মাশরাফির নির্বাচনী প্রচারণায় মুখর গোটা নড়াইল
অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার নির্বাচনী প্রচারণায় মুখর গোটা নড়াইল জেলা।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনি (মাশরাফি)। ক্রিকেট তারকা মাশরাফির জন্য চলছে ব্যতিক্রম নির্বাচনী প্রচারণা। ব্যক্তি কিংবা সংগঠন স্ব-উদ্যোগে নিজ খরচে প্রচারণার জন্য মাঠে নেমেছেন। মাশরাফিকে দলমত নির্বিশেষে সবাই অতি আপন করে তার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। দলীয় উদ্যোগ বাদে বিভিন্ন অরাজনৈতিক সংগঠনও মাশরাফিকে জয়ী করতে একাট্টা হয়েছে। মাশরাফি নির্বাচন করছেন বলেই সকল শ্রেণীপেশার মানুষ যার যার পেশা থেকে নিজ খরচে নির্বাচনী সামগ্রী তৈরিসহ প্রচারণার জন্য অর্থ ব্যয় করে চলেছেন। নড়াইল জেলা ক্রীড়া সংস্থার অধীনস্থ ৬৮টি স্পোর্টস ক্লাবের কর্মকর্তারা নিজ নিজ খরচে বিভিন্ন এলাকায় মাশরাফির পক্ষে নৌকা মার্কায় ভোট চাচ্ছেন। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু বলেন, প্রধানমন্ত্রী মাশরাফিকে নৌকা মার্কার মনোনয়ন দিয়ে যেমনি নড়াইলকে সম্মান দিয়েছেন তেমনি ক্রীড়াঙ্গনকেও তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সম্মানিত করেছেন। জেলা ক্রীড়া সংস্থার অধীনে যতগুলো স্পোর্টস ক্লাব আছে সকল ক্লাবকে দলমত নির্বিশেষে মাশরাফিকে বিজয়ী করার জন্য সবধরনের সহযোগিতা করতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সকল ক্লাবের সদস্যরা নিজ খরচে নির্বাচনী প্রচারণার কাজ করছে যাচ্ছে বলে তিনি জানান। ক্রীড়াঙ্গনের পাশাপাশি অন্য পেশার লোকজনও মাশরাফির নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।নড়াইল শহর কাঁচা বাজারের ছোট্ট পরিসরের হোটেল খান জাহান আলীর স্বত্বাাধকারী ইসহাক হোসেন বলেন,সকালে হোটেলের বেচা-কেনা শেষে মাশরাফির প্রচারণার জন্য নৌকা তৈরির কাজ শুরু করেন। দোকানের তিনজন কর্মচারী নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন মাশরাফির নির্বাচনী প্রচারণায়। বাঁশের কঞ্চি দিয়ে নৌকার কাঠামো বানিয়ে তাতে সেলাই করে লাল-সবুজ কাপড় বসিয়ে তৈরি করা হচ্ছে ছোট ছোট নৌকা। মাশরাফির ভক্ত এ ক্ষুদ্র হোটেল ব্যবসায়ী ইসহাক হোসেন জানান, আমাদের গর্ব মাশরাফি নৌকা মার্কা নিয়ে দাঁড়িয়েছেন। এমন সুযোগ আর পাবো না, ব্যবসা-টাকা এগুলো বেঁচে থাকলে পরেও পাওয়া যাবে। ইসহাকের মতো সবজি বিক্রেতা মোবারক, মুদি দোকানি সাঈদ, কসমেটিক বিক্রেতা মিশন ব্যবসা কমিয়ে এখন শুধুই মাশরাফির জন্য ভোটের মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানান। শহরের মহিষখোলা কাঁচাবাজারের আরেক ফল বিক্রেতা মন্নু মোল্যা জানান, তিনি ব্যবসার কাজে সময় কম দিয়ে সারদিন মাশরাফির লিফলেট বিলি করছেন পাড়ায়-মহল্লায় আর বাসস্ট্যান্ডে। মাশরাফি পাগল এ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মাশরাফি মনোনয়ন পাবার পর থেকে বাইরের কাউকে দেখলেই ভোট চেয়ে একটি করে ফল খাওয়াচ্ছেন। জেলা ইজিবাইক শ্রমিক সমিতির সভাপতি লায়েব আলী একটি মোটর সাইকেলে নিজ খরচে নৌকা মার্কা স্থাপন করে তাতে লাইট জ্বালিয়ে সারাদিন সংসদীয় এলাকার এ প্রান্ত থেকে ওপান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তিনি বলেন,জেলার সকল ইজিবাইক চালক মাশরাফির জন্য কাজ করছেন। তারা নিজ নিজ খরচে মাশরাফির প্রচার চালাচ্ছে। আমাদের সোনার ছেলের জন্য করবো না তো কার জন্য করবো বলে তিনি জানান। পিছিয়ে নেই অন্য শ্রেণী-পেশার মানুষও। নিজেদের অর্থ ব্যয় করে প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন তারা।গরীব খেটে খাওয়া মানুষের নিঃস্বার্থভাবে মাশরাফির জন্য ভালোবাসা দেখে এলাকার ছেলে-বুড়ো সকলেই উদ্ভুদ্ধ হচ্ছেন।নির্বাচনী প্রচার করার জন্য কেউ কারো কাছে টাকা পয়সার জন্য ধর্না দিচ্ছেন না। নড়াইলের উন্নয়নে সকলের দাবি মাশরাফির জয়। এ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মাশরাফি ছাড়াও ২০ দলীয় জোট তথা ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী এডভোকেট এ জেড এম ফরিদুজ্জামান ফরহাদ (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির (এরশাদ) জেলা সভাপতি এডভোকেট ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ (লাঙ্গল), এনপিপির (ছালু) জেলা সভাপতি মনিরুল ইসলাম (আম), ইসলামী আন্দোলন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এস এম নাসির উদ্দীন (হাতপাখা), ইসলামী ঐক্যজোটের প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান (মিনার) এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (রব) প্রার্থী ফকির শওকত আলী তারা প্রতীকে নির্বাচন করছেন। জেলা নির্বাচন অফিসার রাজু আহমেদ জানান, নড়াইল-২ আসন নড়াইল পৌরসভা, সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া পৌরসভা ও লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এ আসনে বর্তমানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ১৭ হাজার ৭৮২ জন। পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৭ হাজার ১০৫ জন এবং মহিলা ভোটার রয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার ৬৭৭ জন।
আর নেই কিংবদন্তি আমজাদ হোসেন
অনলাইন ডেস্ক: কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার, গীতিকার ও চিত্রনাট্যকার, অভিনয়শিল্পী আমজাদ হোসেন আর নেই। আজ শুক্রবার থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। চলচ্চিত্র পরিচালক এসএ হক অলিক জানান, শুক্রবার দুপুরে থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালের চিকিৎকরা আমজাদ হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। নভেম্বরের মাঝামাঝি ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আমজাদ হোসেন। তখন তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। পরিস্থিতির একটু উন্নতি হলে তাকে নেয়া হয় থাইল্যান্ডে। দুই ছেলে সোহেল আরমান ও সাজ্জাদ হোসেন দোদুলও সেখানে তার সঙ্গে ছিলেন। ১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট জামালপুরে জন্ম নেয়া আমজাদ হোসেন চিত্র পরিচালনার বাইরে লেখক, গীতিকার, অভিনেতা হিসেবেও পরিচিত। হারানো দিন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে ১৯৬১ সালে রুপালি পর্দায় তার আগমন। পরে চিত্রনাট্য রচনা ও পরিচালনায় তিনি বেশি সময় দেন। ১৯৬৭ সালে মুক্তি পায় তার নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র খেলা। সাড়া জাগানো চলচ্চিত্র জীবন থেকে নেয়ার চিত্রনাট্য লেখায় জহির রায়হানের সঙ্গে আমজাদ হোসেনও ছিলেন। পরিচালক আমজাদ হোসেনের জনপ্রিয় ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে বাল্যবন্ধু, পিতাপুত্র, এই নিয়ে পৃথিবী, বাংলার মুখ, নয়নমণি, গোলাপী এখন ট্রেনে, সুন্দরী, কসাই, জন্ম থেকে জ্বলছি, দুই পয়সার আলতা, সখিনার যুদ্ধ, ভাত দে, হীরামতি, প্রাণের মানুষ, সুন্দরী বধূ, কাল সকালে, গোলাপী এখন ঢাকায়, গোলাপী এখন বিলেতে ইত্যাদি। তার লেখা ও নির্মিত টিভি নাটকও ছিল জনপ্রিয়। গান লেখায়, চিত্রনাট্যে ও পরিচালনায় চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি। এছাড়া সরকার তাকে একুশে পদকেও ভূষিত করে।
কাভার্ডভ্যান চাপায় তিনজন নিহত
অনলাইন ডেস্ক: ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় কাভার্ডভ্যানের চাপায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরো একজন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার চুরখাই এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে দুজনের নাম জানা গেছে। তাঁরা হলেন কৃষক জাকির হোসেন ও কৃষিশ্রমিক আবদুল খালেক। দুর্ঘটনায় আহত একজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা আবদুর রহমান এনটিভি অনলাইনকে বলেন, সকালে জাকির হোসেন কৃষিশ্রমিক খালেককে নিয়ে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় পেছন থেকে একটি কাভার্ডভ্যান তাঁদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হন। আহত দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে আরো একজন মারা যান। লাশ দুটো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা।
চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন
অনলাইন ডেস্ক: দেশের চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জনগণ আবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবে বলে বিশ্বাস করেন কুমিল্লা-৮ আসনের সাবেক সাংসদ ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নাছিমুল আলম চৌধুরী নজরুল। তিনি বলেন,জনগণ কখনও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সার্বিক উন্নয়নকে অস্বীকার করতে পারবে না। তারা আবার তাকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবে। মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার একটি রেস্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে নাছিমুল এসব কথা বলেন। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এসময় তিনি তার নির্বাচনী এলাকার জণগনকে নৌকায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন,নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমি এই আসনের সংসদ সদস্য ছিলাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দিয়েছিলাম। আসন্ন নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রী আবার আমাকে প্রার্থী করেছেন। নির্বাচিত হয়ে উন্নয়নের মাধ্যমে শেখ হাসিনার সেই আস্তার প্রতিফলন ঘটাতে চাই। নাছিম বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকাকে মাদকে গ্রাস করে ফেলেছে। আমি দায়িত্বে থাকাকালে এখান থেকে মাদক বিতাড়িত করেছিলাম। দেশের এতো উন্নয়নেও নেতৃত্বের অভাবে এই আসনটি এতদিন অবহেলিত ছিল। সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে এলাকাটিকে আবার নতুন করে সাজাব।
কেরানীগঞ্জ ঢাকা-২ আসনে নির্বাচনী প্রচারণায় খাদ্যমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: কেরানীগঞ্জে ঢাকা-২ আসনের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেলে এই সভায় যোগ দেন তিনি। এই সভাতে বক্তব্য রাখেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ। তিনি ভেদাভেদ ভুলে ঢাকা-২ আসনে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) উপজেলা কমপ্লেক্সে কর্মী সমাবেশে এডভোকেট কামরুল ইসলামের নির্বাচনী এলাকা কেরানীগঞ্জ-২ আসনের জন্য ভোট চেয়ে এই সভার আয়োজন করা হয়। এই সভায় বক্তারা জনগণকে একত্রিত হয়ে নৌকায় ভোট দেবার আহ্বান জানান। নির্বাচনী প্রচারণায় মঙ্গলবার বিকেল ৬টায় এডভোকেট কামরুল ইসলাম কলাতিয়া যাবেন। সাভার উপজেলার আমিনবাজার ইউনিয়ন, তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন ও ভাকুর্তা ইউনিয়ন, কেরানীগঞ্জ উপজেলার কিছু অংশ, কামরাঙ্গীরচর ও হাজারীবাগ থানার সুন্দরগঞ্জ ইউনিয়ন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৫, ৫৬ ও ৫৭ নং ওয়ার্ড নিয়ে ঢাকা-২ আসন গঠিত।
গাজীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত শ্রীপুর থানার এসআইর মৃত্যু
অনলাইন ডেস্ক: গাজীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুর রহমান (৪৫) মারা গেছেন। গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবদুর রহমান মারা যান বলে পুলিশ জানিয়েছে। তিনি ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানার পুলাইদ গ্রামের আবদুল হালিমের ছেলে। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম ও মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার হুসেন জানান, দেড় মাস আগে শ্রীপুর মডেল থানায় যোগদান করেন আবদুর রহমান। গত শনিবার রাতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাওনা থেকে গড়গড়িয়া মাস্টারবাড়ী এলাকায় অন্য সহকর্মীদের সঙ্গে স্পেশাল নাইট ডিউটিতে ছিলেন তিনি। তাঁদের পরিবহনের কাজে একটি লেগুনা গাড়ি নিয়োজিত ছিল। ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে মাস্টারবাড়ী থেকে মাওনা চৌরাস্তার দিকে যাওয়ার পথে মাওনা ফ্লাইওভারের দক্ষিণে নোমান উইভিং কারখানার সামনে পৌঁছে পুলিশবাহী লেগুনাটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। সে সময় ময়মনসিংহগামী লেনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে সজোরে ধাক্কা খায় লেগুনাটি। এতে এসআই আবদুর রহমান গুরুতর আহত হন। আহত আবদুর রহমানকে উদ্ধার করে স্থানীয় আল-হেরা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানেই সোমবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
হবিগঞ্জের মাধবপুরে স্পিনিং মিলের তুলার গুদামে আগুন
অনলাইন ডেস্ক: হবিগঞ্জের মাধবপুরের সায়হাম টেক্সটাইলের স্পিনিং মিলের তুলার গুদামে আগুন লেগেছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। হবিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শামসুল আলম বলেন, গোডাউনের ভেতরে আগুন রয়েছে, গোডাউনটি বিশালাকার হওয়ায় আগুন এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। তবে আগুন বাইরে ছড়ায়নি। খবর পেয়ে রাত ২টার দিকে এখানে এসে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেছি। কিসের থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, তাও জানা যায়নি বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এই স্টেশন অফিসার। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্টেশনসহ হবিগঞ্জ সদর ও মাধবপুর উপজেলা স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের মোট আটটি ইউনিটের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন।
বন্দুকযুদ্ধে মাদক বিক্রেতা গুলিবিদ্ধ লালমনিরহাটে
অনলাইন ডেস্ক: লালমনিরহাট সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জাকির হোসেন (৩২) নামে এক মাদক বিক্রেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ জাকির হোসেন ওই এলাকার কাজিচওড়া গ্রামের আজিজার রহমান ওরফে আজিজ মিলেটারির ছেলে। শনিবার (৮ ডিসেম্বর) দিবাগত মধ্যরাতে উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের নিজপাড়ায় এ বন্দুকযুদ্ধ হয়। সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলম জানান, রাতে মাদকের চালান নিয়ে কয়েকজন মাদক বিক্রেতা নিজপাড়ায় এসেছেন-এমন খবরের ভিত্তিতে সেখানে অভিযানে যায় পুলিশ। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা পুলিশের ওপর হামলা করলে পুলিশ শর্টগানের দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। গুলি দুটি মাদক বিক্রেতা জাকিরের দুই পায়ে লাগে। একপর্যায়ে অন্য মাদক বিক্রেতারা পালিয়ে যায়। পরে দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় জাকিরকে গ্রেফতার করে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একশ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।
শেরপুরের মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী আর নেই
অনলাইন ডেস্ক: শেরপুরের নকলা উপজেলাধীন ধনাকুশা গ্রামের মরহুম জাফর আলীর ছেলে মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আজগর আলী আর বেঁেচে নেই। তিনি ৭ ডিসেম্বর শুক্রবার দুপুর দুইটার দিকে ধনাকুশা গ্রামের নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না নিল্লাহী ওয়া----রাজিউন)। মরহুমের জানাজা নামাজ আজ (শনিবার) সকাল ১০ টায় ধনাকুশা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। মৃত্যুকালে মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও দুই মেয়ে সন্তানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে উপজেলায় জীবিত সব মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যসহ সর্বস্তরের মানুষের মনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর মৃত্যুতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এবং উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন, পৌরসভা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন মহল শোক প্রকাশসহ মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী প্রায় এক বছর আগে যক্ষা (টিবি) রোগে আক্রান্ত হন। পরে তাকে দীর্ঘ ৯ মাস যক্ষা রোগের চিকিৎসা দেওয়ার পরে যক্ষা থেকে রক্ষা পান। তার কিছুদিন পরেই আবার অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে রাজধানী ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার পরে তাঁর ফুসফুসে পানি জমেছে বলে সেখানকার চিকিৎসকগন জানান। ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে নিয়মিত চিকিৎসা করলে আজগর আলী সম্পূর্ণ ভাবে সুস্থ্য হয়ে উঠেন। কিন্তু শুক্রবার দুপুরের দিকে হঠাৎ অসুস্থ্যতা বোধ করলে ডাক্তারের কাছে নেওয়ার আগেই তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর মরদেহ নির্দিষ্ট সময় ও স্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হবে বলে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড অফিস সূত্র নিশ্চিত করেছে।

সারা দেশ পাতার আরো খবর