কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত
অনলাইন ডেস্ক: খুলনার দৌলতপুরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে আজ বুধবার সকালে র‍্যাবের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম ইমরান। তিনি মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। র‍্যাবের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) বজলুর রশিদ জানান, গতকাল রাত দেড়টার দিকে দৌলতপুর এলাকায় টহল দেওয়ার সময় র‍্যাব সদস্যরা তিন মোটরসাইকেল আরোহীকে থামার নির্দেশ দেন। তাঁরা নির্দেশ অমান্য করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। র‍্যাব তাদের পিছু নেয়। এ সময় র‍্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ইমরান গুলিবিদ্ধ হয়। বাকি দুজন পালিয়ে যায় বলে দাবি করেন র‍্যাব কর্মকর্তা। তিনি আরো বলেন, গুলিবিদ্ধ যুবককে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এএসপি বজলুর রশিদ আরো দাবি করেন, ইমরানের কাছ থেকে একটি রিভলবার, একটি গুলি ও ৩০৮টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
বন্দুকযুদ্ধে ৮ মামলার আসামি নিহত
অনলাইন ডেস্ক: রাজশাহীর পবায় কসবা এলাকায় র&যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সাজ্জাদ হোসেন (৩৫) নামে আট মামলার এক আসামি নিহত হয়েছেন। র&যাবের দাবি, নিহত সাজ্জাদ মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে মাদক ও ডাকাতিসহ আটটি মামলা রয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে পবার কসবা এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত সাজ্জাদ হরিপুর বনপাড়া গ্রামের সইম উদ্দিনের ছেলে। বুধবার সকালে র&যাব-৫, রাজশাহীর এক খুদেবার্তায় (এসএমএস) জানানো হয়, মঙ্গলবার রাতে নগরীর অদূরে পবার দামকুড়া এলাকায় কয়েকজন মাদক বিক্রেতা মাদক কেনাবেচা করবে এমন গোপন খবর পেয়ে র&যাব-৫ এর সদস্যরা সেখানে অভিযানে যান। এ সময় র&যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা হামলা করে। পাল্টা র&যাবও গুলি ছোড়ে। উভয়পক্ষের মধ্যে কিছুক্ষণ গুলিবিনিময়ের পর ঘটনাস্থলে এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে ওই ব্যক্তিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) নেয়া হলে চিকিসৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এর পর খোঁজ নিয়ে নিহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় নিশ্চিত হয় র&যাব। নিহত সাজ্জাদের নামে বিভিন্ন থানায় মাদক ও ডাকাতিসহ আটটি মামলা রয়েছে বলে জানায় র&যাব।
কক্সবাজারে পাহাড়ধসে শিশু সহ নিহত ৫
অনলাইন ডেস্ক: পৃথক দুটি পাহাড়ধসে কক্সবাজারে একই পরিবারের ৪ শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে কক্সবাজার শহরে ও রামুর পানেরছড়ায় এই পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো— দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকায় জামাল হোসেনের চার সন্তান আবদুল হাই (৮), খাইরুল (৬), পাপিয়া (১০) ও মর্জিয়া (১৪) এবং রামু উপজেলার মোর্শেদ আলম (৬)। কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অফরুজুল হক টুটুল জানান, ভোরে শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকায় জামাল হোসেনের বাড়ির পাশে পাহাড় তার ঘরের উপর ধসে পড়ে। এতে জামাল হোসেনের ৪ সন্তান মাটি চাপা পড়ে। তিনি জানান, স্থানীয়রা মাটির নিচ থেকে ৪ শিশুকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাদের মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, রামু উপজেলার পানেরছড়া এলাকায় পাহাড়ধসে মোর্শেদ আলম নামের ৬ বছরের এক শিশু মারা গেছে।
পরশুরামে মাদকবিক্রেতাকে ২ বছরের কারাদণ্ড
অনলাইন ডেস্ক: ফেনীর পরশুরাম উপজেলার বিলোনিয়া সীমান্ত এলাকায় রোববার ভোরে তালিকাভুক্ত মাদক বিক্রেতাদের আস্তানায় জেলা প্রশাসনের মাদক বিরোধী টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানের নেতৃত্ব দেন ফেনী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা। মাদকবিরোধী টাস্কফোর্স সূত্র জানায়, পরশুরামের উত্তর বাউরখুমার (বিলোনিয়া) চোরাকারবারির গোপন তালিকায় থাকা মো. মনিরের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় ৪শ গ্রাম গাঁজা।অভিযানের খবর পেয়ে পালিয়ে যান মো. মনির। তার বিরুদ্ধে পলাতক মামলা দায়েরের নির্দেশ দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়া অভিযান পরিচালনা করা হয় উত্তর বাউরখুমা গ্রামের ইয়াবা বিক্রেতা আব্দুল মান্নানের (৪৫) বাড়িতে। এ সময় দশ পিস ইয়াবাসহ আব্দুল মান্নানকে হাতেনাতে আটক করা হয়। আদালত আব্দুল মান্নানকে ২ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে। আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ৫টি মাদকের মামলা রয়েছে। পরিবর্তন ডটকম টাস্কফোর্স টিম হানা দেয় বিলোনিয়া সীমান্তবর্তী তালুক পাড়ার মাদক স্পটগুলোতে। এছাড়াও উত্তর বাউরখুমার তালিকাভুক্ত ইয়াবাবিক্রেতা দেলোয়ার হোসেনের আস্তানা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী শাহ আলম ছুট্টু ও আব্দুল জলিলের বাড়িতে। অভিযানের খবর পেয়ে তারা পালিয়ে যায়। অভিযানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিদর্শক মো. টিপু সুলতান ও জেলা পুলিশ ও ব্যাটালিয়ান আনসারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। ফেনী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা অভিযানের তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, মাদক নির্মূলে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্স এর অভিযান অব্যাহত থাকবে।
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুকুরের পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
অনলাইন ডেস্ক: চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুকুরের পানিতে ডুবে আকিব পাটওয়ারী (৪) ও তানিশা আক্তার (৫) নামে মামাত-ফুফাত ভাইবোন মারা গেছে। রোববার দুপুর ১২টায় হাজীগঞ্জ উপজেলার বাড্ডা পাটওয়ারী বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আকিব ওই বাড়ীর মো. বরকত পাটওয়ারীর ছেলে এবং তানিশা আকিবের ফুফাত বোন, তার পিতার নাম দিদার আলম পাটওয়ারী। পারিবারিকভাবে জানা যায়, গত সোমবারে নিজ বাড়ী কচুয়া উপজেলার হাসিমপুর গ্রাম থেকে তানিশা মায়ের সাথে নানার বাড়ীতে বেড়াতে আসে। সকাল সাড়ে ১১টায় দিকে দুই শিশু বাড়ীর আঙিনায় খেলা করছিলো। এসময় সবার অগোচরে তারা বাড়ির পুকুরে পড়ে যায়। অনেক খোঁজখুঁজির পর বাড়ির পুকুর থেকে তাদের উদ্ধার করে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুলতানা রাজিয়া উভয় শিশুই মৃত বলে জানান। এ ঘটনায় পুরো এলাকা শোকের ছায়া নেমে আসে। পানিতে ডুবে দুই শিশু নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান মীর।
রাতভর পুকুর সেচে মিলল ২টি এলজি
অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রামে রাতভর পুকুর সেচে ২টি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ পেয়েছে চট্টগ্রাম মহানগরের ডবলমুরিং থানা পুলিশ। শনিবার বিকেল চারটা থেকে তিনটি সেচ পাম্পের মাধ্যমে পুকুরের পানি অপসারণ করা হয়। এরপর রোববার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে এসব অস্ত্র উদ্ধারের কথা জানায় পুলিশ। এর আগে শুক্রবার দিনগত রাতে নগরীর ডবলমুরিং থানার পুলিশ ধনিয়ালাপাড়ার ছোট মসজিদের পেছনের পুকুরপাড় থেকে ধারালো অস্ত্রসহ ১৮ জনকে আটক করে। ওই সময় তারা কিছু অস্ত্র পুকুরে ফেলে দিয়েছে— এমন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার বিকেল থেকে পুকুরের পানি অপসারণ শুরু হয়। সিএমপি ডবলমুরিং জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আশেকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, রাত তিনটার দিকে পুকুরের পানি অপসারণের পর ২টি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ পাওয়া গেছে। সূ:পরিবর্তন ডট কম
ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক টেকনাফে
অনলাইন ডেস্ক: টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে ক্রেতা সেজে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ একজন রোহিঙ্গা নারীকে আটক করেছে টেকনাফ মডেল থানার পুলিশ। আটক সেতারা বেগম (২৭) টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের বি ব্লকের ১০০৬২ নম্বর শেডের ২ নম্বর কক্ষের বাসিন্দা আরিফ উল্লাহর স্ত্রী। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবির থেকে তাকে আটক করা হয়। টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রনজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, গতকাল শনিবার বিকেলে থানা পুলিশের একটি দল ক্রেতা সেজে অভিযান চালায়। এ সময় ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ সেতারা বেগমকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।
২৫ কেজি গাঁজাসহ লালমনিরহাটে মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
অনলাইন ডেস্ক: লালমনিরহাটে ২৫ কেজি ভারতীয় গাঁজাসহ রবিউল ইসলাম (৪০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোর রাতে জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার সিঙ্গিমারী গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আটক রবিউল ইসলাম বগুড়া সদর উপজেলার ধাওয়া ফিকশন সোনারপাড়া এলাকার মোস্তফা মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে। হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশের একটি দল। এ সময় ২৫ কেজি ভারতীয় গাঁজাসহ রবিউল ইসলাম (৪০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার দেয়া তথ্য মতে, আরো মাদক উদ্ধার করতে গেলে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপর হামলা চালায়। ওসি দাবি করেন, এ সময় মাদক ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টার করলে পুলিশ তার দুই পায়ে গুলি করেন। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় রফিকুল ইসলাম নামে এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। পরে মাদক ব্যবসায়ী রবিউল ও পুলিশ সদস্য রফিকুলকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে জানান ওসি ওমর ফারুক। আলোকিত বাংলাদেশ
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ নরসিংদীতে
অনলাইন ডেস্ক: যাত্রীবাহী বাস ও লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে নরসিংদীতে নারী ও শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো ১০ জন। শুক্রবার রাত ৯টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শিবপুর উপজেলার কোন্দারপাড়া বাসস্ট্যান্ডের অদূরে খড়কমারা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার রামনগর এলাকার মোজাম্মেল হোসেনের স্ত্রী শরিফা বেগম (৪৫), মেয়ে জান্নাত (১৮), শিশু বায়েজিদ (৭), হাসিনা (৩৫) অজ্ঞাত পুরুষ (২০)। নিহতরা সবাই রামনগর এলাকার বাসিন্দা। আহতরা হলেন- রাশিদা বেগম (৩৫), আসাদ মিয়া (৪০) জাকিয়া আক্তারসহ (৩০) অজ্ঞাত আরো সাতজন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত ৯টায় রায়পুরা উপজেলার রামনগর এলাকার শিশু, নারী-পুরুষের প্রায় ৭০/৮০ জনের একটি দল শুক্রবার নরসিংদীর পাঁচদোনার ড্রিম হলিডে পার্কে আনন্দ ভ্রমণ শেষে রাতে ফেরার পথে তাদের বহনকারী একটি লেগুনা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কোন্দারপাড়া বাসস্ট্যান্ডের অদূরে খড়কমারা এলাকায় পৌঁছালে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী এনা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন এবং নরসিংদী জেলা হাসপাতালে গুরুতর আহত অবস্থায় নেওয়ার পথে আরো তিনজন মারা যান। নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম ভূইয়া বলেন, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে দুর্ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসি। দুর্ঘটনায় মোট পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন প্রায় ১০ জন। আহতদের মধ্যেও কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এর মধ্যে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঁচজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। নরসিংদী জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) এম এন মিজানুর রহমান বলেন, আমাদের জেলা হাসপাতালে মোট ১২ জনকে আনা হয়েছে। এর মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। আর ছয়জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিউর রহমান বলেন, যাত্রীবাহী বাস ও লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী ও শিশুসহ পাঁচজন নিহত হন। তারা সবাই রামনগর এলাকার বাসিন্দা, সেটা নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সারা দেশ পাতার আরো খবর