প্রকাশ : 2020-09-13

বেনাপোল-শার্শায় ১৮ কোটি টাকার অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার

১৩সেপ্টেম্বর,রবিবার,মো.আশিক বিল্লাহ,বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: যশোরের বেনাপোল-শার্শা সীমান্ত থেকে গত এক বছরে প্রায় ১৮ কোটি টাকার চোরাচালানানী পণ্য ও মাদকদ্রব্য জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। এ সময় আটক করা হয় ২০১ জন চোরাচালানীকে। তবে, এখনও ধরাছোঁয়ার বাহিরে রাঘব বোয়ালরা। শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বেনাপোল সদর কোম্পানি ক্যাম্পে এক সংবাদ সম্মেলনে বিজিবির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। যশোর ৪৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা জানান, গত এক বছরে ১৩টি পিস্তল, ২৪টি ম্যাগজিন, ৫৮টি গুলি, ২৫ দশমিক ৪১ কেজি স্বর্ণেরবার, ২০ হাজার ৮২৭ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল, ৫৪৭ কেজি গাঁজা, ৪০৬ বোতল মদ, ৫৬৭ পিস ইয়াবা ও ৪০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধারসহ সর্বমোট ২০১ জনকে আটক করেছে বিজিবি। এ সময়ে ১৭ কোটি ৭৫ লাখ ৪০ হাজার ৫শ টাকার মালামাল আটক করা হয়। তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে সীমান্তের কতিপয় মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ী বিভিন্ন কৌশলে ভারত থেকে মাদক এবং অস্ত্র এনে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে বিক্রি করছে। সেই সাথে স্বর্ণ ও হুন্ডির চালান পাচার করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে এ ধরণের মাদক, অস্ত্র, স্বর্ণ ও হুন্ডি পাচারকারীদের চিহ্নিত করে সীমান্ত এলাকায় গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়। যার ধারাবাহিকতায় চোরাচালানী, অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য আটক করা সম্ভব হচ্ছে। সীমান্তের বড় বড় রাঘব বোয়ালরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায় এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের টিকিটি পর্যন্ত স্পর্শ করতে না পারার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাঘব বোয়াল চোরাকারবারীরা সাধারণত নিজেরা মাদক, স্বর্ণ ও হুন্ডিসহ বিভিন্ন চোরাচালানী পণ্য বহন করে না। সে কারণে তাদেরকে হাতেনাতে আটক করা সম্ভব হয়না। প্রতিনিয়ত তাদের চোরাচালানী সামগ্রী আটক হলেও প্রমাণের অভাবে তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা সম্ভব হয়না।

সারা দেশ পাতার আরো খবর