মঙ্গলবার, আগস্ট ২১, ২০১৮
প্রকাশ : 2018-06-13

সেই রবি উদ্বোধনী মঞ্চে!

মাত্র দুই বছরে কিভাবে সবকছিু পাল্টে যাওয়ার অপেক্ষায়! নাকি বিশ্বকে নতুন বার্তা দিতে চাচ্ছে রাশিয়া? বিশ্ব মাতাতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে লেলিনের দেশ। তারই অংশ হিসেবে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান মাতাতে নিয়ে আসা হচ্ছে বৃটিশ পপ গায়ক রবি উইলিয়ামসকে। সেই উইলিয়ামস, যার গানের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির দাবিতে বছর দুই আগেই সরব হয়েছিল রাশিয়ার গণমাধ্যম। হয়েছিল প্রতিবাদ সভাও। বিশ্ব খ্যাত এই পপ গায়কের প্রকাশিত দ্য বুটস ইন অ্যালবামে এমন কিছু শব্দ ব্যবহার করা হয়েছিল যাতে অপমানিত বোধ করেছিলেন রাশিয়ানরা। সেই রবিই থাকবেন উদ্বোধনী মঞ্চে রোনালদোর সঙ্গে। আগামীকাল রাশিয়া বনাম সউদী আরব ম্যাচ শুরু হওয়ার আধা ঘন্টা আগে হবে একটি সংক্ষিপ্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত নটায়। তার মানে রাত সাড়ে আটটার দিকে লুঝনিকি স্টেডিয়ামের আশি হাজার দর্শককে সুরের মুর্ছনায় বাধবেন রবি। এসময় একমাত্র ফুটবলার হিসেবে তার পাশে থাকবেন ব্রাজিলের সাবেক তারকা রোনালদো। আগের সূচিতে সামান্য রদবদল করে করা হয়েছে এই সূচি। পরশু ফিফার পক্ষ থেকে এমনটিই জানানো হয়েছে। রবি ছাড়াও গানে গানে মঞ্চ মাতাতে দেখা যাবে রাশিয়ার যুব সমাজের জনপ্রিয় গায়িকা আইদা গ্যারিফ্লনাকে। আর স্বাগতিক হিসেবে অনুষ্ঠানে রাশিয়ান সাস্কৃতির ছোঁয়া তো থাকবেই। নিজেদের ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মত বিশ্বের সর্ববৃহৎ ক্রীড়াজজ্ঞের আয়োজন করতে যাচ্ছে রাশিয়া। ১৯৮০ সালে মস্কো অলিম্পিকের পর এই প্রথম বড় কোন ক্রীড়াজজ্ঞ বসছে লেলিনের দেশে। এখন পর্যন্ত সব ঠিকঠাক আছে বলেই মনে হচ্ছে। রাশিয়ার বিরধী দেশগুলো নিরাপত্তা নিয়ে নানান বাহানা করলেও এখন পর্যন্ত এমন কোন আলামত পাওয়া যায়নি। লুঝনিকিও বিশ্ব মাতাতে প্রস্তুত। শেষবারের মত টানা হচ্ছে তুলির আচড়। মাঠের ঘাস কেটে ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে রাশিয়া নামটি। যারা উদ্বোধনী অনুষ্টানের টিকিট পাননি তাদের জন্য মাঠের বাইরে সংযুক্ত করা হয়েছে বিশাল পর্দা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই একটা বার্তা পাওয়া যায় বৈকি বাকি কাজটাও সংগঠকরা কিভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন। তবে রবি ও আইদা কিভাবে বিশ্বকে মুগ্ধতায় মাতাবেন সেটাই মূলত রয়েছে আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে। দুজনই অবশ্য প্রতিশ্রতি দিয়েছেন ভক্তদের মোহিত করার। রবি বলেছেন, রাশিয়ায় এসে ফের গান শোনাবার সুযোগ পাচ্ছি এবং সেটা দুর্দান্ত একটি অনুষ্ঠানে এটা আমার কাছে বিরাট ব্যাপার। এটা যেন স্বপ্ন ছোঁয়ার মতো ব্যাপার। আমি এমন কিছু শোনাব যা সারা বিশ্ব মনে রাখবে। আর আইদার মন্তব্য, আমার কল্পনাতেও কখনও আসেনি যে বিশ্বকাপের মঞ্চে নিজেকে কোনওদিন মেলে ধরতে পারব। আমাদের দেশে বিশ্বকাপ। সেখানে উদ্বোধনের দিন গান করার সুযোগ। এমন কিছু করতে হবে যাতে সবাই মনে রাখে। তবে রবির মত বিতর্কিত তারকাকে এনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ভদিমির পুতিনের দেশ কিভাবে সামাল দেন এর উপর নির্ভর করছে অনেক কিছুই। এটাও হতে পারে, প্রবল আলোচনা সত্তেও বিতর্কিত রবিকে নিয়ে আসা মানে বিশ্বের সামনে রাশিয়াকে উন্মুক্ত করে দেয়ার এক বহিপ্রকাশ।