গুলি ও রগ কেটে যুবককে হত্যা
অনলাইন ডেস্ক: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধে গুলি করে, কুপিয়ে ও পায়ের রগ কেটে রিপন (২৭) নামে এক যুবককে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি উপজেলার দক্ষিণ আলকরা গ্রামের শামছুল হকের ছেলে। বুধবার রাত ১০টায় এ হামলা হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে রাত ১২টায় তিনি মারা যান। স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম জানান, রিপন রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন। বুধবার সন্ধ্যায় কর্মস্থল পশ্চিম ডেকরা থেকে দুর্বৃত্তরা তাকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর আনুমানিক রাত ১০টার দিকে তারা তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে, এক পায়ে গুলি করে এবং দুই পায়ের রগ কেটে লাটিমী রাস্তার মাথায় ফেলে দেয়। তাৎক্ষণিক স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। ফেনী সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঢাকায় স্থানান্তরের পরামর্শ দিলে সেখানে নেয়ার পথে রাত আনুমানিক ১২টার দিকে মারা যান রিপন। স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে, জমিসংক্রান্ত বিষয়ে আপন মামার সাথে দীর্ঘদিন ধরে রিপনদের বিরোধ চলছিল। এ ঘটনার জের ধরেই হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে চৌদ্দগ্রাম থানার ডিউটি অফিসার এসআই সাইদুল জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।
নানা আয়োজনে বান্দরবানে বিশ্ব আদিবাসী দিবস পালিত
অনলাইন ডেস্ক:নানা আয়োজনে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে পালিত হচ্ছে বিশ্ব আদিবাসী দিবস। দিবসটি উপলক্ষে শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের পুরাতন বাজার মাঠ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। এতে ১১টি পাহাড়ী সম্প্রদায়ের নারী পুরুষ তাদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরে নানা সাজে সেজে অংশ নেয়। এছাড়া বিভিন্ন দাবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুন প্লেকার্ড নিয়েও অংশ নেয় বিভিন্ন এলাকার পাহাড়ীরা। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে অরুন সার্কি টাউন হলে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। উদযাপন কমিটির সভাপতি জলিমং মারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় লোক প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক মো. হোসাইন কবির। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কে এস মং মারমা, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান থোয়াই চ প্রু মাষ্টার প্রমুখ। সভায় বক্তরা আদিবাসীদের স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে বলেন, দেশে বসবাসরত আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত লাঞ্চনা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। আদিবাসী জাতিসমূহের অধিকার প্রতিষ্ঠায় মুক্তিকামী জনতার সেতুবন্ধন রচনায় রাষ্ট্র ও সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। সভার পর বিভিন্ন আদিবাসী সম্প্রদায়ের অংশগ্রহণে ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
৫০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা চসিকের
অনলাইন ডেস্ক :চট্টগ্রাম নগরের হোল্ডিং ট্যাক্স ও এস্টেট শাখার অধীনে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। বুধবার (০৮ আগস্ট) বিকেলে নগরের আগ্রাবাদস্থ ওয়ার্ল্ড সেন্টারে চসিকের রাজস্ব বিভাগের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন ও পৌরকর সম্মাননা অনুষ্ঠানে এ পরিকল্পনার কথা জানান রাজস্ব বিভাগের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ড. মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহার সভাপতিত্বে সভায় ড. মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, রাজস্ব বাড়ানোর লক্ষে চসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। রাজস্ব আয় বাড়াতে বেশ কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে নগরে সরকারি হোল্ডিং সংখ্যা ১ হাজার ৩৯৯টি, বন্দরে হোল্ডিং সংখা একটি, বেসরকারি হোল্ডিং সংখ্যা ১ লাখ ৮৩ হাজার ৮৪৮টি সহ মোট হোল্ডিং সংখ্যা ১ লাখ ৮৫ হাজার ২৪৮টি। এসব হোল্ডিংয়ের প্রেক্ষিতে মোট দাবি ৩৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৮২ হাজার ০১ টাকা। মোট দাবির প্রেক্ষিতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ন্যূনতম ২০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়াও ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রাজস্ব বিভাগের এস্টেট শাখার প্রস্তাবিত ২১টি উন্নয়ন পরিকল্পনা/কার্যক্রমের ভিত্তিতে ৩০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করা হবে বলেও জানান চসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা। সভায় আরও বক্তব্য দেন চসিকের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর জোবাইদা নার্গিস খান, নিছার আহমেদ, শফিউল আলম, সচিব আবুল হোসেন, কর কর্মকর্তা মো. শাহ আলম, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, একেএম সালাউদ্দিন, জানে আলম প্রমুখ।সূত্র:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
ডাঃ নুরুন নাহার স্মৃতি পরিষদের স্মরণ আলোচনায় বক্তারা, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মহিয়সী
ডাঃ নুরুন নাহার স্মৃতি পরিষদ ও চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য সহধর্মিনী মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৮৮তম জন্মদিন স্মরণে এক স্মরণ আলোচনা ও দুস্থ মহিলাদের মাঝে শাড়ী বিতরণ অনুষ্ঠান বাওয়া স্কুল এন্ড কলেজ মিলনায়তনে গতকাল ৮ আগস্ট সকাল ১১টায় সংগঠনের সভাপতি আওয়ামীলীগনেতা শরফুদ্দীন চৌধুরী রাজুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগমনিরাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও চউক মেম্বার মোঃ গিয়াস উদ্দীন। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাওয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ারা বেগম। চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রেরে সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এম,আর,আজিম,সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ সালাউদ্দীন, জহুর আহমদ চৌধুরীর দৌহিত্র ইয়ামিন আনাম, মোরাপত্র লেখক সমাজের সভাপতি কবি সজল দাশ প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব একজন আদর্শিক ও মহিয়সী নারী। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের প্রতিটি কাজে যিনি ছায়ার মত থেকে উৎসাহ আর প্রেরণা যোগাতেন তিনি হচ্ছেন বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। একজন ত্যাগী ও আলোকিত নারী হিসেবে তিনি নিরবে নিভৃতে দেশের মানুষের উন্নয়নে অবদান রেখে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর একজন যোগ্য সহধর্মিনী হিসেবে তিনি সবসময় বিশেষ করে বঙ্গবন্ধু যখন কারাগারে তখন ফজিলাতুন্নেসা মুজিব অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে পরিবার ও আওয়ামী পরিবারকে সামলে রাখতেন। তিনি আজকের আয়োজনে দুঃস্থ মহিলাদের মাঝে শাড়ী বিতরণ একটি মহতি উদ্যোগ বলে অভিহিত করেন। সভায় প্রধান বক্তা তার বক্তব্যে বলেন বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব আমাদের নারী সমাজের ইতিহাসে এক আদর্শিক মহিলার নাম। বঙ্গবন্ধু যখন ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তখন বেগম মুজিব বঙ্গবন্ধুকে বলেছিলেন তুমি তোমার মত করে নিজের বুদ্ধি দিয়ে তোমার মনের কথা জনগণের সামনে তুলে ধরবা। এভাবে বেগম মুজিব জাতির জনকের প্রতিটিকর্মে দেশপ্রেমের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে বঙ্গবন্ধুকে সাহস ও প্রেরণা যোগাত। তিনি বর্তমান প্রজন্মের ছাত্রীদেরকে বঙ্গমাতার জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহণ করার আহ্বান জানান। সভা শেষে ২০ জন দুঃস্থ মহিলাদের মাঝে শাড়ী বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পেয়ারা চাষ করে ভাগ্য পরিবর্তন ফটিকছড়ির অাবুল মনছুর
সজল চক্রবর্ত্তী , ফটিকছড়ি ,চট্রগ্রাম : চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে পেয়ারা চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন আবুল মনসুর তিনি ফটিকছড়ি উপজেলা সুন্দরপুর ইউনিয়নের কৃতি সন্তান। তার বাপ দাদার রেখে যাওয়া জমিতে প্রায় আড়াই কানি জমিতে ফটিকছড়ি উপজেলা কৃষি অফিসারের সহযোগিতা হাটহাজারী কৃষি উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে সাড়ে ৩ শত পেয়ারার চারা এনে গত বছর কাজী পেয়ারার চাষ করলেও এ বছর পেয়ারা ধরতে শুরু করেছে। গত একমাস আগে ফটিকছড়িতে দুইবারের বন্যায় (ফসল) পেয়ারা নষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাষী আবুল মনসুর। তিনি দীর্ঘদিন প্রবাস জীবন থাকার পরে ভাগ্যের চাকা পরিবর্তন করতে না পেরে তিনি আবার দেশে ফিরে এসে এক বছর বেকার জীবনযাপন করার পর তিনি হঠাৎ করে সিদ্ধান্ত নেন পেয়ারার চাষ করবেন । এজন্য তিনি সহযোগিতা নেন ফটিকছড়ি উপজেলা কৃষি অফিসার লিটন দেব নাথের। আবুল মনসুর আরও জানিয়েছেন দীর্ঘ ১৫ বছর প্রবাস জীবন থাকার পর তিনি ভাগ্য পরিবর্তন করতে না পেরে প্রবাস জীবন ছেড়ে এসে বেকার জীবন যাপন করার পর তিনি পেয়ারা চাষ করতে বাপ দাদার রেখে যাওয়া কিছু সম্পদ তিনি বন্ধক রেখে, কিছু জমিতে পেয়ারা চাষ করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সহযোগিতা নিয়ে চট্টগ্রামের হাটহাজারী হতে ২০ টাকা করে পেয়ারা গাছের চারা এনে রোপণ করেন। গত এক বছর তিনি নিজে ও এলাকার কিছু শ্রমিক নিয়ে কাজ করার পরে এ বছর তার গাছে পেয়ারা ফসল দেখে মনটা ভরে উঠলো বলে জানিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস যখন আমি পেয়ারা তুলতে যাব এর আগে বন্যার আমার ফসল অনেক নষ্ট হয়ে যায়। এর পরও আমি ভেঙ্গে পড়েনি তারপরও পরিশ্রম করে যাচ্ছি প্রতিদিনই এ পেয়ারা বাগান থেকে ৮০ থেকে ১০০ কেজি পেয়ারা তুলে স্থানীয় বাজার ফটিকছড়ি বিবিরহাট বাজার, নাজিরহাট বাজারে পাইকারি দরে বিক্রি করি। প্রথম প্রথম আমি নিজেও বিক্রি করি প্রতি কেজি ১০০ টাকা, এবং পরবর্তীতে ৬০ থেকে ৫০ টাকা করে বিক্রি করতে পেরেছি এখন শেষ পর্যায়ে এসে ৩০ টাকা করে বিক্রি করছি। আমি মনে করছি আরও তিন থেকে চার মাস পর্যন্ত বিক্রি করতে পারব। গত এক বছরে প্রায় তিন লাখ টাকা খরচ হয়েছে বলে জানিয়েছেন এবং পেয়ারা বিক্রি করে প্রায় লাখ টাকা উঠে এসে। আমি আশাবাদী এই ফসল বিক্রি করে আমি লাভবান হতে পারব। তার পিয়ারা বাগান ফটিকছড়ি উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের হালদা নদীর তীরে অবস্হিত। সে সুন্দরপুর ইউনিয়নের আজিমপুর গ্রামের কাসেম আলীর বাড়ির হাছি মিয়ার পুত্র।
বাংলাদেশের প্রতিটি উন্নয়নের সাথে আওয়ামী লীগের সম্পৃক্ততা আছে ভবিষ্যতেও থাকবে :আ.জ.ম নাছির
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশের প্রতিটি উন্নয়নের সাথে আওয়ামীলীগের সম্পৃক্ততা আছে ভবিষ্যতেও থাকবে তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে নৌকা মার্কায় বিজয় সুনিশ্চিত করতে সাংগঠনের ও ভ্রাতৃত্বপ্রতিম ও অঙ্গ সংগঠনের প্রতিটি নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আওয়ামী লীগের মূলনীতি বাঙালী জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র, অসম্প্রদায়িক রাজনীতি চর্চা ও শোষণমুক্ত সমাজ ও সমাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সকল নেতাকর্মীদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। আর যারা দলের নাম ও পদবী ব্যবহার করে অপরাধ করবে তাদেরকে অপরাধী বলে জনগণ অসম্মান ও ধিক্কার জানাবে। ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের এলাকার প্রতিটি উন্নয়ন কাজে আওয়ামী লীগের সম্পৃক্ততা আছে বলে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড সম্পন্ন হয়েছে এবং চলমান আছে। এ উন্নয়ন কাজ শেষ হয়েছে বলে এলাকাবাসী আওয়ামী লীগের প্রতি আস্থা রেখেছে বলে সম্ভব হয়েছে। ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয় উদ্বোধন কালে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সংগঠনের আহ্বায়ক ও সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার এস.এম. আলমগীরের সভাপতিত্বে ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ জহুরুল আলম জসিমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতা সহ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন হতে বর্তমান পর্যন্ত মৃত্যুবরণ কারী সকল নেতাকর্মী ও মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদদের রুহের মাগফেরাত ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন কৈবল্যধাম হাউজিং এষ্টেট বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধানশিক্ষক মাওলানা আরিফ বিল্লাহ। ১১নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোরশেদ আকতার চৌধুরী, ২৭নং আগ্রাবাদ ওয়ার্ড কাউন্সিলর এইচ এম সোহেল, ৯, ১০, ও ১৩ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, ফিরোজ শাহ্ জনকল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইলিয়াস খাঁন, আকবর শাহ্ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সম্পাদক আলহাজ্ব শফর আলী, সীতাকুন্ড উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আল মামুন, চসিকের প্যানেল মেয়র প্রফেসর নিছার উদ্দিন আহমেদ মনজু, ২৫ নং আগ্রাবাদ ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল হোসেন ডিউক, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এ কে এম বেলায়েত হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা গাজী সালাহ উদ্দিন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা এস এম কাউসার, মোঃ জসিম উদ্দিন, মোঃ নুরুল আমিন, মোঃ জাহাঙ্গীর কবির নয়ন, শাহাবুদ্দীন আওরঙ্গজেব, মোঃ শামীম আহমেদ সুমন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক পাভেল ইসলাম, যুবলীগ নেতা আবু সুফিয়ান, বেলাল আহমেদ সরকার, আনিছ চৌধুরী রাজন, মোঃ শফিকুল ইসলাম ওয়াশিম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রুবেল আহমেদ বাবু, আবু নোমান নাহিদ, আনোয়ার আজিম, ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান রোকন, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী মিলি চৌধুরী, যাচমা বেগম, দীপ্তি রানী সহ ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, ইউনিট আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও অঙ্গ সংগঠন সমূহের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পাহাড়তলী ইসলামী ব্যাংকের সম্মেলনে প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দিন মঞ্জু, দরিদ্রতা নিরসন ও নারী উদ্যো
৮ই আগষ্ট বিকাল ৪টায় ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি: পাহাড়তলী শাখার উদ্যোগে নগর দরিদ্র উন্নয়ন প্রকল্প এর কেন্দ্র প্রধান ও সহকারী প্রধানদেও সম্মেলন ব্যাংকের চট্টগ্রাম উত্তর জোন প্রধান ও সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো: সালেহ ইকবালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিট অফিসার শেখ নুর মোহাম্মদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র প্রফেসর নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু। বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়াড এর মহিলা কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, চট্টগ্রাম উত্তর জোনের প্রিন্সিপাল অফিসার আর ডিএস জোন অফিসার মো: আমিরুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইসলামী ব্যাংকের শাখা প্রদান ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ ইয়াকুব আলী। কেন্দ্র প্রধানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এস এম আবদুল হান্নান, স্বপন সাহা, হোসনেয়ারা বেগম প্রমুখ। সম্মেলনে প্রধান অতিথি প্রফেসর নেছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু বলেন, ইসলামী ব্যাংক দেশের আপমর জনতার ব্যাংক। এই ব্যাংক ক্ষুদ্র ঋণের মাধ্যমে দেশের অবহেলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্টিকে স্বাভলম্বী কওে তুলার পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তা তৈরীতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তিনি ইসলামী ব্যাংকের সেবা সমুহ গ্রহনের মাধ্যমে সুদ মুক্ত অর্থব্যবস্থায় শরীক হওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। জোনাল প্রধান সালেহ ইকবাল বলেন, ইসলামী ব্যাংকের আরডিএস প্রকল্প গুলোর মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে ইসলামী ব্যাংকের কার্যক্রম ছড়িয়ে পড়েছে। নারী ক্ষমতায়নের পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক অভস্থার আমুল পরিবর্তন হয়েছে। তিনি ব্যাংকের সেবা সমূহ গ্রহণের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
প্রফেসর ড. অনুপম সেনের ৭৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত
প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেনের ৭৮তম জন্ম দিনে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বিজয় ৭১। জন্ম দিনে প্রতিক্রিয়ায় বলেন- বাংলাদেশ আজ অনেক দূর এগিয়েছে। আরো এগোতে হবে। নতুন প্রজন্মকে অতীত ইতিহাস ধারণ করে দেশ-প্রেমিক মানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। যার যার অবস্থান থেকে। বিজয় ৭১ এর উদ্যোগে নগরীর ভিআইপি টাওয়ারে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বরেণ্য সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেনের ৭৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে উপস্থিত ছিলেন বিজয় ৭১ এর চেয়ারম্যান ডা. আর.কে রুবেল, চট্টগ্রাম রিপোর্টার ইউনিটির সভাপতি সাংবাদিক কিরণ শর্মা, নাট্যজন সজল চৌধুরী, সিটিজি পোষ্টের বার্তা সম্পাদক সাংবাদিক রাজীব চক্রবর্তী, অনলাইন ভিটির আর্থ নিউজের বার্তা সম্পাদক সমীর কান্তি দাশ, প্রাবন্ধিক প্রশান্ত বড়য়া, ইমরান সোহেল, রুজি চৌধুরী, মাইজভাণ্ডারী গাউছিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ সূর্যগিরি আশ্রম শাখার সভাপতি লায়ন ডা. বরুণ কুমার আচার্য বলাই, সহ-সভাপতি দয়াল দত্ত, নিলু দাশ, তরুণ কুমার আচার্য কৃষ্ণ, অর্চনা রাণী আচার্য, ঝুমু দাশ, সুমি চৌধুরী, লাভলী দত্ত, প্রমিতা দাশ, রণবির দাশ, জয়ন্ত দত্ত, মণীষা দত্ত, রবি শেখর দত্ত, অভি বসু মল্লিক, শিপ্রা বসু মল্লিক, সুইটি আচার্য, রুবেল শীল, ঝন্টু শীল, ঝুমুর সর্দার প্রমূূখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ফিরিঙ্গীবাজারে শিক্ষার্থীদের সচেতনতামূলক কাউন্সিলিং
৩৩নং ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ডে স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা মূলক কাউন্সিলিং করেন ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব। এতে বক্তব্য রাখেন সাবেক শিক্ষক শাহাদাত হোসেন, আলকরণ দেওয়ান সুলতান আহমদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আয়েশা পারভীন, আলকরণ নুর আহমদ বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ মাহমুদ উল্লাহ, আলকরণ সরকারী বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নিলুফার ইয়াসমিন। আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর যুবলীগ সদস্য খোরশেদ আলম রহমান, সাবেক ছাত্রনেতা তাজউদ্দিন রিজভী, সাইফুদ্দীন আহমেদ, কামরুল হক, মহানগর যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা তারাপদ দাশ, আমিনুল ইসলাম শাহেদ, ছাত্রনেতা অনিন্দ্য দেব, সৌরভ দাশ, নাবেদ খান, এজাজুল হক এজাজ, জয় চোহান, মো. সাজ্জাদ, মো. আতিকুর রহমান প্রমুখ। কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবীতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবী যৌক্তিক। তাদের সেই দাবি সরকার মেনে নিয়েছে। কিন্তু বিদ্যালয়ের পোশাক পরে আন্দোলনকারীদের সাথে কিছু অনুপ্রবেশকারীদের কারণে আজ আন্দোলন প্রশ্নবিদ্ধ। কিছু অনুপ্রবেশকারী ও সরকারের উন্নয়ন বিরোধী আন্দোলনের অপচেষ্টায় আজকে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের যৌক্তিক আন্দোলনকে থামিয়ে দিয়েছে। সেই সব ষড়যন্ত্র কারীরা তাদের উদ্দেশ্য ছিল সরকারের উন্নয়নকে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, ছাত্র-ছাত্রীরা যে আন্দোলন করেছে তারা আজকে আমাদের নৈতিক ভিত্তির উপর দাড় করিয়েছে। তাই আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে সব সময় আছি। কিন্তু স্বার্থান্বেষী মহল আন্দোলনে ঢুকে তাদেরকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে না পারে সে বিষয়ে সকলকে সচেতন থাকতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর