কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় লরির গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ ৫
১১মে,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় জ্বালানি তেলের লরির সিলিন্ডার মেরামতের সময় গ্যাস বিস্ফোরণে পাঁচজন দগ্ধ হয়েছেন। শনিবার সকালে উপজেলার সদর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে দগ্ধদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে দগ্ধদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে। কুলিয়ারচর থানার ওসি আবদুল হাই তালুকদার জানান, সকালে কুলিয়ারচর উপজেলায় জ্বালানি তেলের লরির সিলিন্ডার মেরামতের সময় গ্যাস বিস্ফোরণে পাঁচজন দগ্ধ হন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের উদ্ধার করে বাজিদপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে ওসি জানান।
চাঁদাবাজির অভিযোগে তিন পুলিশ সদস্যকে বরখাস্ত
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম :চট্টগ্রাম-খুলনা মহাসড়কের শরীয়তপুর অংশে চাঁদাবাজির অভিযোগে শরীয়তপুরের তিন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।পাশাপাশি অভিযোগ তদন্তে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর হায়দার শাওনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বরখাস্ত হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন- এটিএসআই মো. কুদ্দুস, গোলাম মোস্তফা ও ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল সুব্রত। শুক্রবার (১০ মে) তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এদের বিরুদ্ধে শরীয়তপুরের আংগারিয়া থেকে নরসিংহপুর পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার সড়কের ৫ থেকে ৮টি পয়েন্টে প্রকাশ্যে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। পাশাপাশি গাড়িরচালক ও মালিকদের কাছ থেকে মাসিক চুক্তিতে চাঁদা নেয়ার অভিযোগও রয়েছে। পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন বলেন, চাঁদাবাজির বিষয়ে মিডিয়ায় খবর প্রকাশ হওয়ার পর তিন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দেবেন। তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে এদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া তদন্তে আরও কেউ চাঁদাবাজির সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জানা গেছে, চট্টগ্রাম-খুলনা মহাসড়কের শরীয়তপুর অংশ দিয়ে প্রতিদিন ৪০০ থেকে ৫০০ যানবাহন যাতায়াত করে। সেই সঙ্গে জেলার ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের আওতায় রয়েছে আরও ৫ শতাধিক পরিবহন। অভিযোগ রয়েছে, শরীয়তপুরের আংগারিয়া থেকে নরহিসংপুর ৩৫ কিলোমিটার সড়কের প্রায় ৮টি পয়েন্টে দীর্ঘদিন ধরে গাড়ি থেকে চাঁদা আদায় করে আসছে এই পুলিশ সদস্যরা।
প্রতারক দলের ২০ সদস্য গ্রেফতার
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম :চাকরি দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল একটি সংঘবদ্ধ প্রতারণা চক্র। বৃহস্পতিবার বিকেলে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় লাইফওয়ে বাংলাদেশ (প্রাঃ) লিমিটেডের অফিস থেকে চক্রের ২০ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে RAB-১। এসময় ১৩ ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করা হয়।RAB-১ এর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, গাজীপুরসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় চাকরী দেওয়া নামে প্রতারণা করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি । সাধারণ মানুষের বেকারত্বের সুযোগ নিয়ে তাদের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। এমনই একটি চক্রের ২০ জন্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন- মিজানুর রহমান, মামুনুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলম, হুমায়ুন কবির, আশরাফুল আলম, তৈয়াবুর রহমান, মাসদিদ, সোহেল রানা, আতাউর রহমান, মেসবাউল হক, মোস্তাকিম, আব্দুল্লাহ আল সুমন, মোঃ রজব আলী, শাহাদত হোসেন, পিয়ারুল ইসলাম, কাউসার আলী, সাজিদুল ইসলাম, কাউসার আলম, কাউসার রহমান ও আরিফ হোসেন। তাদের কাছ থেকে নগদ ৭ হাজার ৬০টাকা এবং ১৪ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।তিনি আরও বলেন, গ্রেফতারকৃতদের তথ্যের ভিত্তিতে ওই অফিসের গোপন দুইটি রুম থেকে ভিকটিম ফরিদ উদ্দিন, বাবু খন্দকার, শামীম খন্দকার, মোঃ বিল্লাল খান শাকিল হোসেন, শাহাদাত হোসেন, জুয়েল মিয়া, আকরাম হোসেন, তানজিদ হোসেন, মোঃ নাহিদ হাসান, সানা উল্লাহ পাটোয়ারী ও শ্রী তন্ময় কুমারকে উদ্ধার করা হয়। তন্ময় কুমার ছাড়া উদ্ধারকৃত সবার বাড়ি চাঁদপুরে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে, তারা একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক দলের সক্রিয় সদস্য। তারা একে অপরের যোগসাজশে দীর্ঘদিন ধরে লাইফওয়ে বাংলাদেশ (প্রাঃ) লিমিটেড নামে প্রতিষ্ঠান চালু করে দেশের সাধারণ মানুষের বেকারত্বের সুযোগ নিয়ে তাদেরকে চাকুরী দেওয়ার নামে গোপন কক্ষে বন্দি করে রেখে অভিনব কায়দায় প্রতারণার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে আসিতেছিল। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বাসন থানায় মামলা করা হয়েছে।
কিশোরীকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে মাকে কামড়ে জখম
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : পাথরঘাটা উপজেলায় ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে এক কিশোরী ও তার মাকে কামড়ে জখম করেছে এক বখাটে। ঘটনার পর তাদের পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে মামলা করেছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, কিশোরী পাথরঘাটার একটি বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ে। দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবেশী তানভীর তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। একপর্যায়ে ছাত্রীর বাবা তানভীরের বাবার কাছে ছেলের এসব ঘটনা জানিয়ে অভিযোগ দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত শনিবার বিকালে তানভীর ঘরে ঢুকে ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় ছাত্রীর মা পাশের বাড়ি থেকে এসে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে তানভীরকে জুতাপেটা করে।তখন ছাত্রী ও তার মায়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড়ে জখম করে পালিয়ে যায় তানভীর। পরে ছাত্রীর বাবা এসে তাদের পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।এ বিষয়ে ছাত্রীর বাবা বলেন, চারদিন চিকিৎসা দেয়ার পর গত বুধবার পাথরঘাটা থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নেয়ায় গতকাল আদালতে মামলা করেছেন তিনি। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পাথরঘাটা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা পারভীনকে সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। পাথরঘাটা থানার ওসি মো. হানিফ সিকদার মামলা না নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ অভিযোগ করতে আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হতো। পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা পারভীন বলেন, আমি এরকম একটি ঘটনার কথা শুনেছি। তবে এখন পর্যন্ত আদালতের নির্দেশ ও মামলার কপি হাতে পাইনি। মামলার কপি হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।
লক্ষ্মীপুরে দুই বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : লক্ষ্মীপুরে চন্দ্রগঞ্জের পাঁচপাড়া এলাকায় দুই বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ। আহত অবস্থায় ওই শিশুকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত বেলাল হোসেনকে আটক করছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পাঁচপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। এর আগে ওই শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. নাসির উদ্দিন জানান, শিশুটিকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটি ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। তবে ডাক্তারি পরীক্ষার পর প্রতিবেদন দেয়া হবে।পুলিশ ও ওই শিশুর স্বজনরা জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে শিশুটিকে চকলেটের লোভ দেখিয়ে কৌশলে নিয়ে যায় বখাটে বেলাল।এরপর ঘরে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে আহত অবস্থায় ফেলে পালিয়ে যায় সেই। পরে শিশুটিকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দুপুরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে শিশুটি। আটককৃত বেলাল হোসেন পাঁচপাড়া এলাকার মিন্টু মিয়ার ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ।চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ জানান, দুই বছরের শিশু ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত বেলাল হোসেনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।
গণধর্ষণ মামলার আসামি ঢাকা থেকে গ্রেফতার
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : ঢাকার দক্ষিণ মুগদা থানার মান্দা এলাকা থেকে বরগুনা জেলার বেতাগী থানায় দায়ের করা গণধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি তুরাগ পরিবহনের চালক মানিককে গ্রেফতার করেছে বরিশাল RAB-৮ এর সদস্যরা। শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর রূপাতলীস্থ RAB-৮ এর হেডকোয়াটারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন RAB উপ-অধিনায়ক মেজর সজিবুল ইসলাম খান।সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, গত ২৭ এপ্রিল রাত আনুমানিক আটটার দিকে ভিকটিম (৩২) তার চাচা ও চাচাতো ভাইকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে গান গাওয়ার জন্য মহেশপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। রাত আটটা ২০মিনিটের দিকে বেতাগী থানাধীন বিবিচিনি স্কুল এন্ড কলেজের দক্ষিণ পার্শ্বে পৌঁছলে গণধর্ষন মামলার আসামি মো. মানিক (৩৫) ও আলমগীর হোসেন তাদের গতিরোধ করে ভিকটিমের চাচা ও চাচাতো ভাইকে মারধর করে গুরুত্বর আহত করে। একপর্যায়ে আসামি মানিক ও আলমগীর ভিকটিমকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে বেতাগী থানার পুটিয়াখালী সুইজগেট নামকস্থানের একটি বাগানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের চাচাতো ভাই বাদি হয়ে গত ১ মে বেতাগী থানায় মামলা দায়ের করেন।বিষয়টি ব্যাপকভাবে মিডিয়ায় প্রচার পেলে RAB ৮ ঘটনাটি ছায়া তদন্ত শুরু করে। পরবর্তীতে গোয়েন্দা তৎপরতার ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে গণধর্ষণ মামলার আসামি মো. মানিককে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মানিক ঢাকায় তুরাগ পরিবহনের চালক ছিলেন। ঘটনার পরপরই সে এলাকা ছেড়ে আত্মগোপন করে। শুক্রবার বিকেলে গ্রেফতারকৃতকে বেতাগী থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।
হিযবুত তাহরীরের আইটি বিশেষজ্ঞ গ্রেফতার
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : গ্রেফতারনিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হিযবুত তাহরীরের আইটি বিশেষজ্ঞ রিয়াজ উদ্দিন সিপাইকে গ্রেফতার করেছে বাংলাদেশ পুলিশের এন্টি টেররিজম ইউনিট। বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের শুভাড্যা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়ে।নিজস্ব গোয়েন্দা নজরদারি ও প্রযুক্তির সহায়তায় রিয়াজ উদ্দিন সিপাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এন্টি টেররিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার(লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া) মো. মাহিদুজ্জামান।তিনি জানান, গত তিন বছর ধরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ, শ্যামপুর, ধনিয়া ও গেন্ডারিয়া এলাকায় হিযবুত তাহরীরের একজন সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছিল রিয়াজ উদ্দিন। মাঠ পর্যায়ে সংগঠকের ভূমিকা পালনের পাশাপাশি অনলাইন ভিত্তিক সদস্য সংগ্রহ, প্রচারণাসহ বিভিন্ন কাজ করে আসছিল সে।রিয়াজের বিরুদ্ধে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন মো. মাহিদুজ্জামান।তবে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি শাহ জামান জানান, তিনি গ্রেফতারের বিষয়ে কিছু জানেন না।বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।
তানিয়ার খুনীদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : চলন্ত বাসে ঢাকার ইবনে সিনা হাসপাতালের সেবিকা শাহিনুর আক্তার তানিয়াকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীবাসী। এই বর্বরোচিত ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে করেছে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন।আজ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে শত শত এলাকাবাসী মিছিল নিয়ে কটিয়াদী বাসস্ট্যান্ডে হাজির হন। সেখানে বিক্ষোভ শেষে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীপেশার লোকজন অংশ নেন।প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন থেকে তানিয়ার ধর্ষক ও হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার দাবি করা হয়। একই সাথে অবৈধ স্বর্ণলতা পরিবহনের রুট পারমিট বাতিল, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটিকে পুনর্বাসনেরও দাবি জানানো হয়।মানববন্ধনে নিহত তানিয়ার ভাই কফিল উদ্দিন সুমন উপস্থিত হয়ে তার বোনের হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করে বিচার কাজ দ্রুত শেষ করার আহ্বান জানান।কর্মসূচির মূল উদ্যোক্তা কটিয়াদী রক্তদান সমিতি হলেও এতে উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন উপস্থিত হয়ে একাত্মতা প্রকাশ করে।মানববন্ধনে কটিয়াদী রক্তদান সমিতির সমন্বয়ক বদরুল আলম নাঈমের সঞ্চালনায় বক্তৃব্য রাখেন, কিশোরগঞ্জের পাবলিক প্রসিকিউটর শাহ আজিজুল হক, কটিয়াদীর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহাব আইন উদ্দিন, শ্রমিকনেতা আব্দুর রহমান রুমী, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সহ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তানিয়া সুলতানা হ্যাপি, জেলা সিপিবি সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, ডা: মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, মুন্সী আবদুল হেকিম কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ ফজলুল হক জোয়ারদার আলমগীরসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
ভাতিজার প্রেমে চাচি উধাও
১০ মে,শুক্রবার ,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় ৩৮ বছর বয়সী ভাতিজার প্রেমে পড়ে ৫০ বছর বয়সী তিন সন্তানের জননী চাচি উধাও হয়েছেন। পালিয়ে যাওয়ার সময় নগদ সাড়ে তিন লাখ টাকা ও সাড়ে তিন ভরি স্বর্ণ নিয়ে গেছেন তিনি। উপজেলার খারদিয়া ইউনিয়নের উজিরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।এদিকে, ভাতিজার হাত ধরে ৫০ বছর বয়সী চাচি উধাও হওয়ার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চলছে আলোচনা-সমালোচনা।স্থানীয় সূত্র জানায়, মালয়েশিয়া প্রবাসী উজিরপুর গ্রামের জিয়ারুল শেখের স্ত্রী হেমা বেগমের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মৃত আ. মাজেদ ফকিরের ছেলে সোহেল রানা ফকিরের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। সম্পর্কে তারা চাচি-ভাতিজা। ১ মে কাউকে কিছু না জানিয়ে পালিয়ে যান হেমা। অনেক খোঁজাখুঁজির পর জানা যায় ভাতিজা সোহেল রানা ফকিরের সঙ্গে পালিয়ে গেছেন হেমা। সেই সঙ্গে সোহেল রানাকে বিয়ে করে তার বাড়িতে রয়েছেন তিনি।স্থানীয়রা জানান, হেমা বেগমের প্রথম সন্তান অর্থাৎ মেয়ে সুমি আক্তার বিবাহিত এবং এক সন্তানের জননী, বড় ছেলে নাজমুল শেখ এবার এসএসসি পরীক্ষা দিলেও পাস করতে পারেনি আর তৃতীয় ছেলে সালাউদ্দীন জেএসসি পরীক্ষার্থী।এদিকে, সোহেল রানা স্থানীয় এক হাফেজের মেয়েকে বিয়ে করলেও পরকীয়ার জালে আটকে যান। এ অবস্থায় আগের স্ত্রীকে তালাক দিয়ে হেমাকে বিয়ে করেন সোহেল রানা।বিষয়টি স্বীকার করে সোহের রানা ফকির বলেন, আমরা কোর্ট ম্যারেজ করেছি। আমাদের দুইজনের সম্মতিতে আমরা সব কিছু করেছি। স্ত্রী হিসেবে হেমা বেগম এখন আমার বাড়িতেই রয়েছে। আমরা ভালো আছি।এদিকে হেমা বেগমের বড় ছেলে নাজমুল শেখ জানায়, মায়ের কারণে আমি লেখাপড়া ঠিকমতো করতে পারিনি। আমার বাবার এত কষ্টের অর্জিত সম্পদ নিয়ে অন্যের হাত ধরে চলে গেছে মা। আমরা লজ্জায় কাউকে মুখ দেখাতে পারছি না।

সারা দেশ পাতার আরো খবর