া বিস্তৃত এলাকার যান চলাচলে গতিশীলতা আসবে। শুধু নগরীর যান চলাচলই নয়, আবাসন শিল্পায়ন এবং পর্যটনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে অনেকেই। ইতোমধ্যে সড়কটির ৯০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মতে সড়কটি চালু হলে বিশ্বমানের শহর ও পর্যটনের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে বলে মনে করেন নগর পরিকল্পনাবিদরা। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস বলেন, কাপ্তাই, ফটিছড়ি, রাউজান থেকে আসা গাড়িগুলো এ রাস্তা ব্যবহার করবে। প্রসঙ্গত- ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাট থেকে বায়েজীদ পর্যন্ত এ সড়কের নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করা হয় ১৯৯৭ সালে। সেই সময় ৩৩ কোটি ৮১ লাখ টাকা ব্যয়ে গৃহীত প্রকল্পটি ১৯৯৯ সালে একনেকে পাস হলেও অজানা কারণে আলোর মুখ দেখেনি। পরে ছয় কিলোমিটার দীর্ঘ ও চার লেনের রাস্তাটি নির্মাণের জন্য ২০০৪ সালে ৫৫ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। আর প্রকল্প ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৩২০ কোটি টাকা। পাহাড় কাটা নিয়ে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যানের সঙ্গে বিরোধের কারণে কাজ শুরু করতে আরও কিছু সময় দেরি হয়। বর্তমানে রাস্তাটির ৯০ শতাংশ ও সাড়ে পাঁচ কিলোমিটারের বেশি অংশের কাজ শেষ হয়েছে বলে জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী রাজীব দাশ বলেন, প্রায় সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া ৬টি কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে।আগামী মার্চ মাসেই সড়কটি যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। চট্টগ্রামকে আধুনিক নগরী হিসেবে গড়তে হলে এ বাইপাস সড়কটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আশাবাদ নগর পরিকল্পনাবিদ আশিক ইমরানের। তিনি বলেন, অন্যান্য নির্মাধীণ যে প্রজেক্টগুলো আছে সেগুলো শেষ হলে এর ব্যবহারবিধি বেড়ে যাবে। চট্টগ্রাম মহানগরীর বিস্তৃত এলাকার যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে এই রাস্তাটি দ্রুত চালু করা জরুরী বলে মন্তব্য করে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর প্রবেশ মুখ স্থবির হয়ে গেছে। কর্ণেল হাট থেকে একে খান মোড়, জাকির হোসেন রোড থেকে জিইসি এবং সন্নিহিত এলাকায় রাতে দিনে যানজট লেগে থাকে। সকাল থেকে শুরু হওয়া যানজট থেকে মুক্তি মিলেনা গভীর রাতেও। বড় বড় প্রাইম মুভার, রডের গাড়ি, সিমেন্টের গাড়ি, পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান মিলে বেহাল অবস্থা শুরু হয় সকাল থেকে। বাইপাস সড়কটি ফৌজদারহাট থেকে বায়েজিদ রোডের সাথে যুক্ত হবে। বায়েজিদ রোড অঙিজেন মোড়ে গিয়ে সংযুক্ত হয়েছে অঙিজেন-কুয়াইশ সড়কের সাথে। এতে করে ঢাকা থেকে সীতাকুণ্ড পর্যন্ত বিসতৃত এলাকা থেকে আসা যেসব গাড়ি উত্তর চট্টগ্রামের হাটহাজারী, ফটিকছড়ি, রাউজান, রাঙুনিয়া, কাপ্তাইসহ সন্নিহিত অঞ্চলে কিংবা খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি, বান্দরবান এবং কঙবাজারসহ দক্ষিন চট্টগ্রামে যাবে সেই সব গাড়ি শহরে প্রবেশ না করে এই রাস্তা ধরে গন্তব্যে পৌঁছতে পারবে। আবার শহর বা উপরোক্ত অঞ্চলগুলো থেকে যেসব গাড়ি ঢাকা কিংবা দেশের অপরাপর অংশে যাবে সেগুলো শহরের জিইসি মোড বা জাকির হোসেন রোড স্পর্শ না করেই বাইপাস রোড ধরে বেরিয়ে যেতে পারবে। অপরদিকে মীরসরাই, সীতাকুণ্ড এবং ফৌজদারহাট থেকে রড এবং স্টিল আনা নেয়ার জন্য প্রতিদিন অসংখ্য প্রাইমমুভার শহরের ভিতর দিয়ে নাসিরাবাদ শিল্প এলাকায় যাতায়াত করে। রডবাহী বিশাল বিশাল গাড়িগুলো জাকির হোসেন রোডে যে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি করে তার ধকল পুরো এলাকার যান চলাচলের ক্ষেত্রে পড়ে। প্রতিদিনই সকাল থেকে গভীর রাত অব্দি বড় বড় প্রাইমমুভারের দখলে থাকে পুরো জাকির হোসেন রোড। রাস্তাটি চালু হলে এই ধরনের বিপুল সংখ্যক গাড়ি শহরের যান চলাচলের উপর যেই চাপ সৃষ্টি করছে তা থেকে নগরী রক্ষা পাবে। যার প্রভাব পড়বে পুরো নগরীর যান চলাচলের ক্ষেত্রে।
