বঙ্গবন্ধুর খুনীদের পূর্ণ বিচার করতে হলে নৌকার বিজয়ের বিকল্প নাই : আবদুচ ছালাম
৪৩তম শোকাবহ আগস্টের প্রথমদিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাকী খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবীতে এবং ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মৃতির স্মরণে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে প্রগতিশীল সচেতন ছাত্র-যুবসমাজের উদ্যোগে চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য পংকজ রায়ের সভাপতিত্বে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম উপরোক্ত মন্তব্য করেন। তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তিরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু সহ স্বপরিবারকে হত্যা করে মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতাকে বিপন্ন করে পিতাহীন রাষ্ট্রে পরিণত করার যে ষড়যন্ত্রে জিয়াউর রহমান ইন্ডেমনীটি অধ্যাদেশ জারি করে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার বন্ধ করার যে ষড়যন্ত্র করেছিলেন তার বিরুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাঙালি জাতি আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে আপামর বাঙালি জাতির ভোটে নির্বাচিত হয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করার মাধ্যমে একের পর এক বঙ্গবন্ধুর খুনীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে যে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছেন তাকে কুলষিত করে বঙ্গবন্ধুর বাকী খুনীদের বাঁচিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টায় বিএনপি-জামাত জোট যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে পিছনের দরজায় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার যে স্বপ্ন দেখছেন তাকে আগামী নির্বাচনে ইস্পাত কঠিন ঐক্যের মাধ্যমে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করে শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করার আহ্বান জানান এবং ৭৫ এর ১৫ আগস্ট কালো রাত্রিতে বঙ্গবন্ধু সহ স্বপরিবারের স্মৃতি প্রতির বিনম্র শ্রদ্ধা ও তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। উক্ত প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মনোয়ার জাহান মনি, সাধন দে, শামশেদ খোকন, নুর মোহাম্মদ, মো: সিরাজ, শাহেদুল আলম শাহেদ, আজগর আলী, ডা: জাহাঙ্গীর, মো: আবুল হোসেন, এম.এইচ. মানিক, তরিকুল বাহার, অপু দাশ, শাহজাহান রুবেল, মো: আমির, মহিউদ্দিন জনি, মো: সাদ্দাম, মো: আমিন, মো: আসিফ, আবদুস ছালাম বাবু, মো: সানি প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চান্দগাঁও ছাত্রসেনার মতবিনিময় সভায় নগর ইসলামী ফ্রন্ট সভাপতি নঈম উল ইসলাম, বর্তমানে সড়ক যেন �
বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ নঈম উল ইসলাম বলেন, বর্তমানে সড়ক যেন মৃত্যুকূপ। মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ির সংখ্যাই বেশি। এ গাড়িগুলোর অধিকাংশ চালক ১৫-১৬ বছরের যুবক। তাদের পর্যাপ্ত অভিজ্ঞতা নেই, নেই ড্রাইভিং লাইসেন্স। এমন অবস্থায় তাদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর ফলে খালি হচ্ছে অনেক মায়ের কোল। বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর আওতাধীন চান্দগাঁও থানা শাখার মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ১ আগস্ট বিকেল এককিলোমিটারস্থ নাফিস ভবনে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মুহাম্মদ জিহাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ নঈম উল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ শফিউল আলম। প্রধান বক্তা ছিলেন ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর ছাত্রসেনার সভাপতি মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ কাদেরী। বিশেষ বক্তা ছিলেন মহানগর উত্তর ছাত্রসেনার সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ গোলাম মোস্তফা। মুহাম্মদ বেলাল রেজার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তারা , নিরাপদ সড়কের দাবির জানায়। হানিফ পরিবহনের বাস কর্মচারীদের দ্বারা ছাত্র সাইদুর রহমান (পায়েল) হত্যা এবং গত রবিবার ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় জড়িত বাস চালকদের শাস্তি নিশ্চিত করতে সরকার ও প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান বক্তারা। সভায় আলোচনায় অংশ নেয় মুহাম্মদ ইকবাল হোছাইন, আবদুল আলিম, নুরুল আমিন, নুরুল ইসলাম, আল আমিন রেযা, আবদুল কাইয়ুম প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বর্ণাঢ্য আয়োজনে দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ১ আগস্ট চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন হলরুমে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সাংবাদিক বজলুল হকের সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের সম্পাদক ও প্রকাশক মিজানুর রহমান চৌধুরী। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সদস্য সাংবাদিক ইস্কান্দার আলী চৌধুরী। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন মেরন সান স্কুল এন্ড কলেজ এর অধ্যক্ষ লায়ন মোহাম্মদ সানাউল্লাহ। উক্ত অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য প্রদান করেন আনোয়ারা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল নুর চৌধুরী, দৈনিক দিনকালের চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান হাসান মুকুল, দৈনিক কর্ণফুলীর চীফ রিপোর্টার এয়াকুব আলী মনি, দৈনিক আজাদীর সহ সম্পাদক জসীম সিদ্দিকী, ন্যাপ চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি ওসমান গণি সিকদার, এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ কায়সার, সাংবাদিক এস এম ইউসুফ, দৈনিক দিনকালের স্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ আলী, দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের প্রতিনিধি রায়হান সিকদার, মোহাম্মদ কমরুদ্দিন, মীর মামুন, কাজী মামুনুর রশীদ, সাংবাদিক হুমায়ুন কবির, এনামুল হক নাবীদ, এম সাদ্দাম হোসাইন সাজ্জাদ, নোমান ফারুকী প্রমুখ। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সিটিজি পোষ্ট পরিবার, অনলাইন প্রেসক্লাব ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের সম্পাদক ও প্রকাশক মিজানুর রহমান চৌধুরীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক আবুহেনা খোকন। আলোচনা সভায় সাংবাদিকতাসহ বিভিন্ন পেশায় অবদান রাখার জন্য ১৫ জনকে দৈনিক আমাদের চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটার মধ্যদিয়ে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। আলোচনা সভা শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
দৈনিক আমাদের চট্টগ্রাম পত্রিকার ৭ম বর্ষপূর্তিতে শুভেচ্ছা
দৈনিক আমাদের চট্টগ্রাম পত্রিকার ৭ম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান আগষ্ট ২০১৮, বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্য্যালয়ে পত্রিকাটির সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী'র সভাপতিত্বে অনু্ষ্ঠিত হয়। বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন- খ্যাতিমান সাংবাদিক ইসকান্দর আলী চৌধুরী। এদিকে পত্রিকাটির বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের এক প্রতিনিধিদল ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি ক্লাবের পক্ষে সভাপতি বক্তব্যও রাখেন। ফুল প্রদানকালে প্রতিনিধিদলে ছিলেন- ক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান, যুগ্ম সম্পাদক স.ম জিয়াউর রহমান, উপ-প্রচার সম্পাদক রাজিব চক্রবর্তী, সদস্য তরুন বিশ্বাস অরুন, কুতুব উদ্দিন রাজু প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
তীব্র যানজটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক
অনলাইন ডেস্ক: রাতে দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশ। বুধবার সকালে ঢাকার সাইনবোর্ড এলাকা হতে শুরু হওয়া যানজট রাতে এসে কুমিল্লার দাউদকান্দি পেরিয়ে চান্দিনা ছাড়িয়ে যায়। সময় যাচ্ছে, বাড়ছে থেমে থাকা গাড়ির সংখ্যা। দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে যানজট। দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুপুর পর্যন্ত মহাসড়কের দাউদকান্দি পর্যন্ত গাড়ি ধীরে চললেও যানজট ছিলো না। কিন্তু বিকেল থেকে যানজটের তীব্রতা বাড়তে থাকে। আর রাতে এসে তা তীব্র আকার ধারণ করেছে। যানজট নিরসনে নাকাল হাইওয়ে পুলিশের একটি সূত্র বলছে, ঢাকাগামী লেনে থেমে থাকা গাড়ির দীর্ঘতা যে হারছে বাড়ছে; তা সত্যিই আশঙ্কাজনক। যানজটের এ ভোগান্তি আরো দীর্ঘ হতে পারে বলেই শঙ্কা তাদের। দেশের লাইফলাইন খ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সৃষ্টি হওয়া স্বরণকালের তীব্র যানজটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকাগামী যাত্রী ও পরিবহনের চালকগণ। বিশেষ করে বিদেশগামী হজযাত্রী, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সে থাকা স্বজনদের জন্য মহা-দুর্ভোগের কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে এ যানজট। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে যেনো পুরোপুরিভাবেই স্থবির হয়ে পড়েছে রাতের মহাসড়ক। রাত সাড়ে ৮টার দিকে দাউদকান্দি থেকে ঢাকাগামী এক যাত্রী বলেন, বিকেল ৫টায় আমাদের বাসটি টোলপ্লাজার একটু সামনে এসে থামে। এরপর থেকে এখানেই আটকে আছি, সামনে এগুনোর পথ দেখছি না। হাইওয়ে পুলিশ জানায়, ঢাকায় বাস চাপায় কলেজ শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলনে রাজধানীর প্রবেশমুখের মহাসড়কগুলোতে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। বুধবার সকাল থেকে শুরু হওয়া যানজটের দীর্ঘতা ধীরে ধীরে কেবল বাড়তেই থাকে। যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশের একাধিক টিম দায়িত্ব পালন করছেন বলেও জানিয়েছেন কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দাউদকান্দি সার্কেল) মহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, ঢাকায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রভাব এসে পড়েছে মহাসড়কগুলোতে। দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন বলেন, সড়ক জুরে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। জোরদার করা হয়েছে টহল ব্যবস্থা। যানজট নিরসনে আপ্রাণ চেষ্ঠা চালানো হচ্ছে।
শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আজ
অনলাইন ডেস্ক: কুর্মিটোলায় বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় সৃষ্ট পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে দেশের সব স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় আজ বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকবে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে টানা তিন দিন ধরে বিক্ষোভের প্রেক্ষাপটে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বুধবার রাতে এই সিদ্ধান্তের কথা জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বুধবার সন্ধ্যায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ কথা জানিয়ে শোকার্ত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান জানান। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইন এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে বৃহস্পতিবার দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় শিক্ষামন্ত্রী দুই শিক্ষার্থীর নিহত ও কয়েকজন শিক্ষার্থীর আহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ওই দুর্ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত ও সড়ক পরিবহন নিরাপদ করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে নির্দেশ দিয়েছেন। সে অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। গত রবিবার রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন স্কুল ও কলেজের দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় গত তিন ধরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা। দুর্ঘটনার জন্য দায়ী চালকদের ফাঁসি, ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল এবং লাইসেন্স ছাড়া চালকদের গাড়ি চালনা বন্ধ করাসহ বিভিন্ন দাবিতে বুধবারও সারা দিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে দেশের বেশ কয়েকটি জেলাতেও। ঢাকায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা গাড়ি থামিয়ে থামিয়ে চালকদের লাইসেন্স পরীক্ষা করে। বাংলামোটর এলাকায় উল্টোপথে যাওয়ার সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের গাড়ি আটকায় শিক্ষার্থীরা। এমন পরিস্থিতিতে সচিবালয়ে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। পরে তিনি সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান। কিন্তু মন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া না দিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে আবার রাস্তায় নামার ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা। এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে বৃহস্পতিবার দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বৃহস্পতিবার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
১ কেজি স্বর্ণসহ চট্টগ্রাম শাহ আমান বিমানবন্দর থেকে আটক ১
অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শারজাহ থেকে আসা এক যাত্রীর মলদ্বারে লুকানো ৮টি স্বর্ণের বার জব্দ করেছে বিমানবন্দর কাস্টম। বুধবার (১ আগস্ট) কাস্টম হাউসের কর্মকর্তারা জানান, শারজাহ থেকে এয়ার এরাবিয়ার সকাল সাড়ে নয়টার ফ্রাইটে ফটিকছড়ির সুমন দাশ আসেন। তার গতিবিধি সন্দেহজনক হলে কাস্টম হাউসের কর্মকর্তারা চ্যালেঞ্জ করেন। একপর্যায়ে মলদ্বারে স্বর্ণ থাকার বিষয়টি স্বীকার করেন। এরপর সুমন দাশকে আটক করে স্বর্ণের আটটি বার বের করা হয়। যার ওজন ৯৩৬ গ্রাম। এ ঘটনায় পতেঙ্গা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান কাস্টম কর্মকর্তারা। কাস্টম হাউসের সহকারী কমিশনার উত্তম বিশ্বাস জানান, আটক স্বর্ণের দাম ৪৫ লাখ টাকা।
বাসায় ইয়াবা পাওয়ায় এসআই সাইফুদ্দিন বরখাস্ত
অনলাইন ডেস্ক: র‌াবের অভিযানে তালাবদ্ধ বাসা থেকে ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় চট্টগ্রাম মহানগরের বাকলিয়া থানার সেই উপ-পরিদর্শক (এসআই) খন্দকার সাইফুদ্দিনকে পুলিশ বাহিনী থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে সিএমপি বাকলিয়া থানায়। তবে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা উদ্ধারের খবর জানার পরপরই সোমবার রাত থেকে আত্মগোপনে চলে গেছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা। চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ-সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসাইন এই খবর নিশ্চিত করেছেন। এসএম মোস্তাইন হোসাইন বলেন, ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় সিএমপি বাকলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক খন্দকার সাইফুদ্দিনকে পুলিশ বাহিনী থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। শপথ ভঙ্গ ও পুলিশের সম্মানহানীর ঘটনায় তার বিরুদ্ধে পৃথকভাবে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ- সিএমপির পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটির প্রধান হলেন সিএমপি চকবাজার জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা। অন্য দুই সদস্য হলেন সিএমপি চকবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও সদরঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত)। এর আগে সোমবার দিনগত মধ্যরাতে নগরের বাকলিয়া হাফেজনগর এলাকায় এসআই খন্দকার সাইফুদ্দিনের ভাড়া বাসা থেকে ১৪ হাজার ১০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে র‌্যাব। ওই সময় এসআই খন্দকার সাইফুদ্দিনের ইয়াবা পাহারাদার নাজিম উদ্দিন মিল্লাত (৩০) নামে একজনকে আটক করা হয়। এছাড়াও ওই বাসা থেকে ইয়াবা বিক্রির নগদ ২ লাখ ৩১ হাজার ৬৩০ টাকা, ৪টি মোবাইল ফোন, ৩টি ট্যাব ও পুলিশের কিছু ইউনিফর্ম (পোশাক) উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব এব প্রেস বার্তায় গণমাধ্যমকে জানায়। পরিবর্তন ডট কম
বরিশালে আ.লীগের ১৫ বিএনপির পাঁচসহ ২২ কাউন্সিলর নির্বাচিত
অনলাইন ডেস্ক: বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনে সাধারণ ৩০ ওয়ার্ডের মধ্যে ২২ জন কাউন্সিলরকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এর মধ্যে তিনজনের প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তারা আগেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন। অপর ১৯ জন সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। অনিয়মের অভিযোগে ১টি কেন্দ্রের ভোট বাতিল এবং ১৫টি কেন্দ্রের ফল স্থগিত করায় সংশ্লিষ্ট ৮ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের ফল স্থগিত রাখা হয়েছে। একই কারণে সংরক্ষিত ৫টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের ফলও আটকে গেছে। তবে ১০টি সংরক্ষিত কাউন্সিলরদের মধ্যে পাঁচজনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। সাধারণ কাউন্সিলদের মধ্যে ১৫ জন আওয়ামী লীগ দলীয়, পাঁচজন বিএনপির, একজন জাতীয় পার্টি ও একজন স্বতন্ত্রভাবে জয়ী হন। পাঁচজন সংরক্ষিত কাউন্সিলরদের মধ্যে তিনজন আওয়ামী লীগের ও দুইজন বিএনপির। রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মুজিবুর রহমান বলেন, ফল স্থগিত থাকা ওয়ার্ডগুলোর কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা এবং স্থগিত কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা নির্বাচন কমিশনে (ইসি) পাঠনো হবে। ইসি থেকে পরবর্তী সিদ্ধান্তের পর নির্ভর করবে সাধারণ ৮ ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৫ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের ফল। সাধারণ ওয়ার্ডে বিজয়ী কাউন্সিলররা হলেন- ১ নম্বর ওয়ার্ডে আমীর হোসেন বিশ্বাস (আওয়ামী লীগ), ২ নম্বর ওয়ার্ডে মুরতজা আবেদীন (জাপা), ৩ নম্বর ওয়ার্ডে মো. হাবিবুর রহমান ফারুক (বিএনপি), ৪ নম্বর ওয়ার্ডে তৌহিদুর রহমান বাদশা (আওয়ামী লীগ), ৫ নম্বর ওয়ার্ডে কেফায়েত হোসেন রণি (স্বতন্ত্র), ৬ নম্বর ওয়ার্ডে খান মো. জামাল হোসেন (বিএনপি), ৭ নম্বর ওয়ার্ডে রফিকুল ইসলাম খোকন (বিএনপি), ৮ নম্বর ওয়ার্ডে মো. সেলিম হাওলাদার (বিএনপি), ৯ নম্বর ওয়ার্ডে হারুন অর রসিদ (বিএনপি), ১১ নম্বর ওয়ার্ডে মজিবর রহমান (আওয়ামী লীগ), ১২ নম্বর ওয়ার্ডে জাকির হোসেন ভুলু (আওয়ামী লীগ), ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে মেহেদি পারভেজ আবীর (আওয়ামী লীগ), ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে লিয়াকত হোসেন খান (আওয়ামী লীগ), ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে মোশারফ আলী খান বাদশা (আওয়ামী লীগ) ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে মীর জাহিদুল কবির (বিএনপি), ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে গাজী নাইমুল হোসেন লিটু (আওয়ামী লীগ), ২১ নম্বর ওয়ার্ডে শেখ সাইয়েদ আহম্মেদ মান্ন (আওয়ামী লীগ), ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে আনিছুর রহমান শরীফ (আওয়ামী লীগ), ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে মো. হুমায়ুন কবীর (আওয়ামী লীগ), ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে মো. জাহাঙ্গীর হোসেন(আওয়ামী লীগ), ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে ফরিদ আহম্মেদ (আওয়ামী লীগ) ও ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে আজাদ হোসেন মোল্ল কালাম (আওয়ামী লীগ)। ১৫টি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত রাখার কারণে যেসব ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের ফল ঘোষণা হয়নি সে ওয়ার্ডগুলো হচ্ছে- ১০, ১৪, ১৭, ২০, ২২, ২৩, ২৫ ও ২৭। সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে বিজয়ীরা হলেন- ১ নম্বর ওয়ার্ডে (সাধারণ ১, ২ ও ৩) মিনু রহমান, ২ নম্বর ওয়ার্ডে (সাধারণ (৪, ৫ ও ৬) জাহানারা বেগম, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে (সাধারণ ৭, ৮ ও ৯) কোহিনুর বেগম, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে (সাধারণ ১০, ১১ ও ১২) আয়েশা তৌহিদা লুনা (বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়) এবং ১০ নম্বর ওয়ার্ডে (সাধারণ ২৮, ২৯ ও ৩০) রাশিদা পারভীন। এছাড়া ১৫ কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত থাকার কারণে সংরক্ষিত ৫, ৬, ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ফলাফল ঘোষণা করেননি রিটার্নিং কর্মকর্তা।

সারা দেশ পাতার আরো খবর