শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০
সালমানের ৪৫০ কোটি পারিশ্রমিক
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সালমান খান মানেই চমক কিছু। বরাবরই সেই চমক নিয়ে আসছেন বিগ বস ১৪। আর কয়েকদিনের মধ্যেই শুরু হচ্ছে বিগ বস ১৪। এবার মুম্বই গোরেগাঁওয়ের ফিল্মসিটিতে তৈরি হচ্ছে বিগ বসের সেট। বাড়ি থেকে সেটে হাজির হয়ে প্রত্যেক সপ্তাহে সালমন শুটিং করবেন। বিগ বস ১৪-র ঘরে কাদের দেখা যাবে, তা নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। এবার একটি তালিকা প্রকাশ্যে এসেছে, যেখানে বিগ বসের ঘরে কারা হাজির হচ্ছেন, সে বিষয়ে বেশ কিছুটা আভাস মিলেছে। জানা গেছে, গায়ক রাহুল বৈদ্যে, টেলি অভিনেত্রী জেসমিন ভাসিন, গিয়া মানেক, এজাজ খান-রা হাজির হচ্ছেন বসের ঘরে। এবারে বসের ঘরে কী কী চমক অপেক্ষা করছে দর্শকদের জন্য, তা অবশ্য সময়ই বলবে। এদিকে বিগ বস ১৪-র গোটা সিজনের জন্য ৪৫০ কোটি পারিশ্রমিক নেবেন বলিউড ভাইজান। সম্প্রতি জানা যায় এমন তথ্য। যদিও সালমানের পি আর টিমের তরফে বিগ বসের পারিশ্রমিক সংক্রান্ত বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। বিগ বস ১৪ ঘোষণা হওয়ার পর শোনা যায়, এবারের সিজনের জন্য সালমান খান ১৫.৫ কোটি করে পারিশ্রমিক নিতে পারেন। পরে জানা যায়, এবারের সিজনের জন্য নাকি সালমান খান পারিশ্রমিকের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন। সেই অনুযায়ী, এবারের সিজনের জন্য প্রত্যেক এপিসোড বাবদ ২০ কোটি করে সালমান খান পারিশ্রমিক নেবেন বলে জানা যায়। তবে চলতি সিজনের জন্য সালমান মোট ৪৮০ কোটি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন বলেও অন্য একটি সূত্র মারফত খবর পাওয়া যায়।
জাপানে পুরস্কৃত হলো- শনিবার বিকেল
২২সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত শনিবার বিকেল আরেকটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছে। জাপানের ফুকৌকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবর কুমামোতো সিটি অ্যাওয়ার্ড জিতেছে ছবিটি। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন ফারুকী নিজে। ফুকৌকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ফুকৌকা সিটি অ্যাওয়ার্ড ও কুমামোতো সিটি অ্যাওয়ার্ড এ দুই বিভাগে বারোটি ছবি নির্বাচিত হয়েছিল। ছবিগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগীতা করে দর্শক ভোটে শনিবার বিকেল এ পুরস্কার জিতে। ফারুকী বলেন, আমি ফুকৌকার দর্শকদের কৃতজ্ঞতা জানাই আমাদেরকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার জন্য। একই সঙ্গে আমার টিমের সকল সদস্যদেরকেও ধন্যবাদ জানাবো, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে ছবিটি বানাতে পেরেছিলাম। আমি আশা করছি বাংলাদেশের দর্শকরা খুব শিগগিরই ছবিটি দেখতে পাবে। বাংলাদেশের সেন্সর বোর্ডে শনিবার বিকেল আটকে আছে অনেকদিন যাবত। দেশের দর্শকরা আদৌ ছবিটির দেখতে পারবে কিনা? ফারুকী বলেন, আমরা সেন্সর বোর্ডে আপিল করেছি। এরপর আসলে কোন রেজাল্ট জানি না। গুলশানের হলি আর্টিজানে ঘটে যাওয়া জঙ্গি হামলার ঘটনার ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে- শনিবার বিকেল। ছবিটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে জাজ মাল্টিমিডিয়া, ছবিয়াল ও ট্যানডেম প্রোডাকশন। ছবিটিতে অভিনয় করেছেন বিভিন্ন দেশের অভিনয়শিল্পীরা। তাদের মধ্যে আছেন প্যালেস্টাইনের ইয়াদ হুরানি, পশ্চিমবঙ্গের অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, নুসরাত ইমরোজ তিশা, মামুনুর রশিদ, ইরেশ যাকেরসহ অনেকে। শনিবার বিকেল এর আগে ফ্রান্সে নেটপ্যাক জুরি প্রাইজ এবং হাই স্কুল জুরি অ্যাওয়ার্ড, মস্কো ফিল্ম ফেস্টিভালে দুইটি ইনডিপেন্ডেন্ট জুরি অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। এছাড়া সিডনি ও মিউনিখ ফিল্ম ফেস্টিভালে ছবিটি প্রদর্শনের পর প্রশংসিত হয়েছিল।- সারাবাংলা
শেষ হলো- অরুপার গল্প
২১সেপ্টেম্বর,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অরুপার বিয়ে ঠিকঠাক। ছেলে কানাডা প্রবাসী। যদিও এ বিয়েতে তার একদমই মত নেই। তবুও বিয়ের দিন এগিয়ে আসতে থাকে। অরুপা তার হবু বরকে নিয়ে একদিন ঘুরতে বের হয়। ঢাকার একটু বাইরে, খুব সুন্দর একটি জায়গায়। হঠাৎ তাদের গাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। আর সেখানে এসে উপস্থিত হয় একদল মাস্তান। অরুপাকে ফেলে পালিয়ে যায় তার হবু স্বামী! মূলত এখান থেকেই শুরু নাটকের মূল গল্পটা। অঞ্জন আইচের এমন গল্পে নাটকটি পরিচালনা করেছেন দিপু হাজরা। নাম অরুপার গল্প। শুটিং শেষ হয় সম্প্রতি। এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন ইরফান সাজ্জাদ, তাসনুভা তিশা, সমাপ্তি মাসউক, সূচনা আজাদ, মীর শহীদ, পিপুলী ইসলাম, ফকির মাহমুদ জাকির, সরকার আরিফুল ইসলাম, কাশেম প্রধান, আবুল হোসেন প্রমুখ। নির্মাতা জানান, বিটুআই ভিশনের প্রযোজনায় নির্মিত নাটকটি অক্টোবর মাসের শুরুতে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচারের কথা রয়েছে।
জানি না কবে সিনেমা করবো: মেহজাবীন
২০সেপ্টেম্বর,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিলো চলচ্চিত্রে আসছেন ছোট পর্দার সুপারস্টার মেহ্জাবীন চৌধুরী। বেশ কয়েকবারই হয়েছেন খবরের শিরোনাম। শেষ পর্যন্ত আর দেখা মিলেনি। তবে এখনই বড় পর্দায় তার অভিষেক ঘটছে না বলে জানান এই অভিনেত্রী। এরমধ্যে বেশকিছু গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে যে, চলচ্চিত্র করতে যাচ্ছেন মেহজাবীন। এই বিষয়ে জানতে এই অভিনেত্রির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আসলে খবরে যেটা এসেছে সেটা সঠিক নয়। জায়া শিরোনামে যেই কাজটি করতে যাচ্ছি এটা আসলে চলচ্চিত্র না, টেলিফিল্ম। তিনি আরও বলেন, গল্পটার দৈর্ঘ্য প্রায় ৯০ মিনিট তাই এটাকে নাটকও বলা যাচ্ছে না। নাটক বলতে আমরা বুঝি ৪০ মিনিট দৈর্ঘ্যের কাজকে। আর জায়া নির্মিত হতে যাচ্ছে একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য। শিগগিরই এটার শুটিং শুরু হবে। এখানে আমার বিপরীতে থাকছেন আফরান নিশো। এটি পরিচালনা করবেন শিহাব শাহীন। প্রায়ই সিনেমার খবরের শিরোনাম হচ্ছেন মেহজাবীন। কিন্তু মেহজাবীনকে সত্যিকারভাবে কবে বড় পর্দায় দেখতে পাওয়া যাবে, এমন প্রশ্নে এই নায়িকা বলেন, আসলে এখন যেই পরিস্থিতি; এই সময়ে সিনেমা করাও সম্ভব না। আর আমি নিজেও জানিনা আদৌ সিনেমা করবো কিনা! তবে ভালো গল্প পেলে অবশ্যই করবো। তিনি আরও বলেন, সিনেমা বলতে আমরা যেটা বুঝি নাচ,গান, ড্রামা সব মিলিয়ে একটা ফুল প্যাকেজ। নাটক আর সিনেমা দুইটাতে অনেক পার্থক্য। তবে এখন সিনেমার আয়োজনেও নাটক বা ওয়েব ফিল্ম হচ্ছে। যেগুলো অনেক ওটিটি প্লাটফর্মে যাচ্ছে। কিন্তু পর্দার ব্যাপারটাই অন্যরকম। যখন পছন্দমত কোন গল্প পাবো, যেখানে নিজেকে এক নতুনভাবে আবিষ্কার করা যাবে, যেভাবে আগে কেউ আমাকে দেখেনি; সেরকম হলে অবশ্যই সিনেমা করবো। তবে সেটা কবে, আমি নিজেও জানিনা। নাটকে নানামাত্রিক গল্পে,চরিত্রে কাজ করছি। সিনেমায় গিয়ে যদি ভিন্ন কিছু দেখাতে না পারি তাহলে তো সেটা করে লাভ নেই। সেরকম পছন্দমত গল্প হলে আর ভালো নির্মাতা হলে হয়তো আমাকে পর্দায় দেখা যাবে।
জোভান-তিশার তুমি কি আমারই
১৯সেপ্টেম্বর,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এর অগেও জোভান-তিশার রোমান্স দেখতে পেয়েছেন দর্শকরা। এবার এই জুটি আবারও নতুন একটি নাটকে একসঙ্গে কাজ করলেন। নাটকটির শিরোনাম তুমি কি আমারই। রোমান্টিক-কমেডি ধাঁচের নাটকটির গল্প লিখেছেন নির্মাতা মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ। পরিচালনা করেছেন তিনিই। সম্প্রতি ঢাকার উত্তরায় এর শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ বলেন, প্রেম ও হাস্যরসের মিশ্রণে নাটকটি বানিয়েছি। জোভান ও তানজিনা তিশার কেমিস্ট্রিটা ভালো মানিয়েছে। দর্শকরা উপভোগ করলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক হবে। জোভান, তানজিন তিশা ছাড়াও আছেন শহিদুজ্জামান সেলিম, রোজী সিদ্দিকিসহ অনেকে।
দাদার কথা ও সুরে নাতনির গান
১৫সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরেণ্য গীতিকবি গাজী মাজহারুল আনোয়ার। বেশ কিছু দিন ধরে নতুন কোনো গানের সুর করছেন না তিনি। তবে এবার অনেক দিন পর সুর করলেন এই গীতিকবি। তবে কোনো খ্যাতিমান শিল্পী নয়, তার সুর করা গানটি রেকর্ড করা হয়েছে নাতনি আরশিয়ার কণ্ঠে। সারেগামাপাধা, আমার দাদি দাদা/ বানাতে চায় শিল্পী আমায় বড়/ ফুপি এসে বলে লক্ষ্মীসোনা এবার হারমোনিয়াম ধরো- এমন কথায় সাজানো গানটির কথাও লিখেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার নিজেই। সংগীতায়োজন করেছেন আহমেদ কিসলু। আট বছর বয়সী আরিশিয়ার কণ্ঠে নিজের লেখা ও সুর করা গান শুনে গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, আমার মেয়ে দিঠির বয়স যখন আট তখন তার গান লিখেছিলাম। বহু বছর পর এবার নাতনির জন্য কোনো গান তৈরি করলাম। গান গাওয়ার মুহূর্তে যে উচ্ছ্বাস আরশিয়ার মধ্যে দেখেছি, তা আমাকে মুগ্ধ করেছে। সে কেমন গাইলো সেই প্রশ্নে যাব না, বরং যারা জেনেবুঝে গান করেন, তাদের কাছে আরশিয়া অনুপ্রেরণা পাবেন- এটাই প্রত্যাশা। তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি, আরশিয়ার মতো যারা গানের ভুবনে নতুন, তাদের অনুপ্রেরণা দিতে হবে যাতে করে গানের নতুন একটি প্রজন্ম তৈরি হয়। সেটা করতে পারলেই আমরা গানের ভুবনে ভালো কিছু শিল্পীর ওঠে আসা দেখতে পাব।
বর্ষীয়ান চলচ্চিত্র অভিনেতা সাদেক বাচ্চু আর নেই
১৪সেপ্টেম্বর,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বর্ষীয়ান চলচ্চিত্র অভিনেতা সাদেক বাচ্চু করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মহাখালীর ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্ট থাকা অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন। হাসপাতালটির চিকিৎসক ডা. আশিস চক্রবর্তী নিউজ একাত্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সাদেক বাচ্চু সাহেব শতভাগ লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। কিন্তু তার হৃদযন্ত্র কাজ করা বন্ধ করে দেয়। তার জন্য পাঁচ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছিল। তিনি সকাল ১২টা ৫ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। গত ৬ সেপ্টেম্বর শ্বাসকষ্ট নিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন সাদেক বাচ্চু। উপসর্গ থাকায় তার করোনা পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে সেখান থেকে মহাখালীর ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সাদেক বাচ্চুর জন্ম ১৯৫৫ সালের ১ জানুয়ারি চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে। পাঁচ দশকের দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ারে মঞ্চে, বেতারে, টিভিতে, সিনেমায়, সর্বত্র দাপুটে বিচরণ ছিল তার। নব্বই দশকে এহতেশামের চাঁদনী সিনেমায় অভিনয়ের পর জনপ্রিয়তা পান খলনায়ক হিসেবে। এই পরিচয়েই দেশজুড়ে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে গুণী এই অভিনেতার। ১৯৬৩ সালে খেলাঘরের মাধ্যমে রেডিওতে অভিনয় শুরু করেন সাদেক বাচ্চু। তার প্রথম থিয়েটার গণনাট্য পরিষদ। ১৯৭২-৭৩ সালে মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে যখন এদেশের সাংস্কৃতিক বলয় নতুনভাবে তৈরি হচ্ছিল, তখন যোগ দেন গ্রুপ থিয়েটারে। দীর্ঘ পথ পেরিয়ে ১৯৭৪ সালে প্রথম টেলিভিশন নাটকে অভিষিক্ত হন গুণী এই অভিনেতা। রামের সুমতির মাধ্যমে যাত্রা শুরুর পর বহু জনপ্রিয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। সাদেক বাচ্চুর উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে- জোর করে ভালোবাসা হয় না (২০১৩), জজ ব্যারিস্টার পুলিশ কমিশনার (২০১৩), জীবন নদীর তীরে (২০১৩), তোমার মাঝে আমি (২০১৩), ঢাকা টু বোম্বে (২০১৩), ভালোবাসা জিন্দাবাদ (২০১৩), এক জবান (২০১০), আমার স্বপ্ন আমার সংসার (২০১০), মন বসে না পড়ার টেবিলে (২০০৯), বধূবরণ (২০০৮), ময়দান (২০০৭), আমার প্রাণের স্বামী (২০০৭), আনন্দ অশ্রু (১৯৯৭), প্রিয়জন (১৯৯৬), সুজন সখি (১৯৯৪)। ২০১৮ সালের একটি সিনেমার গল্প চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সেরা খল চরিত্রাভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন সাদেক বাচ্চু।
সিনেমাওয়ালার নতুন আকর্ষণ- ওসিডি
১৩সেপ্টেম্বর,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অবসেসিভ কমপালসিভ ডিসঅর্ডার (ওসিডি) একটি রোগ। বাংলায় এটাকে বলা হয়ে থাকে শুচিবাই। ওসিডিতে আক্রান্ত ব্যক্তির মস্তিষ্ক একটি বিশেষ ধরনের চিন্তা বা তাড়নায় আটকে যায়। এ কারণে তিনি একই ধরনের কাজ বারবার করতে থাকেন। যেমন, দরজার তালা লক করেছেন কিনা ২০-৩০ বারের মতো মনে সন্দেহ জাগালে তখন তা উদ্বেগজনিত রোগ। সারাবিশ্বে প্রতি ৫০ জনে একজন জীবনের কোনও না কোনও সময় এই রোগে ভোগে। ওসিডি-আক্রান্তের অস্থিরতা বিভিন্ন রকমের হতে পারে। কখনও মনে হয় হাতটা ভালো করে ধোয়া হলো না, তখন বারবার হাত ধুতেই থাকেন। বাড়ির কাজের লোক ঘর মোছার পর মনে হবে মোছাটা ভালো হয়নি, তখন ঘরটা বারবার মুছতেই থাকেন। একবার টাকা গোনা হয়ে গেলে মনে হয় যেন ভালো করে গোনা হলো না, তখন বারবার গুনতেই থাকেন। এমনই একটি পরিবারকে কেন্দ্র করে তৈরি হয়েছে ওসিডি। জনপ্রিয় নির্মাতা মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সিনেমাওয়ালা উপহার দিতে যাচ্ছে নতুন নাটকটি। সম্প্রতি ঢাকার উত্তরায় এর শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শামীম হাসান সরকার, সারিকা সাবা, মনিরা মিঠু ও তাহসিন অপ্সরা। ওসিডির রচনা ও পরিচালনা করেছেন নির্মাতা রাজের সহকারী কেএম সোহাগ রানা। তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যানুযায়ী, ওসিডি খুবই মারাত্মক একটি রোগ এবং পৃথিবীর দশটা রোগের মধ্যে এর স্থান তৃতীয়। ওসিডি এতটাই যন্ত্রণা দেয় যে, মানুষের মধ্যে আত্মহত্যা করার প্রবণতার জন্ম হয়। তাই আমরা হাস্যরসের মাধ্যমে একটা বক্তব্য দিতে চেয়েছি। ওসিডি নাটকে রয়েছে ইয়ার্কি শিরোনামের একটি গান। এটি লিখেছেন জনি হক। গানটি গেয়েছেন আয়েশা মৌসুমী ও নূরনবী। সুর ও সংগীত পরিচালনায় আহমেদ সবুজ। সিনেমাওয়ালা ইউটিউব চ্যানেলে এ মাসেই মুক্তি পাবে ওসিডি।
সবসময় ভালো কাজের প্রতিনিধি হতে চেয়েছি: শাকিব খান
১২সেপ্টেম্বর,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের সব সঙ্কটের মধ্যেও সবচেয়ে বড় আশা-ভরসার নাম সুপারস্টার শাকিব খান। সম্প্রতি করোনাকালে স্থবির হয়ে পড়া চলচ্চিত্র অঙ্গনে আবারও প্রাণসঞ্চার করে শুটিং শুরু করেছেন ঢালিউডের- নবাব। বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ৩০০ ফিট সড়কের পূর্বাচল এলাকায় ও বিএফডিসিতে নবাব এলএলবি সিনেমার শুটিংয়ে অংশ নেন শাকিব খান। করোনাকালে রুদ্ধ পরিস্থিতি থেকে সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে এই শুটিং। শাকিব খান তার ফেসবুক পেজে শুটিং শুরু করার অনুভূতি জানিয়েছেন ভক্তদের। তিনি বলেন, আমি সবসময়ই কাজ করি দেশের সাধারণ মানুষদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য। চেষ্টা করি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে বিশ্ব দরবারে পৌঁছে দেয়ার জন্য। শত প্রতিকূলতার পরেও আমার এই প্রচেষ্টা থেমে নেই। এরমধ্যে বৈশ্বিক করোনার কারণে আজ আমার ইন্ডাস্ট্রি ও দেশের সাধারণ মানুষ ভালো নেই। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা, শিক্ষার পাশাপাশি দৈনন্দিন জীবনে বিনোদন সংস্কৃতিও ওতোপ্রোতভাবে জড়িত। এছাড়া এ মাধ্যম অনেকের জীবিকা নির্বাহের একমাত্র উৎস। মানুষগুলো এমন দুঃসময়েও ভালোবাসার টানে পড়ে আছেন এই ইন্ডাস্ট্রিতে। আমি তাদের জন্যও কাজ করে যাচ্ছি। আমার এই প্রচেষ্টা সবসময় অব্যাহত থাকবে। ঢালিউড কিং বলেন, আমার কাজ বিনোদন দেওয়া। যেহেতু আমি এ মাধ্যমের প্রতিনিধি, তাই আমার কাজের মাধ্যমে করোনা জর্জরিত সাধারণ মানুষদের মনে একটু হলেও যদি আনন্দ দিতে পারি, আমার ইন্ডাস্ট্রির মানুষের উপাজর্নের পথ সচল করতে পারি; এটাই হবে আমার বড় স্বার্থকতা। শাকিব খান আরও বলেন, আমি সবসময় ভালো কাজের প্রতিনিধি হতে চেয়েছি। শুরু থেকে সেই চেষ্টা করে আসছি, আগামীতেও করবো ইনশাআল্লাহ। এই সংকটকালে আজ থেকে 'নবাব এলএলবি' নামে নতুন সিনেমার শুটিং শুরু করেছি। আমাকে যারা শাকিব খান বানিয়েছেন দেশ-বিদেশের সেই কোটি মানুষদের দোয়া ও ভালোবাসা সঙ্গে নিয়ে সামনে এগোনোর চেষ্টায় থাকলাম। সবার জন্য ভালোবাসা।