প্রকাশ : 2020-10-17

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নদী বাঁচাই বাল্লাই সাম্পান খেলা গরিরদ্যে- আ জ ম নাছির উদ্দীন

১৭,অক্টোবর,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ আয়োজিত সাম্পান খেলার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে নগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রামের কথ্য ভাষায় বলেন, কর্ণফুলীর পাড়র প্রায় তিনশয়ের বেশি কারখানার শিল্প বর্জ্য, এই শহরর প্রায় ৬০ লাখ মানুষর মানব বর্জ্য ,পলিথিন,প্লাস্টিক প্রত্যেক দিন নদীত পড়ে (কর্ণফুলীর পাড়ের প্রায় তিন শতাধিক কারখানার শিল্প বর্জ্য,নগরের প্রায় ৬০ লাখ মানুষের মানব বর্জ্য,পলিথিন,প্লাস্টিক প্রতিদিন নদীতে পড়ছে)। বর্তমানে নদীর প্রায় ৭ মিটার গভীরতা নষ্ট হয়ে গেছে শুধু পলিথিনের কারণে (নদীর প্রায় ৭ মিটার গভীরতা নষ্ট হয়ে গেছে)। আঁরা জানি বা ন জানিয়ারে এই নদীরে গলা টিপে মারি ফেলাইর (আমরা জেনে বা না জেনে নদীটিকে গলা টিপে হত্যা করছি)। এই কর্ণফুলীসহ দেশর অন্য নদীরে বাঁচাই বাল্লাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নদী কমিশন গঠন গইরজ্যি (কর্ণফুলীসহ দেশের নদীগুলো বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নদী কমিশন গঠন করেছে)। কিন্তু সরকারর সঙ্গে আঁরা নদী পাড়র মাইনষ্যত্বেও সচেতন হন পড়িবু (সরকারের সাথে আমরা নদী পাড়ের নগরবাসীকেও সচেতন হতে হবে)। নইলে এই নদী সহসাৎ বরবাদ হই যাইবু (নাহলে এই নদী অচিরেই অস্তিত্ব হারাবে)। এই নদী বাঁচিলে চট্টগ্রাম বন্দর বাঁচিবু, বন্দর বাঁচিলে দেশের অর্থনীতি বাঁচিবু (কর্ণফুলী বাঁচলে চট্টগ্রাম বন্দর বাঁচবে,দেশের অর্থনীতি বাঁচবে)।এই হতাল্লাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কর্ণফুলী নদী রক্ষায় জনসচেতনতা সৃষ্টিতে সাম্পান উৎসব গরিরদ্যে( সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কর্ণফুলী নদী রক্ষায় জনসচেতনতা সৃষ্টিতে এই সাম্পান উৎসব আয়োজন করা হয়েছে) শনিবার ১৭ অক্টোবর বিকালে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ আয়োজিত দুই দিন ব্যাপী সাম্পান উৎসবের দ্বিতীয় পর্ব সাম্পান খেলা প্রতিযোগিতা নগরীর অভয়মিত্র ঘাট (নেভাল টু) এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। নদীর দক্ষিণ পাড় থেকে উত্তর পাড়ের অনুষ্ঠান স্থল (অভয়মিত্র ঘাট) ছিল সাম্পান খেলার মোট দূরত্ব। সাম্পান খেলার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, কর্ণফুলী নদীকে দখল ও দূষণের কবল থেকে রক্ষা করতে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই সাম্পান খেলার আয়োজন করা হয়েছে। হাজার বছর ধরে নদীমাতৃক এই বাংলাদেশে নৌকাবাইচ,সাম্পান খেলা শুধু খেলা নয়, এই প্রতিযোগিতা সংগ্রামের প্রতীক হয়ে আমাদের জীবনে মিশে রয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ আয়োজিত সাম্পান খেলা প্রতিযোগিতায় শিকলবাহা মোতোয়াল্লি শাহ ব্লক পাড় মাঝিরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। শাহ আহমদ মাঝির নেতৃত্বে ১০ জন মাল্লার দলটি প্রথম পুরস্কার হিসেবে একটি মোটর সাইকেল পেয়েছে। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে শাহ আহমদ মাঝি ভোরের কাগজকে বলেন, আঁরাততে কি যে ভালা লাগের ইআন ভাষায় বুঝাইত ন পাইরগ্যম (আমাদের কি যে ভাল লাগছে তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না।) বহুত দিন পর সাম্পান খেলাত ফাস্ট হই আঁরা (বহু দিন পর সাম্পান খেলায় আমরা প্রথম হয়েছি)। নাচিবাল্লাই মনে হর (নাচতে ইচ্ছে করছে)। ১০টি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত এই সাম্পান খেলায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে ইছানগর বাংলাবাজার ঘাট সাম্পান মাঝি কল্যাণ সমিতি। তৃতীয় স্থান লাভ করেছে মাদার্সা পাড়া এক নম্বর গেইট চরপাথরঘাটার মাঝি দল। নগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহানগর আওয়ামীলীগের শফর আলী,শেখ মোহাম্মদ ইসহাক, নোমান আল মাহমুদ, মসিউর রহমান, চন্দন ধর, এডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মোহাম্মদ হোসেন, মো. ইসা, আবদুল মান্নান ফেরদৌস, আযোগিতার পৃষ্টপোষক নাজিম উদ্দিন,সাবেক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব,শৈবাল দাশ সুমনসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর