সাবেক মন্ত্রী এম মঞ্জুর মোর্শেদ খানের নেতৃত্বেই আমি মৃত্যুরআগ পর্যন্ত কাজ করে যাব :-এরশাদ উল্লা
২৭ নভেম্বর রাত ৭.৩০ মিনিটের সময় চান্দগাঁওস্থ শহীদ সরাফত উল্লাহর বাড়ির সম্মুখস্থ মাঠে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল চান্দগাঁও-পাঁচলাইশ ও বোয়ালখালী থানার সম্প্রতি-ঐক্য পুনঃমিলন অনুষ্ঠান নগর বি.এন.পি’র সহ-সাধারণ সম্পাদক এস.এম. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম নগর বি.এন.পি’র প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও বি.এন.পি’র উপদেষ্টা প্রবীন রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মহানগর বি.এন.পি’র সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব মোহাম্মদ এরশাদ উল্লাহ, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বি.এন.পি’র যুগ্ম সম্পাদক আর.ইউ চৌধুরী শাহীন, নগর বি.এন.পি’র অর্থ সম্পাদক আলহাজ্ব সৈয়দ মোহাম্মদ সিহাব উদ্দিন আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি, জিয়া শিশু-কিশোর ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান এম.এ. হাশেম রাজু। বক্তব্য রাখেন, চান্দগাঁও থানা বি.এন.পি’র নবনির্বাচিত সভাপতি কাউন্সিলর মোহাম্মদ আজম, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শরীফ উদ্দিন খান, বোয়ালখালী থানা বি.এন.পি’র আহবায়ক মোহাম্মদ শওকত-উল আলম, সদস্য সচিব নুরুল করিম নুরু, যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ সরোয়ার আলমগীর, শফিকুল ইসলাম শাহীন, নগর বি.এন.পি’র সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, চান্দগাঁও ওয়ার্ড বি.এন.পি’র সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল কবির রানা, মোহরা ওয়ার্ড বি.এন.পি’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ফিরোজ খান, কেন্দ্রীয় শ্রমিক দলের সদস্য মোহাম্মদ ইদ্রিস, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদল সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ড বি.এন.পি’র সভাপতি দোস্ত মোহাম্মদ, নগর বি.এন.পি নেতা আলহাজ্ব জাকির হোসেন, চান্দগাঁও থানা যুবদল আহবায়ক জাফর আহমদ, চান্দগাঁও থানা বি.এন.পি নেতা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, বি.এন.পি নেতা মোহাম্মদ ইউসুফ, বি.এন.পি নেতা আবুল বশর কন্টাক্টর, নগর যুবদল নেতা মোহাম্মদ আবু, যুবদল নেতা মোহাম্মদ আলমগীর, নগর ছাত্রদল নেতা মোহাম্মদ ইসমাইল, গোটা অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন বি.এন.পি নেতা মোহাম্মদ ইস্কান্দার, চান্দগাঁও থানা ছাত্রদল নেতা মোহাম্মদ আরিফ, তারেক ও রুবেল। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দেশ আজ রাজনৈতিক, অর্থনৈতিকভাবে গভীর সংকটে নিমর্জিত। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে আজকের এই সম্প্রতি-ঐক্য পুনঃমিলন দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার হাতকে শক্তিশালী করবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বি.এন.পি’র সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব মোহাম্মদ এরশাদ উল্লাহ বলেন, মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আমার রাজনীতির গুরু সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম. মঞ্জুর মোর্শেদ খানের নেতৃত্বেই দলের স্বার্থে কাজ করে যাব। দেশ এবং জাতির এই ক্লান্তিকালে আমাদের ঐক্য মিলন আগামী দিনের গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামে ঐহিতাসিক ভূমিকা রাখবে। আজ সবাইকে সকল ভেদাবেদ ভুলে গিয়ে দেশের স্বাধীন-সার্বভৌম মাটি ও মানুষকে রক্ষা করার লক্ষ্যে দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া-জননেতা তারেক রহমান ও এম. মঞ্জুর মোর্শেদ খানের নেতৃত্বেই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ আহবান জানান। প্রধান বক্তা এম.এ হাশেম রাজু বলেন, লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশে আজ ভারতীয় তাবেদার শেখ হাসিনা সরকার একদলীয় শাসন কায়েম করেছে। এইভাবে একটি দেশ চলতে পারে না। মানুষের ভোটের অধিকার, সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আগামী দিনে দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে রাজপথে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ার শপথ গ্রহনের আহবান জানান। সমাবেশে নেতাকর্মীরা শেখ হাসিনা সরকার পতনের লক্ষ্যে কাফনের কাপড় পড়ে আগামী দিনে আন্দোলন করার লক্ষ্যে শপথ গ্রহণ করেন। শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করে সাবেক ছাত্রনেতা এম.এ হাশেম রাজু। বি.এন.পি নেতা কর্মীরা উভয় কোলাকুলি একে অপরকে ফুলেল মালা দিয়ে বরণ করে নেন। অনুষ্ঠান শেষে মেজবানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে হাজার হাজার নেতাকর্মীর সমাগম ঘটে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঈদে মিলাদুন্নবীতে (সাঃ) বাংলাদেশে ৩ লাখ মাহফিল জনমত গঠনে বড় শক্তি
পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে দেশে কমপক্ষে ৩ লাখ মাহফিল হচ্ছে উল্লেখ করে বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেছেন, এসব মাহফিল বাংলাদেশে জনমত গঠনে বড় শক্তি। মাহফিল থেকেই দেশ-জাতির আশা আকাক্সক্ষা চিন্তা-চেতনার ভিত্তিতে জনমত গঠিত হয়। আর লাখ লাখ মাহফিলের উদ্যোক্তারা হলেন জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতাকর্মী ও সমর্থক। জমিয়াতুল মোদার্রেছীন এই দেশের মাটি থেকে তৈরী উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সংগঠন সুফি দরবেশদের দোয়ায় প্রতিষ্ঠিত। যারা ক্ষমতায় আছেন আর যারা ক্ষমতায় আসতে চান তারা এই সংগঠনকে সহযোগিতা দিয়ে নিজেরা লাভবান হতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজনীতি ও রাষ্ট্র পরিচালনায় দূরদর্শী মন্তব্য করে এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেন, মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে ব্যবস্থা নিন। আমরাও আপনাকে সহযোগিতা করবো। তিনি গতকাল (বুধবার) বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর ২নং গেইটস্থ জিন্নুরাইন কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত এ সম্মেলন মিরসরাই থেকে টেকনাফ পর্যন্ত বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৫ জেলার মাদরাসা শিক্ষকদের বর্ণাঢ্য এক মিলন মেলায় পরিণত হয়। ইনকিলাব সম্পাদক বলেন, মূল্যবোধ ও নৈতিক সমাজ ব্যবস্থা চালু রাখতে এদেশের মাদরাসা শিক্ষক ও আলেম-মাশায়েখগণ কাজ করে যাচ্ছেন। জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত সমাজ কায়েমে তাদের ভূমিকা অপরিসীম। আগামীদিনে একটি সুন্দর সমাজ তথা ইসলামী সমাজ কায়েমে আলেমদের এগিয়ে আসতে হবে। মাদরাসা শিক্ষা কারিকুলাম তথা পাঠ্য বই নিয়ে কোন গবেষণা না করার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, পাঠ্য বইয়ে কোন পরিবর্তন বা পরিমার্জন করতে হলে জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সাথে আলোচনার ভিত্তিতে তা করতে হবে। কোন কিছু চাপিয়ে দেওয়া যাবেন না। চলমান বিশ্বরাজনীতির প্রেক্ষাপটে আগামী দিনের নেতৃত্ব তৈরীতে মাদরাসা শিক্ষকদের আরও বেশি গবেষণা ও অধ্যয়নের প্রতি গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, জীবন মান উন্নয়নের সাথে সাথে শিক্ষকদের মানও বাড়াতে হবে। মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে, ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের বলিষ্ঠ ভূমিকার প্রশংসা করে তিনি বলেন, তার হাত দিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় যে প্রকল্প অনুমোদন পায় সেটিই অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ পায়। সর্বস্তরের মাদারাসা শিক্ষক কর্মচারীদের চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে দেশব্যাপী জনমত গঠনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত এই সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন জমিয়াতের মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজী। তিনি বলেন, শিক্ষক কর্মচারীদের জাতীয়করণের এ দাবিও জমিয়াতুল মোদারের্ছীনের সভাপতি এ এম এম বাহাউদ্দীনের দূরদর্শী নেতৃত্বে আদায় করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাবান্ধব এবং মাদরাসা শিক্ষার প্রতি তিনি বিশেষভঅবে আন্তরিক। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিন্সিপাল মাওলানা হাসান মাসুদ, ফেনী জেলা জমিয়াতের সভাপতি মাওলানা হোসাইন আহমেদ ও কক্সবাজার জেলা জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা কামাল উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম জেলা জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা মোখতার আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহানগর জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা কাযী আবুল বয়ান হাশেমী। মহানগর সেক্রেটারী প্রিন্সিপাল মাওলানা মোহাম্মদ ইসমাইলের সঞ্চালনায় সম্মেলনে কাগতিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল পীরে কামেল আল্লামা ছৈয়দ মুনির উল্লাহ আহমদ (ম.জি.আ.)সহ এ অঞ্চলের শীর্ষ আলেম-মাশায়েখ, বিভিন্ন মাদরাসার প্রিন্সিপালগণ উপস্থিত ছিলেন। এতে আরও বক্তব্য রাখেন সোবহানিয়া আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল আল্লামা মুফতি হারুনুর রশিদ, দারুল উলুম আলিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহবুবুল আলম সিদ্দিকী, প্রিন্সিপাল মাওলানা বদিউল আলম রেজভী, খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি আ ন ম আবদুল করিম, বান্দরবান জেলার সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা জাফর উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ সাদাত উল্লাহ, প্রিন্সিপাল আহমদ হোসাইন আলকাদেরী, মাওলানা শাহাদাত হোসাইন, উপাধ্যক্ষ ড. লিয়াকত আলী, মাওলানা মহিউদ্দিন হাশেমী, প্রিন্সিপাল মাওলানা সাজেদ উল্লাহ আজিজি, অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ ইলিয়াছ, প্রিন্সিপাল মাওলানা মোঃ একরাম হোসাইন, প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা আবু জাফর, প্রিন্সিপাল নজরুল ইসলাম, প্রিন্সিপাল নুরুল আলম প্রমুখ। সম্মেলনের শেষ পর্যায়ে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহবুবুল আলম সিদ্দিকী। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মাদরাসা প্রধান, শিক্ষক-কর্মচারীদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে এ সম্মেলন প্রাণের মিলনমেলায় পরিণত হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
আইনজীবী হত্যা মামলায় রাশেদা সহ চারজনকে চারদিনের রিমান্ড
চট্টগ্রামে আইনজীবী ওমর ফারুক বাপ্পিকে হত্যা মামলায় তাঁর স্ত্রী রাশেদা বেগমসহ চারজনকে চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মেহরাজ রহমান এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডে নেওয়া চার আসামি হলেন রাশেদা বেগম, তার বন্ধু হুমায়ুন রশীদ, আকবর হোসেন ওরফে রুবেল, জাকির হোসেন ওরফে মোল্লা জাকির। এ ছাড়া এ মামলার অপর দুই আসামির ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে। তাঁরা হলেন আল আমিন, মো. পারভেজ ওরফে আলী। তাঁরা সরাসরি হত্যায় অংশ নেন বলে জানা গেছে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিপন পুলিশের (সিএমপি) সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী শাহাবুদ্দিন আহমদ এসব তথ্য সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। আগামী ১০ দিনের মধ্য রিমান্ডের প্রতিবেদন আদালতে পেশ করারও আদেশ দেন আদালত। আইনজীবীরা জানিয়েছেন সমিতির নির্দেশনা অনুযায়ী আসামিদের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী ইফতেখার সাইমুন। গত সোমবার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কুমিল্লা থেকে নিহত ওমর ফারুকের স্ত্রী রাশেদা বেগম ও তাঁর বন্ধু হুমায়ুন রশীদকে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া নগরীর ইপিজেডসহ কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে অন্য চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত শনিবার সকালে নগরীর চকবাজার আমান আলী রোডের একটি ভবনের নিচতলার বাসা থেকে ওমর ফারুক বাপ্পির হাত পা বাধা, শরীরের বিশেষ অঙ্গ কাটা অবস্থায় লাশ উদ্বার করে পুলিশ।
ঝিনাইদহ পাসপোর্ট অফিসের ব্যাপক সাফল্যে এক বছরে একশ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়
ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস গত এক বছরে একশ কোটি টাকার রাজস্ব আয় করে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। এ সময়ে অসুস্থ রোগীদের বিশেষ সুবিধা দেওয়াসহ নাগরিক সেবার মাধ্যমে সুনাম অর্জন করেছে । তথ্য নিয়ে জানা গেছে, ২০১৭ সালের পহেলা জানুয়ারী থেকে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত ঝিনাইদহ আঞ্চলিক অফিস ৯১ কোটি ৫ লাখ ২৯ হাজার টাকার রাজস্ব আয় করেছে। আর নভেম্বর টু নভেম্বর রাজস্ব আয়ের মাত্রা হচ্ছে একশ কোটি টাকা। ঝিনাইদহ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক বজলুর রশিদ জানান, নিদ্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আমরা নাগরিকদের পাসপোর্ট দিচ্ছি। অসুস্থ রোগীদের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিত্বে রয়েছে বিশেষ ধরণের নাগরিক সুবিধা। তিনি বলেন, আমি যোগদানের পর অফিসের কাজে গতি বেড়েছে। দালাল ও অবাঞ্চিত লোকজনদের আনাগোনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নাগরিকরা যাতে কোন প্রকার হয়রানী না হয় সে জন্য সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। তিনি জানান, বিভিন্ন সময় পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের দালাল মুক্ত অভিযানে সহায়তা করা হচ্ছে। এতে অফিসের শৃংখলা বজায় থাকছে। তিনি আরো বলেন, চার কোটি টাকা ব্যায়ে শহরের ডিসি কোর্টের সামনে নিজস্ব পাসপোর্ট ভবন নির্মান করা হচ্ছে। ভবনের কাজ শেষ হলে কাজের গতি আরো বৃদ্ধি পাবে। তিনি বলেন প্রতি বছরের ন্যায় আগামী ফেব্রয়ারী মাসের তিন তারিখে আমরা সেবা সপ্তাহ পালনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।
রাজধানীতে এপিবিএন-৫ এর অভিযানে আটটি প্রতিষ্ঠানকে ২ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকা জরিমানা
রাজধানীতে আটটি প্রতিষ্ঠানকে ২ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ৫ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন-৫) ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। এপিবিএন-৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুর রহমান রুবেল এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহ্ফুজুল আলম মাসুম ও খালিদ আহম্মেদ এ অভিযান পরিচালনা করেন। এপিবিএন-৫ এর অপারেশন্স অফিসার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুর রহমান রুবেল জানান-সোমবার (২৭ই নভেম্বর ২০১৭) মোহাম্মদপুর ঢাকাতে অবৈধ প্রক্রিয়ায় পণ্য প্রক্রিয়াকরণ ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পণ্য বিক্রয় করায় স্বাদ তেহেরী ঘরএর ব্যবস্থাপক মোঃ আঃ সামাদকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা, একই অপরাধে ভূতের বাড়িএর ব্যবস্থাপক মোঃ তোবাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, এবং অবৈধভাবে ফুটপাতে মালামাল রেখে জনসাধারণের চলাচলে বিঘসৃষ্টি করায় কিয়স্কো ডেভেলোপারস্ লিঃ এর ব্যবস্থাপক মোঃ আশরাফ আলী সরকারকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা, কমিপ হেনসিভ হোল্ডিংস্ এন্ড ডেভোলপমেন্ট লিঃএর ব্যবস্থাপক মোঃ মনোয়ার হোসেনকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা ও মোঃ শাহীন আলম নামক এক ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা করে সর্বমোট ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহ্ফুজুল আলম মাসুম। এছাড়াও তিনি জানান-মঙ্গলবার (২৮ই নভেম্বর ২০১৭) নিকুঞ্জ-২, ঢাকাতে অবৈধভাবে ফুটপাতে মালামাল রেখে জনসাধারণের চলাচলে বিঘসৃষ্টি করায় দি সিভিল ইঞ্চিঃ লিঃ এর ব্যবস্থাপক মোঃ সাইফুল ইসলামকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা একই অপরাধে মোঃ আবু হাসান নামক এক ব্যক্তিকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা এবং অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরী করে বিক্রয় করায় টি টি রেষ্টুরেন্টএর ব্যবস্থাপক মোঃ জিয়াউল হককে ১০ হাজার টাকা করে সর্বমোট ৪৩ হাজার টাকা জরিমানা করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খালিদ আহম্মেদ। ঢাকা মহানগর এলাকায় এপিবিএন-৫ এর ভেজাল বিরোধী অভিযান নিয়মিতভাবে অব্যহত থাকবেবলে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুর রহমান রুবেল জানান।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঝিনাইদহে ২৭০ জন অস্বচ্ছল নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ
মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ঝিনাইদহে অস্বচ্ছল নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। জেলা পরিষদের অর্থায়নে মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পরিষদের চত্বরে এ সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আছাদুজ্জামান। এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন, সোহেল, হিলারী, আশরাফুন্নাহার শিখা, ফুরসন্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ্যাড. আব্দুল মালেক মিনা। এসময় বক্তারা বলেন, নারীদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্যই এই সেলাই মেশিন দেওয়া হচ্ছে। আপনাদের মনে রাখতে হবে, এই সেলাই মেশিনগুলো তোমাদের প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন। এই মেশিন বাড়িতে নিয়ে গিয়ে নিজেরা কাজ করার পাশাপাশি আরো নারীদের সেলাই কাজ শিখিয়ে তাদেরও স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে সহযোগিতা করবেন। আলোচনা সভা শেষে জেলার ৬৭ টি ইউনিয়নের অস্বচ্ছল নারী সদস্যদের মাঝে ২৭০ টি সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।
শুরু হয়েছে মেট্রোরেলের কাজ
রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় শুরু হয়েছে মেট্রোরেলের কাজ। মিরপুরের পর খামারবাড়ি থেকে ফার্মগেটের দিকে আসার সড়কটিতে কাটা হচ্ছে সড়ক। ক্রেনের সাহায্যে কালো পিচ, ইট, বালি ও মাটি তুলে লম্বালম্বি গর্ত করা হচ্ছে। আর মেট্রোরেল কার্যক্রমের জন্য আপাতত ওই সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে। ইউলিটি লাইন সরানোর জন্য ফার্মগেটের এ সড়কে সোমবার গভীর রাত থেকে কাটাকাটি শুরু হয়। চলছে সড়কে গর্ত করার কাজও। আর নির্মাণ কাজ চলায় ওই রাস্তায় ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে, পাশাপাশি সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সাইনবোর্ডে ঝুলানো হয়েছে। মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেলায়েত হোসেন জানান, মেট্রোরেলের আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত দুটি প্যাকেজ (সিপি ৫ এবং ৬) এর ইউলিটি শিফটিং শুরু হলো। এ সড়কটি খুবই ব্যস্ত থাকে বলে রাতেই বেশিরভাগ কাজ করা হবে। এ কারণে ১২ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা। সোমবার রাত সাড়ে ১০ টায় একটি সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ কাজ শুরু হয়েছে। পরে রাত ১২ টা থেকে কাজ শুরু হয়। প্রকল্পের তথ্যে দেখা গেছে, প্যাকেজ-৫ ও ৬-এর আওতায় আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ভায়াডাক্ট ও স্টেশন নির্মাণ কাজ। এ কাজের মেয়াদ ২০২০ সালের নভেম্বর পর্যন্ত। এ প্যাকেজ দুটির শুরুতেই মেট্রোরেলের এলাইনমেন্ট বরাবর আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত রাস্তায় মাটির ওপরে ও নিচে থাকা বিভিন্ন পরিষেবা স্থানান্তর করা হবে। এ সময় রাস্তা খনন, মিডিয়ানের গাছপালা, বৈদ্যুতিক তার, খুঁটি, সিগন্যাল বাতি, পানির পাইপ, ভূ-গর্ভস্থ বৈদ্যুতিক লাইন, টেলিফোন/ইন্টারনেট লাইন ইত্যাদি স্থানান্তর করা। মেট্রোরেল প্রকল্প সূত্র জানায়, মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেলের রুটে মাটির নিচে ও ওপরে যেসব সঞ্চালন লাইন রয়েছে, সেগুলো সরানোর কাজ দ্রুত গতিতে হবে। কারণ ঢাকার সবচেয়ে বেশি ট্রাফিক ব্যস্ততা এ সড়কে। এর আগে পল্লবী থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত এমন কাজ করা হয়েছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে লম্বালম্বি ও আড়াআড়িভাবে বিভিন্ন সেবা প্রতিষ্ঠানের তার, পাইপসহ নানা সরঞ্জাম ও লাইন স্থানান্তর করা হয়। প্রকল্প এলাকায় ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো), পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি (পিজিসিবি), তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (তিতাস), বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি (বিটিসিএল), ঢাকা ওয়াটার সাপ্লাই অ্যান্ড স্যুয়ারেজ অথরিটি (ওয়াসা), ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), গ্রামীণফোন, এমইএস, এসসিএল, এফঅ্যান্ডএইচ ও ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নানা ইউটিলিটি লাইন পাওয়া গেছে। এ সড়কে নিচে ১৫ টির বেশি ইউটিলিটি লাইন আছে। উত্তরা-পল্লবী-রোকেয়া সরণির পশ্চিম পাশ দিয়ে খামারবাড়ি হয়ে ফার্মগেট-হোটেল সোনারগাঁও-শাহবাগ-টিএসসি-দোয়েল চত্ত্বর-তোপখানা রোড হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত যাবে ২০ কিলোমিটার মেট্রোরেল। মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা মোট ১৬টি। সেগুলো হচ্ছে-উত্তরা উত্তর, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা দক্ষিণ, পল্লবী, মিরপুর-১১,মিরপুর-১০, কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ, টিএসসি, প্রেসক্লাব এবং মতিঝিল। রুটের মোট দৈর্ঘ্য ২০ দশমিক ১ কিলোমিটার, রোলিং স্টক ২৪ সেট। প্রতি সেটে ৬টি করে কার থাকবে। ঘণ্টায় গতিবেগ ১০০ কিলোমিটার এবং ৬০ হাজার যাত্রী পরিবহনে সক্ষম।

সারা দেশ পাতার আরো খবর