বেগম জিয়ার সুস্থতা কামনায় বাগমনিরাম ওয়ার্ড যুবদলের দোয়া মাহফিল
কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপার্সন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনা করে ১৫ নং বাগমনিরাম ওয়ার্ড যুবদলের উদ্যোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল আজ ২৬ জুলাই বৃহস্পতিবার বাদে জোহর নগরীর মেহেদীবাগ জামে মসজিদে আয়োজন করা হয়। দোয়া ও মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন মেহেদীবাগ জামে মসজিদের খতীব আলহাজ¦ মাওলানা গিয়াস উদ্দিন। বিশেষ মুনাজাতে বেগম খালেদা জিয়ার দ্রুত সুস্থতা কামনা করে আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করেন। এছাড়াও বাগমনিরাম ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ফয়েজ আসন্ন হজ¦ পালনের লক্ষে সৌদি আরবে সুচারুরূপে সম্পন্ন করতে পারেন তার জন্য দোয়া করা হয়। এতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে শরীক হন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শিহাব উদ্দিন মুবিন, শিল্পবিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, নগর উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউদ্দিন খালেদ চৌধুরী, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সভাপতি মনজুর রহমান চৌধুরী, নগর বিএনপির সহ প্রচার সম্পাদক খোরশেদ আলম কুতুবী, সহ প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক শফিক আহাম্মদ, সহ সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের মেম্বার, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ জাকির হোসেন, নগর ছাত্রদলের সহসভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, চকবাজার থানা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক বেলায়েত হোসেন, বাগমনিরাম ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. আবু ফয়েজ, চকবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মো. মো. আনিসুজ্জামান সাইমুন, নগর যুবদল নেতা মো. আনোয়ার আনু, মো. আলাউদ্দিন, মো. ইলিয়াস, নগর ছাত্রদল নেতা ইকবাল হোসেন জিসান, যুবদল নেতা রাশেদ পারভেজ সুজন, মো. নাসির উদ্দিন, মো. সালাহউদ্দিন, মো. ইদ্রিস, মো. আবদুস সাত্তার, মো. জাহাঙ্গির আলম, মো. জাবেদ, মো. জাহেদ, মো. রবি, মো. সিরাজ, মো. আবুল হোসেন, মো. জালাল, মো. হারুন, মো. ইব্রাহিম, মো. হোসেন প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
শিক্ষার্থীদের মাঝে দূর্নীতি বিরোধী স্লোগান সম্বলিত খাতা, স্কেল ও ব্যাগ বিতরণ
ওয়ার্লেস ঝাউতলা কলোনী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হিরন বলেন, শিক্ষার্থীদের দেশপ্রেমের শপথ নিয়ে দূনীতি মুক্ত দেশ গঠনের জন্য তৈরি করতে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার পাশাপাশি মানসিক ও শারিরীক সুস্থ্য রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাঙ্গালী সাংস্কৃতি চর্চায় মনোনিবেশ করতে হবে। তবেই শিক্ষাথীরা আদর্শ দেশ প্রেমিক সু-নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে তৈরি করতে সক্ষম হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে নৈতিকতা ও মূল্যবোধ সৃষ্টির লক্ষ্যে সকলকে সচেনত হতে হবে। দূনীতি বিরুধী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দূর্নীতি দমন কমিশন সর্ম্পকিত জেলা কার্যলয় চট্টগ্রাম -১ কর্তৃক ওয়ার্লেস ঝাউতলা কলোনী উচ্চ বিদ্যলয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে দূর্নীতি বিরোধী স্লোগান সম্বলিত খাতা, স্কেল ও ব্যাগ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্ত্যবে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অদ্য ২৬ জুলাই দুপুর ১২.০০টায় বিদ্যালয় মিলনায়তনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মহসীন এর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় এর পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক সদস্য মোঃ আব্দুল হক, সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ আমিনুল ইসলাম, বাবু প্রদীপ কাননগো, শিক্ষক বাবু প্রতীকধর, রীনা চক্রবর্তী, মোঃ মুকবুল হোসেন, নাজমুছ সাকিব, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোছাঃ সাহীদা মমতাজ মোঃ আসরাফ উদ্দিন, মাহমুদা আক্তার , মোঃ ফরিদুল আলম, সনিয়া আহেম্মদ, রোজিনা আক্তার, ফারহানা গুলজার, মোঃ শামীম হোসেন, মোঃ রহিম উল্লাহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে দূর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক শিক্ষার্থীদের মাঝে খাতা স্কেল ও ব্যাগ বিতরন করেন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
আন্জুমানে রজভীয়া নূরীয়া ট্রাস্টের উদ্যোগে সৈয়দ আহমদ শাহ্ সিরিকোটী (রহ.) এর স্মরণ সভা, নবীদ্রোহী,
আন্জুমানে রজভীয়া নূরীয়া ট্রাস্টের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান পীরে তরিক্বত আল্লামা আবুল কাশেম নূরী বলেন, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ আহমদ শাহ্ (রহ.) ছিলেন ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের অকুতোভয় সৈনিক। তিনি এ দেশে হানাফী মাযহাব ও সুন্নিয়ত প্রতিষ্ঠায় ছিলেন অগ্রনায়ক। নবীদ্রোহী, ধর্মদ্রোহী ও ইসলাম বিদ্বেষীদের ব্যাপারে সৈয়দ আহমদ শাহ্ ছিলেন আপোষহীন। তাঁর প্রতিটি কার্যকলাপে সুন্নাতই প্রকাশ পেত। শত বছরে উপনীত এ মহাপুরুষ কখনও ফরয ইবাদত ত্যাগ করেননি। তাকে নিকট থেকে যারা দেখেছেন তাদের মতে, তাঁর নিদ্রাটাও ছিল সুন্নত উপায়ে। রাত্রের বেশিরভাগ সময় তিনি থাকতেন ইবাদতের মাধ্যমে জাগ্রত। আল্লামা নূরী আরো বলেন, সুন্নাতের উপর অটল থাকা-ই প্রকৃত কারামত। আল্লামা সৈয়দ আহমদ শাহ সিরিকোটী (রহ)’র জন্ম পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশে খাইবার পাখতুন খাওয়ার হলেও তাঁর পদচারণা স্বদেশ ছাড়াও সুদূর আফ্রিকা, মায়ানমার (বার্মা), ভারত ও বাংলাদেশে বিদ্যমান। এ সব দেশে তাঁর অবদান রেখে যান তিনি। আ’লা হযরত ইমাম আহমদ রেযা খাঁন (রহ.) সহ পূর্বেকার সকল সুন্নী ওলামা-মাশায়িখের রচনাসম্ভার মুসলমানদের হিদায়ত বা দিক নির্দেশনার জন্য এ পর্যন্ত তিনি যথেষ্ট মনে করেছিলেন। কিন্তু যুগে যুগে মতবাদগুলোর নানা রকম বিভ্রান্তি ঐ সকল রচনাবলীর আলোকে যথাযথ বিচারবিশ্লেষণে যে উপযুক্ত আলিম-এ দ্বীন ও পরিবেশ দরকার এবং তজ্জন্য প্রতিষ্ঠানের যে শূন্যতা মুসলিম সমাজে বিরাজ করছিল; তুলনামূলকভাবে সুন্নী জনগণ যে অনেক পিছিয়ে পড়েছিল, তা থেকে পরিত্রাণের জন্য প্রতিষ্ঠান বিনির্মাণে গঠনমূলক কর্মপ্রয়াস পান আল্লামা সৈয়দ আহমদ শাহ সিরিকোটি (রহ.)। তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে হাজার হাজার বিধর্মী ইসলাম গ্রহণ করেন এবং লক্ষ লক্ষ মুসলমান সঠিক পথের সন্ধান লাভ করে। মূলত তিনি স্বীয় পীর-মুরশিদের ইচ্ছার বাস্তব রূপদানের মাধ্যমে আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের সন্তুষ্টি অর্জনে সচেষ্ট ছিলেন। গতকাল ২৫ জুলাই বুধবার বিকেলে সংগঠনের অক্সিজেনস্থ কার্যালয়ে আন্জুমানে রজভীয়া নূরীয়া ট্রাস্ট এর উদ্যোগে সৈয়দ আহমদ শাহ্ সিরিকোটী (রহ.) এর স্মরণে আলোচনা সভায় তিনি সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। ট্রাস্টের নির্বাহী সদস্য শায়ের মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ কাদেরীর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের জেনারেল সেক্রেটারী আল্লামা আবুল হাসান মুহাম্মদ ওমাইর রজভী। স্মরণ সভায় আলোচনায় অংশ নেন ট্রাস্টের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব নুরুল হক, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিশিষ্ট কলামিষ্ট অধ্যাপক মাসুম চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আবদুল কাদের রজভী, মো. আবু ছালেহ আঙ্গুর, মোহাম্মদ মিয়া জুনায়েদ, ডা. মো. কলিম উদ্দিন, জাহেদুল হাসান রুবায়েত, মাস্টার মুহাম্মদ ইসমাইল, মুহাম্মদ আবুল হাসান, মুহাম্মদ হাসান, মুহাম্মদ ওমর ফারুক, মুহাম্মদ ফরিদুল আলম, হাফেজ আবুন নুর মুহাম্মদ হাস্সান নূরী, এস.এম ইকবাল বাহার চৌধুরী, হাফেজ আবু গালেব মুহাম্মদ রায়হান নূরী, মুহাম্মদ ইব্রাহিম, মো. রাশেদ প্রমুখ। শেষে মিলাদ কিয়াম ও মুনাজাতের মাধ্যমে স্মরণ সভা সমাপ্তি হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
র&যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত তিন
অনলাইন ডেস্ক :চট্টগ্রাম নগরীতে র&যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তিন জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে জাকির হোসেন ও ডালিম শেখ নামে দু’জনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেলেও একজনের পরিচয় জানা যায়নি। জাকির ও ডালিমের বাড়ি বাগেরহাটের মোঘলগঞ্জে বলে জানা গেছে। গত মধ্যরাতে নগরীর খুলশী থানার রেলওয়ে ক্যান্টিন গেইট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। র&যাব-৭ এর মিডিয়া অফিসার সিনিয়র সহকারি এসপি মিমতানুর রহমান গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, রাত তিনটের দিকে রেলওয়ে ক্যান্টিন গেইট এলাকায় চেকপোস্টে একটি গাড়িকে থামার সংকেত দেয়া হয়। সে সময় গাড়ির ভেতর থেকে র&যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। আত্মরক্ষার্থে র&যাবও পাল্টা জবাব দেয়। পরে গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ তিনজনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। উদ্ধার করা হয়েছে ২টি অস্ত্র, গুলি ও ১২০ কেজি গাঁজা। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় র&যাবের কয়েকজন সদস্যও আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন মিমতানুর রহমান।
কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত
অনলাইন ডেস্ক: খুলনার দৌলতপুরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে আজ বুধবার সকালে র‍্যাবের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম ইমরান। তিনি মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। র‍্যাবের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) বজলুর রশিদ জানান, গতকাল রাত দেড়টার দিকে দৌলতপুর এলাকায় টহল দেওয়ার সময় র‍্যাব সদস্যরা তিন মোটরসাইকেল আরোহীকে থামার নির্দেশ দেন। তাঁরা নির্দেশ অমান্য করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। র‍্যাব তাদের পিছু নেয়। এ সময় র‍্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ইমরান গুলিবিদ্ধ হয়। বাকি দুজন পালিয়ে যায় বলে দাবি করেন র‍্যাব কর্মকর্তা। তিনি আরো বলেন, গুলিবিদ্ধ যুবককে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এএসপি বজলুর রশিদ আরো দাবি করেন, ইমরানের কাছ থেকে একটি রিভলবার, একটি গুলি ও ৩০৮টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
বন্দুকযুদ্ধে ৮ মামলার আসামি নিহত
অনলাইন ডেস্ক: রাজশাহীর পবায় কসবা এলাকায় র&যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সাজ্জাদ হোসেন (৩৫) নামে আট মামলার এক আসামি নিহত হয়েছেন। র&যাবের দাবি, নিহত সাজ্জাদ মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে মাদক ও ডাকাতিসহ আটটি মামলা রয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে পবার কসবা এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত সাজ্জাদ হরিপুর বনপাড়া গ্রামের সইম উদ্দিনের ছেলে। বুধবার সকালে র&যাব-৫, রাজশাহীর এক খুদেবার্তায় (এসএমএস) জানানো হয়, মঙ্গলবার রাতে নগরীর অদূরে পবার দামকুড়া এলাকায় কয়েকজন মাদক বিক্রেতা মাদক কেনাবেচা করবে এমন গোপন খবর পেয়ে র&যাব-৫ এর সদস্যরা সেখানে অভিযানে যান। এ সময় র&যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা হামলা করে। পাল্টা র&যাবও গুলি ছোড়ে। উভয়পক্ষের মধ্যে কিছুক্ষণ গুলিবিনিময়ের পর ঘটনাস্থলে এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে ওই ব্যক্তিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) নেয়া হলে চিকিসৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এর পর খোঁজ নিয়ে নিহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় নিশ্চিত হয় র&যাব। নিহত সাজ্জাদের নামে বিভিন্ন থানায় মাদক ও ডাকাতিসহ আটটি মামলা রয়েছে বলে জানায় র&যাব।
কক্সবাজারে পাহাড়ধসে শিশু সহ নিহত ৫
অনলাইন ডেস্ক: পৃথক দুটি পাহাড়ধসে কক্সবাজারে একই পরিবারের ৪ শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে কক্সবাজার শহরে ও রামুর পানেরছড়ায় এই পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো— দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকায় জামাল হোসেনের চার সন্তান আবদুল হাই (৮), খাইরুল (৬), পাপিয়া (১০) ও মর্জিয়া (১৪) এবং রামু উপজেলার মোর্শেদ আলম (৬)। কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অফরুজুল হক টুটুল জানান, ভোরে শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকায় জামাল হোসেনের বাড়ির পাশে পাহাড় তার ঘরের উপর ধসে পড়ে। এতে জামাল হোসেনের ৪ সন্তান মাটি চাপা পড়ে। তিনি জানান, স্থানীয়রা মাটির নিচ থেকে ৪ শিশুকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাদের মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, রামু উপজেলার পানেরছড়া এলাকায় পাহাড়ধসে মোর্শেদ আলম নামের ৬ বছরের এক শিশু মারা গেছে।
পরশুরামে মাদকবিক্রেতাকে ২ বছরের কারাদণ্ড
অনলাইন ডেস্ক: ফেনীর পরশুরাম উপজেলার বিলোনিয়া সীমান্ত এলাকায় রোববার ভোরে তালিকাভুক্ত মাদক বিক্রেতাদের আস্তানায় জেলা প্রশাসনের মাদক বিরোধী টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানের নেতৃত্ব দেন ফেনী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা। মাদকবিরোধী টাস্কফোর্স সূত্র জানায়, পরশুরামের উত্তর বাউরখুমার (বিলোনিয়া) চোরাকারবারির গোপন তালিকায় থাকা মো. মনিরের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় ৪শ গ্রাম গাঁজা।অভিযানের খবর পেয়ে পালিয়ে যান মো. মনির। তার বিরুদ্ধে পলাতক মামলা দায়েরের নির্দেশ দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়া অভিযান পরিচালনা করা হয় উত্তর বাউরখুমা গ্রামের ইয়াবা বিক্রেতা আব্দুল মান্নানের (৪৫) বাড়িতে। এ সময় দশ পিস ইয়াবাসহ আব্দুল মান্নানকে হাতেনাতে আটক করা হয়। আদালত আব্দুল মান্নানকে ২ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে। আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ৫টি মাদকের মামলা রয়েছে। পরিবর্তন ডটকম টাস্কফোর্স টিম হানা দেয় বিলোনিয়া সীমান্তবর্তী তালুক পাড়ার মাদক স্পটগুলোতে। এছাড়াও উত্তর বাউরখুমার তালিকাভুক্ত ইয়াবাবিক্রেতা দেলোয়ার হোসেনের আস্তানা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী শাহ আলম ছুট্টু ও আব্দুল জলিলের বাড়িতে। অভিযানের খবর পেয়ে তারা পালিয়ে যায়। অভিযানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিদর্শক মো. টিপু সুলতান ও জেলা পুলিশ ও ব্যাটালিয়ান আনসারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। ফেনী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা অভিযানের তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, মাদক নির্মূলে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্স এর অভিযান অব্যাহত থাকবে।
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুকুরের পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
অনলাইন ডেস্ক: চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুকুরের পানিতে ডুবে আকিব পাটওয়ারী (৪) ও তানিশা আক্তার (৫) নামে মামাত-ফুফাত ভাইবোন মারা গেছে। রোববার দুপুর ১২টায় হাজীগঞ্জ উপজেলার বাড্ডা পাটওয়ারী বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আকিব ওই বাড়ীর মো. বরকত পাটওয়ারীর ছেলে এবং তানিশা আকিবের ফুফাত বোন, তার পিতার নাম দিদার আলম পাটওয়ারী। পারিবারিকভাবে জানা যায়, গত সোমবারে নিজ বাড়ী কচুয়া উপজেলার হাসিমপুর গ্রাম থেকে তানিশা মায়ের সাথে নানার বাড়ীতে বেড়াতে আসে। সকাল সাড়ে ১১টায় দিকে দুই শিশু বাড়ীর আঙিনায় খেলা করছিলো। এসময় সবার অগোচরে তারা বাড়ির পুকুরে পড়ে যায়। অনেক খোঁজখুঁজির পর বাড়ির পুকুর থেকে তাদের উদ্ধার করে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুলতানা রাজিয়া উভয় শিশুই মৃত বলে জানান। এ ঘটনায় পুরো এলাকা শোকের ছায়া নেমে আসে। পানিতে ডুবে দুই শিশু নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান মীর।

সারা দেশ পাতার আরো খবর