মৌলভীবাজারে দুই নারীকে ধর্ষণ,আটক ৭
২১ডিসেম্বর,শনিবার,স্টাফ রির্পোটার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় সিএনজি থেকে নামিয়ে দুই নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার একটি চাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই দুই নারীকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের একজনের বয়স ২৮ অন্যজনের ২৪ বছর। এ ঘটনায় শনিবার দুপুর পর্যন্ত তিনটি সিএনজি এবং ৭ জনকে আটক করা করেছে। মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ দুপুরে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে গিয়ে ওই দুই নারীর খোঁজখবর নেন। এ বিষয়ে কমলগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। নির্যাতনের শিকার দুই নারী জানান, শুক্রবার রাতে ৯টার দিকে তিন বছরের একটি শিশুসহ মৌলভীবাজার শহর থেকে কমলঞ্জ উপজেলায় বাড়িতে যাবার উদ্দেশে সিএনজি অটোরিক্সা ভাড় করেন তারা। সিএনজি অটোরিক্সাটি কিছু দূর যাওয়ার তার বাধা দেওয়া সত্ত্বেও দুই যাত্রী তোলেন চালক। তারা জানান, এক পর্যায়ে চাবাগানের এক নির্জন জায়গায় আগে থেকে অবস্থান নেওয়া সাত থেকে আটজন তাদেরকে সিএনজি অটোরিক্সা থেকে নামিয়ে সন্তানের সামনে তাদের ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটিকে মারধর করা হয়। পরে কৌশলে সিএনজিতে স্থানীয় রহিমপুর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার আব্দুল মজিদ খানের কাছে বিষয়টি জানান তারা। পরে তিনি বিষয়টি পুলিশকে জানান। কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান জানান, এই ঘটনায় মামলার রস্তুতি চলছে। এখন পর্যন্ত ৭ জন অভিযুক্ত এবং তিনটি সিএনজি আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে যাদের নাম আসবে তাদেরকে আটক করা হবে। মামলার পর তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে ।
যশোরে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত ১
২১ডিসেম্বর,শনিবার,মাসুদুজ্জামান,যশোর,নিউজ একাত্তর ডট কম: জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে যশোর শহরের মোল্লাপাড়ায় আব্দুর রহমান নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের ভাই সালাউদ্দিন বাবু জানায়, একই এলাকার আকরাম-আল-হোসেনদের সঙ্গে আব্দুর রহমানের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে সকালে চিহ্নিত সন্ত্রাসী কুদ্দুস ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন আব্দুর রহমানের হত্যাকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে।
কুড়িগ্রামে বইছে শৈত্যপ্রবাহ, তাপমাত্রা ৯.৮ ডিগ্রি
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,হাবীবুর রহমান,কুড়িগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুড়িগ্রামে বইছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ।বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তিন ঘণ্টার ব্যবধানে সকাল নয়টার পরিমাপেও ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এদিকে ঘন কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। নদ-নদীর অববাহিকায় ঘন কুয়াশাসহ শীতের তীব্রতা বেশি অনুভূত হচ্ছে। সকাল ১১টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে জেলার অধিকাংশ জনপদ। শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবী ও ছিন্নমূল মানুষ। কুয়াশার কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে যান চলাচল। ফলে দিনের বেলা সড়কে হেডলাইট জ্বালিয়ে যান চলাচল করতে দেখা গেছে। জেলার চরাঞ্চল এবং গ্রামাঞ্চলের মানুষ শীতের প্রকোপে আগুন জ্বালিয়ে ঠাণ্ডা নিবারণের চেষ্টা করছেন। এদিকে শীতের কারণে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষ করে শিশুরা অত্যাধিক ঠাণ্ডার কারণে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ২৭ জন শিশুসহ ৩১ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ছয়জন ডায়রিয়া ও তিনজন নিউমোনিয়া রোগী ভর্তি হয়েছে। কুড়িগ্রাম জেনারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. জাকিরুল ইসলাম জানান, শীতজনিত রোগের প্রকোপ ব্যাপক আকারে দেখা দেয়নি। ডায়রিয়া ও নিমউমেআনিয়াসহ শীতজনিত রোগের সুচিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের পর্যবেক্ষক জাকির হোসেন জানান, মৃদু শৈত্যপ্রবাহটি আগামী দুই তিনদিন চলবে। মাঝখানে বিরতি দিয়ে আবার একটি শৈত্যপ্রবাহ আসবে এ জেলায়। ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনাও রয়েছে।
মেহেরপুরে কৃষকের ১০টি ছাগল পুড়ে ছাই
১৮ডিসেম্বর,বুধবার,হুমায়ুন মাসুদ,মেহেরপুর,নিউজ একাত্তর ডট কম: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রাধাগোবিন্দপুর ধলা গ্রামে এক কৃষকের ১০টি ছাগল আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে মনিরুল ইসলাম নামে ওই কৃষকের বাড়িতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তার ধারণা, বৈদ্যুতিক লাইনের গোলযোগ থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। ভুক্তভোগী মনিরুল ইসলাম বলেন, রাতে আমরা ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এ সময় একটি ঘরে হঠাৎ আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণের আগেই তা ছাগলের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এতে আগুনে পুড়ে মারা যায় ১০টি ছাগল। যার আনুমানিক মূল্য অর্ধ লক্ষাধিক টাকা। ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি নিশ্চিত করে কাথুলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে প্রাথমিকভাবে ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়া হয়েছে।
টাঙ্গাইলে ট্রাক-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত ১
১৭ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,প্রদীপ কুমার দাশ,টাঙ্গাইল,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের সেতু পূর্ব থানার সামনে মাইক্রোবাস-ট্রাকের সংঘর্ষে হাবিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়ায়। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী আয়ুবুর রহমান জানান, আজ (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের সেতু পূর্ব থানার সামনে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকের সাথে সিরাজগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই হাবিবুর রহমান মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর আগেও এ এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছিল।
বরিশালে যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় ক্লিংকারবাহী কার্গো ডুবি
১৫ডিসেম্বর,রবিবার,বরিশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরিশাল নদীবন্দরের অপরপাড় চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় ক্লিংকারবাহী একটি কার্গো ডুবে গেছে। শনিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, বরগুনা থেকে তিন শতাধিত যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসা শাহরুখ-২ লঞ্চের সাথে চট্টগ্রাম থেকে এ্যাংকর সিমেন্টের ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকার বহনকারী কার্গো হাজী মো. দুদু মিয়া-১ এর মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের ফলে ক্লিংকারবাহী এ্যাংকর সিমেন্টের মালিকাধীন কার্গোটি ডুবে যায় এবং লঞ্চের সামনের অংশটি ছিদ্র হয়ে যায়। তাই বিআইডব্লিউটিএ লঞ্চটি নদীর তীরে ভিড়িয়ে যাত্রীদের নামিয়ে যাত্রা বাতিল করে। বিকল্প ব্যবস্থায় কিছু যাত্রী বরগুনা-ঢাকাগামী পূবালী-১ লঞ্চে ঢাকায় পাঠানো হয়। যাত্রীদের অনেকেই ঐসময় ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ জোরে ধাক্কা লাগলে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। বিশেষ করে নারী ও শিশু যাত্রীরা কান্না জুড়ে দেয়। তবে লঞ্চ চরকাউয়া খেয়াঘাটে ভিড়ানো হলে যাত্রীরা নিরাপদে তীরে নেমে পড়েন। টার্নিং করার সময় কার্গোটির চালক হঠাৎ ঘুরিয়ে দেয়ায় দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান শাহরুখ-২ লঞ্চের সুপারভাইজর সেলিম হোসেন মারুফ। অপরদিকে এ্যাংকর সিমেন্ট কোম্পানীর জিএম আনসার আলী হাওলাদার বলেন, লঞ্চের ভুলের কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে ছুটে আসেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।
টেকনাফে গ্রেপ্তারের পরদিন বন্দুকযুদ্ধে দুই যুবক নিহত
১৪ডিসেম্বর,শনিবার,টেকনাফ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে উপজেলায় গ্রেপ্তারের পরদিন পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন মো. আমিন প্রকাশ নুর হাফেজ (৩২) ও মো. সোহেল (২৭)। আজ শনিবার ভোরে উপজেলার হ্নীলা রাঙ্গিখালী গাজি পাড়ার পশ্চিম পাহাড়ের পাদদেশে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় ওই দুই যুবক নিহত এবং পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হন বলে জানিয়েছে পুলিশ। এর আগে গতকাল শুক্রবার ভোরে ৮ লাখ ইয়াবা ও ৬টি অস্ত্রসহ ওই দুই যুবকসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে Rab। টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ১৩ ডিসেম্বর ভোর রাতে Rab- 8 লাখ ইয়াবা, ৬টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী মো. আমিন প্রকাশ নুর হাফেজ (৩২) মো. সোহেল (২৭), সৈয়দ নুর (২৭), ও সৈয়দ আলম প্রকাশ কালু (৪৫)-এই চারজনকে গ্রেপ্তার করে থানায় হস্তান্তর করে। পরে তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, তাদের কাছে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও অস্ত্র সংরক্ষিত আছে। পরে আজ শনিবার ভোরে পুলিশের একটি দল তাদের নিয়ে হ্নীলা রাঙ্গিখালী গাজী পাড়ার পশ্চিম পাহাড়ের পাদদেশে অভিযানে যায়। সেখানে নুর হাফেজ ও সোহেলের লোকজন পুলিশের কাছ থেকে আসামিদের ছিনিয়ে নিতে গুলি ছুঁড়লে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও গুলি চালায়। এ সময় নুর হাফেজ ও সোহেল গুলিবিদ্ধ হয়। এ ছাড়াও পুলিশের পাঁচ সদস্যও আহত হয়। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নুর হাফেজ ও সোহেলকে উদ্ধার করে প্রথমে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে ৬টি দেশীয় অস্ত্র, ৯৫ হাজার পিস ইয়াবা, ১৮ রাউন্ড কার্তুজ ও ১৮টি কার্তুজের খোসা পাওয়া গেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে রয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
রাজশাহীতে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহীর মৃত্যু
১২ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,রাজশাহী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজশাহীতে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ কাটাখালীর বাংলাট্রাক এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।পরে আহতদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসক সালেহ মাহমুদ রাজি। তিনি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয়েছে। নিহত একজনের নাম পাপুল সে নাটোর বাগাতিপাড়া এলাকার আব্দুল ওহাব ছেলে আর একজনের নাম আব্দুল হাদি।তিনি নাটোরের একই এলাকার কালুর ছেলে। নিহতদের লাশ মর্গে রাখা হয়েছে। কাটাখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আহতদের উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ফেসবুকের মাধ্যমে হারানো মেয়ের খোঁজ পেলেন মা
১০ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেসবুকের কল্যাণে হারানো মেয়ে আরিশাকে খুঁজে পেলেন মা হাসিনা বেগম। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার সীতাকুণ্ডের সলিমপুর এলাকায়। মা হাসিনা আক্তার ঘর থেকে বের হয়ে রেললাইনের পাশে একটি ক্ষেতে ছাগল নিয়ে যান। সঙ্গে যায় মেয়ে আরিশাও। মা মেয়েকে বসিয়ে ঘরে যান। ফিরে এসে দেখেন মেয়ে নেই। মা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা বিভিন্ন দিকে খুঁজতে থাকেন মেয়েকে। কোনও জায়গায় খুঁজে না পেয়ে মা ও পরিবারের সদস্যরা কান্নাকাটি করতে থাকেন। তখন তারা পাশে ফৌজদার পুলিশ ফাঁড়িতে আশ্রয় নেন। পুলিশও শিশু আরিশাকে খুঁজতে থাকেন। বেলা তখন তিনটা। পাশের বাড়ির এক লোক এসে শিশু আরিশার মাকে বলেন আরিশার ছবি ফেইসবুকে দেখা গেছে। তখন তারা দ্রুত ফেসবুকে ছবি পোস্টকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ছবি পোস্টকারী জুয়েল বলেন, রেল লাইনের পাশে একটি মেয়েকে বসে কাঁদতে দেখে তিনি মেয়েটির কাছে যান। তখন সঙ্গে সঙ্গে তিনি মেয়েটির একটি ছবি ফেইসবুকে পোস্ট দেন। পোস্ট দেওয়ার প্রায় পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা পর এক লোক আমার সঙ্গে ফেইসবুকে যোগাযোগ করেন। পরে স্থানীয় মেম্বার ও ফৌজদার হাট পুলিশের উপস্থিতে শিশু আরিশাকে তার মায়ের কাছে তুলে দেওয়া হয়। শিশু আরিশার মা হাসিনা বেগম বলেন, যখন আরিশাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না, তখন আমার কাছে মনে হয়েছিল আরিশাকে কেউ না কেউ তুলে নিয়ে গেছে। মেয়েকে পেয়ে তিনি ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া জুয়েলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

সারা দেশ পাতার আরো খবর