আজকের আবহাওয়া
সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সে. বাড়তে পারে। এছাড়া, যশোর নীলফামারী, দিনাজপুর, সৈয়দপুর, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম ও শ্রীমঙ্গলের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কমতে হতে পারে। আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ কথা বলা হয়। এতে বলা হয়, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। অন্যদিকে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও-কোথাও মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমির স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। আগামীকাল ঢাকায় সুর্যোদয় ভোর ৬ টা ৪০ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫ টা ৪৪ মিনিটে ।
সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বই প্রকাশ করলেই ব্যবস্থা
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, অমর একুশে বইমেলায় সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানতে পারে, এমন কোনো বইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট লেখক-প্রকাশকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। মঙ্গলবার বইমেলার নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শনের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। লেখক-প্রকাশকদের উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে এমন বই মেলায় না আনার অনুরোধ করছি। যদি কেউ এমন বই আনে, তা হলে বাংলা একাডেমির গঠিত কমিটি এবং ডিএমপির সদস্যরা এগুলো শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। এ ছাড়া গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা বই শনাক্তে নজরদারি করবেন। একুশে বইমেলার নিরাপত্তার বিষয়ে কমিশনার বলেন, মেলা কেন্দ্র করে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মেলার ভেতর ও চারপাশে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। মেলায় প্রবেশ ও বাইরে আলাদা গেট থাকবে, যাতে দর্শনার্থী বের হওয়ার সময় শ্লীলতাহানি কিংবা ধাক্কাধাক্কির ঘটনা না ঘটে। প্রবেশ গেটে আর্চওয়ে লাগানো হবে। এ ছাড়া পুলিশের সদস্যরা মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে আগতদের তল্লাশি করবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মেলায় আগতদের ভ্যানিটি ব্যাগ, ব্যাকপ্যাক, ধারালো অস্ত্র এবং দাহ্য পদার্থ নিয়ে না আসার অনুরোধ জানান কমিশনার।
শাহজালালে সোনাসহ ভারতীয় নাগরিক আটক
হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ছয় কেজি সোনাসহ সৌমিক দত্ত নামে এক ভারতীয় নাগরিককে আটক করেছে বিমানবন্দর কাস্টমস। রোববার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিমানবন্দরের গ্রিন চ্যানেল অতিক্রম করার সময় তাকে আটক করা হয়। সোনাগুলো ছোট ছোট আকারের বল বানিয়ে কম্প্রেসারের ভেতরে নিয়ে আসেন সৌমিক। বিমানবন্দর কাস্টমসের সহকারী কমিশনার অথেলো চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সৌমিক রিজেন্ট এয়ারের আরএক্স৭৮৫ ফ্লাইটে রাত সাড়ে ১২টার দিকে শাহজালালে অবতরণ করলে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে ওয়াটার ডিসপেনসার কম্প্রেসারে অভিনব কায়দায় করে আনা ৬ কেজি সোনা তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। অথেলো জানান, জব্দকৃত সোনার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় তিন কোটি টাকা।
বাড়তে পারে শীতের প্রভাব
দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই শীতল বাতাস। দেশের বেশির ভাগ এলাকায় এক দিনের ব্যবধানে তাপমাত্রা ২ থেকে ৩ ডিগ্রি কমে গেছে। শৈত্যপ্রবাহ সিলেট ও চুয়াডাঙ্গা ছাড়িয়ে দেশের পুরো উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আজ শৈত্যপ্রবাহ রাজধানীতে ঢুকে পড়তে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে দেশের মধ্যাঞ্চলে। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলজুড়ে আজ মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। দেশের বাকি এলাকায় কুয়াশা পড়বে হালকা থেকে মাঝারি। বিশেষ করে নদী তীরবর্তী এলাকায় কুয়াশা পড়বে বেশি। এতে সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা কমে আসতে পারে। ফলে শীতের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে। তবে চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহের শুরুতে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছিল, ২৫ জানুয়ারি থেকে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ আসছে। কিন্তু ২৫, ২৬ ও ২৭ জানুয়ারি সিলেট এবং চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাড়া দেশের কোথাও শৈত্যপ্রবাহ ছিল না। গতকাল রোববার থেকে শৈত্যপ্রবাহ দেশের উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অনেক এলাকায় শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, অনেক সময় পূর্বাভাসের চেয়ে দু-এক দিনের হেরফের হতে পারে। বিভিন্ন আবহাওয়াগত কারণে শৈত্যপ্রবাহটি আসতে একটু দেরি হয়েছে। তবে এটি দীর্ঘস্থায়ী ও তীব্র হওয়ার সম্ভাবনা কম। আগামী দুদিন শৈত্যপ্রবাহটি চলতে পারে। গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপর শ্রীমঙ্গলে ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি ও ঈশ্বরদীতে ৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
আগামী ২৪ ঘন্টা আবহাওয়া অপরিবর্তিত থাকতে পারে
সীতাকুন্ড অঞ্চলসহ ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের উপর দিয়ে যে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা অব্যাহত থাকতে পারে । সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকার সম্ভবনা রয়েছে। রোববার সকাল ৯ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে জানিয়ে অধিদপ্তর পূবার্ভাসে আরও জানিয়েছে, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তরপশ্চিমাঞ্চল ও নদী অববাহিকায় মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। এছাড়া, উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে । আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ সকাল ৬ টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৪ শতাংশ। আগামীকাল ঢাকায় সোমবার ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৪১ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধ্যা ৫ টা ৪১ মিনিটে । পরবর্তী ৭২ ঘন্টার (৩ দিন) আবহাওয়ার পূর্বাভাসে অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, এই সময়ের শেষের দিকে রাতের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে।
দেশের কোথাও কোথাও শীতের প্রবনতা বাড়তে পারে
দেশের দক্ষিণাঞ্চলে শৈতপ্রবাহ কেটে গেলেও আজ রাতে কোন কোন অঞ্চলে তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে এবং শৈত প্রবাহ বিস্তার লাভ করতে পারে বলে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান। আগামী ৩০ জানুয়ারির পর সারাদেশ থেকে শৈত প্রবাহ অনেকটা কেটে যেতে পারে বলে তিনি জানান। শনিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টায় আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, শ্রীমঙ্গল, পাবনা ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। এছাড়া অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। শনিবার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকায় ও উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। আজ সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতা ছিল ৭৪ শতাংশ। আগামীকাল ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৪২ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫টা ৪১ মিনিটে। আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।
অটোমেশনের ফলে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ
অটোমেশনের আওতায় এসেছে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ। গত ২০ জানুয়ারি কাজেম আলী মেমোরিয়াল হলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বাটন টিপে অটোমেশন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। এসময় তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মনিটরিং কার্যক্রম না থাকলে মানসম্মত শিক্ষাদান কখনো সম্ভব হয় না। তাই অটোমেশনের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে যদি সার্বক্ষণিক নজরদারির মধ্যে আনা যায় তাহলে আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা নিশ্চিত হয়। মেয়র আরো বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানসম্মত ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা সরকারের লক্ষ্য। অটোমেশন কার্যক্রমের মাধ্যমে ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উন্নত পর্যায়ে চলে এসেছে। কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজে অটোমেশন কার্যক্রম চালুর ফলে প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষায় আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল প্রতিষ্ঠানটি। কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও দৈনিক বীর চট্টগ্রাম মঞ্চর সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুকের সভাপতিত্বে অটোমেশন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, অভিভাবক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শামসেদ বেগম চৌধুরী, অধ্যাপক শিলাব্রত দাশ। শিক্ষিকা মুনমুন জাহানের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপাধ্যক্ষ সানজিদা মোক্তার, সহকারী প্রধান শিক্ষক লুৎফুল কবির ভূঁইয়া প্রমুখ। সভাপতির বক্তৃতায় সৈয়দ উমর ফারুক বলেন, শিক্ষার মান উন্নয়ন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে নিয়ম শৃঙ্খলা এবং স্কুলে তাদের উপস্থিতি নিশ্চিতকরণে প্রতিষ্ঠানকে অটোমেশনের আওতায় আনা হয়েছে। এ পদ্ধতি চালুর ফলে অভিভাবক জানতে পারবেন তার সন্তান স্কুলে উপস্থিত হয়েছে কিনা। তিনি আরো বলেন, কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজে আমরা উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলেছি। শিক্ষা-দীক্ষা, খেলাধুলা ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় আমাদের শিক্ষার্থীরা সাফল্য অর্জন করেছে। এ বছর কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ কোতোয়ালী থানার সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে।
সত্যেন্দ্র-মায়া ফাউন্ডেশনের গুনিজন সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান
সত্যেন্দ্র-মায়া ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গতকাল মঙ্গলবার (২৩জানুয়ারি) নগরীর অক্সিজেনস্থ হাজী ভবনে বিকাল তিনটায় গুণিজন সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে সমাজ সেবা ও রাজনীতি, পেশাগত দায়িত্বপালনে দক্ষতাসহ বিভিন্ন ক্রেত্রে অবদান রাখায় চট্টগ্রামের ৫ জনকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। সম্মাননা প্রাপ্তরা হলেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্যা ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি শাহিদা আকতার জাহান, চট্টগ্রাম রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি কিরন শর্মা, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বেবি বড়–য়া, সিটিজি ক্রাইম টিভির ভাইস চেয়ারম্যান আজগর আলী মানিক, চট্টগ্রাম রিপোর্টার ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী হুমায়ুন কবির, দৈনিক সাঙ্গু সিনিয়র সাংবাদিক নজরুল ইসলাম। গুনিজন সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাংবাদিক আজগর আলী মানিক, বক্ত্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্যা ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি শাহিদা আকতার জাহান, চট্টগ্রাম রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি কিরন শর্মা, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বেবি বড়–য়া, সিটিজি ক্রাইম টিভির ভাইস চেয়ারম্যান আজগর আলী মানিক, চট্টগ্রাম রিপোর্টার ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী হুমায়ুন কবির, দৈনিক সাঙ্গু সিনিয়র সাংবাদিক নজরুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন রাউজান উর্কিচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দুলাল কান্তি বড়–য়া, সংগঠনের উপদেষ্ঠা প্রকৌশলী পরিতোষ কুমার বড়–য়া, সত্যেন্দ্র-মায়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সাংবাদিক রতন বড়–য়া, সিনিয়র সাংবাদিক সমীরন পাল, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী রাঁধা রানী চৌধুরী, সাংবাদিক লায়লা ইয়াছমিন নুরী, সাংবাদিক লোকমান আনছারী, সাংবাদিক আবু হাসান মুহাম্মদ কায়ছার, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম, সাংবাদিক সাদ্দাম হোসেন, সাংবাদিক রকেট বড়–য়া, সাংবাদিক মরিয়ম বেগম এনজেল, শারমিন আকতার, ডা. প্রবেশ কুমার বড়–য়া, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগ নেতা হুমায়ুন কবির প্রমুখ। এসময় বক্তরা বলেন, সত্যেন্দ্র-মায়া ফাউন্ডেশন প্রতি বছর সমাজের গুণিজনদেও সংবর্ধান দিয়ে সমাজে যারা নিরবে নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন তাদেও কর্মকান্ডকে উৎসাহিত করে যাচ্ছেন। সত্যেন্দ্র-মায়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সাংবাদিক রতন বড়–য়া বলেন, আমার মা বাবার মারা যাওয়ার আগে আমাকে উপদেশ দিয়ে গিয়েছিলেন সমাজের যারা ভাল কাজ করে যাচ্ছে তাদেরকে সম্মান করার জন্য। আমি প্রতি বছর আমরা পারিবারিকভাবে মা বাবার স্মৃতি ধরে রাখার জন্য এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে।
সৈয়দ আহমদ উল্লাণ্ঢাহ্ মাইজভাণ্ডারীর উরস শরিফ সম্পন্ন
মাইজভাণ্ডারীয়া ত্বরিকার প্রবর্তক গাউসুল আযম হযরত মাওলানা সৈয়দ আহমদ উল্লাণ্ঢাহ্ মাইজভাণ্ডারীর উরস শরিফ সম্পন্ন উপমহাদেশের প্রখ্যাত অলিয়ে কামেল, বাংলার জমিনে প্রবর্তিত একমাত্র ত্বরিকা, ত্বরিকা-ই-মাইজভাণ্ডারীয়ার প্রবর্তক খাতেমুল অলদ গাউসুল আযম হযরত মাওলানা শাহ্সূফি সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারী (কঃ) এর ১১২তম উরস শরিফ উপলক্ষে তদীয় প্রপৌত্র শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারীর নামে প্রতিষ্ঠিত গাউসিয়া হক মন্জিলে যথাযথ ধর্মীয় আবহে ব্যাপক জীবন ঘনিষ্ঠ মানবতাবাদী কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মাইজভাণ্ডার শরিফ গাউসিয়া হক মন্জিলে ২৩ জানুয়ারি মঙ্গলবার উরস শরিফ সম্পন্ন হয়েছে। মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ নিয়ন্ত্রণাধীন দেশব্যাপী শাখা কমিটি সমূহের বিপুল সংখ্যক আশেক-ভক্তের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে খতমে কুরআন, মিলাদ, অজিফা পাঠ ও আল্লাহ্ আল্লাহ্ জিকিরের ধক্ষনিতে মাইজভাণ্ডার শরিফ মুখরিত ছিল। বাদ ফজর রওজা শরিফে গোসল ও গিলাফ চড়ানোর মাধ্যমে উরশ শরিফের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। রাত সাড়ে বারোটায় অনুষ্ঠিত হয় কেন্দ্রিয় মিলাদ মাহ্ফিল। দেশ ও জাতির কল্যাণে আখেরি মুনাজাত পরিচালনা করেন শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (কঃ)র একমাত্র পুত্র গাউসিয়া হক মন্জিলের সাজ্জাদানশীন, আওলাদে গাউসুল আযম হযরত সৈয়দ মোহাম্মদ হাসান মাইজভাণ্ডারী (মঃ)। এদিকে উরস শরিফ উপলক্ষে শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের (SZHM Trust) ১০ দিনব্যাপি কর্মসূচির মধ্যে ছিল- (১) যাকাত অর্থ বিতরণ, (২) মাইজভাণ্ডারীয়া ত্বরিকার রূপরেখা : তত্ত্ব ও বাস্তবতা শীর্ষক সেমিনার, (৩) আন্ত ঃ ধর্মীয় সম্প্রীতি সম্মিলন, (৪) উলামা সমাবেশ, (৫) আলোর পথে আয়োজিত মহিলা মাহফিল, (৬) দি মেসেজ আয়োজিত মহিলা মাহফিল, (৭) শিক্ষক সমাবেশ, (৮) ১১তম শিশু কিশোর সমাবেশ, (৯) মসজিদে মসজিদে কুরআন তেলাওয়াত ও মিলাদ মাহফিল, (১০) মেধাবৃত্তি প্রাপ্তদের মাঝে বৃত্তির অর্থ প্রদান, এসজেডএম ট্রাস্ট পরিচালিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রেলি ও আলোচনা সভা, (১১) ফটিকছড়ি উপজেলায় রেজিস্টার্ড এতিমখানা সমূহের ছাত্র-ছাত্রীদের একবেলা খাবার সরবরাহ, (১২) ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য সম্বলিত দুর্লভ চিত্র ও ভিডিও প্রদর্শনী এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। পবিত্র উরস্ শরিফের বিধিবদ্ধ কার্যকলাপের পাশাপাশি ব্যাপক জনসম্পৃক্ত একান্ত জীবন-ঘনিষ্ঠ উল্লিখিত কর্মসূচিসমূহ মাইজভাণ্ডার দরবার শরিফের ইতিহাসে এক সৃজনশীল ও নতুন মাত্রিকতা ইতোমধ্যে লাখো আশেক ভক্তসহ বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর সচেতন দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে প্রশংসনীয়ভাবে। মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পর্ষদ উরস শরিফে দায়িত্ব পালনকালে ফটিকছড়ি প্রশাসন, পুলিশ বাহিনী, অগ্নি নির্বাপন ও সিভিল ডিফেন্স, রেব, স্বেচ্ছাসেবকসহ সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

সারা দেশ পাতার আরো খবর