চট্টগ্রাম নগরীর ফিশারিঘাটে পুড়েছে নয়টি দোকান
২৩জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,ষ্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর ফিশারিঘাট এলাকায় আগুনে নয়টি দোকান পুড়ে গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে পুরাতন ফিশারিঘাট এলাকায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে। নন্দন কানন ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল মান্নান নিউজ একাত্তরকে বলেন, সকাল ছয়টার দিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের নন্দন কানন ও লামার বাজার স্টেশনের চারটি গাড়ি ঘটনাস্থলে গিয়ে সোয়া আটটার দিকে আগুন নেভায়। আগুনে নয়টি দোকান পুড়ে অন্তত ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান তিনি। পুড়ে যাওয়া দোকানগুলোর মধ্যে চায়ের দোকান, কম্পিউটার, কাঠ, কাপড়ের দোকান রয়েছে। প্রাথমিক অনুসন্ধানে বৈদ্যুতিক গোলোযোগ থেকে আগুন লাগার কথা জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মান্নান।
সড়ক ফুটপাত দখলমুক্ত করতে অভিযান শীঘ্রই: মেয়র আ জ ম নাছির
২২জানুয়ারী,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর রাস্তা ও ফুটপাত দখলমুক্ত করতে শীঘ্রই ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান শুরু করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক)। এক্ষেত্রে জরিমানার পাশাপাশি অবৈধ দখলদারদের মালামাল জব্দ করা হবে। এমনকি কারাদণ্ডও দেয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত চসিকের সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট হলে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রসঙ্গত, এতদিন চসিকের পরিচালিত বেশিরভাগ ভ্রাম্যমাণ আদালতে কেবল জরিমানা করা হতো। গতকালের সভায় সিদ্ধান্ত হয়, আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে লালদীঘি মাঠে সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে সন্ত্রাস ও মাদকবিরোধী সমাবেশ হবে। এক্ষেত্রে যেদিন মাঠ খালি থাকবে ওইদিনই সমাবেশ হবে। সভায় মেয়র বলেন, বিভিন্ন রাস্তা, ফুটপাত ও ড্রেনের উপরে ইট, বালি, কংকর লৌহজাত দ্রব্য, নির্মাণ সামগ্রী, অস্থায়ী দোকান ও দোকানপাটের মালামাল এবং কাঁচাবাজার বসিয়ে সর্বসাধারণের চলাচলের পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা কোনোভাবেই মানা যাবে না। এতে পরিবেশ দূষণের পাশপাশি শহরের সৌন্দর্যহানি হচ্ছে। এটা নাগরিক স্বার্থের পরিপন্থী ও বেআইনি। যত্রতত্র ময়লা না ফেলার জন্য নগরীর হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও কমিউনিটি সেন্টারের মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। ওয়ার্ডভিত্তিক উন্নয়নের ফিরিস্তি জনবহুল এলাকায় টাঙানো এবং ভিডিওচিত্র প্রদর্শনের নির্দেশনা দিয়ে মেয়র বলেন, এই কার্যক্রমের মাধ্যমে ওয়ার্ডের সামগ্রিক উন্নয়ন চিত্র সম্পর্কে নগরবাসী জানবে। এতে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলরের জনপ্রিয়তাও বৃদ্ধি পাবে। চলমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জবাবদিহিতা নিশ্চিতে এবং গতি আনতে চসিকের প্রকৌশলীদের মধ্যে সমন্বয় নিশ্চিতের নির্দেশনা দেন মেয়র। যেসব ঠিকাদার উন্নয়ন কাজে গাফিলতি করছে তাদের সম্পর্কে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ঠিকাদারদের করুণা করার কোনো সুযোগ নেই। তাদের কাছ থেকে কার্যাদেশ মতে শতভাগ কাজ আদায় করতে হবে। কাজের গুণগত মানের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের আপস করা যাবে না। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে উপলক্ষ্য করে যত্রতত্র জাতির পিতার ছবি, ম্যুরাল ও ভাস্কর্য স্থাপন করা যাবে না। এক্ষেত্রে চসিকের অনুমতি লাগবে। এ ব্যাপারে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের তদারকি করার আহ্বান জানান। সভায় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল আলম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আবুল হাশেম, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা জজ) জাহানারা ফেরদৌস, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতারসহ চসিক বিভাগীয় ও শাখা প্রধানগণ এবং নগরীর সরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনায় ছিলেন চসিক সচিব আবু শাহেদ চৌধুরী।- আজাদী
চবিতে ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন শুরু ২৯ জানুয়ারি
২২জানুয়ারী,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বিশ্বব্যাপী তরুণদের উদ্বুদ্ধকরণ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ষষ্ঠবারের মতো আগামী ২৯ জানুয়ারি (বুধবার) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চবি ছায়া জাতিসংঘ সংস্থার (সিইউমুনা) এ সম্মেলন। চার দিনব্যাপী এ সম্মেলনে জাতিসংঘের নয়টি পরিষদ ও জাতীয় সংসদে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি অংশ নেবেন। ৫০ এর অধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩৫০ এর অধিক প্রতিনিধি বিভিন্ন কমিটিতে ভাগ হয়ে কিছু নির্দিষ্ট আলোচ্য বিষয়ের উপর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি সমাপনী অধিবেশনের মধ্য দিয়ে জাতিসংঘের আদলে প্রতীকী এ সম্মেলন শেষ হবে। এ বিষয়ে মহাসচিব মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ছায়া জাতিসংঘের চর্চা সবসময় একটি ব্যাপক কার্যক্রম হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছে যার জন্য একজন বিদ্যার্থীর প্রয়োজন কঠোর পরিশ্রমের মানুষ মানসিকতা এবং জ্ঞানার্জনের প্রেষণা। দেশ ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডল থেকে অংশ নেয়া চার শতাধিক তরুণ প্রতিনিধিদের শিক্ষাসহায়ক সহযোগিতা ও সর্বোচ্চ পর্যায়ের আতিথেয়তা প্রদানে ৯৬ জন সেক্রেটারিয়েট সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। তিনি বলেন, কূটনৈতিক দক্ষতার মাধ্যমে সমাধান করা হবে এজেন্ডাভিত্তিক সমস্যা। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের আলোচ্য বিষয়-সংঘাতময় অঞ্চলে ব্যক্তি মালিকানাধীন সামরিক সংস্থার অংশগ্রহণের বৈধতাকরণ, আর্কটিক পরিষদের আলোচ্য বিষয়- প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য রক্ষার মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকলের বিরোধ নিরসন। জাতীয় সংসদ-বনাঞ্চল ধ্বংস এবং ভূমিসংক্রান্ত অবৈধ কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ। চারদিনে ১২টি অধিবেশনে সমাবেত হয়ে প্রতিনিধিরা সময় উপযোগী সকল সমাধান প্রস্তাব করবে যা উন্মোচন করবে বিশ্বশান্তির নতুন দুয়ার।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত
২১জানুয়ারী,মঙ্গলবার,ষ্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: দামপাড়া পুলিশ লাইন্সস্থ মাল্টিপারপাস সেডে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহাবুবর রহমান, বিপিএম, পিপিএম এর সভাপতিত্বে কল্যাণ সভা জানুয়ারী ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম, বিপিএম-সেবা, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান বিপিএম, পিপিএম (বার), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ, সকল উপ-পুলিশ কমিশনার, অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার, সহকারী পুলিশ কমিশনার, সকল থানার অফিসার ইনচার্জ সহ বিভিন্ন স্তরের পুলিশ সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় কমিশনার বিভিন্ন স্তরের পুলিশ সদস্যদের সমস্যার কথা শুনেন এবং তাৎক্ষনিক সমাধানের ব্যবস্থা করেন। সভায় সিএমপির সেবা তহবিল হতে ৩৪ জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফদেরকে নগদ ১০ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা প্রদান করেন। পুলিশ কমিশনার সদ্য বিদায়ী পুলিশ সদস্য জুলকু মিয়ার হাতে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে বিদায়ী সম্মাননা স্মারক ও উপহার সামগ্রী তুলে দেন।
লালদীঘিতে শেখ হাসিনার সভায় গুলিতে ২৪ জনকে হত্যায় পাঁচ জনের মৃত্যুদণ্ড
২০জানুয়ারী,সোমবার,আদালত প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: তিন দশক আগে চট্টগ্রামের লালদীঘি মাঠে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জনসভার আগে গুলি চালিয়ে ২৪ জনকে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। সোমবার বিকালে চট্টগ্রামের বিশেষ জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল হোসেন চার আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডিতরা হলেন- চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কোতোয়ালি অঞ্চলের তৎকালীন পেট্রোল ইনসপেক্টর জে সি মণ্ডল, কন্সটেবল মোস্তাফিজুর রহমান, প্রদীপ বড়ুয়া, শাহ মো. আবদুল্লাহ ও মমতাজ উদ্দিন। প্রথম জন পলাতক আছেন। এছাড়া বিপজ্জনক অস্ত্র দিয়ে গুরুতর আঘাত সৃষ্টির দায়ে দণ্ডবিধির ৩২৬ ধারায় পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারক। ১৯৮৮ সালের ২৪ জানুয়ারি বন্দরনগরীর লালদীঘি মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভার দিন বেলা ১টার দিকে শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রাক আদালত ভবনের দিকে এগোলে নির্বিচার গুলি ছোড়া শুরু হয়। আইনজীবীরা আওয়ামী লীগ সভানেত্রীকে ঘিরে মানববেষ্টনি তৈরি করে তাকে নিরাপদে আইনজীবী সমিতি ভবনে নিয়ে যাওয়ায় তিনি রক্ষা পান। ওই ঘটনায় মো. হাসান মুরাদ, মহিউদ্দিন শামীম, স্বপন কুমার বিশ্বাস, এথলেবার্ট গোমেজ কিশোর, স্বপন চৌধুরী, অজিত সরকার, রমেশ বৈদ্য, বদরুল আলম, ডি কে চৌধুরী, সাজ্জাদ হোসেন, আব্দুল মান্নান, সবুজ হোসেন, কামাল হোসেন, বি কে দাশ, পঙ্কজ বৈদ্য, বাহার উদ্দিন, চান্দ মিয়া, সমর দত্ত, হাসেম মিয়া, মো. কাসেম, পলাশ দত্ত, আব্দুল কুদ্দুস, গোবিন্দ দাশ ও শাহাদাত হোসেন নিহত হন। নিহতদের কারও লাশ পরিবারকে নিতে দেয়নি স্বৈরশাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সরকার; সবাইকে বলুয়ার দীঘি শ্মশানে পুড়িয়ে ফেলা হয়। এরশাদের পতনের পর ১৯৯২ সালের ৫ মার্চ আইনজীবী মো. শহীদুল হুদা বাদী হয়ে এঘটনায় মামলা দায়ের করলেও বিএনপি সরকারের সময়ে মামলার কার্যক্রম এগোয়নি। এরশাদের পতনের পর ১৯৯২ সালের ৫ মার্চ আইনজীবী মো. শহীদুল হুদা বাদী হয়ে এঘটনায় মামলা দায়ের করলেও বিএনপি সরকারের সময়ে মামলার কার্যক্রম এগোয়নি। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর মামলাটি পুনরুজ্জীবিত হয়। দুই দফা তদন্ত শেষে ১৯৯৮ সালের ৩ নভেম্বর আট পুলিশ সদস্যকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় সিআইডি। অভিযোগপত্রভুক্ত আসামিদের মধ্যে পাঁচজন এখন জীবিত আছেন। মৃত আসামিরা হলেন- সিএমপির কমিশনার মীর্জা রকিবুল হুদা এবং কনস্টেবল আব্দুস সালাম ও বশির উদ্দিন। মামলায় ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, শেফালী সরকার, সাংবাদিক অঞ্জন কুমার সেন ও হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, সুভাষ চন্দ্র লালা, অশোক কুমার বিশ্বাস, হাসনা বানু, মাঈনুদ্দিন, আবু সৈয়দ এবং অশোক বিশ্বাস অন্যদের মধ্যে সাক্ষ্য দেন। গত ১৪ জানুয়ারি ৫৩তম সাক্ষী আইনজীবী শম্ভুনাথ নন্দীর সাক্ষ্য দেওয়ার মধ্য দিয়ে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। ওইদিন আদালত যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য ১৯ জানুয়ারি দিন ঠিক করেন। রোববার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী যুক্তি উপস্থাপন শেষে পাঁচ আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন। পরে আদালত আসামি পক্ষে যুক্তি উপস্থাপনের জন্য সোমবার দিন রেখেছিলেন। কিন্তু আসামিপক্ষ যুক্তি উপস্থাপন না করায় এদিনই আদালত রায় ঘোষণা করেন।
