আওয়ামী পেশাজীবি লীগের ইফতার মাহফিলে বক্তারা , যাকাতের সুষম বন্টন ব্যবস্থা নিশ্চিত হলে জাতি দার
বাংলাদেশ আওয়ামী পেশাজীবি লীগ চট্টগ্রাম মহানগর এর উদ্যোগে ৭জুন বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় জাকাতের সুষম বন্টন শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল নগরীর হোটেল ফেভারিন হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের নগর সহ-সভাপতি মোঃ সাবের বাবুলের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক মোঃ আজম খান এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি মহিউদ্দিন মোহাম্মদ ইকবাল। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইসমাইল ফরিদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি প্রশান্ত কুমার বড়–য়া, কায়সার তালুকদার, ইঞ্জিনিয়ার মোক্তাদীর মাওলা, সদস্য হারুন রশিদ মুন্না, সাইফুল আলম ও মোঃ কামাল হোসেন প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি বলেন, রোজার এই মাস সিয়াম সাধনার মাস, এই একমাসের শিক্ষা আমাদের বাকী এগার মাস সামাজিক জীবন ও রাষ্ট্রীয় জীবনে ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি আরো বলেন, জাকাতের সুষম বন্টন ব্যবস্থা নিশ্চিত হলে ধনী গরীব বৈষম্য কমে আসবে, জাতি দারিদ্রতা থেকে মুক্তি পাবে। যাকাতের টাকা দিয়ে গরীব অসতায় শিক্ষিত বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষ্যে ৩৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠ
ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষ্যে দক্ষিণ মধ্য হালিশহর ৩৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল আজ ৭ই জুন বৃহস্পতিবার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এম.হাসান মুরাদের সভাপতিত্বে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মোঃ হাসানের সঞ্চালনায় তাঁর বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী। সভায় বক্তারা বলেন, ৭ই জুন বাঙ্গালী জাতির মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসে এক অনন্য আতœত্যাগে ভাস্বর একটি দিন। বাঙ্গালী জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানি ঔপনিবেশিক শাসকগোষ্ঠীর পরাধীনতার শৃংখল থেকে জাতিকে মুক্ত করতে ১৯৬৬ সালে ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেন। এই ৬ দফা দাবি বাঙ্গালীর স্বাধিকার আন্দোলনকে নতুন পর্যায়ে উন্নীত করে। ৬ দফা আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ৭০ এর নির্বাচনে পাকিস্তানের ঔপনিবেশিক শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বাঙ্গালী আওয়ামী লীগের পক্ষে রায় দেয় এবং বিপুল ভোটে বিজয় অর্জন করে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাঙ্গালীর বিজয় অর্জিত হয় এবং বিশ্বের বুকে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। বক্তারা ঠিক একই ভাবে আগামী নির্বাচনেও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে পূণরায় ক্ষমতায় আনার জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আহবান জানান ও ঈদের পরে মহানগর আওয়ামী লীগ ঘোষিত সদস্য নবায়ন এবং সংগ্রহ কার্যক্রম বেগবান করার জন্য নেতা-কর্মীদের প্রতি দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহনেওয়াজ চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা এস.এম আবু তাহের, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক মোঃ কামাল উদ্দিন মেম্বার, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোরশেদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ কামরুল হোসেন, সহ-দপ্তর সম্পাদক শাহেদ বশর, কার্যনির্বাহী সদস্য সালাউদ্দিন বাদশা, আব্দুল হাকিম মেম্বার, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী আবু নাছের, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সালাউদ্দিন, হাজী হাসান মুন্না, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য মোঃ মঈনু, জাহিদুল আলম মিন্টু, এস.এম বরকত উল্ল্যাহ, হাজী নুরুল হুদা, নজরুল ইসলাম টিটু, মোঃ সাগীর, মোঃ মঞ্জুর আলম, এলেম উদ্দিন, কামরুল হুদা চৌধুরী, সরওয়ার জাহান চৌধুরী, মোজাম্মেল চৌধুরী, মোজাম্মেল মেম্বার প্রমূখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
আদর্শিক রাজনীতির চর্চা করতে গিয়ে প্রতিহিংসার শিকার :রনি
বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষের করা মামলায় নগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি মুক্ত হওয়ায় আনন্দ মিছিল ও তৎক্ষণাৎ সংবর্ধনার আয়োজন করে নগরীর কলেজ, থানা ও ওয়ার্ড ছাত্রলীগ। বিকাল ৫টায় নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত এই সংবর্ধনায় নুরুল আজিম রনি বলেন, “আদর্শিক রজানীতির চর্চা করতে গিয়ে সাধারণ ছাত্রদের পাশে দাড়াতে গিয়ে একটি প্রভাবশীল মাফিয়া চক্রের ষড়যন্ত্রের শিকার মিথ্যা মামলায় আমাকে কারাবরণ করতে হয়। আদালতের প্রতি পুর্ন শ্রদ্ধা রেখে বলতে চাই, একটি থাপ্পরের জন্য কখনোই চাঁদাবাজির মামলা হতে পারেনা। ঐদিন যদি আমি একটি থাপ্পর না মারতাম তাহলে ৯০০ জনেরও অধিক শিক্ষার্থী এইচ এস সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারত না”। তিনি আরো বলেন, যারা বন্দর নিয়ে ষড়যন্ত্র করেছে, খেলার মাঠ নিয়ে ষড়যন্ত্র করেছে তারাই সুস্থ রাজনীতির ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে আমার নামে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করে। এসময় তিনি সকল কর্মী, শুভাকাংখী ও মিডিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করে আগামীতেও জামাত-শিবির-মাফিয়া চক্রের বিরুদ্ধে সকল আন্দোলন সংগ্রামে পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এসময় উক্ত সংবর্ধনায় উপস্থিত ছিলেন কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাসান মনসুর, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য গাজী জাফর উল্লাহ, মহানগর যুবলীগ নেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরী, মো: সাজ্জাদ হোসাইন, ওয়াহিদুল ইসলাম ওয়াহিদ, আখতার হোসেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য ইয়াসিন আরাফাত কচি, আমিনুল করিম, নগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ফখরুল ইসলাম পাভেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সামদানি জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য আবদুল হালিম মিতু, আবু হানিফ রিয়াদ, কাজী মাহমুদুল হাসান রনি, মিজানুর রহমান মিজান, আবদুল বাসেত বাতেন, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা তোছাদ্দেক নূর চৌধুরী তপু, রাকিবুল ইসলাম সেলিম, শেখ তৌহিদ আরদিন, খোরশেদ আলম, এম ই এস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আশিকুন্নবী আশিক, তোফায়েল আহমেদ মামুন, কামরুল ইসলাম রাসেল, মামুন ইসলাম, সুলতান আহমেদ ফয়সাল, শরীফুল ইসলাম শাকিল, রুবেল সরকার, নুরুন্নবী শাহেদ, শাহাদাত হোসেন পারভেজ, রফিক হোসেন, ইয়াকুব রিজভী, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম, জাবেদুল ইসলাম জিতু, মনিরুল ইসলাম, নাজমুল ইসলাম, শরফুল ইসলাম মাহি, মুহসীন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা কাজী নাঈম, আনোয়ার পলাশ, মাইমুন উদ্দিন মামুন, পাঁচলাইশ থানা ছাত্রলীগ নেতা শাহজাদা চৌধুরী, নোমান চৌধুরী রাকিন, ১০নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ আলম মোমিন, ১৮নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক মানিক, ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা জুবায়দেল আলম আশিক প্রমুখ। সংবর্ধনার পূর্বে কারাগার থেকে বের হয়ে নেতাকর্মী সমেত আমানত শাহ(রহ:) মাজার জিয়ারত করেন নুরুল আজিম রনি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ কালিহাতীতে
দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সরাতৈল নামক এলাকায় বুধবার সকাল সোয়া ৭ দিকে তিনজন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো একজন। আহতকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট টাঙ্গাইল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই দুর্ঘটনার ফলে এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে সাময়িক সময়ের জন্য যানজটের সৃষ্টি হয়। বঙ্গবন্ধু সেতু থানার উপপরিদর্শক মো. নূরে আলম সিদ্দিকী জানান, সকাল সোয়া ৭টার দিকে উত্তরবঙ্গ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী একটি পাথরবোঝাই ট্রাক (কুষ্টিয়া-ট ১১-২০৭৮) মহাসড়কের টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সরাতৈল এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি খালি ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো ড-১২-০১১৪) সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই খালি ট্রাকের চালক ও হেলপার নিহত হন। আহত হয় আরো দুইজন। আহতদের উদ্ধার করে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো একজনের মৃত্যু হয়। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। নূরে আলম আরও জানান, দুর্ঘটনার ফলে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হলেও ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাক দ্রুত অপসারণ করা হলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
সিলেট হকার্স লীগ নেতা গ্রেপ্তার
সিলেট মহানগর হকার্স লীগ নেতা আব্দুর রকিবকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে নগরীর বন্দর বাজার ফাঁড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালি মডেল থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফয়াজ উদ্দিন ফয়েজ জানান, সোমবার বিকেলে সড়কে বসতে না দেওয়ায় তার নেতৃত্বে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) মেয়রের ওপর হামলার চেষ্টা ও নগর ভবনে হামলা করে হকাররা। ওই ঘটনায় পরের দিনই রকিবকে প্রধান করে সিটি করপোরেশনের আইন সহকারী শ্যামল রঞ্জন দেব বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাতে ফাঁড়ির পাশে ঘোরাঘুরি করছিল রকিব। এ সময় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। এ মামলায় অজ্ঞাত আরো শতাধিক হকারকে আসামি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। উল্লেখ্য, সোমবার বিকেলে বন্দরবাজার এলাকায় সড়কের প্রায় অর্ধেক পথ জুড়ে বসে হকাররা। এতে পথচারীদের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টির পাশাপাশি রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় সিটি করপোরেশনের কয়েকজন কর্মী সেখানে গিয়ে তাদেরকে রাস্তা ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করেন। এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে হকাররা তাদের ওপর হামলা করলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সেখানে গেলে তাকে লক্ষ্য করে হকাররা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। একইসাথে তারা সিটি করপোরেশনেও হামলা চালায় বলে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়। এ বিষয়ে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, রকিবের নেতৃত্বে পরিকল্পিতভাবে হকাররা সিটি করপোরেশন কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে সিটি করপোরেশনের কর্মচারী আনসার আলী, সুমন আহমদ ও ইউসুফ মিয়া আহত হয়েছেন। এছাড়া, এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন সিলেটের বিশিষ্টজনেরা। তারা বলেছেন, নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় হকারদের তাণ্ডব, নগর ভবনে হামলা এবং মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর ওপর হামলার প্রচেষ্টা কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না। হামলাকারী যেই হোক, তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। সোমবার রাতে নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে নগরবাসীর ব্যানারে এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতি, সিলেট চেম্বার, সিলেট প্রেসক্লাব, বিভিন্ন মার্কেটের ব্যবসায়ীবৃন্দসহ নগরীর বিশিষ্টজনেরা অংশ নেন। সভায় হকারদের তাণ্ডবের চিত্র তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এ সময় তিনি হকার উচ্ছেদ না হওয়া পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন। এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিশিষ্টজনদের নিয়ে নগরীতে হকার উচ্ছেদে অভিযান চালান সিসিক মেয়র আরিফুল হক।
নুরুল আজিম রনির মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন
চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুুরুল আজিম রনির মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন কলেজ সমূহের উদ্যোগে আজ মঙ্গলবার বেলা ২টায় নগরীর প্রেসক্লাব চত্বরে এক বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওমর গণি এম ই এস কলেজ, চট্টগ্রাম কলেজ, হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ, আশেকানে আউলিয়া ডিগ্রী কলেজ, ইসলামিয়া কলেজ ছাত্রলীগ এবং বিভিন্ন ওয়ার্ড ও থানা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মানববন্ধনে সমবেত হয়। চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিমের সভাপতিত্বে এবং চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা জাবেদুল ইসলাম জিতু ও মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মায়মুন উদ্দিন মামুনের যৌথ সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে কেন্দ্রীয় যুবলীগের উপ অর্থ সম্পাদক হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর তার বক্তব্যে বলেন, যেহেতু ছাত্রলীগ নেতা নুরুল আজিম রনি’র বিরুদ্ধে মাফিয়া ও জামায়াত শিবির পরিচালিত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত শিক্ষা ফি আদায়কারীর দায়ের করা মিথ্যা মামলায় তাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাই রনিকে আইনী প্রক্রিয়ার সাথে সাথে রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করে ষড়যন্ত্রের সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন শহীদ ছাত্রনেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মা জাহিদা আমিন চৌধুরী। শহীদ জননী জাহিদা আমিন চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, “একটি মানুষখেকো মাফিয়া চক্রের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে দিয়াজ ইরফান যেমন মৃত্যুবরণ করেছেন ঠিক একই চক্র নুরুল আজিম রনিকে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলার মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেছে। শুনেছি তাঁকেও মারার জন্য কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে”। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এই মাফিয়া চক্রের হাত থেকে নুরুল আজিম রনিকে বাঁচাতে তাঁর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ সময় সংহতি জানিয়ে বক্তারা বলেছেন- সৃজনশীল ও প্রগতিশীল ছাত্র রাজনীতিতে নুরুল আজিম রনি একজন আপোষহীন ছাত্রনেতা। শিক্ষা দুর্নীতি ও প্রতারকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় রনিকে মিথ্যা সাজানো মামলা দিয়ে তার ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করা হচ্ছে। চট্টগ্রামের এক মন্ত্রী ও মাফিয়া ব্যক্তিদের আশ্রয় পেয়ে শিক্ষা ব্যবসায়ী ও জামায়াত শিবির চক্র ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে ধ্বংস করতে চাই। তারা নুরুল আজিম রনির মত সৃজনশীল ছাত্র নেতাকে মুক্তি দেওয়ার দাবী জানান। উক্ত মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাসান মনসুর, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য গাজী জাফর উল্লাহ, আসহাব রসূল জাহেদ, প্রশান্ত চৌধুরী যীশু, খোরশেদ আহমেদ জুয়েল, শিবু প্রসাদ চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা আকতার খান, বিধান বড়–য়া, মো: সাজ্জাদ হোসেন, মনোয়ার আলম নোভেল, হাবিবুর রহমান তারেক, আলী রেজা পিন্টু, আজিজ উদ্দিন চৌধুরী, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এন কে আলম বাসেদ, মহানগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি একরামুল হক রাসেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সামদানি জনি, উপ দপ্তর সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন টিটু, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, আবু হানিফ রিয়াদ, সদস্য সালাউদ্দিন বাবু, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য আমিনুল করিম, ১০নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ আলম মুমিন, এমইএস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আরিফ হোসেন, ইউসুফ তানভীর, মোজাম্মেল হক, পাঁচলাইশ থানা ছাত্রলীগ নেতা শাহজাদা চৌধুরী, নোমান চৌধুরী রাকিন, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মনিরুল ইসলাম, শরফুল ইসলাম মাহি, হাসমত খান আতিফ, মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা কাজী নাঈম, আনোয়ার পলাশ, হারুন অর রশিদ হৃদয়, মাঈন উদ্দিন সোহেল। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর ছাত্রলীগ নেতা তুচ্ছাদেক নূর চৌধুরী তপু, রকিবুল ইসলাম সেলিম, শেখ তৌহিদুল ইসলাম আরদিন, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম, খন্দকার নাঈমুল আজম, আমিরুল করিম, মিনার চৌধুরী, মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শেফায়েত ফাহিম, মীর মোহাম্মদ রবি, আশেকানে আউলিয়া কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মো: সাগর, সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নেজাম উদ্দিন, কমার্স কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মোরশেদ ইমন মেহেদী, ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা তানভীর মেহেদী মাসুদ, জোবাইদুল আলম আশিক, অর্পণ চক্রবর্ত্তী, প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সড়ক দূর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশ ফটোজার্নালষ্টি এসোসিয়েশনের সদস্য হায়দার আলীর আশু সুস্থতা কামনা এবং
গতকাল রোববার রাত ১০টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর রিয়াজ উদ্দীন বাজার থেকে পেশাগত কাজ শেষে মোটর সাইকেলযোগে অফিসে ফেরার পথে কৃষ্ণকুমারী স্কুলের সামনে সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাস বাংলাদশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সদস্য ও দৈনিক পূর্বদেশের ফটো সাংবাদিক হায়দার আলীকে সামনাসামনি ধাক্কা দিলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং গুরুত্বর আহত হয় । মোটর সাইকেলটি গাড়ী নিচে পড়ে ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসক ওনার ডান পায়ে ৬টি সেলাই করেন। এ ঘটনায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু ও সাধারণ সম্পাদক মো: মোস্তাফিজুর রহমান এক বিবৃতিতে ফটো সাংবাদিক হায়দার আলীর আশু সুস্থতা কামনা করেন। হায়দার আলীর চিকিৎসা ও গাড়ী ভাংচুরের জন্য সৌদিয়া পরিবহন কর্তৃপক্ষকে যথাভাবে ক্ষতিপুরনের ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সীতাকুণ্ডের মানুষ এখন শান্তিতে ঘুমায় :দিদারুল আলম এম পি
ভিশন-২০২১ বাস্তবায়ন জননেত্রী শেখ হাসিনার মূল লক্ষ্য। এ লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। সোমবার (০৪ জুন) সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে চট্টগ্রাম-৪ আসনের সংসদ সদস্য দিদারুল আলম ইফতার মাহফিলে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকারের ধারাবাহিকতার কারণে দেশ আজ সমৃদ্ধির পথে এগোচ্ছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ শুধু বাংলাদেশের নেত্রী নন, বিশ্বনেত্রীদের একজন। আসুন সামনের নির্বাচনে দলমত নির্বিশেষে এই বিশ্বনেত্রীর ওপর আস্থা রেখে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সাধারণ মানুষকে সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যায়। তিনি বলেন, আমি যখন এমপি নির্বাচিত হই। তখন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ছিল অশান্ত মহাসড়ক, প্রতিনিয়ত মহাসড়কে নাশকতাকারীরা অগ্নিসন্ত্রাস করতো। আমি উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও প্রশাসনকে নিয়ে অশান্ত সীতাকুণ্ডকে শান্তির সীতাকুণ্ডে পরিণত করি। সীতাকুণ্ডের মানুষ এখন শান্তিতে ঘুমায়। এভাবে শান্তিতে সব সময় ঘুমানোর জন্যই নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে আমি, আপনি সবাইকে। আর নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে না পারলে শান্তিতে আর ঘুমানো সম্ভব হবে না। উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ইসহাকের সভাপতিত্বে যুগ্ম সম্পাদক ও বারৈয়াঢালা ইউপি চেয়ারম্যান রেহান উদ্দিন রেহানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা তারিকুল আলম, সহকারী কমিশনার ভূমি মো. কামরুজ্জামান, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. শাহ আলম, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন বাবলু, উপ-দপ্তর সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. আলাউদ্দিন সাবেরি, সদস্য মো. ইদ্রিস, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক চেয়ারম্যান মহসিন জাহাঙ্গীর, মো. হাসেম ভূঁইয়া, ইউপি চেয়ারম্যান মোরশেদ চৌধুরী, জাহেদ হোসেন নিজামী, নাজিম উদ্দিন, শওকত আলী জাহাঙ্গীর, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুল আলম, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দেলোয়ারা বেগম, সাধারণ সম্পাদক শাহীনূর আক্তার বিউটি, যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক জয়নব বিবি জলি।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সরকার ভোটার শূণ্য একটি নির্বাচন নিশ্চিত করতেই বেগম জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখেছে :ডা. শাহাদাত হোস
চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। শহীদ জিয়ার স্বাধীনতা ঘোষনাই স্বাধীনতাকামী মানুষ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সরকারের নির্দেশে আদালত কর্তৃক সাজা দিয়ে দিনের পর দিন কারাগারে বন্দী করে রেখেছেন। সরকারি বহু তালবাহানার পর সেই মামলায় বেগম খালেদা জিয়া উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেলেও সরকারি কারসাজিতে তার জামিন আটকে দেওয়া হয়েছে। হাইকোর্টের কোন মামলায় জামিন দেওয়ার পর আপিল বিভাগ কারো জামিন স্থগিত করে এমন নজির বাংলাদেশে আর একটিও নেই। ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়ার মামলাগুলো নিম্ন আদালতেই জামিনযোগ্য। অথচ এতে প্রমাণিত হয় সরকার সকল স্বাধীন প্রতিষ্ঠানকে নিজের কব্জায় এনে ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। ডা. শাহাদাত আরো বলেন, ভোটারশূন্য একটি নির্বাচন নিশ্চিত করতেই দুইশ বছরের পুরানো একটি ধ্বংসাবশেষের মধ্যে বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দী করে রাখা হয়েছে। স্যাতস্যাতে, জরাজীর্ণ, বালিধুলোর আক্রান্ত হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সারাক্ষণ কাশি ও জ্বর আক্রান্ত হচ্ছে। হাত ও পায়ের প্রচন্ড ব্যথায় তার হাটাচলাতেও কষ্ট হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা জেনেও তাঁর উপর এই অবৈধ সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসাকে লালন করে কারাগারে আটকে রেখেছে যা অমানবিক ও মানবতাবিরোধী। তিনি আজ ৪ জুন সোমবার বিকেলে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে কোতোয়ালী থানা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ১৯দফা কর্মসূচীর মাধ্যমে স্বনির্ভর একটি বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু দেশী বিদেশী ষড়যন্ত্রে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়নি। কোতোয়ালী থানা বিএনপির সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর বিএনপির সহ সভাপতি হারুন জামান, উপদেষ্টা আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম, জাহেদুল করিম কচি, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সভাপতি এম এ হাশেম, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, আরো বক্তব্য রাখেন গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শিহাব উদ্দিন নবীন, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: সরওয়ার আলম, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক হাজী বেলাল, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন কায়সার লাবু, আবদুল হালিম স্বপন, এ কে এম পেয়ারু, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ডা: লুসি খান, চকবাজার থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মুফিজ উল্লাহ, আলাউদ্দিন আলী নুর, আখতার খান, খন্দকার নুরুল ইসলাম, ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছাদেকুর রহমান রিপন, সাব্বির আহমেদ, সৈয়দ আবুল বশর, আবু আহম্মদ মুহসিন, তৌহিদুর সালাম নিশাত, এম এ হালিম বাবলু, জসিম মিয়া, আবুল ফয়েজ প্রমুখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর