বুধবার, মে ২৩, ২০১৮
প্রকাশ : 2018-03-25

ট্যুরিজম মেলায় উপচে পড়া ভিড় রাজধানীতে

রাজধানীতে তিন দিনব্যাপী ট্রাভেল মার্ট-২০১৮ এর শেষ দিন ছিল উপচে পড়া ভিড়। দর্শনীয় স্পটসহ বিভিন্ন মানের হোটেলে বুকিং এর ক্ষেত্রে ছিল নানা অফার। কিন্তু অভ্যন্তরীণ স্পটগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ অভিযোগ ছিল বিভিন্ন বিষয়ে। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মেলায় দেশীয় পর্যটন কেন্দ্রগুলোর পরিচিত তুলে ধরার পরামর্শও দেন দর্শনার্থীরা। পরিবার পরিজন নিয়ে দেশের বা বিশ্বের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে পর্যটকের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিনিয়ত। ভ্রমণ পিপাসুদের যাত্রা সহজ ও নান্দনিক করতে পর্যটন খাতে সেবা দিয়ে যাচ্ছে নতুন-পুরাতন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠান নিয়ে বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজন করা হয়েছিল ঢাকা ট্রাভেল মার্ট-২০১৮। দর্শনার্থীরা জানান, 'বাংলাদেশে পর্যটন খাতের উন্নতি হয়েছে তা বুঝা যাচ্ছে এ মেলা থেকে। মানুষ আসলে ভ্রমণের প্রতি আগ্রহী হচ্ছে।' আরেকজন দর্শনার্থী বলেন, 'ব্যাংককে প্রাধান্য দিচ্ছি। কারণ আগেও সেখানে গিয়েছি। সময়ের কারণে সবগুলো দ্বীপ দেখা হয় নি। এবার গেলে বাকিগুলো দেখে আসবো।' পর্যটকের সংখ্যা বাড়াতে হলে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও হোটেল ভাড়া কম হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন অংশগ্রহণকারীরা। দেশীয় স্পটগুলোর প্রচারণা ও সংরক্ষণে সরকারী প্রতিষ্ঠানের আন্তরিকতার অভাব আছে বলেও মনে করেন অনেকে। তবে ট্যুরিজম করপোরেশন জানায়, নানা তৎপরতার কথা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানান, 'ঢাকা টু কক্সবাজার পর্যন্ত ট্রেনের ভালো যোগাযোগ ব্যবস্থা করতে পারলে পর্যটনের দ্রুত উন্নতি হতো।' আগামীতে মেলার প্রচারণা বাড়ানোর পরামর্শ দেন সংশ্লিষ্টরা। এবারের আয়োজনে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ৪৮টি প্রতিষ্ঠান ৫টি প্যাভিলিয়ন ও ৬০টি স্টলে অংশ নেয়।

অর্থ-বাণিজ্য পাতার আরো খবর