শিক্ষার্থীদের মূল্যবোধ ও নৈতিকশিক্ষা দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ
২০জানুয়ারী,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মূল্যবোধ ও নৈতিকশিক্ষা দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি গতকাল রবিবার সকালে টায়গারপাসস্থ চসিক সম্মেলন কক্ষে চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন। এ সময় কাউন্সিলর গোলাম হায়দার মিন্টু, মোঃ আজম, মোঃ আবুল হাসেম, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল সোহেল আহমদ, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়য়া, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আবুল হাসেম, লামা বাজার এস এ সিটি কর্পোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহাদাত হোসেন মাহমুদ, অভিভাবক সদস্য জাহেদ রাজা, সদস্য শেলী আকতার, শিক্ষক প্রতিনিধি নুরুল কবির, আতিক উল্লাহ চৌধুরী, গোলজার বেগম সিটি কর্পোরেশন মুসলিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি মো. খসরু হোসেন, মো. আজজুল হক, রোকসানা আকতার, শিক্ষক প্রতিনিধি রশ্নি আকতার, আমাত হোসেন, প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল্লাহ, কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন মহিল কলেজের অধ্যক্ষ ও সদস্য সচিব মনোয়ার জাহান বেগম, মো. ইব্রাহিম, মাওশি এস এম শহিদুল ইসলাম, অভিভাবক প্রতিনিধি সদস্য মো. আবুল কালাম, হাজী মো. মুসা, বিনা মল্লিক, শিক্ষক প্রতিনিধি সদস্য নুর বানু চৌধুরী, সমিরন কুমার শীল, এনামুল হক, পূর্ব বাকলিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ ও সদস্য সচিব মো. আবু তালেব আবদুল করিম, অভিভাবক সদস্য কাজী শাহিনা সুলতানা, শিক্ষক প্রতিনিধি চিত্রা চন্দ, মো. আসিফুর রহমান ফারুকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় সিটি মেয়র বলেন, চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের ফলাফল শিক্ষাবোর্ডের ফলালের দিক থেকে পাশের হার বেশি হলেও মানের দিক থেকে এখনো পিছিয়ে আছে। শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষকদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। শিক্ষকরা যদি তাদের দায়িত্বের প্রতি অনুগত থেকে নিষ্ঠার সাথে কাজ করেন তাহলে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে। শিক্ষকরাই পারে শিক্ষার্থীদের কাউন্সিলিং করে সঠিক গাইডলাইন্সের মাধ্যমে তাদের গড়ে তুলতে। সিটি মেয়র আরো বলেন শিক্ষকতা পেশাটি একটি মহৎ ও মহান পেশা। সবচেয়ে সম্মানজনক পেশা হল এই পেশা। সমাজে শিক্ষকের মর্যাদা অনেক উপরে। সে মহৎ ও সম্মানজনক পেশাকে অক্ষুন্ন রাখতে প্রতিষ্ঠান প্রধান,শিক্ষক ও অভিভাবক সমন্বয়ে শিক্ষার মানোন্নয়নে আন্তরিকতা সাথে কাজ করার আহবান জানান মেয়র। তিনি বলেন একজন শিক্ষার্থী জীবনে নৈতিক শিক্ষার প্রভাব খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে।এ প্রজম্মের শিক্ষার্থীরা যাতে বিপদগামী না হয়,ভাল আর মন্দের মধ্যে পার্থক্য বুঝতে পারে,তারা যেন আগামী দিনের সুনাগরিক হিসেবে তৈরী হতে পারে সেজন্য নৈতিকশিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে পথপ্রদর্শক হিসেবে শিক্ষকদের কার্যকরী ভূমিকা রাখার প্রতি তাগিদদেন মেয়র। মেয়র পরিচালনা কমিটির সকলকে সততা, আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মান উন্নোয়ন ও প্রসার,সুনাম-সুখ্যাতি বৃদ্ধি জন্য নিরলসভাবে দায়িত্ব পালন করার আহবান জানান। সভার শুরুতে ম্যানেজিং কমিটি ও গভর্নিং বডির সদস্যরা মেয়রকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর