প্রধানমন্ত্রীর হাতের রান্না খেয়ে আপ্লুত সাকিব-শিশির
২৬জানুয়ারী,রবিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এ মুহূর্তে আইসিসির জারিকৃত নিষেধাজ্ঞায় থাকলেও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান আসন গেঁড়ে নিয়েছেন দেশের কোটি ক্রিকেটপ্রেমীর মনে। হারিয়ে যাননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হৃদয় থেকেও। তারই এক অনন্য উদাহরণ দেখা গেল আজ। নিজ হাতে রান্না করে সুস্বাদু সব খাবার সাকিবের বাসায় পাঠিয়ে দিলেন তিনি! এর আগেও অবশ্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে খেলতে দেখা গিয়েছিল সাকিবকন্যা আলাইনাকে। আর এবার রান্না করা সব খাবার পাঠিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করলেন শেখ হাসিনা। আজ রোববার দুপুরে এক ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বয়ং সাকিব আল হাসান। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে তিনি লিখেছেন, 'আমি পৃথিবীর সবচেয়ে ভাগ্যবান ব্যক্তি। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে গেছি। সকালবেলায় সুস্বাদু সব খাবার রান্না করে তিনি আমার বাসায় পাঠিয়ে দিয়েছেন! সাকিব আরও লিখেছেন, খাবারগুলো আমার স্ত্রীর জন্য ছিল, কারণ গতকাল উনার সঙ্গে দেখা হওয়ার সময় আমার স্ত্রী বলেছিল, এই খাবারগুলো তার পছন্দ। জীবনের সেরা এই উপহার পেয়ে আমার হৃদয় ভরে গেছে। সত্যি নিজেকে ধন্য মনে করছি! সাকিব ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো মজাদার খাবারের ছবিগুলোও দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন- I am the luckiest person on earth, Im truly speechless by this gesture of our honourable prime minister Sheikh Hasina as I got to taste her delicious cooking which she cooked herself this morning and sent to my house for my wife because she mentioned it was her favourite food when we visited her yesterday. Cant thank enough for this amazing gesture this will always remain in my heart for the rest of my life! We are truly blessed! এর আগে শনিবার (২৫ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে নিজের পছন্দের খাবারের কথা জানিয়েছিলেন সাকিবপত্নী উম্মে শিশির আল হাসান। এ সময় শিশিরের সঙ্গে ছিল তাদের কন্যা আলাইনাও। সাকিব ও শিশিরের মনের ইচ্ছেপূরণ করতেই নিজ হাতে সেই খাবারগুলো রান্না করে সাকিবের বাসায় পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টান অন্যরকম। ভালোবাসেন ক্রিকেটারদেরও। ব্যক্তিগতভাবে খোঁজখবর রাখেন ক্রিকেটারদের পরিবারেরও। ক্রিকেট ও ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দুয়ারও সবসময় খোলা। ক্রিকেটাররা স্ত্রী-পরিজন নিয়েও গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সান্নিধ্যে সময় কাটানোর সুযোগ পান। মাশরাফি বিন মুর্তজা-সাকিব আল হাসানের পরিবারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সখ্য বহুদিনের।- একুশে টেলিভিশন
হেরে উইকেটকে দুষলেন রিয়াদ
২৫জানুয়ারী,শনিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানের কাছে ৫ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। টাইগারদের দেয়া ১৪১ রানের লক্ষ্য টপকাতে ১৯ ওভার তিন বল খেলে স্বাগতিকরা। অথচ এই রান তাড়া করতে একটা ছয়ও হাঁকায়নি টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে থাকা পাকিস্তান! টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে টাইগার দুই ওপেনার তামিম ইকবাল আর নাঈম শেখ মিলে ১১ ওভারে করেন ৭১ রান। তামিম-নাঈম দুজনেই রান তুলেন ধীরগতিতে। শেষ পর্যন্ত এই ধীরগতিটাই কাল হয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশের জন্য। উইকেটের আচরণ বিবেচনায় তিন পেসার নিয়ে দল সাজিয়েছিল বাংলাদেশ। পিচে ঘাস না থাকলেও খুব একটা খারাপ করেনি শফিউল ইসলাম-আল-আমীন হোসেনরা। অনুজ্জ্বল ছিলেন কেবল মুস্তাফিজুর রহমান। দলের পারফর্মেন্স আশানুরূপ না হলেও হতাশ হচ্ছেন না বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তিনি বিশ্বাস করেন, এখনো সিরিজে ফিরে আসার সামর্থ্য আছে তার দলের। তবে প্রত্যাশা অনুযায়ী উইকেট না পাওয়ায় হতাশ রিয়াদ। আমি উইকেট থেকে আরও ভালো কিছু আশা করেছিলাম। এই উইকেটে বল যখন পুরোনো হতে শুরু করে তখন রান করা কঠিন হয়ে যায়। কারণ, আমরা যতটা আশা করেছিলাম সেই অনুযায়ী বল ব্যাটে আসেনি। টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বাংলাদেশ। তামিম ইকবাল ও নাঈম শেখের ব্যাটে শুরুটা হয় ধীরগতির। চিরচেনা তামিমের সাম্প্রতিক অচেনা ধীরগতির ব্যাটিংয়ের ফলে কথা উঠেছে তার টি-টোয়েন্টি ব্যাটিং সক্ষমতা নিয়েও। যদিও তামিমের আজকের পারফর্মেন্সে সন্তুষ্ট রিয়াদ। আমার মনে হয় তারা (তামিম, নাঈম) আমাদের জন্য একটা অসাধারণ শুরু করে দিয়ে গেছে। আমরা মাঝের ওভারগুলোতে আমাদের উইকেট হারিয়েছি। কৃতিত্ব অবশ্যই পাকিস্তানি বোলারদের। আমরা এই ব্যাপারগুলো মনে রাখবো এবং পরের ম্যাচে আরও ভালোভাবে ফিরে আসার চেষ্টা করবো।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে দিন শুরু ব্রাজিলের কিংবদন্তি জুলিওর
২৩জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ব্রাজিলের কিংবদন্তি গোলরক্ষক জুলিও সিজার। দুই দিনের সফরে আসা এই ফুটবলার বৃহস্পতিবার সকালে ধানমন্ডিতে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানার ছেলে এবং সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন, সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী ও সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ। বাফুফের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় এসেছেন ইন্টার মিলানের সাবেক এই তারকা। জাদুঘর পরিদর্শন শেষে দর্শনার্থী বইয়ে স্বাক্ষর করেন প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আসা জুলিও সিজার। দুপুরে বাফুফে ভবনে ফেডারেশনের নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং স্বাধীনবাংলা ফুটবল দলের সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেবেন জুলিও। বিকেলে গণমাধ্যমের সঙ্গে মুখোমুখি হবার কথা রয়েছে এই তারকা গোলরক্ষকের। এর পর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে হাজির হবেন তিনি। এসময় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বাংলাদেশ-বুরুন্দির দ্বিতীয় সেমিফাইনালের ম্যাচে উপস্থিত থাকবেন ৪০ বছর বয়সী জুলিও। চলমান এই ৬ জাতীর আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে বুধবার ঢাকায় পৌঁছান ব্রাজিলের হয়ে তিনটি বিশ্বকাপ খেলা এই গোলরক্ষক।
অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ: বোলারদের নৈপুন্যে টানা জয়ের স্বাদ নিলো যুবারা
২২জানুয়ারী,বুধবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বোলারদের নৈপুন্যে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয়ের স্বাদ নিলো বাংলাদেশের যুবারা। সি গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ বাংলাদেশ ৭ উইকেটে হারিয়েছে স্কটল্যান্ডকে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৯ উইকেটে হারিয়েছিলো আকবর আলীর দল। ২ খেলায় ২ জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। ১ খেলায় ১ জয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয়স্থানে পাকিস্তান। পচেফস্ট্রমে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে স্কটল্যান্ড। বল হাতে পেয়ে স্কটিশদের শুরুতেই চেপে ধরেন বাংলাদেশের দুই পেসার শরিফুল ইসলাম ও তানজীম হাসান সাকিব। ২১ রানের মধ্যে স্কটল্যান্ডের ৪ উইকেট তুলে নেন শরিফুল ও সাকিব। এরপর স্কটল্যান্ডের মিডল, লোয়ার-অর্ডারে ধস নামান বাঁ-হাতি স্পিনার রাকিবুল হাসান। তার ৪ উইকেট শিকারে ৩০ দশমিক ৩ ওভারে ৮৯ রানেই অলআউট হয় স্কটল্যান্ড। দলের পক্ষে তিনজন ব্যাটসম্যান দু অংকের কোটা পেরোতে পারেন। উজাইর শাহ ২৮, জেমি কেয়ার্নস ১৭ ও অধিনায়ক আঙ্গুস গায় ১১ রান করেন। বাংলাদেশের রাকিবুল ৫ দশমিক ৩ ওভারে ২০ রানে ৪ উইকেট নেন। এছাড়া শরিফুল ও সাকিব ২টি করে উইকেট নেন। জয়ের জন্য ৯০ রানের লক্ষ্যে ইনিংসের প্রথম বলেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওপেনার তানজিদ হাসান শুন্য রানে ফিরেন। এরপর উইকেটে গিয়ে বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হন তিন নম্বরে নামা শামিম হাসান। ১০ রান করেন তিনি। ফলে ১৮ রানেই ২ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। মারমুখী মেজাজে ইনিংস শুরু করে ২৫ রানে থামেন ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমন। ১৫ বলে ২টি করে চার ও ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান তিনি। দলীয় ৩৫ রানে ইমনের বিদায়ের পর দলের হাল ধরেন তৌহিদ হৃদয় ও মাহমুদুল হাসান জয়। চতুর্থ উইকেটে ৫৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন হৃদয় ও জয়। হৃদয় ১৭ ও জয় ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন। আগামী ২৪ জানুয়ারি এই ভেন্যুতেই গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ পাকিস্তান।
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত ধাওয়ান
২০জানুয়ারী,সোমবার,ক্রীড়া ডেস্ক,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে নিজেদের করে নিয়েছে ভারত। তবে শঙ্কা দেখা দিয়েছে ভারতের তারকা ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ানকে নিয়ে। বেঙ্গালুরুর তৃতীয় ওয়ানডেতে বাঁ-কাঁধে চোট পেয়ে ব্যাট করা তো দূরে থাক নিউজিল্যান্ড সফরেও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছেন তিনি। নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য সোমবার রাতে বেঙ্গালুরু থেকেই রওনা দিচ্ছে ভারতীয় দল। ধাওয়ানেরও যাওয়ার কথা ছিল। তিনি ভারতের টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে দলে রয়েছেন। প্রথমে টি-টোয়েন্টি হবে, তারপরে ওয়ানডে। যা পরিস্থিতি, টি-টোয়েন্টি সিরিজে অন্তত ধাওয়ানের পক্ষে খেলা কঠিন। ওয়ানডেতেও পারবেন কি না, নিশ্চয়তা নেই। তাঁর জায়গায় পরিবর্ত ওপেনার বেছে নিয়ে দু এক দিনের মধ্যে নিউজিল্যান্ড পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে। রবিবার বেঙ্গালুরুতে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে অস্ট্রেলীয় ইনিংস চলার সময় পঞ্চম ওভারেই ঝাঁপিয়ে পড়ে বল ধরতে গিয়ে কাঁধে চোট পান ধাওয়ান। কভার পয়েন্টে অ্যারন ফিঞ্চের ড্রাইভ ধরতে গিয়ে বাঁ-কাঁধের উপরে পড়েন তিনি। তখনই তাঁর চোখমুখ দেখে বোঝা যাচ্ছিল বেশ গুরুতর চোট পেয়েছেন। ফিজিও নীতিন পটেল ছুটে আসেন। অধিনায়ক কোহলিকেও বেশ উদ্বিগ্ন দেখাচ্ছিল। ফিজিও তখনই বাইরে নিয়ে চলে যান ধাওয়ানকে। জানা যায়, সঙ্গে-সঙ্গেই তাঁকে হাসপাতালে এক্স-রে করতে নিয়ে যাওয়া হয়। ধাওয়ান আর ফিল্ডিং করেননি, দীর্ঘক্ষণ তাঁর ব্যাপারে কোনও খোঁজও পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে যখন তিনি ড্রেসিংরুমে ফেরেন, টিভি-তে দেখা যায়, স্লিং ঝোলানো রয়েছে। ধাওয়ানকে ব্যাট করতে নামানো যায়নি। রাজকোটে পাঁচ নম্বরে নেমে ৫২ বলে ৮০ করা কে এল রাহুলকে ওপেন করতে পাঠানো হয় রোহিত শর্মার সঙ্গে। রাজকোটের সেই ম্যাচেও চোট পেয়েছিলেন ধাওয়ান। পাঁজরে এসে লাগে প্যাট কামিন্সের বল। চোট নিয়েই ব্যাট করে যান তিনি। এই নিয়ে গত কয়েক মাসে তৃতীয়বার চোটের কারণে ছিটকে যাচ্ছেন তিনি। বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করেও আঙুলের হাড়ে চিড় ধরায় বাকি টুর্নামেন্টের বাইরে চলে যান। তারপর গত নভেম্বরে বাঁ হাঁটুতে অনেকটা কেটে গিয়ে সেলাই পড়ে। তার ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজে যেতে পারেননি।
গভীর রাতে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে কম্বল বিতরণ করলেন সাকিব
১৯জানুয়ারী,রবিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম বড় তারকা। বর্তমানে জাতীয় দলের বাইরেও থাকলেও মানবতার সেবা থেকে নিজেকে দূরে রাখেননি তিনি। শীতে যখন গোটা দেশ জবুথবু, তখন গভীর রাতে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে শীতার্তদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। সম্প্রতি নিজ জেলা মাগুরার রাস্তায় রাতের আঁধারে ঘুরে ঘুরে ফুটপাতে ঘুমন্ত মানুষদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দেন দেশসেরা এই অলরাউন্ডার, নেন তাদের খোঁজ-খবর। সাকিবের এই উদ্যোগকে এরই মধ্যে অনেকে স্বাগত জানিয়েছে। প্রসঙ্গত, জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর তথ্য পেয়েও গোপন করায় এক বছরের জন্য সব ধরণের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন সাকিব। দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে ২২ গজ মাতাচ্ছেন সাকিব। ২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর অদ্যাবধি খেলেছেন ২০৬টি ওয়ানডে ম্যাচ। যেখানে রান করেছেন ৬ হাজার ৩২৩। বল হাতে নিয়েছেন ২৬০ উইকেট। ওয়ানডের পাশাপাশি ক্রিকেটের বাকি দুই ফরম্যাট টি২০ ও টেস্টেও তিনি সমানভাবে উজ্জ্বল। এখন পর্যন্ত ৫৬ টেস্টে অংশ নিয়ে করেছেন তিন হাজারের বেশি রান। পাশাপাশি ঝুলিতে পুরেছেন ২১০ উইকেট। আর টি২০ তে ৭৬ ম্যাচ খেলা সাকিবের রান ১ হাজার ৮৯৪। বিপরীতে উইকেট শিকার করেছেন ৯২টি।
যে কারণে পাকিস্তান যাচ্ছেন না মুশফিক
১৮জানুয়ারী,শনিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন জাতীয় দলের উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। মুশফিকুর রহিম বৃহস্পতিবার রাতে প্রধান নির্বাচককে ফোন করে জানান যে, পাকিস্তান সফরে যেতে চান না তিনি। তবে কী কারণে মুশফিক পাকিস্তান যাচ্ছেন না তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন। শুক্রবার বিপিএলের ফাইনাল শেষে মুশফিক বলেন, কারণটা পারিবারিক। বিসিবি এটা মেনে নিয়েছে (না যাওয়ার সিদ্ধান্ত)। অফিসিয়ালি চিঠিও দিয়েছি। পরিবারে যারা আছেন, তারা ভয়ে শঙ্কিত। এমন অবস্থায় আমি মানসিকভাবে ঠিক থেকে গিয়ে খেলতে পারিনা। তিনি বলেন, বাংলাদেশ দলের একটা সিরিজে বিশ্রাম নিতে হবে, এটার চেয়ে বড় পাপ আমার জন্য হতে পারে না। আমার কিন্তু সুযোগ ছিল পিএসএলের মতো বড় টুর্নামেন্টে খেলার। প্রথমেই না করে দিয়েছি। কারণ, জানি পুরো পিএসএল পাকিস্তানে হবে। তখনই বলেছি যেহেতু পরিবারও আমাকে অনুমতি দিচ্ছে না। পাকিস্তানের অবস্থা হয়ত আগের চেয়ে অনেক বেটার। আরও দুই-তিনটা বছর ধীরে ধীরে যদি অন্য দেশও যায়, তখন হয়ত আত্মবিশ্বাস আসবে। মুশফিক আরও বলেন, পাকিস্তানে আগেও সফর করেছি। ২০০৮ সালে সন্ত্রাসী হামলার আগে। পাকিস্তান ক্রিকেটীয় সুযোগ সুবিধার দিক থেকে অনেক ভালো একটা জায়গা। উপমহাদেশের ক্রিকেট বিচারে অসাধারণ। উইকেটও অনেক ভালো। অবশ্যই অনেক মিস করব। যদি আগামী ২-৩ বছর ধারাবাহিকভাবে পাকিস্তানের অবস্থা ভালো থাকে, তাহলে না যাওয়ার কোনো কারণ থাকবে না।
বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের টি-২০ দল ঘোষণা
১৬জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। বৃহস্পতিবার প্রধান নির্বাচক এবং কোচ মিসবাহ উল হকের ঘোষিত দলে ফিরেছেন অভিজ্ঞ মোহাম্মদ হাফিজ এবং শোয়েব মালিক। বাবর আজমের নেতৃত্বে ঘোষিত ১৫ সদস্যের দলে সুযোগ পেয়েছেন এক ঝাঁক নতুন মুখকে। বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের টি-২০ স্কোয়াড: বাবর আজম (অধিনায়ক), হাসান আলী, আম্মাদ বাট, হারিস রউফ, ইফতিখার আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ হাসনাইন, মোহাম্মদ রিজওয়ান, মুসা খান, শাদাব খান, শাহীন শাহ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক, উসমান জাভেদ।
ঠাকুরগাওয়ে দ্বৈত ব্যাটমিন্টন টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত
১৬জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,ক্রীড়া ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাকজমক আয়োজনের মধ্য দিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে ৯ দিনব্যাপী দ্বৈত ব্যাটমিন্টন টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার টাংগন সাহিত্য ও ক্রীড়া সংসদ হলপাড়ার আয়োজনে শহরের পুরাতন বলাকা হল চত্বরে এ ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ফাইনাল খেলায় দেশব্যাপি প্রতিযোগীতায় জিরো ফ্যাশান ২-০ সেটে শেফা এন্টারপ্রাইকে পরাজিত করে। আর জেলা ভিত্তিক প্রতিযোগীতায় জিরো ফ্যাশান ২-০ সেটে লিবাটি ক্লাবকে পরাজিত করে। এসময় খেলা পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুদাম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নুর কুতুবুল আলম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেক কুরাইশী, সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান খোকন, সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অরুনাংশু দত্ত টিটো, জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেলসহ অন্যান্য অতিথিরা চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ খেলোয়ারদের হাতে ট্রফি ও প্রাইজ মানি তুলে দেন। ৯দিন ব্যাপি এ খেলায় দেশব্যাপি ৪০টি এবং জেলা পর্যায়ে ৩২ টি সর্বমোট ৭২টি দল অংশ নেয়। আর এ খেলা দেখতে হাজারো ক্রীড়াপ্রেমীরা উপস্থিত হন।