চট্টগ্রামে নিউজ টোয়েন্টিফোরের তৃতীয় বর্ষে পদার্পন অনুষ্ঠান
অনলাইন ডেস্ক :সংকীর্ণতা-ই বড় সংকট। জাতীয় উন্নয়নে সংকীর্ণতার উর্ধ্বে ওঠে কাজ করতে পারলেই অগ্রযাত্রা সম্ভব। আর এমন বোধ তৈরি করতে পারে গণমাধ্যম। শনিবার (২৮ এপ্রিল) চট্টগ্রামে স্যাটেলাইট টেলিভিশন নিউজ টোয়েন্টিফোরের তৃতীয় বর্ষে পদার্পন অনুষ্ঠানে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন এসব কথা বলেন। নগরের কাজির দেউড়ী কর্ণফুলী টাওয়ারস্থ নিউজ টোয়েন্টিফোর স্টুডিওতে অনুষ্ঠিত প্রীতি সমাবেশে সিটিমেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন টেলিভিশনটির দ্রুত এগিয়ে চলার পথে গণমূখীতার ভূয়শী প্রশংসা করেন। মনোমুগ্ধ এ অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানসহ কর্তৃপক্ষ এবং নিউজ টোয়েন্টিফোর, রেডিও ক্যাপিটালের সিইও ও বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজামের পক্ষে সমবেতদের শুভেচ্ছা জানান অনুষ্ঠান সভাপতি নিউজ টোয়েন্টিফোর চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী। অনুষ্ঠানে কথামালা মিষ্টান্ন বিতরণ, যাদু প্রদর্শনী, আড্ডা, আলোচনায় প্রীতিময় পরিবেশ তৈরি হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নগরে কোতোয়ালী আসনের সংসদ সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসেন, নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য মাজহারুল হক শাহ, বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি মঈনুদ্দিন আহমদ মিন্টু চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চবি শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি ড. বেণু কুমার দে, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আলী আব্বাস, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাবেক সভাপতি এজাজ ইউসুফী, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব আবদুচ সামাদ, চট্টগ্রাম রির্পোটাস ফোরামের সভাপতি কাজী আবুল মনসুর, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম বাবু, বিজিএমইএ পরিচালক মাহমুদ হাসান জুয়েল ও সাইফুল্লাহ মনসুর, বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য রুবেল খান ও আজাহার মাহমুদ, পটিয়ার সাবেক পৌর মেয়র শামসুল আলম মাস্টার, বিএফইউজের সাবেক নির্বাহী সদস্য শামসুল হুদা মিন্টু, নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আবদুল মান্নান, ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, হাসান মুরাদ বিপ্লব ও আবিদা আজাদ, যুবনেতা ফরিদ মাহমুদ, সুমন দেবনাথ, চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্টের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লতিফা আনসারী রুনা, চট্টগ্রাম ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দিদারুল আলম, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, রিপোর্টার্স ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আলীউর রহমান, জহুর আহম্মেদ চৌধরী ফাউন্ডেশনের পরিচালক সাইফুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী রাজু, বনিকবার্তার ব্যুরো চীফ রাশেদুল হক চৌধুরী, জেলা শিল্পকলা একাডেমির নির্বাহী সদস্য সাইদুল ইসলাম, আরটিভির ব্যুরো প্রধান সরোয়ার আমীন বাবু, কবি লুলুল বাহার ও মানবাধিকার সংগঠক এডভোকেট টুটুল বাহার, এক্স কাউন্সিলর ফোরামের সমন্বয়কারী জামাল হোসেন, চট্টগ্রাম আবৃত্তি জোটের সহ-সভাপতি ফারুক তাহের, যাদু শিল্পী রাজিব বসাক, টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শফিক আহমেদ সাজিব ও সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম বাবু প্রমুখ।বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
কপিরাইট আইনে লক্ষ্মীপুরে ২৫ ব্যবসায়ী গ্রেফতার
অনলাইন ডেস্ক: নকল সিনেমা, অশ্লীল ভিডিও ও সঙ্গীত কপিরাইট করে বাণিজ্য করার অপরাধে লক্ষ্মীপুরে ২৫ টেলিকম ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এসময় ১৮টি কম্পিউটার ও সাতটি ল্যাপটপ জব্দ করা হয়। শনিবার (২৮ জুলাই) রাতে র‌্যাব-১১ এর লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করা হয়। আগে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জেলা শহর ও মজুচৌধুরীর হাট এলাকায় র‌্যাব অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটকেরা হলেন- জাহিদ হোসেন, ইসমাইল হোসেন সোহাগ, মো. জহির আলম ভূঁইয়া বেলাল, ইব্রাহিম মাহিম ও রথিন সুরসহ ২৫ ব্যবসায়ী। তাদের সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক নরেশ চাকমা সংবাদ সম্মেলনে বলেন, টেলিকম ও মোবাইল মেরামত ব্যবসার আড়ালে অশ্লীল ভিডিও ডাউনলোড করে মেমোরিতে লোড দিয়ে বাণিজ্য চলছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লক্ষ্মীপুর পৌর মার্কেট, সুপার মার্কেট ও মজুচৌধুরীর হাট এলাকায় পৃথক অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ২৫ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার এবং ১৮টি কম্পিউটার ও সাতটি ল্যাপটপ জব্দ করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ ও কপিরাইট আইনে লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানায় মামলা করা হয়েছে।
মন্ত্রীর ছেলেকে নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, ছাত্রলীগকর্মী গ্রেফতার
অনলাইন ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি'র সম্মানহানি করার অভিযোগে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ওই ছাত্রলীগকর্মীর নাম মোহাইমিনুল ইসলাম রাহিম। শনিবার চট্টগ্রাম নগরীর হামজারবাগ এলাকার নিজ বাসা থেকে চান্দগাঁও থানা পুলিশ মোহাইমিনুলকে গ্রেফতার করে। চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার এ খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ফেসবুকে মন্ত্রীর ছেলেকে জড়িয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে মন্ত্রীর সম্মানহানির পাশাপাশি ওই ছাত্রলীগ কর্মী মন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত চট্টগ্রামের হাজেরা তজু ডিগ্রি কলেজের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছেন বলে ওসি জানান। গ্রেফতার ছাত্রলীগ কর্মী মোহাইমিনুল চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজের ডিগ্রি পাস কোর্সের শেষ বর্ষের ছাত্র। ওসি আবুল বাশার বলেন, ‘প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রীর সুনাম ক্ষুণ্ন করে ফেসবুকে দেয়া একটি স্ট্যাটাসের ভিত্তিতে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মোহাইমিনুল ইসলাম রাহিমের বিরুদ্ধে মামলা করেন হাজেরা তজু কলেজের কর্মকর্তা আব্দুল করিম। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর অনুমতি নিয়ে মামলাটি গ্রহণ করার পর শনিবার মোহাইমিনুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়, গত ২৮ জুন দুপুরে মোহাইমিনুলসহ ১০-১২ জন অনধিকার চর্চা করে কলেজে প্রবেশ করেন। ওই দিন তারা অধ্যক্ষকে না পেয়ে উপাধ্যক্ষের কক্ষে গিয়ে একাদশ শ্রেণির ভর্তি ফি নিয়ে জিজ্ঞেস করেন এবং কলেজের ভেতরে উত্তেজনামূলক স্লোগান দেন। পরে এ ঘটনায় মোহাইমিনুল মন্ত্রীর ছেলে মুজিবকে জড়িয়ে স্ট্যাটাস দেন। গত ৩০ জুন হাজেরা তজু কলেজের কর্মকর্তা আব্দুল করিম ফেসবুকে তার এই স্ট্যাটাস দেখতে পান। পরে এ ঘটনায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ (১) ধারায় অভিযোগ এনে তিনি (আব্দুল করিম) মামলাটি দায়ের করেন। শীর্ষনিউজ
অপহরণের পর মারধর করা হয়নি, অজ্ঞান করা হয়েছিল
অনলাইন ডেস্ক: অপহরণের পর দুর্বৃত্তরা মারধর করেনি, তবে অজ্ঞান করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন রাজধানীর লালমাটিয়া থেকে অপহৃত হওয়ার পর পূর্বাচলে উদ্ধার পাওয়া কুমিল্লার তিতাস উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা পারভেজ হোসেন সরকার। তিনি বলেন, ‘অপহরণের পর আমাকে মারধর করা হয়নি, তবে অজ্ঞান করা হয়েছিল। আমাকে সহযোগিতা করায় আমি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও দেশের গণমাধ্যমকে ধন্যবাদ জানাই।’ শনিবার (২৮ জুলাই) দুপুরে লালমাটিয়ার সি ব্লকে নিজের বাসায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা জানান পারভেজ হোসেন সরকার। তিনি বলেন, ‘শুক্রবার জুমার নামাজ শেষ করে বাসায় ফেরার সময় এক লোক এসে আমাকে সালাম দেয়, ঠিক ওই সময় পেছন থেকে আরেকজন এসে ধাক্কা দিয়ে আমাকে গাড়িতে উঠিয়ে নেয়। এরপর মুখে কাপড়ের মতো কিছু একটি ধরে অজ্ঞান করে ফেলে।’ পারভেজ বলেন, ‘জ্ঞান ফেরার পর গাড়ির ভেতরেই দুই সেট তিনশ টাকার খালি স্ট্যাম্পে আমার স্বাক্ষর নেয়। এরপর দীর্ঘক্ষণ গাড়িতে করে ঘুড়িয়ে আনুমানিক রাত ১০টার দিকে রূপগঞ্জ কাঞ্চন ব্রিজের আগে একটি উন্মুক্ত স্থানে আমাকে নামিয়ে দেওয়া হয়।’ অপহরণের বিষয়ে সাংবাদিকদের পারভেজ বলেন, ‘আমি কিছুই বুঝতেছি না। আমার সঙ্গে কারও ব্যবসায়িক বিরোধ নেই। তবে এলাকাতে রাজনৈতিক বিরোধ আছে। আমি একবছর ধরে আমার এলাকাতে যাই না। কারণ আমার ওপর আগে হামলা হয়েছিল। তবে এজন্য আমাকে অপহরণ করা হয়েছে, এটা আমি এখনই বলতে চাই না। কারণ সে আমার একই দলের। আমরা এক সঙ্গে রাজনীতি করি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে, তারাই বিষয়টি বের করুক।’ এর আগে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে পারভেজ হোসেন সরকারকে রাজধানীর লালমাটিয়া থেকে অপহরণ করা হয়। এর প্রায় ৯ ঘণ্টা পর খিলক্ষেতের তিনশ’ ফুট রাস্তা সংলগ্ন এলাকায় তাকে পাওয়া যায়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি স্ত্রীকে ফোন করে নিজের অবস্থান জানান। এরপর স্বজনরা গিয়ে পারভেজকে সেখান থেকে লালমাটিয়ার বাসায় নিয়ে আসেন। আলোকিত বাংলাদেশ
ইয়াবা ট্যাবলেট সহ আটক ২
অনলাইন ডেস্ক : সরকারের মাদক বিরোধী অভিযানের প্রেক্ষিতে তারাও কৌশল পাল্টেছে।নগরীর কোতোয়ালী থানা পুলিশ মোঃ বেলাল (২৯) এবং মোঃ আবুল বশর (৩৫) নামে দুজন কক্সবাজার জেলার বাসিন্দাকে ৫হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়। কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীন জানান, ধৃত আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তাহাদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ সহ তাহাদের সহযোগী অপর পলাতক আসামীর নিকট হইতে উক্ত ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করিয়া বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ঘটনাস্থলে অবস্থান করিতেছিল বলিয়া স্বীকার করে। পলাতক আসামী গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে। এসআই/আব্দুর রব বাদী হইয়া এজাহার দায়ের করিলে আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে একটি মামলা রুজু হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের নাম ও ঠিকানা নিম্নরুপ ১। মোঃ বেলাল (২৯), পিতা-মৃত কবির আহম্মদ, মাতা-মৃত সুফিয়া, সাং-হোয়াইনক, ০৪নং ওয়ার্ড, রাজোয়ার ঘোনা, থানা-মহেশখালী, জেলা-কক্সবাজার। ২। মোঃ আবুল বশর (৩৫), পিতা-তাজর মুল্লুক, মাতা-মৃত ফাতেমা বেগম, সাং-হোয়াইনক, ০৪নং ওয়ার্ড, রাজোয়ার ঘোনা, থানা-মহেশখালী, জেলা-কক্সবাজার।
আল্লামা সিরিকোটি (রা.) ওরশ মাহ্ফিলে বক্তারা, আল্লামা সিরিকোটি (রা.) ছিলেন শরিয়ত ও তরিকতের দিশারী
নগরীর জেল রোডস্থ শাহ আমানত এতিমখানা ও গাউছিয়া তৈয়বিয়া হিফজখানা পরিচালনা কমিটির ব্যবস্থাপনায় কুতুবুল আউলিয়া গাউছে জামান বানিয়ে জামেয়া আল্লামা সৈয়্যদ আহমদ শাহ্ ছিরিকোটি (রহ.) এর পবিত্র ওরশ শরীফ ও মরহুম আন্টু মিয়া চৌধুরী ও মরহুমা নবিয়া খানম স্মরণে দোয়া মাহফিল শাহ্ আমানত (রহ.) এতিমখানা ও গাউছিয়া তৈয়্যবীয়া হিফজখানায় প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক আল্লামা নুরুল আবছার আল কাদেরীর সভাপতিত্বে ২৭ জুলাই বৃহস্পতিবার বাদে মাগরিব অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব চৌধুরী ফজলে মতিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউএসটিটি কার্ডিওলজী বিভাগীয় প্রধান আলহাজ্ব সৈয়দ ডাঃ মোস্তাফা কামাল, বিশিষ্ট সমাজসেবক মোহাম্মদ নাছিরুল আলম, হুমায়ুন মোরশেদ ছিদ্দিকী। উদীয়মান ইসলামি চিন্তাবিদ আলহাজ্ব মাওলানা হেলাল চিশতীর সঞ্চালনায় এতে অন্যাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হাফেজ মুহাম্মদ মফিজুর রহমান, হাফেজ মাওলানা এয়াকুব প্রমুখ। মাহফিলে সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, এদেশে ইসলামের প্রচার ও প্রসারে আল্লামা ছিরিকোটি (রহ.) এর অবদান চির স্বরনীয় হয়ে থাকবে। বিশেষ করে ইসলামের নামে বিভিন্ন বাতিল ফিরকা যখন সরলমনা মুসলমানদের ইমান, আকিদা ধ্বংসের জন্য চতুদিকে বিভিন্ন মুখী ষড়যন্ত্র পরিকল্পিত ভাবে বাস্তবায়নের জন্য উঠে পড়ে লেগেছিল ঠিক সে মুহুর্তে জামেয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া আলীয়ার মত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করে ইসলামকে বিকৃত করার হাত থেকে রক্ষা করে যুগের সংস্কারের দায়িত্ব পালন করেছেন। সভাপতি তার বক্তব্যে আরো বলেন পাথরঘাটার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী পরিবারের মরহুম আন্টু মিয়া চৌধুরী ও মরহুমা নবিয়া খানম ছিলেন এদেশে দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারে সিদ্ধ হস্ত। তাদের অনুদানে এদেশে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উপকৃত হয়েছে। বর্তমানেও তাদের বংশধরেরা তাদের পূর্ব পুরুষের এ ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে বদ্ধপরিকর। আর সে ঐতিহ্যবাহী পরিবারের বর্তমান সময়ের অন্যতম কর্ণধার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক আলহাজ্ব চৌধুরী ফজলে মতিন বিভিন্ন শিক্ষালয়ে বিশেষ করে নগরীর জেল রোডস্থ শাহ আমানত এতিমখানায় বিভিন্ন সহযোগিতা প্রদান রত আছেন এবং ভবিষ্যতেও এই এতিমখানার ছাত্রদের লেখাপড়ার মান উন্নয়নে আরো ব্যাপক অনুদান দেওয়ার অশ্বাস প্রদান করায় সভাপতি তার বক্তব্যে মাহফিলের প্রধান অতিথি আলহাজ্ব চৌধুরী ফজলে মতিন সাহেবের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পরিশেষে সালাতু ছালাম এবং আল্লামা ছিরিকোটি (রহ.) এর ফয়জেবরকত অর্জন মরহুম আন্টু মিয়া চৌধুরী ও মরহুমা নবিয়া খানমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সজিব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন পালন
ঝিনাইদহে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র সজিব ওয়াজেদ জয়ের ৪৮তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে শহরের ডা. কে আহম্মদ পৌর কমিউনিটি সেন্টারে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ। জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মকবুল হোসেন,তৈয়ব আলী জোয়ার্দ্দার,সদস্য গোলাম সরওয়ার খান সউদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আহম্মেদ সঞ্জু, সাংগঠনিক সম্পাদক অশোক ধর, জজকোর্টের পিপি এ্যাড. ইসমাইল হোসেন। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এম হাকিম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মঞ্জুর পারভেজ তুষার, দপ্তর সম্পাদক আছাদুজ্জামান আছাদ, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড বিকাশ কুমার ঘোষ, সহ-দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হুসাইন, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক লিকু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খালেদা খানম, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম শিমুল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা হামিদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করে জেলা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক সরোয়ার জাহান বাদশা। আলোচনা সভা শেষে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী সজিব ওয়াজেদ জয়ের ৪৮তম জন্মদিনের কেক কাটা হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে নতুন প্রজন্ম গড়েতে শক্তিশালী খেলাঘর আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে
২৭ শে জুলাই শুক্রবার বিকাল ৪টায় নীলাম্বরী খেলাঘর কর্তৃক আয়োজিত বর্ষ বরণ ও কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। জামালখান বাই লেইনের নিষ্কৃতি ভবনের ৩য় তলায় অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে বক্তাগণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আলোকে নতুন প্রজন্ম গড়তে পাড়ায় পাড়ায় শক্তিশালী খেলাঘর আন্দোলন গড়ে তোলার বিষয়ে আলোকপাত করেন। তাঁরা বলেন, ১৯৫২ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া খেলাঘর আসর আজবধি লাখো অসাম্প্রদায়িক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ প্রগতিশীল সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কর্মী বাহিনী গঠনে ভূমিকা রেখে চলেছে। এ কাজ এখন আরো প্রাসঙ্গিক বক্তাগন দেশব্যাপী চলমান মাদক ও জঙ্গীবাদের উত্থানের বিষয়ে শঙ্খা প্রকাশ করেন। আলোচকদের মতে খেলাঘরের কার্যকর সাংগঠনিক শক্তিই এর একমাত্র সমাধান। সভায় শুরুতে নীলাম্বরী খেলাঘর আসরের বোন তৃষা দাশের নেতৃত্বে ভাই-বোনদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর আসরের আহ্বায়ক আবু হাসনাত চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন আসরের সদস্য সচিব মনির আহমেদ, সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, সাবেক খেলাঘর সংগঠক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সঞ্জীব বড়–য়া। খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগরের সাধারণ সম্পাদক এ.এস.এম. জাহিদ হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রকৌশলী রথীনসেন, চট্টগ্রাম মহানগরের সহ-সভাপতি ডা: গণেশ রায়। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মহানগর ছাত্রলীগ নেতা ও নীলাম্বরী খেলাঘর আসরের কার্যনির্বাহী সদস্য বিকাশ দাশ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন অধ্যাপক জনার্দন বনিক অনুষ্ঠান শেষে পি.এস.সি., জি.এস.সি ও এস. এস. সি. পরীক্ষার ভালো ফলাফলের জন্য ৪০ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন- নীলাম্বরী খেলাঘর আসরের সদস্য সুজন নাথ, পঙ্কজ কান্তি দে, জনি বড়–য়া, রবি শঙ্কর সেন (নিশাত), রনি সরকার, অভিজিৎ চৌধুরী, প্রাপ্ত ভট্টাচার্য্য, মো: নাইম আরফাতে জাহেদ অনিক, উজ্জ্বল দাশ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বিআরটিসি বাস চালুর দাবিতে মানববন্ধন
পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যানজট মুক্ত করতে সপ্তাহে একদিন ব্যক্তিগত গাড়ী মুক্ত রাখা হয়। সরকার যানজট ও সরকারী ব্যয় কমাতে সরকারী ছুটি দুই দিন করলেও সমাধান আসেনি। তার মূল কারণ পুরো সড়ক জুড়ে ব্যক্তিগত গাড়ী এবং গণপপরিবহনে বেহাল দশা। লক্কর-ঝক্কার বাসগুলির কারনে গণপরিবহনে যাতায়ত করা কঠিন। অন্যদিকে বাস শ্রমিক ও মালিকদের স্বেচ্ছাচারী ও অমানবিক আচরণের কারনে যাত্রী বিশেষ করে নারী যাত্রীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। প্রতিনিয়তই বাস শ্রমিক ও মালিকদের অমানবিক আচরনে সাধারন যাত্রীরা অসহায় ও জিম্মি। সম্প্রতি চট্টগ্রামের একজন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র দূর্ঘটনায় নিহত হলে তার পরিচয় মুছে ফেলতে মুখমন্ডল থেতলে বিকৃত করে দেবার মতো ঘটনা বাড়ছে। নারী যাত্রীরা প্রতিনিয়ত যৌন হয়রানি ও নানা সহিংষতার শিকার হচ্ছে। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালত, কলকারখানা বিভিন্ন জায়গায় যাতায়তে ব্যক্তিগত গাড়ীর ব্যবহার বাড়ছে। যার ফলশ্রুতিতে যানজটে আকাল পুরো নগরজীবন। ঘন্টার পর ঘন্টা শ্রম ঘন্টা যেমন নষ্ঠ হচ্ছে, তেমনি নির্ধারিত সময়ে মানুষ গন্তব্যে পৌঁছতে পারছে না। এ অবস্থায় পৃথিবীর উন্নত দেশের আদলে সপ্তাহে একদিন ব্যক্তিগত গাড়ী মুক্ত রাখা, গণপরিবহনগুলির আধুনিকায়ন, চট্টগ্রাম নগরীতে বিআরটিসির বাস চালু, যাত্রীদের প্রতি মানবিক আচরন ও মর্যদাপূর্ন ব্যবহার নিশ্চিত করতে পরিবহন শ্রমিক ও মালিকদের উদ্ধুদ্ধকরণ করার দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে। ২৮ জুলাই ২০১৮ইং নগরীর জামালখান প্রেসক্লাব চত্ত্বরে আইএসডিই বাংলাদেশ, কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম, ক্যাব যুব গ্রুপ চট্টগ্রাম মহানগর, এর উদ্যোগে কার ফ্রি এলায়েন্স বাংলাদেশ ও ইনস্টিটিউট অব ওয়েল বিং এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ক্যাব যুব গ্রুপের সদস্য সচিব নোমান উল্লাহ বাহারের সঞ্চালনায় সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সরকারী হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, ক্যাব মহানগরের সাধারন সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, ক্যাব যুব গ্রুপের সভাপতি চৌধুরী কে এনএম রিয়াদ, রাজনীতিবিদ সৈয়দ জুলকার নাইন, সুবজের যাত্রার সায়েরা বেগম, সংসপ্তকের নার্গিস চৌধুরী, ওবাইদুর রহমান, প্রশিকার শাহাদত হোসেন, আইএসডিই বাংলাদেশের মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, ক্যাব চান্দগাঁওয়ের জানে আলম, সেলিম সাজ্জাদ, ক্যাব পাঁচলাইশের সেলিম জাহাঙ্গীর, ক্যাব সদরঘাটের শাহীন চৌধুরী, ক্যাব পাহাড়তলীর মিলি চৌধুরী, হারুন গফুর ভুইয়া, ক্যাব ডবলমুরিং এর মোনায়েম বাপ্পী, ক্যাব বোয়ালখালীর আকতার কামাল চৌধুরী, সাংবাদিক প্রশান্ত বড়–য়া, ক্যাব ডিপিও জহুরুল ইসলাম, শাম্পা কে নাহার, রাস্ট্র চিন্তার ফরিদুল হক, লিও আশিকুল আলম, মুহাম্মদ হানিফ, দীপ্ত ঘোষ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন রাজধানী ঢাকায় প্রতিদিন ৩২ লাখ কর্ম ঘন্টা নষ্ঠ হচ্ছে। যার বাৎসরিক ক্ষতির পরিমান প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা। এভাবে চলতে থাকলে ২০২৫ সাল নাগাদ যানবাহনের গড় গতি দাড়াবে ঘন্টায় ৪ কিঃমি। যান্ত্রিক যানের আধিক্যের কারনে বায়ু দুষণ, শব্দ দূষণ, সময় অপচয়, খোলা জায়গার সংকট এবং সড়ক দুর্ঘটনার পরিমান দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই অবস্থা যদি আমাদের নগর জীবনে হয় তাহলে আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর ও নিরাপদ নগরী বির্নিমান, শুধু অসম্ভব নয় কল্পনা ছাড়া কিছু হবে না। অন্যদিকে দেশের বিভিন্ন শহরে বিআরটিসির বাস থাকলেও চট্টগ্রাম নগরীতে লক্কর যক্কর বাসের কারনে ব্যক্তিগত গাড়ী ব্যবহারের প্রবণতা দ্রুত বাড়ছে। এছাড়াও বৃহৎ শিল্প ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির নিজস্ব বাস সার্ভিস না দিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ী ব্যবহারকে উৎসাহিত করছে। ফলে যানজট প্রতিনিয়তই বাড়ছে। অন্যদিকে সকাল বেলায় অফিস ও গন্তব্যে যাত্রায় ও সন্ধ্যায় ফিরতে গণপরিবহনের বাসগুলিতে তীব্রসংকট তৈরী করে। যার ভোগান্তি চরমে, সেখানে যাত্রীদের জিম্মি করে বেশী ভাড়া আদায় যেরকম বাড়ছে, তেমনি যৌনহয়রানিসহ নানা ধরনের সহিংষতা ও বাড়ছে। তাই সাধারন জনগনসহ যাত্রীদের জন্য নিরাপদ চলাচল ও নগরী প্রতিষ্ঠায় গণপরিবহনের আধুনিকায়ন জরুরী। একই সাথে ব্যক্তিগত গাড়ী পরিহারে জনগনকে উদ্বুদ্ধকরণ করা প্রয়োজন। যানজটের ভয়াবহ দুর্বিসহ দুরাবস্থা থেকে বাঁচাতে সরকার, স্থানীয় প্রশাসন, সিটিকর্পোরেশনকে এখনই উদ্যোগ নিতে হবে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর