রবিবার, জুলাই ৫, ২০২০
প্রকাশ : 2020-06-02

একদিনেই ১৫ মৃত্যু চট্টগ্রামে

২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা শনাক্তে নিত্যদিন নতুন রেকর্ড গড়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। নতুনভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ২ হাজার ৯১১ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। যা একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এর আগে গত ৩১ মে (রোববার) দেশে সর্বোচ্চ ২৫৪৫ জন করোনারোগী শনাক্ত হয়। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, দেশে মহামারী ভাইরাসটিতে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫২ হাজার ৪৪৫ জন। একই সময়ে দেশে আরো ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগেরই ১৫ জন। ৩৭ জনের মৃত্যু দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে একদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুর রেকর্ড। আগে মৃত্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ডটি ৩১ মে-তেই হয়েছিল। সেদিন দেশে সর্বোচ্চ ৪০ জনের মৃত্যুর তথ্য জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ফলে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসের সংক্রমণে প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়াল ৭০৯। মঙ্গলবার (২ জুন) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন হেলথ বুলেটিনে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান। দেশে পিসিআর মেশিনের মাধ্যমে ৫২টি ল্যাবের পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস শনাক্তে ১৪ হাজার ৯৫০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরমধ্যে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১২ হাজার ৭০৪টি। এ নিয়ে এযাবত মোট নমুনা পরীক্ষা দাঁড়াল ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৭৩টিতে। তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরো ৫২৩ জন। সবমিলিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ১২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের বিশ্লেষণ তুলে ধরে ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, এদের মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগের সর্বোচ্চ ১৫ জন। এছাড়া ঢাকা বিভাগের রয়েছেন ১০ জন, সিলেটে চারজন, বরিশালে তিনজন, রাজশাহীতে দুজন, রংপুরে দুজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে একজন। এদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন নয়জন। মৃত ৩৭ জনের মধ্যে ৩৩ পুরুষ এবং চারজন নারী। তাদের বয়স বিশ্লেষণে জানানো হয়, মারা যাওয়াদের মধ্যে ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সসীমার মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের চারজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে নয়জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের ১০ জন এবং আশি ঊর্ধ্ব রয়েছেন দুজন। অন্যদিকে, শুধুমাত্র চট্টগ্রাম জেলায় সোমবার (১ জুন) পর্যন্ত করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩১৫১ জন। যাদের মধ্যে ২২৭ জন সুস্থ হলেও মারা গেছেন ৭৬ জন।

জাতীয় পাতার আরো খবর