রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবেই মানবাধিকার পরিস্থিতির অবনতি
১৬অক্টোবর,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে অধিকারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বক্তারা বলেছেন, মানুষের রাজনৈতিক ও নাগরিক অধিকার নিয়ে করে আসছে মানবাধিকার সংগঠন অধিকার। অধিকার ১৯৯৪ সালে ১০ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির উপর অধিকার সংগঠন প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে বিগত ২৫ ধরে কাজ করে আসছে। রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গুম-ক্রসফায়ার টর্চার সহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কাজ করতে গিয়ে সরকারের রোষানলে পড়ে। অধিকার শীর্ষ কর্মকর্তারা বিভিন্ন ভাবে জেল-জুলুম হয়রানির শিকার হয়ে আসছে। সংগঠনটি তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে অধিকার কর্মীরা বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছে। অধিকারের ২৫ বছর উদযাপনের সভা বক্তারা বলেছেন, অধিকারের মতো মানবাধিকার সংগঠনগুলোকে প্রতিপক্ষ মনে না করে জনাধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। তাতে সমাজ রাষ্ট্র আরো একধাপ এগিয়ে যাবে, মানবতার উন্নয়নে মানবাধিকার সংগঠনদেরকে বাঁধা দিলে কখনো মানবাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে না। সাংবিধানিকভাবে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় যেসব ধারা উলেখ আছে, বিগত সরকার গুলো এসব ধারাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে মানবাধিকার লংঘন করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সংবিধানের ১১ অনুচ্ছেদে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের কথা বলা হয়েছে দেশে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের চরম সংকটের মধ্য দিয়ে চলছে। রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবে আজ গণতন্ত্র মানবাধিকার চরম লংঘন হচ্ছে। সহনশীল সংসদীয় গণতন্ত্রের কথা বলা হলেও নব্বইয়ের পর থেকে সঠিকভাবে সংসদীয় কোন চর্চা হয়নি। অধিকার-এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভা চট্টগ্রাম নগরীর চেরাগী পাহাড়স্থ সুপ্রভাত স্টুডিও হলে অনুষ্ঠিত হয়। অধিকারে ডিফেন্ডার আব্দুল;াহ মজুমদারের সভাপতিত্বে ওচমান জাহাঙ্গীরের সঞ্চালনায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি মাহমুদুল হাসান নিজামী, আনন্দবোধি ভিক্ষু, কাজী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, ডাঃ জামাল উদ্দীন, সাংবাদিক রোকন উদ্দিন, কমল বড়ুয়া প্রমূখ।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ কেনো সেরা?
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,মো:ইরফান চৌধুরী,চট্টগ্রাম: দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাটি কেনো সেরা পত্রিকা জানেন? আসুন জেনে নেই। বর্তমান সময়ে গনমাধ্যম জগতে প্রিন্ট মিডিয়ার যে ক্রান্তিকাল চলছে তাতে সামান্য সময়ের মধ্যে পাঠকদের আস্থা অর্জন করে দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাটি এগিয়ে গেছে অনেক দূর। পত্রিকাটি প্রকাশনা শুরুর সাথে সাথে ৮ম ওয়েজ বোর্ড অতিক্রম করে সাংবাদিকদের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি পত্রিকাটি পাঠক সমাজেও চাহিদা মেটাতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলায় রয়েছে উক্ত পত্রিকার অসংখ্য প্রতিনিধি,তারা নিরলসভাবে কাজ করে পাঠকদের চাহিদা অনুযায়ী সংবাদ পরিবেশন করে আসছে। আট পাতার পত্রিকাটির মূল্য ৫ টাকা হলেও পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ গুলো যুগপোযোগী এবং বাস্তব সম্মত। বিনোদন ও খেলাধুলার পাতা চার রঙ্গে রঙ্গিন হয়ে পাঠকদের দৃষ্টি আকর্ষন করে অনবরত ১৩ অক্টোবর পত্রিকাটির ৩য় বর্ষ পূর্তি পালন করা হয় এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। দেশের গুনী জনদের সাথে উক্ত পত্রিকার প্রতিনিধিগন উপস্থিত থেকে পত্রিকার বর্ষপুর্তি অনুষ্ঠানকে আরো আনন্দময় করে তুলেন। পত্রিকাটির প্রিন্ট এর পাশাপাশি রয়েছে অনলাইন ভার্সনও। তথ্য প্রযুক্তির যুগে স্যোশাল মিডিয়াতে উক্ত পত্রিকা এগিয়ে রয়েছেন অনেকাংশে। বর্তমানে প্রিন্ট ও স্যোশাল মিডিয়াতে যত পত্রিকা রয়েছে তার মধ্যে আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকাই সেরা।
চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধন
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশরত্ন জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে দেশে শুদ্ধি অভিযান চলছে। অভিযানের নির্দেশনা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত ও ঢাকার পর চট্টগ্রামে অভিযান জোরদার করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরাম ও বাংলাদেশ টেন্ডার-চাঁদাবাজ দুর্নীতি ও মাদক প্রতিরোধ কমিটিসহ একাধিক সংগঠনের উদ্যোগে ১২ অক্টোবর বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সম্মুখে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, সারা বিশ্বের নির্যাতিত নিষ্পেষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন অন্যায়, অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করে গেছেন। তিনি কখনোও অন্যায়ের কাছে মাথানত করেননি। আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দেশের দায়িত্ব নিয়ে অসীম সাহসের সাথে মেধা মনন দিয়ে দেশের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। মানববন্ধনে প্রতিনিধিত্ব করে চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরাম। সংহতি প্রকাশ করেন, বঙ্গবন্ধু মানবকল্যাণ পরিষদ, বাংলাদেশ জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগ, চট্টগ্রাম গ্যাস বিদ্যুৎ পানি গ্রাহক কল্যাণ পরিষদ। বাংলাদেশ টেন্ডার-চাঁদাবাজ দুর্নীতি ও মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি রাজনীতিবীদ মো: আজাদ দোভাষের সভাপতিত্তে মানববন্ধন সভায় সংগঠনের মহাসচিব সাংবাদিক মো. কামাল উদ্দিন এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম আবাহনী ক্লাবের উদ্যোক্তা ও সাধারণ সম্পাদক চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম চৌধুরী, ন্যাফ এর কেন্দ্রীয় নেতা মৃদুল দাশগুপ্ত, নিজাম উদ্দিন আশ্রাফি। সর্বশ্রেনীর ব্যক্তিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএডাব্লিউটিএর সভাপতি মো: আবদুছ ছবুর খান, বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদ সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন, সংগীত শিল্পী অচিন্ত্য কুমার দাশ, শ্রমিকলীগ নেতা হাবিবুর রহমান, মোস্তফা তালুকদার, মো: শওকত হোসেন, মো: মহসীন, ডিজি বিপ্লব, মোর্শেদ কাদেরী, সমীরন পাল, জান্নাতুল ফেরদৌস, মো: নাদিম, নার্গিস আক্তার নিরা, মোহাং আয়াজ মিয়া, মো: সোহেল, মো: সফি উদ্দিন, মো: আসগর প্রমুখ।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে বিদায় অনুষ্ঠান
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্রাজুয়েট শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারস ইনস্টিটিউটর(আইইবি) অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। প্রো-ভিসি ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা। আরও উপস্থিত ছিলেন উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর সরওয়ার জাহান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উপদেষ্টা প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. ইসরাত জাহান, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও উপদেষ্টা, রেজিস্ট্রার, সাংবাদিক, আমন্ত্রিত অতিথি ও শিক্ষকবৃন্দসহ শিক্ষার্থীরা।প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা বলেন, ইউনিভার্সিটির কাজ হচ্ছে শিক্ষা ও গবেষণা তাই সাদার্ন গবেষণাধর্মী শিক্ষাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। সাদার্ন এর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের গবেষণা প্রবন্ধ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জার্নালে নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে যা ইতোমধ্যে বেশ প্রশংসা পেয়েছে এবং বিভিন্ন সেক্টরে কাজে লাগানো হচ্ছে। নিয়মিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন করছে সাদার্ন। ইতোমধ্যে বিভিন্ন বিভাগের উদ্যোগে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে অনেকগুলো আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাদার্ন ইউনিভার্সিটির আটটি বিভাগ ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাংক ও ইউজিসির আইকিউএসি হেকেপ প্রজেক্টের পিয়ার রিভিউতে খুব প্রশংসীয় মার্ক অর্জন করেছে। প্রফেসর সরওয়ার জাহান বলেন, সুশৃংখল বিভাগ হিসেবে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ইতোমধ্যে পরিচিত লাভ করেছে, সমৃদ্ধ বিভাগগুলোর মধ্যে এই বিভাগটি অন্যতম। আইইবির Ranking এ বিভাগটির অবস্থান ষষ্ঠ। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ যোগ্যতাবলে আইইবির অ্যাক্রেডিটেশন পেয়েছে। প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক বলেন, জীবনে ইঞ্জিনিয়ার হতে পারলে কি না সেটা বড় কথা নয় বরং ভালো মানুষ হয়েছো কি না সেটা চিন্তা করবে। পরে আমন্ত্রিত অতিথিরা সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রকাশনা ম্যাগাজিন অ্যাংকর-২০১৯ এর মোড়ক উন্মোচন করেন। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র মাহাদী হাসানের অকাল মৃত্যুতে উপস্থিত সকলে দাঁিড়য়ে শোক প্রকাশ ও মোনাজাতে মাগফেরাত কামনা করেন । অনুষ্ঠানের সভাপতি প্রো-ভিসি প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফ উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীাত ভোজের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতার সমাপ্তি হয়।
দুদকের গণশুনানিতে বেশিরভাগ অভিযোগ ছিল প্রকৌশল ও রাজস্ব বিভাগের বিরুদ্ধে
১৪অক্টোবর,সোমবার,সুজন আর্চায্য চট্টগ্রাম, একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে দুর্নীতিদমন কমিশন দুদকের গণশুনানিতে অভিযোগকারীদের বেশিরভাগই ছিলো অনুপস্থিত।সোমবার সকাল ১০টা থেকে চমেক হাসপাতালের শাহ আলম বীর উত্তম মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে শুরু হলেও মূল অনুষ্ঠান শুরু হয় ১১টায়।অনুষ্ঠান শুরু হলেও লিখিতভাবে (অভিযোগ দেওয়া) অভিযোগকারীরা প্রায়ই অনুপস্থিত। শুনানি চলাকালে বেশিরভাগ অভিযোগ ছিল প্রকৌশল ও রাজস্ব বিভাগের বিরুদ্ধে।এছাড়া আগ্রাবাদ এলাকার মাহবুবুল আলম নামের একজন পরিচ্ছন্ন কর্মীকে ১০ লক্ষ টাকা ও জাল সার্টিফিকেটের মাধ্যমে পদোন্নতির অভিযোগ উঠে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে।বিষয়টি সিটি মেয়র আজম নাছির উদ্দীনকে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন দুদক কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম।
২ দিন ব্যাপী মাইজভান্ডার দরবার শরীফে বাবা ভান্ডারীর ১৫৭ তম খোশরোজ শরীফ শুরু
১৪অক্টোবর,সোমবার,সজল চক্রবর্তী,ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম: মাইজভান্ডার দরবার শরীফের আধ্যাতিক সাধক, আওলাদে রাসূল (স:) ত্বরিকায়ে মাইজভান্ডারীয়ার পূর্ণতাদানকারী হযরত গাউছুল আজম সৈয়্যদেনা শাহছুফি মাওলানা সৈয়দ গোলামুর রহমান আল-হাচানী আল মাইজভান্ডারী প্রকাশ বাবা ভান্ডারীর (ক:)র ১৫৭ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ রবিবার ও সোমবার (১৩ - ১৪ অক্টোবর) থেকে ২ দিন ব্যাপী চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার মাইজভান্ডার দরবার শরীফের গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের উদ্্েযাগে মহা সমারোহে শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে গাউছিয়া রহমান মঞ্জিল , আশেকানে মাইজভান্ডারী এসোসিয়েশন ও বাবা ভান্ডারী পরিষদের পক্ষে ব্যাপক কর্মসূচী পালন গ্রহন করেছে। খোশরোজ শরীফ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ, গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের ও আশেকানে মাইজভান্ডারী এসোসিয়েশন স্বেচ্ছা সেবকবৃন্দ আইন শৃংখলা রক্ষার্থে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করেছে। শনিবার সন্ধ্যা হতে দেশ-বিদেশের লাখো আশেকান ও ভক্তবৃন্দ বিভিন্ন যানবাহন যোগে দরবারে এসে উপস্থিত হতে দেখা যায়। আগত ভক্ত ও আশেকানরা মাইজভান্ডার এসে গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের বর্তমান সাজ্জাদানশীন শাহ ছূফি মাওলানা ছৈয়দ মুজিবুল বশর আল-হাছানী আল-মাইজভান্ডারী (ম:জি:আ:) সারিবদ্ধভাবে সাজ্জাদানশীনদের সাথে পূর্ব বাড়ীতে সাক্ষাত করে দোয়া কামনা করতে দীর্ঘ লাইনে ধীরে ধীরে এগুতে থাকে। ভক্তরা মাইজভান্ডার শরীফের সকল রওজায় জেয়ারতের মাধ্যমে নিজ নিজ মনোবাসনা পূরনের জন্য কোরআন তেলোয়াত, জিকির আজকার করে মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে ফরিয়াদে মশগুল থাকবে। খোশরোজ শরীফের প্রধান দিবসে লাখো ভক্তের মিলন ঘটবে । খোশরোজ শরীফের প্রধান দিবস সোমবার ১৪ অক্টোবর রাতে আলোচনা সভা শেষে মিলাদ মাহফিল ও জিকির শেষে বিশ্বের সকল উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করবেন, বর্তমান সাজ্জাদানশীন শাহ ছূফি মাওলানা ছৈয়দ মুজিবুল বশর আল-হাছানী আল-মাইজভান্ডারী (ম:জি:আ:)। এদিকে খোশরোজ শরীফ উপলক্ষে বাবা ভান্ডারীর রওজাসহ মাইজভান্ডার এলাকায় ব্যাপক আলোকসজ্জা ও তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষার্থে নাজিরহাট- মাইজভান্ডার সড়ক সহ এলাকা জুড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এব্যাপারে, জানতে চাইলে থানার ওসি মুহাম্মদ বাবুল আকতার বলেন, খোশরোজ শরীফ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে গুরুত্ব পূর্ণ স্থানে পুলিশ ক্যাম্প ও টহলের ব্যবস্থা রয়েছে যানজট নিরসনের জন্য থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ সর্বাক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবে।
সত্যের পক্ষে যারা অবস্থান নেবে না তারাও অপরাধী
১৪অক্টোবর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, প্রবারণা পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মের বড় ধর্মীয় উৎসব। গৌতম বুদ্ধের শিক্ষা হচ্ছে দু:খ ও মুক্তির কঠিন সাধনায় সব ধরনের বাধা দূর করা। খসরু বলেন, সত্য ও শান্তির পক্ষে যারা অবস্থান নেবে না তারাও অপরাধী। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ সকল ধর্মের অধিকার নিশ্চিত করে। বিএনপি সকল ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি গতকাল সন্ধ্যায় কাতালগঞ্জ নব পন্ডিত বৌদ্ধ বিহারে প্রবারণা পূর্ণিমার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। প্রধান বক্তা মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, প্রবারণা পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব। সকল ধর্মের মর্মবাণী হচ্ছে- সত্য ও ন্যায়ের পথ অনুসরণ করা। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। কাতালগঞ্জ নব পন্ডিত বৌদ্ধ বিহারের উপানন্দ্র মহাথেরোর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী বৌদ্ধ ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক অধ্যাপক ঝন্টু বড়ুয়ার পরিচালনায় এতে আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এম এ আজিজ, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, সামশুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, কোতোয়ালী থানার সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরী মঞ্জু, নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান, চকবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নূর হোসেন, নগর যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি মো. মহসিন, থানা বিএনপির সংগঠনিক সম্পাদক খায়রুজ্জামান জুনু, নগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মনজুর আলম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিম বাবলু, বৌদ্ধ নেতা ড. পরিতোষ বড়ুয়া, দিবাকর বড়ুয়া, রুবেল বড়ুয়া, বাপ্পি বড়ুয়া প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রাম আদালতে দ্রুত মামলা নিস্পতিতে সন্তোষ প্রকাশ
১৪অক্টোবর,সোমবার,সুজন আর্চায্য চট্টগ্রাম, একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্রুত মামলা নিস্পতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার রুমী বলেন,মেডিকেল রির্পোট ও যথাসময়ে স্বাক্ষীর অনুপস্থিতির কারনে অনেক ক্ষেত্রে মামলা নিস্পত্তিতে দেরী হচ্ছে। সময় মত মেডিকেল রির্পোট (এমসি) ও যথাসময়ে স্বাক্ষীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার জন্য তিনি নির্দেশ প্রদান করেন এবং ইতি মধ্যে নিস্পত্তিকৃত মামলার মালামাল রাষ্ট্রের অনুকুলে দ্রুত বাজেয়াপ্ত করার তাগিদ দেন। এই সময় জেলা পিপি এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বলেন,দ্রুত সময়ে মামলা নিস্পত্তির লক্ষ্যে যথাসময়ে মামলার নথী প্রেরন করা প্রয়োজন।১২ অক্টোবর চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালত ভবনের সম্মেলন কক্ষে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার রুমির সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত উক্ত পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেট কনফারেন্সে অতি:চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: রবিউল আলম,সিনি: জুডিসিয়াল ম্যাজস্ট্রেট কৌশিক আহম্মদ খন্দকার,সিনি: জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০২ মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০১ মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ কাইছার,বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০২ শিবলু কুমার দে,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০৩ জয়ন্তি রাণী রায়,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০৪ জিহান সানজিদা,জুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (বন আদালত) সুস্মিতা আহমেদ,বিদ্যুৎ ম্যাজিস্ট্রেট (উত্তর) কহিনুর আক্তার,দক্ষিন-আইরিন পারভীন,সি: জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট(পটিয়া চৌকি) বিশ্বেশ্বর সিংহ,সি: জুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট(সন্দিপ চৌকি) আকবর হোসেন,সি: জুডিুসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (বাশখাঁলি চৌকি) মাইনুল ইসলাম,চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার - নুরে আলম মিনা, অতি: পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল , অতি: পুলিশ সুপার (দক্ষিন) মোহাম্মদ আফরুহল হক টুটুল , অতি: পুলিশ সুপার (সদর) মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, অতি: পুলিশ সুপার সিতাকুন্ড সার্কেল শম্পা রাণী সাহ পি.পি.এম, অতি: পুলিশ সুপার সাতকানিয়া সার্কেল হাসানুজ্জামান মোল্যা ,এএসপি মীরসরাই সার্কেল মোহাম্মদ ছামসুদ্দিন ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী পি.পি.এম (বার) ,সিভিল সার্জন মো: আজিজুল রহমান,চট্টগ্রাম কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক বাবু সুব্রত চৌধুরী,জেলা পিপি সিরাজুল ইসলাম,সি আইডি ইন্সপেক্টর বাবু দুলন বিশ্বাস,আর ও আই বিজন বড়য়া,RAB-০৭ এর সহকারি পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম,চীফ জুুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চট্টগ্রামের নাজের ও ভারপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো: আবু তাহের এবং চট্টগ্রামের সকল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গন উপস্থিত ছিলেন।
শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক সম্মাননা ২০১৯ পেলেন চট্টগ্রামের হাছিনা আকতার
১৪অক্টোবর,সোমবার,নিউজ চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক সম্মাননা ২০১৯ পেয়েছেন মোছাম্মৎ হাছিনা আকতার। রোববার (১৩ অক্টোবর) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ্ কামাল তাকে এ সম্মাননা প্রদান করেন। এর আগে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসের এ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।হাছিনা আকতার চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহা গ্রামের মো. রফিক আহমদের কন্যা। হাছিনা আকতার ১৯৯৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সিপিপিতে যোগদান করে অদ্যবধি সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সিপিপি ৬ নস্বর ইউনিটের ইউনিট লিডার। ১৯৯৮ সালে তিনি ইসলামীয়া ডিগ্রি কলেজ থেকে বিএ ( স্নাকত) পাশ করেছেন।এছাড়া তিনি ইউ, এস, এ আইডি এর সহযোগীতায় পরিচালিত প্রটেক্টিং হিউম্যান রাইটস (পিএইচ আর), সমাজিক সুরক্ষা দল ও ঘাসফুল : পি এইচ আর : এ ( নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কার্যক্রম) এবং বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পরিসদ ও স্মৃতি পাঠাগার বাংলাদেশ এর সদস্য।তিনি কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহা এস এ কাদের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি পটিয়া উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জননী। তার স্বামী আনোয়ার হোসেন একজন ব্যবসায়ী। তিনি একাধারে একজন সামাজিক নারী, আদর্শ শিক্ষক, একজন মা ও ২০১৯ সালের সেরা স্বেচ্ছাসেবক।তিনি নগর বিশেষ শাখার ইন্সপেক্টর মর্জিনা আকতার ও নগরের ডবলমুরিং থানার সাব ইন্সপেক্টর মো. ইমরান এর বড় বোন। উল্লেখ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধিনে সিপিপির উপকূলীয় ৪১টি উপজেলার ১ জন পুরুষ ও ১ জন মহিলা হিসেবে মোট ৮২ জনকে শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক পুরস্কার প্রদান করেছেন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর