রবিবার, জুলাই ১৫, ২০১৮
আমরা চাগাঁবাসীর উদ্যোগে মহিউদ্দিন চৌধুরী শীর্ষক স্মরণ সভা ও ইফতার মাহফিল
পবিত্র মাহে রমজানে বান্দা এক মাস সিয়াম সাধনার মাধ্যমে সংযমের প্রশিক্ষণ নেয়। রোজার মাধ্যমে মানুষের মাঝে সহমর্মিতার চর্চা হয়। পবিত্র রমজান সহমর্মিতার মাস। এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, ধৈর্য্য, সহনশীলতা, তাকওয়া অর্জনই সিয়াম সাধনার মূল উদ্দেশ্য আজ ১ জুন আমরা চাঁটগাবাসীর মহিউদ্দিনের স্মরণ সভা ও ইফতার মাহফিলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী এ কথা বলেন। তিনি বলেন, রোজার বড় একটি উদ্দেশ্য আছে। আর তাহলো মানব জাতিকে সহানুভূতি-সহমর্মিতার অনুপম শিক্ষা প্রদান করা। ইসলামে সাম্য-মৈত্রীর যে নান্দনিক দর্শন রয়েছে, তা সিয়াম সাধনার মাধ্যমেই মূলত এর বাস্তবায়ন হয়ে থাকে। পবিত্র রমজান যেমন বান্দার প্রতি মহান আল্লাহর রহমত বা দয়াকে আকর্ষণ করে, ঠিক তেমনিভাবে এক বান্দার প্রতি অপর বান্দার, এক মানুষের প্রতি অপর মানুষের অন্তরে মমত্ব, সহানুভূতি, দয়া, ভালোবাসার উপলক্ষ সৃষ্টি করে। সংযম সাধনার এ মাসে ক্ষুধা ও পিপাসার প্রকৃত অনুভূতির মাধ্যমে বিত্তবান-সচ্ছল রোজাদারগণ, দরিদ্র ও অভাবী মানুষের না খেয়ে থাকার কষ্ট বুঝতে সক্ষম হয়। এ উপলদ্ধির জন্যই বিত্তশালী ব্যক্তি সহানুভূতি ও সহমর্মিতা নিয়ে অন্যের পাশে দাঁড়ানোর স্বতঃস্ফুর্ত প্রেরণা বোধ করেন। আমরা চাটগাঁবাসীর সভাপতি আসিফ সিরাজের সভাপতিত্বে ও এবি এম ইমরান সাধারণ সম্পাদকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্বপ্ন ডিঙ্গা মাঝি চট্টলবীর মহিউদ্দিন চৌধুরী শীর্ষক স্মরণ সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও আলহাজ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাানবাধিকার কর্মী ও কবি মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ-সাধারণ সম্পাদক মীর মো: তারিকুল আযম, সালেহ আহমদ সুলেমান, কবি তালুকদার হালিম, দিদারুল আলম সুমন, এ্যাডভোকেট মাসুদ আলম বাবলু, ক্লাব সভাপতি মফিজুর রহমান, এ্যাডভোকেট আবুল হসেম নিজামী, এ্যাডভোকেট আকিব চৌধুরী, রেজাউল করিম, জাহাঙ্গীর সেলিম, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল বাতেন, এম বকতিয়ার উদ্দিন, হুসাইনুর রশিদ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চান্দগাঁও আবাসিকে মতবিনিময়কালে আব্দুচ ছালাম, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে বিশ্বমানের শহরে পরি
চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেছেন, চট্টগ্রামের উন্নয়নে পরিকল্পনা ও উন্নয়নের অবকাটামোগত কাজও শেষ। বেশ কিছু উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে। যে সব উন্নয়ন কার্যক্রম চলছে তা শেষ হলেই চট্টগ্রাম হবে বিশ্বমানের শহর। এ শহরকে বিশ্বমানের শহরে পরিণত করতে হলে নগরবাসীর সার্বিক সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন। তিনি বলেন, যানজটমুক্ত নগরী, উন্নত যাতায়াত ব্যবস্থা প্রায় শেষের পথে কয়েকটি সড়কের কাজ শেষ হলেই এই শহর হবে আর্ন্তজাতিক মানের। তিনি বলেন জলাবদ্ধতামুক্ত নগরী হিসেবে এ শহরকে গড়ে তোলতে প্রধানমন্ত্রীসহ সবাই আন্তরিক। যে প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী দিয়েছে তার কাজ শুরু হয়েছে এই কাজ শেষ হলে চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা বলতে কিছুই থাকবে না। তিনি এ ব্যাপারে প্রতিটি এলাকার মানুষের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। অদ্য ০১ জুন শুক্রবার বিকাল ৫টায় চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতির সাথে জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, নালানর্দমা ও রাস্তাঘাট পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা সম্পর্কে মতবিনিয়ম সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যান সমিতির সভাপতি হাসান মাহমুদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সিডিএর বোডর্ মেম্বার জসিম উদ্দিন শাহ, জলাবদ্ধতা নিরসন মেগা প্রকল্পের পরিচালক মইন উদ্দিন, স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল। উপস্থিত ছিলেন চান্দগাঁও এ ব্লক জামে মসজিদের সভাপতি নুরুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, চুয়েটের সাবেক ভিসি প্রকৌশলী অধ্যাপক মোজাম্মেল হক, সমিতির সহসভাপতি ইউসুফ সিকদার, আহসানুল করীম, ইঞ্জিনিয়ার ইসমাইলসহ এলাকার মান্যগুণ্য ব্যক্তিবর্গ। সভাপতির বক্তব্যে হাসান মাহমুদ চৌধুরী বলেন চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে আমাদের উন্নয়ন। দেশের উন্নয়ন। এ শহর যত উন্নত হবে দেশ ও জনগণ ততই উপকৃত হবে। তিনি চট্টগ্রামের উন্নয়নে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন এবং আবাসিক এলাকা জলাবদ্ধতা মুক্ত করতে সিডিএ চেয়ারম্যানের কার্যকরী পদক্ষেপ কামনা করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সাতকানিয়া মাদার্শায় পাঁচ হাজার দুঃস্থ ও অসহায় দরিদ্রের মাঝে ইফতার সামগ্রী ও ঈদ উপহার বিতরন
গত ৩১মে ২০১৮ ইং বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় সাতকানিয়া নিজ গ্রাম বাবুনগর মক্কার বাড়িতে মাদার্শা ইউনিয়নের প্রায় পাঁচ হাজার দুঃস্থ অসহায় ও হত দরিদ্রদের মাঝে ইফতার সামগ্রী, ঈদ বস্ত্র ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন, চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনের সাংসদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী। এসময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য মিসেস রিজিয়া রেজা চৌধুরী, সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্ত মোবারক হোসেন,লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু আসলাম,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাতকানিয়া সার্কেল) হাসানুজ্জামান মোল্যা,সাতকানিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল হোসেন,লোহাগাড়া থানা ভারপ্রাপ্ত সাইফুল ইসলাম, মাদার্শা ইউপি চেয়ারম্যান আ.ন.ম সেলিম, এওচিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক, সাতকানিয়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান নেজাম উদ্দিন,লোহাগাড়া কলাউজান ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াহেদ, আমিলাইষ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এইচ এম হানিফ, আমিরাবাদ ইউপি'র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ, থানা আওয়ামীলীগের সদস্য মোহাম্মদ জোবায়র,কায়েস চৌধুরী,সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাইদুর রহমান দুলাল,যুগ্ম আহবায়ক হারেজ মোহাম্মদ,যুবলীগ নেতা দিদারুল ইসলাম শিপন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মোহাম্মদ জোনায়েদ,স্থানীয় সাংসদের সহকারী একান্ত সচিব এস এম সাহেদ,সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল মান্নান,মাদার্শা ইউপি সদস্যবৃন্দ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পটিয়ায় ২শ পরিবারকে বিজিএমইএ নাছিরের ইফতার বিতরণ
বাংলাদেশ পোষাক প্রস্তুত ও রপ্তানীকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ নাছিরের ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে ২&শ পরিবারকে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছেন। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় পৌর সদরের রয়েল কমিউনিটি সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে পটিয়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের মাধ্যমে এই ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন। উপজেলা মহিলা আলীগ সভাপতি নুর নাহার করিমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাজেদা বেগমের পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত এক আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, উপজেলা আলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম মাস্টার, জয়নাল আবেদীন, আশীষ তালুকদার, মাঈনুদ্দিন চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মহিউদ্দিন মহি, ছাত্রনেতা মো. নাজিম উদ্দিন, যুবলীগ নেতা মহিউদ্দিন হিরু, আবু তাহের, পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আমিনুল ইসলাম লিটন, কেলিশহর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার প্রতীমা দে, মহিলানেত্রী হাসিনা বেগম, রোকেয়া বেগম, সখিনা বেগম, ছাত্রনেতা ফজলুল কাদের সাজ্জাদ, আনিসুর রহমান আনিস, মো. আরমান, ওয়াসিল সাকিব প্রমুখ। পরে উপজেলা ও পৌর সদরের দরিদ্র ২শ পরিবারকে ইফতার সামগ্রী প্রদান করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সিটিজি ক্রাইম টিভির আয়োজনে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত
নগরীর অক্সিজেনস্থ হোটেল জামানে জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল সিটিজি ক্রাইম টিভির উদ্যোগে এক ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয় ।দিলরুবা খানম এর সঞ্চালনায় সিটিজি ক্রাইম টিভির উপদেষ্টা আলহাজ্ব আবদুল নবী লেদুর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত হয় । প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জুনিয়র চেম্বার এর প্রতিষ্ঠাতা ও চট্টগ্রাম খুলশি ক্লাব এর প্রতিষ্টাতা সভাপতি নিয়াজ মোর্শেদ এলিট । উদ্ধোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট নারী নেত্রী ও জেলা পরিষদ সদস্য শাহিদা আকতার জাহান । উদ্ধোধনি বক্তব্য রাখেন টিভির চেয়ারম্যান আজগর আলি মানিক , স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক রতন বড়ুয়া । প্রধান আলোচক ছিলেন এ্যাডভোকেট আবু নাছের তালুকদার , ভাইস চেয়ারম্যান ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ , বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা সিটিজি ক্রাইম টিভির উপদেষ্টা জনাব রহিম শাহ -উপদেষ্টা সিটিজি ক্রাইম টিভি ,সিটিজি সোলাইমান খান নয়ন , , ইসলামি ছাত্রসেনা উত্তর জেলার সভাপতি খন্দকার মোহাম্মদ জামাল ইদ্রিস প্রমুখ । উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ডালিম নাথ , রিপোটার রেজাউল হাসান কায়সার , সাংবাদিক নিজাম, মোহাম্মদ রাশেদ, সাংবাদিক ত্রিপন জয় ত্রিপুরা,টিভির ভাইস চেয়ারম্যান বিবি মরিয়ম, সংবাদ পাঠিকা শারমিন শান্তা সহ বিভিন্ন উপজেলার কর্মরত সাংবাদিক বৃন্দ ।দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন অধ্যক্ষ মৌলানা মোরশেদ রেজা আলকাদেরী । ধন্যবাদ প্রদান করেন সাংবাদিক লোকমান আনছাড়ি ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বন্দুকযুদ্ধে নিহত তিন
আইন শৃংখলা বাহিনীর সাথে বন্দুক যুদ্ধে রাজশাহী ও গাজীপুরে তিনজন নিহত হয়েছে। গতকাল বৃহষ্পতি বার দিবাগত রাতে এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর কর্ণহার থানার করমজা এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুজন নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। র‍্যাবের ভাষ্য, নিহতরা মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনাস্থল থেকে বিপুল পরিমাণে মাদক, পিস্তল ও গুলি জব্দ করা হয়েছে। রাজশাহী র‌্যাব-৫ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর আশরাফুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদে রাত সোয়া ১১টার দিকে রাজশাহী র‌্যাবের একটি দল কর্ণহার থানার করমজা এলাকার একটি আম বাগানে অভিযান চালায়। ওই সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একদল মাদক ব্যবসায়ী র‌্যাবের ওপর গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। পরে অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলেও গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুজনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ হাসপাতাল মর্গে নেয়া হয়েছে। এছাড়া নিহতদের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। র‍্যাবের ওই কর্মকর্তা বলেন, ঘটনাস্থল থেকে বিপুল পরিমাণে গাঁজা, পিস্তল ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। অপরদিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভাদুন এলাকায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। তার নাম কামরুল ইসলাম কামুর। কামরুল টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার বাসিন্দা। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। গাজীপুর গোয়েন্দা পুলিশ পরিদর্শক ডেরিক স্টিফেন কুইয়া জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে পুলিশের একটি দল ভাদুন এলাকায় মাদক উদ্ধারের অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক কারবারিরা গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে কামরুলকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত কামুর বিরুদ্ধে হত্যা ও মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধে ১৫টি মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।
হাটহাজারী ছাত্র সমিতির অনুষ্ঠানে এম এ সালাম, মাদকমুক্ত সমাজই হোক তারুণ্যের অঙ্গীকার
মাদক একটি মারাত্মক ব্যাধি। পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রকে মাদকের ভয়াবহ থাবা থেকে সুরক্ষায় তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদর চেয়ারম্যান এম এ সালাম। চট্টগ্রামস্থ হাটহাজারী ছাত্র সমিতির উদ্যোগে গত ২৯ মে, ২০১৮ নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে তারুণ্যের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত মন্তব্য করেন এম এ সালাম। সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক সদস্য এড. মোস্তফা আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাটহাজারী ছাত্র সমিতির সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী পেয়ারু। সংগঠক রিয়াজ রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি)র কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ মোঃ জুলকরনাইন, চট্টগ্রাম প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংগঠনের সভাপতি এমএ সবুর, হাটহাজারী উন্নয়ন ফোরামর সভাপতি এড.মাসুদ আলম (বাবলু), চট্টগ্রাম উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. বাসন্তি কুমার পালিত, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, চট্টগ্রাম মহানগরর সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন চৌধুরী, লায়ন্স ক্লাব অব ইন্টারন্যাশনাল ৩১৫ বি ফোরর ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারী লায়ন এম এ হোসেন বাদল, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজির চেয়ারম্যান আহসান হাবীব, তরুণ সংগঠক নোমান উল্লাহ বাহার, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শেখ ওয়ালিদ হাসান, ব্যাংকার নাজনিন নাহিয়ানা চৌধুরী, হাটহাজারী উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এসএম নোমান, হাটহাজারী উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শেখ গোলাম মোস্তফা, বিএমএ-চট্টগ্রামের কাউন্সিলর ডা. তৌফিক চৌধুরী প্রমুখ। চট্টগ্রাম জেলা পরিষদর চেয়ারম্যান এম এ সালাম বলেন, মাদকাসক্তি হচ্ছে একটি অভ্যাসগত রোগ। এটি নির্মূলের জন্য যুব সমাজের সিদ্ধান্তই যথেষ্ঠ। যুব সমাজের একটি দৃপ্ত শপথই পারে তাদেরকে মাদকের অন্ধকার থেকে আলোর পথে ফেরাতে। মাদকাসক্ত হয়ে পৃথিবীতে কেউ কিছুই করতে পারেনি, নিজের ধ্বংস ছাড়া। তাই মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে সামাজিক আন্দোলন জরুরী। মাদকমুক্ত সমাজই হোক তারুণ্যের অঙ্গীকার। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রলীগের পাঠাগার সম্পাদক-মুনতাসির ফারুক সিমন, পরিবর্তন চট্টগ্রামর সাধারণ সম্পাদক এহসান আল কুতুবি, কালের কন্ঠ শুভসংঘ, চট্টগ্রাম মহানগরর সাধারণ সম্পাদক এবিএম ইকবাল হায়দার, মোঃ শাহাদাত হোসেন, মোঃ রিয়াদ, ওয়াজেদ উল আলম, নুরুল আজিম জুয়েল, মোঃ ওসমান, মোঃ আসিফ, মোঃ আরিফ, শাহনেওয়াজ জিসান, মোঃ ইতিয়াজ, মোঃ ওজায়ের উল্লাহ, রাকিবুর রায়হান চৌধুরী, সৈয়দ ইয়াছির সামিত প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম রিসাইক্লিং প্লাষ্টিক ব্যবসায়ী সমিতির ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত
চট্টগ্রাম রিসাইক্লিং প্লাষ্টিক ব্যবসায়ী সমিতির আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল গত ৩১ মে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ ঘটিকায় সিরাউজদ্দৌল্লা রোডস্থ প্যারাগন সিটি হলে মুহাম্মদ শহীদুল ইসলাম (শহীদ) ও হাজী মোঃ ইউনুছ এর সঞ্চালনায়, সমিতির সভাপতি হাজী জাফর আহমদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (যুগ্মসচিব) মোহাম্মদ আজাদুর রহমান মল্লিক, প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর প্যানেল মেয়র ও চট্টগ্রাম রিসাইক্লিং প্লাষ্টিক ব্যবসায়ী সমিতির প্রধান উপদেষ্টা চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোঃ আজিজুল হক, দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ, মকসুদুর রহমান, জালাল আহমদ, মোঃ সোলায়মান, বশির আহমদ, মোঃ দেলোয়ার হোসেন, আলহাজ্ব বেলাল উদ্দিন, মোঃ আবদুল করিম, মোঃ আবু তালেব, মোঃ গিয়াস উদ্দিন, মোঃ নোমান, মোঃ মহসিন, মোঃ নুরুল ইসলাম, মোঃ মুকতুল হোসেন প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি মোহাম্মদ আজাদুর রহমান মল্লিক তার বক্তব্যে প্রচলিত আইন মেনে বৈধতার সাথে ব্যবসা করলে সবধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে রিসাইক্লিং প্লাষ্টিক ব্যবসায়ীদের আশ্বাস প্রদান করেন। সভার সভাপতি পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মহোদয়কে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
নিখোঁজ সন্তান উদ্ধারের নিমিত্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানী ২য় বর্ষের মেধাবী ছাত্র নিখোঁজ সীমান্ত শীলেরকে উদ্ধারের নিমিত্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনায় গতকাল ৩১ মে দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে তাঁর পরিবার এক সংবাদ সম্মেলন করে। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিখোঁজ সীমান্ত শীলের ছোট বোন লিজা শীল। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিখোঁজ সীমান্ত শীলের বাবা প্রদীপ শীল, কাকা সুজিত শীল, নন্দন শীল, বিকাশ ধর, শুভ মুহুরী, মামুন, ধ্রুব, হৃদয় দাশ, অনিক অধিকারী, নিলয় চৌধুরী, অমিত দাশ প্রমুখ। লিখিত বক্তব্যে পিতার পক্ষে মেয়ে লিজা শীল বলেন আমি প্রদীপ শীল (৫০) পিতা মৃত বানেশ্বর শীল, সাং- কোকদন্ডী, ডাকঘর- গুনাগুরি, থানা- বাঁশখালী, জেলা- চট্টগ্রাম বর্তমানে শেভরন, চান্দগাঁও আবাসিক, ১১নং রোগ, থানাথ চান্দগাঁও, জেলা- চট্টগ্রাম এ মর্মে লিখিত বক্তব্য পাঠ করতেছি যে, আমি একজন সাধারণ সেলুন দোকানদার। সেলুনের কাজ করিয়া জীবিকা নির্বাহ করি। আমার ২ মেয়ে এক ছেলে। আমার ছেলে সীমান্ত শীল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানী বিভাগের ২য় বর্ষে অধ্যয়নরত ছিল। পারিবারিক অনেক টানপোড়নের মধ্যেও আমি অনেক দুঃখে কষ্টে ছেলেকে এতদুর পর্যন্ত এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলাম। তারই ধারাবাহিকতায় আমার ছেলে বাকলিয়া ধানাধীন বি.এড কলেজের পাশে নবী ভিলা নামক স্থানে অন্যান্য ছাত্রদের সহিত ব্যাচেলর হিসেবে ভাড়া বাসায় থাকতো। গত ১৫/১২/২০১৭ ইং তারিখ সকাল আনুমানিক ১০:৩০ ঘটিকার সময় বাজারের উদ্দেশ্যে নবী ভিলা হইতে বাহির হইয়া আপর ফিরিয়া আসে নাই। আমি খবর পাইয়া সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করিয়া আমার ছেলের সন্ধান না পাইলে বিগত ১৬/১২/২০১৭ইং বাকলিয়া থানা জিডি নং ৮৮৫ রুজু করি এবং সাথে সাথে দৈনিক পুর্বদেশ পত্রিকায় নিখোঁজ ছেলের ছবিসহ ১৮/১২/২০১৭ইং তারিখ নিখোঁজ সংবাদ ছাপানোর ব্যবস্থা করি। তারপরও আমি আমার আতœীয়স্বজন বন্ধু-বান্ধব, আমার ছেলের বন্ধু-বান্ধব সবার কাছে খোঁজ নিতে থাকি এবং আমার পরিবার উদ্বেগ, উৎকন্ঠায় ছেলের সন্ধানে অস্থির হইয়া উঠি। এমন সময় আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী শেলী শীলের আচার আচারণে সন্দেহ হইলে তার কথিত ভাইপো কাজল শীলসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে বিগত ১০/০৫/২০১৮ ইং মাননীয় মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে সি.আর.মামলা নং- ১৫৩/১৮ মামলা রুজু করি। কারণ তাদের কথাবার্তা, তাদের আলাপ চারিতায় আমার মনে হয়েছে তারা আমার ছেলেকে গুম করিয়া হত্যা করিয়াছে। মামলাটি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পি.বি.আই) চট্টগ্রামকে তদন্তের জন্য আদেশ দিয়েছেন। তাই আমি চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের সমস্ত আইন- প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট আকুল আবেদন জানাচ্ছি আমার নিখোঁজ ছেলের ব্যাপারে সঠিক তথ্য উদঘাটন পুর্বক প্রকৃত রহস্য উৎঘাটন করার এবং আমি সাথে সাথে আমার ছেলে উদ্ধারের ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর