প্রকাশ : 2020-05-22

চট্টগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ৫৩ হাজার টাকা জরিমানা

২২ মে,শুক্রবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলার পৌরসভা, কলেজগেট, বাড়বকুণ্ড বাজার, জোড়ামতল বাজার, ভাটিয়ারী ইউনিয়নের অন্তর্গত মাদাম বিবির হাট, নেভি রোড, ভাটিয়ারী বাজার ও জলিল স্টেশনে (দক্ষিণ ভাটিয়ারী) করোনা ভাইরাসজনিত প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধের লক্ষ্যে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে আইনগত নির্দেশনা প্রদানের উদ্দেশ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এসময় ১৭টি মামলায় ৫৩১০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। আজ শুক্রবার ২২ মে সকাল ১১ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহায়তায় জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। আজকের অভিযানে বাজার মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বাড়বকুণ্ড বাজারের দুইটি মুদি দোকানকে তিন হাজার টাকা করে মোট ছয় হাজার টাকা, মাদাম বিবির হাটের একটি মুদি দোকানকে তিন হাজার টাকা এবং দক্ষিণ ভাটিয়ারীর জলিল স্টেশনের দুইটি মুদি দোকানকে তিন হাজার টাকা করে মোট ছয় হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এসব দোকানকে মূল্য তালিকা না থাকা, মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয় করাসহ বিভিন্ন অপরাধে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় সীতাকুণ্ড পৌর বাজারের জিয়া ক্লথ স্টোরকে দশ হাজার টাকা, তানিশা ফ্যাশনকে সাত হাজার টাকা ও স্মার্ট জেন্টস পার্লার এন্ড এসি সেলুনকে পাচ হাজার টাকা, জোড়ামতল বাজারের মুন্নি সু এন্ড কসমেটিকসকে দুই হাজার টাকা, মাদামবিবি হাটের এবি হার্ডওয়ার এন্ড ক্লথ স্টোরকে পাচ হাজার টাকা, নেভী রোডের কামাল ক্লথ স্টোরকে দুই হাজার টাকা, ইয়াছিন ক্লথ স্টোরকে এক হাজার টাকা, রিমন স্টোরকে এক হাজার টাকা ও জুয়েল সেলুনকে এক হাজার টাকা, ভাটিয়ারী বাজারের খাজা কালু শাহ স্টোরকে দুই হাজার টাকা ও নিহারিকা হেয়ার কাটিং সেলুনকে দুই হাজার টাকা এবং জলিল স্টেশনের স্বরনীল বুটিকসকে একশত টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। করোনা পরিস্থিতিতে জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর