মঙ্গলবার, মার্চ ৯, ২০২১
ওসি প্রদীপসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা
০৬আগস্ট,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার প্রত্যাহারকৃত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। বুধবার রাতে কক্সবাজার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশেক ইলাহী শাহজাহান নূরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, টেকনাফের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহর দেওয়া আদেশের কপি, সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্টসসহ টেকনাফ মডেল থানায় প্রেরণ করা হয়। মোহাম্মদ ফারুক নামে আদালতের একজন বাহককে দিয়ে বুধবার রাত পৌনে ৯টার দিকে আদালতের পরোয়ানার আদেশসহ অন্যান্য কাগজপত্র টেকনাফ মডেল থানায় পৌঁছানো হয়। জানা গেছে, মেজর সিনহা হত্যার বিচার চেয়ে টেকনাফের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দায়ের করা মামলাটি আদালতের আদেশ মতে টেকনাফ মডেল থানায় বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নিয়মিত মামলা হিসেবে রুজু করা হয়। মামলাটি রুজু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মামলার এজাহারভুক্ত সব আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। পরোয়ানা জারি হওয়া আসামিরা হলেন- টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহার হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত পরিদর্শক লিয়াকত আলী, উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া, এসআই টুটুল, কনস্টেবল মো. মোস্তফা। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়া আসামিরা আগের কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহার হয়ে এখন পুলিশ লাইনে সংযুক্ত রয়েছেন। টেকনাফের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক তামান্না ফারাহর দেওয়া আদেশ অনুযায়ী নিয়মিত মামলা হিসেবে রুজু করায় মামলাটি এখন তদন্তের জন্য টেকনাফ মডেল থানা থেকে Rab-15 এর কাছে পাঠাতে হবে। Rab-15 মামলাটি তদন্ত করে সাত কর্মদিবসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবে। গত ৩১ জুলাই খুন হওয়া মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) রাশেদ খানের বড়বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে বুধবার সকালে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় মেজর সিনহার সঙ্গী ও ৩১ জুলাইয়ের ঘটনায় টেকনাফ পুলিশের দায়ের করা মামলার আসামি সাহেদুল ইসলাম সিফাতসহ ১০ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।
সুনামগঞ্জে সাংবাদিক আবেদ মাহমুদ স্মরণে প্রেস ক্লাবের শোকসভা
০৫আগস্ট,বুধবার,দিলাল আহমদ,সুনামগঞ্জ,নিউজ একাত্তর ডট কম: সদ্য প্রয়াত সাংবাদিক দৈনিক আজকের সুনামগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক এবং আর টিভির স্টাফ রিপোর্টার আবেদ মাহমুদ চৌধুরী স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (০৫ আগস্ট) রাতে শহরের শহীদ জগৎজ্যোতি পাঠাগার মিলনায়তনে এ শোকসভা হয়। সুনামগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরের সম্পাদক পঙ্কজ কান্তি দে'র সভাপতিত্বে ও যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান তারেক ও বিন্দু তালুকদারের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক একে এম মহিম। পরে আবেদ মাহমুদ চৌধুরী 'র বড় ভাই খালেদ মাহমুদ চৌধুরী'র কাছে প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে শোক বার্তা হস্তান্তর সহ -সভাপতি ও কালের কণ্ঠে'র জেলা প্রতিনিধি শামস শামীম ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান তারেক। পরে আবেদ মাহমুদকে নিয়ে স্মৃতিচারণ মূলক বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, কলামিস্ট অ্যাডভোকেট হোসেন তওফিক চৌধুরী, , দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ রেজা চৌধুরী, জগৎজ্যোতি পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সালেহ আহমদ, রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, সুনামগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি আইনুল ইসলাম বাবলু, আবেদ মাহমুদ চৌধুরী'র বড় ভাই খালেদ মাহমুদ চৌধুরী, এনাম আহমদ, খলিল রহমান, এমরানুল হক চৌধুরী, দেওয়ান গিয়াস চৌধুরী প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, আবেদ মাহমুদ চৌধুরী একজন ভাল সাংবাদিক ছিলেন। সব সময় সবার সাথে হাসি মুখে কথা বলতেন। তিনি শুধু সাংবাদিক ছিলেন না সমাজ সেবক হিসেবেও তার অনেক নাম ছিল। তিনি সর্বশেষ সুনামগঞ্জ শহরের বুলচান্দ হাই স্কুলের গর্ভনিংবডির সভাপতি ছিলেন। তিনি বিগত প্রায় ২৫ বছর যাবৎ সাংবাদিকতার সাথে জড়িত ছিলেন। কিন্তু তার অকাল প্রয়ানে সুনামগঞ্জের মিডিয়া অঙ্গনের অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেল। সকল বক্তারা এ সময় প্রতিশ্রুতি দেন প্রয়াত আবেদ মাহমুদের পরিবারের পাশে থাকার। উল্লেখ্য, গত ২২ জুলাই হৃদয় রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় মারা যান। তিনি সর্বশেষ সুনামগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।
শংখনদীর ভাঙ্গনে হুমকির মুখে ধোপাছড়ী
০৪আগস্ট,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের বিভিন্ন স্থানে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙ্গন। শংখনদীর ভাঙ্গনে হুমকির মুখে ধোপাছড়ী খালের শংখকূলের অংশ। এদিকে, শংখ নদীতে বিলীন হয়ে গেছে পানি উন্নয়নের শংখ নদী বাঁধ রক্ষার বাঁধ। অন্যদিকে, ভাঙ্গনের শিকার হয়েছে নদীর তীরবর্তী জনপদ। এছাড়া, ধোপাছড়ীর বিভিন্ন অংশ নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন স্থাপনা ও ফসলি জমি। ঝুঁকিতে রয়েছে স্কুল ভবন, কমিউনিটি ক্লিনিক ও বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। পানিতে তলিয়ে গেছে বসতভিটা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ফসলী জমি। পানি উন্নয়ন র্বোড বলছে, ভাঙ্গন রোধে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণের চিন্তা করা হচ্ছে। ধোপাছড়ীতে শংখনদীর ভাঙন তীব্র হয়ে ওঠেছে। প্রতিদিনই বিলীন হচ্ছে বসতবাড়ি, গাছপালা, ফসলি জমি।
কক্সবাজারে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহত: তদন্ত কমিটির কাজ শুরু
০৪আগস্ট,মঙ্গলবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে মেরিন ড্রাইভ রোডে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ নিহত হওয়ার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির কাজ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) সকালে তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মিজানুর রহমান কক্সবাজারে এসে পৌঁছলে বেলা ১১টার দিকে কক্সবাজার সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে তদন্ত কমিটির অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে এক সমন্বয় সভার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু হয়। মুঠোফোনে তদন্ত কমিটির প্রধান মিজানুর রহমান জানান, এই ঘটনার একটি নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছ তদন্ত করা হবে। তবে তিনি তদন্ত কমিটির কাজের বিস্তারিত জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করে পুনর্গঠিত এই তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। এই কমিটিতে রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কক্সবাজারের এরিয়া কমান্ডারের মনোনীত একজন প্রতিনিধি সদস্য হিসেবে রয়েছে। পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছে চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শকের মনোনীত অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ জাকির হোসেন। এর আগে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাং শাজাহান আলিকে এই তদন্ত কমিটিতে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছিল। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৩১ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।
শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে ধরলায় ঝাঁপ দিয়ে তরুণের আত্মহত্যা
০৩আগস্ট,সোমবার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদের দাওয়াত খেতে শ্বশুর বাড়ী যাওয়ার পথে স্ত্রীর সাথে অভিমান করে সেতুর ওপর থেকে ধরলা নদীতে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক তরুণ। রোববার দুপুরে এ ঘটনাটি ঘটে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় শেখ হাসিনা ধরলা সেতুতে। ওই তরুণের নাম জোবায়ের আলম জয় (২২)। তিনি ফুলবাড়ী আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও চন্দ্রখানা কলেজপাড়ার বসবাসকারী আমীর হোসেনের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলা হারাটি এলাকায় দুপুরে স্ত্রীসহ অটোবাইক যোগে শ্বশুড়বাড়ি যাচ্ছিলেন। অটোবাইকটি ধরলা সেতুর মধ্যবর্তী স্থানে পৌঁছিলে স্ত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আকস্মিকভাবে অটো থেকে নেমে দৌড় দেন জয়। এ সময় স্ত্রী তাকে আটকানোর জন্য চিৎকার করেন। লোকজন বুঝে ওঠার আগেই সেতুর রেলিংয়ের উপর উঠে যান জয় । চোখের সামনে লাফ দিয়ে ধরলার গভীর পানিতে ডুবে যান জয়। তীব্র স্রোতের কারণে সঙ্গে সঙ্গে তিনি তলিয়ে যান। এই দৃশ্য দেখে অজ্ঞান হয়ে পড়েন স্ত্রী শিউলি বেগম। পরে পরিবারের লোকজন এসে তাকে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ও নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। দীর্ঘক্ষণ অভিযান চালিয়ে বেলা ৩টার দিকে জয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয় । ফুলবাড়ী থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, যদিও নদীর গভীরতা ও স্রোত বেশি তারপরও পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের যৌথ প্রচেষ্টায় খুব দ্রুত মরদেহ উদ্ধার করা গেছে।
টেকনাফ চেকপোস্টের সকল পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার
০২আগস্ট,রবিবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে শামলাপুর চেকপোস্ট পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা নিহত হওয়ার ঘটনায় বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জসহ সকল পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় তাদের প্রত্যাহার করে কক্সবাজার পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। কক্সবাজার পুলিশ সুপার এবি এম মাসুদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলিকে আহ্বায়ক করে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। এ কমিটির সদস্য হিসেবে রয়েছেন কক্সবাজার জেলার একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি এবং কক্সবাজার এরিয়া কমান্ডারের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধি। পুলিশ সুপার এবি এম মাসুদ হোসেন জানান, অবসরপ্রাপ্ত একজন সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় ইতিমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। ঘটনার তদন্তের স্বার্থে টেকনাফের বাহারছড়া কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত আলিসহ ২০ পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। প্রত্যাহার করা পুলিশ সদস্যদের ইতিমধ্যে কক্সবাজার পুলিশ লাইনে নিয়ে আসা হয়েছে। তিনি আরও জানান, নতুন করে আরও ২০ পুলিশ সদস্যকে বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
টাঙ্গাইলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৫ নৌকা আরোহী নিহত
৩১জুলাই,শুক্রবার,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ৫ নৌকা আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকেলে উপজেলার গিলা বাড়িতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় ইউপি সদস্য রুবেল মিয়া এ তথ্যটি নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার বিকেলে উপজেলার গিলাবাড়ী বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, উপজেলার গিলাবাড়ী গ্রামের নৌকার মাঝি তাইজ উদ্দিন (৫০), একই এলাকার মিঞ্জু মিয়ার স্ত্রী জমেলা বেগম (৬০) ও তার ছেলে হামিদুর রহমান রনো (৩৫), একই এলাকার আতা মিয়ার ছেলের বউ (৩২), সখীপুর উপজেলার কৈয়ামধু গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে শাহ আলম ( ২৫)। রুবেল মিয়া বলেন, নৌকাটি দাঁড়িয়াপুর থেকে গিলাবাড়ীতে আসতেছিল। নৌকাটি গিলাবাড়ী বাজার এলাকায় পৌঁছালে বিলের মধ্যে থাকা বিদ্যুতের তারের সঙ্গে নৌকার মাঝির স্পর্শ লাগে। এ সময় নৌকাটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও কয়জন নিখোঁজ রয়েছে বলে জানান তিনি। এদিকে বাসাইল ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ফায়ার ম্যান শফিকুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে ডুবুরি পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল অনেক দূরে বিধায় পরে বিস্তারিত জানা যাবে।
লোহাগাড়ায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে ২ জন নিহত
৩০জুলাই,বৃহস্পতিবার,মো.রুবায়েত,লোহাগাড়া প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: লোহাগাড়ায় সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে সিমেন্ট বোঝাই ট্রাকের ধাক্কায় দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) সকাল সাড়ে আটটার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বার আউলিয়া কলেজের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে একজনের নাম মো. শওকত (২৪)। তার বাড়ি চন্দনাইশ উপজেলায়। দোহাজারী হাইওয়ে থানার ওসি মোহাম্মদ ইয়াছির আরাফাত নিউজ একাত্তরকে বলেন, চট্টগ্রামগামী সৌদিয়া বাসের সঙ্গে কক্সবাজারগামী ট্রাকের পাশাপাশি ধাক্কা লাগে। এতে সৌদিয়া বাসটি উল্টে যায় এবং ট্রাকটি রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হয়। এছাড়া বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
নিউ রাজা বাবু- কিনলে পাবেন ৭শ কেজির ষাঁড়
২৮,জুলাই,মঙ্গলবার,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোরবানির ঈদ সামনে রেখে সেই রাজা বাবুর মালিক তার দাম হাঁকাচ্ছেন ২০ লাখ টাকা। বিশাল ষাঁড়টির নাম দিয়েছেন সাতক্ষীরা কলারোয়া উপজেলার কেরেলকাতা ইউনিয়নের বলিয়ানপুর গ্রামের নবীন খামারি। এ বছর উপজেলার সর্ববৃহৎ কোরবানির পশু বলেই ধরা হচ্ছে ষাঁড়টিকে। তাই নিউ রাজা বাবু কিনলে অফার হিসেবে রাখা হয়েছে আরও বিশাল একটি ষাঁড়। যার ওজন প্রায় ৭০০ কেজি। আজ মঙ্গলবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, বিশালাকার এই ষাঁড়ের জন্য প্রতিদিনের বাজেট প্রায় দেড় হাজার টাকা। প্রতিদিন খাবারের মেন্যুতে থাকে কমলালেবু, ছোলা, চিড়া, কলা, ঘাস শরবতসহ আরও অন্যান্য দামি খাবার। খামারি শাহাজান আলী সাংবাদিকদের জানান, ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড়টি বাড়িতে থাকা নিজস্ব গাভির প্রজননে হওয়া। এখন এটির বয়স ৩ বছর ৪ মাস। লালন- পালনের পর কোরবানির ঈদ সামনে রেখে ষাঁড়টির ওজন বেড়ে হয়েছে ৩০ মণ। এবার নিউ রাজা বাবুকে যে কিনবে, এর সঙ্গে অফার হিসেবে দেয়া হবে প্রায় ৭০০ কেজি ওজনের আরেকটি ষাঁড়। ক্রেতারা রাজা বাবুর দাম করেছিলেন ১৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। একটু বেশি দামে বিক্রি করার আশায় তিনি নিউ রাজা বাবুর দাম হাঁকাচ্ছেন ২০ লাখ। খামারের তত্ত্বাবধায়ক সাইদুর রহমান জানান, এখন বিশাল এই ষাঁড়টির পরিচর্যা করা খুবই কঠিন। দিনে কমপক্ষে ৩ থেকে ৪ বার গোসল করাতে হয়। সারা দিন বৈদ্যুতিক পাখা চালাতে হয়। তবে দেশিয় পদ্ধতিতে পশুপালন করায় বাড়তি রোগ বা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়নি। সারাদিনই সন্তানের মতো গরুটির যত্ন করতে হয়। নিউ রাজা বাবুসহ খামারে মোট ৩টি গরু রয়েছে। তবুও কারো যত্নে কমতি নেই। নিউ রাজা বাবু প্রতিদিন প্রায় ১ হাজার ৫০০ টাকার খাবার খায়। কলারোয়া উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. অমল কুমার বলেন, নিউ রাজা বাবুর বর্তমান বয়স ৩ বছর ৪ মাস। ৬ দাঁতের নিউ রাজা বাবুর আকার ও ওজন পরিমাপ করে দেখা যায়, গরুটির উচ্চতা ৫ ফুট ৭ইঞ্চি, লম্বা ৭ ফুট, বুকের পরিমাণ ৮ ফুট, শিং ৯ ইঞ্চি লম্বা, লেজের দৈর্ঘ্য ৩ ফুট ৬ ইঞ্চি এবং ওজন প্রায় ১২০০ কেজি অর্থাৎ ৩০ মণ। আমার জানা মতে, এই গরুটিই বর্তমানে উপজেলার আকার ও ওজনে সবচেয়ে বেশি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী জেরীন কান্তা বলেন, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন ও জেলা প্রাণীসম্পদ অধিদফতরের অনলাইন ফেসবুক গরুর হাটে কোরবানির ঈদ সামনে রেখে প্রায় ৯ হাজার পশু প্রস্তুত করা হয়েছে। পাশাপাশি উপজেলায় প্রায় ৩০ মণ ওজনের নিউ রাজা বাবু নামে একটি গরু রয়েছে। যেটি কিনলে প্রায় ৭শ কেজি ওজনের আরেকটি অফার নামের ষাঁড় ক্রেতাকে ফ্রি দেবেন খামারি। তিনি জানান, গরুটির ছবি ও ভিডিও ফুটেজ জেলার অনলাইন বাজারের ফেসবুক গ্রুপে আপলোড করা হয়েছে। যাতে ওই খামারি নিজ বাড়ি থেকেই গরুটি ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করতে পারেন।

সারা দেশ পাতার আরো খবর