প্রকাশ : 2020-08-09

শেষ আটে বার্সা-বায়ার্ন লড়াই

০৯আগস্ট,রবিবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ন্যু ক্যাম্পে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) নিয়ে চরম নাটকীয়তার রাতে ন্যাপোলিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ৪-২ গোলের অগ্রগামিতায় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে নাম লেখাল বার্সেলোনা। যদিও আরো বড় চ্যালেঞ্জের সামনে বার্সেলোনা। লিসবনে আগামী শুক্রবার এক ম্যাচের নকআউট কোয়ার্টার ফাইনালে কাতালানদের প্রতিপক্ষ বায়ার্ন মিউনিখ, যারা দুই লেগেই চেলসিকে বিধ্বস্ত করেছে। লন্ডনে প্রথম লেগে ৩-০ গোলে জয়ের পর শনিবার মিউনিখে দ্বিতীয় লেগে ৪-১ গোলে জিতেছে বাভারিয়ানরা। কুইক সেতিয়েনের বার্সা ঘটনাবহুল প্রথমার্ধেই তিন তিনটি গোল তুলে নেয়। গোল করেন ক্লেমেন্ত লেংলেত, লিওনেল মেসি ও লুই সুয়ারেজ। এ সময় মেসির আরেকটি গোল হ্যান্ডবলের কারণে বাতিল করা হয়। লেংলেতের হেডে ম্যাচের ১০ মিনিটে গোলমুখ খোলে বার্সা। ২৩ মিনিটে প্রতিপক্ষকে হতবিহ্বল করা এক দৌড়ের পর দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। আর্জেন্টাইনের সম্ভাব্য দ্বিতীয় গোলটি ভিএআর বাতিল করে দেয় হ্যান্ডবলের কারণ দেখিয়ে। যদিও কিছু সময় পর কালিদু কুলিবালি তাকে ফেলে দিলে ভিএআর পেনাল্টি দেয়। স্পট-কিক থেকে গোল করে ব্যবধান ৩-০ করেন সুয়ারেজ। প্রথমার্ধের নাটকীয়তা তখনো শেষ হয়নি। ড্রিয়েস মের্টেনসকে নিজেদের বক্সের মধ্যে ফেলে দেন বার্সার ইভান রাকিতিচ, ফলে পেনাল্টি পায় ন্যাপোলি। যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে স্পট-কিক থেকে গোল করে ব্যবধান কমান ন্যাপোলির লরেঞ্জো ইনসিনিয়ে। দ্বিতীয়ার্ধ ছিল অপেক্ষাকৃত নীরব। অতিথিরা ম্যাচে প্রাণ ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করলেও আর গোল পায়নি। ন্যাপোলির জন্য হতাশার ছিল অফসাইডের কারণে আর্কাদিউজ মিলিকের গোল বাতিল হওয়া। জয় শেষে বার্সা কোচ সেতিয়ন বলেন, ‘দুটি দলই ভালো খেলেছে এবং আমরা শ্রেয়তর হিসেবে জিতেছি। এখন যে দলগুলো টিকে আছে তারা সবাই শক্তিশালী এবং ম্যাচগুলো হবে বেশ জটিল। বায়ার্নকে মোকাবেলা করাও আমাদের জন্য কঠিন হবে। তারা বড় এক দল, কিন্তু আমারও।’ অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় রবার্ট লেভানডভস্কি দুই গোল করে বায়ার্নকে জিততে সাহায্য করেন। এছাড়া ইভান পেরিসিচ ও কোরেন্তিন তোলিসো একটি করে গোল করেন। চেলসির ট্যামি আব্রাহামের গোলটি শুধু ব্যবধানই যা কমিয়েছে। সূত্র: বিবিসি ও মার্কা