মঙ্গলবার, আগস্ট ২১, ২০১৮
প্রকাশ : 2018-06-14

খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে আইনজীবীদের ভিন্ন মত

রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে মানবিক বিবেচনায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির দাবি করে দলটির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেনের বক্তব্যকে তাঁর ব্যক্তিগত মত বলে উল্লেখ করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি বলেন, ‘প্যারোলে মুক্তি নিয়ে খন্দকার মাহবুব হোসেন যে বক্তব্য দিয়েছেন এটা ওনার ব্যক্তিগত মতামত। আমাদের সঙ্গে তিনি আলোচনা করেননি।’ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে মাদকমুক্ত অভিযানের নামে ‘বিনা বিচারে হত্যাকাণ্ডের’ প্রতিবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সমিতির সভাপতি এ কথা বলেন। তবে সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ। তাঁর চিকিৎসার জন্য খন্দকার মাহবুব হোসেন সম্ভবত এ দাবি করেছেন। এর আগে গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, দীর্ঘ চার মাসের বেশি সময় ধরে কারাবন্দি থেকে খালেদা জিয়ার রোগ আরো জটিল আকার ধারণ করেছে, তৈরি করেছে জীবন শঙ্কা। এ অবস্থায় প্রচলিত আইনের ধারাবাহিকতায় দ্রুত মুক্তির সুযোগ না থাকায় প্যারোলই একমাত্র সমাধান। এ বক্তব্য প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘গতকালকে আমাদের একজন আইনজীবী (খন্দকার মাহবুব) যে বক্তব্য দিয়েছেন আমরা মনে করি, এটা তাঁর ব্যক্তিগত মতামত। তাঁর এই ব্যক্তিগত মতামতের ওপর আমরা কোনো বক্তব্য রাখতে চাই না।’ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার দাবি জানিয়ে সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘দেশের একজন নাগরিক এবং সাবেক তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁর চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। সেই চিকিৎসা তিনি যেভাবে চাইবেন সেভাবেই সেই চিকিৎসাসেবা দেওয়া উচিত। আমরা আইনজীবী হিসেবে মনে করি আইনের দৃষ্টিতে তাঁর সে অধিকার রয়েছে।’ লিখিত বক্তব্যে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘আমরা চাই বাংলাদেশ মাদকমুক্ত হোক। কিন্তু তা অবশ্যই আইন মোতাবেক হতে হবে। বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে নয়।’ তিনি বলেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নয়, প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী ও গডফাদার এবং এর সঙ্গে সম্পৃক্ত সব ব্যক্তিকে আইনের কাছে সোপর্দ করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। তবে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড থেকে সব মহলকে বিরত থাকার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

রাজনীতি পাতার আরো খবর