ঝিনাইদহে আ'লীগ নেতাকে সভাপতি বানানো হয়নি বলে স্কুলে শিক্ষার্থীদের আসতে বাধা!
ঝিনাইদহের গোয়ালপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে সভাপতি বানানো হয়নি বলে বুধবার স্কুলে শিক্ষার্থীদের আসতে দেয়নি। এ নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে তোলপাড় ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুস্তাক আহম্মেদ স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ডেকে আনেন। তারপরও ক্লাস টাইম শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে সবাই স্কুলে উপস্থিত হতে পারেনি। অভিযোগ পাওয়া গেছে, সদরের পোড়াহাটী ইউনিয়নের মেম্বর ও ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম আযম স্কুলের সভাপতি হতে চান। বুধবার তিনি সকালে স্কুলে গিয়ে ১৯১ শিক্ষার্থীদের ক্লাসে প্রবেশ করতে দেয়নি। এক প্রকার স্কুল বন্ধ করে তিনি জোর করে স্কুল শিক্ষকদের নিয়ে মিটিংয়ে বসেন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক সেলিনা আরবী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ক্লাসে আসতে না দেওয়ার কারণে তিনি দ্রুত বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান। দুপুরে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুস্তাক আহম্মেদ ও সাবক্লাস্টারের দায়িত্বরত এটিইও হামিদুল ইসলাম ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। স্থানীয়দের অভিযোগ ঘোড়ামারা গ্রামের আতর আলী মন্ডলের ছেলে গোলাম আযম মেম্বরের বাড়ি পোড়াহাটী ইউনিয়নে হলেও দোগাছি ইউনিয়নের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত স্কুলে জোর করে সভাপতি হতে চান। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে কোন্দল শুরু হয়েছে। এই কোন্দলের কারণে স্কুল পরিচালনা কমিটি গঠন হচ্ছে না। গোলাম আযম মেম্বর স্কুল বন্ধের কথা অস্বীকার করে বলেন, স্কুলের শিক্ষকরা কমিটি গঠন নিয়ে গ্রুপিং করছে। গ্রপিং জিইয়ে রেখে তারা ইচ্ছামতো স্কুল চালাচ্ছে। এতে শিক্ষার মান কমছে। সেই কারণে তিনি বুধবার স্কুলে গিয়েছিলেন। তিনি কোন শিক্ষার্থীকে আসতে নিষেধ করেন নি বলেও দাবী করেন। ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুস্তাক আহম্মেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তিনি আযম মেম্বরকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন ভবিষ্যতে স্কুলে শিক্ষার্থীদের আসতে বাধা দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তেলের ড্রাম বিস্ফোরণে ওয়েলডিং মিস্ত্রী দগ্ধ: যশোরে
যশোরে তেলের ড্রাম বিস্ফোরণে মনির হোসেন (২৭) নামে ওয়েলডিং মিস্ত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি নওয়াপাড়া ইউনিয়নের বাহাদুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে। আহতের ভাই রাজু হোসেন জানিয়েছেন, মনির হোসেন ওয়েলডিং মিস্ত্রী। বুধবার সকালে শেখহাটি বাবলাতলায় গ্রান্ডিং মেশিন দিয়ে একটি তেলার ড্রামের মুখ কাটিছিলে। এসময় তেলের ড্রামের মধ্যে আগের থেকে গ্যাস হয়ে যাওয়া ড্রামটি হটাৎ করে বিষ্ফোরিত হয়। বিষ্ফোরণে মনিরের মুখ এবং শরিরের বিভিন্ন যায়গায় দগ্ধ হয়। পরে স্থারীয়রা তাকে উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে দুপুর ১২ টার দিকে তাকে ঢাকায় রেফার করা হয়।
বাসচাপায় মা-মেয়ে নিহত খুলনায়
খুলনা মহানগরীর খালিশপুর থানার আলমনগর পোড়া মসজিদ এলাকায় বিআরটিসির একটি বাসের চাপায় মা ও মেয়ে নিহত হয়েছেন। বুধবার সকালে রাস্তা পার হওয়ার সময় বাসটি তাদের চাপা দেয়। এ ঘটনার পর উত্তেজিত জনতা বিআরটিসির অপর একটি বাস ভাংচুর করেছে। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানিয়েছে, সকালে গৃহবধূ শিমুল আকতার তার ৬ বছরের মেয়ে তন্বীকে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় বরিশালগামী বিআরটিসির একটি বাস তাদেরকে চাপা দিলে তন্বী ঘটনাস্থলেই মারা যায়। শিমুল আকতারকে আহত অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর তারও মৃত্যু হয়। পরে উত্তেজিত জনতা বিআরটিসির ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস বাস ভাংচুর করে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও বাসটি উদ্ধার করে খালিশপুর থানায় নিয়ে গেছে। খলিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরদার মোশরফ হোসেন মা ও মেয়ে নিহতের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
ট্রাক-প্রাইভেটকার সংঘর্ষে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু ময়মনসিংহে
ময়মনসিংহ নগরীর বাইপাস মোড় এলাকায় একটি ট্রাকের সঙ্গে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় স্বামী-স্ত্রী দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে প্রাইভেট কার যাত্রী পল্টুর (৩০) নাম জানা গেলেও তার স্ত্রীর নামসহ বিস্তারিত ঠিকানা জানা যায়নি। মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন চালকসহ আরও দুইজন। আহতরা হলেন ময়মনসিংহ শহর ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরিফ (২৭) ও রাজিব (২৯)। কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম জানান, স্থানীয় বাইপাস মোড় এলাকায় একটি তেলবাহী ট্রাকের সঙ্গে শহরমুখী একটি প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা খায়। এতে চালকসহ প্রাইভেট কারের চার যাত্রী আহত হন। তিনি আরও জানান, তাদের উদ্ধার করে সংকটাপন্ন অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে দুইজনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। আর আহত অপর দুইজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা কুমিল্লায়,আরেকজন গুলিবিদ্ধ
কুমিল্লার একটি ছাত্রাবাসে এক কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এছাড়া তার এক বন্ধুকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। বুধবার সকালে ছাত্রাবাস থেকে সাগর দত্ত নামের ওই ছাত্রের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ওসি আবু সালাম মিয়া। এছাড়া গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তার বন্ধু সজীবকে উদ্ধার করা হয়েছে। আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তবে কি কারণে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনো ধারণা দিতে পারেনি পুলিশ। ওসি বলেন, পুরনো বিরোধের জেরে কেউ এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। আবার অন্য কিছুও থাকতে পারে। তবে এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তদন্ত শুরু করেছি। পরে বিস্তারিত বলতে পারব বলে তিনি জানান।
ময়মনসিংহে এসআইকে ছুরিকাঘাতকারী যুবক বন্দুকযুদ্ধে নিহত
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কের শম্ভুগঞ্জের শাইখসিরাজ আঞ্চলিক সড়কের পাশে একটি কাশবনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশের ভাষ্য, নিহত যুবক গেীরিপুরের এসআই আসাদকে ছুরিকাঘাতের ঘটনার প্রধান আসামি উজ্জ্বল। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এ নেওয়াজী জানান, রাতে ডিবি পুলিশের একটি দল আসামি গ্রেফতারে অভিযান চালালে ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়কের শম্ভুগঞ্জ এলাকায় উজ্জ্বলের উপস্থিতি টের পায়। এ সময় পুলিশ তাকে ধরতে গুলি চালায়। এ সময় উজ্জ্বল এবং তার সহযোগীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এক পর্যায়ে অন্যরা পালিয়ে যান। পরে তারা উজ্জ্বলকে মৃত অবস্থায় পান।
জামায়াত বিএনপির ঘাঁটি যশোর-১ এখন আ.লীগের দখলে
ভারত সীমান্তবর্তী যশোরের শার্শা উপজেলা নিয়ে গঠিত যশোর-১ আসন বিএনপি জামায়াতের ঘাঁটি হলেও দীর্ঘসময় ধরে তা দখলে রয়েছে আওয়ামী লীগের। দলটির নেতারা মনে করেন, পরপর দুবার আসনটি জয় করতে পেরে আওয়ামী লীগের শক্তিবৃদ্ধি হয়েছে। তবে এ আসন পনুরুদ্ধারে আত্মবিশ্বাসী বিএনপি-জামায়াত জোট। তাদের মতে , জোটবদ্ধ নির্বাচন হলে এবং সাধারণ মানুষ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে বিজয় ছিনিয়ে আনা সম্ভব। শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত যশোর-১ আসন। এখানকার মানুষের আর্থ-সামাজিক পরিবর্তনে বড় ভূমিকা রাখছে বেনাপোল স্থল বন্দর। ১৯৯১ থেকে অনুষ্ঠিত ৬টি নির্বাচনের মধ্যে চারবারই নৌকার বিজয় কেতন উড়েছে। বিএনপি জামায়াতের ঘাঁটি হিসেবে চিহ্নিত হলেও আসনটি ধরে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ নেতারা মনে করেন, নবম ও দশম সংসদ নির্বাচনে জয়ের পর সকল ক্ষেত্রে যে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে তাতে দলগত শক্তি অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। যা আগামী সংসদ নির্বাচনের বৈতরণী পার হতে তাদের সাহায্য করবে। বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন বলেন, 'বিএনপি উন্নয়নেও নেই, রাজনীতিতেও নেই সুতরাং আওয়ামীলীগ এখানে অবশ্যই এগিয়ে আছে।' যশোর শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুজ্জামান বলেন, 'তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা একাট্টা হয়ে নৌকা প্রতীককে বিজয় করবো।' এদিকে বিএনপির দাবি জোটগত নির্বাচনে এ আসন তাদের। জনগণ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে জয় পাবে বলে দাবি দলটির নেতাদের।
সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ২
সাতক্ষীরায় কালীগঞ্জ-শ্যামনগর মহাসড়কে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। এ সময় মোটরসাইকেলে থাকা আরও দুজন আহত হন। মঙ্গলবার কালীগঞ্জের পিরোজপুর কাটাখালী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- কালীগঞ্জ উপজেলার নীজদেবপুর গ্রামের মফিজউদ্দিনের ছেলে আব্দুল মান্নান সরদার (৫০) ও সোনাতলা গ্রামের আজগর আলীর ছেলে নূর হোসেন (৩২)। স্থানীয়রা জানান, তুহিন, শান্ত ও নূর হোসেন মোটরসাইকেলযোগে সাতক্ষীরা যাচ্ছিলেন। এ সময় ঘটনাস্থলে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নূর হোসেন ও অপর মোটরসাইকেলে থাকা আব্দুল মান্নান সরদার নিহত হন। আহতদের উদ্ধার করে দেবহাটা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়েছে। সাতক্ষীরা কালীগঞ্জ সার্কেলের এএসপি ইমরান মেহেদী সিদ্দিকী জানান, পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে দেবহাটা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মর্গে প্রেরণ করেছে।
গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে যুবক নিহত ঠাকুরগাঁওয়ে
ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক যুবক নিহত হয়েছেন। সোমবার দিনগত রাত চারটার দিকে ঠাকুরগাঁও-দিনাজপুর মহাসড়কে উপজেলার ২৯ মাইল নামক স্থানে এ বন্দুকযুদ্ধ হয়। পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি (আনুমানিক ৩২ বছর) আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সদস্য। তবে বিস্তারিত নাম-পরিচয় জানাতে পারেনি তারা। এ ঘটনায় পুলিশের চার সদস্য আহত হয়েছেন। জেলা ডিবি পুলিশের ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতি চলছে- এমন গোপন খবরে ওই এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ। উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতেরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ডাকাতেরা পিছু হটলে গুলিবিদ্ধ যুবককে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বন্দুকযুদ্ধে এসআই খোকন (৩৬), কনস্টেবল এনামুল হক (৪২), আব্দুল মমিন (৩৫) ও জামাল (২৮) আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে রামদা, ছুরি, চাইনিজ কুড়ালসহ ডাকাতির বেশ কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান ওসি। জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবু মো. খায়রুল কবির জানান, সোমবার গভীর রাতে পুলিশ একটি গুলিবিদ্ধ লাশ হাসপাতালে আনে। পরে সেটি হিমঘরে রাখা হয়। এখন পর্যন্ত তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ সুপার ফারহাত আহম্মদ জানিয়েছেন, সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। সূত্র:পরিবর্তন ডটকম

সারা দেশ পাতার আরো খবর