বুধবার, এপ্রিল ২১, ২০২১
নেপাল পৌঁছেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল
১৮,মার্চ,বৃহস্পতিবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে অংশ নিতে বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) নেপাল পৌঁছেছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। শেষ দিনের করোনা পরীক্ষায় পজেটিভ হয়ে আপাতত আইসোলেশনে আছেন ডিফেন্ডার রহমত মিয়া। তবে নেগেটিভ হওয়ায় ছাড়পত্র পেয়েছেন রাকিব। করোনার উপসর্গ থাকায় বুধবার (১৭ মার্চ) কোভিড পরীক্ষা করা হয় ৪ ফুটবলারের। এরমধ্যে পজেটিভ আসে রহমতের। ২০ মার্চ আবারো করোনা পরীক্ষা করা হবে তার। এ দফায় নেগেটিভ আসলে ২২ তারিখ দলের সঙ্গে যোগ দেবেন এই ডিফেন্ডার। প্রথম দফায় তাই নেপাল গেল ২৩ ফুটবলার। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া নেপাল যাবেন সোমবার (২২ মার্চ)। বৃহস্পতিবার পৌঁছে কোন অনুশীলন করেনি দল। শুক্রবার (১৯ মার্চ) থেকে সকাল-বিকেল দুই দফা নিজেদের ঝালিয়ে নেবেন ফুটবলাররা। ২৩ মার্চ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে কিরগিস্তানের মুখোমুখি হবে বালাদেশ।
আখাউড়ার পাঁচ শতাধিক দৌঁড়বিদের অংশগ্রহণে হাফ ম্যারাথন
১৭,মার্চ,বুধবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় পাঁচ শতাধিক দৌঁড়বিদের অংশগ্রহণে হাফ ম্যারাথন শুরু হয়েছে। বুধবার (১৭ মার্চ) ভোরের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে তরুণ থেকে শুরু করে বৃদ্ধরাও এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে জড়ো হতে থাকেন উপজেলা পরিষদের মাঠে। সেখান থেকে তাদের যাত্রা শুরু হয়। মাঝে মধ্যে ম্যারাথনে অংশগ্রহণকারীদের আনন্দ চিৎকারে বহুদূর পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে উৎসবের আমেজ। সকাল ছয়টায় ম্যারাথন উদ্বোধন করেন আখাউড়া পৌরসভার মেয়র মো. তাকজিল খলিফা কাজল। এ সময় আখাউড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল কাসেম ভূঁইয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নূর-এ আলম, কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. মশিউর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মনির হোসেন বাবুল, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আব্দুল মমিন বাবুলসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে কুমিল্লাস্থ আখাউড়া ছাত্রকল্যাণ পরিষদ এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এতে দুটি গ্রুপ ২১ ও ১০ কিলোমিটার ম্যারাথনে অংশ নেয়। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ২০ বছর বয়সী থেকে শুরু করে ৬১ বছর বয়সীরাও অংশ নেন এ হাফ ম্যারাথনে। ম্যারাথনকে কেন্দ্র করে আখাউড়ায় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছিল।
রেকর্ড ছোঁয়ার ম্যাচে মেসির জোড়া গোল, বার্সার দাপুটে জয়
১৬,মার্চ,মঙ্গলবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চ্যাম্পিয়নস লিগের হতাশা ভুলে লিগ পুনরুদ্ধারের মিশনে ভালোভাবেই নেমেছেন মেসিরা। দুর্বল হুয়েস্কার বিপক্ষে বার্সার জয় নিয়ে সংশয় ছিল সামান্যই। নিজেদের মাঠে বার্সা কত গোলে জিতবে, তা নিয়েই বরং ছিল আলোচনা। সোমবার রাতে ন্যু ক্যাম্পে বার্সা জিতেছে ৪-১ গোলে। গোল করেছেন বার্সার তিন খেলোয়াড়। রেকর্ড ছোঁয়ার ম্যাচে মেসি জোড়া গোল করার মাঝে সতীর্থের গোলে রাখলেন অবদান। নজরকাড়া পারফরম্যান্সে আলো ছড়াল বার্সেলোনা। হুয়েস্কাকে উড়িয়ে লা লিগায় টানা ১৭ ম্যাচ অপরাজেয় থাকল রেনাল্ড কুমানের দল। গত ৫ ডিসেম্বরের পর আর হারেনি তারা। মেসি দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অঁতোয়ান গ্রিজমান। রাফা মির একটি গোল শোধ করার পর দ্বিতীয়ার্ধে অস্কার মিনগেসার গোলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় বার্সা। শেষে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলার। দারুণ এই জয়ে রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে আবারও পয়েন্ট তালিকায় দুইয়ে ফিরেছে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় সফলতম দলটি। শীর্ষে থাকা অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের সঙ্গে তাদের ব্যবধান এখন মাত্র ৪ পয়েন্টের। এই ম্যাচ দিয়ে ক্লাবের ইতিহাসে জাভি হার্নান্দেসের সর্বোচ্চ ম্যাচের রেকর্ড স্পর্শ করলেন মেসি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে দুজনের ম্যাচ এখন ৭৬৭। রেকর্ড ছোঁয়ার উপলক্ষ রাঙাতে মোটেও দেরি করেননি মেসি। ত্রয়োদশ মিনিটে অসাধারণ নৈপুণ্যে দলকে এগিয়ে নেন তিনি। দারুণ ভঙ্গিমায় প্রতিপক্ষের বাধা এড়িয়ে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে গোলটি করেন আর্জেন্টাইন তারকা। বল ক্রসবারের ভেতরের কানায় লেগে জালে জড়ায়। গ্রিজমানের ব্যবধান দ্বিগুণ করা গোলটিও দর্শনীয়। ৩৬তম মিনিটে পেদ্রির বাড়ানো বল ধরে একটু এগিয়ে সামনে ফাঁকা পেয়ে দূর থেকে জোরালো শট নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ঝাঁপিয়েও বলের নাগাল পাননি হুয়েস্কা গোলরক্ষক। বিরতির ঠিক আগের শেষ শটে ব্যবধান কমায় হুয়েস্কা। দারুণ এক প্রতি-আক্রমণে রাফা মির ডি-বক্সে ঢুকে পড়লেও সতীর্থের ক্রসে পা লাগাতে ব্যর্থ হন। তবে টের স্টেগেন এগিয়ে এসে তাকে ফাউল করে বসেন। পেনাল্টি পেয়ে কাজে লাগাতে ভুল করেননি স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড মির। চাপ ধরে রেখে দ্বিতীয়ার্ধের অষ্টম মিনিটে ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা। বাঁ দিক থেকে মেসির দারুণ ক্রসে লাফিয়ে হেডে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন অরক্ষিত মিনগেসা। বার্সেলোনা যুব দল থেকে উঠে আসা তরুণ ডিফেন্ডারের মূল দলের হয়ে এটি প্রথম গোল। চার মিনিট পর দারুণ প্রতি-আক্রমণে সুবর্ণ সুযোগ পায় ওয়েস্কা। তবে বাঁ দিক থেকে সতীর্থের হেডে গোলমুখে বল পেয়েও জালে জড়াতে পারেননি মির। বল তার বুকে লেগে ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়। অবিশ্বাস্য মিস! নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে স্কোরলাইন ৪-১ করেন মেসি। ত্রিনকাওয়ের পাস পেয়ে দূর থেকে বার্সেলোনা অধিনায়কের নেওয়া শটে বল প্রতিপক্ষের এক জনের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। আরেকটি পিচিচি ট্রফির পথে ছুটে চলা মেসির গোল হলো ২১টি। বার্সেলোনার জার্সিতে ৭৬৭ ম্যাচে তার মোট গোল এখন ৬৬১। লিগে ২৭ ম্যাচে ১৮ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে দুইয়ে ফেরা বার্সেলোনার পয়েন্ট হলো ৫৯। ২ পয়েন্ট কম নিয়ে তিনে নেমে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে অ্যাতলেটিকো।
মাশরাফীর শহরে এ যেন আরেক মাশরাফী
১৫,মার্চ,সোমবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অভিষেক দাশ অরণ্য। টাইগারদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম নায়ক। দুরন্ত পেসের সঙ্গে মিডল অর্ডারে দারুণ ব্যাটিংয়ে, যিনি নজর কেড়েছিলেন সবার। কিন্তু ইনজুরিতে দীর্ঘদিন মাঠের বাইরে এ যুবা। বর্তমানে বিসিবির চিকিৎসকদের অধীনে আছেন রিহ্যাব প্রক্রিয়ায়। কঠিন এই সময়ে নিজেকে ভিন্ন ভাবে প্রস্তুত করছেন অভিষেক। যেখানে অনুপ্রেরণা খুঁজেন মাশরাফীতে। মাশরাফীর শহরে এ যেন এক নতুন মাশরাফী। অভিষেক দাশের কথা মনে আছে তো? গেলো বছর যুব বিশ্বকাপে যার পেস তাণ্ডবে মাটিতে নেমেছিলো ভারতের অহম। ফাইনালে তিন উইকেট নিয়ে ধসিয়ে দিয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং লাইনআপ। সেই সাফল্যের পর অভিষেক ছুটছিলেন বিদ্যুৎ গতিতে। কিন্তু হঠাৎই যেন ছন্দপতন। সখ্যতা ইনজুরির সঙ্গে। এরপর থেকে মাস ছয়েক পেরুলো রিহ্যাবেই আছেন এই টাইগার যুবা। সতীর্থরা যখন মাঠ মাতাচ্ছেন তখন অভিষেক লড়ছেন চেনা শত্রু ইনজুরির বিপক্ষে। অভিষেক দাশ অরণ্য বলেন, আমার ট্রিটম্যান্ট চলছে। খেলতা না পারাটা অনেক কঠিন। খারাপ লাগে। তবে অনেক কিছুই শিখেছি। তবে সেখানে আছে অনুপ্রেরণা। সেটা নড়াইলের আরেক সন্তান মাশরাফীর জন্য। ম্যাশের মতোই অভিষেকও পেসার, বাটিংটাও করেন জুঁতসই। ইনজুরির এই কঠিন সময়ে বাস্তবতাকে মেনে অনুপ্রেরণা খোঁজেন মাশরাফীতেই। অভিষেক দাশ অরণ্য আরো বলেন, মাশরাফী ভাই বলেছেন যেভাবে আগাচ্ছি সেভাবেই আগাতে। আমাকে সব সময় সাহস দেয়। সব ঠিক থাকলে আগামী জুলাই নাগাদ ইনজুরি কাটিয়ে পুরোপুরি মাঠে ফিরতে পারবেন অভিষেক।
২০২২ আইপিএল হবে দশ দলের
১৪,মার্চ,রবিবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা মহামারির এই সময়ে শুরু হচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ১৪তম আসর। গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হলেও এবার সেটি আর হচ্ছে না। এবারের আসর দশটি দল নিয়ে করার কথা থাকলেও করোনার কারণে সিদ্ধান্ত বদলায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। এবার সেটি না হলেও আগামী আসরে অর্থাৎ, ১৫তম আসর দশ দলে হবে বলে জানাচ্ছে ভারতীয় গণমাধ্যমে। আরও জানিয়েছে, আইপিএলের আসন্ন আসরের শেষের দিকে মে মাসে ২০২২ আসরের নিলাম আয়োজনের সিদ্ধান্তও সৌরভ গাঙ্গুলী-জয় শাহ সহ বিসিসিআইয়ের সভায়। বোর্ডের এক কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেছেন, ২০২২ আইপিএল অনুষ্ঠিত হবে ১০ দল নিয়ে। আসন্ন আসরের শেষ দিকে অর্থাৎ, মে মাসের মধ্যে নতুন দুটি ফ্র্যাঞ্চাইজির নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। এর আগেও আইপিএল অনুষ্ঠিত হয়েছিল দশ দল নিয়ে। ২০১১ সালের আসরে বাড়তি দুই দল ছিল কোচি টাস্কার্স কেরালা ও পুনে ওয়ারিয়র্স। এরপর ২০১২ ও ২০১৩ খেলে নয়টি দল। ২০১৪ সাল থেকে আসন্ন আসর পর্যন্ত আট দলই খেলেছে। যদিও ২০১৬ ও ২০১৭ সালে সাময়িক নিষিদ্ধ হওয়া চেন্নাই সুপার কিংস ও রাজস্থান রয়্যালসের পরিবর্তে খেলেছিল রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টস ও গুজরাট লায়ন্স। ২০১৮ সালে দুটি দলের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় আবারও বাদ পড়ে পুনে ও গুজরাট।
লঙ্কানদের বড় ব্যবধানে হারিয়ে এগিয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১১,মার্চ,বৃহস্পতিবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এতে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ক্যারিবীয়রা। বুধবার রাতে স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ ওভারে ২৩২ রানে অলআউট হয় লঙ্কান। দলের হয়ে অর্ধশতক পূর্ণ করেন ধানুশকা গুনাথিলাকা (৫৫), অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে (৫২) ও আশেন বান্দারা (৫০*)। রান তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতেই ১৪৩ রান যোগ করে ফেলেন লুইস ও হোপ। দুজনই এগুচ্ছিলেন ব্যক্তিগত সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু ৬৫ রানের মাথায় থামেন লুইস। দুশমন্থ চামিরার নিখুঁত ইয়র্কারের জবাব খুঁজে পাননি বাঁহাতি এই ওপেনার। নিজের সেঞ্চুরি তুলে নিতে ভুল করেননি শাই হোপ। ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি পূরণ করতে খেলেন ১২৫ বল। সবমিলিয়ে ১৩৩ বলে ১১০ রান করে আউট হন তিনি। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৭৯তম ম্যাচে ১০তম সেঞ্চুরি করেন তিনি। হোপের উইকেটও নেন চামিরা। ড্যারেন ব্রাভো ৩৭ ও জেসন মোহাম্মদ ১৩ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন। আগামী শুক্রবার ১২ মার্চ একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ-শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শুরু হবে ম্যাচটি।
নিউজিল্যান্ডে বসে শেখ হাসিনার প্রশংসা করলেন তামিম
১০,মার্চ,বুধবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সবার জানা, বাংলাদেশ দল দেশের মাটিতে করোনার টিকা নিয়েই নিউজিল্যান্ডে খেলতে গেছে। প্রথম ধাপেই ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল করোনার টিকা নিয়েছেন। ক্রিকেটার থেকে শুরু করে সমাজের সর্বস্তরের মানুষ এখন করোনার টিকা নিতে পারছেন, সেটাকে খুব ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছেন তামিম ইকবাল। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশ সরকার এই করোনার টিকা ব্যবস্থাপনায় দারুণ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। তামিমের অনুভব, একটা সময় টিকা সবাইকেই নিতে হবে। তিনি বলেন, এটাই ভবিষ্যৎ, আমার মনে হয়। কোনো একটা পর্যায়ে সবাইকেই নিতে হবে। দেশ হিসেবে আমাদের দেশ অসাধারণ কাজ করেছে। দেশে টিকা নেয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করেছিলেন তামিম। নিউজিল্যান্ডে বসেও তাঁর অবদানের কথা তুলে ধরলেন দেশসেরা ওপেনার। তামিম মনে করেন, বাংলাদেশের মানুষ সৌভাগ্যবান যে, সবাই ফ্রি ভ্যাকসিন পাচ্ছে। তামিম বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অগ্রণী ভূমিকা নিয়ে আগে থেকেই সব ব্যবস্থা করেছেন। দারুণ কাজ করেছেন তিনি। জাতি হিসেবে আমরা খুবই সৌভাগ্যবান। শুধু আমরা ক্রিকেটাররাই নয়, সাধারণ মানুষও ভ্যাকসিন পাচ্ছে এবং সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হলো, সবার জন্য ফ্রি। জাতি হিসেবে আমরা যা করেছি, বাংলাদেশকে নিয়ে আমি গর্বিত।
দুই হারের পর দাপুটে দুই জয়, দারুণভাবে সমতায় ফিরল অস্ট্রেলিয়া
৫,মার্চ,শুক্রবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাঁচ ম্যাচের সিরিজে প্রথম দুটিতেই নিউজিল্যান্ডের কাছে হার, এমন কোণঠাসা অবস্থায় দাঁড়িয়ে দারুণভাবে সিরিজে ফিরল অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে মাত্র ৪ রানের জন্য হেরে যাওয়া অসিরা পরের দুই ম্যাচেই পেয়েছে সহজ জয়। সিরিজে ফিরিয়েছে ২-২ সমতা। ওয়েলিংটনে আজ (শুক্রবার) সিরিজের চতুর্থ টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডকে ৫০ রানের বড় হার উপহার দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ক্যাপ্টেনস নকে দলকে লড়াকু পুঁজি এনে দেয়া অ্যারন ফিঞ্চ হয়েছেন ম্যাচসেরা। অথচ টস জিতে ব্যাট করতে নেমে মোটেই স্বস্তিতে ছিল না অস্ট্রেলিয়া। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে। তবে ৯৭ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারানো দলকে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত টেনে নিয়ে গেছেন অধিনায়ক ফিঞ্চ। ওপেনিংয়ে নামা ফিঞ্চ ৫৫ বলে ৫ বাউন্ডারি আর ৪ ছক্কায় খেলেন ৭৯ রানের হার না মানা এক ইনিংস। বাকি ব্যাটসম্যানদের কেউ বিশের ঘরও ছুঁতে পারেননি। ফিঞ্চের একক লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়া ৬ উইকেটে পায় ১৫৬ রানের লড়াকু পুঁজি। ইশ সোধি ৩২ রান খরচায় নেন ৩টি উইকেট। ট্রেন্ট বোল্ট ২টি এবং মিচেল স্যান্টনার পান এক উইকেট। লক্ষ্য ১৫৭ রানের। জবাব দিতে নেমে আরও খারাপ অবস্থা হয় নিউজিল্যান্ডের। টি-টোয়েন্টিতে বলতে গেলে টেস্টের মতো ব্যাটিং করেছে স্বাগতিকরা। প্রথম দশ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে তুলতে পারে মাত্র ৪২ রান। ফলে রান তাড়ায় আর ছুটতে পারেনি কিউইরা। একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে। ইনিংসের ৭ বল বাকি থাকতে কিউইরা অলআউট হয়েছে ১০৬ রানেই। শেষদিকে নেমে কাইল জেমিসন ১৮ বলে ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস না খেললে হারের ব্যবধানটা আরও বড়ই হতো! অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ছিলেন কেন রিচার্ডসন। ১৯ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন তিনি। দুটি করে উইকেট নেন তিন স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা, অ্যাশটন অ্যাগার আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।
সেভিয়ার বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে ফাইনালে বার্সা
৪,মার্চ,বৃহস্পতিবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নাটকীয়তা-রোমাঞ্চ-উত্তেজনার ষোলো ভাগই উপস্থিত ছিল ম্যাচটিতে। আর তেমন এক ম্যাচে অতিরিক্ত সময়ে ১০ জনের দল পড়া সেভিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়ে কোপা দেল রের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। প্রথম লেগে সেভিয়ার মাঠে ২-০ গোলে হেরেছিল রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যরা। ফাইনালে যেতে হলে ৩-০ গোলে জিততে হতো বার্সাকে। ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুয়ে সেমির ফিরতি লেগে সেই অসাধ্য সাধনই করেছে কাতালান জায়ান্টরা। দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ফাইনালে ওঠেছে বার্সা। শুরু থেকে গোলের জন্য মরিয়া বার্সা এগিয়ে যায় ১২তম মিনিটে। ওসমানে দেম্বেলের গোলে তারা স্বপ্ন দেখতে থাকে কামব্যাকের। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সেই স্বপ্ন ফিকে হতে বসে। যেখানে উল্টো পেনাল্টি পায় সেভিয়া। কিন্তু স্পট-কিক থেকে গোলের সুযোগ হাতছাড়া করে বসেন লুকাস ওকাম্পাস। সেই ভুলের মাশুলই হুলেন লোপেতেগির শিষ্যদের গুণতে হলো যোগ করা সময়ে। সব নাটকের মশলা যেন জমা ছিল নির্ধারিত সময় শেষে। যোগ করা দ্বিতীয় মিনিটে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ফার্নান্দো। ১০ জনের দল হয়ে পড়ে সেভিয়া। এমন সুযোগ নিতে ভুল করলো না কোম্যানের দল। দুই মিনিট পরেই আঁতোয়া গ্রিজম্যানের পাস থেকে সেভিয়ার জাল খুঁজে নেন জেরার্ড পিকে। দুই লেগ মিলিয়ে ব্যবধানটা দাঁড়ায় ২-২। ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। আর অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটেই জর্দি আলবার পাস থেকে বার্সার জয়সূচক গোল এনে দেন মার্টিন ব্রাথওয়েট। ম্যাচ টাইব্রেকারে নিয়ে যাওয়ার জন্য গোলটি শোধ করলেই চলতো সেভিয়ার। কিন্তু ম্যাচের ১০৩তম মিনিটে আরেকজনকে হারায় তারা। এবার লাল কার্ড দেখে বসেন ডি জং। শেষ পর্যন্ত প্রথম লেগে এগিয়ে থেকেও ফাইনাল যাওয়ার স্বপ্ন বিসর্জন দেয় লোপেতেগির দল। বার্সার চোখ এখন রেকর্ড ৩১তম কোপা দেল রে শিরোপা জয়ের দিকে। ফাইনালে তারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে পারে অ্যাথলেটিক বিলবাও বা লেভান্তেকে।