শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১
শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবিতে মৃত বেড়ে ৩৫
৬,এপ্রিল,মঙ্গলবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় শিশুসহ আরও পাঁচ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে নৌ-পুলিশ। এ নিয়ে এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৩৫ জনে। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকালে শিশুসহ আরও পাঁচ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের পরিবারের সদস্যদের কাছে মরদেহগুলো বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সদর নৌ-থানার পরিদর্শক শহিদুল আলম জানান, শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় সকালে শিশুসহ আরও পাঁচ জনের মরদেহ করেছি। ইতোমধ্যে মরদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর আগে রোববার (৪ এপ্রিল) রাতে শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির পর গত দুই দিনে ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল।
সারাদেশে আজ তাপমাত্রা বাড়তে পারে
৬,এপ্রিল,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে। পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, আগামী ৩ দিনে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে পটুয়াখালীর খেপুপাড়ায় ৩৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৩৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
কালবৈশাখী ঝড়ে সারাদেশে প্রাণ গেল ১১ জনের
৫,এপ্রিল,সোমবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে দমকা ও ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টি বয়ে গেছে। কোন কোন স্থানে কালবৈশাখী ঝড়ও হয়েছে। এই তাণ্ডবে সারাদেশে নিহত হয়েছেন ১১ জন। রোববার (৪ এপ্রিল) কালবৈশাখী ঝাড়ে ওই ১১ জন মারা যায়। গাইবান্ধায় কালবৈশাখী ঝড়ে ৩ নারী ও ১ শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার বেলা ৩টার দিকে গাইবান্ধার সদর, পলাশবাড়ী, সুন্দরগঞ্জ, ফুলছড়ি ও সাদুল্লাপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, পলাশবাড়ী উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের মোস্তাফুর গ্রামের গোফফার রহমান এবং ডাকেরপাড়া গ্রামের জাহানারা বেগম। ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের কাতলামারি গ্রামের বিটুল মিয়ার স্ত্রী শিমুলী আক্তার (২৭)। সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের দোয়ারা গ্রামের ছোলায়মান মিয়ার স্ত্রী ময়না বেগম (৪০)। সাদুল্লাপুর উপজেলায় আব্দুস সালাম সর্দার নামে এক ব্যক্তি ঝড়ের আতঙ্কে মারা গেছেন। অন্যদিকে ঝড়ে আহত হওয়ার পর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানোর পথে তাদের মৃত্যু হয়। তারা হলেন সদর উপজেলার তিনগাছের তল এলাকার হিরু মিয়ার শিশুসন্তান মনির মিয়া (৫) আর ফুলছড়ি উপজেলার এরেন্ডাবাড়ি গ্রামের হারিস উদ্দিন (৩৫)। অন্যদিকে ফরিদপুরে আলফাডাঙ্গায় বছরের প্রথম কালবৈশাখী ঝড়ে গাছের ডাল পড়ে মা ও মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলার বানা ইউনিয়নের টাবনী ঘোষবাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, মধুখালী উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের মো. জাহিদের স্ত্রী হালিমা (২৫) তার এক বছর চার মাস বয়সী শিশুকন্যা আফছানাকে নিয়ে আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের শিরগ্রামে আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে যান। সেখান থেকে সন্ধ্যায় ভ্যানযোগে তার বাবার বাড়ি বুড়াইচ ইউনিয়নের পাকুড়িয়া রওনা দেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে বানা ইউনিয়নের টাবনী ঘোষবাড়ির সামনে পৌঁছালে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়। এ সময় সজনে গাছের একটি বড় ডাল তাদের ওপর ভেঙে পড়ে। এতে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই হালিমা মারা যান। মারাত্মক আহত শিশু আফছানাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে নির্মাণাধীন দোকানঘরের উড়ন্ত টিনে গলা কেটে রবিউল ইসলাম (৪০) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের মহিশাডরা এলাকার দফাদার ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রবিউল ইসলাম কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের শশিধরপুর এলাকার সাদ মন্ডলের বড় ছেলে। রবিউল পেঁয়াজের ব্যবসা করতেন। তিনি ৩ মেয়ে সন্তানের বাবা।
গাইবান্ধায় ঝড়ে ঘরবাড়ি-গাছপালাসহ ফসলের ক্ষতি; ৩ জনের মৃত্যু
৪,এপ্রিল,রবিবার,গাইবান্ধা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: হঠাৎ করেই দমকা ও ঝড় হাওয়ায় গাইবান্ধা সদর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রচন্ড গতির বাতাসে কাচা-পাকা ঘর ভেঙে পড়াসহ উড়ে গেছে টিনের চালা। এছাড়া আমের মুকুল, লিচু ও উড়তি জমির আমন ধানের গাছসহ বিভিন্ন জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কোথাও কোথাও গাছ ভেঙে সড়কের ওপরে পড়ায় যোগাযোগ বন্ধ হওয়ার খবরও পাওয়া গেছে। এদিকে, প্রচণ্ড বাতাসে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ ও পলাশবাড়ি উপজেলাতে দুই নারীসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে পলাশবাড়িতে বেতকাপা ইউনিয়নের মোস্তাফুর ও ডাকেরপাড়া গ্রামে গোফফার রহমান এবং জাহানারা বেগমসহ দুইজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ময়না বেগম (৪০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। ময়না বেগম ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের দোয়ারা গ্রামের ছোলায়মান মিয়ার স্ত্রী। রবিবার বিকেল ৩টার দিকে হঠাৎ করে গাইবান্ধা জেলার সদর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলাতে শুরু হয় ঝড় বাতাস। বিকেল পৌনে ৪টা পর্যন্ত থেমে থেমে চলে ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে দমকা বাতাস। সেই সঙ্গে কোন কোন এলাকাতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাতের খবরও পাওয়া গেছে। বাতাসের পর পরেই বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ায় বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বৈশাখের শুরুতেই হঠাৎ করে জেলাজুড়েই শুরু হওয়া ধমকা হাওয়া আর কাল বৈশাখীর থাবায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে মানুষ। পথঘাট ও শহর-বন্দরে থাকা মানুষও পড়েন ভয়-আতঙ্ক আর বিপাকে। হঠাৎ বয়ে যাওয়া এমন ঝড় হাওয়াকে প্রকৃতির আশনি সংকেত বা বড় ধরনের কাল বৈশাখীর ঝড়ের আশষ্কা করছে জেলার মানুষ। ঝড়ো হাওয়ার পর সরেজমিনে দেখা যায়, গাইবান্ধা সদর উপজেলার স্টেশন রোড, ট্রাফিক মোড়, বাংলাবাজারসহ শহরের বিভিন্ন রাস্তাঘাট ও পাড়া মহল্লায় প্রবাহিত হয় দমকা হাওয়া। এতে এসব এলাকার অনেক কাচা-পাকা টিনের ঘরবাড়ি ভেঙে পড়াসহ টিনের চালা উড়ে গেছে। ভেঙে ও উপড়ে পড়েছে বসতবাড়ি ছাড়াও বিভিন্ন সড়কের দুই পাশের ছোট-বড় বেশকিছু গাছপালা। এছাড়া হাসেমবাজার এলাকায় একটি বিদ্যুতের খুঁটিও ভেঙে যোগাযোগ বন্ধ হয়েছে। একই অবস্থা দেখা গেছে সাদুল্লাপুর উপজেলাতেও। প্রচন্ড গতির বাতাস আর গুড়ি বৃষ্টির কারণে উপজেলা শহর, কাজিবাড়ি, জয়েনপুর, জামুডাঙ্গাসহ বিভিন্ন গ্রামের অসংখ্য কাচা ঘরবাড়ি আর গাছপাল সড়কে উপড়ে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমের মুকুল, উঠতি জমির ধানের গাছসহ জমির বিভিন্ন ফসলের। ঘণ্টাব্যাপী ধরে চলা এই ঝড় বাতাসে সাদুল্লাপুর ভূমি অফিসের প্রধান গেটে একটি বড় ইউক্লিপটস গাছও ভেঙে পড়েছে। এতে সাদুল্লাপুর-নলডাঙ্গা পুরাতন সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন জানান, হঠাৎ করেই জেলায় বয়ে যাওয়া দমকা হাওয়ায় কোথাও কোথাও কিছু বাড়িঘর ও গাছপালা ভেঙে পড়াসহ বিভিন্ন এলাকার ধানের জমি এবং ফসলের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া বাতাসে গাছ ভেঙে পড়ায় সুন্দরগঞ্জ ও পলাশবাড়ী উপজেলাতে দুই নারীসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহত প্রত্যেক পরিবারকে ১০ হাজা টাকা করে আর্থিক সহযোগিতা করা হয়েছে। বাতাসে বিভিন্ন সড়কে ভেঙে পড়া গাছ অপসারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছেন। তবে তাৎক্ষণিক ভাবে তিনি ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানাতে পারেননি।
অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবি
৪,এপ্রিল,রবিবার,নিউজ ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটেছে। রোববার (০৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শীতলক্ষ্যা নদীর মদনগঞ্জের কয়লাঘাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার এরশাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সাবিত আল হাসান নামে একটি লঞ্চ শীতলক্ষ্যা নদীতে ডুবে যায়। সংবাদ শুনে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরিসহ ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকাজে অংশ নেয়। এখন পর্যন্ত হতাহতের তথ্য পাইনি। লঞ্চটি নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ নৌ-পথে চলাচল করত। এই ঘটনার বিষয়ে মুন্সিগঞ্জ নৌ-পুলিশের কর্মকর্তা কবির হোসেন খান বলেন, সন্ধ্যা প্রায় সাড়ে ৬টার দিকে যাত্রী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাটে আসছিল ওই লঞ্চটি। মদনগঞ্জের কয়লাঘাট এলাকায় বালুবাহী বাল্কহেড ধাক্কা দিলে লঞ্চটি ডুবে যায়। এরই মধ্যে উদ্ধারকারী জাহাজ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধারকাজ শুরু করেছেন।
কক্সবাজারে মাস্ক না পরার কারণে ১১ জনকে জরিমানা
৩,এপ্রিল,শনিবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা ও জনসচেতনতামূলক কাজের অংশ হিসেবে কক্সবাজারের টেকনাফে মাস্ক না পরার কারণে ১১ জনকে ১ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার (২ এপ্রিল) বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত টেকনাফ সদরের মেরিন ড্রাইভ ও পৌরসভার বিভিন্ন সড়কের যানবাহন ও পথচারীদের মাঝে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানের নেতৃত্ব দেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল মনসুর এবং টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হাফিজুর রহমান। এসময় থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম অভিযানে সহযোগিতা করেছেন। টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পারভেজ চৌধুরী বলেন, হঠাৎ করে দেশে আবারও করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সংখ্যা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। তাই সাধারণ জনগণ ও পথচারীদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার পাশাপাশি মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, করোনা প্রতিরোধে ও স্বাস্থবিধি রক্ষায় টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ, পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। সংক্রমণ রোগের (প্রতিরোধ, নির্মুল ও নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৮ এ ১১টি মামলায় ১৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়। জনস্বাস্থ্য রক্ষা ও জনসচেতনতায় মোবাইল কোর্ট অব্যাহত থাকবে। উল্লেখ্য, গতকাল বৃহস্পতিবার টেকনাফ পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে করোনা প্রতিরোধে ও স্বাস্থবিধি রক্ষায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা (প্রতিরোধ, নির্মূল ও নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৮ এ ৪টি মামলায় ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়। গত রোববার থেকে ৩১ মার্চ বুধবার পর্যন্ত পাঁচজন পর্যটকসহ ৭৬ জনকে জরিমানা করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ২৬ হাজার ৭৫০ টাকার জরিমানা আদায় করা হয়।
শেখ হাসিনা সৎ ও মানবিক প্রধানমন্ত্রী: অপু উকিল
২,এপ্রিল,শুক্রবার,নেত্রকোণা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি অধ্যাপক অপু উকিল বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা সৎ এবং মানবিক প্রধানমন্ত্রী। তিনি দেশের মানুষের কল্যাণে নিজের জীবন উৎসর্গ করে দেশকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তর করতে কাজ করে চলছেন। শুক্রবার নেত্রকোণার কেন্দুয়া পৌরশহরের সাউদপাড়াস্থ উকিলবাড়িতে গরিব, অসহায় নারীদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে তাদের হাতে সেলাই মেশিন তুলে দেওয়ার সময় এসব কথা বলেন তিনি। এসময় বিউপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল কাদির ভূঞা, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মো. আসাদুল হক ভূঞা, সহ-সভাপতি মো. ইসলাম উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুল হাসান ভূঞা ও পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. এনামুল হক ভূঞা, ও আশুজিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মঞ্জুর আলীসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
সুন্দরবনে মধু আহরণ শুরু
১,এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: খাঁটি মধুর ঘ্রাণ ও স্বাদ অতুলনীয়। মধুপ্রেমীদের কাছে সুন্দরবনের মধুর কদর অন্যরকম। জাতীয় অর্থনীতিতেও এখানকার মধুর অবদান ব্যাপক। ১ হাজার ৫০ কুইন্টাল মধু আহরণের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) থেকে সুন্দরবনে শুরু হয়েছে মধু আহরণ মৌসুম। এ উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এ বছরও মৌয়ালদের অনুমোদন দেয়া শুরু করেছে সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগের সাতক্ষীরা রেঞ্জ কার্যালয়। সকাল থেকে মৌয়ালরা বুড়িগোয়ালিনি ফরেস্ট ক্যাম্প থেকে পাস সংগ্রহ করে বনে প্রবেশ করেছে। প্রতি বছর এই দিনে বন বিভাগ ও বিভিন্ন বেসরকারি সংগঠনরে পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তবে এবার করোনা মহামারির কারণে তা হয়নি। বন বিভাগ সূত্র জানায়, এপ্রিল থেকে জুন মাস পর্যন্ত সুন্দরবনে মধু আহরণের মৌসুম। এ বছর ১ হাজার ৫০ কুইন্টাল মধু এবং ৪৫০ কুইন্টাল মোম আহরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও ২০২০ সালে সাতক্ষীরা রেঞ্জে মধু আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল এক হাজার ৫০ কুইন্টাল, পক্ষান্তরে মধু আহরিত হয় দুই হাজার ৬ কুইন্টাল। অপরদিকে মোম আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২৬৫ কুইন্টাল। মোম আহরিত হয় ৬০২ কুইন্টাল। সেবার রাজস্ব উপার্জিত হয় ১৫ লাখ চার হাজার ৮৭৫ টাকা।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রেসক্লাব ভাঙচুর ও সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন
৩১,মার্চ,বুধবার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: হেফাজতে ইসলামের সহিংসতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব ভাঙচুর এবং জেলার সাংবাদিক সংগঠনটির সভাপতি ও টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন জামিসহ দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় সাংবাদিকরা। আজ বুধবার (৩১ মার্চ) সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সামনে টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন এসোসিয়েশনের সভাপতি মনজুরুল আলম। এ সময় বক্তারা এ ধরনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দায়ীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেন। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সহসভাপতি আল আমিন শাহিন, সহসভাপতি আ ফ ম কাউসার এমরান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন, সিনিয়র সহসভাপতি পীযূষ কান্তি আচার্য্য, সহসভাপতি ইব্রাহিম খান সাদত, সাবেক সভাপতি মো. আরজু প্রমুখ।

সারা দেশ পাতার আরো খবর