সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০
প্রকাশ : 2020-10-19

কোহলিকে পেছনে ফেলে আইপিএলে নতুন রেকর্ড ওয়ার্নারের

১৯,অক্টোবর,সোমবার,স্পোর্টস ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইনিংস ওপেন করতে না নেমে ব্যাটিং অর্ডারে নিজেকে অনেক নিচে নামিয়ে এনেছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। তার এই অবনমন দেখে অনেকেই অবাক। কিন্তু এ ক্ষেত্রে আবার কিছুটা সফল হলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অধিনায়ক। কলকাতার ছুঁড়ে দেওয়া ১৬৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে দুই ওপেনার জনি বেয়ারেস্টো এবং কেন উইলিয়ামসন শুরুটা ভালোই করেন। তাদের ৫৮ রানের ওপেনিং জুটিতে ভর করেই চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ডেভিড ওয়ার্নার শেষ তুলির টান দেওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন। তবে ৩৩ বলে ৪৭ রানে অপরাজিত থেকেও অল্পের জন্য দলকে জয় এনে দিতে পারলেন না এই অসি ব্যাটসম্যান। নির্ধারিত ২০ ওভারে এদিন কলকাতা নাইট রাইডার্স বনাম সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ম্যাচের নিষ্পত্তি হল সুপার ওভারে। সুপার ওভারে হেরে প্লে-অফের দৌড়ে আরও পিছিয়ে পড়ল সানরাইজার্স। অধিনায়কোচিত ইনিংসে দলকে জেতাতে না পারলেও কিন্তু রোববার আইপিএলে একটি ব্যক্তিগত রেকর্ড গড়লেন হায়দরাবাদ অধিনায়ক। চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে আইপিএলে পাঁচ হাজার রানের এলিট ক্লাবে নাম লেখালেন তিনি। সব মিলিয়ে চতুর্থ হলেও, বিদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ার্নারই আইপিএলে প্রথম এই মাইলফলক স্পর্শ করলেন। এর আগে আইপিএলে ৫ হাজার রানের ক্লাবে পা দেওয়া বাকি তিন ব্যাটসম্যান হলেন বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না এবং রোহিত শর্মা। তবে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলির রেকর্ড ভেঙে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন অসি ব্যাটসম্যান। ৫ হাজার রানের ক্লাবে পৌঁছতে ১৩৫ ইনিংস খেলেন ওয়ার্নার। এর আগে দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৫৭ ইনিংসে এই রেকর্ড স্পর্শ করেছিলেন বিরাট কোহলি। তৃতীয় দ্রুততম হিসেবে ১৭৩ ইনিংসে এই রেকর্ড গড়েছিলেন সুরেশ রায়না। রোববার কেকেআরের বিপক্ষে শেষ ওভারে জয়ের অন্য ১৮ রান প্রয়োজন ছিল সানরাইজার্সের। আন্দ্রে রাসেলকে শেষ ওভারে ৩টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েও অল্পের জন্য শেষরক্ষা করতে পারেননি ডেভিড ওয়ার্নার। এরপর সুপার ওভারে প্রথম বলেই ফার্গুসনের শিকার হন তিনি। সুপার ওভারে তৃতীয় বলে ফার্গুসন সামাদের উইকেট তুলে নিলে নাইটদের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় মাত্র ৩ রান। দু’বল বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নাইটরা।