প্রকাশ : 2020-07-03

চট্টগ্রামে ছাত্রদল নেতা খুন: ৪ ভাই গ্রেফতার

০৩,জুলাই,শুক্রবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং এলাকার ছাত্রদল কর্মী মীর ছাদেক অভি খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আপন চার ভাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় খুনের কাজে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুর থেকে শুক্রবার (৩ জুন) ভোর রাত পর্যন্ত নগরীর আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল এলাকা, আকবরশাহ এলাকা ও হাটহাজারী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে ডবলমুরিং থানা পুলিশ। ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জহির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো. ইব্রাহীম মুন্না (২৬), মো. শাহরিয়া ফারদিন (তুহিন ) (১৯ ), মো. ইয়াছিন আরাফাত (টিটু) (৩০) ও মো. ইরফান (বাবু) (২৩)। তারা ডবলমুরিং এলাকার হাজিপাড়ার মো. কামালের সন্তান। পুলিশ বলছে, গ্রেফতারকৃত চারজনের মধ্যে ইব্রাহিম মুন্না ছাড়া বাকী তিনজন মৃত্যুর আগে মীর ছাদেক অভির দায়েরকৃত মামলার এজহারভুক্ত আসামি। ইব্রাহিম মুন্না এজহারভুক্ত আসামি না হলেও ঘটনাস্থলে সেদিন সে উপস্থিত ছিল। গত ১৫ জুন রাত ১১ টায় ডবলমুরিংয়ের হাজীপাড়া মসজিদের পাশে ইমরানের রিকশার গ্যারেজের সামনের রাস্তার উপর ছাত্রদলকর্মী মীর ছাদেক অভিকে ছুরিকাঘাত করে জখম করলে এলাকার লোকজন তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা শেষে গত ২৪ জুন মীর ছাদেক অভি সুস্থ হয়ে তার দেওয়ানহাটের বাসায় চলে যায়। পরদিন ২৫ জুন নিজ বাসায় ভমি শুরু হলে তাকে ফের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় এবং একপর্যায়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক মীর ছাদেক অভিকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর পর মীর ছাদেক অভি ও নগর বিএনপি বলে আসছে- মাদক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় সেদিন গত ১৫ জুন ছাত্রদল কর্মী মীর ছাদেক অভিকে ছুরিকাঘাত করা হয়। ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জহির হোসেন বলেন, মীর ছাদেক অভি খুনের ঘটনায় ৪ জনকে নগরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা চারজনই আপন ভাই। ঘটনার সময় চারজনই ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল। অভির খুনে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতার পরবর্তী দুপুরে (শুক্রবার ৩ জুন) তাদের চারজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ কর্মকর্তা জহির হোসেন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর