কন্যা সন্তানের পেছনে বিনিয়োগ মানে শ্রেষ্ঠ ভবিষ্যতের পেছনে বিনিয়োগ
১২অক্টোবর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস-১৯ উদযাপন উপলক্ষে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন একটি আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ইউনিভার্সিটির স্টুডেন্ট গভর্নমেন্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিমা আবদুল্লাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এইউডব্লিও রেজিস্ট্রার ড. ডেভ ডোল্যান্ড। প্রধান আলোচক ছিলেন ইউনিসেফ বাংলাদেশ চট্টগ্রাম বিভাগের ফিল্ড অফিস প্রধান মাধুরী ব্যানার্জী। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, সবার সমান অধিকার নিশ্চিত করতে মেয়েদের জন্য বিনিয়োগ করতে হবে। কেননা মেয়েদের জন্য বিনিয়োগ মানে একটি ভাল ও শ্রেষ্ঠ ভবিষ্যতের পেছনে বিনিয়োগ করা। এরপর এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের প্রাক্তন ছাত্রী ও বর্তমানে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে কর্মরত অক্সফামের সিনিয়র পাবলিক হেলথ প্রমোশন অফিসার মৌরি রহমান রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাল্য বিবাহের ঝুঁকি ও ভয়াবহতা সম্পর্কে তুলে ধরেন। জাতিসংঘ ২০১২ সাল থেকে ১১ অক্টোবরকে আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ছিল কন্যা শিশুর অগ্রযাত্রা, দেশের জন্য নতুন মাত্রা। এরই ভিত্তিতে কন্যা সন্তানদের বাল্য বিবাহ শীর্ষক একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের শিক্ষার্থী শ্রাবস্তী রায় নাথ। উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়শা খান, ইনার হুইল ক্লাব চট্টগ্রামের প্রেসিডেন্ট প্রফেসর রেহেনা আলম খান, ইউসেপ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান পারভীন মাহমুদ এফসিএ এবং এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শেহরিন শাহজাহান নাওমী। আলোচনায় প্রফেসর রেহেনা আলম খান অল্প বয়সী মেয়েদের বাল্য বিবাহের কারণে তাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের ঝুঁকির ভয়াবহতা সম্পর্কে আলোকপাত করেন। পারভীন মাহমুদ তার বক্তব্যে বাল্যবিবাহের অন্যতম কারণ দারিদ্র্যতার ভূমিকা নিয়ে কথা বলেন। পাশাপাশি নারীর ক্ষমতায়নে অন্যতম পাথেয় হিসেবে কর্মমুখী শিক্ষার উপর জোরারোপ করেন। অধ্যাপক শেহরিন শাহজাহান নাওমী তার বক্তব্যে বাল বিবাহ প্রতিরোধে সবার অভ্যাসগত পরিবর্তনে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। সাংসদ ওয়াসিকা আয়শা খান বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকারের গৃহিত বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে তুলে ধরেন। বিশেষ করে শিশু সুরক্ষা ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে ১০৯ ও ৯৯৯ হেল্প লাইনের ভূমিকা সম্পর্কে সবাইকে অবগত করেন। তিনি বলেন, মেয়ে সন্তানদের গুরুত্ব আগে পরিবারকে অনুধাবন করতে হবে, তারপর সমাজ এবং দেশ করবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
নির্যাতন থেকে কন্যাশিশুদের রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে:
১২অক্টোবর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাবেক সংসদ সদস্য ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চেমন আরা বলেছেন, শিশুদের নিরাপত্তার দায়িত্ব পরিবারের, সমাজের, রাষ্ট্রের ও সকলের। বিভিন্ন কারণে কন্যাশিশুরা ধর্ষণ, নির্যাতন ও ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে। পারিবারিক অসচেতনতার কারণে অনেক শিশু শিক্ষার আলো ও তাদের অন্যান্য ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ১৮ বছরের নিচে বাল্য বিবাহের কারণে অনেক কন্যাশিশু অকালে ঝরে পড়ছে। ডিভোর্সের শিকার হচ্ছে অসংখ্য নারী। গতকাল ১১ অক্টোবর সকাল ১০টায় আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলা শিশু একাডেমি আয়োজিত শিশু সমাবেশ, চিত্র প্রদর্শনী, নাটক ও মুক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর এসব কিছু বিবেচনায় এনে শিশুদের কল্যাণ, নারীর ক্ষমতায়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসহ বহুমুখী উন্নয়নে কাজ করে চলেছেন। মেয়েদের অধিকার মেয়েদেরকেই আদায় করে নিতে হবে। অধিকার আদায় করতে গিয়ে উচ্ছৃঙ্খলতা নয়, সমন্বয়ের মাধ্যমে করতে হবে। কন্যাশিশু কোথায় যাচ্ছে, কি করছে, কোনো ধরনের নির্যাতনের শিকার হচ্ছে কিনা, কারো কুপ্রস্তাবে সাড়া দিচ্ছে কিনা কিংবা কেউ কোনো ধরনের লোভ দেখিয়ে ফুসলিয়ে কন্যাশিশুকে অনৈতিক কাজে নিচ্ছে কিনা তা পিতা-মাতা ও পরিবারের সদস্যদের সবসময় সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। কন্যাশিশুদের সুরক্ষা ও তাদের প্রাপ্য অধিকার থেকে যাতে বঞ্চিত না হয় সে বিষয়ে সকল অভিভাবক ও শিক্ষকদের সচেতন হতে হবে। বাল্য বিবাহ রোধসহ নানামুখী নির্যাতন থেকে কন্যাশিশুদের রক্ষায় সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে- ‘কন্যা শিশুর অগ্রযাত্রা, দেশের জন্য নতুন মাত্রা।’ অনুষ্ঠানের সহযোগিতায় ছিল জেলা প্রশাসন, ইউনিসেফ ও ঘাসফুল। শিশু একাডেমির জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা নারগীস সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ দিপীকা দে, ঘাসফুলের কো-অর্ডিনেটর যোবায়ের রশীদ, অবসর সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সভাপতি সঞ্জিত আলম। বক্তব্য রাখেন, শিশু প্রতিনিধি মিফতাহুল জান্নাত জেবা। অনুষ্ঠানের শুরুতে ফিতা কেটে কন্যাশিশুদের আঁকা চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন শেষে প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন প্রধান অতিথি। সবশেষে শিশুদের নৃত্য ও নাটক মঞ্চস্থ হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজির সাথে বৌদ্ধ নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমেই অসামপ্রদায়িক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও সমাজের বিশৃঙ্খলা দূর করা সম্ভব। সমাজের গুটিকয়েক বিপথগামী মানুষের জন্যই সমাজ তথা দেশ আজ দ্বিধা বিভক্ত। সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে সমাজ উন্নয়নে কাজ করতে হবে। এজন্য সমন্বিত প্রচেষ্টার কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় শিক্ষাখাতকে বিশ্বের দরবারে উচ্চস্থানে নিয়ে যেতে কাজ করে যাচ্ছে। উন্নয়নশীল দেশ গঠনে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। তিনি গত ৭ অক্টোবর বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগরীর উদ্যোগে নগরীর প্রধান পূজামণ্ডপ জেএম সেন হলে শারদীয়া দুর্গোৎসবের মহানবমীতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। পরিষদের সভাপতি এডভোকেট চন্দন তালুকদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এডভোকেট আবুল হাশেম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহাজাদা মহিউদ্দিন, চসিক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, পরিষদের সাবেক সভাপতি সাধন ধর, লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবক ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শিবু প্রসাদ দত্ত, পরিষদের সহ-সভাপতি লায়ন দুলাল চন্দ্র দে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত , কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী । পরিষদের সিনিয়র সদস্য পুলক খাস্তগীর ও দোলন দেব এর যৌথ সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অর্পন কান্তি ব্যানার্জী, যুগ্ম সম্পাদক হিল্লোল সেন উজ্জ্বল, মিথুন মল্লিক, এড. নটু চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সজল দত্ত, সিনিয়র সদস্য নিখিল ঘোষ, সাধন সিংহ, সাংবাদিক প্রদীপ শীল, পরিষদ কর্মকর্তা বিপ্লব সেন, সুকান্ত মহাজন টুটুল, এড. তপন কুমার দাশ, চন্দন কুমার পালিত, অঞ্জন দত্ত, পিন্টু দত্ত তমাল, রাহুল দাশ, সৌরেন দত্ত, স্ট্যালিন দে, অরুন রশ্মি দত্ত, প্রিয়তোষ ঘোষ রতন, সুভাষ বিশ্বাস, বিশ্বজিত রায়, সঞ্জয়িতা দত্ত পিংকি, নারায়ণ সিংহ, প্রসেনজিৎ সরকার, অশোক দেব লিটন, যীশু তালুকদার, তাপস দে, অজয় চৌধুরী সাজু, অমিত ঘোষ, সুব্রত শীল রাজু, রাজন দাশ, অসিক দত্ত, জয় চৌধুরী, বিবেক দেব, দীপ্ত সিংহ, রিপন রায় চৌধুরী, শুভজিত দাশ, কুশন সেন, অয়ন ধর প্রমুখ। রাতে দীপংকর দেবনাথ ও রাজেশ বিশ্বাসের পরিচালনায় মনোজ্ঞ সঙ্গীত পরিবেশন করেন বেতার ও টিভি শিল্পী আলাউদ্দিন তাহের, প্রেমসুন্দর বৈষ্ণব, নীলিমা বিশ্বাস, প্রিয়া চক্রবর্তী। পুঁথি পরিবেশন করেন কবিয়াল কল্পতরু ভট্টাচার্য্য। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছি : কামরুন মালেক
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: অক্টোবর সেবা মাস উপলক্ষে লায়ন্স ক্লাব অব চট্টগ্রাম প্লাটিনামের উদ্যোগে হালিশহরস্থ মোল্লাপাড়া আব্দুল হামিদ সরকার হামিউস সুন্নাহ মাদ্রাসা ও এতিমখানায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়। ক্লাব সভাপতি লায়ন এম এ কাশেমের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন জেলা গভর্নর কামরুন মালেক। প্রধান অতিথি বলেন, সমাজের কম সৌভাগ্যবান মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য আমরা দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছি। বিশ্ব লায়ন দিবসে এতিম ও অসহায় শিশুদের পাশে দাঁড়াতে পেরে আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। তিনি আরো বলেন যারা এতিম শিশুদের নিয়ে কাজ করেন তারা ইহকাল ও পরকাল দুটোরই সওয়াবের ভাগীদার হবেন। এজন্য তিনি প্লাটিনাম লায়ন্স ক্লাবের সকল সদস্যদের ধন্যবাদ জানান। তিনি এই মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদেরকে এতিম না ভেবে নিজের ছেলে মেয়ের মত মানুষ করার জন্য মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষকদের পরামর্শ দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন দ্বিতীয় ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন আল সাদাত দোভাষ। ক্লাব কো-অর্ডিনেটর ও রিজিওন চেয়ারপার্সন লায়ন আব্দুল্লাহ আল হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা কেবিনেট সেক্রেটারি লায়ন জি কে লালা, রিজিওন চেয়ারপার্সন (ক্লাব) লায়ন আবু মোর্শেদ, মাদ্রাসা কমিটির সেক্রেটারি সৈয়দ সাইফুল ইসলাম, ক্লাবের চার্টার্ড প্রেসিডেন্ট লায়ন কে এম মাহবুবুর রহমান, মেম্বারশিপ চেয়ারপার্সন লায়ন কামরুল হাসান, ইকবাল খোকন, লায়ন আব্দুল্লাহ আল আহাদ, লায়ন ফরিদ মজুমদার, লায়ন এমডি নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ। এ উপলক্ষে কেক কেটে এতিম শিশুদের খাওয়ানো হয়। কর্মসূচিতে প্রায় ১০০ জন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে চক্ষু পরীক্ষার মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। শেষে মুনাজাত পরিচালনা করেন মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা হারুন-অর-রশিদ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিট শেখায় প্রাতিষ্ঠানিক কাজের কৌশল
০৮অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার লক্ষ্যে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) সেন্টার ফর প্রফেশনাল ডেভলপমেন্ট এন্ড চেইঞ্জ (সিপিডিসি) এর অধীনে পরিচালিত হচ্ছে অ্যাডভান্সড সার্টিফিকেট ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট (এসিএইচআরএম) কোর্স। ইডিইউর সিপিডিসি ও মানবসম্পদ পেশাজীবীদের সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি ফর হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্টের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে কোর্সটি। কোর্সের অংশ হিসেবে সম্প্রতি অংশগ্রহণকারীরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিটে যায় নগরীর সিইপিজেডস্থ মাইডাস সেফটি বাংলাদেশের কারখানা ও কার্যালয়ে। ইডিইউ সেন্টার ফর প্রফেশনাল ডেভলপমেন্ট এন্ড চেইঞ্জ বিভিন্ন ক্ষেত্রে পেশাদারদের দক্ষতা উন্নয়নের জন্য নানান ধরনের শর্ট কোর্স, প্রশিক্ষণ, কর্মশালার আয়োজন করে থাকে। প্রফেশনাল কোর্সের গুরুত্বপূর্ণ একটি লক্ষ্য হলো হাতে-কলমে শিক্ষা। ব্যবহারিক শিক্ষার অংশ হিসেবে বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ারের জন্য সহায়ক ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিজিটের ব্যবস্থা করে আসছে ইডিইউ। একটি প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ কর্মকৌশল ও কার্যক্রম সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বা জ্ঞানকে পরিপূর্ণতা দিতে কোর্স কারিকুলামের অংশ হিসেবে আয়োজন করা হয় এই ভিজিটের। এতে মাইডাস সেফটি বাংলাদেশের মানবসম্পদ বিভাগ, প্রশাসন ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিলেশনস ম্যানেজার অতনু গুপ্ত উক্ত কোম্পানির শ্রমশক্তি, কর্মচারীদের সুবিধাদি, ট্রেড ইউনিয়ন, মানবসম্পদ এবং ব্যবসায়িক কৌশল সম্পর্কে অংশগ্রহণকারীদের সাথে মতবিনিময় করেন। মাইডাস সেফটি বাংলাদেশের জ্যেষ্ঠ মানবসম্পদ কর্মকর্তা সাহাদাত সায়েম ওয়্যারহাউস এবং উৎপাদন ইউনিটসহ কোম্পানির পুরো প্রাঙ্গণ ঘুরিয়ে দেখান। শেষে এক ইন্টারেক্টিভ সেশনে কোম্পানির সামগ্রিক ব্যবসা, এইচআর এবং সিএসআর কার্যক্রমসহ কর্মচারী প্রশিক্ষণ, কর্মচারীদের প্রদেয় সুবিধাদি, অনুপ্রেরণামূলক কর্মকাণ্ড এবং কর্মী টার্নআউট ইত্যাদি বিষয়ের উপর আলোকপাত করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ইম্পেরিয়াল সিটি লায়ন্স ক্লাবের চার্টার নাইট উদযাপন
০৮অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগং ইম্পেরিয়াল সিটির ২৩তম চার্টার নাইট ও সাধারণ সভা গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম লায়ন্স ফাউন্ডেশনের প্রকৃতি কনফারেন্স হলে সভাপতি লায়ন মোস্তফা কামাল জুয়েলের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি লায়ন আব্দুল মতিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে একটি এতিমখানায় ছয়টি ফ্যান, দুজন অসহায় পঙ্গু লোকের মাঝে ২টি ওজন মাপার মেশিন এবং একটি হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন্স জেলার ২য় ভাইস গভর্নর লায়ন আল সাদাত দোভাষ, বিশেষ অতিথি ছিলেন চিফ কো-অর্ডিনেটর ও প্রাক্তন জেলা গভর্নর লায়ন মনজুর আলাম মঞ্জু, ক্যাবিনেট সেক্রেটারি লায়ন গোপাল কৃষ্ণ লালা, জিএমটি লিডার লায়ন জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী, জয়েন্ট ক্যাবিনেট ট্রেজারার লায়ন মুনিরুল কবির, সিনিয়র গভর্নর এডভাইজার লায়ন মো. রোশাঙ্গির, সিনিয়র গভর্নর এডভাইজার লায়ন মো. ইলিয়াস, সিনিয়র গভর্নর এডভাইজার লায়ন জাফর উল্লাহ চৌধুরী, গভর্নর এডভাইজার লায়ন নুরুল আরশাদ চৌধুরী, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন হেডকোয়ার্টার-১ (এডমিন) লায়ন মোহাম্মাদ আলী চৌধুরী, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন হেডকোয়াটার লায়ন শামসুদ্দিন আহামেদ সিদ্দিকি, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন হেডকোয়ার্টার লায়ন মঞ্জুরুল আহাসান চৌধুরী, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন লায়ন মোছলেহ উদ্দিন মনসুর, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন লায়ন এডভোকেট এম নুরুল ইসলাম, রিজিয়ন চেয়ারপার্সন লায়ন শওকত আলী চৌধুরী, জোন চেয়ারপার্সন লায়ন ডা. মেজবাহ উদ্দিন তুহিন, জোন চেয়ারপার্সন লায়ন আসিফ উদ্দিন ভূঁইয়া, ট্রেজারার লায়ন মো. মহিউদ্দিন, জয়েন্ট ট্রেজারার লায়ন তারিকুল আলম, মার্কেটিং কমিউনিকেশন চেয়ারপার্সন লায়ন জামাল হোসেন, প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর লায়ন শাহনেওয়াজ আহামেদ, টেইল টুইস্টার লায়ন জাহেদুল আলম সাকিব, লায়ন আবু রায়হান, লায়ন নাজনিন সুলতানা যূথী, মো. মুরাদ, নূর-ই-আলম সিদ্দিকি, লিও জেলার প্রাক্তন সভাপতি লিও সাইফুল করিম আরিফ, সদ্য প্রাক্তন লিও ক্লাব সভাপতি লিও আরসেল আজিম মোহন, লিও কামরুল হাসান, লিও আহামেদ উল্লাহ পাপন, লিও সব্যসাচী, লিও সৌমেন বড়ুয়া প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ক্লাব তরুণদের মেধা বিকাশে ভূমিকা রাখে
০৭অক্টোবর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটিতে (সিআইইউতে) কেক কেটে আর নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সম্প্রতি যাত্রা শুরু করলো অ্যাকাউন্টিং ক্লাব, সংক্ষেপে সিআইইউএসি। নগরের জামাল খানের সিআইইউ ক্যাম্পাসের অডিটোরিয়ামে এই উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, যে কোনো ক্লাব বা সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণদের সৃজনশীল মেধা বিকাশে বড় ধরণের ভূমিকা রাখে। সততা ও নিষ্ঠা বজায় রেখে অ্যাকাউন্টিং ক্লাব দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়েও সুনাম বয়ে আনবে- এমনটা প্রত্যাশা আমার। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিআইইউ বিজনেস স্কুলের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. আইয়ুব ইসলাম, ডিন ড. মোহাম্মদ নাঈম আবদুল্লাহ, সহযোগি অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুর কাদের, অ্যাকাউন্টিং ক্লাবের ফ্যাকাল্টি অ্যাডভাইজার ও সহযোগি অধ্যাপক ড. ইমন কল্যাণ চৌধুরী, সহকারি অধ্যাপক রাহাত বারী তুহিন, ড. সায়মা সুলতানা, প্রভাষক সাঈদ হাসান, ইফফাত ইশরাত খান, তামান্না জামান, অ্যাকাউন্টিং ক্লাবের প্রেসিডেন্ট শিক্ষার্থী আমিনুল হক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে অ্যাকাউন্টিং ক্লাবের নতুন সদস্যদের শুভেচ্ছা জানানো হয়। পাশাপাশি আগামি দিনের কর্মপরিকল্পনা, আইডিয়া বাস্তবায়ন, চৌকষ ও কর্মঠ হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে নানামুখী উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা করা হয়। পরে সব সদস্যদের হাতে বিতরণ করা হয় সনদ। অনুষ্ঠানে মেধা যাচাইয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য আরও ছিলো কুইজ পর্ব। ছাত্রী আফসানা ফাইরুজের উপস্থাপনা দর্শকদের নজর কাড়ে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি ।
লোটোর জুতা কিনে টিভিএস বাইক জেতার সুযোগ
০৭অক্টোবর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সমপ্রতি বিশ্বের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ইতালিয়ান স্পোর্টস এন্ড লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড লোটো এবং বাংলাদেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় মোটরসাইকেল বিপণন প্রতিষ্ঠান টিভিএস অটো বাংলাদেশের সাথে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। লোটো স্যু কিনে টিভিএস বাইক জেতার আকর্ষণীয় অফার ক্রেতা সাধারণের মাঝে ঘোষণার প্রারম্ভে এক্সপ্রেস লেদার প্রোডাক্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী জামিল ইসলাম ও টিভিএস অটো বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী বিপ্লব কুমার রয় চুক্তিটিতে স্বাক্ষর করেন। এই চুক্তির ফলে লোটোতে ১৫০০ টাকা বা তার ঊর্ধ্বে যেকোনো স্যু কিনলেই র‌্যাফেল ড্রয়ের মাধ্যমে ক্রেতাগণ পাচ্ছেন টিভিএস ব্র্যান্ডের এপাচি ফোরভি ১৬০ মোটরসাইকেলসহ স্ট্রাইকার মডেলের মোটরসাইকেল জেতার সুযোগ, এছাড়াও আরো ১০০ জন ভাগ্যবান বিজয়ীর জন্য রয়েছে লোটো স্পোর্টস স্যু। সেই সাথে লোটোতে ১৫০০ টাকার কেনাকাটায় টিভিএস মোটর বাইকে ২০০০ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক পাওয়ার মতো অভাবনীয় অফার। সেই সাথে টিভিএস বাইক ক্রেতাদের জন্য লোটোতে আছে ২০% পর্যন্ত ছাড়। এই অফার চলবে ৩১ জানুয়ারি ২০২০ পর্যন্ত। উক্ত অনুষ্ঠানে উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, টিভিএস অটো বাংলাদেশের অ্যাডভাইজার আনসার আলী খান, হেড অব মার্কেটিং আশরাফুল হাসান, হেড অব সেলস আতিকুর রহমান, হেড অব এইচআর সাইদ সহিদুল আলম এবং সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মার্কেটিং, মইন সরকার। সেই সাথে এঙপ্রেস লেদার প্রোডাক্টস লিমিটেড থেকে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মার্কেটিং, কামরুল হাসান এবং এক্সিকিউটিভ মার্কেটিং নাবিলা ইসলাম। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ভাষাসৈনিক কৃষ্ণ গোপাল সেনের আবক্ষ মূর্তি উন্মোচন
০৭অক্টোবর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: জামালখানস্থ দেওয়ানজী পুকুর পাড় মন্ডপ প্রাঙ্গণে চট্টল মহাশক্তি সম্মিলনী, অগ্রণী সংঘ ও ট্রাস্টি বোর্ডের উদ্যোগে ভাষা সৈনিক, ৭১-এর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত কৃষ্ণ গোপাল সেনের স্থায়ী আবক্ষ মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠান চট্টলা মহাশক্তি সম্মেলনীর সভাপতি স্বপন দাশ খোকার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এম.পি। প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান তরুণ সমাজকে ৫২ ভাষা সৈনিকদের ও ৭১ মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের মহিমায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে এবং তরুণ সমাজের মাঝে তাদের চেতনা ও কর্ম তুলে ধরতে হবে। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম.এ মালেক, সাবেক কাউন্সিলর ডাঃ গোলাম মোস্তফা কাঞ্চন, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, সাবেক কাউন্সিলর প্রকৌশলী বিজয় কৃষাণ চৌধুরী, ড. রীতা সেন, চট্টল মহাশক্তি সম্মেলনীর সাধারণ সম্পাদক শিমুল সেন, সমাজসেবক ফরহাদুল ইসলাম চৌধুরী রিন্টু প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে ফরহাদুল ইসলাম চৌধুরী রিন্টুর ব্যক্তিগত অর্থায়নে স্বল্পদরিদ্র মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন ও শাড়ী বিতরণ করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর