শনিবার, মার্চ ৬, ২০২১
সাহেদের দেশত্যাগ ঠেকাতে হিলি সীমান্তে নজরদারি বৃদ্ধি
১৪,জুলাই,মঙ্গলবার,মো.আল আমিন,হিলি প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা কেলেঙ্কারির মূলহোতা রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদের দেশত্যাগ ঠেকাতে দিনাজপুরের হিলি সীমান্ত ও ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। জয়পুরহাট-২০ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ফেরদৌস হাসান টিটো জানান, করোনার কারণে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট বন্ধ রয়েছে, যার কারণে এই পথ দিয়ে কেউ যাতায়াত করতে পারবে না এটি নিশ্চিত। এছাড়াও হিলি সীমান্তে আমাদের নজরদারি রয়েছে। যার কারণে এই পথ দিয়ে অবৈধপথে কারো পারাপারের সুযোগ নেই। এর আগে সাহেদের বিরুদ্ধে মামলা থাকায় এই পথ ব্যবহার করে যেন ভারতে যেতে না পারে সে বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দায়িত্বরতদের নির্দেশনা পাঠায় বলে জানা গেছে। সে মোতাবেক সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে করোনার কারণে আগে থেকেই এই পথ দিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রীদেরও যাতায়াত বন্ধ রয়েছে।
ভোলায় ৮ জুয়ারির ৭ দিন করে কারাদন্ড
১৩,জুলাই,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জেলার উপজেলা সদরের উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নে আজ ৮ জুয়ারিকে ৭দিন করে কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর আগে রোববার রাতে তাদের ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ঘুইংগারহাট এলাকার একটি পরিত্যক্ত ঘর হতে আটক করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল। সকালে তাদের জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: দিদারুল আলমর আদালতে হাজির করলে বিচারক প্রত্যেককে ৭দিনের দন্ড প্রদান করেন। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো: শহিদুল ইসলাম বলেন, দন্ডপ্রাপ্তরা হলো মো: ফকরুল (৪৫), মো: আব্দুর রহিম (২৮), মো: নসু (৪৫), মো: মিরাজ (২৫), মো: সবুজ (২০), মো: নাইম (২০), মো: সেলিম (৪৫), মো: আজিজুল (৪৫)। তারা সবাই উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের বাসিন্দা। আটকের সময় দন্ডপ্রাপ্তদের কাছ থেকে নগদ অর্থ ও জুয়া খেলার সরাঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।
কাল যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনে উপ-নির্বাচন
১৩,জুলাই,সোমবার,মো.ইসমাইল,যশোর,নিউজ একাত্তর ডট কম: যশোর-৬ (কেশবপুর) ও বগুড়া-১ (সোনাতলা-সারিয়াকান্দি) সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে আগামীকাল ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ওই দুই আসনে বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। ইতোমধ্যে নির্বাচনে সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এরই মধ্যে ওই দুই সংসদীয় এলাকায় মোটরসাইকেলসহ গণপরিবহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া ভোট গ্রহণের দিন এই দুই আসনে সাধারণ ছুটিও ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে ইসি সচিবালয়ের সচিব মো. আলমগীর জানান, ওই দুই আসনে নতুন করে কোনো মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার প্রয়োজন নেই। যেসব প্রার্থী ছিলেন এবং যে অবস্থায় নির্বাচন স্থগিত হয়েছিল, সে অবস্থা থেকেই আবার কার্যক্রম শুরু হবে। গত ১৮ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতা সংসদ সদস্য আবদুল মান্নান মারা গেলে বগুড়া-১ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে ৩ লাখ ৩০ হাজার ৮৯৩ জন ভোটার। উপ-নির্বাচনে প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের সহধর্মিণী সাহাদারা মান্নান (নৌকা), বিএনপির একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির মোকছেদুল আলম (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের (পিডিপি) মো. রনি (বাঘ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নজরুল ইসলাম (বটগাছ) ও স্বতন্ত্র ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ (ট্রাক)। আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক গত ২১ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করায় যাওয়ায় যশোর-৬ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন ভোটার। এই আসনের প্রার্থীরা হলেন হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহীন চাকলাদার (নৌকা), বিএনপির প্রার্থী আবুল হোসেন আজাদ (ধানের শীষ) ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব (লাঙ্গল)। উল্লেখ্য, দুই সংসদীয় আসনে ২৯ মার্চ নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত করা হয়। এখন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থেকে এ নির্বাচন করছে ইসি। আগামী ১৫ জুলাই বগুড়া-১ আসনের এবং ১৮ জুলাই যশোর-৬ আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সংবিধান নির্ধারিত ১৮০ দিন শেষ হবে।
ময়মনসিংহে ওয়েল্ডিং মিস্রীর বসতবাড়ী পুড়ে ছাঁই করেছে দুর্বৃত্তরা
১২,জুলাই,রবিবার,কামরুজ্জামান মিন্টু,ময়মনসিংহ ব্যুরো,নিউজ একাত্তর ডট কম: ময়মনসিংহে এক ওয়েল্ডিং মিস্রীর বসতবাড়ী আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে নগরীর ২৩নং ওয়ার্ল্ডের সুতিয়াখালি মধ্যপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রবিবার (১২জুলাই) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আগুনে পুড়ে গেছে বেশ কয়েকটি বসতঘর। এলাকাবাসী দেখতে আসে পুড়ে যাওয়া বসতভিটা। বাড়ির লোকজন হাউমাউ করে কান্নাকাটি করছে। স্থানীয়রা জানায়,গেলো রাতে স্থানীয় ওয়াল্ডিং মিস্রী মোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় একদল দুর্বৃত্ত। আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী পানি দিয়ে নেবানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তখন স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক শুরু হয়। তখন খবর পেয়ে ফায়ারসার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে ৮টি বসতবাড়ী পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। ওয়াল্ডিং মিস্রী মোফাজ্জল হোসেন জানান, তার ভাই বৈদ্যুতিক মিস্রী ফজলুল হক ফজুকে গত তিনদিন আগে (৯জুলাই) স্থানীয় জনি, অনি,নাসিম বাসায় ডেকে নিয়ে যান। এর আগে ফজুর কাছে তাদের পাওনা টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ফজুকে তারা তিনজন মারধর করে। এ ঘটনায় দু'জনের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করে। এরই ঝের ধরে আগুন লাগানো হয়েছে দাবী করেন ওয়েল্ডিং মিস্রী মোফাজ্জল হোসেন। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি। তবে জনি, অনি,নাসিমের সাথে যোগাযোগ করে তাদের পাওয়া যায়নি। বৈদ্যুতিক মিস্রী ফজলুল হক ফজু (৩৫) জানান, আমরা গরীব দেখে আমাদের বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। যখন বাড়িগুলো আগুনে পুড়ছিলো তখন মনে হচ্ছিলো আমাকেই পুড়ানো হচ্ছে। মোফাজ্জল হোসেনের মা রাবেয়া খাতুন জানান, রাতের আধাঁরে আমাদের ৮টি বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ঘরে থাকা আসবাবপত্র, চাল ও স্বর্ণালংকারসহ সবকিছু পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। এতে প্রায় ১৫লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবী করেন। এ বিষয়ে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত পূর্বক ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।
টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ইয়াবাকারবারি নিহত
১২,জুলাই,রবিবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সৈয়দ আলম (৩৫) নামে এক ইয়াবাকারবারি নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি বন্দুক, ও এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। শনিবার (১১ জুলাই) দিনগত এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত সৈয়দ আলম উপজেলার পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড এলাকার সৈয়দ আহমদের ছেলে। বিজিবির দাবি, সৈয়দ আলম চিহ্নিত মাদককারবারি। টেকনাফ-২ এর বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান ঘটনার সত্যতা নিউজ একাত্তরকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, টেকনাফ স্থলবন্দর সংলগ্ন ১৪ নম্বর ব্রিজের নিকটবর্তী কেয়ারি খাল এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে ঢুকবে, গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে বিজিবির একটি বিশেষ টহল দল সেখানে অবস্থান নেয়। এ সময় বিজিবি সদস্যরা দুইজন লোককে খালের পাড়ে দেখে তাদের সন্দেহ হয়। কিছুক্ষণ পর এক ব্যক্তিকে নাফনদী সাঁতরিয়ে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেখে। তিনি খালের মুখে আসার সঙ্গে সঙ্গে আগে থেকে অপেক্ষমান দুই ব্যক্তি তার দিকে এগিয়ে যায়। এ সময় টহলদল চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবি সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তাৎক্ষণিক টহলদলটি তাদের ধাওয়া করলে সশস্ত্র ইয়াবাকারবারিরা বিজিবি সদস্যদের ওপর অতর্কিতভাবে গুলি ছোড়েন। এ সময় বিজিবি সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়েন। একপর্যায় সবাই পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি বন্দুক, এক রাউন্ড কার্তুজ ও গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ইয়াবাকারবারিকে উদ্ধার করা হয়। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক জরুরি চিকিৎসা শেষে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানে পৌঁছালে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এদিকে স্থানীয়রা জানায়, নিহত সৈয়দ আলম মিয়ানমার মণ্ডু থানার বালুখালির গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি টেকনাফ পৌর এলাকার নাইট্যংপাড়া বসবাস করে আসছেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদকের মামলা রয়েছে।
ভেজাল ওষুধ কারখানায় অভিযান,ভুয়া চিকিৎসককে জরিমানা
১০জুলাই,শুক্রবার,মো.ইহসানুল ইসলাম,ঠাকুরগাঁও,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে ভেজাল ওষুধ কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ ওষুধ জব্দ করেছে Rab-13। এসময় ওই প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেট ও ড্রাগ লাইসেন্স না থাকায় অভিযুক্ত ভুয়া চিকিৎসক আব্দুল হাইকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে জব্দ করা ওষুধ আগুনে পুড়ে ফেলা হয়। Rab-13 এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী অধিনায়ক ও সিনিয়র সহকারি পরিচালক লেফটেন্যান্ট আবদুল্লাহ আল মামুন শুক্রবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,হরিপুরের নন্দগাঁও গ্রামে আব্দুল হাকিম ভেজাল ওষধ প্রস্তুত, বিক্রি, সরবরাহ,ওষুধের বোতলের গায়ে মোড়ক বা লেবেল না লাগিয়ে ড্রাগ লাইসেন্স,সার্টিফিকেট ছাড়াই মেয়ার্দ উত্তীর্ণ ওষুধ নতুন বোতলে বিক্রি করে আসছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে Rab-13 এর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসপি সামুয়েল সাংমার নেতৃত্বে ওই গ্রামে এক অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে অভিযোগের শতভাগ প্রমাণ ও সত্যতা পাওয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ডাক্তার/হাকিম আব্দুল হাইকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে দোষী সাব্যস্থ করে তাকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা এবং বিপুল পরিমাণ ভেজাল ওষধ সামগ্রী জব্দ করে সেগুলো জনসম্মুখে আগুনে পুড়ে ধ্বংস করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, ঠাকুরগাঁও জেলা কার্যালয়ের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল-নোমান সরকার এ সাজা প্রদান করেন।
মাদারীপুরে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি গঠন
০৯,জুলাই,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাদারীপুর জেলায় সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি গঠন করা হয়েছে। দৈনিক মাদারীপুর সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক ইয়াকুব খান শিশির কে সভাপতি হিসেবে ও বাংলাভিশন টিভির মাদারীপুর প্রতিনিধি ফরিদ উদ্দিন মুফতিকে সাধারন সম্পাদক মনোনিত করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। বুধবার( ৮ জুলাই)সন্ধ্যায় এ কমিটি করা হয়েছে। বিএমএসএফর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক আহম্মেদ আবু জাফর এর সভাপতিত্বে সভা সম্পন্ন হয়। মাদারীপুর জেলায় সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে মিজানুর রজমান, সহ-সভাপতি আয়শা আকাশী, সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুনকে সমর্থন দেওয়া হয়। অন্যদিকে সিনিয়র যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক হিসাবে মোঃ মনজুর হোসেন ও যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মেহেদী হাসান সোহাগ কে প্রস্তাব করা হয়। সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে গাউছ-উর রহমান কে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে ই এইচ ইমন ,কোষাধ্যক্ষ ম,ম হারুন অর রশীদ ,শিক্ষা সম্পাদক বিনয় জোয়ারদার,সহ-শিক্ষা সম্পাদক মতিন খন্দকার,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক বি এম হানিফ, ,আইটি বিষয়ক সম্পাদক আরিফুর রহমান, ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক জাহিদ হাসান,ইমতিয়াজ আহম্মেদ তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক, ,দপ্তর সম্পাদক মাসুদুর রহমান, সহ-দপ্তর সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাজা, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক সাবরীন জেরীন,সহ-প্রচার সম্পাদক এহসান আজগর ও কার্যকারী সদস্য অজয় কুন্ড , আকাশ আহম্মেদ সোহেল,সজীব ফরাজী, রিফাত ইসলাম,আশরাফুর রহমান, টুটুল বিশ্বাস,সাধারন সদস্য শাহাদাত হোসেন জুয়েল,রাজু আহম্মেদ,রতন দে, ইব্রাহিম,আমান উল্লাহ আমান কে মনোনিত করা হয়েছে। সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয়কারী আহমেদ আবু জাফর বলেন, এই কমিটি মাদারীপুরে সাংবাদিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে স্বোচ্চার ও বলিষ্ট ভুমিকা রাখবে।
দৈনিক ভোরের পাতা ভালুকা অফিসে চুরি,জড়িতদের গ্রেফতারের দাবী সর্বত্র
০৮,জুলাই,বুধবার,কামরুজ্জামান মিন্টু, ময়মনসিংহ,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক সংলগ্ন ভালুকার আমতলী মোড়ে দৈনিক ভোরের পাতা পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধির বাক্তিগত অফিস ছিল। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে একটি মোবাইল, ১০টি মেমোরী কার্ড, একটি পেনড্রাইভ, নগদ ২০ হাজার টাকা ও পত্রিকার পরিচয়পত্র চুরি করে নিয়েছে দুষ্কৃতিকারীরা। দৈনিক ভোরের পাতার ভালুকা প্রতিনিধি তোফাজ্জল হোসেন জানান, সংবাদ সংগ্রহের কাজ শেষে মঙ্গলবার রাতে ব্যক্তিগত অফিস বন্ধ করে বাসায় চলে যাই। ওই রাতে চুরেরা অফিসের সাটারের তালা ভেঙ্গে থাই গ্লাস খুলে ভিতরে প্রবেশ করে। এ ঘটনায় ভালুকা মডেল থানা পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি জানান, মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। অাজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকার ভালুকা প্রতিনিধি মামুন সরকার জানান, সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেন সবসময় বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে। সকলে তাকে ভালো মানুষ হিসেবে জানে।এমন ঘটনা অপ্রত্যাশিত। দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাংবাদিক অাসাদুজ্জামান সুমন এ ঘটনায় ত্রিব্য ক্ষোব প্রকাশ করেছেন। অনতিবিলম্বে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টদের দ্রুত অাইনের অাওতায় নিয়ে অাসার জোর দাবী জানান তিনি। এসএ টিভির ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ টেলিভিশন রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ সাধারণ সম্পাদক অাওলাদ হোসেন রুবেল জানান, সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেন দীর্ঘদিন যাবত অামাদের সহকর্মী হিসেবে সুনামের সাথে সাংবাদিকতা করে অাসছেন। অামাদের জানা মতে তার কোন শত্রু নেই। এটি অত্যান্ত দুঃখজনক ঘটনা। পুলিশ দ্রুত ঘটনার সাথে জড়িতদের অাইনের অাওতায় নিয়ে অাসার দাবী জানান। ভালুকা মডেল থানার এস.অাই রুহুল আমিন জানান, সাংবাদিকের অফিসে রাতে এই ঘটনা ঘটেছিল। খবর পেয়ে অামরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অাইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, সাংবাদিক অফিসে চুরির ঘটনায় তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
সরাইলে দু দফা সংঘর্ষে ৩ পুলিশসহ আহত শতাধিক, আটক ১২
০৮,জুলাই,বুধবার,মো.মির জামান উদ্দিন,ব্রাহ্মণবাড়িয়া,নিউজ একাত্তর ডট কম: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মঙ্গলবার রাতের পর আজ বুধবার সকালেও দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। মঙ্গলবার রাতের ঘটনায় পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়। আজ বুধবার সকালে এক বৃদ্ধা মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে কেউ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নোঁয়াগাও ইউনিয়নের কাটানিশার গ্রামের বজলু গোষ্ঠী ও ওলি গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। স্থানীরা জানায়, গতরাত সাড়ে ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মিজান মিয়া মেম্বার এবং অলি মেম্বারের লোকজনের সংঘর্ষ হয়েছিল। বুধবার সকাল ১০টার সময় দ্বিতীয় দফায় মিজান মিয়া মেম্বারের এক ভাই আবদুল আমিন দুলালের সঙ্গে অলি মেম্বারের লোকজনের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অলি মেম্বারের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসজ্জিত হয়ে মিজান মিয়া মেম্বারের লোকজনের অতর্কিত হামলায় সংঘর্ষ বাধে। এর আগে, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ২০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে ৩ পুলিশসহ উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হয়। এসময় বেশ কয়েকটি ঘরবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করা হয়। আহতরা সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল ও আশপাশের হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়। বুধবার সকালে ফের উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়ায়। নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য আকলিমা বেগম বুধবার বেলা ১১টার দিকে জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরেই দ্বিতীয় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে একজন মারা গেছেন বলে জানতে পেরেছি। তবে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজল চৌধুরী জানান, মঙ্গলবার রাতের পর বুধবার সকালেও দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। এতে আবুল কাশেমের বৃদ্ধ স্ত্রী মারা গেছেন বলে জানতে পেরেছি। ওই নারী মারা যাওয়ার খবরে সংঘর্ষ থেমে যায়। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আল মামুন-মোহাম্মদ নাজমুল আহমেদ জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১২ জনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

সারা দেশ পাতার আরো খবর