এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসির) সভাপতি হলেন পাপন
ক্রীড়া ডেস্ক: এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভাপতির দায়িত্ব পেলেন বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন। আগামী দুই বছর তিনি এই দায়িত্ব পালন করবেন। শনিবার পাকিস্তানের লাহোরে এসিসির বার্ষিক সভায় নাজমুল হাসানকে আনুষ্ঠানিকভাবে সংস্থাটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়। তিনি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান এহসান মনির স্থলাভিষিক্ত হলেন। এসিসির সভায় আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন এবং অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তারা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল। এর আগে দুই বাংলাদেশি এ দায়িত্ব (এসিসির সভাপতি) পালন করেছিলেন। ২০০২ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত আলী আসগর লবি এবং ২০১০ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সংস্থাটির প্রধান ছিলেন আ হ ম মোস্তফা কামাল। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৮৩ সালে। সেবার এসিসির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন প্রয়াত ভারতীয় রাজনীতিক নরেন্দ্র কুমার সালভ। মূলত দক্ষিণ এশিয়ার ক্রিকেটের শীর্ষ চার দেশ যথাক্রমে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ থেকেই এসিসির প্রেসিডেন্ট পদের জন্য নির্বাচিত করা হয়ে থাকে। এসিসি প্রতি দুই বছর অন্তর অন্তর আয়োজন করে এশিয়া কাপ ক্রিকেট। এখন পর্যন্ত মোট ১৪বার এশিয়া কাপ আয়োজন করেছে তারা।
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের জন্য বাংলাদেশ টেস্ট দল ঘোষণা,ফিরলেন সাকিব-সৌম্য,নেই তামিম
অনলাইন ডেস্ক: জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ শেষ হলেও খুব বেশি দিন বিশ্রামের সময় পাচ্ছেন না ক্রিকেটাররা। আর ক’দিন বাদে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের লড়াইয়ে নেমে পড়তে হচ্ছে তাদের। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে এই সিরিজের জন্য বাংলাদেশ টেস্ট দল ঘোষণা করা হয়েছে। চোট কাটিয়ে এই দলে ফিরেছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১৩ সদস্যের দল ঘোষণা করে। সাকিব ছাড়াও দলে ফিরেছেন সৌম্য সরকার। দলে ডাক পেয়েছেন টেস্ট অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা অফ স্পিনার নাঈম হাসানও। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের খেলা সবশেষ সিরিজের দল থেকে বাদ পড়েছেন লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাজমুল ইসলাম অপু, আবু জায়েদ রাহী ও শফিউল ইসলাম। সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে পুরোনো আঙুলের চোট নিয়ে দেশে ফিরে আসেন সাকিব। তাকে ভর্তি হতে হয় হাসপাতালে। পরে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে যেতে হয় অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নেও। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় থাকায় জিম্বাবুয়ে সিরিজে তিনি খেলতে পারেননি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে তার দলে ফেরাটা বাংলাদেশের জন্য বড় স্বস্তিই। এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচেই কবজিতে চোট পেয়ে মাঠের বাইরে ছিটকে পড়েছিলেন তামিম ইকবাল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট দিয়ে ফেরার অপেক্ষায় ছিলেন তিনিও। কিন্তু কদিন আগে অনুশীলনের সময় আবার চোট পেয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার। তার মাঠে ফেরাটাও তাই দীর্ঘায়িত হলো। জাতীয় ক্রিকেট লিগে দারুণ পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে টেস্ট দলে ফিরলেন সৌম্য। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান জাতীয় লিগে খুলনার হয়ে পাঁচ ম্যাচে এক সেঞ্চুরি ও চার ফিফটিতে করেন তৃতীয় সর্বোচ্চ ৪৭১ রান। টেস্টে লিটনের জায়গায় ওপেন করতে পারেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই টেস্টে মাত্র ৪৭ রান করায় বাদ পড়েছেন লিটন। তরুণ নাঈম হাসানও জাতীয় লিগের ভালো পারফরম্যান্সের পুরস্কার পেলেন। ১৭ বছর বয়সি এই অফ স্পিনার চট্টগ্রামের হয়ে এবারের জাতীয় লিগের সর্বোচ্চ ২৮ উইকেট নেন, পাঁচ ম্যাচে। ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেন দুবার, ম্যাচে দশ উইকেট একবার। গত জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট দলে ডাকাও হয়েছিল তাকে। তবে সেবার খেলার সুযোগ হয়নি তার। প্রথম টেস্টে খেলেছিলেন শান্ত, আবু জায়েদ ও অপু। তেমন ভালো করতে না পারায় দ্বিতীয় টেস্টের একাদশ থেকে বাদ পড়েন তারা। এবার তারা দলেই জায়গা পেলেন না। শফিউল কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেয়েই দলের বাইরে চলে গেলেন। আগামী ২২ নভেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। প্রথম টেস্টের বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ মিথুন, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, তাইজুল ইসলাম, খালেদ আহমেদ, নাঈম হাসান।
মেক্সিকোর বিপক্ষে সহজ জয় পেল আর্জেন্টিনা
অনলাইন ডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপের পর থেকে আর্জেন্টিনা হয়ে কোনো ম্যাচ খেলেননি লিওনেল মেসি। আর তাকে ছাড়াই নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে বেগ পেতে হচ্ছে না দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা। শনিবার (১৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় এস্তাদিয়ো মারিও আলবার্তো কেম্পেসে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে জয় পেতে কোনো অসুবিধা হয়নি লাতিন পরাশক্তিদের। মেক্সিকোর বিপক্ষে দুই আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের প্রথমটিতে গোল পেয়েছেন রামিরো ফিউনেস মোরি আর দ্বিতীয়টি এসেছে প্রতিপক্ষের উপহার হিসেবে। মানে মেক্সিকোর আইজ্যাক ব্রিজুয়েলা নিজেদের জালে বল জড়িয়ে দিয়েছেন। মেসি-আগুয়েরোদের অবর্তমানে জুভেন্টাসের তারকা পাওলো দিবালা ও ইন্টার মিলানের অধিনায়ক মাওরো ইকার্দির জন্য বড় সুযোগ ছিল নিজেদের প্রমাণ করার। দিবালা লিওনেল স্কালোনির দলে শুরু থেকেই নামলেও একাদশে ঠাই হয়নি ইকার্দির। বরং শুরুর একাদশে নয় নম্বর খেলোয়াড় হিসেবে নামেন আরেক ইন্টার তারকা লাওতারো মার্তিনেজ। ম্যাচের প্রথম গোলে দারুণ ভূমিকা রাখেন পাওলো দিবালা। তার ফ্রিক-কিক থেকেই হেড করে ম্যাচের ৪৪ মিনিটে মেক্সিকোর গোলরক্ষক গুয়ের্মো ওচোয়াকে পরাস্ত করেন ভিলারিয়ালের ডিফেন্ডার রামিরো মোরি। ম্যাচের দ্বিতীয় গোলটি আসে ম্যাচের ৮৩ মিনিটে। ডিফেন্স থেকে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন ব্রিজুয়েলা। স্কালোনির অধীনে এই নিয়ে ৫ ম্যাচে তৃতীয় জয়ের দেখাল পেলো আর্জেন্টিনা।
জিম্বাবুয়েকে ২১৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ ১-১ সমতায় বাংলাদেশ
অনলাইন ডেস্ক: মেহেদী হাসান মিরাজের দারুণ বোলিংয়ে ঢাকা টেস্টে জিম্বাবুয়েকে ২১৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করেছে বাংলাদেশ। ৪৪৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করা জিম্বাবুয়ে পঞ্চম দিনের দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে ২২৪ রান তুলে থামে। পেসার রেগিস চাকাভা ইনজুরিতে থাকায় ব্যাট হাতে নামতে পারেননি। ফলে সফরকারীরা ৯ উইকেট হারানোর পরই জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের। বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুই উইকেটে ৭৬ রান সংগ্রহ করে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেছিল জিম্বাবুয়ে। আজ পঞ্চম দিনে ৭ উইকেট প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। প্রথম সেশনে মোস্তাফিজুর রহমান আর তাইজুল ইসলাম একটি করে উইকেট নেন। মোস্তাফিজ ফেরান শন উইলিয়ামসকে (১৩)। সিকান্দার রাজার (১২) উইকেটটি নেন তাইজুল। মধ্যাহ্ন বিরতির পর এক স্পেলেই জিম্বাবুয়েকে গুঁড়িয়ে দেন মিরাজ। পিটার মুর (১৩), ডোনাল্ড তিরিপানো (০) আর ব্র্যান্ডন মাভুতা (০) আর কাইল জারভিসকে (০) তুলে নিয়ে বাংলাদেশকে বড় জয় এনে দেন এই অফস্পিনার। ৫ উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের পক্ষে সফল বোলার তিনিই। এছাড়া তাইজুল নিয়েছেন ২ উইকেট। মুশফিকুর রহিমের অনবদ্য ডাবল সেঞ্চুরি আর মুমিনুল হকের সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ৫২২ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে ব্রেন্ডন টেলরের শতকের পরও ৩০৪ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে পড়ে জিম্বাবুয়ে। তবে তাদের দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে না পাঠিয়ে লিটন-ইমরুলকে ব্যাট হাতে পাঠিয়ে দেন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। নিজে তুলে নেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট সেঞ্চুরি। এরপর ৬ উইকেটে ২২৪ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেন তিনি। সংক্ষিপ্ত স্কোর বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৫২২/৭ ডি. জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংস: ৩০৪ বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২২৪/৬ ডি. জিম্বাবুয়ে দ্বিতীয় ইনিংস: ২২৪ (টেলর ১০৬*, ব্রায়ান চারি ৪৩, মাসাকাদজা ২৫, উইলিয়ামস ১৩; মেহেদী মিরাজ ৫/৩৮, তাইজুল ২/৯৩, মোস্তাফিজ ১/১৯) ফল: বাংলাদেশ ২১৮ রানে জয়ী সিরিজ: ১-১ সমতায় শেষ।
আজ জিম্বাবুয়ে শিবিরে প্রথম আঘাতটা হেনেছেন মোস্তাফিজুর রহমান
অনলাইন ডেস্ক: ঢাকা টেস্টে ৪৪৩ রানের লক্ষ্যে পঞ্চম ও শেষ দিনে ব্যাট করছে জিম্বাবুয়ে। আজ জিম্বাবুয়ে শিবিরে প্রথম আঘাতটা হেনেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। শন উইলিয়ামসকে ফিরিয়ে ২৯ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি ভেঙেছেন তিনি। বাঁহাতি পেসারের গুড লেংথ বল ডিফেন্ড করতে চেয়েছিলেন উইলিয়ামস। কিন্তু ব্যাট বলের লাইনে নিতে পারেননি। বল আঘাত করে অফ স্টাম্পে। ম্যাচে মোস্তাফিজের এটি প্রথম উইকেট। উইলিয়ামস ৩৩ বলে ১৩ রান করে ফেরার সময় জিম্বাবুয়ের স্কোর ৩ উইকেটে ৯৯ রান। ব্রেন্ডন টেলরের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন সিকান্দার রাজা। জয়ের জন্য বাংলাদেশের চাই আর ৭ উইকেট। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ৪৪৩ রানের বড় লক্ষ্য তাড়ায় চতুর্থ দিন শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ছিল ২ উইকেটে ৭৬ রান। জয়ের জন্য শেষ দিনে ৩৬৭ রান করতে হবে জিম্বাবুয়েকে, বাংলাদেশের চাই ৭ উইকেট। চোট পাওয়া টেন্ডাই চাতারা প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামেননি। দ্বিতীয় ইনিংসেও তিনি ব্যাটিংয়ে না নামলে বাংলাদেশের ৬ উইকেট নিলেই জয় নিশ্চিত হবে। ব্রেন্ডন টেলর ৪ ও শন উইলিয়ামস ২ রান নিয়ে শেষ দিনে ব্যাটিংয়ে নেমেছেন। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের খেলা শুরু হয়েছে সকাল সাড়ে নয়টায়। চতুর্থ দিন শেষে বাংলাদেশ ১ম ইনিংস : ৫২২/৭ ডিক্লে. জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস : ৩০৪ বাংলাদেশ ২য় ইনিংস : ২২৪/৬ ডিক্লে. জিম্বাবুয়ে ২য় ইনিংস : (লক্ষ্য ৪৪৩) ৭৬/২।
ব্যর্থ মিশন শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল
অনলাইন ডেস্ক: ২০২০টোকিও অলিম্পিক বাছাইয়ের ব্যর্থ মিশন শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। বড় হারের জন্য অভিজ্ঞতার অভাবকে দায়ী করছেন দলের কোচ। তবে খেলোয়াড়রা জানালেন, ম্যাচের পরিকল্পনা ঠিকভাবে মাঠে কাজে লাগাতে না পারায়, এই ফলাফল। সঙ্গে এ হারের ভুলগুলো কাজে লাগাতে চান আসন্ন টুর্নামেন্টে। অভিজ্ঞতা অর্জনই ছিলো অলিম্পিক বাছাইয়ে যাওয়া নারী ফুটবল দলের মূল লক্ষ্য। মিয়ানমার যাবার আগে কোচই এমনটা জানিয়েছিলেন। তবে শেখার সঙ্গে ফেরাটা হলো একরাশ হতাশায়। দেশের ফুটবলের কতই না সাফল্য এসেছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের হাত ধরে। তবে এবারের ফেরাটা শূন্যহাতে। বয়সভিত্তিক পর্যায়ে অদম্য বাংলাদেশ বরাবরই দম হারায় সিনিয়র পর্যায়ে। শেষ দুই টুর্নামেন্টে নারী দলের ভরাডুবি যার চাক্ষুষ প্রমাণ। কেন এমনটা হলো? কোচের কণ্ঠে সরল স্বীকারোক্তি। গোলাম রব্বানি ছোটন বলেন, এখান থেকে মেয়েরা অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। বড় দলের সঙ্গে খেলতে হলে যে আরও বেশি কষ্ট করতে হবে এটা তাদের উপলব্ধি করতে হবে। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী মিয়ানমার, ভারত কিংবা নেপাল হলেও ৩ ম্যাচে নিশ্চয় ১৩ গোল হজম করার মতো দল নয় টিম বাংলাদেশ। খেলোয়াড়রা বলছেন এতে দায় আছে তাদেরও। বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন বলেন, আমাদের ছোট ছোট কিছু ভুল ছিল। এর জন্য সময়ের দরকার। তবে আগামী বছরের শুরুতেই মিয়ানমারে পাওয়া ক্ষতে, প্রলেপ দেয়ার সুযোগ পাচ্ছে ছোটনের দল। ফেব্রুয়ারিতে ইয়াংগুনে বসছে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় বাছাই। স্বাগতিক দল ছাড়াও সেখানে আঁখি-তহুরারা লড়বে চীন ও ফিলিপিন্সের বিপক্ষে। শেষ পর্যন্ত সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ মাঠে না গড়ালে, আপাতত সেই টুর্নামেন্টেই শ্যেন দৃষ্টি বাংলার জয়িতাদের।
ডাবল সেঞ্চুরি মুশফিকের
অনলাইন ডেস্ক: নির্ভরতার অপর নাম মুশফিকুর রহিম। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টেও সেই পরিচয় দিচ্ছেন তিনি। বুক চিতিয়ে লড়ছেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল। ইতিমধ্যে ডাবল সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। এ নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটে অনন্য নজির গড়লেন মুশি। বিশ্বের প্রথম উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান এবং দেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দুইবার দ্বিশতক করার কীর্তি গড়লেন তিনি। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০১৩ সালে গলে কাঁটায় ২০০ রান করেন তিনি। সেটিও ছিল দেশের টেস্ট ইতিহাসে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের হয়ে ক্রিকেটের আদি ফরম্যাটে ডাবল সেঞ্চুরি আছে কেবল দুজনের-সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের। টাইগারদের হয়ে সর্বোচ্চ ২১৭ রানের ইনিংসটি সাকিবের। ২০১৭ সালে ওয়েলিংটনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এ ইতিহাস গড়েন। আর ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনায় ২০৬ রানের অনিন্দ্যসুন্দর ইনিংস খেলেন তামিম। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ও ড্যাশিং ওপেনার দুজনকেই ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকছে মুশফিকের সামনে। শেষ খবর পর্যন্ত দ্বিতীয় সেশন শেষে ১৬০ ওভারে ৭ উইকেটে ৫২২ রান করেছে বাংলাদেশ। ২১৯ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন মুশফিক। মিস্টার পার্টনারকে দারুণ সঙ্গ দিচ্ছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তিনিও ফিফটি তুলে নিয়েছেন। তার সংগ্রহ ৬৮ রান। আগের দিনের ৫ উইকেটে ৩০৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ১১১ এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ শূন্য রান নিয়ে খেলা শুরু করেন। প্রথম ইনিংসে চারশ, সাড়ে চারশ ছাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে ব্যাটিং শুরু করেন তারা। তাদের অসাধারণ নৈপুণ্যে দুর্দান্ত গতিতে সেই পথে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। দারুণ মেলবন্ধন গড়ে উঠে তাদের মধ্যে। কোনো উইকেট না দিয়ে প্রথম সেশনে ৬২ রান যোগ করেন তারা। উইকেটশূন্য সেশনে বড় একটা ধাক্কা খায় জিম্বাবুয়ে। স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন দারুণ বোলিং করা টেন্ডাই চাতারা। টানা পঞ্চম ওভার করছিলেন তিনি। কিন্তু ওভার শেষ করতে পারেননি। তৃতীয় বল করার পর বাম পায়ের পেশিতে টান পান। স্ট্রেচারে দ্রুত মাঠের বাইরে নেয়া হয়। ম্যাচে তাকে পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। ওভারের বাকি চার বল করেন ডোনাল্ড তিরিপানো। সাবলীল ব্যাটিংয়ে নির্বিঘ্নে কঠিনতম সেশনটা কাটিয়ে দেন মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু লাঞ্চ বিরতির পর হঠাৎই কক্ষচ্যুত হন মাহমুদউল্লাহ। কাইল জার্ভিসের বলে রেজিস চাকাভাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক (৩৬)। এর আগে মিস্টার পার্টনারের সঙ্গে ৭৩ রানের জুটি গড়েন তিনি। খানিক বাদেই তার পথ অনুসরণ করেন আরিফুল হক। ফের শিকারী কাইল জার্ভিস। তার বলে ব্রায়ান চারির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন গেল টেস্টে বাংলাদেশের সেরা পারফরমার। তাকে শিকার বানানোর বদৌলতে ক্রিকেটের অভিজাত সংষ্করণে তৃতীয়বারের মতো ৫ উইকেট ঝুলিতে ভরেন জার্ভিস।
শুরুটা ভালোই করেছেন মুশফিক-রিয়াদ
অনলাইন ডেস্ক: রোববার মিরপুরের সকালটা ছিল দুঃস্বপ্নময়। প্রথম ঘণ্টায় ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল বাংলাদেশ। কিন্তু মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহীমের দুইটি ধ্রুপদী ইনিংসে দিনটা চালকের আসনে থেকেই শেষ করতে পেরেছিল স্বাগতিকরা। প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ৩০৩ রান। আজ সোমবার দ্বিতীয় দিনের খেলা ৯টা ৩০ মিনিটে শুরু হয়েছে।এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ১১১ ওভারে ৩৪১/৫ উইকেট। মুশফিক(১১৮) ও মাহমুদউল্লাহ (২৯) রান নিয়ে মাঠে আছে। গতকাল দিনটা বাংলাদেশের হলেও মুমিনুলের ডাবল সেঞ্চুরি না হওয়ার আক্ষেপ ছিল কিছুটা। দিনের চতুর্থ সেশনের শেষ দিকে ব্যক্তিগত ১৬১ রানে টেন্ডাই চাতারার বলে আউট হয়ে যান মুমিনুল। এরপর নাইট ওয়াচ ম্যান তাইজুলও খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হননি ক্রিজে। কাইল জার্ভিস ফিরিয়ে দেন তাইজুলকে (৪)। তাপরই প্রথম দিনের খেলা শেষের ঘোষণা দেন আম্পায়ার।
সিরিজ বাঁচাতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
অনলাইন ডেস্ক: টেস্টে জয় ছাড়া কোনো উপায় নেই বাংলাদেশের। এরই লক্ষ্যে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এর আগে সিলেট টেস্টে ১৫১ রানের বড় ব্যবধানে হেরে পিছিয়ে পড়ে বাংলাদেশ। মিরপুর শের ই বাংলায় ম্যাচটি শুরু হবে সকাল ৯ টা ৩০ মিনিটে। বাংলাদেশ একাদশ (সম্ভাব্য): ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন/নাজমুল হোসেন শান্ত, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, নাজমুল ইসলাম/আবু জায়েদ রাহি। জিম্বাবুয়ে একাদশ (সম্ভাব্য): হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), ব্রায়ান চারি, ব্র্যান্ডন টেইলর, শেন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, রেগিস চাকাভা, ব্র্যান্ডন মাভুতা, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, কাইল জারভিস, তেন্দাই চাতারা।

খেলাধূলা পাতার আরো খবর