ধর্ষণ মামলায় ২ কিশোর গ্রেফতার নেত্রকোনায়
নেত্রকোনার সদর উপজেলার কাজলিপাড়া গ্রামের ৯ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ মামলায় দুই কিশোরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শিশুটির মা বুধবার (৩০ মে) দিনগত রাতে নেত্রকোনা মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করার পর তাৎক্ষণিক ওই কিশোরদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার কিশোররা হলো- প্রতিবেশী আনফর আলীর ছেলে জাকির মিয়া (১৫) ও আব্দুর রশিদের ছেলে আশিক মিয়া (১৪)। নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বোরহান উদ্দিন খান জানান, সোমবার (২৮ মে) সন্ধ্যার দিকে দুই কিশোর শিশুটিকে বাড়ির পেছনে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় শিশুটি মা কিশোরদের নামে মামলা করলে তাৎক্ষণিক অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়। আদালতের নির্দেশে বাকি আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।
ভোরে রাজধানীতে দমকা হাওয়ার সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে
ভোরে রাজধানীতে দমকা হাওয়ার সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩১ মে) ভোরে হঠাৎ দমকা হাওয়াসহ বর্ষণ হতে থাকে। বাতাসের গতিবেগের সঙ্গে বাড়তে থাকে বৃষ্টি। এ সময় বৃষ্টির সঙ্গে আকাশে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছিল। জানা যায়, রাজধানীর বাড্ডা, শাহজাদপুর, বারিধারাসহ বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে। সপ্তাহ শেষেও বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আজ ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত বর্ষণের ফলে অফিস-আদালতগামী মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হলেও গত কদিনের গরম বিবেচনায় স্বস্তির বৃষ্টি বলেই অভিহিত করছেন নগরবাসী। বুধবার সন্ধ্যায় আবহাওয়াবিদরা বলেছিলেন, বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকা এবং মেঘ না থাকায় রোদের তীব্রতা ও গরম বেশি অনুভব হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৬২ শতাংশ। তবে এ ভাব কাটতে শুরু করেছে।
জেএমবির ৫ সদস্য আটক
রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) ৫ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে র‌্যাব-৫ এর একটি দল এই অভিযান চালায়। তাদের কাছ থেকে ৭টি জিহাদী বই, পাঁচটি মুঠোফোন, আটটি সিমকার্ড, দুটি মেমোরি কার্ড, দুটি জাতীয় পরিচয়পত্র, একটি পাসপোর্ট এবং জিহাদী ছবি ও ভিডিওতে ভরপুর কম্পিউটারের একটি হার্ডডিস্ক জব্দ করা হয়েছে। বুধবার সকালে র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহাবুবুল আলম তার দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান। আটক পাঁচ জঙ্গি হলেন- রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার জাহানাবাদ গ্রামের খায়রুল ইসলাম (৪৮) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার হাকিমপুর গ্রামের সেলিম রেজা (২৬), নরেন্দ্রপুর গ্রামের জিয়াউল হক ওরফে আকবর আলী (৩৯), নওশাদ আলী (৫০) এবং গোটাপাড়া গ্রামের সাকিল আহমেদ (৩৫)। র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, গত ১৪ মে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জে অভিযান চালিয়ে ৪ জেএমবি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব গোয়েন্দা অনুসন্ধান চালাতে থাকে। একপর্যায়ে র‌্যাব তথ্য পায়, নাশকতার পরিকল্পনা করতে মঙ্গলবার রাতে কয়েকজন জেএমবি সদস্য গোদাগাড়ীতে গোপন বৈঠক করবেন। বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে র‌্যাব-৫ এর একটি দল উপজেলার ফাজিলপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে খায়রুল ইসলাম ও সেলিম রেজাকে আটক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অন্য তিনজনকে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা সবাই জেএমবিতে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। নতুন সদস্য সংগ্রহ এবং ইয়ানতের টাকা আদায় করতেন তারা। লে. কর্ণেল মাহাবুবুল আলম আরও বলেন, আবু সাঈদ নামের এক জেএমবি ক্যাডারের মাধ্যমে আটক পাঁচজন সংগঠনটিতে জড়িয়ে পড়েন। ধীরে ধীরে তারা সক্রিয় কর্মী হিসেবে দায়িত্বশীলদের আস্থাভাজন হয়ে ওঠে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের নরেন্দ্রপুর এলাকায় দায়িত্বশীল কর্মী হিসেবে নিয়োজিত হয়েছিলেন নওশাদ। তাদের সবার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।
ছাত্রলীগ সহ-সভাপতিকে গুলি করে হত্যা
কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভপতি নাজমুল হোসেন (২৭) দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হয়েছেন। বুধবার (৩০মে) রাত ৩টার দিকে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের ফারাজি পাড়ায় নাজমুলের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নাজমুলের খালতো ভাই মিলন জানান, রাতে নিজ ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় দুর্বৃত্তরা নাজমুলের মাথায় গুলি করে পালিয়ে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই আতিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কী কারণে এবং কারা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহত নাজমুল কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের ফারাজি পাড়ার আলতাফ হোসেনের ছেলে।
খুলনার স্থগিত ৩ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে
খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে অনিয়মের কারণে স্থগিত তিন কেন্দ্রের পুনঃভোটগ্রহণ চলছে। বুধবার (৩০ মে) সকাল ৮টায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। গত ১৫ মে অনুষ্ঠিত কেসিসি নির্বাচন চলাকালে সাধারণ ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইকবাল নগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় (একাডেমিক ভবন-২), ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের লবণচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয় কেন্দ্রে অনিয়মের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। ভোট দানে বাধা, বুথ দখল, জাল ভোট ও হামলার আশঙ্কায় ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা যাচ্ছে। রিটার্নিং অফিসার ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী বলেন, প্রতিটি কেন্দ্রেই ২২ জন অস্ত্রধারী পুলিশের পাশাপাশি তিনজন অস্ত্রধারীসহ ১৭ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। তাছাড়াও রয়েছে র‌্যাবের চারটি মোবাইল টিম, পুলিশের তিনটি মোবাইল টিম ও একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স, এক প্লাটুন বিজিবি এবং তিন কেন্দ্রে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। রিটার্নিং অফিসার আরো বলেন, পুনঃভোটগ্রহণের জন্য ওই তিনটি কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার এমনটি প্রার্থীদের এজেন্টও পরিবর্তন করে সম্পূর্ণ নতুন সেট আপ দিয়ে পুনঃভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। তিনটি কেন্দ্রে ৫৭ জন ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করছেন। প্রসঙ্গত, কেন্দ্র তিনটির দু’টি সংরক্ষিত ও দু’টি সাধারণ ওয়ার্ডের আওতায় হলেও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ভোটের ব্যবধান বেশি থাকায় বর্তমান কাউন্সিলর মো. শমশের আলী মিন্টুকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ফলে সাধারণ ৩১ এবং সংরক্ষিত ৯ ও ১০ নম্বর ওয়ার্ডের পুনরায় ভোটগ্রহণ করা হবে। পুনঃভোটগ্রহণে সাধারণ ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আরিফ হোসেন মিঠু (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), শেখ জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল (টিফিন ক্যারিয়ার), এসএম আসাদুজ্জামান রাসেল (ঝুড়ি), কাজী মো. ইউসুফ আলী মন্টু (মিষ্টি কুমড়া), জিএম আব্দুর রব সজল (ট্রাক্টর), মো. আলী আজম মোল্লা (রেডিও), মো. আসলাম হোসেন (করাত), মো. গোলাম মোস্তফা সজিব (ঠেলাগাড়ি), মো. জাহিদ (ঘুড়ি) ও মো. শরিফুল ইসলাম মুন্না (লাটিম) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তাছাড়া সংরক্ষিত দু’টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মাজেদা খাতুন (আনারস), রুমা খাতুন (চশমা), কোহিনুর আক্তার (বই), লিভানা পারভীন (গ্লাস), শাহনুর বেগম (মোবাইল ফোন) এবং সংরক্ষিত ১০ নম্বর ওয়ার্ডের লুৎফুন নেছা (চশমা), রোকেয়া ফারুক (হেলিকপ্টার), বিলকিস আরা বুলি (স্টিল আলমারি), মিসেস রোকসনা কালাম লিলি (মোবাইল ফোন), মোসা. হোসনেয়ারা (গ্লাস), সাহানা পারভীন (ডলফিন), হাসিনা আকরাম (আনারস) ও হোসনেয়ারা বেগম চাঁদনী (বই) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।
তিন ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা
রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় তিন ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আজ সোমবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার বাঘাইহাটের করল্যাছড়ি এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- সুশীল চাকমা (৪৫), স্মৃতি চাকমা (৫০) এবং অটল চাকমা (৪০)। এদের সকলের বাড়ি বাঘাইছড়ি উপজেলায়। ইউপিডিএফ'র প্রচার বিভাগের প্রধান নিরন চাকমা বলেন, ভোরে জেএসএস (সংস্কার) ও ইউপিডিএফ'র (গণতান্ত্রিক) একদল সশস্ত্র ক্যাডার একটি বাসায় একসঙ্গে থাকা আমাদের কর্মীদের ওপর গুলি চালিয়ে তিনজনকে হত্যা করেছে।' তিনি এই হত্যাকাণ্ডের জন্য সংগঠন দুটিকে দায়ী করেছেন। বাঘাইছড়ির সাজেক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল আনোয়ার বলেন, ভোরে একটি বাসায় হামলা চালিয়ে তিনজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে শুনেছি। পুলিশ ও সেনাবাহিনী ঘটনাস্থলে গেছে। রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবিরও তিনজন নিহত হওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন। তবে জেএসএস’র (সংস্কার) কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, এটা তাদের মধ্যকার ঝামেলার কারণে হতে পারে। এ ঘটনার সঙ্গে জেএসএস (সংস্কার) সংযুক্ত নয়।
জাল দলিল জালিয়াতি মামলার আসামি মাছুদা আক্তার গ্রেফতার;জেলহাজতে প্রেরণ
রাজিব/ সুজন ,চট্টগ্রাম :আল-আমিন ট্রেডের পক্ষে আমমোক্তার মোঃ ইকরাম; পিং- মৃত ইউনুস ভূঁইয়া,সাং-সিগন্যাল কলোনী, সরাইপাড়া, থানা পাহাড়তলী, জেলা -চট্টগ্রাম বাদী হইয়া চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, চট্টগ্রামে সি.আর ৪১১/১৬ ইং রুজু করিলে উক্ত মামলার অভিযোগের বিষয়ে পি.বি.আই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ) তদন্তক্রমে প্রতিবেদন দাখিল করেন এবং ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় আসামিগণের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হয় এবং গত ২৬/৫/১৭ইং তারিখ হালিশহর থানার পুলিশ অভিযুক্ত ২ নং আসামি মাছুদা আক্তার, স্বামী:মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, সাং-কাশিপুর চৌধুরী বাড়ী, থানা:ছাগলনাইয়া জেলা: ফেনী,বর্তমান ঠিকানা:৬৩০,আনন্দপুর,রাজ্জাক ম্যানসন(৬ষ্টতলা) তাসফিয়া কমিউনিটি সেন্টারের পিছনে, ডাক:রামপুর,থানা:হালিশহর, জিলা: চট্টগ্রাম কে গ্রেফতার করিয়া বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করিলে মাননীয় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, চট্টগ্রাম এর বিচারক জনাব মোহাম্মদ রবিউল আলম উক্ত আসামির জামিন শুনানী অন্তে না মঞ্জুর করিয়া আসামিকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। এই আসামি ও তার বোন শিরিন আক্তার গ্রহীতা হইয়া মুন্সি মিয়ার ৬জন ওয়ারিশকে কবলাদাতা সাজাইয়া স্থানীয় চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর ও প্যাড নকল করিয়া ওয়ারিশন সনদপত্র বানাইয়া সীতাকুন্ড সাব রেজিস্ট্রি অফিসে বিগত ১৭/৭/১৪ইং তারিখে ৪২৪১ নং নাম ছাফ কবলা দলিল রেজিস্ট্রি করেন। উল্লেখ্য মুন্সী মিয়ার ৬জন ওয়ারিশের নাম ঠিকানা সঠিক থাকিলে উক্ত ৬জন ওয়ারিশের ছবির কলামে অন্য মানুষের ছবি বসিয়ে অন্য মানুষকে সাব-রেজিস্ট্রারের সামনে উপস্থাপন করিয়া উক্ত দলিল মঞ্জুরি ও রেজিস্ট্রি করেন। এমনকি উক্ত দলিলের সময় তাহাদের জাতীয় পরিচয় পত্র ভুয়া সৃজন করা হয়। উক্তরুপ ভুয়া সৃজিত দলিলের অনুবলে বাদীর জায়গা দখল করিতে গেলে বাদী জানিতে পারিয়া উক্ত মামলা আনয়ন করেন। এ প্রসঙ্গে বাদীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট ধৃতিমান আইচ এর সহিত যোগাযোগ করিলে তিনি বলেন, এটি একটি সংঘবদ্ধচক্র। দলিল লেখক থেকে শুরু করে ও সাক্ষী সবাই যোগসাজশ ক্রমে ভুয়া দলিল সৃজন করিয়া অনেক নিরীহ মানুষকে সর্বস্বান্ত করেছে এবং মামলা-মোকদ্দমায় হয়রানি হচ্ছে। এই জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে সীতাকুণ্ড সাব রেজিস্ট্রি অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সতর্ক হওয়া জরুরি কারণ একজন মানুষের জায়গা অন্য মানুষকে দাঁড় করিয়া রেজিস্ট্রি করা গ্রহণ রেজিস্ট্রি প্রদান করার এই ধরনের সুযোগ পাইলে অনেকে তাহাদের ন্যায্য সম্পত্তির অধিকার হতে বঞ্চিত হইবে।
মাদক ব্যবসায়ী আবু সাঈদ বাদশা ওরফে লাল বাদশা নিহত
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে পিচ্চি হান্নানের সহযোগী ও শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আবু সাঈদ বাদশা ওরফে লাল বাদশা (৪৫) নিহত হয়েছে। রোববার দিবাগত রাত দেড়টার সময় পূর্ব গুপ্টি ইউনিয়নের বৈচাতরী এলকায় এই ঘটনা ঘটে। বাদশা ওই উপজেলার ১০নং গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের পূর্ব গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুর রশিদ ছৈয়ালের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ফরিদগঞ্জ থানায় ৭টি, চাঁদপুর সদরে ২টি, চট্টগ্রামে ১টিসহ মোট ১০টি মাদক মামলা রয়েছে। ফরিদগঞ্জ থানা থানা সূত্রে জানা যায়, রাত ১০টার দিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে লাল বাদশাকে তার বাড়ির সামনে থেকে মাদক বিক্রির সময় ১১১পিস ইয়াবাসহ আটক করেন। তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি আরেক শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী হেলালের নাম পুলিশকে জানায়। বাদশার তথ্যানুযায়ী তাকে নিয়ে রাতে পুলিশের একটি দল অভিযানে বের হয়। গুপ্টি ইউনিয়নের চাঁদপুর সেচ প্রকল্প বাঁধের বৈচাতরী এলাকায় গেলে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেলে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও পাল্টাগুলি চালায়। এতে গুলিবিদ্ধ হয় আবু সাঈদ ওরফে লাল বাদশা। পেরে আহত অবস্থায় তাকে ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ্ আলম জানান, পুলিশ নিহতের কাছ থেকে ১১১ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ঘটনাস্থল থেকে ১টি একনলা বন্দুক, ৩টি ককটেল, ৪ রাউন্ডগুলি উদ্ধার করেন। মাদব ব্যবসায়ীদের গুলিতে পুলিশের এএসআই বাবুল, সুমন, সুমন চৌধুরী, কনস্টেবল আশরাফ ও দেলোয়ার আহত হন। লাশের প্রাথমিক সুরতহালের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এএইচএম মাহফুজুর রহমান ও ইউএইচও জাহাঙ্গীর আলম শিপন। পরে লাশ চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

সারা দেশ পাতার আরো খবর