বাগীশিক উত্তর জেলা সংসদের মতবিনিময় সভা
বাংলাদেশ বাগীশিক উত্তর জেলা সংসদের এক মতবিনিময় সভা চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় সংসদের কার্যালয় আন্দরকিল্লায় সংগঠনের সভাপতি শ্রী অমৃত লাল দে এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় আগামী ২০ এপ্রিল বার্ষিক গীতা পরীক্ষা ২০১৭ উত্তর জেলার আওতাধীন রাউজান ও রাঙ্গুনিয়া ছাড়া মীরসরাইর তিনটি কেন্দ্রে, সীতাকুন্ড একটি কেন্দ্রে, সন্দ্বীপ একটি কেন্দ্রে, হাটহাজারী একটি কেন্দ্র, ফটিকছড়ি ২টি কেন্দ্রে সকল উপজেলা বার্ষিক গীতা পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে সম্পাদনের জন্য দায়িত্ব বন্টন ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শুভাশীষ চৌধুরী, এডভোকেট অমল চৌধুরী, অর্থসম্পাদক টিটু মহাজন, সংগঠনের প্রকাশনা সম্পাদক লায়ন ডাঃ বরুণ কুমার আচার্য বলাই, প্রিয়াশীষ চক্রবর্তী, সুজন চক্রবর্তী, সুমন দেবনাথ মিন্টু, বিপ্লব পাল চৌধুরী, রূপক পাল। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন, পণ্ডিত তরুণ কুমার আচার্য কৃষ্ণ, বিজন শীল, নিলু দাশ, সাংবাদিক সমীর কান্তি দাশ, ঝন্টু শীল, রুবেল শীল, দয়াল দত্ত প্রমূখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
হাইদ চকিয়া মৈত্রী সংঘের বর্ষবরণ উৎসব অনুষ্ঠিত
ফটিকছড়ি হাইদচকিয়াস্থ ১৪২৫ বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ২ দিনব্যাপী চৈত্র সংক্রান্তী ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান হাইদ চকিয়া মৈত্রী সংঘের সভাপতি বিপ্লব বড়–য়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৬নং পাইন্দং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ.কে.এম. সরোয়ার হোসেন (স্বপন)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাইদ চকিয়া গৌতমাশ্রম বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী প্রবেশ বড়–য়া (রাশু), হাইদ চকিয়া গৌতমাশ্রম বিহার পরিচালনা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি অঞ্জন বড়–য়া, ফটিকছড়ি পৌরসভার প্যানেল মেয়র কাউন্সিলর গোলাপর রহমান গোলাপ। বর্ষবরণ উৎসবের উপদেষ্টা পরিষদের বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৬নং পাইন্দং ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান গৌতম সেবক বড়–য়া, ধর্মপাল বড়–য়া জাপান, সূর্যগিরি আশ্রমের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ বিশিষ্ট মরমী গবেষক লায়ন ডাঃ বরুণ কুমার আচার্য বলাই, রজত বড়–য়া, সৈকত বড়–য়া, লিটন বড়–য়া, স্বদেশ বড়–য়া, স্বপন বড়–য়া রুনু, সত্যজিৎ বড়–য়া, বীরসেন বড়–য়া, অনুপম বড়–য়া, দিপক বড়–য়া, কান্টু বড়–য়া, পণ্ডিত তরুণ কুমার আচার্য কৃষ্ণ, মোজাম্মেল হোসেন মানিক, হাইদ চকিয়া মৈত্রী সংঘের সাধারণ সম্পাদক বনতোষ বড়–য়া (শিবু), বর্ষবরণ উদযাপন পরিষদের আহবায়ক সনজীব কুমার বড়–য়া (তিনু), অর্চনা রাণী আচার্য, ৭১বাংলা টিভির প্রতিনিধি সাংবাদিক আলমগীর নিশান, সিপ্লাস টিভির প্রতিনিধি সাংবাদিক মোহাম্মদ সেলিম, এসএনএন এর প্রতিনিধি সাংবাদিক এম.টি সুজন, সাংবাদিক সমীর কান্তি দাশ, বিজন শীল, ঝন্টু শীল, রুবেল শীল, বাবুল নাথ, রূপক বড়–য়া, পংকজ বড়–য়া, লিটন বড়–য়া, সৈকত বড়–য়া, রনজয় বড়–য়া, শান্ত বড়–য়া, সৈজত বড়–য়া, বিটন বড়–য়া, নান্টু বড়–য়া, নয়ন বড়–য়া, প্রদীপ বড়ুয়া, রাসের বড়–য়া, রাহুল বড়–য়া, সুপন বড়–য়া, সলিল বড়–য়া, রীতেশ বড়–য়া, বাঁধন বড়–য়া, অভি বড়–য়া, অয়ন বড়–য়া প্রমূখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন প্রবন বড়–য়া পঙ্কজ ও নান্টু বড়–য়া। অনুষ্ঠান সূচির মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা উত্তোলন বর্ণাঢ্য র‌্যালী, বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগীতা, নৃত্য প্রতিযোগীতা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ, মেধা পুরস্কার ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠন। বক্তারা বলেন, মুছে যাক গ্লানি, গুচে যাক জরা, অগ্নিম্লানে শুচি হোক ধরা। বাংলা নববর্ষ বাঙালির সংস্কৃতির প্রাণের উৎসব। পুরাতন বছরের পাওয়া না পাওয়ার হিসেব চুকিয়ে নতুন আলোর প্রত্যশায় সুন্দর ও স্বার্থক আগামীর স্বপ্নযাত্রায় আমরা হই মহাযাত্রী এই প্রত্যাশায়। উক্ত অনুষ্ঠানে ১৩ জন গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। পুরস্কার বিরতণ করেন ১২০ জনকে। বৃত্তির নগদ অর্থ প্রদান করেন ৫ জনকে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে লাখ ২৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক পাচারকারী গ্রেফতার
এক লাখ ২৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব- ৭। রোববার (১৫ এপ্রিল) রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই উপজেলার নিজামপুর রেদোয়ান ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে একটি মাইক্রোবাসে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ঢাকার সাভারের আমিন মিয়ার ছেলে মো. বিপ্লব (৩২) ও কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর এলাকার আবু তাহেরের ছেলে সুমন মিয়া (২৮)। র‍্যাব- ৭'র সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মিমতানুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মিরসরাই উপজেলার নিজামপুরে একটি মাইক্রোবাসে অভিযান চালানো হয়েছে। র‍্যাবের স্কোয়াড্রন লিডার সাফায়েত জামিল ফাহিমের নেতৃত্বে অভিযানে এক লাখ ২৪ হাজার ইয়াবাসহ দুই মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার এবং মাইক্রোবাসটি জব্দ করা হয়। তিনি জানান, চট্টগ্রাম থেকে এসব ইয়াবা নিয়ে তারা ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মিরসরাই থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
চট্টগ্রামে ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২ জন
র‌্যাব ৭ গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী কুমিল্লা থেকে একটি মাইক্রোবাস যোগে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অদ্য ১৪ এপ্রিল র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড থানাধীন ভাটিয়ারী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন সংলাপ টেলিকম এর সামনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপর একটি বিশেষ চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি করতে থাকে। এ সময় কুমিল্লা হতে চট্টগ্রামগামী ০১টি মাইক্রোবাসের গতিবিধি সন্দেহজনক হলে র‌্যাব সদস্যরা মাইক্রোবাসটিকে থামিয়ে আসামী ১। মোঃ জিয়া (২১), পিতা-মোঃ আসলাম, গ্রাম-সাতকানিয়া, থানা-চৌদ্দগ্রাম, জেলা-কুমিল্লা এবং ২। মোঃ বেল্লাল হোসেন (২৮), পিতা- আব্দুল মোনাফ, গ্রাম-বিজয় পাড়া, থানা-চৌদ্দগ্রাম, জেলা-কুমিল্লাদেরকে আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিতি সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের দেখানো ও সনাক্ত মতে মাইক্রোবাসটি (ঢাকা-মেট্রো-চ-১৩-১৮১২) তল্লাশী করে মাইক্রোবাসের ভিতরে সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ৫৯৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ উক্ত মাইক্রোবাসটি জব্দ করা হয়। উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিলের আনুমানিক মূল্য ০৫ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা এবং জব্দকৃত মাইক্রোবাসের আনুমানিক মূল্য ১৮ লক্ষ টাকা। বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের অধঃপতনের অন্যতম কারণ হচ্ছে মাদকাসক্তি। মাদকাসক্তির ভয়াল থাবা প্রতিনিয়ত আমাদের সমাজকে ধ্বংস করে ফেলছে। মাদকদ্রব্যের টাকা জোগাড়ের জন্য মাদকাসক্ত ব্যক্তিরা বিভিন্ন ধরনের অনৈতিক ও অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। এর প্রেক্ষিতে যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন দেশব্যাপী বিভিন্ন মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে আসছে। দেশব্যাপী মাদকদ্রব্যের বিস্তাররোধ এবং দেশের যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে র‌্যাবের মাদক বিরোধী অভিযান দেশের সর্বস্তরের জনসাধারণ কর্তৃক বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় এই অভিযান চালানো হয়েছে।
সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের কমিটি ঘোষণা
সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের ২০১৮-২০ইং সেশনের কার্যকরী কমিটি ঘোষনাকরা হয়েছে। শনিবার (১৪ এপ্রিল) সকালে সীতাকুণ্ডের বাঁশবাড়ীয়া সি-বীচ এ বর্ষবরণ ও প্রীতি সন্মিলনে মাধ্যমে এ নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে নতুন কমিটির নাম ঘোষণা করেন,শিক্ষানুরাগী, বাদশা ফেয়ার ল্যান্ডের স্বত্বাধিকারী ডক্টর মোঃ শাহীদুল আলম মিন্টু। নতুন কমিটিতে পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সীতাকুণ্ড নিউজ টুয়েন্টিফোর এর সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন সীতাকুণ্ড টাইমস.কম এর সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বিএসসি। কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা হলেন সহ-সভাপতি সিটিজি সংবাদ প্রতিনিধি কাইয়ুৃম চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক নিউজ বিএনএ প্রতিনিধি সবুজ শর্মা শাকিল, সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ খবর প্রতিনিধি ইব্রাহিম খলিল, অর্থ সম্পাদক পাঠক ডট নিউজ প্রতিনিধি কামরুল ইসলাম দুলু, ক্রীড়া ও সাহিত্য সম্পাদক সীতাকুণ্ড নিউজ প্রতিনিধি দিদারুল আলম, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক সিটিজি বাংলা প্রতিনিধি নাছির উদ্দীন শিবলু, নির্বাহী সম্পাদক চলমান সীতাকুণ্ড ডটকম এর সম্পাদক লিটন কুমার চৌধুরী, বিএনএস নিউজ প্রতিনিধি খায়রুল ইসলাম, সীতাকুণ্ড প্রতিদিন ডটকম এর সম্পাদক মীর মামুন। . নির্বাচিতরা আগামী দুইবছর সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের দায়িত্ব পালন করবেন। পহেলা বৈশাখ বর্ষবরণ ও প্রীতি সন্মিলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তফা কামাল চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বিশিষ্ট সাংস্কুতিক ও নারী নেত্রী সুরাইয়া বাকের, বাঁশবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শওকত আলী জাহাঙ্গীর, শিক্ষানুরাগী, বাদশা ফেয়ারল্যান্ডের স্বত্বাধিকারী ডক্টর মোঃ শাহীদুল আলম মিন্টু, ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান, অধ্যাক্ষ নাছির উদ্দিন, লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং লিবার্টি সভাপতি লায়ন কাজী আলী আকবর জাসেদ, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সারওয়ার উদ্দিন লাভলুসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। বক্তারা বলেন, সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন তাদের লিখুনী মাধ্যম ছাড়াও বিগত দুই বছর বহু উন্নয়নমুলক, সামাজিক কর্মকান্ডে যেভাবে অবদান রেখেছে তা ঈর্ষানীয়।নতুন কমিটিও ঠিক একইভাবে তাদের কর্মকান্ড অব্যাহত থাকবেন ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের ব্যতিক্রমধর্মী বর্ষ বরণ
বাংলা নববর্ষকে বরণ করতে সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন বাঁশবাড়িয়া সী বিচে আয়োজন করেছে ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠানের। ১৪২৫ বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানাতে আজ সকাল থেকে শুরু হয় নানান আয়োজন। প্রথমেই গোলাপ ও রজনীগন্ধা ফুল দিয়ে সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানানো হয় অনুষ্ঠানে আগত শতাধিক মেহমানদের। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা অতিথিসহ একে অপরকে মিষ্টি খাওয়ানোর মাধ্যমে অনুষ্ঠানকে আরও প্রাণবন্ত করে তোলে। দূপুরে শুরু হয় পদ্মার ইলিশ আলু বর্তা, ছাটনিসহ বিভিন্ন প্রকারের দেশীয় সমন্বয়ে মধ্যহ্নভূজের। মধ্যহ্নভুজের উদ্বোধন করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তফা কামাল চৌধুরী। বিকালে আলোচনা সভা শেষে ঘুড়ি উড়িয়ে অনুষ্ঠানের ইতি টানেন সুরসইয়া বাকের। পহেলা বৈশাখ বর্ষবরণ উপলক্ষে বিকাল তিনটায় শুরু হয় এক প্রীতি সন্মিলন। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রীতি সম্মিলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তফা কামাল চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ও নারী নেত্রী সুরাইয়া বাকের, বাঁশবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শওকত আলী জাহাঙ্গীর, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, বাদশা ফেয়ারল্যান্ডের স্বত্বাধিকারী ডক্টর মোঃ শাহীদুল আলম মিন্টু। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম বিএসসির সঞ্চালনে অনুষ্টিত সভায় আলোচনা রাখেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক ইঞ্জিনিয়ার কামরুদ্দৌজা, অধ্যক্ষ নাছির উদ্দিন, লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং লিবার্টি সভাপতি লায়ন কাজী আলী আকবর জাসেদ, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সারওয়ার উদ্দিন লাভলু,সাংবাদিক লিটন চৌধুরী,খায়রুল ইসলাম,ইমাম হোসেন স্বপন,সমাজ সেবক ইকরাম উল্লাহ নয়ন,পৌর ছাত্রলীগ নেতা আমজাদ হোসেন,ছাত্রনেতা কামরুল,তবরেজ,হিরু প্রমুখ। বক্তারা বলেন, সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন তাদের লিখুনী মাধ্যম ছাড়াও বিগত দুই বছর বহু উন্নয়নমুলক, সামাজিক কর্মকান্ডে যেভাবে অবদান রেখেছে তা ঈর্ষানীয়।নতুন কমিটিও ঠিক একইভাবে তাদের কর্মকান্ড অব্যাহত রাখবে। অনুষ্ঠানে আজকের সূর্যোদয়ে সেরা সাংবাদিক নির্বাচিত হওয়ায় কামরুল ইসলাম দুলুকে ফুলের তোড়া দিয়ে সম্মাননা জানান বাঁশবাড়িয়া ইউপির চেয়ারম্যান শওকত আলী জাহাঙ্গীরসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। সভা শেষে সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের ২০১৮-২০ইং সেশনের ১১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে। শনিবার (১৪ এপ্রিল) সকালে সীতাকুণ্ডের বাঁশবাড়ীয়া সিবীচে বর্ষবরণ ও প্রীতি সন্মিলনের মাধ্যমে এ নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষনা করেন সীতাকুণ্ড অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী বাদশা ফেয়ার ল্যান্ডের স্বত্বাধিকারী ডক্টর মোঃ শাহীদুল আলম মিন্টু। নতুন কমিটিতে পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সীতাকুণ্ড নিউজ টুয়েন্টিফোর এর সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন সীতাকুণ্ড টাইমস.কম এর সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বিএসসি।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম সিআরবিতে সাহাবউদ্দিনের বলীখেলা
নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে নগরীর সিআরবিতে আয়োজিত সাহাবউদ্দিনের বলীখেলায় হঠাৎ দুই ফরাসী যুবক রিংয়ে (বলীদের প্রস্তুতকৃত মাটির মাঠ) ওঠে পড়েন। বলীখেলা আয়োজক উপ-কমিটির আহবায়ক মোহাম্মদ সাহাবউদ্দিনের কাছে গিয়ে খেলায় অংশ নেওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন ফ্রান্সের নাগরিক জুমার্কা ও জুসিকা। শনিবার (১৪ এপ্রিল) নগরীর সিআরবির সাত রাস্তার মোড়ে অনুষ্ঠিত সাহাবউদ্দীনের বলীখেলার দৃশ্যপট এটি। ওই ফরাসী ২ যুবক বলীখেলায় অংশ নিতে রিংয়ে উঠতেই উপস্থিত দর্শনার্থীরা কলতালিতে মুখরিত করে তুলেন সিআরবি প্রাঙ্গন। এসময় ২ ফরাসী যুবক নানা ভঙ্গিমায়, হাত নাড়িয়ে শ্রোতাদের আরও উৎসাহিত করে তোলেন। অনুমতি পেয়েই কাঁধ থেকে ব্যাগ নামিয়ে দুইজনই বলীখেলার জন্য প্রস্তুতি নিতে নিতেই দশনার্থীরা করতালির মাধ্যমে তাদের অভিবাদন জানান। পরে বলীখেলার রেফারি মো. মালেক তাদের বলীখেলার কিছু নিয়মকানুন সম্পর্কে ধারণা দেন। এরপর শুরু হয় দুই ফরাসীর বলীযুদ্ধ। মিনিট তিনেকের লড়াইয়ে জুসিকাকে পরাস্ত করে বিজয় ছিনিয়ে নেন জুমার্কা। সাথে সাথে দর্শনার্থীরা করতালির মাধ্যমে তাদের আবারও স্বাগত জানান।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বৈশাখী বর্ণিল উৎসবে প্রাণে প্রাণে বাজে নবআনন্দ :ড. অনুপম সেন
মহান স্বাধীনতার গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা নবপ্রজন্মের কাছে তুলে ধরার উদ্যেশ্যে আজ ১লা বৈশাখ ১৪২৫ বাংলা কর্ণফুলী তীরবর্তী প্রাঙ্গণে ফিশারীঘাট, মেরিনড্রাইভ রোডে বৈশাখী মিলন মেলায় ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এর পৃষ্ঠপোষকতায় ইউনিটেড এর উদ্যোগে উদ্বোধকের বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, একুশে পদকপ্রাপ্ত আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন, হাজার বছরের গর্ব গৌরব বাঙালি আর একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের বিপুল রক্তক্ষরণে অর্জিত স্বাধীনতা আমাদের দিয়েছে যে অহংকার ও মানুষের প্রত্যাশিত অধিকার, সেই ঐতিহ্য-ইতিহাসকেই আমরা দাঙ্গাবাজ দিনগুলোর চেয়ে অন্যরকম, আরও বেশি কিছু। বিশেষ করে নতুন বছরের প্রথম সকলটা, ঠিক অষ্টাদশী সুম্রী মুখের হাসির মতো। বাংলা নববর্ষ বরণ করতে নারীরা নিজেকে আরও সুন্দর করে সাজান। তাদের কালো খোঁপায় ঝোলে শুভ্র সাদা বেলি ফুলের মালা, চঞ্চলা হাতের মুঠোয় মাথা দোলায় রজনীগন্ধা। ছোট-বড়, নারী পুরুষ, বার রঙিন কাপরে মনেতেও লাগে রঙ। বর্ণিল উৎসবে প্রাণে প্রাণে বাজে নবআনন্দ। প্রত্যাশার আলোয় উদ্বাসিত হয়ে ওঠে চারদিক। আজ সেই দিন, স্বাগত ১৪২৫, শুভ নববর্ষ। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম ভাষণ। এই ভাষণের মধ্য দিয়ে নিরস্ত্র বাঙালি একটি সশস্ত্র জাতিতে পরিণত হয় এব বাঙালি স্বাধীনতা অর্জনে অভীষ্ট লক্ষ্যের পথে এগিয়ে যায়। উদ্বোধকের বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আব্রাহাম লিঙ্কন, উইনসন চার্চিল ও মাটি লুখার কিং জুয়িরের ঐতিহাসিক তিনটি ভাষণের চেয়েও বঙ্গববন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ঐতিহাসিক গুরুত্ব বিবেচনায় অসাধারণ। রেসকোর্স ময়দানে ১০ লক্ষ মানুষের সমাবেশে পৃথিবীর ইতিহাসে নজীর বিহীন ঘটনা। এই ভাষণটিতে মূর্ত হয়েছে বাঙালির হাজার বছরের শোষণ বঞ্চনার করুণ চিত্র এবং বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তির আকাক্সক্ষা। তিনি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মুক্তির লড়াইয়ের রেলচিত্র বর্ণনা করে বলেন, স্বাধীনতার পর পরই এদেশে ৭০ শতাংশ মানুষ দারিদ্র সীমার নীচে ছিল। এখন তা ২২ শতাংশে মানুষ সেই সময় মাথাপিছু আয়ের পরিমাণ ছিল মাত্র ৬০ ডলার। বর্তমানে তা ১৪০০ ডলার ছাড়িয়ে গেছে। তিনি জোর দিয়ে বলেন, বর্তমান উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে ২০২১ সালে মধ্য আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। তিনি আরো বলেন, অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষে কমপক্ষে আরো দু দফা আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আসতে হবে। বৈশাখী মিলনমেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেল বলেন, পহেলা বৈশাখ বাংলাদেশের চিরন্তন উৎসব। বাঙালির সংস্কৃতির ঐতিহ্য পহেলা বৈশাখ আমাদের আপন শিখরে প্রেম শক্তিতে উজ্জীবিত হওয়ার দিন। বাঙালির প্রাণের উৎসবের দিন। লোক সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, বর্ষবরণ ১৪২৫ উৎসবে মেতে উঠেছে। তিনি আরো বলেন, অনেক বাঁধা ও প্রতিকূলতা ডিঙ্গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সামনের দিকে এগুচ্ছে। এই অভিযাত্রা অব্যাহত রাখতে ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবারো ক্ষমতায় প্রতিষ্ঠিত করতে এখন থেকেই নির্বাচনমুখী কার্যক্রম শুরু করতে হবে। বঙ্গবন্ধু শুধু ভৌগলিক স্বাধীনতা নয়, বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তি তাঁর প্রধান আকাক্সক্ষা ছিল। তাই তিনি স্বাধীনতার পর দ্বিতীয় বিপ্লবের ডাক দিয়েছিলেন। কিন্তু বাঙালিকে শৃঙ্খলিত করার জন্যই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে হয়েছিল। তিনি আলো বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশেষ উন্নয়নের রোল মডেল। এই অর্জনকে ধরে রাখার জন্য জনকল্যাণমুখী রাজনৈতিক ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্ণফুলী তীরবর্তী ফিশারীঘাট, মেরিন ড্রাইভ রোডের বৈশাখী মিলন মেলায় আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু , চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, ত্রাণ সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, শ্রম সম্পাদক আবদুল আহাদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবু তাহের, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ইঞ্জি: মানস রক্ষিত, চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আঞ্জুমান আরা চৌধুরী আঞ্জি, উপ প্রচার সম্পাদক শহীদুল আলম, উপ দপ্তর সম্পাদক জহুর লাল হাজারী, আওয়ামী লীগ নেতা বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন, কার্যনির্বাহী সদস্য সৈয়দ আমিনুল হক, অমল মিত্র, মহবক্ষত আলী খান, নুরুল আমিন শান্তি, নজরুল ইসলাম বাহাদুর, থানা আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর চৌধুরী সিইনসি স্পেশাল, সাহাব উদ্দিন আহমেদ, আনসারুল হক, রেজাউল করিম কায়সার, মহানগর যুবলীগের আলহাজ্ব মহিউদ্দিন বাচ্চু, দেলোয়ার হোসেন খোকা, ফরিদ মাহমুদ, মাহবুবুল হক সুমন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নুরুল আজিম নুরু, আবুল কাশেম, শেখ সরোওয়ার্দ্দী, দিলদার খান দিলু, আবদুস সবুর লিটন, আবদুর রহমান, মোহাম্মদ ওসমান গণি, মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ডিসি হিলে আগের মত যেকোন উদ্দীপনামূলক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড অব্যাহত থাকবে :মেয়র আ.জ.ম নাছির
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আ.জ.ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশে বাঙালিরা সাতচল্লিশ বছর পূর্ণ করেছে। রাজনৈতিক বিপর্যয় এবং নানা চড়াই-উতড়াই পার হয়ে বাঙালি আজ উন্নয়নের সড়কে অবস্থান করছে। এখানকার লোকেরা পেছনের দারিদ্র্য, দু:খ-গ্লানিকে জয় করে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বের এক আদর্শিক স্মারক হিসেবে নিজকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। এখন সামনে এগিয়ে যাবার সময়। নতুন নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবনের ফলে জীবনাচরণে আসছে ব্যাপক পরিবর্তন। ফলে পরিবর্তিত হচ্ছে মানসপথ। পৃথিবী এখন হাতের মুঠোয়। এর বিস্তার রোধ করা সম্ভব নয়। এর জন্য কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করে এগিয়ে যেতে হবে। তবেই প্রকৃত উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ে উঠবে। তাতে করে নববর্ষের তাৎপর্য প্রস্ফুটিত হবে। গতকাল ১৪ এপ্রিল ১৪২৫ বঙ্গাব্দ নগরীর নজরুল স্কোয়ার ডিসি হিল প্রাঙ্গণে সম্মিলিত পহেলা বৈশাখ উদ্যাপন পরিষদ আয়োজিত ৪০তম বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে ডি.সি হিলে উপস্থিত নগরবাসীকে শুভেচ্ছা জানানোর সময় তিনি একথা বলেন। মেয়র চট্টগ্রামের ঐতিহ্য সাংস্কৃতিক প্রাণকেন্দ্র ডি.সি হিলে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড চলমান রাখার এ আন্দোলনে সংস্কৃতিকর্মীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে ডিসি হিলে আগের মত যেকোন উদ্দীপনামূলক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখার ব্যাপারে স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছেন। মেয়র সংস্কৃতি কর্মীদের সাথে প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, চট্টগ্রামের সংস্কৃতি চর্চার সাথে ডিসি হিল ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এই সত্য কথাটি প্রশাসন জানেন। আমার জানামতে এখানে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড আয়োজনের ব্যাপারে সরকারি কোন নিষেধাজ্ঞা নেই। শুধুমাত্র সরকারি কর্মকর্তাদের বাসভবন হওয়ায় এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনে সৃষ্ট শব্দ কম্পনের কারণে ওনাদের সামান্য অসুবিধা সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু এ সমস্যা তো সহজেই সমাধান যোগ্য। তিনি আরো বলেন, ডিসি হিলে বিগত ৪০ বছর ধরে নববর্ষের অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়ে আসছে। নববর্ষের উৎসব বলতে চট্টগ্রামের মানুষ ডিসি হিলের অনুষ্ঠানকেই বুঝেন। সুতরাং চট্টগ্রামের নববর্ষ পালনের ইতিহাসের সাথে ডিসি হিল ও জড়িয়ে গেছে। এখানে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড বন্ধ করা যাবে না। প্রয়োজনে আমি বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকের সাথে বসব আলোচনা করব। এ ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যায় তা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে। ওনাদের অসুবিধাগুলো পর্যালোচনা করা হবে। অনুষ্ঠান আয়োজনে সরকারি কর্মকর্তাদের যাতে কোন সমস্যা সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে সংস্কৃতি কর্মীদের সাথে আলোচনা করা হবে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে যাতে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয় বা নিয়ন্ত্রিত কর্মসূচী পালন করা হয় সে বিষয়েও পরিকল্পনা গ্রহণের জন্য সংস্কৃতি কর্মীদের অনুরোধ জানানো হবে। সম্মিলিত পহেলা বৈশাখ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক আহমেদ ইকবাল হায়দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পহেলা বৈশাখ বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে নগরবাসীকে শুভেচ্ছা জানানোর সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, চ.সি.ক কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, নগর আওয়ামীলীগের সদস্য বেলাল আহমেদ, মোরশেদুল আলম, সংস্কৃতি কর্মী অলোক ঘোষ পিন্টু, পঞ্চানন চৌধুরী, সুচরিত দাশ খোকন, মোহাম্মদ আলী টিটু, আবদুল হাদী, মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, রিপন বড়–য়া প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি