প্রকাশ : 2020-05-25

নগরীর বিনোদন কেন্দ্রেগুলোতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান,৫ মোটরবাইক চালক আটক

২৫মে,সোমবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদের দিনেও বিনোদন কেন্দ্র ও রাস্তায় লোক সমাগম ঠেকাতে জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত রেখেছে। কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতুর উপর স্ট্যান্টবাজি করে বেপরোয়া ভাবে মোটরবাইক চালনার সময় উঠতি বয়সের ৫ মোটরবাইক চালক আটক ও সামর্থ্য বিবেচনায় জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন স্থানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনিক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস.এম. আলমগীর এর নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়। আজ সোমবার ২৫ মে বিকাল ৪ঃ৩০ টা থেকে জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে সিএমপি সদস্য সহযোগে চট্টগ্রাম মহানগরীর অভয়মিত্র ঘাট এবং কর্ণফুলী শাহ আমানত ব্রীজ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলাম জানান, ঈদ উপলক্ষে লোক সমাগম ঠেকাতে অভিযান চালানো হয়।অভিযানে কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতুর উপর স্ট্যান্টবাজি করে বেপরোয়া ভাবে মোটরবাইক চালনার সময় উঠতি বয়সের ৫ মোটরবাইক চালককে আরোহীদের সহ গ্রেফতার করা হয়। বেপরোয়াভাবে বাইক চালনার সময় হেলমেটও ছিলো অনেকের। এসময় সকলের চাবি জব্দ এবং সামর্থ্য বিবেচনা করে অনুযায়ী জরিমানা করা হয়েছে। একজন প্রাপ্ত বয়স্ককে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তিনি আরও জানান, এছাড়া অভয়মিত্র ঘাটে প্রাইভেট কার, মোটর সাইকেলের বহর তৈরি করে আড্ডা দেয়ার সময় তরুণ-তরুণীদের ঘরে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এসময় গাড়ির মালিকানা দাবীকারীকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এদিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনিক এর নেতৃত্বে নগরীর আকবরশাহ ও পাহাড়তলি এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। উক্ত অভিযানে মোট ৪টি মামলায় ১৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযান চলাকালীন সময় জনগণকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার জন্য সচেতন করা হয়। বিভিন্ন যানবাহন যেমনঃ ব্যাক্তি মালিকানাধীন গাড়ি , রিক্সা ও সিএনজি প্রভৃতিতে অপ্রয়োজনীয় কারণে চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়। বিভিন্ন দোকান এর সামনে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার জন্য জনগণকে সচেতন করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস.এম. আলমগীর এর নেতৃত্বে বিকাল ৩.০০ টা থেকে বিকাল ৫.৪৫ টা পর্যন্ত নগরীর চান্দগাও ও চকবাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। আজ ঈদ উপলক্ষে নগরীর পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্রসমূহে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। কিছু গণপরিবহন চলতে দেখা যায়। এদের মৌখিকভাবে সতর্ক করেন তবে কোন মামলা করা হয়নি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর