শুক্রবার, মে ২৯, ২০২০
প্রকাশ : 2018-06-21

সোমবার থেকে লাগাতার অনশন

সরকার নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির কার্যক্রম শুরু করলেও শিক্ষক-কর্মচারীদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। সকল প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবি পূরণের সুর্নিষ্ট ঘোষণা না দিলে আগামী সোমবার থেকে লাগাতার অনশন কর্মসূচি পালন করবেন। অবস্থান কর্মসূচি পালনের সঙ্গে বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের স্পিকারসহ সকল সংসদ সদস্যকে স্মারকলিপি দিয়েছেন। ননএমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সহ-সভাপতি মো. শফিকুল ইসলাম আজকালের খবরকে বলেন, ‘২০১০ সালে এমপিওভুক্তির সময় কোনো নীতিমালা ছিল না। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দীর্ঘসূত্রিতা সৃষ্টি করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় হঠাৎ নীতিমালা জারি করেছে। আমাদের দাবি সকল প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে হবে। রবিবারের মধ্যে সুর্নিষ্ট ঘোষণা না পেলে সোমবার থেকে লাগাতার অনশন কর্মসূচি পালন করবো।’ তিনি আরও বলেন, ‘বহু বছর ধরে বেতন-ভাতা না পাওয়ায় নন-এমপিও অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী কমেছে। ফলাফলও হয়তো খারাপ হয়েছে। শিক্ষকরা বেতন পেলে এমন অবস্থা হতো না। ১০০০ হাজার প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হলে অন্য প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাবে।’ সংগঠনের নেতারা জানিয়েছেন, পাঠদানের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে গতকাল সকালে জাতীয় সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার ও সংসদ সদস্যদের স্মারকলিপি দিয়েছেন। ফেডারেশনের সহসভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে আজ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্মারকলিপি পৌঁছে দিয়েছেন। শুক্রবার রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি দিবেন। শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত প্রতীকী অনশন করবেন। সরকারের প্রতিশ্রæতি আদায় করতে রবিবার পর্যন্ত শিক্ষকরা অপেক্ষা করবেন। ইতিবাচক সাড়া না পেলে সোমবার থেকে লাগাতার অনশন কর্মসূচি পালন করবেন। আজ ননএমপিও শিক্ষকদের দাবির প্রতি সংহতি প্রকাশ করেছেন সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. সুশান্ত কুমার দাস, বাংলাদেশ শিক্ষক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আবুল বাশার হাওলাদার, যুগ্ম সম্পাদক ড. সদরুল আমীন প্রমুখ। তারা শিক্ষকদের দাবি দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন।