সিডিএ চট্টগ্রামের ৬৫ লাখ মানুষের উন্নয়নে কাজ করছে :আবদুচ ছালাম
চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) নিজস্ব অর্থায়নে ৬১৫৬.৯৩ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬৪টি আবাসিক ফ্ল্যাট, ২০৯টি দোকান ও ৮২টি কার পার্কিং সুবিধা সম্বলিত কাজীর দেউড়ি মার্কেট ও এ্যাপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স গতকাল সোমবার বিকালে উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধন করেন সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। এ উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, চট্টগ্রামে নির্মিত শতাব্দীর প্রথম আধুনিক কাঁচাবাজার কাজীর দেউড়ি। ব্যবসায়ী ভাইদের দীর্ঘদিনের অপেক্ষার পর তাদের আশা, আকাক্সক্ষা, স্বপ্ন, চাহিদা আজ পূরণ হতে চলছে। সিডিএ-তে আমি যখন প্রথম যোগদান করি, তখন আমার কাজটা ছিল এই প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা। ঠিকাদারের কারণে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে দীর্ঘদিন অতিবাহিত হয়ে গেছে। তারপরও আমি আশান্বিত ছিলাম। আমার দৃঢ় প্রত্যায় ছিল কাজীর দেউড়ি বাজারকে আমি চট্টগ্রামের শ্রেষ্ঠ বাজার হিসাবে চট্টগ্রামবাসীকে উপহার দিবো। আজ উদ্বোধনের মাধ্যমে তার প্রমাণ হয়ে গেলো। আমার স্বপ্ন, প্রত্যাশা পূর্ণ হলো। আবদুচ ছালাম বলেন, সিডিএ কোন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান নয়, সিডিএ উন্নয়ন নিয়ে কাজ করে, সিডিএ প্লট, ফ্ল্যাট কিংবা বাজার নিয়ে ব্যস্ত নেই, সিডিএ এখন সারা চট্টগ্রামের ৬৫ লাখ মানুষের উন্নয়ন নিয়ে কাজ করছে। সিডিএ চেয়ারম্যান বলেন, কাজীর দেউড়ি বাজারের আলাদা খ্যাতি রয়েছে। তাই অভিজাত মানুষের সৌখিন চোখ কাজীর দেউড়ি মাছ বাজারে ঢুঁ মারবেনই। আর সমুদ্রে কিংবা পুকুরে বড় আকারের মাছ ধরা পড়লে তার সরাসরি ঠিকানা কাজীর দেউড়ি বাজার। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কতৃপক্ষ বাজারটির উন্নয়ন, সম্প্রসারণসহ বহুতল আবাসন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। এতে আপামর জনগোষ্ঠী বহুলভাবে উপকার ভোগ করবেন। তিনি বলেন, আমি একজন ব্যবসায়ী হিসেবে এই বাজারকে নান্দনিক সৌন্দর্যে সাজিয়েছি, আমি বুঝি ব্যবসায়ীরা কি চান, কাস্টমাররা কি চান। একজন ভালো ক্রেতা শুধু পণ্য কেনেন না, ভালো আচরণ, ব্যবহার ও রুচিও ক্রয় করেন। তাই আমি আশা করবো সকল ব্যবসায়ী ভালো ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালানা করবেন। ক্রেতার মন জয় করবেন। সিডিএ চেয়ারম্যান আরো বলেন, সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে প্রিয় বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম এখন সেই উন্নয়নের অংশীদার। চট্টগ্রামে যেভাবে উন্নয়ন হচ্ছে, তাতে আগামীর চট্টগ্রাম হবে উন্নত বিশ্বের নগরীগুলোর মতো একটি নগরী। যেখানে যানজট থাকবে না, মানুষের হাঁটার ফুটপাত দখলে থাকবে না, চারদিকে বাগান থাকবে, ময়লা-আবর্জনা থাকবে না। বাস্তবে একটি স্বাস্থ্যকর নগরী হিসেবে গড়ে উঠবে চট্টগ্রাম। তাই এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য, দেশের তথা চট্টগ্রামের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে আবার ক্ষমতায় নিতে হবে। সিডিএ’র তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামসের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সিডিএ’র বোর্ড সদস্য জসিম উদ্দিন, জসিম উদ্দিন শাহ, কেবিএম শাহজাহান, গিয়াস উদ্দিন, হাসান মুরাদ বিপ্লব, কাজীর দেউড়ি বাজার সমিতির সহ সভাপতি হাজী জাকির হোসেন, দামপাড়া মহল্লা কমিটির সদস্য সচিব এসএম সিরাজ, ভিআইপি টাওয়ার মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জালাল হোসেন, কাজীর দেউড়ি সিডিএ মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক আবু হান্নান। সিডিএ সিস্টেম এনালিস্ট প্রকৌশলী মোস্তাফা জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহিনুল ইসলাম খান, উপ-সচিব অমল গুহ, মো. নাজের, মো. হাসান প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে নগদ অর্থ প্রদান
কাশেম নূর ফাউন্ডেশন চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে নগরীর উত্তর ফরিদের পাড়া হারুন কলোনীতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ৪০ পরিবারের মাঝে এককালীন নগদ অর্থ প্রদান করা হয়। গতকাল অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির খবর পেয়ে প্রতিটি পরিবারের জন্য কাশেম নূর ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি (বি-ব্লক) এর সভাপতি আলহাজ্ব হাসান মাহমুদ চৌধুরী ১০হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেন। আজ ১৩ আগষ্ট সোমবার বিকাল ৫টায় চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতির কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে এ অর্থ ক্ষতিগ্রস্থদের হাতে তুলে দেন চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি (বি-ব্লক) এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লায়ন আহসানুল করীম এমজেএফসহ সমিতির নেতৃবৃন্দ। চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি (বি-ব্লক) এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আহসনুল করীম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অর্থ প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি ইঞ্জিনিয়ার ইসমাইল। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফজলে আহাদ, তৌফিক হোসেন, নিজাম উদ্দিন নিজু, নুরুল আবছার, আবু সাইয়েদ হাসনাত, এনামুল হাসান প্রমুখ। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে আহসানুল করীম বলেন, গতকাল অগ্নিকান্ডে ঘটনা শুনার পর কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি (বি-ব্লক) এর সভাপতি হাসান মাহমুদ চৌধুরী সমিতির নেতৃবৃন্দকে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিটি পরিবারের জন্য কশেম নূর ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ১০হাজার টাকা করে অনুদান প্রদানের ঘোষণা দেন। তারই প্রেক্ষিতে খুব কম সময়ে আমরা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করি। তিনি এলাকার অসহায়, দু:স্থ মানুষের সেবায় কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের মতো করে সকল বিত্তশালীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
শাহসুফি আমানত খান (রহ.)র বার্ষিক ওরশ শরীফ উপলক্ষে ভক্তদের পদচারণায় মুখরিত দরবার প্রাঙ্গণ
বাবাজান কেবলা হয়রত শাহসুফি আমানত খান (রহ.) এর পবিত্র বার্ষিক ওরশ শরীফ উপলক্ষে ভক্তদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে দরবার প্রাঙ্গণ। ওরশ শরীফ উপলক্ষে সারাদিনব্যাপি বিভিন্ন ধর্মীয় মাহফিল, পবিত্র কোরান থেকে তেলওয়াত, খতমে খাজে গান, মিলাদ, আলোচনা সভা ও জিকিরের আয়োজন করা হয়েছে। লাখো ভক্তের অংশগ্রহণে দেশ-জাতি ও মুসলিম বিশ্বের কল্যাণে মুনাজাত পরিচালনা করেন বাবাজান কেবলা ও কাবার আওলাদ ও সাজ্জাদানশীন মোতওয়াল্লী শাহসুফি আলহাজ্ব শাহজাদা সৈয়দ মুহাম্মদ এনায়েত উল্লাহ খান (ম.জি.আ)। এনায়েত উল্লাহ খান বলেন, কেয়ামত পর্যন্ত দিশেহারা মানুষের সংস্কার সাধনে যুগে যুগে আবির্ভূত হবেন আউলিয়া ও বুজুর্গানে দ্বীন। আত্ম-অহমিকা, হিংসা, ক্রোধ, বিদ্বেষ, হানাহানি, অনৈতিক-অনৈসলামিক কার্যকলাপের দরুন বর্তমানে বিশ্বে অস্থিরতা, যুদ্ধ, অশান্তি ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে দেশ, জাতি ও মাযহাব নিয়ে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিয়েছে। এসবকে কেন্দ্র করে দলাদলি, হিংসা, অনৈক্যের সৃষ্টি হয়েছে। সকল ভেদাভেদ দূর করতে শাহ আমানতের জীবনাদর্শ অনুসরণের বিকল্প নেই। এসময় উপস্থিত ছিলেন, শাজ্জাদানশীন শাহ সুফি শাহজাদা বেলায়েত উল্লাহ খান, শাহজাদা সালামত উল্লাহ খান, শাহজাদা ইজাজ উদ্দিন মো. আজিম খান, শাহজাদা আহমদ উল্লাহ, শাহজাদা সৈয়দ মো. হাবিব উল্লাহ খান মারুফ, শাহজাদা ফরহাদ উদ্দিন মো. আলী খান, শাহজাদা আরিফ উল্লাহ খান তাইফ, শাহজাদা ফয়সাল উদ্দিন মো. আলী খান প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সারাদেশে পালিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী
সারাদেশে পালিত হচ্ছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী। দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। বুধবার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একটি শোকর‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পরিষদ চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এর আগে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করা হয়। এছাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন- আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার মশিউজ্জামান রোমেল, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম এডভোকেট, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ, থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালাম মিয়া, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুল ইসলাম তরফদার বাদল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হোসনেআরা বেবী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুর রাজ্জাক মিয়া, মিনহাজ উদ্দিন, উপজেলা এলজিইডি কর্মকর্তা অনিক সাহা, কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কণিকা মল্লিক, মৎস্য কর্মকর্তা জ্যোতি কণা দাস, সমাজসেবা কর্মকর্তা শহিদুজ্জামান, প্রেসক্লাব সভাপতি আসাদুল ইসলাম বাবুলসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ । মধুখালী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি: ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, পৌরসভা, ফরিদপুর চিনিকল, পৌর আওয়ামীলীগ, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন ও সংস্থার আয়োজনে মধুখালীতে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। সকালে উপজেলা প্রশাসন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরনের পর বঙ্গবন্ধুর ম্যূরালে পুষ্পস্তবক অর্পন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, পৌরসভা, পৌর আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পুষ্পস্তবক অর্পনশেষে সম্মিলিতভাবে বিশাল একটি র‌্যালি বের করে। র‌্যালিটি ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের রেলগেট, মধুখালী বাজার হয়ে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা মালটিপারপস হল রুমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মোস্তফা মনোয়ার এর সভাপতিত্বে আলোচান সভায় বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মির্জা মনিরুজ্জামান বাচ্চু, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মনজুর হোসেন, থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মো. মিজানুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পিকু আহসান হাসিব, মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী সুরাইয়া সালাম প্রমুখ। পিরোজপুর প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পূষ্পার্ঘ্য নিবেদন, র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে পিরোজপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়েছে। পিরোজপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এই অনুষ্ঠানে মাল্যদান করেন পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল, জেলা প্রশাসক আবু আহমাদ ছিদ্দীকী, পুলিশ সুপার মোহম্মদ সালাম কবির, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজ, পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক, অ্যাডভোকেট আব্দুল হাকিম হাওলাদার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান খালেকসহ জেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ এবং বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছাত্রীরা। মাল্যদান শেষে একটি শোক র‌্যালি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণশেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে মুন্সীগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে বুধবার বেলা সাড়ে ন'টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সামনে থেকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শোক র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। শোক র‌্যালি শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিত্বে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন- মুন্সীগঞ্জ ৩ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. মৃণাল কান্তি দাস, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম পিপিএম, সিভিল সার্জন হাবিবুর রহমান, অধ্যক্ষ প্রফেসর মো: আব্দুল হাই তালুকদার, কৃষক লীগের সভাপতি মহাসিন মাখন প্রমূখ। ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। বুধবার সকাল ৮টায় উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে জাতীয় ও দলীয় কালো পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে শোক দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনগুলো। সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলা হলরুমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, পুলিশ প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ সরকারি, বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান,স্কুল–কলেজ ও সামাজিক সংগঠনগুলো। এর আগে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শোক শোভাযাত্রা বের হয়। পরে উপজেলা হলরুমে বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনী নিয়ে আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী মাহবুব উর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহাদাৎ হোসেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকরামুজ্জামান রাজা,সহকারী কমিশনার ভুমি মোসাঃ আফসানা কাওসার,মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আবুল বাশার মিয়া প্রমূখ। এছাড়া দিনব্যাপী বিভিন্ন সংগঠন রক্তদান কর্মসূচি, আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণের আয়োজন করা হয়েছে। লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি: বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নাটোরের লালপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে লালপুর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর মোড়ালে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোক র‌্যালি, আলোচনা সভা, শিক্ষার্থীদের চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। বুধবার (১৫ আগস্ট) দিনের শুরুতে উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর মোড়ালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাড. আবুল কালাম ও দলের নেতাকর্মীরা। পরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি শোক র‌্যালি বের হয়ে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়কসমূহ প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর মোড়ালের সামনে এক আলোচনা সভা ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার ও যুবকদের মাঝে যুব ঋণ বিতরণ করা হয়। আলোচনা সভা শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড.আবুল কালাম আজাদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- লালপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুনর রশিদ পাপ্পু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া আফরিন, লালপুর থানার (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল, উপজেলা অওয়ামী লীগের সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফু, সাধারণ সম্পাদক ইসাহাক আলী প্রমুখ। চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: যথাযোগ্য মর্যাদায় যশোরের চৌগাছায় জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে র‌্যালি, আলোচনাসভা, চিত্রাংঙ্কন প্রতিযোগীতা, দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দিনটির শুরুতে শহরে জাতীর জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তপক অর্পণ করেন উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামীলীগসহ দলটির বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন। পরে উপজেলা চত্তর থেকে একটি র‌্যালি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগসহ শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। র‌্যালি শেষে উপজেলা মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইবাদৎ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম হাবিবুর রহমান। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি শাহাজান কবির, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলশারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেহেদি মাসুদ চৌধুরী, সাবেক যুগ্মসম্পাদক মাস্টার সিরাজুল ইসলাম, এসএম শাইফুর রহমান বাবুল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক দেবাশীষ মিশ্র জয়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আকলিমা টুটুল লাকি, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক জিয়াউর রহমান রিন্টু প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে উপজেলার বৈশাখী মঞ্চে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা ও উপজেলা অওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। সোনারগাঁও প্রতিনিধি: জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইশা খাঁ’র রাজধানী খ্যাত সোনারগাঁওয়ে দোয়া মাহফিল ও দুস্থদের মাঝে খিচুড়ি বিতরণের আয়োজন করেছেন নারায়ণগঞ্জ -৩ আসন থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম। জাতির জনকের আদর্শ ধারণ করে তিনি দীর্ঘদিন নিজস্ব অর্থায়ণে এলাকার রাস্ত-ঘাট, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করে যাচ্ছে। শফিকুল ইসলাম বলেন, এলাকার সার্বিক উন্নয়ন করতে হলে জনপ্রতিনিধি হওয়া প্রয়োজন। নিজের অর্ধায়নে আমি এলাকায় অনেক উন্নয়ন কাজ করেছি। সে জন্য এলাকা জনগণ এখন আমাকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে দেখতে চায়। আমিও তাদের আস্বস্ত করেছি, জনপ্রতিনিধি হয়ে এলাকার উন্নয়ন করে ইশা খাঁ’র রাজধানীর সোনারগাঁওকে বাংলাদেশের একটি মডেল এলাকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা কবর। তিনি আরো বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাস করি। তার আদর্শের প্রতি সন্মান বুকে নিয়েই রাজনীতির পথে হাঁটতে চাই। তার দেয়া ঐতিহাসিক ভাষণ আমার কানে সারাক্ষণ বাজতে থাকে। আমি শুনতে পাই তিনি আমাকে এগিয়ে যেতে বলছেন। আমার বিশ্বাস, আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে এলাকার মনোন্নয়ন করার পাশাপাশি আওয়ামী লীগের সুনাম বহন করতে সক্ষম হবো। জনগণের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের এক পর্যায়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম সোনারগাঁওয়ের কয়েকটি এলাকা চিহ্নিত করে সেখানকার রাস্তা ও অবকাঠামো সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি মনে করেন, জন প্রতিনিধি হওয়া ছাড়া সমস্ত সোনারগাঁওয়ের উন্নয়ন করা সম্ভব না। তিনি এ বিষয়ে জনগণের সহযোগীতাও প্রত্যাশা করেন। মতবিনিময় শেষে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সকল শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়ার আয়োজন এবং উপস্থিত দুস্থদের মাঝে খিচুড়ি বিতরণ করা হয়। পরে তিনি পিরোজপুর, সোনারগাঁও, সম্ভুপুরা, সরমান্দী, মোগরাপাড়া, কাঁচপুর এলাকায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন। এসময় এলার বিপুলসংখ্যাক নেতাকর্মী তার সঙ্গে ছিলেন। চবি প্রতিনিধি: যথাযোগ্য মর্যাদা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) পালিত হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শােক দিবস। দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করে। এর মধ্যে ছিল- বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, শোক র‌্যালি, আলোচনা সভা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল মসজিদে বিশেষ মোনাজাত, দোয়া মাহফিল ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের স্ব-স্ব উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা এবং কালো ব্যাজ ধারণ। বুধবার (১৫ আগষ্ট) সকাল ৯টার দিকে প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে উপাচার্য দপ্তরের সম্মেলনকক্ষে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কীর্তির উপর ‘শােকাবহ ১৫ আগস্ট’ শীর্ষক আলাচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবন একটি মহাগ্র। যিনি বিশ্ব মানচিত্র স্থান করে দিয়েছেন বাংলাদশ নামক একটি জাতি-রাষ্ট্র। যাঁর জন্ম না হলে বাঙালি জাতি কােনদিনও অর্জন করতে পারতাে না একটি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। তিনিই বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আলােচনা সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের আয়ােজন কমিটির সদস্য সচিব ও প্রক্টর মােহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী। আলােচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার, কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফসর ড. মাে. সেকান্দর চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. আহমেদ সালাউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. অলক পালসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ। নোয়াখালী প্রতিনিধি: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে তার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন, র‌্যালি, আলোচনা সভা পুরস্কার বিতরন দোয়া ও কাঙ্গালী ভোজ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা -উপজেলা প্রশাসন উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বুধবার সকালে দিনব্যাপি নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মামুনুর রশিদ কিরন। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন- জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা: এবিএম জাফর উল্যা, উপজেলা চেয়ারম্যান এড আবদুর রহিম, চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সল, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি মিনহাজ জাবেদ প্রমূখ। এছাড়া জেলার সেনবাগ কাবিলপুর ইউনিয়নে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ ব্যাংক পািরচালক ড. জামাল উদ্দিন এফসিএ এর উদ্দ্যোগে দিন ব্যাপীর নানা আয়োজনে শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে জেলা-উপজেলা পৌরসভার আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। রংপুর প্রতিনিধি : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বুধবার রংপুরে রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। রংপুর সিভিল সার্জন অফিসের আয়োজনে ব্র্যাক ও সন্ধানী রংপুর মেডিকেল কলেজ ইউনিটের সহযোগিতায় পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত রক্তদান কর্মসূচিতে স্বেচ্ছায় ৩৫ জন ব্যক্তি রক্তদান করেন। রক্তদান কর্মসূচি পরিদর্শন করেন রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহমেদ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- রংপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হাবিব, পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, রংপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ আবু মো. জাকিরুল ইসলাম, ব্র্যাকের জেলা প্রতিনিধি আবু সাঈদ, সিনিয়র আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (স্বাস্থ্য ও পুষ্টি) আরিফ আহমেদ, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (শিক্ষা) মফিজুল ইসলাম, সুরেশ চন্দ্র রায়, বিশ্বনাথ মদক, সন্ধানীর সভাপতি আতিকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস, উপদেষ্টা ডাঃ মো. রাকিবুল ইসলাম, জুয়েল হোসেন, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি রায়হান শরীফ, প্রতীক, হেলা, ঝর্ণা, সৌভিক, বুলবুল, জাকিয়া প্রমুখ।
সেলিম সভাপতি ও মঈন সম্পাদক করে আকবর শাহ থানা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন
সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব আবদুস সাত্তার সেলিমকে সভাপতি ও আলহাজ্ব মঈন উদ্দিন চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫৮ সদস্য বিশিষ্ট আকবর শাহ থানা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর। আজ ১৩ আগস্ট সোমবার এ কমিটি অনুমোদন করা হয়। কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা হচ্ছেন সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আইয়ুব খান, সহ-সভাপতি মহসিন তালুকদার, শহিদুল্লাহ ভূঁইয়া, খাজা মো. মঈন উদ্দিন, আমিনুল হক, মমতাজ হাসান বাদল, জাহাঙ্গির আলম, রেহান উদ্দিন প্রধান, আবদুর রহমান খান, মো. ইসমাইল, এডভোকেট মো. আলা উদ্দিন, মো. জামাল উদ্দিন কোম্পানী, খোরশেদ আলম মাস্টার, আবুল কালাম আজাদ, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, নূর মোহাম্মদ, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মো. নূর চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক মো. জাহেদ আলী, মো. ওয়াসিমুল গণি, নওশের দিদার, মো. আনোয়ার হোসেন, মো. আবদুর রহিম সজল, আলহাজ্ব আজহারুল ইসলাম বাচ্চু, মো. ইয়াকুব, মো. আলী আক্কাস, মো. শফিকুল ইসলাম পলাশ, মো. নাসির উদ্দিন, পলাশ চৌধুরী, আকবর হোসেন ফরহাদ, কোষাধ্যক্ষ আবদুল মতিন সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট কামরুল হাসানাত, ফজলুল হক মাস্টার, গোলাম কিবরিয়া গোলাপ, সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. আয়াছ মিয়া, মো. জামাল হোসেন, মো. নুরুল ইসলাম, ইউনুস গাজী, দপ্তর সম্পাদক গোলাম মওলা পাভেল, প্রচার সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন, আফতাব হোসেন, প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট মনজুরুল আলম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক জেবুননেছা মুন্নি, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ইকবাল হোসেন, যুব বিষয়ক সম্পাদক আরিফ চৌধুরী, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক মিনহাজ উদ্দিন সানি, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ওমর ফারুক, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক কোরবান আলী ভুট্টু, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক আজিজ উদ্দিন চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ডা. কাজী লোকমান, প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক খুরশিদ আহমদ কমল, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন চৌধুরী বাবুল, ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক আবদুল আজিজ, ক্ষুদ্র ঋণ ও সমবায় সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, মানবাধিকার সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী মামুন, গণশিক্ষা সম্পাদক মো. ইলয়াছ লেদু, স্থানীয় সরকার সম্পাদক নাসির উদ্দিন সওদাগর, ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্প মো. জাহাঙ্গির, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মামুনুর রশিদ, ক্রীড়া সম্পাদক কাউসার আহমদ হিমেল, সংস্কৃতি সম্পাদক নজরুল ইসলাম তুহিন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মামুন, মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক আবদুল হাকিম, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মাস্টার শফিকুল আলম, সহকোষাধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক মীর মো. জাহাঙ্গির আলম, নুরুল আলম নুরু, আহসানুল হক হিরু, রফিকুল ইসলাম তোতা, মো. ফিরোজ খান, মো. মহিউদ্দিন, মো. শাহীন। এছাড়াও ২৬ জন সহ-সম্পাদক, ১৭ জন সম্মানিত সদস্য ও ৫২ জন কার্যরকী সদস্য। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস দোকানে স্কুলছাত্রীসহ নিহত ৩
অনলাইন ডেস্ক: রাজশাহী মহানগরীর নওদাপাড়া বাজার এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি যাত্রীবাহী বাস দোকানের ভেতরে ঢুকে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন এবং হাসপাতালে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছে শিশুসহ আরও ৪ জন। আজ বুধবার সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর উত্তেজিত জনতা ও স্থানীয় হামিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। নিহতদের মধ্যে একজন স্কুলছাত্রী আছে। তার নাম আনিকা (১২)। সে নগরীর নওদাপাড়ার ভাড়ালিপাড়া এলাকার রুস্তমের মেয়ে এবং শাহ মখদুম স্কুলের ছাত্রী। গুরুতর আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থলে নিহত অপর দুইজন হলেন শাহ মখদুম থানার মোড় এলাকার ইসলামের ছেলে ইসমাইল হোসেন পিংকু (২৪) ও মোহাম্মদ আলীর ছেলে সবুজ ইসলাম (৩২)। তারা দুজন ডিসের লাইনের কাজ করতেন। শাহ মখদুম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ ঘটনায় মিতু নামের অপর এক স্কুলছাত্রী আহত হয়েছে। আহতদের সবাইকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকলে কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নগরীর শাহ মখদুম থানার ওসি জিল্লুর রহমান জানান, বুধবার বেলা ১১ টার দিকে এ্যারো বেঙ্গল নামের একটি যাত্রীবাহী বাস রাজশাহী থেকে নওগাঁর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছিল। পথে নওদাপাড়া এলাকায় এসে পৌঁছালে সেটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি মোটরসাইকেলকে ধাক্কায় দেয়। এরপর লাবিবা লাইব্রেরির মধ্যে ঢুকে পড়ে। ক্ষতিগ্রস্ত হয় জাহাঙ্গীর ট্রেডার্স নামের অপর একটি দোকান। এতে করে স্কুলছাত্রীসহ তিনজন নিহত এবং অন্তত ৪ জন আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। ঘটনার পর পুলিশ সেখানে পৌঁছে বাসটি দোকান থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তবে এ ঘটনার পর বাস চালক ও হেলপার পলাতক আছে। ঘটনার পর নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে স্থানীয় জনতা ও শিক্ষার্থীরা।
ভোলার মনপুরার মেঘনায় দুই ট্রলারডুবি- নিখোঁজ ৬
অনলাইন ডেস্ক: ভোলার মনপুরার মেঘনায় প্রবল স্রোতের কবলে পড়ে দুটি ট্রলার ডুবে গেছে। এ ঘটনায় ৬ জেলে নিখোঁজ রয়েছে। তাদের উদ্ধারে মেঘনায় ট্রলারে অভিযান পরিচালনা করছে মালিকপক্ষ। মঙ্গলবার মনপুরার ভাসানচর সংলগ্ন মেঘনায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রলার দুটির মালিক হলেন বাছেদ মাঝি ও নোমান মাঝি।নিখোঁজ জেলেরা হলেন, বাছেদ মাঝি, রিপন, রাসেল, শামীম, জাকির, জান্টু। এদের সবার বাড়ি ভোলা সদর ইউনিয়নের কাচিয়া গ্রামে। এরা সবাই বাছেদ মাঝির ট্রলারে ছিলেন। নোমান মাঝির ট্রলারে সব জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন আড়তদার বাবুল মাতাব্বর। নিখোঁজ জেলেদের আড়তদার খালেক মাষ্টার জানান, ভাসানচর সংলগ্ন মেঘনার শেষ প্রান্তে ইলিশ শিকারের সময় প্রবল স্রোতের কবলে পড়ে ডুবে যায় বাছেদ মাঝির ট্রলার। এতে দুই জেলে সাঁতরে উঠতে পারলেও ছয় জেলে নিখোঁজ রয়েছে । নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে চেষ্টা চালানো হচ্ছে। মনপুরা থানার ভারপ্রার্প্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফোরকান আলী জানান, ট্রলার ডুবির ঘটনা আড়তদাররা জানায়নি। আমি শুনেছি। এ ব্যাপারে কোস্টগার্ডের দক্ষিণ জোনের অপারেশন অফিসার লে.কমান্ডার নুরুজ্জামান শেখ জানান, নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে কোস্টগার্ডের একটি টিম কাজ করছে।
আজ ১৫ আগস্ট বাঙালি ও বাংলাদেশের শোকের দিন
অনলাইন ডেস্ক: বাঙালি ও বাংলাদেশের শোকের দিন আজ। শোকাবহ ১৫ আগস্ট, জাতীয় শোক দিবস আজ। ইতিহাসের মহানায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদতবার্ষিকী। ১৯৭৫-এর এই কালো দিনটিতেই জাতি হারিয়েছে তার গর্ব, আবহমান বাংলা ও বাঙালির আরাধ্য পুরুষ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শত্রুদের প্ররোচনায় মানবতার দুশমন, ঘৃণ্য ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করে। আর সেই থেকে ১৫ই আগস্ট এলেই কেঁদে ওঠে বাঙালি জাতির হৃদয়। প্রতি বছর ১৫ই আগষ্ট এই দিনে জাতির পিতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে সারা দেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয় জাতীয় শোক দিবস। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে দিয়ে শ্যামনগরে পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস। জাতীয় শোক দিবস ২০১৮ পালন উপলক্ষ্যে শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ্যে থেকে নেওয়া হয় নানা উদ্দোগ। সকাল ৮ টায় উপজেলা প্রশাসন চত্বর থেকে বিভিন্ন সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ, বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষক শিক্ষার্থী বৃন্দ, উপজেলা আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, যুবলিগ সহ অন্যান্য অংঙ্গ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী বৃন্দ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক বৃন্দ, বিভিন্ন সরকারী বেসরকারি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ আপামর জনসাধারণকে সাথে নিয়ে বিশাল শোক র্যালী বের করা হয়। র্যালী শেষে উপজেলা প্রশাসন হলরূমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরূজজামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্যামনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সুজন সরকার, শ্যামনগর থানার ওসি তদন্ত জিয়াউর রহমান,শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আতাউল হক দোলন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নূরজাহান পারভীন ঝর্ণা প্রমূখ।

সারা দেশ পাতার আরো খবর