যশোরের চৌগাছায় বিষপানে ইমামের আত্মহত্যা
অনলাইন ডেস্ক: যশোরের চৌগাছায় ইউসুফ আলী (৪০) নামের এক ইমাম আগাছা নাশক (ঘাষ পোড়া) বিষ পান করে আত্মহত্যা করেছে। নিহত ইউসুফ উপজেলার সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে এবং বর্ণী জামে মসজিদের ইমাম। পরিবার সূত্রে জানা যায় পারিবারিক কোলহের জের ধরে স্ত্রী হাসিনা বেগমের উপরে অভিমান করে শনিবার সন্ধ্যায় আগাছা নাশক বিষ পান করে সে। জানতে পেরে প্রতিবেশিরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চৌগাছা সরকারি মডেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎস্যক তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে রাত ১১ টার দিকে মারা যায়। উইপি সদস্য তারিক হাসান বাবুল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশের আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পরে বিকেলে লাশ দাফন করা হবে। চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। এখন খোজখবর নিয়ে দেখছি।
আ.লীগের ভিআইপি প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ফেনীর ৩টি আসনে
অনলাইন ডেস্ক: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনীর তিনটি আসনে আওয়ামী লীগের ২০ ভিআইপি প্রার্থী মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। শুক্রবার ও শনিবার জেলার ৩টি আসনে ১৫ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। অপর দুটি আসনে একাধিক ফরম বিক্রি হলেও ফেনী-১ (পরশুরাম-ফুলগাজী ও ছাগলনাইয়া) আসনে কেবলমাত্র কিনেছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম। শুক্রবার ও শনিবার বিকেলে বিপুল নেতাকর্মী নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের নতুন ভবন থেকে আলাউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী নাসিম এবং ফেনী-২ (সদর) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। এছাড়া ফেনী-২ সদর আসনে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন হাজারী, জেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট ফারুক আলমগীর চৌধুরী, জেলা যুবলীগ-ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আজহারুল হক আরজু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সহ-সম্পাদক সাইফুদ্দিন নাছির, আওয়ামী আইন ছাত্র পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কাজী ওয়ালী উদ্দিন ফয়সাল মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ফেনী-৩ (দাগনভূঞা-সোনাগাজী) আসনে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম, সহ-সভাপতি ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান আক্রাম হোসেন হুমায়ুন। গতবারের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য হাজী রহিম উল্লাহ ছাড়াও যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল বাশার, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক নিজাম চৌধুরী, সাবেক সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক রোকেয়া প্রাচী, সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেডএম কামরুল আনাম, সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সোনাগাজী পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, জেলা যুবলীগ সভাপতি ও দাগনভূঞা উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক এডভোকেট শাহাজাহান সাজু, জাপান আওয়ামী লীগের আহবায়ক শামসুল আলম ভুট্রু মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। প্রসঙ্গত, মনোনয়নপত্র বিক্রি শেষে ১১ নভেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের সংসদীয় বোর্ডের সভা হবে। সেখানে দলের মনোনয়ন বোর্ড প্রার্থিতা চূড়ান্ত করতে পারে। নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বর।
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার
অনলাইন ডেস্ক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ প্রভাষক খন্দকার মিজানুর রহমানকে নাশকতা মামলায় গ্রেফতার করেছে পুুুুলিশ। থানা সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার কাশদহ গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ওই গ্রামের মৃত খন্দকার আব্দুল কুদ্দুসের পুত্র। তিনি রামজীবন ইউনিয়ন জামায়াতের আমির। তার বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৪ পুলিশ হত্যাসহ ৯টি নাশকতা মামলা রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা অফিসার ইনচার্জ এসএম আব্দুস সোবহান জানান, গ্রেফতারকৃত আসামি রামজীবন ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারের ব্যাপারে নিন্দা জানিয়ে উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি প্রভাষক শহিদুল ইসলাম জানান, উপজেলা জামায়াতের শুরা সদস্য ও রামজীবন ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। তিনি কয়েকটি মামলায় জামিনে আছেন।
চলন্ত বাস থেকে বাবাকে ফেলে দিয়ে মেয়েকে হত্যা আশুলিয়ায়
অনলাইন ডেস্ক: ঢাকার অদূরে আশুলিয়ায় চলন্ত বাস থেকে বাবাকে ফেলে মেয়ে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। আশুলিয়ার মরাগাং এলাকা থেকে রাত নয়টায় মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জানা যায় বাবার নাম আকবর আলী ও মেয়ের নাম জরিনা বেগম। মেয়ের বয়স আনুমানিক ৪৫ বছর। আশুলিয়া থানার এসআই বিজন কুমার দাস গণমাধ্যমকে জানান, আশুলিয়ার ইউনিক এলাকা থেকে সন্ধ্যার পর টাঙ্গাইল যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসে ওঠেন বাবা ও মেয়ে। বাসটি আশুলিয়া পার হওয়ার পর দুর্বৃত্তরা বাবাকে জোর করে বাস থেকে নামিয়ে দেয়। এরপর কিছু দূর যাওয়ার পর মেয়েকেও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় তারা। কেন বা কি কারণে এই হত্যা কাণ্ড ঘটেছে এ ব্যাপারে এসআই বিজন জানান, আসলে এ ব্যাপারে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়। ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। তবে তার গলার নিচে দাগ দেখা গেছে। তাতে মনে হয় গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে।
চট্টগ্রামে সিএনজি অটোরিকশার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৪ জনসহ,দগ্ধ ৫
অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রামে সিএনজি অটোরিকশার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৪ জনসহ ৫ জন দগ্ধ হয়েছেন। তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার দুপুরে রাউজান উপজেলা থেকে সিএনজি অটোরিকশায় করে চট্টগ্রাম নগরীতে এক আত্মীয়র বিয়ের দাওয়াতে আসছিলেন একই পরিবারের ৪ সদস্যসহ ৫ জন। এ সময় সিএনজি অটোরিকশাটি নগরীর চান্দগাঁও এলাকায় পৌঁছালে, বিকট শব্দে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে। এতে মা ও ছেলেসহ একই পরিবারের ৪ সদস্য দগ্ধ হন। এ ঘটনায় আহত হন অটোরিকশা চালক। পরে দগ্ধদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয়।
ওয়াসার বোর্ড সদস্য হলেন সাংবাদিক মহসীন কাজী
অনলাইন ডেস্ক :চট্টগ্রাম ওয়াসার বোর্ড সদস্য হয়েছেন বাংলাদেশের সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ এবং সর্ববৃহৎ সংগঠন বাংলাদেশ ফেডারেশন সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী। বিএফইউজের মনোনয়নে চট্টগ্রাম ওয়াসার বোর্ড সদস্য মনোনীত হয়েছেন তিনি। ৭ নভেম্বর, বুধবার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ সাঈদ-উর-রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ বিষয়ে জানানো হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ আইন ১৯৯৬ এর ৬ (১) (ঝ) ও ৬ (৩) ধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), চট্টগ্রাম বিভাগের নব-নির্বাচিত যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজীকে চট্টগ্রাম ওয়াসা বোর্ডের সদস্য হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হলো। জনস্বার্থে জারি করা এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়। আরও পড়ুন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত দিনঃ জাফরুল ইসলাম জাপান-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এর সেমিনার অনুষ্ঠিত একনেকে চসিকের খাল খনন ও কসাইখানা প্রকল্প অনুমোদন ছাত্রজীবনে লেখাপড়ার পাশাপাশি সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি মহসীন কাজীর। পেশাজীবন শুরু আজকের সূর্যোদয়ে। দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে সাংবাদিকতা জীবনে অনেক বাধা বিপত্তি ডিঙ্গিয়ে এগিয়ে যেতে হয়েছে। তবে আদর্শ বিচ্যুত হননি কখনো। পেশা জীবনে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব ব্যবস্থাপনা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেছেন সফলতার সাথে। তাঁর দায়িত্ব পালনকালেই চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে স্থাপন করা হয় জাতির জনকের ম্যুরাল। যা দেশে কোনো প্রেসক্লাবের মধ্যে সর্বপ্রথম। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সমাজসেবক মরহুম কাজী আবদুস সাত্তার এবং আলম আরা বেগম চৌধুরীর পুত্র মহসীন কাজী। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম সাংবাদিক হাউজিং কো-অপারেটিভ সোসাইটির নির্বাচিত পরিচালক। সারাদেশে সাংবাদিকদের সর্ববৃহৎ একক সংগঠন বিএফইউজের নির্বাচনে যুগ্ম মহাসচিব পদে নির্বাচিত হয়েছেন বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর মহসীন কাজী। পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে লব্দ অভিজ্ঞতা নিয়ে রচনা করেছেন প্রবন্ধ সংকলন সময়ের কাটাছেঁড়া। গ্রন্থে তিনি সাংবাদিকতা জীবনে দেখা নানা ঘটনার বিশ্লেষণ করেছেন নির্মোহ দৃষ্টিতে।
প্রধান শিক্ষক নেই ফটিকছড়ির ৮১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে
সজল চক্রবর্ত্তী, ফটিকছড়ি :চট্টগ্রামে বৃহত্তম ফটিকছড়িতে প্রধান শিক্ষক ছাড়াই চলছে ৮১ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এতে বিদ্যালয়ের পাঠদান ব্যাহতের পাশাপাশি প্রশাসনিক কর্মকান্ডেও নানা সমস্যা হচ্ছে। অতিরিক্ত ক্লাস নিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের। মানসম্মত শিক্ষাব্যবস্থা নিশ্চিত করতে শূন্যপদগুলো দ্রুত পূরণ করার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ১৭ ইউনিয়ন, ২টি পৌরসভায় ২২৯ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৮১ টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই। কোন বিদ্যালয়ে ৪-৫ বছর, কোন কোন বিদ্যালয়ে ৫-৭ বছর ধরে প্রধান শিক্ষক না থাকার কারণে উক্ত বিদ্যালয় গুলোতে শিক্ষা কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ৮১ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক না থাকলেও তন্মধ্যে ১৮ বিদ্যালয়ে মামলা জটিলার কারণে শূণ্য পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যাচ্ছেনা বলে জানাগেছে। দীর্ঘদিন ধরে উক্ত স্কুলগুলোতে প্রধান শিক্ষক না থাকায় সহকারী শিক্ষকরা পাঠদান দিয়ে থাকলেও দপ্তরিক কাজ পরিচালনা করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। উত্তর ফটিকছড়ির একাধিক শিক্ষকের সাথে কথা জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষা কার্যক্রমের দশা একেবারেই বেহাল। উত্তর ফটিকছড়ির স্কুলগুলোতে মাত্র দুই থেকে তিন জন শিক্ষক দিয়ে কোন রকম চলছে পাঠদান কার্যক্রম। দূর্গম হওয়ায় ওই ইউনিয়নগুলোতে অবস্থিত স্কুলে যোগদান করতে চায় না কোন শিক্ষক। আবার যোগদান করলেও কিছুদিন পরে শিক্ষা অফিসে তদবির করে বদলী হয়ে যায়। কেউ কেউ আবার খুঁজেন ডেপুটেশনে অন্যত্র যাওয়ার পথ। শিক্ষক সংকটে খন্ডকালিন শিক্ষক দিয়ে ক্লাস চালানো হয় বলে জানা যায়। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আজিমেল কদর বলেন, উপজেলার ৮১ টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের শূণ্য পদের তালিকা করে উধ্বর্তন কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। ২০১৩ সালের ২৬ হাজার স্কুল জাতীয়করণ করা হয় তখন প্রধান শিক্ষককের দায়িত্ব থাকার কিছু প্রধান শিক্ষককের যোগ্যতা থাকায় তাঁরা প্রধান শিক্ষকের স্কেল পেয়েছে। কিছু প্রধান শিক্ষকের যোগ্যতা ছিলনা, প্রধান শিক্ষককের দায়িত্ব পালন করে তাদের মধ্যে থেকে ১৮ জন রিট মামলা করে। মামলা জটিলতার আইনগত ভাবে ১৮ টি বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছেনা, অবশিষ্ট বিদ্যালয় গুলোতে দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ বা প্রমোশন হতে পারে হবে বলে জানায়।
নয়া মেরুকরণে জটিল সমিকরণ ফটিকছড়িতে
সজল চক্রবর্ত্তী, ফটিকছড়ি:চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনে সরকারীদলের মনোনয়ন প্রত্যাশিদের নতুন মেরুকরণে সৃষ্টি হচ্ছে জটিল সমিকরণ। এ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশির সংখ্যা অন্তত অর্ধডজন হলেও জোটের প্রার্থী ছিলেন একজন। তবে, নির্বাচন সন্নিকটে আসার সাথে সাথে জোটের প্রার্থীর সংখ্যাও ক্রমশ: বাড়ছে। এতে করে আওয়ামীলীগের নৌকার টিকেট প্রত্যাশিদের দুঃচিন্তায় কেবল বাড়ছে না, জোট প্রার্থীদের মনোনয়ন পাওয়া দুষ্কর হয়ে দাড়াঁচ্ছে। ফটিকছড়ির বর্তমান সংসদ সদস্য সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী ১৪ দলীয় জোটের শরিক দল তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান। একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনি পুনরায় নৌকার মাঝি হতে আগ্রহী। তবে এবার আওয়ামী লীগ জোটের মনোনয়ন চায়তে পারেন মাইজভান্ডার দরবারের মঈনিয়া মঞ্জিলের শাহজাদা হযরত সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী। তিনি গত ৬ নভেম্বর গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে অনুষ্ঠিত ত্বরিকাপন্থি ইসলামী দলগুলোর সংলাপে অংশ নিয়ে চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসন থেকে নির্বাচন করার আগ্রহ দেখিয়েছেন বলে সূত্র প্রকাশ। এছাড়াও, সম্প্রতি বাংলাদেশের বিকল্পধারায় যোগ দিয়ে নতুন করে আলোচনায় এসেছেন ফটিকছড়ির সাবেক এমপি ও চাকসুর সাবেক ভিপি মজহারুল হক শাহ্ চৌধুরী। তিনি জাসদ, জাসদ (সিরাজ), বিএনপি, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) ও জাতীয় পার্টি (জাফর) দল পরিবর্তন শেষে সর্বশেষ বি চৌধুরীর বিকল্পধারায় যোগ দিয়ে ফটিকছড়ি থেকে নির্বাচন করতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। সূত্রমতে, সরকারের সাথে বিকল্পধারার সমঝোতা হলে মহাজোটে যোগ দিবে সাবেক রাষ্ট্রপতি বি চৌধুরীর দলটি। মহাজোটে বিকল্পধারা যোগ দিলে মজহারুল হক শাহ চৌধুরীও নৌকা নিয়ে নির্বাচন করতে চায়বেন। অন্যদিকে, এ আসন থেকে নির্বাচন করতে চান ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিন। জাতীয় পার্টি (এরশাদ) নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোটের অন্যতম শীর্ষনেতা মতিন। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলে জাতীয় পার্টি (এরশাদ) সরকারের সাথে মহাজোটে থাকবে। সেক্ষেত্রে, সম্মিলিত জাতীয় জোট নেতা ও ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব এম এ মতিন ফটিকছড়ি থেকে নিজের দলীয় প্রতীক মোমবাতির বিকল্প হিসেবে নাঙ্গল বা নৌকা নিয়ে ভোটে লড়তে চায়বেন। সবমিলিয়ে নয়া মেরুকরণে জটিল সমিকরণ সৃষ্টি হচ্ছে এ আসনে। জোটজট ও দলীয় প্রার্থীর ছড়াছড়িতে সমঝোতার প্রার্থী হিসেবে স্থানীয় আওয়ামীলীগ পরিবারের এক সন্তানের নাম প্রধানমন্ত্রীর টেবিলে রয়েছে বলে সূত্রে প্রকাশ।
জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আলোচনা সভায় বক্তারা, ৭ নভেম্বর ছিল আধিপত্যবাদ ও প্রভাব বিরোধী সিপা
৭ নভেম্বর ঐতিহাসিক জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে অদ্য ৭ নভেম্বর ২০১৮ইং তারিখ বেলা ৩ ঘটিকার সময় জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চট্টগ্রামের উদ্যোগে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চট্টগ্রামের সভাপতি এড. মো: দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এড. মো: জহুরুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. মো: কবির চৌধুরী। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল কালাম আজাদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড. নাজিম উদ্দিন চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আইনজীবী ফোরামের সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. এস.ইউ. এম নুরুল ইসলাম, সিনিয়র আইনজীবী এড. এ.এস.এম. বদরুল আনোয়ার, মহানগর বিএনপি’র সহ-সভাপতি এড. মফিজুল হক ভূঁইয়া, এড. আবদুস সাত্তার সরওয়ার, এড. রফিক আহমেদ, এড. আজমল হক, এড. হাদী মোহাম্মদ খোরশেদ, এড. সেকান্দর বাদশা, এড. আহমেদুর রহমান খান, এড. হায়দার মো: সোলায়মান, কর আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড. ওমর ফারুক, এড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, এড. শামসুল আলম, এড. আবদুল খালেক শাহজাহান, আইনজীবী ফোরামের সহ-সভাপতি এড. আজিজুল হক চৌধুরী, এড. রওশান আরা বেগম, এড. আকবর আলী, এড. কাজী মো: সিরাজ, এড. সেলিমা খানম, এড. মো: কাশেম চৌধুরী, এড. এইচ.এস. আবুল হাসান, এড. আবুল হাসান শাহাবুদ্দিন, এড. আশফাক আহমেদ, এড. শাহদাত হোসেন, এড. আফাজুর রহমান, এড. আবু তাহের, এড. মাঈনুদ্দিন, এড. নাসিম আক্তার চৌধুরী, এড. মাহফুজুর রহমান মিল্লাত, এড. হাসান মাহমুদ চৌধুরী, এড. আবদুস সবুর, এড. এরশাদুর রহমান রিটু, এড. মুরশিদ আলম, এড. শওকত আউয়াল, এড. তাজুল ইসলাম, এড. শফিউল হক চৌধুরী সেলিম, এড. সেলিম উদ্দিন শাহীন, এড. নেজাম উদ্দিন, এড. নিলুফার ইয়াসমিন লাভলী, এড. হাসনাহেনা, এড. নুরুল করিম এরফান, এড. আবছার উদ্দিন হেলাল, এড. ইসকান্দর সোহেল, এড. আশরাফী বিনতে মোতালেব, এড. মশকুরা বেগম মেরী, এড. মোকাররম হোসেন, এড. সানজিদ আকবর, এড. জেড এম মিনার, এড. দেলোয়ার হোসেন, এড. রেজাউল করিম রনি, এড. অলি আহমদ, এড. নাসির উদ্দিন, এড. হাবিবুল্লাহ রুমী, এড. তৌহিদুল ইসলাম, এড. তৌহিদ হোসাইন সিকদার, এড. রবিউল হোসেন, এড. লোকমান, এড. সোহ্রাওয়ার্দ্দী প্রমুখ আইনজীবী নেতৃবৃন্দ। প্রধান অতিথি এড. কবির চৌধুরী বলেন, ৭ নভেম্বর ছিল সিপাহী জনতার স্বতঃস্ফূর্ত বিপ্লব। জাতীয় চেতনা বোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে সেদিন রাজপথে এক হয়েছিল সিপাহী জনতা। রচিত হয়েছিল ঐক্য ও সংহতির অপূর্ব উদাহরণ। প্রধান আলোচক ড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর ছিল আধিপত্যবাদ ও প্রভাব বিরোধী গণতন্ত্রপ্রিয় জাতীয়তাবাদে অনুপ্রাণিত সিপাহী জনতার ঐক্যবদ্ধ বিপ্লব। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ একনায়কত্ব, নিয়ন্ত্রণবাদী ও কর্তৃত্ববাদী শাসনের বিরুদ্ধে জনগণের শাসনের দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। ৩ নভেম্বর সেনাবাহিনীর উপ-প্রধান খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে প্রতিক্রিয়াশীল চক্রের অভূত্থানে তৎকালীন সেনা প্রধান মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমানকে বন্দী করা হয়। সেই চক্রের বিরুদ্ধে দেশপ্রেমী সেনা নৌ-বিমান বাহিনীর যওয়ানরা অভূতপূর্ব ঐক্য গঠন করে ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে বন্দীদশা থেকে সেনা প্রধান জেনারেল জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করেছিলেন। সাধারণ সৈনিকদের সাথে ঢাকার রাজপথের সর্বস্তরের জনতা ঐক্যবদ্ধ হয়ে নতুন বাংলাদেশের অভ্যূদয় ঘটিয়েছিল। ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার বিপ্লবকে সাম্প্রতিক অতীতে ভিন্ন ব্যাখ্যার মাধ্যমে বিতর্কিত করার চেষ্টা করা হলেও এদেশের গণতন্ত্রপ্রিয় মানুষের কাছে ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার বিপ্লবের দিনটির মর্যাদা ও মহিমা আজও উজ্জ্বল, অম্লান। বক্তারা ৭ নভেম্বরের এই দিনে গণতান্ত্রিক সংগ্রামের আপোষহীন কারাবন্দী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবী করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি