ফেনীতে ফুটওভার ব্রিজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে চলন্ত ট্রেনের ছাদে ২ শিশুর মৃত্যু
ফেনীতে ফুটওভার ব্রিজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে চলন্ত ট্রেনের ছাদে থাকা দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয় আরো এক শিশু। মঙ্গলবার ১১টার দিকে ট্রেনটি চট্টগ্রাম স্টেশনে পৌঁছানোর পর ছাদ থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। রেলওয়ে পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকার বিমানবন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেনের ছাদে ওঠে পাঁচ পথশিশু। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ফেনী স্টেশন অতিক্রম করার সময় ফুটওভার ব্রিজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ট্রেনের ছাদে থাকা দুই শিশুর ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। আহত অপর শিশুকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাদের সঙ্গে থাকা অপর ২ শিশু চট্টগ্রামে পৌঁছানোর আগেই ট্রেন থেকে নেমে যায়। এদিকে নিহত দুই শিশুর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহত এক শিশু জানান, আমরা এয়াপোর্ট থেকে ওঠেছি। আমি সামনে বসা ছিলাম। তারা পিছনে নাচতে ছিল। তাদেরকে বলছি বসার জন্য তারা বসেনি। এরপর ব্রিজ আসলে তারা বসেনি। পরে ধাক্কা খেয়ে নিচে পড়ে যায়। আমিও নিচে পড়ে গিয়ে আহত হয়েছি।
২০২১ সামনে রেখে দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দরকে ব্যবহারকারী বান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে
সরকারের রপকল্প-২০২১ সামনে রেখে দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দরকে ব্যবহারকারী বান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান কমডোর জুলফিকার আজিজ। চট্টগ্রাম বন্দরের ১৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী (বন্দর দিবস) উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) সকালে শহীদ ফজলুর রহমান মুন্সী অডিটোরিয়ামে ‘প্রচার মাধ্যম প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা’য় তিনি এসব কথা বলেন বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, খোলা পণ্য (কার্গো), কনটেইনার ও জাহাজ হ্যান্ডলিংয়ের ক্রমবর্ধমান প্রবৃদ্ধি সামাল দেওয়া চট্টগ্রাম বন্দরের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। রপকল্প সামনে রেখে স্ট্র্যাটেজিক মাস্টারপ্ল্যানের ভিত্তিতে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছি। তিনি বলেন, সরকারের দিকনির্দেশনায় নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনালের (এনসিটি) জন্য হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট সংগ্রহ করে পূর্ণাঙ্গভাবে চালুর উদ্যোগ নিয়েছি। ইতিমধ্যে ৯টি রাবার টায়ার গ্যান্ট্রি ক্রেন, ৪টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার, ৫টি কনটেইনার মুভার, ১টি রেল মাউন্টেড গ্যান্ট্রি ক্রেন সংগ্রহ করে বন্দরের ইক্যুইপমেন্ট ফ্লিটে সংযুক্ত করেছি। ৩টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার শিপমেন্ট করা হয়েছে, শিগগির বন্দরে পৌঁছবে। তিনি জানান, ৬টি শিপ টু শোর গ্যান্ট্রি ক্রেন, ২টি আরটিজি, ১টি মোবাইল হারবার ক্রেন সংগ্রহের আমদানি ঋণপত্র (এলসি) খোলা হয়েছে। ৪টি শিপ টু শোর গ্যান্ট্রি ক্রেন সংগ্রহের দরপত্র মূল্যায়ন শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ৬টি আরটিজির এলসি খোলা প্রক্রিয়াধীন ও ৩টি আরটিজির দরপত্র মূল্যায়নাধীন আছে। ৩টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার সংগ্রহের জন্য শিগগির চুক্তি সম্পাদন হবে। বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, ব্রিটিশ-ইন্ডিয়া সরকার ১৮৮৭ সালে পোর্ট কমিশনার্স অ্যাক্ট প্রণয়ন করে যা ২৫ এপ্রিল ১৮৮৮ সালে কার্যকর হয়। তখন থেকে চট্টগ্রাম বন্দর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে। তাই প্রতি বছর ২৫ এপ্রিল বন্দর দিবস উদযাপন করে আসছে। এছাড়া ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ গৃহীত ক্যাপিটেল ড্রেজিং, জেটি নির্মাণ, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পতেঙ্গা কন্টেইনার সার্ভিস নির্মাণ কার্যক্রম , লালদিয়া মাল্টি-পারপাস টার্মিনাল নির্মাণ প্রভৃতি কার্যক্রম সম্পন্ন হচ্ছে বলে জানান বন্দর চেয়ারম্যান। বে-টার্মিনাল নির্মাণে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়েছে বলে জানান। ভূমি সংক্রান্ত ডেলিভারি ইয়ার্ডনির্মাণের জন্য ৬৮ একর জমি ৩০মে এর মধ্যেই চট্টগ্রাম বন্দর কতৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর হচ্ছে বলে জানান। এবার বন্দর দিবসে অবসর নেওয়া কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে। সভায় বন্দরের সদস্য কমডোর শাহিন রহমান, ক্যাপ্টেন খন্দকার আকতার হোসেন ও কামরুল আমিন, বন্দর সচিব ওমর ফারুক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে বন্দুকযুদ্ধে ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত
চট্টগ্রামের বাঁশখালী-পেকুয়া এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আব্দুল হাকিম মিন্টু (৩০) নামে ধর্ষণ মামলার এক আসামি নিহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে আব্দুল হাকিমের লাশ উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মিমতানুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। মিমতানুর রহমান বলেন, ‘সোমবার রাতে বাঁশখালী-পেকুয়া এলাকায় সন্ত্রাসীদের সঙ্গে র‌্যাবের গুলি বিনিময় হয়। পরে ঘটনাস্থলে আব্দুল হাকিমের লাশ পাওয়া যায়। সে ধর্ষণ মামলার আসামি।’ ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান, ৫ রাউন্ড গুলি ও ২টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান। ১৮ এপ্রিল আব্দুল হাকিম শেখেরখীল ইউনিয়নের টেকপাড়া এলাকায় ১০ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। ধর্ষণের শিকার ওই শিশুটি তৃতীয় শ্রেণিতে পড়তো। এ ঘটনায় ২১ এপ্রিল শিশুটির বাবা বাঁশখালী থানায় মামলা দায়ের করেন। এজহারে উল্লেখ করা হয, গত ১৮ এপ্রিল মাদ্রাসা থেকে এসে বিকালে ওই ছাত্রী বাড়ির পাশের জমিতে ঘাস কাটতে যায়। এসময় একা পেয়ে আব্দুল হাকিম জোর করে মেয়েটিকে ধান ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে মেয়েটির চিৎকার শুনে লোকজন জড়ো হলে ধর্ষক হাকিম পালিয়ে যায়।
৩৫ হাজার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন বারো দিনে তিতাসের
ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় আঞ্চলিক তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির চলমান অভিযানে গত ১২ দিনে প্রায় সাড়ে ৩৫ হাজার আবাসিক অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এ ঘটনায় বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ সংযোগ প্রদান ও ব্যবহারের অভিযোগে প্রায় চারশ জনের নাম উল্লেখসহ প্রায় পনেরশ জনের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত ১০টি মামলা করেছে তিতাস কর্তৃপক্ষ। চলতি মাসের ৪ তারিখ থেকে শুরু ১৮ তারিখ পর্যন্ত বিভিন্ন সময় আশুলিয়া থানায় এসব মামলা করেন সাভার আঞ্চলিক তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপক (বিপণন) সিদ্দিকুর রহমান। সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আশুলিয়া শিল্পাঞ্চল ঘনবসতিপূর্ণ হওয়ায় এখানে অবৈধ গ্যাস সংযোগের সংখ্যাটাও অনেক বেশি। দীর্ঘদিন ধরে এসব এলাকায় অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান পরিচালনা করে আসছেন তারা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৪ এপ্রিল থেকে আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান শুরু করেন তারা। বারো দিন অভিযান পরিচালনা করে প্রায় সাড়ে ৩৫ হাজার আবাসিক অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এসময় জব্দ করা হয় বিপুলসংখ্যক রাইজার, চুলা ও নানা উপকরণ। এছাড়া অবৈধ সংযোগ প্রদানে ব্যবহৃত এক ইঞ্চি, দেড় ইঞ্চি, দুই ইঞ্চি ও আড়াই ইঞ্চি ব্যাসের নিম্নমানের পাইপ উঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, অবৈধ সংযোগ প্রদান ও ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত ১০টি মামলা করা হয়েছে। যেসব মামলায় প্রায় ৪শ জনের নাম উল্লেখসহ প্রায় পনেরশ জনকে আসামি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল আউয়াল জানান, বিভিন্ন সময় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নের ঘটনায় এ পর্যন্ত তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ দশটি মামলা করেছে।
ডাকাতের গুলিতে যুবক নিহত সিলেটে
সিলেটের কানাইঘাটে এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতের ছোড়া গুলিতে এক যুবক নিহত হয়েছেন। তার নাম ইফজাল হোসেন। বুধবার রাতে উপজেলার ছোটফৌদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন কানাইঘাট থানার ভারপ্ররপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ। ৩৩ বছর বয়সী নিহত ইফজাল ছোটফৌদ গ্রামের জালাল মিয়ার ছেলে। ইফজালের পরিবার স্পেনে থাকেন। তিনি স্পেন থেকে বাড়িতে এসে ৩-৪ বছর ধরে থাকছেন। ওসি আহাদ জানান, রাত তিনটার দিকে একদল ডাকাত ইফজালদের বাড়িতে হানা দিয়ে পরিবারের সবাইকে বেঁধে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। ওই সময় বাড়ির বাহিরে থাকা ইফজাল ফিরে এসে পরিবারের লোকজনকে বেঁধে রাখা দেখতে পায়। পরে ডাকাতদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হলে ডাকাতরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। দ্রুত উদ্ধার করে ইফজালকে কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ডাকাতরা ঘরে থাকা স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ অর্থসহ প্রায় চার লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় বলে জানা গেছে।
চাঁদপুরের সিভিল সার্জনসহ আহত ৬ সড়ক দুর্ঘটনায়
লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে চাঁদপুরের সিভিল সার্জন সায়েদুজ্জামানসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে আরও চার চিকিৎসক আছেন। বুধবার রাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লক্ষ্মীপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে ট্রাকটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় মাইক্রোবাসে থাকা চাঁদপুর জেলার সিভিল সার্জন সায়েদুজ্জামান, চিকিৎসক আনোয়ারুল আজিম, মাহবুবা আলম, জাকির হোসেন, তাহমিনা রহমান ও মনির আহমদ আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারা সবাই চট্টগ্রাম থেকে কর্মস্থলে ফিরছিলেন। চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শাহজাহান খান দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাকটি আটক করা হয়েছে।
হাঁটু পানি চমেকের প্রধান ফটকে
হঠাৎ দেখে যে কারো মনে হতে পারে বর্ষায় আবারো ডুবেছে চট্টগ্রাম নগর। না কিন্তু বিষয়টি এমন নয়। এটি অপরিকল্পিত উন্নয়নের আরো একটি উদাহারণ মাত্র। রাস্তা উঁচু করার জন্য ফেলা ইট আর বালিতেই এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে কাজ শুরু করায় বন্ধ হয়ে গেছে পাশের ড্রেনের মুখও। তাই গেটের নিচু অংশে পানি জমে এ দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। চমেকের পূর্ব গেটের অবস্থাও কাদায় মাখামাখি। বুধবার (১৮ এপ্রিল) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের প্রধান ফটকে জমে আছে হাঁটু পানি। নোংরা ওই পানি থেকে চরম দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। সেই পানি মাড়িয়েই রোগী ও তাদের স্বজনদের করতে হচ্ছে চলাফেরা। মাঝে মাঝে আটকা পড়ছে সিএনজি অটোরিকশাসহ নানা যানবাহন। হাসপাতালে আসা রোগী ও তাদের স্বজন ছাড়াও চমেকের শিক্ষার্থীদেরও বিব্রত অবস্থায় পড়তে হচ্ছে এই নোংরা পানি মাড়াতে গিয়ে। কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক মারিয়া মনসুর বলেন,গত কয়েক দিন ধরে এই ফটকে পানি জমে বিচ্ছিরি একটা অবস্থা। পাশের গেটেও তালা। তাই বাধ্য হয়ে নোংরা পানি মাড়িয়েই যাতায়াত করতে হচ্ছে সন্দ্বীপ থেকে বৃদ্ধ মাকে নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন মিজান। টেম্পো থেকে নেমে বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। কীভাবে হাসপাতালে প্রবেশ করবেন বুঝতে পারছেন না। বৃদ্ধা মাকে কীভাবে এই পানি দিয়ে নিয়ে যাবেন তা ভাবছেন। শেষমেষ আবারও রিকশায় উঠে চমেকের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করেন তিনি।
একে-৪৭সহ বিপুল অস্ত্র উদ্ধার,পাহাড়ে অস্থিরতা সৃষ্ঠিতে অস্ত্রের মজুদ
পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক সংঘাতসহ অপহরণ-চাঁদাবাজি, গুম-খুন ও সশস্ত্র তৎপরতা বৃদ্ধিতে অত্যাধুনিক ভারী মারনাস্ত্র সংগ্রহে নেমেছে পাহাড়ের সন্ত্রাসীরা। আঞ্চলিকদলের ছত্রছায়ায় এই সকল সন্ত্রাসী নিজেদের আধিপত্য বিস্তারে মরিয়া হয়ে উঠে বর্তমান সময়ে প্রতিদিনই সশস্ত্র সংঘাতে লিপ্ত হচ্ছে। পাহাড়ে বিরাজমান এই সকল সশস্ত্র সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ব্যবহারের উদ্দেশ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোর কাছ থেকে অস্ত্র ক্রয় করে পার্বত্যাঞ্চলের গহীন অরণ্যে অবস্থানরত এই সকল সন্ত্রাসীদের কাছে পৌছে দিচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দলগুলো। বিগত কয়েকমাস ধরেই এই চক্রটি পাহাড়ে সশস্ত্র তৎপরতার মাধ্যমে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির লক্ষ্যে অত্রাঞ্চলে বিদেশী ভারী ভারী অস্ত্র-শস্ত্র মজুদ করছে এই ধরনের সুনির্দিষ্ট্য তথ্য নিরাপত্তা বাহিনীর সংশ্লিষ্ট্য দায়িত্বশীল সূত্রগুলো জানতে পারে। এই ধরনের তথ্য পাওয়ার পরপরই রাঙামাটি সদরের কাপ্তাই হ্রদের ওপারে বালুখালী ইউনিয়নের কাইন্দারমুখ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে রাঙামাটি সেনা রিজিয়নের একটি দল। এসময় সেনা সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা কাপ্তাই হ্রদের পানিতে ঝাঁপ দিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও তাদের আস্তানা থেকে অত্যাধুনিক পাঁচটি ভারী অস্ত্র ও ১৬ রাউন্ড তাজাগুলি উদ্ধার করে সেনাবাহিনীর টিম। সেনাবাহিনীর রাঙামাটি রিজিয়নের দায়িত্বশীল সূত্র ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে ০২টি ৭.৬২ মিঃমিঃ এসএমজি, ০১টি এ্যাসল্ট রাইফেল, ০২টি পিস্তল, ১৬ রাউন্ড এ্যামোনিশন, ০২টি এসএমজির ম্যাগাজিন, ০১টি এ্যাসল্ট রাইফেলের ম্যাগাজিন, ০২টি পিস্তলের ম্যাগাজিন ও ০১ টি সিলিং উদ্ধার করা হয়। রাঙামাটির কোতয়ালী থানার অফিসার সত্যজিৎ বড়ুয়া অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান সেনাবাহিনী অভিযান চালিয়ে অস্ত্রগুলো উদ্ধার করে আমাদের কাছে দিয়েছে, আমরা এগুলোর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো। নিরাপত্তা বাহিনীর দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, রাঙামাটিসহ বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির ভারত ও মায়ানমার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলো দিয়ে উলফা ও আরাকান আর্মির মতো বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোর সাথে আঁতাত করে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দলগুলো ভারী ভারী বিদেশী অস্ত্র সংগ্রহ করছে। পাহাড়ের বিভিন্ন স্তর থেকে আদায় করা চাঁদাবাজির কোটি কোটি টাকা খরছ করেই এইসব অস্ত্র সংগ্রহ করছে পাহাড়ের সন্ত্রাসীরা। সম্প্রতি পাহাড়ের সাপে-নেউলে থাকা দুটি আঞ্চলিক দল সন্ধিচুক্তিতে আবদ্ধ হয়ে নিজেদের বিভিন্ন সোর্সকে কাজে লাগিয়ে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের মজুদ করছে। মূলতঃ পাহাড়ে আইনশৃঙ্খলায় নিয়োজিত নিরাপত্তা বাহিনীসহ স্থানীয় সরকারদলীয়দের বিরুদ্ধে আগামী নির্বাচনে ব্যবহারের উদ্দেশ্যেই এই সকল অস্ত্রের মজুদ করা হচ্ছে বলে জানতে পারে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। চাঁদা আদায়ে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংস্থাগুলো ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট্য উদ্বর্তন কতৃপক্ষের নিকট তাদের রিপোর্ট পেশ করেছে বলে জানাগেছে সংশ্লিষ্ট্য সূত্রে। সম্প্রতি গত এক সপ্তাহে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে আধিপত্য বিস্তারে আঞ্চলিক দলগুলোর সশস্ত্র সংঘাতে বেশ কয়েকজন নিহত হওয়ার ঘটনা গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টই সত্যি প্রমানিত হয়েছে জানিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর দায়িত্বশীল একজন উদ্বর্তন অফিসার জানিয়েছেন, যে আগামী নির্বাচনে নিজেদের একক আধিপত্য নিশ্চিত করতে চুক্তির পক্ষের একটি আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল পাহাড়ে অস্ত্রের মজুদ করছে এবং ইউপিডিএফ এর সাথে আঁতাত করে তাদেরকে দিয়েই প্রতিপক্ষগ্রুপ গুলোর(এমএনলারমা সমর্থিত জেএসএস ও গনতান্ত্রিক ইউপিডিএফ) নেতাদেরকে বেছে বেছে হত্যা করাচ্ছে। কারন হিসেবে উক্ত কর্মকর্তা জানান, নির্বাচনে নিজেদের মাঠ পরিস্কার করে রাখছে যাতে করে সরকারদল আওয়ামীলীগ ছাড়া উক্ত চুক্তির পক্ষের দলটির সাথে আর কোনো প্রতিপক্ষ নাথাকে। এই লক্ষ্যে পাহাড়ে বর্তমানে সশস্ত্র তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এই ধরনের অবস্থায় বেশ চিন্তিতও হয়ে পড়েছে সরকারের বিভিন্ন সংস্থাগুলো। এরই মধ্যে পাহাড়ে বৃদ্ধি করা হয়েছে গোয়েন্দা তৎপরতা। বিভিন্ন ক্যাম্প, থানাসহ ফাঁিড়গুলোতে তাদের ফোর্সদের সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা হয়েছে। রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবির জানিয়েছেন, অস্ত্রের রাজনীতিতে বিশ্বাসী এই সকল আঞ্চলিকদলীয় সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছি। সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে এক চুলও ছাড় দেওয়া হবেনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা বিভিন্ন বাহিনীর সাথে যোগাযোগ করে রেইট দেওয়ার ব্যাপারেও চিন্তা করছি।